নোবেলের আপত্তিকর ছবি ভাইরাল

বিনোদন বাজার ॥ সোশ্যাল মিডিয়ায় কয়েক দিন থেকে ভেসে বেড়াচ্ছে সা রে গা মা পা অনুষ্ঠান থেকে আলোচনায় আসা কণ্ঠশিল্পী মাইনুল আহসান নোবেলের বেশ কিছু নগ্ন ও আপত্তিকর ছবি। এক কিশোরীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ছড়ানো হয় ছবিগুলো। পরে ভারতীয় কয়েকটি অনলাইনেও বেশ রসিয়ে নিউজ প্রকাশ করা হয় এটি নিয়ে।

কলকাতার গণমাধ্যমে নোবেলকে নিয়ে সংবাদের শিরোনাম করা হয়েছে ‘বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস! ‘নোবেলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ কিশোরীর’। রহস্যজনক ব্যাপার হলো যে কিশোরীর ফেসবুক থেকে ছবিগুলো প্রকাশ করা হয়েছে তার পরিচয় মেলেনি এখনো। কারণ ছবিগুলো পোস্ট করার পর সেই অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভ করা হয়।

এই অল্প সময়ের মধ্যেই নোবেলকে নিয়ে লেখা সেই কিশোরীর স্ট্যাটাস ও ছবি কপি পেস্ট হয়ে যায়। অনেকে সেটার স্ক্রিনশর্ট নিয়ে ছড়িয়ে দেয়। নোবেল ভক্তদের দাবি এই সুযোগ নিয়ে ভারতীয় কিছু গণমাধ্যম নোবেলকে দুশ্চরিত্র প্রমাণ করতে উঠে পড়ে লেগেছে।

কলকাতার একটি অনলাইন পোর্টাল বাংলাদেশি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে খবর প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের গণমাধ্যমে এরকম কোনো খবরই প্রকাশ হয়নি। তবে একটি নামসর্বস্ব ওয়েবসাইটে অস্থায়ী অ্যাকাউন্ট-এর লেখাগুলোকে ‘সংবাদ’ বানিয়ে আপলোড করা হয়।

শাহরীন সুলতান নামের সেই ফেসবুক আইডির স্ট্যাটাসটি এমন- ‘নোবেল, বাংলাদেশের লাখো মেয়ের ভালোবাসা। লাখো ছেলের আইডল। কিন্তু একমাত্র গোপালগঞ্জবাসীরাই চিনে ওর আসল রূপ। আজ আমি আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব ভোলাভালা চেহারার পিছে লুকিয়ে থাকা এক হিং¯্র জানোয়ারের সাথে যাকে আপনারা সবাই নোবেলম্যান নামে চিনেন।

আমার মতো অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের মিথ্যা প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে ইজ্জত নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার উপর যদি নোবেল থাকতো, তাহলে তা এই সারাগামাপা খ্যাত মাদকাসক্ত নোবেল-ই পেতো। মাদক আর নারীর নেশায় আসক্ত নোবেলকে আজ যখন কোটি মানুষ আইডল মানে, তা দেখে আসলেই দেশের ফিউচার জেনারেশান নিয়ে খুব ভয় হয়।

মাদকাসক্ততার কারনে দুইবার রিহ্যাবে গিয়ে মাদকের নেশা থেকে কয়েকদিন দূরে ছিল। কিন্তু নারীর নেশার জন্যতো রিহ্যাব নেই। আর এটি কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে আমার মতো শত শত মেয়ের জন্য।

নোবেলের সাথে আমার পরিচয় হয় গতবছরে, যখন আমার বয়স মাত্র ১৫। প্রেম ভালোবাসা এগুলো তত বুঝতাম না। নোবেল আমাকে বুঝতে শিখায় ভালোবাসা কি। বয়স কম থাকার কারণে ওর প্রতিটা ফাঁদে খুব সহজেই পড়ে যাই। এই ফাঁদে শুধু আমি পড়িনি। আমার মতো আরো অনেক মেয়েই পড়েছে। মেয়েগুলো বেশিরভাগি অপ্রাপ্তবয়স্ক ছিল।

কিন্তু নোবেলের বিরুদ্ধে মুখ খুলার সাহস সব মেয়ের দিন দিন নোবেলের জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে ক্রমশ কমতে থাকে। আজ আমি কিছুটা সাহস নিয়ে আসলাম। আমি ডিপ্রেশানে চলে গিয়েছি। মাঝে মাঝে নিজের জীবনটা দিয়ে দিতে মন চায়। কিন্তু আত্মহত্যা মহাপাপ বলে তা পারি না। যদিও আমার আত্মাটা নোবেল আরো আগেই মেরে ফেলেছে।

আপনারা সবাই ভাবছেন নোবেল এগুলো কেমনে করে? আমি যদি বলি ওর এই সকল কুকর্ম ওর বাবা মাও জানে তাহলে বিশ্বাস করবেন? প্রত্যেকটা মেয়েকে ও ওর বাসায় নিয়ে যায় ফিজিক্যালি ইনভল্ব হওয়ার জন্য। ওর বাবা মার সাথেও পরিচয় করায় বন্ধু হিসেবে।

অন্যদিকে মেয়েটাকে আশ্বাস দেয় যে বাবা মার সাথে তো পরিচয় হয়েছেই। বিয়েও করবে মেয়েটাকে। এখনতো সব করা যায়। আমিও এই ফাঁদে পা দিয়েছি। ওর পিপাসা মিটলে ওর ওই বাবা মার সামনেই মেয়েটাকে অপমান করে বের করে দেয়। আর ওর বাবা মা কিছুই বলেনা। তাই ওর এমন হওয়ার পিছে ওর পরিবারো দায়ী!

নোবেলের নিজের একটা বোন আছে। কীভাবে সে অন্যের বোনের জীবন এভাবে ধ্বংস করে আমার জানা নেই। অনেকেই বলবেন ওর নামে কেস করতে। ওর নামে কেস করেও লাভ নেই। পুলিশ ওর বাবার পকেটে থাকে।

সবশেষে বলবো যে আমি জানি এই সমাজ আমাকেই খারাপ বলবে। আমি-ই গালি খাবো নোবেলের ফ্যানদের থেকে। কারণ আমাদের সমাজে সব দোষ মেয়েদেরই হয়। এই পোস্ট দিয়ে নোবেলের কিছুই হবেনা এটাও আমি জানি। কিন্তু যাই হোক না হোক, আমার ভিতরের মৃত আত্মাটার কিছুটা শান্তি হবে এই জানোয়ারটাকে সবার সামনে তুলে ধরতে পারলে। ওর আসল চেহারা বাংলাদেশের প্রত্যেকটা মানুষের দেখা উচিৎ। ওর মত ছেলে লাখো ছেলের আইডল হোক, এটি মেনে নেওয়া যায়না। শত মেয়ের জীবন নষ্টের কারণ কোন মেয়ের ক্রাশ হতে পারে না।

ওর ব্যাপারে সর্বশেষ জানলাম যে ঈদের আগের দিনও মাতাল হয়ে গোপালগঞ্জের একজনের উপরে মোটরসাইকেল উঠিয়ে দেয়। তার মানে রিহ্যাবে গিয়েও লাভ হয়নি। ও এখনো মাদক সেবন করে। আর নারীর নেশা কাটানোর জন্যতো রিহ্যাবও নেই। এই নেশা ওর কাটবেনা!

