আফগান নির্বাচনের ৫ মাস পর আশরাফ গনির জয় ঘোষণা

ঢাকা অফিস ॥ আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল নিয়ে তিক্ত বিতর্ক এবং দীর্ঘ বিলম্বের পর অবশেষে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির জয় ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এক সংবাদ সম্মেলনে মোট ভোটের প্রায় ১৫ শতাংশের অডিটের পর ফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশনের প্রধান বলেন, খুবই কম ভোটের ব্যবধানে ৫০.৬৪ শতাংশ ভোটে জয়ী হয়েছেন আশরাফ গনি। জয় পেতে দরকার ছিল ন্যূনতম ৫০ শতাংশ ভোট। গনি এর সামান্য একটু বেশি ভোটে জিতেছেন। আর তার প্রতিপক্ষ আবদুল¬াহ পেয়েছেন ৩৯.৫ ভোট। গনি জয় পাওয়ায় তিনি আরেকবারের জন্য আগামী পঁচবছর মেয়াদে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট হলেন। বিরোধীদলীয় রাজনীতিবিদরা এ ফলের বিরোধিতা করছে। এতে করে যুক্তরাষ্ট্র-তালেবানের সম্ভাবনাময় শান্তি চুক্তির আগে দিয়ে পুরোদস্তুর আরেকটি রাজনৈতিক সংকট দেখা দেওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। গনির প্রধান প্রতিপক্ষ আবদুল¬াহ আবদুল¬াহর সমর্থকরা গনির অনুকূলে ফল প্রকাশ করার জন্য আফগান নির্বাচন কমিশনকে দোষারোপ করেছে এবং প্যারালাল সরকার গড়ারও হুমকি দিয়েছে। আফগানিস্তানে একের পর এক তালেবান হামলা এবং নির্বাচন বানচালের চেষ্টার মধ্যে গত ২৮ সেপ্টেম্বরে ভোট হয়। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান আলোচনার কারণে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন দুই দফা পিছিয়েও গিয়েছিল। কিন্তু পরে একটি চুক্তিতে উপনীত হতে হতে শেষ পর্যন্ত ওই আলোচনা ভেস্তে যাওয়ায় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে আফগান সরকার। কিন্তু তালেবান গোষ্ঠী ভোটকেন্দ্রে হামলা চালানোর হুমকি দেওয়ায় ভোটার উপস্থিতি অস্বাভাবিক রকম কম ছিল এবং ভোট গ্রহণ পদ্ধতি নিয়ে অনেক বেশি অভিযোগ উঠার কারণে ভোটের ফলাফল অধিকাংশের কাছে গ্রহণযোগ্য না হওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়। সেক্ষেত্রে ভোটের ফল বাতিল হয়ে যাওয়া বা দেশজুড়ে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ারও শঙ্কা ছিল। ডিসেম্বরে নির্বাচন কমিশন ভোটের ‘প্রাথমিক ফলে’ গনির জয় ঘোষণা করে। কিন্তু প্রতিপক্ষ আবদুল¬াহ আবদুল¬াহ কারচুপির অভিযোগ তুলে এ ফল প্রত্যাখ্যান করেন এবং ভোট পুনর্গণনার আহ্বান জানিয়েছিলেন। তবে গনি  নির্বাচন নিয়ে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেন।

আরো খবর...