সিপিডি’র বক্তব্য অনভিপ্রেত ও অগ্রহণযোগ্য – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সরকারের ১০০ দিনের কর্মসূচি নিয়ে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) যে কথা বলেছে তা অনভিপ্রেত, অগ্রহণযোগ্য। মন্ত্রী বলেন, ‘সিপিডি সরকারের ১০০ দিন পার হওয়ার পর যে রিঅ্যাকশান দিয়েছে এটি অনভিপ্রেত, অগ্রহণযোগ্য। গত ১০ বছর ধরে দোষ খুঁজে বেড়ানো তাদের যে স্বাভাবিক প্রবৃত্তি, এটিও তারই অংশ।’ তথ্যমন্ত্রী গতকাল বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন। হাছান মাহমুদ বলেন, ‘এই সময়ে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা সব মিলিয়ে দুই থেকে আড়াই গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, গত ১০ বছর ধরে সিপিডি শুধু দোষই খুঁজে বেড়িয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘তারা বাজেটের আগে একবার দোষ খোঁজে, বাজেটের পরে একবার খোঁজে, বছরান্তে একবার খোঁজে, সব সময় দোষ খুঁজে বেড়ায়। তাহলে স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন জাগে সিপিডি কাজ কি শুধু দোষ খুঁজে বেড়ানো? এই যে অগ্রগতি গত ১০ বছরে হয়েছে দুঃখজনক হলেও সত্য এটি তারা দেখেন না। এটি তাদের দৈন্যতা এবং ব্যর্থতা।’ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশে গত ১০ বছরে অভুতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। বাংলাদেশ স্বল্প আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নিত হয়েছে। মানুষের মাথাপিছু আয় তিন গুণের চেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে আগে ৬০০ ডলার ছিল যা এখন ২০০০ হাজার ডলারে পৌঁছেছে।’ তিনি বলেন, আজ সমগ্র পৃথিবী দেখছে যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং এর প্রশংসা করছে। গত ১০০ দিনে সরকার অনেকগুলো কাজ করেছে বিশেষ করে অর্থনৈতিক উন্নয়ন। অথচ সিডিপি এগুলো দেখতে পাচ্ছে না। এটি তাদের ব্যর্থতা। তবে, আমরা আশা করবো সিপিডি তাদের ব্যর্থতা কাটিয়ে সরকার যে অগ্রগতি ও উন্নয়ন করছে সেটির দিকে দৃষ্টি দেবে। বিএনপির সংসদে যাওয়া নিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি গত নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেও সংসদে যাচ্ছে না। বিএনপি একটি দল নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য যে ধরণের উদ্যোগ ও আয়োজন দরকার ছিল সেটি তারা করেনি। তারা যদি সঠিকভাবে কাজ করতো, নমিনেশন বাণিজ্য যদি না হতো তারা আরো বেশি আসন পেতে পারতো। তিনি বলেন, তারা নির্বাচিত হওয়ার পর যে সংসদে যাবে না বলছে, শপথ নেবে না বলছে, এটি জনগণ প্রতি অবজ্ঞা প্রকাশ ছাড়া আর কিছু না। এটি রাষ্ট্রের প্রতিও অবজ্ঞা প্রকাশ করা। হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে প্রশ্নবিদ্ধ করার মহাপরিকল্পনার এটি একটি অংশ। গত নির্বাচনের তারা অংশ গ্রহণ করেছিল নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্যে, যে কারণে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেও তারা করেনি। আর এখন যে সংসদে তারা শপথ গ্রহণ করবে না বলছে এটিও গণতন্ত্রকে প্রশ্নবিদ্ধ করার, গণতন্ত্রের যাত্রাকে ব্যাহত করার ষড়যন্ত্রের অংশ। তবে, এতে গণতন্ত্র ব্যাহত হবে না, গণতন্ত্রের যে অব্যাহত অভিযাত্রা এটি বজায় থাকবে। বরং বিএনপি নিজেকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

কালুখালীতে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ পালনে র‌্যালী

ফজলুল হক ॥ গতকাল বুধবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ ২০১৯ পালনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কালুখালীর আয়োজনে এ উপলক্ষ্যে সকাল ১১টায় বিশাল একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আশপাশ রাস্তা প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে সমাপ্ত করে। র‌্যালী পরবর্তী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হলরুমে এক আলোচনা সভায় আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ খোন্দকার আবু জালাল এর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেডিকেল অফিসার তুষার কান্তি রায়, ডাঃ ইবাদত হোসেন এছাড়াও রতনদিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুশীল কুমার রাহা, সেনেটারি ইন্সপেক্টর তালেবুর রহমান, মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ইপিআই) শম্ভু নাথ দেবনাথ ও সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ক এর ম্যানেজার মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম সহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য সেবিকা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনায় সভাপতি ডাঃ খোন্দকার আবু জালাল জাতীয় পুষ্টি সেবা সপ্তাহর তাৎপর্য তুলে ধরে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য রাখেন।