আপনাদের বিশ্বাস করানোর জন্য কিছু ছবি দিলাম। ছবিগুলো কিছু ও তুলেছে কিছু আমি আমার আর ওর ছবি, ওর বাসার রুমের ছবি (বিশ্বাস না হলে ওর বাসায় গিয়ে দেখে আসেন), কিউট হয়ে ঘুমিয়ে থাকার ছবিটিও দিলাম।’

এই স্টাটাসকি সত্য! নোবেলের একভক্ত তার পর্যবেক্ষণ থেকে বলছেন,‘ভাইরাল হওয়া ছবিগুলায় কিছু ছবি আছে যে নোবেল শুয়ে আছে। আর ওই ছবিগুলায় বুঝা যাচ্ছে যে নোবেলের মোটা সোটা একটা লুক! খেয়াল করলে দেখা যায় যে গত কিছুদিন যাবত বিভিন্ন ফ্যানপেজ বা গ্রুপে নোবেলের মোটা-সোটা লুকের বেশ কিছু ছবি ভাইরাল। যেই মেয়েটা নোবেলের এগেইন্সটে এলিগেশন এনেছে তার ভাষ্যমতে নোবেলের সাথে ওর রিলেশন ছিল গতবছর।

কিন্তু গতবছরের নোবেলের ছবি ঘাটাঘাটি করলে দেখা যায় যে নোবেল স্লিম ছিল! তাহলে নোবেলের আজকের ভাইরাল হওয়া ছবি গুলায় মোটা লুক আসলো কীভাবে? নোবেল কি তাহলে প্রতি বছর নিয়ম করে মোটা হয়?’

নোবেলে এক ভক্ত বলছেন, ‘যে আইডির অস্তিত্ব নেই তার বক্তব্য কতখানি সত্য হতে পারে? পোস্ট এর সঙ্গে যে ছবিগুলো দেয়া হয়েছে সেগুলো দেখে অনেকে বলছেন ¯্রফে ফটোশপ করে ছবি বিকৃতি ঘটিয়ে ছবির সঙ্গে ছবি বসিয়ে বানোয়াট একটা গল্প বানানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে নোবেলে মন্তব্য নিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

নতুন সিনেমায় নিরব, নায়িকা নিয়ে চমক

বিনোদন বাজার ॥ মডেল থেকে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা হিসেবে। সর্বশেষ তার ‘আব্বাস’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। সেটি বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে দর্শক মহলে। সাঈফ চন্দন পরিচালিত ছবিটিতে নিরবের নায়িকা ছিলেন সোহানা সাবা ও সুচনা আজাদ।

সেই সাফল্যের পর আবারও নতুন সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন নিরব। এবার তার পরিচালক রফিক সিকদার। ছবির নাম ‘বসন্ত বিকেল’। সম্প্রতি সিনেমাটিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন নিরব।

এ ছবি নিয়ে পরিচালক রফিক সিকদার বলেন, “মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের স্মৃতিবিজড়িত পাবনা শহরে শিশুকাল থেকে হাতে হাত রেখে বেড়ে ওঠা রুদ্র ও চন্দ্রাবতী নামে দুই স্বপ্নবান যুবক-যুবতী। তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এম ফিল করছেন।

এই যুবক-যুবতীর গভীর প্রেমের বিয়োগান্তক পরিণতির সিনেমা ‘বসন্ত বিকেল’। সবকিছু ঠিক থাকলে অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহ থেকে সিনেমাটির শুটিং শুরু করব।”

নায়ক ও নায়িকা নিয়ে তিনি বলেন, ‘এ পর্যন্ত দুটি ছবিতে আমি নিরবের সঙ্গে কাজ করেছি। তার কাছ থেকে যে সহযোগিতা ও আন্তরিকতা আমি পেয়েছি পরিচালক হিসেবে সেটি আমার জন্য তৃপ্তির। তাই আবারও নিরবের সঙ্গেই কাজ করতে যাচ্ছি। আশা করছি আমাদের নতুন সিনেমাটি ভালো লাগবে দর্শকের।

নায়িকা এখনো চূড়ান্ত করিনি। তবে শিগগিরই ছবির মহরতে নায়িকার নাম ঘোষণা করবো। নায়িকা নির্বাচনে চমক থাকছে।’

ছবিটি নিয়ে নায়ক নিরব বলেন, “ছবির নামের মতোই খুব সুন্দর একটি গল্প রয়েছে ‘বসন্ত বিকেল’-এ। এখানে নায়ক ও নায়িকার চরিত্র দুটোও দারুণ। অভিনয়ের অনেক সুযোগ আছে। অ্যাকশনধর্মী ‘আব্বাস’র পর এই চরিত্রটি আমার জন্য একটু আলাদা অভিজ্ঞতার হবে।”

নির্মাতা রফিক সিকদার জানান, সামসুজ্জামান রিমন প্রযোজিত ‘বসন্ত বিকেল’ সিনেমাটি আরবিএস টেক লিমিটেডের ব্যানারে নির্মিত হচ্ছে। পরিচালনার পাশাপাশি এর গল্প, সংলাপ, চিত্রনাট্যও রচনা করেছেন রফিক সিকদার। এরই মধ্যে চিত্রনাট্যের কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া এর তিনটি গানের রেকর্ডিং শেষ হয়েছে বলেও জানান এই নির্মাতা।

প্রসঙ্গত, রফিক সিকদার ২০১৫ সালে নির্মাণ করেন ‘ভোলা তো যায় না তারে’ সিনেমাটি। এতেও অভিনয় করেন নিরব। এটি রফিক সিকদারের সঙ্গে প্রথম কাজ এই অভিনেতার। ২০১৬ সালে মুক্তি পায় সিনেমাটি।

অন্যদিকে রফিক সিকদার পরিচালিত ‘হৃদয় জুড়ে’ সিনেমাটি মুক্তির অপেক্ষায়। এতে নিরবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় নায়িকা প্রিয়াঙ্কা সরকার।

 

রহস্যময় নারী চরিত্রে মেহজাবিন চৌধুরী

বিনোদন বাজার ॥ বীমা কোম্পানির মাঝারি অফিসার বাশার ক্লায়েন্ট নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রথমেই মানবজাতিকে দুটি শ্রেণিতে ভাগ করে ফেলার চেষ্টা করেন।এক. সুখী পরিবার, অন্যটি দুঃখী পরিবার। তারপর তিনি দুঃখী পরিবারকে তার ক্লায়েন্ট হতে উদ্বুদ্ধ করেন। একদিন বাশারের কাছে হিজাবপরা রোকসানা ছোট মেয়েকে নিয়ে জীবন বীমা করতে আসে।রোকসানা বাশারের কাছে জানতে চায় আত্মহত্যায় যদি কারো মৃত্যু হয় তাহলে বীমা সংক্রান্ত বেনিফিট পেতে নমিনির কোনো সমস্যা হবে কিনা? বাশারের এই হিজাবপরা নারীকে বেশ রহস্যময় মনে হয়।এরপর রোকসানা তার মেয়েকে নিয়ে বৃদ্ধ হাসেম বিন আবদুল্লাহর বইয়ের দোকানে ‘খুঁজে রাঙা পথ’ নামে একটি বই কিনতে আসে। দোকানি নীল হিজাবপরা রোকসানাকে ‘খুঁজে রাঙা পথের’ বদলে তার নিজের লেখা বই ‘বোরকা পরা মেয়ে’ উপহার দেয়।নীল হিজাবপরা রাগী রাগী রোকসানাকে হাসেমের ভালো লাগে। এমন গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ঈদের নাটক ‘প্রেম তুমি আমি’। হাসান রেজাউলের পরিচালনায় এতে রোকসানা চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন চৌধুরী।

শ্রাবন্তী ভক্তদের জন্য সুসংবাদ!

