আমেরিকার বিরুদ্ধে ‘বাজে’ কথা বলায় সোলাইমানিকে হত্যা করেছি – ট্রাম্প

ঢাকা অফিস \ ইরানের ক্ষমতাধর শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যাকান্ড নিয়ে এবার নতুন অজুহাত দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, আমেরিকার বিরুদ্ধে ‘বাজে’ কথা বলায় সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার ফ্লোরিডায় নির্বাচনের তহবিল সংগ্রহের এক অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তৃতায় ট্রাম্প এ কথা বলেন। খবর হাফপোস্ট। ওয়াশিংটন পোস্ট ও সিএনএনের বরাতে খবরে বলা হয়, ‘তিনি (সোলাইমানি) আমাদের দেশ সম্পর্কে খারাপ কথা বলছিলেন। যেমন, আমরা আক্রমণ করতে যাচ্ছি, আমরা আপনার লোকদের হত্যা করব’। তবে ইরানের নিহত সেনা কমান্ডারের পরিকল্পনায় কোনো ‘আসন্ন আক্রমণের’ কথা উলে।লখ করেননি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর আগে তিনি দাবি করেছিলেন, জেনারেল সোলাইমানি মার্কিন স্বার্থের ওপর বড় ধরনের হামলার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু শুক্রবার তহবিল সংগ্রহের অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তৃতায় ট্রাম্প সে কথা আর বলেননি তিনি। এর আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং তার প্রশাসনের অন্য কিছু কর্মকর্তা জেনারেল সোলাইমানির পক্ষ থেকে হামলা আসন্ন ছিল বলে যে মন্তব্য করেছিলেন সে ব্যাপারে তারা কিন্তু কোনো তথ্য-প্রমাণ দিতে পারেননি। সোমবার মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল এনবিসি জানিয়েছে, জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার জন্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কয়েকমাস আগে মার্কিন সামরিক বাহিনীকে কর্তৃত্ব দিয়েছিলেন। গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন ইরানের প্রভাবশালী জেনারেল কাসেম সোলাইমানি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে তাকে হত্যা করা হয়।  হামলায় ইরাকের পপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহান্দিস নিহত হন। এর জবাবে ৮ জানুয়ারি ইরানের সামরিক বাহিনী মার্কিন দুটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এতে ৮০ মার্কিন সেনা নিহত ও ২০০ জন আহত হয়ে বলে দাবি করে তেহরান। তবে হামলায় কোনো হতাহত হয়নি দাবি করে প্রেসিডন্ট ট্রাম্প বলেন, ইরানের হামলায় সামান্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আরো খবর...