ঝিনাইদহ সরকারি বালক বিদ্যালয়ের ছাত্রকে ছুরিকাঘাত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহ সরকারি বালক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র রাহুল হুড়কে ছুরিকাঘাত করেছে তার সহপাঠি ও বহিরাগতরা। বুধবার সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে। রাহুল বালক বিদ্যালয়ের প্রভাতী শাখার ছাত্র। সে শহরের পাগলা কানাই এলাকার ডা: রতন কুমার হুড়’র ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে ওই বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণীর ছাত্র রাতুলের সাথে সহপাঠি ত্বাঈনের বাক-বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে ত্বাঈন বহিরাগত নয়ন, খালিদ হাসান ও রাকিব রহমান নামের দুই বখাটেকে ডেকে আনে। বহিরাগত বখাটেরা রাতুলকে মারধর করতে গেলে রাহুল তাদের বাঁধা দেয়। একপর্যায়ে নয়ন, খালি ও রাকিব রাহুলকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খান বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জায়ানের পরিবারের প্রতি সান্ত¡না জানাতে শেখ সেলিমের বাসায় প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলম্বোতে বোমা বিস্ফোরণে নিহত জায়ান চৌধুরীর পরিবারের প্রতি সান্ত¡না জানাতে গতকাল বুধবার তার নানা আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের রাজধানীর বনানীর বাসায় যান। প্রধানমন্ত্রী বেলা ২টা ৪৫ মিনিটে জায়ান চৌধুরীর নানা এবং তাঁর ফুপাত ভাই শেখ সেলিমের বনানীস্থ বাসায় যান। শেখ হাসিনা এই বাসায় এক ঘন্টারও বেশি সময় অতিবাহিত করে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত¡না দেন। এসময় উক্ত বাসায় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রধানমন্ত্রী আট বছর বয়সী নিহত জায়ান চৌধুরীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন। উত্তরার একটি স্কুলের ২য় শ্রেনীর ছাত্র জায়ান, মশিউল হক চৌধুরী ও শেখ সোনিয়া দম্পতির পুত্র। শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোতে গত রোববার সন্ত্রাসীদের বোমা হামলায় মশিউল আলম চৌধুরীরও বোমার স্প্রিন্টারের আঘাতে কিডনী ও লিভারে গুরুতরভাবে জখমপ্রাপ্ত হন। মশিউল দম্পতি তাদের দুই সন্তানকে নিয়ে ছুটি কাটাতে শ্রীলংকায় যান। হোটেলে বোমা বিস্ফোরণের সময়ে শেখ সোনিয়া তার ছোট পুত্রসহ হোটেল রুমে অবস্থান করছিলেন। শ্রীলংকার বিভিন্ন গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৩৫৯ জন নিহত ও ৫শত জনের মতো আহত হয়েছেন। গতকাল দুপুরে জায়ানের মরদেহ কলম্বো থেকে ঢাকায় এসে পৌঁছে। জায়ানের মরদেহ বহনকারী শ্রীলংকান এয়ার লাইন্সের একটি বিমান বেলা ১২ টা ৪২ মিনিটে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করে।

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকার – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ রোজার আগে নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার ব্যর্থ হয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। নয়া পল্টনে দলের কার্যালয়ে গতকাল বুধবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, “ক’দিন আগে বাণিজ্যমন্ত্রী ঘটা করে ঘোষণা করেছিলেন রমজানকে সামনে রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়বে না। তার পরদিনই হু হু করে দাম বেড়েছে প্রায় সকল পণ্যের। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে গিয়ে হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে ক্রেতারা। মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে।” তিনি বলেন, “পবিত্র রমজানের প্রাক্কালে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। এই ব্যর্থ সরকারকে আমরা ধিক্কার জানাই।” দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপি কর্মসূচি দেবে কিনা জানতে চাইলে রিজভী বলেন, “আমরা প্রতিবাদ করলাম এটাও কর্মসূচির অংশ। দলীয় ফোরামে আলাপ করে জনগণকে সচেতন করতে অবশ্যই আমাদের কর্মসূচি থাকবে।” রিজভী বলেন, “অবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় থাকে তারা কখনই জনস্বার্থ দেখে না, জনকল্যাণ করতে পারে না। সারা ঢাকা শহরে ওয়াসার দূষিত পানি সরবারহে জনজীবন এখন ভয়ংকর রকম সংকটাপন্ন হয়ে পড়েছে।” তিনি আরও বলেন, ওয়াসা কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে নির্বিকার। বাড়ি বাড়িতে টাইফয়েড, ডায়রিয়া, জ্বর মহামারী আকার ধারণ করেছে। এখন মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’র মতো গরীব মানুষের অবস্থা। একদিনে আনাজ-পাতির অগ্নিমূল্য অন্যদিকে দূষিত পানি পান জনজীবনকে করে তুলেছে দুর্বিষহ। রিজভী বলেন, “আমরা সরকারি প্রতিষ্ঠান ওয়াসার মানববিধ্বংসী নীতির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে বিশুদ্ধ পানি সরবারহ নিশ্চিত করার আহ্বান জানাচ্ছি।” সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম মোশাররফ হোসেন, মাহবুবুল হক নান্নু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

আলমডাঙ্গায় বাল্যবিবাহ, যৌতুক নিরোধ, নারী ও শিশু পাচার রোধ প্রতিরোধ বিষয়ক সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসের উদ্যোগে বেলগাছি ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে বিকেল ৪টার দিকে বাল্যবিবাহ, যৌতুক নিরোধ, নারী ও শিশু পাচার রোধ, যৌন হয়রানী ও নারীর প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধে সচেতনামুলক উঠান  বৈঠক সহ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উম্মে ছালমা আক্তার। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেলগাছি ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আমিরুল ইসলাম মন্টু। তিনি বলেন সমাজে নারী নির্যাতন, ব্যাল্য বিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ব্যাপারে সকল শ্রেনীর মানুষকে সাথে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে এবং জনসচেনতা বৃদ্ধির লক্ষে কাজ করতে হবে। সভায় বিশেষ অতিথি হাসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য বাবুল আক্তার, বিপ্লব মিয়া, রবিউল হক। অফিস সহকারি হুসনেয়ারার উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবু সাইদ বাচ্চু, মুক্তার আলী, ইউপি সচিব মিলন হোসেন, মহিলা  মেম্বার সুফিয়া খাতুন, সাজেদা খতুন প্রমুখ।

 