বিনোদন বাজার ॥ বাংলাদেশি ভক্তদের জন্য সুসংবাদ দিলেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। সর্বশেষ ঢাকায় নির্মিত হয়েছে ‘যদি একদিন’ সিনেমা। এবার এই অভিনেত্রীকে নিয়ে তৈরি হতে যাচ্ছে নতুন একটি ছবি। ছবির নাম ‘বিক্ষোভ’।

ছবিটি পরিচালনা করছের শামীম আহমেদ রনী। সম্প্রতি এতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এই অভিনেত্রী। শ্রাবন্তীর বিপরীতে কে অভিনয় করবেন তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে এতে অভিনয় করছেন ভারতীয় অভিনেতা রজতাভ দত্ত, রাহুল দেব, বাংলাদেশের অমিত হাসান, সাদেক বাচ্চুসহ অনেকে।

নির্মাতা শামীম আহমেদ রনী জানান, কলকাতায় শ্রাবন্তীর সঙ্গে এই ছবির আনুষ্ঠানিক চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকায় এর শুটিং হবে।

ঢাকার রাজপথে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে উপজীব্য করে গড়ে উঠেছে ‘বিক্ষোভ’ ছবির গল্প। দেলোয়ার জাহান দিলের চিত্রনাট্যে ছবিটি প্রযোজনা করছে স্টোরি স্প্ল্যাশ মিডিয়া।

হিন্দি ছবিতে মম

বিনোদন বাজার ॥ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম। ছবি এবং নাটকে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন বেশ।এবার দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশি ছবিতেও অভিনয় করছেন এ অভিনেত্রী। কিছুদিন আগে হিন্দি ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। ছবির নাম ‘ম্যাক্স কী গান’। ছবিটি পরিচালনা করছেন ভারতীয় নির্মাতা সামীর খান।শুক্রবার থেকে ভুটানের বিভিন্ন লোকেশনে এ ছবির শুটিং শুরু হয়েছে। শুটিংয়ের জন্য এ মুহূর্তে মম সেখানেই অবস্থান করছেন। এতে তাকে দেখা যাবে একজন সিবিআই অফিসারের চরিত্রে।প্রথমবার হিন্দি ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে মম বলেন, ‘একটি আন্তর্জাতিক সিনেমার টিমের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা দারুণ। এই অভিজ্ঞতা আমার আগামী দিনের পথচলায় নিঃসন্দেহে অনেক কাজে লাগবে। সবচেয়ে বড় কথা এ ছবিতে আমাকে চূড়ান্ত করার আগে সংশ্লিষ্টরা আমার কাজ ও অর্জন সম্পর্কে ভালোভাবে জেনেই নির্বাচিত করেছেন। সিবিআই অফিসার চরিত্রটি নিজের মধ্যে ধারণ করার জন্য যথেষ্ট সময় দিয়েছেন। আমি তা নিজের মধ্যে ধারণ করেই কাজ শুরু করেছি। অভিনয় জীবনের নতুন আরেক দিগন্তের শুভ সূচনা হল। সবার কাছে দোয়া চাই যেন আমার চরিত্রটি যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারি।’ সর্বশেষ এ অভিনেত্রী ‘দহন’ নামে একটি বাণিজ্যিক ছবিতে অভিনয় করেছেন।

আ.লীগের উপদেষ্টা হলেন নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান

বিনোদন বাজার ॥ বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমানকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।দলের সভাপতি শেখ হাসিনা ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ২০তম জাতীয় কাউন্সিল কর্তৃক প্রদত্ত ক্ষমতাবলে আতাউর রহমানকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হিসেবে মনোনয়ন দেন।আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শনিবার এ তথ্য জানানো হয়।আতাউর রহমান ১৯৪১ সালের ১৮ জুন নোয়াখালীতে জন্মগ্রহণ করেন। স্কুলজীবনেই সাংস্কৃতিক অঙ্গনে পা রাখেন তিনি। মঞ্চ নাটকের নির্দেশনার পাশাপাশি আতাউর রহমান অভিনয়ও করছেন সমানতালে। রেডিও, টেলিভিশনেও রয়েছে তার সদর্প উপস্থিতি। এছাড়া নাট্য বিষয়ক বই, নাট্যসমালোচনা, উপস্থাপনা, শিক্ষকতা, টেলিভিশন নাট্যকার, প্রবন্ধকার, বক্তা সব ক্ষেত্রেই রয়েছে আতাউর রহমানের সরব পদচারণা।২০০১ সালে নাট্যক্ষেত্রে অবদানের জন্য তিনি একুশে পদক লাভ করেন।

ব্যতিক্রমধর্মী বিজ্ঞাপনে জাহিদ হাসান ও সিয়াম

বিনোদন বাজার ॥ কোকা-কোলা কোম্পানির লেমন এন্ড লাইম কোমল পানীয় ব্র্যান্ড স্প্রাইট তরুণদের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের জন্য সম্পূর্ণ নতুন একটি গল্প নিয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে বিজ্ঞাপন নির্মাণ করেছে। এই বিজ্ঞাপনটি একটি ফ্রেমে নিয়ে এসেছে জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান এবং সিয়ামের মতো দুই প্রতিভাবান অভিনেতাকে।বিজ্ঞাপনের শুরুতে দেখা যায়, মরুর বুকে এক অজানা রহস্য উন্মোচনে জন্যে তৃষ্ণার্ত হয়ে ছুটতে থাকে অভিনেতা সিয়াম আহমেদ। তখন সিয়াম মাটি খুঁড়ে একটি প্রাচীন আলাদিনের প্রদীপের সন্ধান পায়। সিয়াম প্রদীপটি হাতে নিতেই বের হয়ে আসেন দৈত্য রূপি জিনি জাহিদ হাসান এবং জানতে চান সিয়ামের তিনটি ইচ্ছা। তৃষ্ণার্ত অবস্থায় সিয়াম ইতস্তত হয়ে দাঁড়াতে বলে জিনিকে এবং চতুর জিনি এটিকেই প্রথম ইচ্ছা হিসেবে ধরে নেয়। বিপাকে পড়ে সিয়াম। তাহলে দ্বিতীয় ইচ্ছাটা কি বলবেন! আবার যদি জিনি কোন চতুরামি করে বসে! সিয়াম দ্বিতীয় ইচ্ছা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারছিলেন না। তখনই সিয়ামের আরেকটি স্বত্তা বের হয়ে আসে। আর সেই সাহায্য করে সিয়ামকে। দ্বিতীয় ইচ্ছা হিসেবে স্প্রাইট চাইতে পরামর্শ দিলেন। একটু ভড়কে গেলো জিনি। আর স্প্রাইট পানের সঙ্গে সঙ্গে সিয়ামের মধ্যে উপস্থিত বুদ্ধি জাগ্রত হয়। এবার কিন্তু আর বোকামি নয়, বরং শেষ ইচ্ছা হিসেবে সে নতুন আরো তিনটি ইচ্ছা চায়। সিয়ামের এই উপস্থিত বুদ্ধিতে বোকা বোনে যায় দৈত্য জিনি।এই বিষয়ে কোকা-কোলা বাংলাদেশ লিমিটেড এর কান্ট্রি হেড অজয় বাতিজা বলেন, কোকা-কোলা কোম্পানির জনপ্রিয় ব্র্যান্ড স্প্রাইটের বিজ্ঞাপন প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে তৈরি করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। বাংলাদেশে গ্রীষ্ম যেন অসহনীয় আর তখন তৃষ্ণা নিবারনে সাহায্য করে স্প্রাইট। এই ধারনাটিকেই বাস্তবে রুপায়ন করলেন জাহিদ হাসান ও সিয়াম আহমেদ।

