বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালানোর খেসারত

দৌলতপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় যুবক নিহত : আহত-১

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক আলাল (২১) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে মোটরসাইকেল আরোহী অপর যুবক শহিদ (২৫)। গতকাল শনিবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার ভাগজোত কাষ্টম মোড়ে এ দূর্ঘটনা ঘটেছে। আহত যুবককে আশংকাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, আলাল মোটরসাইকেলের পেছনে শহিদকে বসিয়ে দ্রুত গতিতে মুন্সিগঞ্জ সীমান্ত থেকে মহিষকুন্ডি যাওয়ার পথে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার পাশের এক বাড়ির প্রাচীরে ধাক্কা খায়। এতে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে চালক আলাল ঘটনাস্থলেই নিহত হয় এবং গুরুতর আহত শহিদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। নিহত আলাল মহিষকুন্ডি ডাকপাড়া এলাকার দুলালের ছেলে এবং আহত শহিদ ভাগজোত কাষ্টম মোড় এলাকার সাহেব আলীর ছেলে। দুর্ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় রামকৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল নিশ্চিত করে জানান, বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালানোর সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার পাশে এক প্রাচীরে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে মোটরসাইকেলে পেছনে বসে থাকা একজন। তাকে রাজশাহী প্রেরণ করা হয়েছে। দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান সড়ক দূর্ঘটনায় একজন নিহত ও একজন আহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে হতাহতরা মাদকাসক্ত ছিল বলে এলাকাবাসী  সূত্রে জানাগেছে।

ইবিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনাসভায় ভিসি ড. রাশিদ আসকারী

মাতৃভাষার পাশাপাশি আমাদেরকে অন্য ভাষা জানতে হবে

ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেছেন, ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ এই শ্লোগানটি পরবর্তীতে বাংলা ভাষার রাষ্ট্র চাই বাস্তবতায় রূপান্তরিত হয়েছে। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার মধ্যদিয়ে যে রাষ্ট্রটি অস্তিত্ববান হয় এবং ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তান বাহিনীর আত্মসমর্পণ’র মধ্যদিয়ে তা বাস্তবায়িত হয়। ১৯৭২ সালের সেই রাষ্ট্রটির মহান সংবিধানে লিপিবদ্ধ থাকে প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রভাষা হবে বাংলা। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর গুরুত্বপূর্ণ ২০০ ভাষণ রয়েছে এমনকি আমাদের দেশের অনেক কবি সাহিত্যিকদের অসংখ্য লেখা রয়েছে যা অন্য ভাষায় অনুবাদ না হওয়ায় কারণে বিশ^বুকে স্থান করে নিতে পারেনি। তাই মাতৃভাষার পাশাপাশি আমাদেরকে অন্য ভাষাও জানতে হবে। ২১ শতকের এই পৃথিবীতে প্রতিটি মানুষকে মাতৃভাষার সাথে সহায়ক ভাষা জানার কোন বিকল্প নেই। ভিসি বলেন, আমাদের মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষা করতে হবে। তবে লক্ষ্য রাখতে হবে মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষা করতে গিয়ে অন্য ভাষা যেন আগ্রাসনের স্বীকার না হয়। গতকাল শনিবার দুপুরে বাংলা মঞ্চে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের আয়োজনে একুশে ফেব্র“য়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. রাশিদ আসকারী এসব কথা বলেন। ছাত্র-উপদেষ্টা ও একুশে ফেব্র“য়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক প্রফেসর ড. মোহাঃ সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে দিয়েছেন ভাষার স্বাধীনতা, দিয়েছেন লাল-সবুজের পতাকা। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় আজ বাংলা ভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আজ এ দিনটি পালিত হচ্ছে। অপর বিশেষ অতিথি ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, একুশে ফেব্র“য়ারিতে মুজিববর্ষের ছোঁয়া লাগায় এ বছর মাতৃভাষা দিবস ভিন্ন মাত্রিকতা পেয়েছে। তিনি বলেন, একুশ আমাদের সাহস যুগিয়েছিল। একুশের এই সাহসই আমাদের মুক্তির আন্দোলনকে সফল করে তুলেছিল। সভায় প্রধান আলোচক ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর প্রফেসর শামসুজ্জামান খান বলেন, ষোড়শ শতাব্দী থেকে ভাষার আন্দোলন শুরু হয়েছিল। ১৯১৮ সালে বাংলা সাহিত্যের শক্তিশালী ভিত রচিত হয়। ১৯২৬ সালে ‘শিখা’ পত্রিকার মাধ্যমে মুক্তবুদ্ধি চিন্তা শুরু হয়। তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালে পাকিস্তান ও ভারত প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি উঠে। তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালের ৪ মার্চ বঙ্গবন্ধু মাতৃভাষা অধিকার, জমিদারি প্রথা বাতিল এবং প্রাথমিক শিক্ষা বাধ্যতামূলক করার দাবিতে লিফলেট প্রচার করেছিলেন। এ ঘটনায় বোঝাযায় বঙ্গবন্ধু ১৯৪৮ সাল থেকেই ভাষার আন্দোলন শুরু করেছিলেন। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ। সভা সঞ্চালনায় ছিলেন রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শিরিন আক্তার বিথি।

 

শেষ মুর্হুতের প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে

কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির ভোট গ্রহণ মঙ্গলবার

আরিফ মেহমুদ ॥ শেষ মুর্হুতে কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে। আগামী ২৫ ফেব্র“য়ারী মঙ্গলবার কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির কার্য্য নির্বাহী পরিষদের ২০২০-২০২১ বর্ষের সাধারণ নির্বাচন। নির্বাচন কমিশন ইতোমধ্যেই ভোট গ্রহনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। জেলা আইনজীবী ভবনের নীচতলায় হলরুমে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত। সমিতির ৩৮৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে পছন্দের প্রার্থীদের জয়যুক্ত করবেন। মঙ্গলবার সেই মাহিন্দ্রক্ষণ। নির্বাচনে কারা জয়যুক্ত হয়ে কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃত্বে আসছেন তা নিয়ে সরগরম আদালতপাড়া এবং সেদিকেই চেয়ে আছেন কুষ্টিয়া জেলাবাসী।