প্রক্টরের আশ্বাসে নীলক্ষেত ছাড়লেন শিক্ষার্থীরা

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের দেওয়া পাঁচ দফা দাবি বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গতকাল বুধবার বেলা দেড়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানী নীলক্ষেত মোড়ে চলা শিক্ষার্থীদের আন্দোলনস্থলে এসে এ আশ্বাস দেন। শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো লিখিত আকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে জমা দেওয়ার আহ্বানও জানান তিনি। প্রক্টর বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো নিয়ে আমরা ভিসি স্যারের সঙ্গে আলোচনা করেছি। আগামী ২৮ তারিখ তোমাদের দাবি নিয়ে সিন্ডিকেট সভায় আলোচনা করা হবে। সেখানে সাত কলেজের প্রতিনিধিও রাখা হবে।’ এ ছাড়া তিনি সাত কলেজ সম্পর্কে ইতিমধ্যে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা লিখিত বক্তব্য আকারে পেশ করেন। লিখিত বক্তব্যে প্রক্টর বলেন, পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে সব বিষয়ের ফল প্রকাশ করার ব্যাপারে ইতিমধ্যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেসব বিষয়ে অধিক হারে অকৃতকার্য হয়েছে, সেসব বিষয়ে আবেদনক্রমে পুনর্মূল্যায়নের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সাত কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ইতিমধ্যে প্রশাসনিক ভবনে স্বতন্ত্র সেল গঠন করা হয়েছে। ভবিষ্যতে সাত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র নতুন ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। অধিভুক্ত সাত কলেজের সেশনজট নিরসনের জন্য ক্রাশ প্রোগ্রাম বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষদের সঙ্গে আলোচনাক্রমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একাডেমিক ক্যালেন্ডার তৈরি প্রক্রিয়াধীন। ২০১৬ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ পরীক্ষার ফল ইতিমধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে। ডিগ্রি প্রথম বর্ষ ২০১৭ পরীক্ষার রুটিন প্রকাশিত হয়েছে। এ ছাড়া মাস্টার্স ২০১৬ অনলাইনে ফরম পূরণ ও অনার্স দ্বিতীয় বর্ষ পরীক্ষা শুরুর তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া আগামী ২৮ এপ্রিল উপাচার্যের সভাপতিত্বে সাত কলেজের অধ্যক্ষদের সঙ্গে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানকল্পে করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে বলেও জানান তিনি। বিকেলে দাবিগুলো নিয়ে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের একটি দলের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে।এর আগে অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় দিনের মতো বেলা ১১টার দিকে নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন। এ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ ও সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা আড়াই লাখ।

সড়কে আইন ভঙ্গে ২৪ ঘণ্টায় জরিমানা ৩৩ লাখ টাকা

ঢাকা অফিস ॥  ট্রাফিক আইন অমান্য করায় ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশ ৩৩ লাখ ৩২ হাজার ২৫০ টাকা জরিমানা করেছে। এসময় ৬ হাজার ৭৫৭টি মামলাও করা হয় বলে জানান ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মো. ওবায়দুর রহমান। তিনি বলেন, “গত ২৪ ঘণ্টার অভিযানে জরিমানা মামলা ছাড়াও ৩৬টি গাড়ি ডাম্পিং ও ৮২৯টি গাড়ি রেকার করা হয়েছে। ” হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার করার দায়ে ১১৬টি, হুটার (সাইরেন) ও বিকনলাইট ব্যবহার করার জন্য ২টি, উল্টোপথে গাড়ি চালানোর কারণে ১৩৮০টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ট্রাফিক বিভাগ।

সড়কে আইন না মেনে চলার কারণে ২৫২৯টি মোটর সাইকেলের বিরুদ্ধে মামলা করা ছাড়াও ১০১টি মোটর সাইকেল আটক করে পুলিশ। এছাড়া স্টিকার ব্যবহার করার জন্য ১টি, মাইক্রোবাসে কালো গ¬াস লাগানোর জন্য ৬টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। সেই সঙ্গে গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করার অপরাধে চালকের বিরুদ্ধেও ৮টি মামলা করা হয়। সড়কে আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি মাদক বিরোধী অভিযানও পরিচালনা করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান বলেন, “গত ২৪ ঘণ্টায় মাদক সেবন ও বিক্রির অভিযোগে ঢাকা মহানগর থেকে ৬৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।” তাদের কাছ থেকে ৩ হাজার ৯৮১টি ইয়াবা, এক হাজার ১৮২ পুরিয়া হেরোইন এবং ৪৪৪ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। আটক হওয়াদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে বিভিন্ন থানায় ৪৬টি মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গাংনী ‘উপজেলার উন্নয়ন নিয়ে ভাবনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার উন্নয়ন নিয়ে ভাবনা শীর্ষক মতবিনিময়, আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার সময়  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের আঙ্গিনায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নব-নির্বাচিত গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেহেরপুর জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক চেয়ারম্যান হিসাবে যোগদান উপলক্ষে এ আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ খালেক। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি  হিসাবে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল, গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম)। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন-উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল হক জুয়েল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন। মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গাংনী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও আ.লীগ নেতা আহম্মেদ আলী, পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু, গাংনী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন, কাথুলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা প্রমুখ। এ সময় মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন জেলা আ.লীগের  সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম, জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল হক মাস্টার, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান তৌহিদ মুর্শেদ অতুল, গাংনী উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা আ.লীগের সহ-প্রচার সম্পাদক মহিবুর রহমান মিন্টু, জেলা কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফজলুল হক, রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম সাকলায়েন ছেপু, সাহারবাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক, মটমুড়া ্ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ  প্রমুখ। গাংনী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশের সঞ্চালনায় এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, গাংনী পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাহিবুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুজ্জামান শিপু, গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা, ব্যবসায়ী, স্থানীয় আ.লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও কৃষকলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ ট্রাইথলোন ফেডারেশনের টিম ম্যানেজার হিসাবে নেপাল যাচ্ছেন সালাহ্ উদ্দিন খান তারেক