পর্দায় শাহরুখ কন্যার অভিষেক প্রকাশ্যে ছবির পোস্টার

বিনোদন বাজার ॥ বেশ কিছুদিন আগেই শাহরুখ কন্যা সুহানা শুটিংয়ের দৃশ্য ভাইরাল হয়েছিল নেট জুড়ে। নিজের কলেজের ক্যাম্পাসে শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন তিনি। স্বাভাবিক ভাবেই নেটিজেনদের মনে প্রশ্ন জেগেছিল তবে কি ফিল্মি দুনিয়ায় পাকাপাকিভাবে পা রাখতে চলেছেন সুহানা? সব জল্পনা শেষে সামনে এল আসল কারণ। বড় পর্দায় আপাতত না নামলেও এক শর্টফিল্মে দেখা যাবে তাকে।ছবির নাম ‘দ্য গ্রে পার্ট অব ব্লু’। পরিচালনা করেছেন সুহানারই সহপাঠী থিয়োডর জিমেনো। ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা ওই ছবির পোস্টার দেখে স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে কেন্দ্রীয় চরিত্রেই রয়েছেন সুহানা। পরনে নীল ডেনিম এবং কালো ফুল হাতা শার্ট। ছিমছাম, অথচ চোখেমুখে ফুটে উঠেছে এক অদ্ভুত ব্যক্তিত্ব।ইংল্যান্ডের আরডিংলি কলেজ থেকে এই বছরের শুরুর দিকেই স্নাতক হন সুহানা। মেয়ের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মুম্বই থেকে উড়ে গিয়েছিলেন সপতœী শাহরুখ। টুইটারে মেয়ের সাফল্যে খুশি হয়ে পোস্টও করেছিলেন কিং খান। ছোট থেকেই বাবার মতো সুপার স্টার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন সুহানা। তবে লেখাপড়া শেষ না করে বিনোদন জগতে পা রাখাকে কোনওদিনই সমর্থন করেননি শাহরুখ। আপাতত সুহানার পড়াশোনা শেষ। ফিল্মি জগৎকেই আপন করবেন নাকি আরো উচ্চশিক্ষার পথে পা বাড়াবেন শাহরুখ কন্যা? তা সময়ই বলবে।

‘বসন্তকাল’ নিয়ে জোনাকীর আত্মপ্রকাশ

বিনোদন বাজার ॥ কক্সবাজার বেতারে নিয়মিত গান করেন কণ্ঠশিল্পী নাজনিন সুলতানা জোনাকী। এবার প্রথমবারের মতো মৌলিক গান ‘বসন্তকাল’ নিয়ে আত্মপ্রকাশ করলেন তিনি। ইউটিউব চ্যানেল ‘সিএমভি মিউজিক’ এর ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে তার গানটি। গানটির কথা লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন। সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন মার্সেল। জোনাকী বলেন, ‘বসন্তকাল’ আমার প্রথম মৌলিক গান। কিন্তু গানের জগতে আমি নতুন নয়। কক্সবাজার বেতারে নিয়মিত গান করে আসছি। পেয়েছি দর্শকদের অফুরন্ত ভালোবাসাও। গানের কথাও চমৎকার। সুর ও সঙ্গীত আয়োজনও ভালো লেগেছে। আমি চেষ্টা করেছি ভালোভাবে গানটি কণ্ঠে ধারণ করতে। আশা করছি শ্রোতাদেরও ভালো লাগবে।

ঈদের ৭ পর্বের ধারাবাহিক ‘জুনিয়র আর্টিস্ট’

বিনোদন বাজার ॥ ঈদ আয়োজনে একুশে টেলিভিশনে ৭ দিনব্যাপী প্রচারিত হতে যাচ্ছে ঈদের বিশেষ ধারাবাহিক নাটক ‘জুনিয়র আর্টিস্ট’, প্রতিদিন সকাল ১০:৩০ মিনিটে নাটকটি সম্প্রচার হবে। রাজীব মণি দাসের রচনায় এবং কাজী সাইফ আহমেদের পরিচালনায় নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন- লুৎফর রহমান জর্জ, মীর সাব্বির, এ্যানি খান, শিপন মিত্র, ইরা শিকদার, আরফান আহমেদ প্রমুখ। এটি প্রযোজনা করেছে ‘লাইফ গোল্ড মিডিয়া’।গল্পে দেখা যায়, পিয়াল দীর্ঘ বছর নায়ক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এফডিসিতে পড়ে থাকে জুনিয়র আটির্স্ট হয়ে। সে স্বপ্ন দেখে একদিন ফিল্মের নায়ক হবে, এই পর্যন্ত সে এক্সটা আর্টিস্ট হয়ে ১৯৯ ছবিতে অভিনয়ও করেছে। তার ইচ্ছে ২০০ নাম্বার ছবিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করে সবাইকে চমকে দিবে। কিন্তু হঠাৎ তার ভালোবাসার মানুষ তৃণার বিয়ে নিয়ে উঠে পড়ে লাগে তৃণার মামা জামশেদ সাহেব। পিয়াল এই মুহূর্তে কি করবে বুঝতে পারে না। নাহিদকে নিয়ে মাস্টারপ্ল্যান করে সে। সিনেমায় তাদের মতো যারা উপেক্ষিত এক্সট্রা আর্টিস্ট আছে, যারা সিনেমায় কখনো ভালো রোল করার সুযোগ পায়নি, এটা হবে তাদের জীবনের শ্রেষ্ঠ রোল। অর্থাৎ জামশেদ সাহেবের সামনে কেউ অভিনয় করবে পিয়ালের বাবা হিসেবে, কেউ হবে তার মা, কেউ হবে ভাই, কেউ হবে বোন। যেই কথা সেই কাজ, পিয়ালের নির্দেশনায় তৃণার মামার সামনে বিভিন্ন চরিত্রে নিখুঁত অভিনয় শুরু করেন সবাই। বাপে তাড়ানো, মায়ে খেদানো অখ্যাত এসব এক্সট্রা আর্টিস্টরা এমন চরিত্র পেয়ে নিজেদের ঢেলে দিতে কার্পণ্য করেনি। বরং সত্যিকারের বাবা-মা, ভাই-বোন হয়ে চরিত্রের সাথে মিশে যায়। তাদের নিখুঁত অভিনয় জামশেদ সাহেব ধরতে না পারলেও তার সহকারী লাট্টুর চোখে খটকা লাগে। ক্ষীণ শক্তির লাট্টু কোথায় যেন তাদেরকে দেখেছে তা ঠিক মনে করতে পারে না। কারণ, স্টারদের পিছনে শত শত ছবিতে অভিনয় করলেও কেউ তাদের মনে রাখে না।ডাক পড়ে আইটেম গার্ল জিনিয়ার, যাকে পরিচয় করানো হয় পিয়ালের ছোট খালা হিসেবে। জিনিয়াকে দেখে জামশেদ সাহেবের মাথা ঘুরে যায়, নিজেকে পঁচিশ বছরের যুবক ভাবতে শুরু করেন তিনি। তৃণার বিয়ে হয়ে গেলেতো আর কোনো দায়বদ্ধতা থাকে না, তখন তিনিও বিয়ে করতে পারবেন। উফ্! কেন যে জিনিয়ার সাথে তার আগে দেখা হয়নি, তাহলে হয়তো অনেক আগেই তার ব্যাচেলর জীবনের অবসান ঘটতো। জিনিয়ার প্রেমে মুগ্ধ জামশেদ তৃণা-পিয়ালের বিয়ে দিতে উঠে পড়ে লাগে। জুনিয়র আর্টিস্টদের জীবনের কাহিনী নিয়ে এগিয়ে যায় গল্পের প্রত্যেকটি চরিত্র।