নির্বাচন কমিশন সূত্র নিশ্চিত করেছেন এবারের নির্বাচনে ১৭টি পদের জন্য ৩৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এবারের নির্বাচনেও আগের মতই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই হবে বলে ভোটারদের ধারনা। নির্বাচনে এখন প্রায় প্রকাশ্যে দুটি প্যানেলের প্রার্থী-কর্মী সমর্থকরা দল বেধে ভোট  চেয়েছেন ভোটারদের কাছে। হ্যাভিওয়েট প্রার্থীরা কে কোন প্যানেলের প্রার্থী সেটি কিন্তু ভোটারদের কাছে পরিস্কার হয়ে উঠেছে। নির্বাচন নিয়ে আইনজীবীদের মাঝে উত্তাপের আমেজ বইছে। প্রার্থীরা খুব জোরে-সরেই নির্বাচনী মাঠে নেমেছিলেন। চলেছে নিজ নিজ সেরেস্তার আইনজীবীদের নিয়ন্ত্রণের জোর চেষ্টা।  পেশাগত হাজারো ব্যস্ততার মধ্যেও ভোটকে কেন্দ্র একে অপরের সাথে দেখা করেছেন এবং ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেছেন প্রার্থীরা।

নির্বাচন কমিশন সুত্রে জানা যায়, এবারের নির্বাচনে চুড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দুইজন প্রার্থী কুষ্টিয়ার পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) বর্তমান সভাপতি এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী ও সিনিয়র আইনজীবী এ্যাড. আব্দুল জলিল। সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে দুইজন এ্যাড. কাজী ইমদাদুল হক ও তানজিলুর রহমান এনাম, সহ-সভাপতি দুইজন এ্যাড. মঞ্জুরী বেগম ও এ্যাড. আব্দুল ওয়াদুদ। সাধারন সম্পাদক পদে চারজন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এরা হলেন- সিনিয়র আইনজীবি ও সাবেক ছাত্রনেতা এ্যাড. আকরাম হোসেন দুলাল, সিনিয়র আইনজীবী বর্তমান সাধারন সম্পাদক এ্যাড. শেখ মোহাম্মদ আবু সাঈদ, সিনিয়র আইনজীবি এ্যাড. খাদেমুল ইসলাম ও এ্যাড. রফিকুল ইসলাম সবুজ। যুগ্ম-সম্পাদক পদে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এরা হলেন-এ্যাড. আল মুজাহিদ হোসেন মিঠু, এ্যাড. এস.এম মনোয়ার হোসেন মুকুল, এ্যাড. ইকবাল হোসেন টুকু ও এ্যাড. শহিদুল ইসলাম বাবু। কোষাধ্যক্ষ পদে দুইজন এ্যাড. আব্দুর রশিদ (২), এ্যাড. বুলবুল আহমেদ। লাইব্রেরী সম্পাদক পদে দুই জন এ্যাড. এস.এম শাতীল মাহমুদ ও এ্যাড.  মোস্তাফিজুর রহমান। সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে এ্যাড. নাজমুন নাহার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। দপ্তর সম্পাদক পদে এ্যাড. আবুল হাশিম, এ্যাড. মনোয়ারুল ইসলাম (মনিরুল) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সিনিয়ার সদস্য ৪ টি পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এরা হলেন-সিনিয়র এ্যাড. শামসুজ্জামান মনি, এ্যাড. ইকবাল হোসেন (১) এ্যাড. তরুন কুমার বিশ্বাস, এ্যাড. মাহমুদুল হক চঞ্চল, এ্যাড. কাজী সিদ্দিক আলী, এ্যাড. নিজাম উদ্দিন ও এ্যাড. আব্দুর রহীম। জুনিয়র সদস্য ৪ টি পদে ৫ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এরা হলেন-এ্যাড. শামীম হোসেন, এ্যাড. মখলেছুর রহমান পিন্টু, এ্যাড. ইমরান হোসেন দোলন, এ্যাড. সালমা সুলতানা ও এ্যাড. আব্দুর রাজ্জাক। এবারের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সিনিয়র আইনজীবী এ্যাড. এস.এম আনসার আলী। নির্বাচন কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এ্যাড.মতিয়ার রহমান (১) ও এ্যাড. আশরাফ হোসেন।

শিল্পকলা একাডেমিতে বঙ্গবন্ধুর ওপর প্রদর্শনী ঘুরে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী ও শেখ রেহানা

ঢাকা অফিস ॥ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালায় ‘লাইটিং দ্য ফায়ার অব ফ্রিডম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ শিরোনামে আয়োজিত প্রদর্শনী ঘুরে দেখলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার বোন শেখ রেহানা। ২১ ফেব্র“য়ারি বিকেলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে নিজের বক্তব্য শেষে এই প্রদর্শনী ঘুরে দেখার সময় তাদের সঙ্গে আরো উপস্থিত ছিলেন সায়মা ওয়াজেদ পুতুল। প্রদর্শনীতে এসে বিভিন্ন চিত্রকর্ম ও আলোকচিত্র দেখার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবির সামনে দাঁড়িয়ে সেলফি তোলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার বোন শেখ রেহানা এবং মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ। এ সময় চিত্রকর্মগুলো নিয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী রবীন্দ্র সঙ্গীত নিষিদ্ধ করার পর তৎকালীন পত্রিকায় প্রকাশিত একটি সংবাদ প্রদর্শনীতে দেখে সরাসরি আন্দোলনে অংশ নেয়ার স্মৃতিচারণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি জানান, তাদের আন্দোলন অংশ নেয়ার ছবি পত্রিকায় প্রকাশিত হলে কয়েকদিন বাসা থেকে বের হতে দিতেন না মা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। এ সময় প্রদর্শনীতে দেখানো জাতির পিতার ৭ মার্চের ভাষণ শুনে আবেগে আপ্লুুত হয়ে যান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দুই কন্যা। একে অপরকে জরিয়ে ধরে সম্পূর্ণ ভাষণ শোনেন। সবশেষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত অন্যান্য শিল্পকর্মগুলো ঘুরে দেখেন তাঁরা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকছে ‘লাইটিং দি ফায়ার অব ফ্রিডম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ প্রদর্শনীর কার্যক্রম। শিল্পকলা একাডেমিতে ৭ থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি সিসমিক মুভমেন্ট নিয়ে আয়োজন করা হয় ঢাকা আর্ট সামিট। মুজিববর্ষে পালনের অংশ হিসেবে এই আয়োজনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে রাখা হয় বিশেষ প্রদর্শনী ‘লাইটিং দি ফায়ার অব ফ্রিডম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’। ঢাকা আর্ট সামিট শেষ হয়ে গেলেও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আয়োজিত এই প্রদর্শনী সাধারণ দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত। আয়োজিত এই প্রদর্শনীতে তথ্যগত সহয়তা প্রদান করে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)।