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥  বাংলাদেশ ট্রাইথলোন ফেডারেশনের টিম ম্যানেজার হিসাবে নেপাল যাচ্ছেন কুষ্টিয়ার কুমারখালীর শিলাইদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও শিলাইদহ ট্রাইথলোন ক্লাবের সভাপতি ক্রীড়াবিদ  মো: সালাহ্উদ্দিন খান তারেক। নেপালের বিখ্যাত শহর পোখারাতে অনুষ্ঠিতব্য সাইথ এশিয়ান ট্রাইএ্যাথলোন গেমসে অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যে আজ ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে হজরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করবেন। এই প্রতিযোগীতায় ভারত, নেপাল, ভুটান ও শ্রিলংকার খেলোয়াড়দের সঙ্গে বাংলাদেশের খেলোয়াড় হিসাবে প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করবেন মো: রফিকুল ইসলাম ও মোছা: মেরিনা খাতুন।

চলে গেলেন অভিনেতা সালেহ আহমেদ

ঢাকা অফিস ॥ নাটক ও সিনেমার পরিচিত মুখ নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় অভিনেতা সালেহ আহমেদ আর নেই। ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বুধবার বেলা আড়াইটায় তার মৃত্যু হয় বলে জানান শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম। ৮৩ বছর বয়সী এই অভিনেতা বার্ধক্যজনিত নানা জটিলদায় ভুগছিলেন। বছর ছয়েক আগে স্ট্রেক করার পর তিনি হাঁটাচলার শক্তিও হারিয়ে ফেলেন। নাসিম জানান, শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে গত পরশু সালেহ আহমেদকে অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার সেখানেই তার মৃত্যু হয়। বগুড়ার সারিয়াকান্দির সন্তান সালেহ আহমেদ চাকরি করেছেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে। এক সময় মঞ্চ নাটকের সঙ্গে যুক্ত এই অভিনেতা ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পর পুরোপুরি অভিনয়ে মন দেন।  অয়োময়, কোথাও কেউ নেইসহ হুমায়ূন আহমেদের বহু নাটকে সালেহ আহমেদের অভিনয় এখনও টেলিভিশন দর্শকদের মনে আছে। হুমায়ূন আহমেদের আমার আছে জল, শ্রাবণ মেঘের দিন ও আগুনের পরশমণি সিনেমাতেও তিনি অভিনয় করেছেন। স্বাধীনতা পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনয়শিল্পীর চিকিৎসার খরচ চালাতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছিল তার পরিবারকে। তাদের আবেদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত জানুয়ারি মাসে সালেহ আহমেদের চিকিৎসার জন্য ২৫ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র দেন।

গাংনী উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যানদের বরণ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এমএ খালেক, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল হক জুয়েল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিনকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বরণ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গাংনী উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে বরণ করা হয়। উপজেলা প্রশাসন এ বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান  ও মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। বিশেষ অতথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম), উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট রাশেদুল হক জুয়েল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন। এ সময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.মাহবুবুর রহমান প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

 

কালুখালীতে মানসম্মত পোনা উৎপাদন  বিষয় প্রশিক্ষন

ফজলুর হক ॥ গতকাল মঙ্গলবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে ন্যাশনাল এগ্রিকালচারাল টেকনোলজি ফেজ প্রজেক্ট (্এন.এ.টি.পি-২) এর আওতায় ২০১৮-২০১৯ আর্থ বছরে নার্সারী অপারেটরদের মানসম্মত পোনা উৎপাদন  বিষয় প্রশিক্ষন  অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তর কালুখালী এর আয়োজনের উপজেলা পরিষদের  সম্মেলন কক্ষে দিনব্যাপি এই প্রশিক্ষনে  প্রশিক্ষন প্রদান করেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম। অতিথি হিসাবে উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা,  ক্ষেত্র সহকারী হাসানুজ্জামান হিমু  উপস্থিত ছিলেন । প্রশিক্ষনে মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম মানসম্মত রেনু পোনা উৎপাদনে অংশগ্রহনকারী নার্সারী অপারেটরদের বিভিন্ন তথ্য প্রদান করেন