ফের ভাইরাল জাহ্নবী!

বিনোদন বাজার ॥ কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবীর নাচের প্রশংসা করে শেষ করা যাবে না। তার আদরের মেয়ে জাহ্নবীও তাই মায়ের মতোই নাচে পারদর্শী হয়ে উঠতে চাইছেন। আর তা নিয়েই চলছে নানা আলোচনা। ইয়োগা, ডায়েট, জিমের পাশাপাশি নিয়মিত নাচের প্রশিক্ষণও নিচ্ছেন জাহ্নবী কাপুর। আপাতত ‘ধড়ক’ অভিনেত্রী মন দিয়েছেন ‘বেলি ডান্স’-এ। সম্প্রতি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন জাহ্নবী। যেখানে ‘বেলি ডান্স’-এর জন্য তালিম নিতে দেখা যাচ্ছে শ্রীদেবী কন্যাকে। এর আগেও জাহ্নবীর একটি বেলি ডান্সের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। এই মুহূর্তে জাহ্নবী তার আগামী ছবি ‘রুহি আফজা’র শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত। যেখানে রাজকুমার রাওয়ের বিপরীতে দেখা যাবে শ্রীদেবী কন্যাকে।

এবার হলিউড তারকার প্রেমে সৌদি যুবরাজ

বিনোদন বাজার ॥ হলিউড অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহানের প্রেমে মজেছেন সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান। লুকিয়ে লুকিয়ে দেখা করছেন তারা। দেখা না হলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই বার্তার আদান-প্রদান করছেন। ব্যক্তিগত বিমানে করে প্রায়ই চলে যাচ্ছেন গোপন অভিসারে। দামি দামি পুরস্কার পাঠাচ্ছেন। মনের মানুষের সাধ-আহ্লাদ পূরণে উপহার হিসেবে একটি ক্রেডিট কার্ডও দিয়েছেন। মার্কিন সুন্দরীর সঙ্গে যুবরাজ মোহাম্মদের এই প্রেমের রসায়ন নিয়ে আরব বিশ্বে জোর গুঞ্জন চলছে। দু’জনের সম্পর্ক নিয়ে হঠাৎ আগ্রহী হয়ে উঠেছে লোহানের ভক্তরাও। যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদির একাধিক সংবাদমাধ্যম এ নিয়ে মুখরোচক খবর প্রকাশ করেছে। জানিয়েছে, ক্রমেই একে অপরের খুবই ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠছে। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পেরও (৩৭) প্রেমে পড়েছিলেন যুবরাজ। গতবারের ঘটনা, ইভাঙ্কা ট্রাম্পের সঙ্গে রাত্রিযাপনের জন্য ২০০ উট উপহার দিতে চেয়েছিলেন যুবরাজ। জেরুজালেম পোস্ট। মাত্র ১০ বছর বয়সে মার্কিন এক টিভি সিরিজে অভিনেত্রী হিসেবে হাজির হন লোহান। ‘হার্বি: ফুললি লোডেড’ সিনেমার মাধ্যমে খ্যাতি কুড়ানো এ অভিনেত্রীয় বয়স এখন ৩৩। ২০১৭ সালে সৌদির ক্রাউন প্রিন্স হিসেবে দায়িত্ব নেয়া সৌদির শাসক মোহাম্মদ বিন সালমানের ৩৪। যুক্তরাষ্ট্রের বিনোদন প্রধান সংবাদমাধ্যম পেজ সিক্স জানায়, তাদের প্রথম দেখা হয় বছর খানেক আগে। ফর্মুলা ওয়ান গ্র্যান্ড পিক্স রেসের মাঠে। এরপরই তারা বন্ধুতে পরিণত হন। লোহানের বন্ধু-বান্ধবদের একটি সূত্রও এ কথা স্বীকার করেছে। তবে লোহানকে যুবরাজের ক্রেডিট কার্ড দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে সূত্রটি। আরও একটি সূত্র বলছে, সালমানের সঙ্গে লোহানের সম্পর্ক অপ্রত্যাশিত বিষয় নয়। কারণ এর আগেও এ নায়িকাকে মধ্যপ্রাচ্যের অনেকের সঙ্গে দেখা গেছে। গত কয়েক বছর ধরে দুবাইয়ে যাতায়াত করেন লোহান। সম্প্রতি তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন বলেও খবর ছড়িয়ে পড়ে। গত বছরই লিন্ডসে ঘোষণা দেন, সৌদি নারীদের নিয়ে ‘ফ্রেইম’ নামে একটা ফিল্ম করতে চান তিনি। ফিল্মটিতে সৌদি নারীদের সাংস্কৃতিক ভাবনা ও কর্মকা- তুলে ধরতে চান তিনি। লোহান বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় রয়েছেন। সেখানকার টিভি শো ‘দ্য মাস্কড সিঙ্গার’-এর সঙ্গে যুক্ত আছেন তিনি। কয়েক সপ্তাহ আগে সহশিল্পীদের সঙ্গে ঝগড়া নিয়ে তিনি আলোচনায় আসেন। গত বছরই লিন্ডসে ঘোষণা দেন, সৌদি নারীদের নিয়ে ‘ফ্রেইম’ নামে একটা ফিল্ম করতে চান তিনি। ফিল্মটিতে সৌদি নারীদের সাংস্কৃতিক ভাবনা ও কর্মকা- তুলে ধরতে চান তিনি। গত বছর সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকা-ে বিশ্বব্যাপী ঘৃণিত ও নিন্দিত যুবরাজের রীতিমতো স্ত্রী-সংসার রয়েছে। চার চারটি সন্তানও রয়েছে তার।