কুষ্টিয়ায় অমর একুশের আলোচনা সভা ও বই মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে ডিসি আসলাম হোসেন

একটি ভাষা থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্বের বুকে একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটিয়েছেন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেন- বাংলা ভাষা থেকে বাংলাদেশ। স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। একটি ভাষা থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশে^র বুকে একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের অভ্যুদয় ঘটিয়েছেন। কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বরে শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভা ও অমর একুশে বই মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন আরো বলেন- আমাদের ভাষা, আমাদের দেশ সংস্কৃতি নির্ভর। বাঙালি সংস্কৃতিকে আর কোন অপশক্তি কেড়ে নিতে পারবে না। কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আজাদ জাহানের সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মৃণাল কান্তি দে, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ¦ সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী, আওয়ামীলীগ নেতা শেখ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ মিন্টু, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. আখতারুজ্জামান মাসুম। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব ওবায়দুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট লুৎফুন নাহার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, সিনিয়র তথ্য অফিসার তৌহিদুজ্জামান, জেলা শিশু কর্মকর্তা মখলেছুর রহমান। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এনডিসি মুছাব্বিরুল ইসলাম। আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ ও বইমেলার স্টলসমূহের মধ্যে ৩ জনকে পুরস্কৃত করেন প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেনসহ অতিথিবৃন্দ।

কুষ্টিয়া শহরের উদিবাড়ী কলোনীর রাস্তা ও ড্রেণ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন মেয়র আনোয়ার আলী

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৮নং ওয়ার্ডের উদিবাড়ী কলোনীর রাস্তার ও ড্রেণ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী। উদ্বোধনকালে মেয়র আনোয়ার আলী বলেন- বাংলাদেশ সরকার, এডিবি এবং এফআইসি সহায়তাপুষ্ট তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ (সেক্টর) প্রকল্পের আওতায় বেসিক সার্ভিস টু দি আরবান পুয়র খাতে বস্তি উন্নয়ন কমিটি (সিচ) এর মাধ্যমে কুষ্টিয়া পৌরসভার বাস্তবায়নে এই অঞ্চলে ১০৫২.৪৭ মিটার আরসিসি রাস্তা, ৭০৬ মিটার আর সিসি ড্রেন, ৭টি টুইন পিট টয়লেট, ৫ টি হাত টিউবয়েল, ১ টি ডাস্টবিন, ১ সোলার স্ট্রিট লাইট স্থাপন করা হবে এবং  ফুটপাতের পাশে ১০০টি গাছ লাগানো হবে। তিনি আরো বলেন, পৌর এলাকায় ২১টি ওয়ার্ডে ৪১টি সিডির মাধ্যমে নারীর সহিংসতা প্রতিরোধে ও নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি এবং অবকাঠামো উন্নয়নসহ দারিদ্র দূরিকরনের জন্য হাতের কাজ শেখানোর পাশাপাশি ব্যবসা অনুদান, দারিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষাবৃত্তি এবং মায়েদের পুষ্টি সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। মেয়র মায়েদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনার ছেলে-মেয়েরা যদি মেধাবী হয় তাহলে তাদের লেখাপড়ার খরচের যোগান দিবো আমি। আর যদি মেধাবী না হয় তাহলে লেখাপড়ার পাশাপাশি হাতের কাজ শেখানোর পরামর্শ দেন। মেয়র আরোও বলেন, ২১টি ওয়ার্ডে আরো নতুন সিডিসি গঠন করা হচ্ছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে চাহিদা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে অবকাঠামো নির্মানের পাশাপাশি টিউবয়েল, ডাস্টবিন, সোলার সহ পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষারর্থে বৃক্ষরোপন করা হবে। আপনাদের সহযোগীতায়   পৌরবাসীর সকল নাগরিক সেবা প্রদানের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। পরে স্থানীয়দের সাথে এলাকার বিভিন্ন সমস্যা ও উন্নয়নমূলক কাজের বিষয়ে মতবিনিময় করেন। এসময় স্থানীয়রা পৌর এলাকার চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখার জন্য পূনরায় মেয়র আনোয়ার আলীকে নির্বাচন করার আহবান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর শাহ জালাল, নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম, বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা একেএম মঞ্জুরুল ইসলামসহ এই প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

গণআন্দোলন শুরু করতে আর দেরি নয় – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ দুর্বার গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, এই গণআন্দোলন গড়ে তোলতে আর দেরি করা হবে না। কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে হওয়া সব মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে মিছিল শেষে সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। রিজভী বলেন, অবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জন্য আমাদের দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এই গণআন্দোলন শুরু করতে আর বিলম্ব করা যাবে না, এ মুহূর্তে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। কারণ বর্তমান সরকার অগণতান্ত্রিক সরকার, অনির্বাচিত সরকার। ‘এই সরকারের মাধ্যমে সুষ্ঠু নির্বাচন এবং গণতন্ত্রের অধিকার ফিরে পাওয়া সম্ভব নয়। দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তির মধ্য দিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে, মানুষের ব্যক্তিস্বাধীনতা ফিরে আসবে। দেশে যে গুম-খুনের আতঙ্ক বিরাজ করছে, সেই ভয়াল পরিস্থিতি থেকে মানুষ উদ্ধার হবে’-যোগ করেন বিএনপির এই নেতা। সরকারের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এই সরকার দেশের অর্থনীতিটা ধ্বংস করে দিয়েছে। অসংখ্য বেকার তরুণ হতাশার মধ্যে নিমজ্জিত। চারদিকে শুধু নৈরাজ্যের বিভীষিকা। দেশের জনগণ এক ভয়ঙ্কর অশান্তির মধ্যে দিনযাপন করছে। ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী ভয় দেখিয়ে দেশ শাসন করছে। কিন্তু এই ভয়কে উপেক্ষা করেই দেশের জনগণ এই সরকারের পতনের জন্য এখন ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে। মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক কেন্দ্রীয় সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মনির, সাবেক সদস্য ডা. জাহিদুল কবির, সাবেক ছাত্রনেতা আহসান উদ্দিন খান শিপন, মামুন ভূঁইয়া, মেহেবুব মাসুম শান্ত, কায়সার আপেল, নাজমুল হুদা, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহসভাপতি ওমর ফারুক কাওসার, যুগ্ম সম্পাদক শাহ নেওয়াজ, সহসাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান রনি, সরিষাবাড়ী উপজেলার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদুর রহমান হীরু প্রমুখ।