পোশাক খাতের মজুরি ২৬ শতাংশ কমেছে – টিআইবি

ঢাকা অফিস ॥ তৈরি পোশাক খাতের মজুরি নিয়ে মালিকপক্ষ শ্রমিকদের সঙ্গে শুভঙ্করের ফাঁকি দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংস্থাটি বলছে- নতুন কাঠামোতে মজুরি বাড়েনি, উল্টো ২৬ শতাংশ কমেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীতে টিআইবি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়। ‘তৈরি পোশাক খাতে সুশাসন: অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন সংস্থার সহকারী প্রোগ্রাম ম্যানেজার নাজমুল হুদা মিনা ও মো. মোস্তফা কামাল। সংবাদ সম্মেলনের টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, আইন অনুযায়ী প্রতি বছর ৫ শতাংশ হারে মজুরি বাড়ানোর নিয়ম। সেই হিসাবে মজুরি বাড়েনি, বাস্তবে সার্বিকভাবে ২৬ শতাংশ কমানো হয়েছে। টিআইবি জানায়, ২০১৩ সালের ঘোষিত মজুরি অনুযায়ী প্রথম গ্রেডে ছিল ৮ হাজার ৫০০ টাকা। চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি ঘোষিত প্রথম গ্রেডে নতুন মজুরি করা হয় ১০ হাজার ৯৩৮ টাকা। কিন্তু ৫ শতাংশ ইনক্রিমেন্টসহ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ সালে মজুরি হওয়ার কথা ছিল ১৩ হাজার ৩৪৩ টাকা। সেই হিসাবে মজুরি দুই হাজার ৪০৫ টাকা বা ২৮ শতাংশ কমেছে। এভাবে নতুন কাঠামোতে মজুরি সার্বিকভাবে ২৬ শতাংশ কমেছে। ইফতেখারুজ্জামান বলেন, পোশাক খাতে অনেক অগ্রগতি হলেও প্রতিটি ক্ষেত্রেই ঘাটতি রয়েছে। শ্রমিকদের অধিকারের বিষয়টি পর্যাপ্ত দৃষ্টি দেয়া হচ্ছে না। ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধির মধ্যে শুভঙ্করের ফাঁকি রয়ে গেছে। ‘বাস্তবে মজুরি কমে গেছে বলে ধারণা করা হতো। আমাদের প্রতিবেদনেও তা উঠে এসেছে। আগের তুলনায় ২৬ শতাংশ মজুরি কমে গেছে। সেটি তো বাড়েইনি বরং যারা আন্দোলন করেছেন, তাদের মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়েছে। চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।’ ট্রেড ইউনিয়নের ক্ষেত্রে আইনি ও প্রায়োগিক দুর্বলতা রয়েছে। মাত্র ৩ শতাংশ কারখানায় ট্রেড ইউনিয়ন গঠিত হয়েছে, যার অধিকাংশই মালিকদের দ্বারা প্রভাবিত বলে মনে করেন তিনি। বেসরকারি এই গবেষণা সংস্থাটি আরও জানায়, পোশাক খাতে অধিকাংশ সাব-কন্ট্রাক্টর নির্ভর কারখানায় ন্যূনতম মজুরি দেয়া হয় না। এ ছাড়া নতুন মজুরি কাঠামোতে মালিকপক্ষের মূল মজুরি বৃদ্ধি ২৩ শতাংশ দাবি করা হলেও প্রকৃত হিসাবে ২০১৩ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে তা প্রায় ২৬ শতাংশ কম। এ ছাড়া মজুরি বৈষম্য নিয়ে আন্দোলন করায় পাঁচ হাজার শ্রমিককে আসামি করে ৩৫টি মামলা করা হয়েছে। ১৬৮টি কারখানায় ১০ হাজার শ্রমিককে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

গণমাধ্যম কর্মীদের সুরক্ষায় দুটি আইন আসছে – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ দেশে গণমাধ্যম কর্মীদের চাকরিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সুরক্ষা প্রদানে জাতীয় সংসদের অধিবেশনে দুটি আইন উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, আগামীকাল (বুধবার) একটি অধিবেশন শুরু হবে। কিন্তু এ অধিবেশনে আমরা আইন দুটি উপস্থাপন করতে পারব না। তবে আশা করছি, এর পরের অধিবেশনে আইন দুটি উপস্থাপন করতে পারব। গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের চেয়ারম্যান রেজওয়ানুল হক, সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ, সারাবাংলা ডটনেট, দৈনিক সারাবাংলা ও জিটিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গণমাধ্যম কর্মীদের সুরক্ষায় গণমাধ্যমকর্মী আইন ও সম্প্রচার আইনের খসড়া চূড়ান্ত করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। এটি ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি, আইন মন্ত্রণালয় দ্রুত সময়ের মধ্যে ভেটিং দিয়ে দেবে। এরপরই আমরা আইন দুটি জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করব। তবে আগামীকাল (বুধবার) শুরু হওয়া অধিবেশনে উপস্থাপন করা সম্ভব হবে না। আশা করছি, এর পরের অধিবেশনে উপস্থাপন করতে পারব।’এ আইন দুটি পাস হলে যখন তখন চাকরি চলে যাওয়াসহ সাংবাদিকদের যেসব সমস্যা দেখা দেয় সেগুলোর আইন প্রটেকশন দেয়া সম্ভব হবে বলে উল্লেখ করেন তথ্যমন্ত্রী।সাংবাদিকদের জন্য আলাদা তহবিল গঠনের বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের জন্য ট্রাস্ট গঠন করেছেন। তবে প্রধানমন্ত্রীর সাংবাদিক ট্রাস্টের মাধ্যমে কেউ মারা গেলে বা অসুস্থ হলে সহায়তা করা যায়। অন্য কোনো কারণে সাহায্য করা যায় না। ইতোমধ্যে আমরা আলোচনা করেছি, চাকরি চলে যাওয়াসহ অন্যান্য অসুবিধায় সহায়তার বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।’তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হওয়ার কারণে সাংবাদিকদের নানা সমস্যা, প্রতিকূলতা এবং বাংলাদেশের গণমাধ্যমের সমস্যার সাথে আমি আগে থেকেই পরিচিত। এ কারণে আমি এ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেয়ার পর নিজে উদ্যোগী হয়ে এবং গণমাধ্যমের সহায়তায় এসব সমস্যা সমাধানে কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।’‘এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে আইন ভঙ্গ করে বাংলাদেশে ডাউনলিংকপূর্বক সম্প্রচারিত সব বিদেশি টিভি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করা। পৃথিবীর কোনো দেশেই বিদেশি টিভি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার হয় না। এটি আমরাও বন্ধ করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি’ -বলেন তিনি।তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিদেশি টিভি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচারের ক্ষেত্রে যে বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছিল সেটাকে শৃঙ্খলায় আনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। বিশৃঙ্খলার জন্য প্রায় হাজার কোটি টাকার বিজ্ঞাপন বিদেশে চলে যাচ্ছে। যেটা বাংলাদেশি চ্যানেলগুলো পেতে পারতো। এ টাকা দেশি চ্যানেলগুলো পেলে অর্থ সঙ্কট হতো না। অনেক ক্ষেত্রে বার্তা বিভাগ বন্ধ করে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে, এগুলো হতো না।তিনি আরও বলেন, ‘বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করেছি। তাদের অভিমত হচ্ছে, ক্যাবল নেটওয়ার্কগুলো যখন ডিজিটালাইজড হবে তখন এটি বাস্তবায়ন সহজ হবে। এ জন্য কোয়াবের সঙ্গে আলোচনা করেছি। তারা বলেছেন, ঢাকা ও চট্টগ্রামে এ বছরের মধ্যেই ডিজিটালাইজড করতে পারবে। তবে আমি তাদের অনুরোধ জানিয়েছি, ঢাকা-চট্টগ্রামের পাশাপাশি দেশের সব সিটি কর্পোরেশনে যেন এ বছরই ডিজিটালাইজড করা হয়।’