হানিফ সংকেতের নাটক অজ্ঞ-বিজ্ঞ সমাচার

বিনোদন বাজার ॥ প্রতিবারের মতো এবারও ঈদের নাটক নির্মাণ করেছেন বরেণ্য নির্মাতা হানিফ সংকেত। এবারের নাটকের নাম ‘অজ্ঞ-বিজ্ঞ সমাচার’। এ নির্মাতার নাটক মানেই ব্যতিক্রম গল্প। ইদানীংকালের অধিকাংশ নাটকে বাবা-মা’কে খুঁজে পাওয়া না গেলেও হানিফ সংকেতের প্রতিটি নাটকেই থাকে বাবা-মা’র চরিত্র। ফুটে ওঠে পারিবারিক ও সামাজিক চিত্র। আজকাল সমাজে এবং অনেক পরিবারেই নিজের ভাষা বিকৃত করে বাংলিশ চর্চা করা হয়। তেমনই একটি পরিবারের মা এবং সন্তানের বাংলিশ প্রীতি, বাবার প্রতিবাদ এবং আদর্শ পুত্রবধূর আগমনে পরিবারের বিভিন্ন সদস্যদের মধ্যে ঘটতে থাকে নানা ঘটনা।

এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠেছে ‘অজ্ঞ-বিজ্ঞ সমাচার’। নাটকটিতে একটি বিষয় স্পষ্ট হয়ে উঠেছে, আর তা হল- ‘খালি কলসি বাজে বেশি, ভরা কলসি বাজে না’।

নাটকটি ধারণ করা হয় মিরপুরের ফাগুন অডিও ভিশনের নিজস্ব কমপ্লেক্সে। এ নাটকের গল্প সম্পর্কে হানিফ সংকেত বলেন, ‘বলা যায় প্রতিবারের মতো এবারও আমার নাটক একটি পরিবারকে কেন্দ্র করে পারিবারিক গল্পের নাটক।’

নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত, দিলারা জামান, শহীদুজ্জামান সেলিম, মীর সাব্বির, জাকিয়া বারী মম, নিমা রহমান, সাবরিনা নিসা, ফাহিম, নজরুল ইসলামসহ আরও অনেকে। নাটকটি ঈদের দিন রাত ৮টা ৩০ মিনিটে এটিএন বাংলায় প্রচার হবে।

ডিএমএস থেকে ঈদে আসছে সাইদা তানির গান

বিনোদন বাজার ॥ দেশের আলোচিত সঙ্গীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ধ্রুব মিউজিক স্টেশন (ডিএমএস) থেকে ঈদ উপলক্ষে প্রকাশ হচ্ছে প্রতিভাবান কণ্ঠশিল্পী সাইদা তানির নতুন গান।

গানের শিরোনাম ‘বাসনা’। গানটির সঙ্গে যুক্ত সবাই লন্ডন প্রবাসী। জাহাঙ্গীর রানার কথা ও সুরে গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন পরাগ হাসান। লন্ডনের বিভিন্ন লোকেশনে চিত্রায়ণ করে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন শিবলী হাসান।

সুফি ঘরানার এ গানের ভিডিওতে সাইদা তানি করেছেন আরাধনা, পেতে চেয়েছেন ¯্রষ্টার সান্নিধ্য। এ গান প্রসঙ্গে সাইদা তানি বলেন, ‘এটি একটি আত্মতৃপ্তির গান, পরিশুদ্ধির গান। অনেক যতœ নিয়ে কাজটি করেছি আমরা। আশা করছি শ্রোতা-দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’

ধ্রুব মিউজিক স্টেশন জানিয়েছে, ঈদুল আজহার বিশেষ আয়োজনে আজ তাদের ইউটিউবে প্রকাশ করা হবে গানটির ভিডিও। পাশাপাশি এটি শুনতে পাওয়া যাবে ডিএমএস ওয়েবসাইট, জিপি মিউজিক এবং বাংলালিংক ভাইবে।

প্রসঙ্গত, পড়াশোনা করতে গিয়ে লন্ডনেই স্থায়ী হয়ে যান সাইদা তানি। গানের সঙ্গে যুক্ত ছোটবেলা থেকেই। ২০১৪ সালে শাহ আবদুল করিমের গান দিয়ে শুরু হয় সঙ্গীতাঙ্গনের পথচলা।

প্রকাশ করেন একক অ্যালবাম ‘তোমারও পিরিতি’। আধুনিক গানের পাশাপাশি লোকগানেও পারদর্শী তিনি। এরই মাঝে শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন একাধিক রুচিশীল গান-ভিডিও। এ

রই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদে ডিএমএস থেকে প্রকাশ হতে যাচ্ছে তার নতুন গান-ভিডিও ‘বাসনা’।

ইরেশ-মিম দম্পতির ঘরে নতুন অতিথি

বিনোদন বাজার ॥ ইরেশ ও মিম দম্পতির ঘরে এসেছে নতুন অতিথি। তাকে স্বাগতম জানিয়েছে পুরো পরিবার। নতুন অতিথির নাম রাখা হয়েছে মেহা রশীদ যাকের। বুধবার সকাল সোয়া ১০টায় সে পৃথিবীতে এসেছে। মা ও নবজাতক দু’জনেই সুস্থ রয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজেদের প্রথম সন্তানের সংবাদটি ভক্ত, বন্ধুদের সঙ্গে ভাগাভাগি করলেন অভিনেতা ইরেশ যাকের।ইরেশ যাকের সাংবাদিকদের বলেন, বাবা হয়েছি। দাদা–দাদি হয়েছেন আলী যাকের ও সারা যাকের। খালা হয়েছেন অভিনেত্রী মিথিলা।প্রথমবার বাবার হওয়ার অনুতূতি কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, একবার কান্না আসছে, আরেকবার হাসি। কেমন যে লাগছে বোঝাতে পারব না। মা আছে পোস্ট অপারেটিভে আর বাচ্চা নার্সারিতে।সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে খুব শিগগির মা-মেয়েকে একসঙ্গে কেবিনে আনা হবে।গত বছরের ২ ফেব্রুয়ারি তাদের গায়েহলুদ ও ৪ ফেব্রুয়ারি বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়।

সুষমার মৃত্যুতে বলিউড তারকাদের শোক

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের মৃত্যুতে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। শোকের ছায়া নেমেছে বি-টাউনেও। ৬৭ বছর বয়সী এই সাবেক মন্ত্রীর হঠাৎ মৃত্যুর খবর প্রকাশের পরপরই বলিউড তারকারা সামাজিক মাধ্যমে শোক ও শ্রদ্ধা প্রকাশ করেছেন। অনেকে ব্যথিত চিত্তে তার স্মৃতিচারণও করেছেন।শাবানা আজমি, লতা মঙ্গেশকর, অনুপম খের, পরিণীতি চোপড়া, জাভেদ আখতার, অনিল কাপুর, স্বারা ভাস্কর, সানি দেওল, রিতেশ দেশমুখ, একতা কাপুর, মধুর ভান্ডারকর, আয়ুষ্মান খুরানা এবং আরো অনেকেই রয়েছেন এই তালিকায়। করে লিখেছেন, ‘সুষমা স্বরাজজীর হঠাৎ চলে যাওয়ায় আমি প্রচন্ড শোকাহত। তিনি ছিলেন স্বাভাবিকভাবেই মাধুর্যপূর্ণ ও সৎ নেত্রী। একজন সংবেদনশীল ও নিঃস্বার্থ ব্যক্তি ছিলেন তিনি। আমার এই প্রিয় বন্ধু সঙ্গীতকে গভীর থেকে অনুভব করতেন। আমাদের সাবেক বিদেশমন্ত্রীকে আগামীতেও শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা হবে।’