একুশে পদক হস্তান্তর করলেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অমর একুশে ফেব্রুয়ারি এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রাক্কালে ২০ ব্যক্তি এবং এক প্রতিষ্ঠানের মাঝে ‘একুশে পদক-২০২০’ হস্তান্তর করেছেন। তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসরকারী সম্মাননা ‘একুশে পদক’ এ বছরের বিজয়ী ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের মাঝে বিতরণ করেন।এরআগে, গত ৫ ফেব্রুয়ারি নিজ নিজ ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ২০২০ সালের একুশে পদক বিজয়ী হিসেবে ২০ ব্যক্তি এবং এক প্রতিষ্ঠানকে পদক প্রদানের তালিকা ঘোষণা করে।পদকপ্রাপ্তরা হলেন- ভাষা আন্দোলনে মরহুম আমিনুল ইসলাম বাদশা (মরণোত্তর), শিল্পকলায় (সংগীত) বেগম ডালিয়া নওশিন, শঙ্কর রায় ও মিতা হক, শিল্পকলায় (নৃত্য) মো. গোলাম মোস্তফা খান, শিল্পকলায় (অভিনয়) এম এম মহসীন, শিল্পকলায় (চারুকলা) অধ্যাপক শিল্পী ড. ফরিদা জামান, মুক্তিযুদ্ধে মরহুম হাজি আক্তার সরদার (মরণোত্তর), মরহুম আব্দুল জব্বার (মরণোত্তর), মরহুম ডা. আ আ ম মেসবাহুল হক (বাচ্চু ডাক্তার) (মরণোত্তর), সাংবাদিকতায় জাফর ওয়াজেদ (আলী ওয়াজেদ জাফর), গবেষণায় ড. জাহাঙ্গীর আলম, হাফেজ-ক্বারী আল্লামা সৈয়দ মোহাম্মদ ছাইফুর রহমান নিজামী শাহ, শিক্ষায় অধ্যাপক ড. বিকিরণ প্রসাদ বড়ুয়া, অর্থনীতিতে অধ্যাপক ড. শামসুল আলম, সমাজসেবায় সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, ভাষা ও সাহিত্যে ড. নুরুন নবী, মরহুম সিকদার আমিনুল হক (মরণোত্তর) ও কবি,সহিত্যিক, মুক্তিযোদ্ধা বেগম নাজমুন নেসা পিয়ারি এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে প্রসূতি মায়ের জীবন রক্ষায় সায়েবা’স কীটের উদ্ভাবক অধ্যাপক ডা. সায়েবা আখতার। পাশাপাশি ‘গবেষণা’য় একুশে পদকের জন্য মনোনীত হয়েছে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট। পদক বিজয়ীরা প্রত্যেকে নিজ নিজ এবং মরণোত্তর পদক বিজয়ীদের পক্ষে তাঁদের পুত্র ও কন্যাগণ প্রধানমন্ত্রীর নিকট থেকে পদক গ্রহণ করেন। বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট’র পক্ষে পদক গ্রহণ করেন এর মহাপরিচালক ড.ইয়াহিয়া মাহমুদ।বায়ান্ন’র একুশে ফেব্র“য়ারি ভাষা আন্দোলনের শহীদদের মহান আত্মত্যাগ স্মরণে সরকার প্রতি বছর বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এই পুরস্কার দিয়ে আসছে।পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেককে ৩ তোলা ওজনের ১৮ ক্যারেট সোনার তৈরী একটি স্বর্ণপদক, পুরস্কারের অর্থের চেক এবং একটি সম্মাননাপত্র প্রদান করা হয় । সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সচিব ড.মো.আবু হেনা মোস্তফা কামাল স্বাগত বক্তৃতা করেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বিজয়ীদের সাইটেশন পাঠ করেন। মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাবৃন্দ, বিচারপতিবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, তিন বাহিনী প্রধানগণ, সরকারের উর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ, কবি, সাহিত্যিক, লেখক, শিল্পী, সাংবাদিক সহ বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ, অতীতে একুশে পদক বিজয়ীগণ, বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও সংস্থার প্রধান এবং আমন্ত্রিত অতিথিগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

করোনা ভাইরাসে ইরানের দুই জনের মৃত্যু

ঢাকা অফিস ॥ চীনে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনা ভাইরাস। ইতমধ্যে এই ভাইরাস বিশ্বের ২৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে ইরানে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাতে তাদের মৃত্যুর খবর জানানো হয়। তবে মৃত দুই জনের যে দুইজন পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। আলজাজিরার খবরে খবরে বলা হয়েছে, এই ভাইরাসে চীনে কমপক্ষে ২,০০৪ জন মারা গেছে। সমগ্র চীনে মোট ৭৪,১৮৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তাদের বেশিরভাগ হুবেই প্রদেশ এবং এর রাজধানী উহান প্রদেশের। যাত্রীরা বিচ্ছিন্ন ডায়মন্ড প্রিন্সেস ক্রুজ জাহাজ ছেড়ে যাত্রা শুরু করায় নতুন করোনাভাইরাসের জন্য ইতিবাচক পরীক্ষার পর ইরানে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে সোমবার তেহরানের একটি হাসপাতালে এক নারীর মৃত্যু হয়। কিন্তু দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র খাইনুস জোহানপুর ওই নারীর মৃত্যুর তথ্য অস্বীকার করেন।

কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না বুয়েট

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)। আগের মতোই স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বুয়েট প্রশাসন। বুধবার বুয়েটের শিক্ষা পরিষদের (অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল) সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা অধ্যাপক মিজানুর রহমান। এ বিষয়ে অধ্যাপক মিজানুর রহমান বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে বুয়েটে যে প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হতো সেই প্রক্রিয়া অনুযায়ী পরবর্তী শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে।’ তাহলে ইউজিসির সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না বুয়েট? এমন প্রশ্নে মিজানুর রহমান বলেন, ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়েগুলোতে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় সাধুবাদ জানায় বুয়েট কর্তৃপক্ষ। তবে এতে যোগ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বুয়েট।’উল্লেখ্য, গত ২৩ জানুয়ারি দেশের সব কটি বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে সমন্বিতভাবে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেয় ইউজিসি। সে সময় থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েটসহ দেশের বড় ৫ বিশ্ববিদ্যালয় এ বিষয়ে অনাগ্রহ দেখিয়ে আসছে। সম্প্রতি এ বিষয়ে ইউজিসিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এবং বুয়েটের উপাচার্যদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হলে সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় একাডেমিক কাউন্সিলের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানান উপাচার্যগণ। গতকাল বুয়েট তাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিল। প্রসঙ্গত, বুয়েট প্রথমে শিক্ষার্থীদের কাছে আবেদন আহ্বান করে। এরপর সেগুলো প্রাথমিক বাছাই করে নির্ধারিতসংখ্যক পরীক্ষার্থী নিয়ে ভর্তি পরীক্ষা নেয়। এর ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করে।

দৌলতপুরে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহর রাত ১২.০১টায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সংগঠন উপজেলা পরিষদ চত্বরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য আ কা ম সরওয়ার জাহান বাদশা প্রথমে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন ও দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার-এর নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার-এর নেতৃত্বে দৌলতপুর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম আরিফুর রহমানের নেতৃত্বে দৌলতপুর থানা পুলিশ, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সভাপতি শারমিন আক্তার ও সাধারণ সম্পাদক সরকার আমিরুল ইসলামের নেতৃত্বে উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি, দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খানের নেতৃত্বে দৌলতপুর কলেজের শিক্ষকবৃন্দ, দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাড. এমজি মাহমুদ মন্টু ও সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলামের নেতৃত্ব দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সদস্যবৃন্দসহ দৌলতপুর যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদসহ বিভিন্ন সংগঠন ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। এদিকে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে দৌলতপুর উপজেলা প্রশাসন আজ শুক্রবার সকালে র‌্যালি, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অপরদিকে দৌলতপুর কলেজ শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এছাড়াও দৌলতপুরের বিভিন্ন সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দিবসটি যথাযোগ্য মর্যদায় পালনের প্রস্তুতি নিয়েছে। এছাড়াও শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, রচনা প্রতিযোগিতা ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কুমারখালীর গড়াই সড়ক ও রেল সেতুর নীচ থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন

ভ্রাম্যমান আদালতে যানবাহন জব্দ ও ধ্বংস, দুইজনের জেল জরিমানা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার গড়াই সড়ক ও রেল সেতুর নীচ থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। গতকাল বৃহষ্পতিবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবু রাসেলের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়। যে কোন সেতুর নিরাপদ দুরত্ব এক কি:মি’র  মধ্যে থেকে বালু উত্তোলন আইনত সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হওয়ার পরও আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রভাবশালী মহল কর্তৃক দীর্ঘদিন ধরেই চলছিলো অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় ঘটনাস্থলে বালু উত্তোলনরত মাটি কাটা যন্ত্র ফেলুটার, ড্রাম ট্্রাক, মিনি ট্রাক, ট্রলিসহ বিভিন্ন যানবাহন জব্দ ও ধ্বংস করে তা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে বাজেয়াপ্ত এবং বালু উত্তোলন থেকে টাকা আদায়কারী দুইজনকে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে আটকদ্বয়কে বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০এর বিধিমতে তিন মাসের কারাদন্ডসহ প্রত্যেকের ১লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই মাসের কারাবাসের দন্ডাদেশ দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ভ্রাম্যমান কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবু রাসেল। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন-কুমারখালী উপজেলার লাহিনী গ্রামের আবু বক্করের ছেলে সুমন (৩৮) এবং অপরজন ফারুক (৩৫)। এছাড়া জব্দ করে ধ্বংস করে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে ২টি ড্রাম ট্রাক, ২টি মাটি কাটা যন্ত্র, ১২টি ট্রলি, ২টি মিনি ট্রাক। স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্যে কুষ্টিয়াতে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধে এটিই ছিলো সর্ববৃহৎ অভিযান ও ভ্রাম্যমান আদালত। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংবাদটি ছড়িয়ে পড়লে জেলার ওয়াকিবহাল মহল জেলা প্রশাসনের এমন যুগান্তকারী উদ্যোগকে সাধুবাদ ও ধন্যবাদ জানান। উল্লেখ্য জেলার ২১টি বালিমহল থেকে প্রভাবশালী মহল এসব অবৈধ বালি উত্তোলন ও সরবরাহ থেকে প্রতিদিন লাখ লাখ ঘনফুট বালু বিক্রি করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেও রাষ্ট্রীয় এই সম্পদ থেকে বার্ষিক হাজার কোটি টাকার অর্থনৈতিক প্রবাহ সৃষ্টি হয়। কিন্তু এখাত থেকে সরকারী কোন রাজস্ব পাননা জেলার রাজস্ব বিভাগ। নাম সর্বস্ব অস্তিত্বহীন মামলাবাজ চক্রের সৃষ্ট আইনী জটিলতা জিইয়ে রেখে টোলের নামে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেও জেলার রাজস্ব বিভাগের প্রাপ্তি শুন্য। অভিযোগ আছে, সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও কর্তৃপক্ষের অবহেলা, ব্যর্থতা অথবা যোগসাজসে সৃষ্ট এই আইনগত জটিলতা বিদ্যমান থাকায় দীর্ঘ ১০বছর যাবত ইজারাবিহীন ২১টি বালিমহল থেকে সরকার অন্তত: ২শ কোটি টাকা রাজস্ব হারিয়েছে বলে সত্যতা নিশ্চিত করেন জেলার রাজস্ব বিভাগ। এবিষয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদনও প্রকাশ হয়েছে বিভিন্ন জাতীয় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াসহ স্থানীয় গণমাধ্যমে। সড়ক ও রেল সেতুর ঝুকিপূর্ন জোন থেকে বালু উত্তোলন বন্ধে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবু রাসেল বলেন- কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেনের নির্দেশে আমরা কুষ্টিয়া জেলা প্রশসন থেকে দুইজন ম্যাজিষ্ট্রেট এখানে এসেছি, আপনারা দেখছেন, এখনে সড়ক ও রেল লাইনের দুইটি গুরুত্বপূর্ন সরকারী স্থাপনা সেতু রয়েছে। আইন অনুযায়ী এর ১কি:মি:র মধ্যে থেকে কোন ভাবেই মাটি বা বালু উত্তোলন করা যাবে না। অথচ কে বা কারা আইন ভঙ্গ করে এখান থেকে বালু উত্তোলন করছে এমন সংবাদ পেয়েই আমরা আইন শৃংখলা বাহিনীর সমন্বয়ে অভিযান পরিচালনা করছি। এখানে বালু উত্তোলরত যন্ত্রসহ যানবাহন জব্দ করে তা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এসম বালু উত্তোজনে জড়িত অভিযোগে দুইজনকে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত বিধিতে ভ্রাম্যমান আদালতে জেল ও জরিমানা আদেশ দেয়া হয়ে।

