অবমাননাকর মন্তব্যের অভিযোগে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার

নিজ সংবাদ ॥ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে অবমাননাকর ও মর্যাদাহানিকর মন্তব্য করায় কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আবদুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর পরেশ চন্দ্র বর্মনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সার্বিক বিষয়টি তদন্ত করে উপাচার্যের কাছে যথা শিগগিরই প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। ওই অফিস আদেশে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সাজ্জাদ হোসেন নামের এক ব্যক্তির স্ট্যাটাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্রী তানজিদা সুলতানা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অবমাননাকর এবং মর্যাদাহানিকর মন্তব্য করেন। এরূপ মন্তব্য জাতির পিতার জন্য অসম্মানজনক যা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়েরও ভাবমূর্তি বিনষ্ট করেছে।’ কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না তা বিশ্ববিদ্যালয়  খোলার পর ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তানজিদা সুলতানাকে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তানজিদা সুলতানা বলেন, ‘ ফেসবুক পোস্ট দেখার পর বিভিন্নজন  সেখানে মন্তব্য করেন। তাঁদের বেশির ভাগ মন্তব্য ছিল এই মুহূর্তে আন্দোলন করা উচিত। এ ধরনের মন্তব্য দেখে মনে হয়েছে আন্দোলন করা ঝুঁকিপূর্ণ। আমি একবারে উত্তেজনাবশত একটা মন্তব্য লিখেছি। এটা মনের ভুলে লিখেছি। হয়তো আমার কথাটা বুঝতে পারেনি। এ জন্য যথেষ্ট অনুতপ্ত, লজ্জিত। আমি সবার কাছে হাতজোড় করে মিনতি করছি, ক্ষমা যাচ্ছি। আমার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে।’ তানজিদা সুলতানা জানান, বিভিন্নজন ফোন করে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এতে তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

আরো খবর...