বর্ষীয়ান অভিনেতা অনুপম খের টুইটারে লাইভে এসে সুষমা স্বরাজের স্মৃতিচারণ করেছেন।

অভিনেতা বোমান ইরানি সুষমার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে টুইটারে লেখেন, ‘তিনি ছিলেন প্রকৃতির এক শক্তি। খুব তাড়াতাড়ি চলে গেলেন। অসময়ে সংবাদটি পেয়ে আমি অত্যন্ত মর্মাহত। জাতির জন্য এ এক অপূরণীয় ক্ষতি।’

পরিণীতি চোপড়া তার অনুভূতির কথা লিখেছেন, ‘সুষমাজীর মতো আমিও আম্বালা ক্যান্টনমেন্ট থেকে এসেছি। সবসময় গর্ব অনুভব করি, আমাদের ছোট শহর থেকে উঠে আসা একজন নারী এত বড় হয়েছেন, দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। আপনি শান্তিতে বিশ্রাম নিন। ব্যক্তিগতভাবেই আপনি আমাকে অনুপ্রাণিত করেছেন।’

শাবানা আজমি লিখেছেন, ‘সুষমা স্বরাজের মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। রাজনৈতিক মতের ভিন্নতা থাকলেও আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত আন্তরিক ছিল। আমি তার নবরতেœর মধ্যে একজন ছিলাম। তিনি সিনেমাকে শিল্পের মর্যাদা দিয়েছিলেন। তার বক্তব্য ছিল সহজবোধ্য, অত্যন্ত তীক্ষ্ণ ও স্পষ্ট।’

সম্প্রতি ভারতের সংবিধানে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ায় নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ দিয়ে টুইটারে বার্তা দিয়েছিলেন সুষমা স্বরাজ। জীবনের সর্বশেষ টুইটবার্তায় সুষমা স্বরাজ লিখেছেন, ‘আপনাকে ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী। আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আমি আমার সারাটা জীবন ধরে এই দিনটি দেখার জন্য অপেক্ষা করছিলাম।’

মঙ্গলবার (০৬ আগস্ট) সন্ধ্যা ৭টা বেজে ৫৩ মিনিটে সুষমা স্বরাজ এই টুইট পোস্ট করেন। এর কিছুক্ষণ পরে বুকে ব্যথা অনুভব করায় রাত সোয়া ১০টার দিকে তাকে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স (এআইআইএমএস) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হৃদরোগে আক্রান্ত এই বিজেপি নেত্রীকে দ্রুত ইমার্জেন্সিতে নিয়ে যাওয়া হয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়।

লাখ পেরিয়ে ‘আঁধার’

বিনোদন বাজার ॥ ঈদ উপলক্ষে অডিও কোম্পানি ‘সিডি চয়েস মিউজিক’-এর ব্যানানে বাজারে এসেছে কণ্ঠশিল্পী সানি আজদের নতুন এবং মিউজিক ভিডিও ‘আঁধার’। দুই সপ্তাহে ‘আঁধার’ গানটি দেখেছেন এক লাখেরও বেশি মানুষ। সানি বলেন, আমি খুবই আনন্দিত। মাত্র দুই সপ্তাহে গানটি এক লাখ ভিউ পার করেছে। আমি আশা করছি; গানটি আরো অনেক দূর যাবে। ‘আঁধার’ গানের মিউজিক্যাল ফিল্মটি পরিচালনা করেছেন স্বাধীন ফুয়াদ। গানটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন জাহিদ বাশার পংকজ। কথা লিখেছেন রেজাউর রহমান রিজভী। সুর করেছেন প্লাবন কোরেশী।

ছোট ভাইয়ের পরিচালনায় বড় ভাই

বিনোদন বাজার ॥ আসন্ন ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’। শাকিব ও বুবলী জুটির এই সিনেমার সংগীত পরিচালনা করেছেন সংগীতশিল্পী, গীতিকার ও সংগীত পরিচালক শফিক তুহিন। টাইটেল গানটি গেয়েছেন জাহাঙ্গীর সাঈদ।গানটি প্রসঙ্গে তুহিন বলেন, ‘আমার বড় ভাই জাহাঙ্গীর সাঈদ। এক সময় নিয়মিত গান করলেও এখন আর পাওয়া যায় না তাঁকে। আমার সংগীত পরিচালনায় এই গানটি আশা করি শ্রোতাদের ভালো লাগবে।’ শাকিব খানের লিপে টাইটেল গানটি দেখা যাবে এই চলচ্চিত্রে। গানটির কোরিওগ্রাফি করেছেন হাবিব। ছবিটি ১শ’টিরও বেশি হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন রাজু। এরইমধ্যে ছবির একটি গান ইউটিউবে রিলিজ পেয়েছে।

 