দৌলতপুরে ইটভাটায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ৩০ হাজার টাকা দন্ড

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বিএইচএন ইটভাটায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ভাটা মালিকের ৩০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শারমিন আক্তার এ দন্ড দেন। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের গলাকাটি গ্রামের জনবসতিপূর্ণ এলাকায় ফসলি জমিতে গড়ে উঠা বিএইচএন ইটভাটায় নির্ধারিত মাপের চেয়ে ইটের সাইজ ছোট হওয়ায় ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ এর ৪৮ ধারায় ইটভাটা মালিক নজরুল ইসলামের ৩০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার।

মিরপুরে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে মতবিনিময়কালে ডিসি আসলাম হোসেন

মানবিক দৃষ্টিতে সহানুভূতি নিয়ে প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়াতে হবে

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের জনসেবা প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জনসেবা প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আতিয়ার রহমান বাবলুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। এসময় তিনি বলেন, প্রতিবন্ধীদের অবহেলার চোখে দেখার সুযোগ নেই। প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়, ওরাও আমাদের সন্তান। তাদেরকে সুন্দর পরিচর্যার মাধ্যমে গড়ে তুলতে হবে। সাধারণ মানুষের মতো বাঁচার অধিকার তাদেরও রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মানবিক দৃষ্টিতে সহানুভূতি নিয়ে শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়াতে হবে তাহলে তারাও জীবনে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। তাদেরকে অবহেলার চোখে  দেখা যাবে না। কারণ তারাও আমার আপনার আত্মীয়-স্বজন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লিংকন বিশ্বাস, মিরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম  জোয়ার্দার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রকিবুল হাসান, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন বিশ্বাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলী মাস্টার। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জনসেবা প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফজলুল হক, আলামিন মাহমুদ, লাল্টু আল মামুন, আব্দুর রহমান, জেসমিনা বুলবুল, আব্দুল হান্নান, আফসানা বুলবুলসহ অভিভাবকবৃন্দ।

অমর একুশে ফেব্র“য়ারি ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব পুষ্পস্তবক অর্পণ

নিজ সংবাদ ॥ অমর একুশে ফেব্র“য়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে, ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ। কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বরে অবস্থিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহরে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব’র সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু (সম্পাদক দৈনিক আন্দোলনের বাজার ও জেলা প্রতিনিধি চ্যানেল আই) এর নেতৃত্ব্ েপুষ্পস্তবক অর্পণ করেন নেতৃবৃন্দ।

এ সময় পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব’র সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান কুমার (সম্পাদক দৈনিক মাটির ডাক), এডিটরস ফোরাম কুষ্টিয়ার সাধারন সম্পাদক নুর আলম দুলাল (সম্পাদক কুষ্টিয়ার কাগজ ও প্রতিনিধি এসএটিভি) প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক নুরুন্নবী বাবু (ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক দৈনিক সময়ের কাগজ), যুগ্ম-সম্পাদক শরিফ বিশ্বাস (সম্পাদক দৈনিক দি টিচার ও স্টাফ রিপোর্টার চ্যানেল ২৪ ), কোষাধ্যক্ষ আবু মনি জুবায়েদ রিপন (সম্পাদক দৈনিক কুষ্টিয়ার খবর ও জেলা প্রতিনিধি দৈনিক যুগান্তর), প্রচার প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তৌহিদী হাসান (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক প্রথম আলো), ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আ.ফ.ম নূরুল কাদের (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক নয়া দিগন্ত), দেবাশীষ দত্ত (ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক দৈনিক আজকের আলো-সাপ্তাহিক কুষ্টিয়ার মুখ ও জেলা প্রতিনিধি খোলা কাগজ), সুজন কুমার কর্মকার (সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার দৈনিক আন্দোলনের বাজার ও জেলা প্রতিনিধি দৈনিক সকালের সময়), মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম (সম্পাদক দৈনিক সূত্রপাত), নিজাম উদ্দিন (জেলা প্রতিনিধি দেশ টেলিভিশন) সহ সাংবাদিকবৃন্দ।