মেহেরপুরে তুলাচাষ সম্প্রসারনে কৃষকদের নিয়ে উদ্বুদ্ধকরন কর্মশালা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরে তুলাচাষ সম্প্রসারনে কৃষকদের নিয়ে উদ্বুদ্ধকরন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে জেলার গাংনী উপজেলার বামন্দীতে এ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধান তুলা উন্নয়ন কর্মকর্তা সেন দেবাশীষ, তুলা উন্নয়ন বোর্ড কুষ্টিয়া জোন। প্রধান তুলা উন্নয়ন কর্মকর্তা সেন দেবাশীষ কর্মশালায় অধিক ফলনের জন্য তুলাচাষের আধুনিক পদ্ধতি সর্ম্পকে চাষিদের সচেতন করার পাশাপাশি বিভিন্ন কলাকৌশল শেখানো হয়। তুলার ফলন বাড়াতে সময় মত সার ও কীটনাশক প্রয়োগ মাত্রাও অবহিত করেন। বামন্দী এলাকার ৩০ জন তুলাচাষি এ কর্মশালা অংশ গ্রহন করেন। এছাড়াও চাষিদের তুলাচাষ বাড়াতে নানাভাবে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে তুলা উন্নয়ন বোর্ডের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। চাষিদের যে কোন সমস্যা হলে তাদের পরার্মশ দেবে কর্মকর্তারা। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, তুলা উন্নয়ন বোর্ডের বামন্দী ইউনিট কর্মকর্তা নাসিম উদ্দিন, ধান খোলা ইউনিটের কর্মকর্তা এরশাদুল হক।

সেফুদার বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা

ঢাকা অফিস ॥ ফেসবুকে লাইভে পবিত্র কোরানকে অবমাননার অভিযোগে সেফাতউল্লাহ ওরফে সেফুদার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার ঢাকার সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস্ সামস জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটি করেন ঢাকা বারের আইনজীবী মোঃ আলীম আল রাজী (জীবন)। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটকে ১৫ মে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ট্রাইব্যুনালের পেশকার শামিম আল মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। মামলায় অভিযোগ খেকে জানা যায়, গত ৯ এপ্রিল বাদী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেখতে পান যে, অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা প্রবাসী সেফাতউল্লাহ ওরফে সেফুদা তার ফেসবুক এ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে পবিত্র আল কোরান সম্বন্ধে বিভিন্ন ধরনের আজেবাজে কথা বলছেন এবং আল কোরানকে অবমাননা করছেন, যা সমগ্র ইসলামী বিশ্বকে মারাত্মকভাবে আহত করছে। লাইভটি ভাইরাল হওয়ায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। এছাড়া এ আসামি একইভাবে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে বিভিন্ন সময় লাইভে এসে কুরুচিপূর্ণ, অশ্লীল, আক্রমণাত্মক ও অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেছেন। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়েও কটূক্তি করেছেন।

এ বছর জাতীয় পরিচয়পত্র পাবে হিজড়ারা – ইসি সচিব

ঢাকা অফিস ॥ এ বছরই ‘তৃতীয় লিঙ্গ’ হিসেবে হিজড়াদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।তিনি বলেছেন, হিজড়াদের জন্য আলাদা ভোটার তালিকা করা হবে। এরপরই তাদের তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া হবে।গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী অঞ্চলের ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। রাজশাহী কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ইসি সচিব বলেন, সবাই জাতীয় পরিচয়পত্রের আওতায় এলে দেশে দুর্নীতি ও অপরাধ কমে আসবে।তিনি বলেন, এখন দেশের ১০০টির মতো প্রতিষ্ঠান থেকে সেবা নিতে জাতীয় পরিচয়পত্র লাগছে। আগামীতে এর আওতা বৃদ্ধি পাবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের সঙ্গে শুধু ভোট প্রদানের বিষয় জড়িত নয়। নাগরিক নানা সেবা এবং সুযোগ-সুবিধা জড়িত। তাই জাতীয় পরিচয়পত্র সবার প্রয়োজন।আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস আয়োজিত অনুষ্ঠানে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ আরো বলেন, ২০০৮ সালের আগে দেশে ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা ছিল। ২০০৬ সালে দেশে প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ ভুয়া ভোটার ছিল। এক রিট পিটিশনের প্রেক্ষিতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তালিকা সংশোধন করা হয়। ভোটার তালিকা সংশোধনের পর ২০০৮ সালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক এস এম আবদুল কাদের, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলম, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হাবিবুর রহমান ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম। বক্তব্য শেষে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ইসি সচিব।

 

