অধস্তন আদালতে করোনায় মৃত্যুহার ০.৫৭ শতাংশ

ঢাকা অফিস ॥  অধস্তন আদালতে করোনা শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৬৬ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার শূন্য দশমিক ৫৭ শতাংশ। যা জাতীয় সুস্থতার হারের চেয়ে যথাক্রমে সাড়ে ৮ শতাংশ বেশি এবং জাতীয় মৃত্যুর হারের চেয়ে শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ কম। গতকাল রোববার আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের শনিবারের স্বাস্থ্য বুলেটিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে করোনা শনাক্তের বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩২ শতাংশ। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ পরিচালিত করোনা মনিটরিং ডেস্কের গত শনিবার পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, অধস্তন আদালতে করোনা ভাইরাসজনিত রোগ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫০ জন। এদের মধ্যে বিচারক ৭৩ জন ও কর্মচারী ২৭৭ জন। অন্যদিকে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়েছেন ২৩১ জন। এদের মধ্যে ৪৬ জন বিচারক এবং ১৮৫ জন কর্মচারী। বর্তমানে ২৭ জন বিচারক অসুস্থ রয়েছেন। তাদের মধ্যে ২৫ জন নিজ বাসায় এবং ২ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কর্মচারী অসুস্থ রয়েছেন ১০২ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ২ জন মৃত্যুবরণ করেছেন, যাদের মধ্যে ১ জন বিচারক ও ১ জন কর্মচারী। অধস্তন আদালতে সুস্থতার ও মৃত্যুর হার উভয় ক্ষেত্রে বিচারকদের চেয়ে কর্মচারীরা ভালো অবস্থানে রয়েছেন। আইন ও বিচার বিভাগের মনিটরিং ডেস্কের গতকালের তথ্য- উপাত্ত বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় করোনা শনাক্ত বিবেচনায় বিচারকদের সুস্থতার হার ৬৩ শতাংশ এবং কর্মচারীদের সুস্থতার হার ৬৬ দশমিক ৭৮ শতাংশ। অন্যদিকে করোনা শনাক্ত বিবেচনায় বিচারকদের মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৬ শতাংশ। সেখানে কর্মচারীদের মৃত্যুর হার শূন্য দশমিক ৩৬ শতাংশ। মনিটরিং ডেস্কের প্রধান সমন্বয়ক ড. শেখ গোলাম মাহবুব জানান, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এবং আইন সচিব মো. গোলাম সারওয়ার মনিটরিং ডেস্কের রিপোর্ট প্রতিদিন পর্যবেক্ষণ করছেন ও আক্রান্তদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর রাখছেন।

আরো খবর...