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ

ঢাকা অফিস ॥ আজ শুক্রবার ২১ ফেব্র“য়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। মাতৃভাষা আন্দোলনের ৬৮ বছর পূর্ণ হল আজ। বাঙালি জাতির জন্য এই দিবসটি হচ্ছে চরম শোক ও বেদনার, অনদিকে মায়ের ভাষা বাংলার অধিকার আদায়ের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত। জাতিসংঘের উদ্যোগে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বে ভাষাশহীদদের স্মরণে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হবে। রাজধানী ঢাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বিভিন্ন স্থানে আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতি একুশের মহান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ একুশের প্রথম প্রহরে ১২টা ১ মিনিটে সর্বপ্রথম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর পরপরই শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। আওয়ামী লীগের দু’দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- রাত ১২টা ১ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সকালে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় বঙ্গবন্ধু ভবনসহ সংগঠনের সকল শাখা কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন। সকাল ৭টায় কালো ব্যাজ ধারণ, প্রভাতফেরি সহকারে আজিমপুর কবরস্থানে শহীদদের কবরে ও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ ও শ্রদ্ধা নিবেদন। এ ছাড়াও ২২ ফেব্র“য়ারি শনিবার বিকাল ৩টায় বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সন্মেলন কেন্দ্রে এ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ইতোমধ্যেই অমর একুশে পালনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, আজিমপুর কবরস্থানসহ একুশের প্রভাতফেরি প্রদক্ষিণের এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, প্রণয়ন করা হয়েছে শহীদ মিনারে প্রবেশের রোডম্যাপ। এ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ঘিরে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। তিনি গতকাল বুধবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনে ডিএমপির গৃহীত নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে উপস্থিত সাংবাদিকদের একথা জানান। ডিএমপি কমিশনার বলেন, অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারও শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদ মিনারকে ঘিরে থাকবে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। শহীদ মিনার কেন্দ্রীক প্রত্যেক জায়গা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। শহীদ মিনার চত্ত্বরে আর্চওয়ে ও তল্লাশী ছাড়া কোন ব্যক্তিকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। নিরাপত্তায় ২৪ ঘন্টা ফোর্স মোতায়েন থাকবে। যে কোন জাতির জন্য সবচেয়ে মহৎ ও দুর্লভ উত্তরাধিকার হচ্ছে মৃত্যুর উত্তরাধিকার- মরতে জানা ও মরতে পারার উত্তরাধিকার। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্র“য়ারি শহীদরা জাতিকে সে মহৎ ও দুর্লভ উত্তরাধিকার দিয়ে গেছেন। ১৯৫২ সালের এদিনে ‘বাংলাকে’ রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে বাংলার (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) ছাত্র ও যুবসমাজসহ সর্বস্তরের মানুষ সে সময়ের শাসকগোষ্ঠির চোখ-রাঙ্গানি ও প্রশাসনের ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে নেমে আসে। মায়ের ভাষা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে দুর্বার গতি পাকিস্তানি শাসকদের শংকিত করে তোলায় সেদিন ছাত্র-জনতার মিছিলে পুলিশ গুলি চালালে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিক গুলিবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন। তাদের এই আত্মদান নিয়ে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ সরদার ফজলুল করিম তার ‘বায়ান্নরও আগে’ প্রবন্ধে লিখেছেন ‘বরকত সালামকে আমরা ভালবাসি। কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা বরকত সালাম আমাদের ভালবাসে। ওরা আমাদের ভালবাসে বলেই ওদের জীবন দিয়ে আমাদের জীবন রক্ষা করেছে। ওরা আমাদের জীবনে অমৃতরসের স্পর্শ দিয়ে গেছে। সে রসে আমরা জনে জনে, প্রতিজনে এবং সমগ্রজনে সিক্ত।’ এদের আত্মদানের মধ্যদিয়ে আমরা অমরতা পেয়েছি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আজ আমরা বলতে পারি দস্যুকে, বর্বরকে এবং দাম্ভিককে : তোমরা আর আমাদের মারতে পারবে না । কেননা বরকত সালাম রক্তের সমুদ্র মন্থন করে আমাদের জীবনে অমরতার স্পর্শ দিয়ে গেছেন।’ ২১ ফেব্র“য়ারি জাতীয় ছুটির দিন। এদিন সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে। শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিবেন। ২১ ফেব্র“য়ারি উপলক্ষে সংবাদপত্রগুলো বিশেষ ক্রোড়পত্র এবং বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলো একুশের বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে।

ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া

কুষ্টিয়ার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষের পুষ্পস্তবক অর্পণ

নিজ সংবাদ ॥ আজ অমর একুশে ফেব্র“য়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বাঙালি জাতির ইতিহাসে এক অনন্য দিন। দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে উদযাপনের লক্ষ্যে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে। দিবসের প্রতিটি অনুষ্ঠানে সবান্ধব উপস্থিত কামনা করেছেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। একুশের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ সময় ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। জেলা প্রশাসনের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। এ সময় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে জেলা আ’লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলীর নেতৃত্বে নেতৃবৃন্দ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। জেলা পরিষদের পক্ষে চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। শহর আ’লীগের পক্ষে সভাপতি তাইজাল আলী খান ও সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতার নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ এর নেতৃত্বে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু এর নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পূজা উদযাপন পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি নরেন্দ্রনাথ সাহার নেতৃত্বে নেতৃবৃন্দ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ জেলা শাখার পক্ষে সভাপতি মোফাজ্জেল হক ও সাধারণ সম্পাদক সুনীল কুমার চক্রবর্তীর নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ, জুয়েলার্স সমিতির নেতৃবৃন্দ, আইনজীবী, চিকিৎসক সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে বই মেলা, ছাত্র-ছাত্রীদের রচনা, চিত্রাঙ্কন ও নান্দনিক হাতের লেখা প্রতিযোগিতা, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ। ২১ ফেব্র“য়ারি সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, বিশ্ববিদ্যালয় এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সরকারি ও বে-সরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা। মসজিদ, মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত অথবা প্রার্থনা, সন্ধ্যা ৬টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর ও শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বরে অবস্থিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বর কবিতা পাঠের আসর, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, পুরস্কার বিতরণ এবং বই মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কর্মসূচির  আয়োজন করা হয়।

 

মরিচা ইউপি চেয়ারম্যানসহ আহত-১০

দৌলতপুরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে সংঘর্ষ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যানসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৩জন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের বালিরদিয়াড় বাজারে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাকের কর্মী সমর্থকরা বালিরদিয়াড় বাজারে ভোট চাইতে গেলে মরিচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের লোকজনের সাথে তাদের বাকবিতন্ডা বাঁধে। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের লোকজনের আব্দুর রাজ্জাক প্যানেলের সমর্থক ছাব্বির, বাবলু ও শরিফুলকে বেধড়ক মারপিট করে গুরুতর আহত করে। পরে আব্দুর রাজ্জাক পক্ষের লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে মরিচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলমগীরের অফিসে হামলা চালায়। এসময় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে বাঁধে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একে অপরের ওপর হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। সংঘর্ষে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর, রশিদ, রাব্বি, কামাল, সামিউল, ফিরোজ, ছাব্বির, বাবলু ও শরিফুলসহ ১০জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে রাজ্জাক পক্ষের ৩জনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাঁকীরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে। সংঘর্ষের বিষয়ে মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর বলেন, রাজ্জা মিস্ত্রির লোকজন আমার অফিসে অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমাকেসহ আমার লোকজনকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করেছে। এসময় হামলাকারীরা আমার মোটরসাইকেলটিও ভাংচুর করে। সংঘর্ষের বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে মঙ্গলবার রাতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও উত্তেজনা দেখা দিয়ে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। উলে¬খ্য, গতকাল বুধবার মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

মাদক হিসেবে ঔষধ বিক্রি

ভেড়ামারায় ফার্মেসী মালিক ও ক্রেতার কারাদন্ড

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পেসক্রিপশন ছাড়া ট্যাপেন্টা, পেন্টাডল ও সমজাতীয় ঔষধ মাদক হিসেবে বিক্রির দায়ে ফার্মেসী মালিক আনিছুর রহমান (৪২) ও ক্রেতা মাদকসেবী রবিউল (৪০) কে কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে  ভেড়ামারা উপজেলার ক্ষেমিড়দিয়াড় গ্রামের পরিচালিত এ ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ছিলেন ইউএও ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সোহেল মারুফ। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ জানান, ভেড়ামারা শহরের ফারাকপুর রেলগেটের ফার্মেসী মালিক আনিছুর রহমানের  ক্ষেমিড়দিয়াড় গ্রামস্থ বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ ট্যাপেন্টা, পেন্টাডল ও সমজাতীয় ঔষধ উদ্ধার করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে কিনে নেশা হিসেবে  সেবনকারী রবিউলকে আটক করা হয়। এবং উদ্ধারকৃত ঔষধ জব্দ করা হয়। পরে ঔষধ মাদক হিসেবে বিক্রি করার অপরাধে ক্ষেমিড়দিয়াড় গ্রামের ইয়াকুব আলী শেখ’র ছেলে আনিছুর রহমান কে ৯ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এবং একই গ্রামের মৃত ছমির উদ্দিন’র ছেলে মাদকসেবী রবিউলকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এসময় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে পদবঞ্চিত উপজেলা ছাত্রলীগের একাংশ। গতকাল বুধবার বেলা ১১ টায় কুমারখালী বাসস্ট্যান্ডে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাসেলের নেতৃত্বে এসময় পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান নিপুন সহ বিভিন্ন নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন। বিক্ষোভের সময় কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করার কারনে যোগাযোগ ব্যবস্থা সাময়িকভাবে স্থবির হয়ে পড়ে। পরে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও স্থানীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে বিক্ষোভ সমাবেশ ও অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয় পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা। নবগঠিত কমিটি বিলুপ্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষার জানান ছাত্রত্ব না থাকার কারনে পূর্বের কমিটি ভেঙে নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, গত এক মাস আগে কুমারখালী উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বাতিল করে জাহাঙ্গীর আলমকে সভাপতি ও  সোহেল হোসেন জীবনকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি দেয় জেলা ছাত্রলীগ।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) তে

তৃণমূল পর্যায়ে ক্রীড়া প্রতিভা অন্বেষণে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা পর্যায়ে খেলোয়াড় বাছাই ১ মার্চ

নিজ সংবাদ ॥ তৃণমূল পর্যায়ে ক্রীড়া প্রতিভা অন্বেষণ ও নিবিড় প্রশিক্ষণ কার্যক্রম-২০২০ জেলা পর্যায়ে খেলোয়াড় বাছাই কর্মসূচি শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)। এ জন্য দেশের ৬৪টি জেলাকে বিভিন্ন জোনে ভাগ করা হয়েছে। জানাগেছে, তৃণমূল পর্যায়ে ক্রীড়া প্রতিভা অম্বেষণ এবং প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ক্রীড়া মেধার পরিশীলন, পরিস্ফুটন ও উন্নয়ন এবং বাছাইকৃতদের ৬-৮ বছর দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণ প্রদান করে সামগ্রিকভাবে দেশের ক্রীড়ার মান উন্নয়ন এ কার্যক্রমের মূল উদ্দেশ্য।

এ কার্যক্রমের অধীনে ১৮টি ক্রীড়া বিভাগ, যথা: আরচ্যারি, অ্যাথলেটিক্স, বাস্কেটবল, ক্রিকেট, ফুটবল, হকি, জুডো, কারাতে, শুটিং, তায়কোয়ানডো, টেবিল টেনিস, ভলিবল, উশু ও কাবাডি খেলায় ১২-১৩ বৎসর এবং বক্সিং, জিমন্যাস্টিক্স, সাঁতার ও টেনিস  খেলায় অনুর্ধ্ব-৮ থেকে ১২ বছর বয়সের ছেলে-মেয়ে খেলোয়াড় নির্বাচন করা হবে।

আগামী ১ মার্চ ২০২০ তারিখে কুষ্টিয়া জেলা স্টেডিয়ামে (বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ৩ জেলা) কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গা জেলার বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। বাছাই পরীক্ষার সময় ২ (দুই) কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি এবং পিইসি সার্টিফিকেট সঙ্গে আনতে হবে। সকাল ৯টা হতে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া জেলা স্টেডিয়ামে কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গা জেলার আগ্রহী খেলোয়াড়দের বাছাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। ঙহষরহব জবমরংঃৎধঃরড়হ:- িি.িনশংঢ়.মড়া.নফ – লগইন – ছাত্র/ছাত্রী – ঙহষরহব জবমরংঃৎধঃরড়হ – ফরম পূরণের পর –  ঝঁনসরঃ – পূরণকৃত ফরমের প্রিন্ট কপি। প্রয়োজনীয় তথ্যের জন্য ফোন:- ০২-৭৭৮৯২১৫, মোবাইল:-০১৯৮৯-৪০৬৯৬৪, ০১৭১২-৬১৭৯৫৫, ০১৭০৯-৩৩০০৭০ ফ্যাক্স:-০২-৭৭৮৯৫১৩ যোগাযোগ করতে হবে।