সরু পথের শেষে ভেড়ামারার বামনপাড়ায় শাহীনুরের খামারবাড়ি

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ দোতলা বাড়ির নিচতলা জুড়ে বাচ্চা ফোটানোর ইনকিউবেটর। সেখানে ডিম থেকে মুরগীর বাচ্চা উৎপাদন করা হয়। দোতলায় থাকেন বাবা-মা ও স্ত্রী সন্তান নিয়ে। টাকা দিয়ে বড় ভবন বানিয়েছেন সেই ভবনের নিচেই কেন ডিম প্রক্রিয়া ও বাচ্ছা ফোটানো মেশিন? হাস্যজ¦ল তরুণের জবাব, ওরাইতো আমাকে আজ এই পর্যন্ত দাঁড় করিয়েছে। ওরাও আমার সন্তান।

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার বামনপাড়া গ্রামের তরুণ শাহীনুর রহমানের এমন কথা যে কাউকে উদ্দ্যোক্তা বানাতে উৎসাহ যোগাবে। পুরো বাড়িটিই এখন খামারবাড়ি। নাম শাহীন পোল্ট্রি হ্যাচারি। সমন্বিত এ খামারে এখন সপ্তাহে ১০ হাজার মুরগির বাচ্চা উৎপাদিত হয়। ডিম, মুরগি, মুরগির বাচ্চা, দুধ বিক্রি করে মাসে সব খরচ বাদে মুনাফা হয় গড়ে এক লাখ টাকার বেশি।

গাড়িচলা সড়ক থেকে শাহীনুরের বাড়িতে যাবার প্রায় আধাকিলোমিটার পথটা খুবই সরু। সেটা পায়ে হাটা। বর্ষাকালে পথে চলাই মুশকিল। মসৃণ ছিল না শাহীনুরের আজকের পর্যায়ে আসার পথটাও। বাধা বিপত্তি মাড়িয়ে আজ তিনি সেরা উদ্দ্যোক্তা। সম্প্রতি এক বিকেলে শাহীনুরের বাড়িতে চা-চক্রে আলাপ হল।

বাড়ির সামনে দাঁড়াতেই শোনা গেল মুরগীর ডাক। ওষুধ মেশানো পানি পায়ে ছিটিয়ে দিলেন শাহীন। যাতে মুরগির খামারে কোন জীবানু ঢুকতে না পারে। বাড়ির নিচতলায় একটি কক্ষে বসালেন। সেখানে দেয়ালে টাঙানো নানা পুরষ্কারের ছবি। সবচেয়ে বড় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে নেওয়া জাতীয় কৃষি পদকের ছবিটি। পাশে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন সময়ে সরকারি বেসরকারী পর্যায়ের কর্মকর্তা যারা তার খামারে গেছেন তাদের সাথে তোলা ছবি।

গল্পের শুরুটা কি ছিল আপনার? সেই ১৯৯১ সাল। বাবা মোহাম্মদ আলী অসুস্থ্যতার কারণে ঢাকার পোশাক কারখানার চাকরি ছেড়ে গ্রামে ফিরে যান। সেখানে ৪০টি মুরগি দিয়ে খামার শুরু করেন। তখন দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র শাহীনের প্রতিদিনের কাজ ছিল হাতে দুটি মুরগি নিয়ে রেললাইনের পাশে দাঁড়িয়ে বিক্রি করাÑজানালেন শাহীনুর।

২০০২ সালে শাহীন ও তাঁর বাবা মুরগির খাবারের ব্যবসা শুরু করেন। প্রতিযোগিতার বাজারে এক পর্যায়ে হাল ছেড়ে দেন। কিন্তু দমে যাননি। ২০০৬ সালে শাহীন ও তাঁর বাবা বামনপাড়ায় তিনকাঠা জমির ওপর হ্যাচারি প্রতিষ্ঠা করেন। কিন্তু তখন তাঁদের ডিম ফোটানোর ইনকিউবেটর ছিল না। এ জন্য খামারের ডিম নিয়ে যশোর ও গোয়ালন্দ থেকে বাচ্চা ফুটিয়ে এনে বিক্রি করতেন তাঁরা। কয়েক বছর পর প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর থেকে একটি ইনকিউবেটর পান শাহীন। এ ছাড়া তিনি নিজেও পুরোনো একটি ইনকিউবেটর কিনে ডিম থেকে বাচ্চা উৎপাদন শুরু করেন।

সিড়ি বেয়ে ওপরে ওঠা শুরু। মুরগির খামার বড় হয়েছে, বাচ্চা বিক্রির পরিমাণ বেড়েছে, আয় বেড়েছে। এখন নতুন নতুন বিষয়ে মনোযোগ দিচ্ছেন তিনি। খামারে নতুন যোগ হয়েছে ১৭টি গরু, ১০টি ছাগল ও শতাধিক কবুতর ও টার্কি। টার্কির ডিম ফুটিয়ে বাচ্চা বিক্রি শুরু করেছেন তিনি। মাসে এখন লাখ টাকার বেশি আয় করছেন।

এ আয় থেকে তিনকাঠা জমি থেকে খামারে সাত বিঘা জমি যোগ করেছেন। দুই ইউনিটের দোতলা পাকা ভবন। পুরো জমি জুড়েই খামার। কোটি টাকার বিনিয়োগে পরিবারের সব সদস্যের সঙ্গে খামারে প্রতিদিন সাত-আট জন শ্রমিক কাজ করে। কৃষিতে অবদানের জন্য গত বছর শাহীনুর পেয়েছেন জাতীয় কৃষি পদক।

বাড়ির তিন দিকে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে দেখালেন। পুরো এলাকা সিসিক্যামেরা দিয়ে মোড়ানো। তার মাঝেই বয়লার ও লেয়ার মুরগীর তিনটা বড় বড় খামার। সেখানে ৫ হাজারের বেশি মুরগী রয়েছে। খামারের ভেতরে যাওয়া হলে মুরগির সমন্বিত ডাক ছড়িয়ে পড়ছে আশেপাশেও। পাশেই গোয়ালে গাভীসহ ১৭টি গরু। তার পাশে কবুতরের আবাসস্থল। খাবারের মান ভালো রাখতে নিজে নিজেই গম ভুট্টা দিয়ে মুরগীর খাবার তৈরি করেন।