বাংলাদেশ নিয়ে যা বললেন ‘সারেগামাপা’ চ্যাম্পিয়ন অঙ্কিতা

বিনোদন বাজার ॥ জি-বাংলার সংগীতবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘সারেগামাপা-২০১৯’ এর মুকুট উঠেছে অঙ্কিতা ভট্টাচার্যের মাথায়।আসরের শুরু থেকেই সুরের মায়াজালে আটকে রেখেছিলেন শোয়ের বিচারক ও দর্শক-শ্রোতাদের।খুব সাধারণ ঘরের ষোড়শীকন্যা অঙ্কিতা। তবে সারেগামাপায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর থেকেই বদলে গেছে অঙ্কিতার চেনা পৃথিবী। রাতারাতি তারকাখ্যাতি পেয়েছেন। তাকে দেখতে ও অভিনন্দন জানাতে ভিড় জমাচ্ছেন ভক্তরা।ভারতীয়রা তো বটেই বাংলাদেশ থেকেও তাকে দেখতে অনেকে তার বাড়িতে আসছেন। বাংলাদেশের এক গণমাধ্যমকে এমনটিই জানালেন এবারের ‘সারেগামাপা’ চ্যাম্পিয়ন। বাংলাদেশের কথা উঠতেই চোখ চকচক করে ওঠে অঙ্কিতার। অনেকটা আবেগপ্রবণ হয়ে ওঠেন। তার গলায় শেকড়ের টান অনুভূত হয়। আর তা হবারই। তিনি জানান, বাংলাদেশের সঙ্গে যে বড় এক বন্ধন জুড়ে আছে তার। ভারতের উত্তর ২৪ পরগনার গোবরডাঙার শ্রীপুর গ্রামে জন্ম অঙ্কিতার। সেখানে ইছাপুর হাইস্কুলে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ছেন। অঙ্কিতা জানান, ‘উত্তর ২৪ পরগনায় আমার জন্ম হলেও আমার পূর্বপুরুষ এসেছেন বাংলাদেশের সাতক্ষীরার কলারোয়া থেকে। আমার দাদা একজন বাংলাদেশি। সে কথা তাদের জানা বলেই হয়তো আমার প্রতি আলাদা টান অনুভব করেছেন বাংলাদেশিরা। তাই কাঁটাতার পেরিয়ে ফুলের তোড়া হাতে আমাকে দেখতে শ্রীপুরে এসেছেন অনেক বাংলাদেশি। আমি এতে অবাক ও আনন্দিত।’ তিনি যোগ করেন, ‘এসব বাংলাদেশির কেউ আমার পরিচিত নয়, বন্ধুও নয়; তারা আমার শুভাকাক্সক্ষী। শেকড়ের সম্পর্কেই তারা আমাকে দেখতে এসেছেন, সংবর্ধনা দিয়েছেন। আমি এতে কৃতজ্ঞ। তাদের ভালোবাসা পাওয়া আমার জন্য গর্বের।’বাংলাদেশিভক্তদের নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এভাবেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন অঙ্কিতা। বলতে শুরু করেন তার আদি নিবাসে যাওয়ার ব্যাকুলতার কথা।তিনি বলেন, ‘বাবার মুখে সাতক্ষীরার গল্প শুনে শুনে বড় হয়েছি। একটা স্বপ্নও বুনেছিলাম আমি। পাসপোর্ট হাতে পেলেই দাদার বাড়ি বাংলাদেশে আসব।’সে স্বপ্নের কিছুটা পূরণও হয়েছে অঙ্কিতার। কয়েক মাস আগে একটি কনসার্টে অংশ নিতে ফরিদপুরে এসেছিলেন তিনি।এ বিষয়ে অঙ্কিতা বলেন, ‘প্রথম পা রেখেছিলাম দাদার ভিটেমাটির দেশে। নেমেই বাংলাদেশকে প্রণাম করেছি। সেই সময় অদ্ভুত এক অনুভূতি হচ্ছিল শরীরে। বিষয়টি ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।’সারেগামাপার মুকুট জয়ের পর বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রের গানে প্লেব্যাকের প্রস্তাব পেয়েছেন অঙ্কিতা।ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রের গানে প্লেব্যাকের প্রস্তাব পাওয়ার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি প্লেব্যাক সিঙ্গার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আর বাংলাদেশের চলচ্চিত্রেও গান করতে চাই।’তিনি জানান, ‘সুযোগ পেলেই বাংলাদেশে বারবার আসব। সেখানে বিভিন্ন কনসার্টে যোগদান করতে আমি বেশ আগ্রহী।’

ঈদ আনন্দমেলার উপস্থাপক পপি ও ফেরদৌস

বিনোদন বাজার ॥ ঈদ উপলক্ষে নির্মিত হয় বিটিভির বিশেষ ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান আনন্দমেলা। এবারের আনন্দমেলা উপস্থাপনা করেছেন চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভীন পপি ও চিত্রনায়ক ফেরদৌস।

সম্প্রতি বিটিভির নিজস্ব স্টুডিওতে অনুষ্ঠানটি ধারণ করা হয়েছে।

এর আগে একই অনুষ্ঠান ফেরদৌস উপস্থাপনা করলেও পপির জন্য এটাই প্রথম। শুধু আনন্দমেলাই নয়, এর মাধ্যমে ক্যারিয়ারে প্রথমবার উপস্থাপনা করলেন পপি। স্বভাবতই অনুষ্ঠানটি নিয়ে তিনি যারপরনাই উচ্ছ্বসিত।

কেমন লেগেছে প্রথম উপস্থাপনা, জানতে চাইলে পপি বলেন, ‘কিছুটা টেনশন তো ছিলই। তবে ভয় ছিল না। কারণ ক্যামেরার সামনে এতবেশি কাজ করেছি, তাই ভয় পাওয়ার মতো কিছু ছিল না।

টেনশন ছিল, এতদিন যেসব কাজ করেছি সেগুলো ডাবিং কিংবা স্কিপ্টিং ছিল। উপস্থাপনায়ও অবশ্য স্ক্রিপ্ট থাকে। কিন্তু সেখানে নিজের মেধা খাটিয়ে কিছু বলতে হয়। অবশেষে সেটা করতে পেরেছি। বেশ ভালো লাগছে। আনন্দমেলা বিটিভির জনপ্রিয় একটি অনুষ্ঠান। আশা করি দর্শকরা দেখে আনন্দ পাবেন।’

উপস্থাপনায় নিয়মিত হবেন কী না, এমন প্রশ্নের উত্তরে পপি বলেন, ‘প্রথমবার কাজ করে তো ভালোই লেগেছে। ভালো কিছু হলে অবশ্যই করব। তবে আগে আমার অভিনয়। সেটাকেই প্রাধান্য দিতে চাই। এরপর অন্যকিছু।’ এদিকে ফেরদৌসও এবারের অনুষ্ঠানটি করে তৃপ্ত বলে জানিয়েছেন।

শামীম জামানের ফাঁদে ভুলোমনা মোশাররফ

বিনোদন বাজার ॥ মতিন সাহেব, পেশায় একজন স্কুলশিক্ষক। ছাত্রছাত্রীদের জ্ঞান দেয়া তার কাজ হলেও অত্যন্ত ভুলোমনা একজন মানুষ তিনি। শুক্রবার ছুটির দিনেও ভুল করে স্কুলে চলে যাওয়ার স্বভাব রয়েছে তার। এ নিয়ে পরিবার ও জনমনে চলে নানা আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। অন্যদিকে রমজান আলী একই পেশার হলেও আপাদমস্তক মতিন সাহেবের বিপরীত ধাঁচের মানুষ। তার স্মরণশক্তি অত্যন্ত প্রখর। পূর্বপুরুষদের নামসহ যে কোনো ঘটনা মনে রাখতে পারেন দীর্ঘদিন।

ঘটনাক্রমে তাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। শুরু হয় নাটকীয়তা। এমন গল্প নিয়েই নির্মিত হয়েছে ধারাবাহিক নাটক ‘আনমাইন্ডফুল’।

এতে মতিন সাহেব ও রমজান আলীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম ও শামীম জামান। আশরাফুল চঞ্চলের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন শামীম জামান। সম্প্রতি মানিকগঞ্জ জেলার জাফরগঞ্জের যমুনা নদীর তীরে বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে নাটকটির দৃশ্যায়ন করা হয়েছে।

নাটকে নিজ চরিত্র প্রসঙ্গে মোশাররফ করিম বলেন, ‘এই নাটকে আমি একজন স্কুলশিক্ষক। গল্প ও চরিত্র আমার অনেক পছন্দ হয়েছে। কিছু শিক্ষনীয় বিষয়ও আছে। আশা করি নাটকটি দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’

নাটকটি নির্মাণ প্রসঙ্গে শামীম জামান বলেন, ‘নাটকের গল্প দারুণ। ঈদে সাধারণত মানুষ আনন্দে সময় কাটাতে চায়। নাটকটি দর্শকদের চাহিদাকে কেন্দ্র করে নির্মিত হয়েছে। এর মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম। আমি তাকে সঙ্গ দিয়েছি বলা যায়। আশা করি সবার ভালো লাগবে।’ এতে অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন আনিকা কবির শখ, শিল্পী সরকার অপু, নুর আলম নয়ন প্রমুখ। নাটকটি ঈদুল আজহা উপলক্ষে আরটিভিতে প্রচার হবে।