শাহীন বললেন, খামারে তাঁর যে ইনকিউবেটরগুলো আছে সেগুলো বড় খামারে কারিগরি কমকর্তাদের দিয়ে চালানো হয়। তাঁদের মাসে কমপক্ষে ৩০ হাজার টাকা বেতন দিতে হয়। কিন্তু নিজের খামারে এসব কাজ তিনি নিজেই করেন। মুরগির রোগ সম্পর্কেও ভালো ধারণা হয়েছে তাঁর। শাহীন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও বিভিন্ন বেসরকারি কোম্পানির প্রশিক্ষণ নিয়েছেন এবং সেগুলো খুব ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছেন। ফলে একাধারে তিনি খামারের শ্রমিক, কারিগরি কর্মকর্তা, চিকিৎসক ও বিপণন কর্মী।

শাহীনের খামারটি এখন বড় হয়েছে। ২০০৭ সালে তাঁর খামারে বার্ড ফ্লুতে আড়াই হাজার ‘প্যারেন্ট স্টক’ বা বাচ্চা ফোটানোর জন্য ডিম পাড়ার মুরগি মারা যায়। এতে ক্ষতি হয় ১৮ লাখ টাকার। কিন্তু সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছেন তিনি।

খামারের পাশাপাশি নিজের পড়াশোনাও চালিয়েছেন শাহীন। কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ থেকে ২০১৫ সালে মাস্টার্স পাশ করেছেন তিনি। চাকরির জন্য চেষ্টা করেননি। গ্রামের অনেক তরুণকে খামার করার উৎসাহ দিয়েছেন। যারা খামার গড়তে চাই তাদের জন্যও সব সময় দুয়ার খোলা রেখেছেন।

শাহীনের কাজ দেখে একই এলাকার সোহাগ আলী, আবদুর রশিদ ও শফিকুল ইসলাম খামার করেছেন। এভাবে পরামর্শ ও সহযোগিতা নিয়ে আশে পাশে জেলার শতাধিক যুবক মুরগী পালন ও কর্মসংস্থানে সহযোগিতা নিয়েছেন। তাদেরকে বিনা মূলে বাচ্চা বিতরন ও হাতে কলমে নিয়মত প্রশিক্ষণ  দেন, মোবাইলে পরামর্শ দেন। প্রতিদিনই ১০ থেকে ১৫ জন যুবক ফোনের মাধ্যমে খামারের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ নেন। প্রবাসীরাও দেশে এসে মুরগীর খামার গড়তে শাহীনুরের কাছে পরামর্শ নেবার কথা জানায়।

শাহীনুরের বাড়িতে যাবার সরু পথটা প্রসস্থ করা গেলে খামারটা আরও বড় করার পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি বাড়িতেই গরুর দুধ দিয়ে মানসম্মত মিষ্টি তৈরির কারখানা গড়বেন তার বাবা মোহাম্মদ আলী।

মহেশপুরে ধর্ষকের শাস্তির দাবিতে মানবন্ধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সেজিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে চিকিৎসা দেওয়ার নামে অজ্ঞান করে ধর্ষণ করার প্রতিবাদে ও ধর্ষক পল্লী চিকিৎসক সাইফুলের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচীর আয়োজন করে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এসময় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও  চেয়ারম্যান সামছুল আলম মৃধা, সহকারী শিক্ষক সামসুজ্জোহা পান্নাসহ নেপা ইউনিয়নের যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা, ধর্ষক সাইফুলের দ্রুত শাস্তির দাবি জানান।  উল্লেখ্য, গত শনিবার অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে সেজিয়া বাজারের নাজ ফার্মেসিতে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় তার পিতা। সেখানে স্কুলছাত্রীকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দিয়ে বাড়ি ফিরিয়ে আনে। সেসময় পল্লী চিকিৎসক সাইফুল স্কুল ছাত্রীকে পরদিন সকালে আবারো আসতে বলে। রোববার সকালে সাইফুলের কথা মত তার পিতা চিকিৎসার জন্য মেয়েকে বাইসাইকেল নিয়ে নাজ ফার্মেসিতে পাঠিয়ে দেন। স্কুলছাত্রী সেখানে গেলে সাইফুল ইসলাম তার শরীরে একটি ইনজেকশন পুশ করেন ও একটি ট্যাবলেট খাওয়ে দেয়। এরপর স্কুলছাত্রী জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সাইফুল তাকে ধর্ষণ করে। স্কুলছাত্রীর পরিবারের লোকজন তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  নেয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ধর্ষক সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে।

ঝিনাইদহে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘খাদ্যের কথা ভাবলে, পুষ্টির কথাও ভাবুন’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে মঙ্গলবার সকালে সিভিল সার্জনের কার্যালয় চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বেলুন উড়িয়ে পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়। পরে সিভিল সার্জনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সিভিল সার্জন ডা: সেলিনা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ। বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মো: হাসানুজ্জামান, সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা: আইয়ুব আলী, বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা: দুলাল চক্রবর্তী, ঝিনাইদহ সদর আসনের সংসদ সদস্য’র প্রতিনিধি পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জীবন কুমার বিশ্বাস। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিভিল সার্জন মেডিকেল অফিসার ডা: প্রসেনজিৎ বিশ্বাস পার্থ। বক্তারা, গর্ভবতী মা ও ১ দিন থেকে ৫ বছর বয়সী শিশুদের পুষ্টি বিষয়ে বেশি সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান। মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া এ কর্মসূচী চলবে আগামী ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত।