আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সম্পাদক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজমের ৬২তম জন্মদিন পালন

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ জঁমকালো আয়োজনে আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও সাংবাদিক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজমের ৬২তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে। আলমডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদের ব্যানারে গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আলমডাঙ্গা লন্ডন টাওয়ারের ৩য় তলায় ওই মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আয়োজনে আলোচনা সভা, কেক কেটে জন্মদিনের শুভ উদ্বোধন, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও দুপুরের খাওয়ার আয়োজন করা হয়। আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন এমএস জোহা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ অমর ফারুক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাস্টার, মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সালাহ উদ্দিন টিপু, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডাঃ অমল কুমার বিশ্বাস, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পৌর কমান্ডার নাট্য ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, আলমডাঙ্গা পাইলট বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনিসুজ্জামান, আলমডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদের সভাপতি ওমর আলী মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক আফম সিরাজ শামজী, ব্রাইট মডেল স্কুলের পরিচালক জাকারিয়া হিরো, মীর সামসুদ্দিন আহমেদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিশিষ্ট সাহিত্যিক আনোয়ার রশীদ সাগর, সরকারী আদর্শ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিন এটম, আলমডাঙ্গা প্রাইম পলিটেক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ মামুনুর রহমান, আল ইকরা ক্যাডেট একাডেমীর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এনামুল হক। আলমডাঙ্গা কলেজীয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামীম রেজার উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন আলমডাঙ্গা মুক্তিযোদ্ধা সাংস্কৃতিক সংসদের সভাপতি আশরাফুল আলম লুলু, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আব্দুল কাদের, আলমডাঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র সামসাদ রানু, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি মৌলভী আবুল কাশেম, ইউনুছ আলী মন্ডল, যুগ্ম সম্পাদক প্রশান্ত বিশ্বাস, আনোয়ার হোসেন, সাংবাদিক অনিক সাইফুল, কেএ মান্নান, মানোয়ার হোসেন, প্রধান শিক্ষক আশরাফ জাহান আবেদ, কবি গোলাম রহমান চৌধুরী, শরিফুজ্জামান রোকন, জামিরুল ইসলাম, সৈয়দ সাজিদুল হক মুনি, আব্দুর রাজ্জাক, শাহাবুল ইসলাম, নাসির উদ্দিন, গোলাম সরোয়ার সদু, হাসিবুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডাঃ আতিক বিশ্বাস, সাংবাদিক ইমন আহমেদ পলাশ, কহন কুদ্দুস, জুলফিকার নাইম জাকারিয়া হায়দার শুভ্র, সুজন ইভান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রমজান আলী, কবির আহমেদ, নাসিমা পারভীন, লিপু, রাজীব, আব্দুল গফ্ফার মনা। অনুষ্ঠানে প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজমকে জন্মদিন উপলক্ষ্যে আলমডাঙ্গা সখি ফিল্ম, কলেজীয়েট স্কুল, অনলাইন নিজউ পোর্টাল সাম্প্রতিকী ডট কম, ব্যাংক এশিয়া, মুক্তিযোদ্ধা সাংস্কৃতিক সংসদ, আলমডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ, শুদ্ধ সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র, আপনজন মডেল স্কুল, ব্রাইট মডেল স্কুল, মুক্তিযোদ্ধা সাংস্কৃতিক সংসদ, সাংবাদিক সমিতি, আলমডাঙ্গা সময়ের সমীকরণের সাংবাদিকবৃন্দ, আলমডাঙ্গার পক্ষ থেকে ফুলের সংবর্ধনায় সিক্ত করা হয়। এছাড়াও আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টুর পক্ষ থেকে সম্মামনা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। বক্তাগণ বলেন খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজম প্রকৃত পক্ষে একজন প্রকৃত সাংবাদিক ও বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। একাধারে সাহিত্যিক, নাট্যকার, অভিনেতা, লেখক, মুক্তিযোদ্ধা গবেষক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। সাংবাদিকতার মাধ্যমে তিনি আলমডাঙ্গা তথা দেশের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। জীবনের এই শেষ প্রান্তে সাহিত্য পরিষদ আলমডাঙ্গা জঁমকালো আয়োজনে তার জন্মদিন পালনের মাধ্যমে তাকে যে সম্মাননা জানালো সে জন্য সাহিত্য পরিষদ আলমডাঙ্গা প্রশংসার দাবীদার।

ঝিনাইদহে দুস্থ নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ নারী উন্নয়ন ফোরামের উদ্যোগে সদর উপজেলার ১০ জন অসহায় দুস্থ নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে এ সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. আব্দুল আলিম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহুরা খাতুন, বিআরডিবি কর্মকর্তা ফারহানা জেসমিনসহ অন্যান্যরা।

পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উপলক্ষে কুমারখালীতে এ্যাডভোকেসি সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ (২৪-২৯ নভেম্বর) উপলক্ষে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ৩টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে এই এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারী বৃদ্ধি করি, প্রসব পরবর্তী পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি নিশ্চিত করি প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। কুমারখালী উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় আয়োজনে অনুষ্ঠিত এ্যাডভোকেসি সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন, কুমারখালী মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডা. সুসেন সাহা, ইউডিএফ বিপ্লব সাহা, নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নওশের আলী বিশ্বাস। এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে প্রতিপাদ্য বিষয় উপস্থাপন ও সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ওমর ফারুক। এ সময় পরিবার পরিকল্পনার দীর্ঘমেয়াদি ও স্থায়ী পদ্ধতি সহ মাতৃমৃত্যু, শিশুমৃত্যু ও প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারী বৃদ্ধি বিষয়ে বিস্তারিত উপস্থাপন করা হয়। এ ছাড়াও পরিবার পরিকল্পনা সংক্রান্ত সেবা বিনামূল্যে পেতে নিকস্থ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে, কমিউনিটি ক্লিনিকে ও পরিবার কল্যাণ সহকারীর সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়। এ্যাডভোকেসি সভায় সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী সহ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

 

তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল

৩০ ডিসেম্বরের পরে এ দেশে স্বাধীন মানুষের পতাকা উড়বে

ঢাকা অফিস ॥  বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আর মুখ বুজে না থেকে শেষ চেষ্টা হিসেবে ৩০ ডিসেম্বরের সুযোগ কাজে লাগানোর আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে তারেক রহমানের ৫৪তম জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীতে সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ‘আমরা খুব কঠিন সময়ে আছি। কিন্তু এটা অতিক্রম করতে হবে। প্রতিটি জায়গায় বাধা-প্রতিবন্ধকতা, অত্যাচার-নির্যাতন। আমরা কি মুখ বুজেই বসে থাকব। এই অবস্থার পরিবর্তনের জন্য চেষ্টা করব না? ১০ বছর চেষ্টা করছি। এখন শেষ চেষ্টা হচ্ছে ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের মধ্য দিয়ে। এই সুযোগ একটা এসেছে।’ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণকে নিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সরকারকে বাধ্য করার কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘প্রতিরোধ তৈরি করতে হবে। জনগণের শক্তি দিয়ে দেয়াল  তৈরি করে বাধ্য করতে হবে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন করতে। এর কোনো বিকল্প নেই। এটা আমাদের বাঁচা-মরা আর অস্তিত্বের সংগ্রাম।’ সভায় উপস্থিত নেতা-কর্মীদের এলাকায় যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘অনেককেই চিনতে পারছি। পালিয়ে পালিয়ে না বেড়িয়ে ভোটের জন্য যান। ভোটের দিন সবাইকে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে আসুন। সেখানেই সমস্ত আন্দোলন কেন্দ্রীভূত করেন। তাহলেই আমরা জয়ী হব।’ তারেক রহমানকে উদ্ধৃত করে মির্জা ফখরুল বলেন, তারেক রহমানও সব মানুষকে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যেতে বলেছেন। তিনি আরও বলেন, ‘শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে সংগ্রাম করব। ৩০ ডিসেম্বরের পরে এ দেশে স্বাধীন মানুষের পতাকা উড়বে।’ এ ছাড়া স্কাইপে বন্ধ ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে করা রিটেরও সমালোচনা করেন তিনি। স্কাইপে বন্ধের সমালোচনা করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘লন্ডনে একজন মানুষ কথা বলে, আর তাঁরা ঢাকায় বসে কাঁপে।’ মান্না বলেন, একদিকে শত শত নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে, অন্যদিকে ভিক্ষুককে ভিক্ষা দিয়ে থ্যাঙ্কিউ পিএম বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে। এ জন্য ধিক্কার জানাতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এমাজউদ্দীন আহমদ সবাইকে নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে মানুষের সঙ্গে মিশে কাজ করার আহ্বান জানান। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিএনপির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তারেককে ভালোবাসলে তার প্রমাণ দিতে হবে নির্বাচনের মাধ্যমে। এক লাখ লোক গ্রেপ্তার করলেও মাঠ ছাড়া যাবে না।  সভাপতির বক্তব্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, তারেক রহমানের সাংগঠনিক ক্ষমতা দেখে আওয়ামী লীগ সরকার আতঙ্কিত। বিচার বিভাগ স্বাধীন হলে তারককে দেশের বাইরে থাকত হতো না এবং খালেদা জিয়ার সাজা হতো না। শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে দেশে পরিবর্তন হবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব  সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মাহবুবউদ্দিন খোকন, খায়রুল কবীর খোকন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান প্রমুখ।

হোয়াইট হাউসের কাজে ‘ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহার’ ট্রাম্প কন্যার

ঢাকা অফিস ॥ ইভাঙ্কা ট্রাম্প গত বছর হোয়াইট হাউজের কাজে ব্যক্তিগত ইমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে কয়েকশ বার্তা পাঠিয়েছিলেন বলে নিশ্চিত করেছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে তিনি ব্যক্তিগত ঠিকানা ব্যবহার করেছিলেন, ইমেইল সংক্রান্ত এক পর্যালোচনায় এমনটাই উঠে এসেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। ইভাঙ্কার আইনজীবীরা বলছেন, নিয়মকানুন সম্পর্কে অবহিত হওয়ার আগেই ট্রাম্প কন্যা ওইসব ইমেইল পাঠিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় তার বাবা প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটনকে একই কাজের জন্য সমালোচনা করেছিলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে হিলারি ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহার করে ‘যুক্তরাষ্ট্রকে বিপদে ফেলেছেন’ বলেও অভিযোগ ছিল ট্রাম্পের। ওয়াশিংটন পোস্টের সোমবারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইভাঙ্কার পাঠানো বেশিরভাগ ইমেইলেই ব্যক্তিগত ও দৈনন্দিন সাধারণ বিষয়াদি থাকলেও কোনো কোনোটি কেন্দ্রীয় নথি সংরক্ষণ আইন লংঘন করতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। ট্রাম্প প্রশাসনের এক কর্মকর্তা সিবিএস নিউজকে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট কন্যা ব্যক্তিগত ইমেইল অ্যাকাউন্ট থেকে যেসব বার্তা পাঠিয়েছেন তার কোনোটিতেই ‘শ্রেণিবদ্ধ তথ্য’ ছিল না। মূলত নিয়ম সম্বন্ধে জ্ঞানের অভাবের কারণেই ইভাঙ্কা এ কাজ করেছিলেন বলে দাবি তার। বিষয়টি জানানোর পর থেকে ট্রাম্প কন্যা সরকারি কাজে আর কখনোই ব্যক্তিগত ঠিকানা ব্যবহার করেননি বলেও জানিয়েছেন তিনি। তবে ট্রাম্প প্রশাসনের এ সাফাই মানতে রাজি নন আমেরিকান ওভারসাইট গ্র“পের অস্টিন এভারস। ‘তথ্যের স্বাধীনতা’ আইনের আওতায় এ গোষ্ঠীটির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই হোয়াইট হাউসের কাছে গত বছর ইভাঙ্কার ব্যক্তিগত ইমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের বিষয়টি উন্মোচিত হয়। এভারস বলছেন, প্রেসিডেন্টের পরিবার আইনের উর্ধ্বে নয়। “এখানে গুরুতর প্রশ্ন উঠেছে, কংগ্রেসের উচিত এসব দ্রুত খতিয়ে দেখা। আইন অনুযায়ী যেসব ইমেইল সংরক্ষিত রাখা দরকার ইভাঙ্কা কি সেগুলো উন্মোচন করেছেন? তিনি কি ব্যক্তিগত উদ্যোগে শ্রেণিবদ্ধ তথ্য বাইরে পাঠিয়েছেন,” বিকৃতিতে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন এভারস। ২০০৯ সালে পররাষ্ট্র মন্ত্রী থাকাকালে হিলারি ক্লিনটন ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহার করে কর্মকর্তাদের বার্তা পাঠিয়েছিলেন। ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে প্রতিদ্বন্দ্বীকে ঘায়েল করতে এ বিষয়টিকে হাতিয়ার করেছিলেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। হিলারির ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহার করার বিষয়টিতে ‘ওয়াটার গেইটের চেয়েও বড় কেলেঙ্কারি’ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন তিনি। ‘অবৈধ’ এ কর্মকান্ড যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে মন্তব্য করে দাপ্তরিক কাজে ডেমোক্রেট প্রার্থীর ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহারের ঘটনাটির ধারাবাহিক সমালোচনা করেছিলেন ট্রাম্প। তিনি সেসময় রিপাবলিকানদের প্রচার সমাবেশগুলোতে হিলারিকে ‘জেলে ঢুকাও’ ¯ে¬াগান দিতেও উৎসাহ দিতেন; নির্বাচনে জিতলে ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যবহারকান্ডে ডেমোক্রেট প্রার্থীকে কারাগারে পাঠানোরও প্রতিশ্র“তি ছিল তার। সেসময়ের তদন্তে হিলারি ও তার আইনজীবীরা ৩০ হাজারের মতো ইমেইলকে ‘ব্যক্তিগত বার্তা’ অ্যাখ্যা দিয়ে সেগুলো তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে উপস্থাপন করেননি। ট্রাম্প ওই বার্তাগুলো উন্মোচন করতে রাশিয়ার প্রতি আহ্বানও জানিয়েছিলেন। মার্কিন গণমাধ্যমগুলো বলছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার আগেই হিলারি তার নিউ ইয়র্কের বাড়িতে ব্যক্তিগত ইমেইল সার্ভার তৈরি করেছিলেন। চার বছরের মন্ত্রীত্বকালে তিনি সব ব্যক্তিগত ও দাপ্তরিক বার্তা এই সার্ভার ব্যবহার করেই পাঠিয়েছিলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যবহারের জন্য মার্কিন সরকার যে রাষ্ট্রীয় ইমেইল অ্যাকাউন্টটি খুলেছিল, হিলারি সেখান থেকে কোনো বার্তা পাঠাননি; এমনকি সেটি চালুও করেননি, বলছে বিবিসি। স্বাচ্ছন্দ্যের কারণেই ব্যক্তিগত সার্ভার ব্যবহার করেছিলেন বলে

সৌদি রাজপরিবারের মধ্যেই ক্রাউন প্রিন্সের ‘বিরোধিতা’

ঢাকা অফিস ॥ তুরস্কের সৌদি কনস্যুলেটের ভেতর সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে খুনের ঘটনায় পশ্চিমা দেশগুলোর চাপ বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি সৌদি রাজপরিবারের কিছু সদস্যও ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরোধিতায় সরব হচ্ছেন। আল- সৌদ পরিবারের ওই সদস্যরা ক্রাউন প্রিন্স  মোহাম্মদের বাদশাহ হওয়ার ক্ষেত্রে বাধা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে রাজপ্রাসাদ সংশি¬ষ্ট তিনটি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। রাজপরিবারের বিভিন্ন শাখার প্রিন্স ও মোহাম্মদের জ্ঞাতি ভাইদের অনেকেই সিংহাসনের উত্তরাধিকার প্রশ্নে পরিবর্তন দেখতে চান। তবে ৮২ বছর বয়সী বাদশাহ সালমান বেঁচে থাকা অবস্থায় এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ তারা নেবেন না বলে জানিয়েছে সূত্রগুলো। পশ্চিমা বিশ্বে এমবিএস (মোহাম্মদ বিন সালমান) নামে পরিচিত ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ এখনো বাদশাহর প্রিয়পুত্র হওয়ায় তাকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি উঠলেও সালমান তাতে কান দেবেন না বলেই অনুমান করা হচ্ছে। রাজপরিবারের সদস্যরা এখন বাদশাহর মৃত্যুর পর তার ছোট ভাই ৭৬ বছর বয়সী প্রিন্স আহমেদ বিন আবদুল আজিজকে সিংহাসনে বসাতে আগ্রহী। বাদশাহ হলে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদের এ চাচা পরিবারের সদস্যদের পাশাপাশি গোয়েন্দা ও নিরাপত্তা সংস্থা এবং কিছু পশ্চিমা দেশেরও সমর্থন পাবেন বলে সৌদি একটি সূত্র জানিয়েছে। আড়াই মাস বিদেশে কাটিয়ে প্রিন্স আহমেদ গত মাসে রিয়াদে ফিরেছেন। বিদেশে থাকাকালে লন্ডনে তার বাসভবনের সামনে সৌদ সাম্রাজ্যের পতন চেয়ে বিক্ষোভকারীদের ¯ে¬াগানের প্রতিক্রিয়ায় সৌদি আরবের বর্তমান নেতৃত্বের সমালোচনাও করেছিলেন বাদশা সালমানের এ ছোটভাই। ২০১৭ সালে উত্তরাধিকার নির্ধারণ কমিটির যে তিন জ্যেষ্ঠ সদস্য এমবিএসকে ক্রাউন প্রিন্স বানানোর বিরোধিতা করেছিলেন, আহমেদ তাদের একজন ছিলেন বলেও দুটি সূত্র সেসময় নিশ্চিত করেছিল। এ বিষয়ে প্রিন্স আহমেদ কিংবা তার প্রতিনিধিদের কারও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। রিয়াদের কোনো কর্মকর্তাও উত্তরাধিকার প্রসঙ্গে রয়টার্সের যোগাযোগে তাৎক্ষণিকভাবে সাড়া দেননি। ইউরোপীয় রাজপরিবারের মতো এখানে রাজার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে তার জ্যেষ্ঠ পুত্র সিংহাসনের উত্তরাধিকার হতে পারেন না। সৌদি রাজপরিবারের ঐতিহ্য অনুযায়ী, বাদশাহ এবং পরিবারের বিভিন্ন শাখার জ্যেষ্ঠ সদস্যরা মিলে তাদের দৃষ্টিতে সিংহাসনের জন্য সবচেয়ে বেশি যোগ্য ব্যক্তিকেই উত্তরাধিকার হিসেবে মনোনীত করেন। তবে ওই মনোনয়নই শেষ কথা নয়। বাদশার মৃত্যু কিংবা তিনি রাজকাজ পরিচালনায় অক্ষম হলে ৩৪ সদস্যের কাউন্সিলই নতুন বাদশাহ ঠিক করবেন। আগে থেকে ঠিক করে রাখা উত্তরাধিকারের বাদশাহ হতে হলেও কাউন্সিলের সম্মতি লাগবে। এমবিএসের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নেওয়া প্রভাবশালীরা এখন সেই ক্ষণেরই অপেক্ষা করছেন। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও সৌদি রাজপরিবারের উপদেষ্টাদের সঙ্গে আলোচনায় প্রিন্স আহমেদকে পরবর্তী বাদশা বানালে সমর্থন দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন বলে এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরাসরি সম্পর্ক আছে এমন বেশ কয়েকটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে। প্রায় চার দশক সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা আহমেদ দায়িত্ব পেলে এমবিএস এর সামাজিক ও অর্থনৈতিক সংস্কারে কোনো রকম বদল আনবেন না বলেও আস্থাশীল সূত্রগুলো। সালমানের এ ভাই পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে রিয়াদের সামরিক চুক্তিগুলো বহাল রাখার পাশাপাশি রাজপরিবারের মধ্যে একতাও ফিরিয়ে আনবেন বলে মত তাদের। যুক্তরাষ্ট্রের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেছেন, খাশোগি হত্যাকান্ডের ঘটনায় জ্যেষ্ঠ আইনপ্রণেতাদের চাপ ও সিআইএ’র মূল্যায়নের পরও হোয়াইট হাউস এখনই এমবিএসের সঙ্গে দূরত্ব তৈরিতে আগ্রহী নয়। তবে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন পাওয়ার পর এ অবস্থান বদলেও যেতে পারে। সোমবার রিয়াদে বাদশাহ সালমান তার ছেলের সমর্থনে যে ভাষণ দিয়েছেন হোয়াইট হাউস সেটিকে গুরুত্ব সহকারে দেখছে বলেও মত ওই মার্কিন কর্মকর্তার। সোমবারের ভাষণে সৌদি সরকারি কৌঁসুলির প্রশংসা ছাড়া খাশোগি হত্যাকা- নিয়ে সরাসরি কিছু বলেননি সালমান। খাশোগি হত্যাকান্ডের নির্দেশ ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদের কাছ থেকেই এসেছিল বলে সিআইএর মূল্যায়নকে শনিবার ‘অসম্পূর্ণ, তবে হতে পারে’ বলেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। মঙ্গলবার এ বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন পাওয়া যাবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে ‘নতুন কিছু যোগ করার নেই’ বলে সোমবার হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। কেবল খাশোগি হত্যাকান্ডের জড়িত সন্দেহভাজন হওয়ার কারণেই নয়, সৌদি ক্রাউন প্রিন্স রাশিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র কেনায় আগ্রহ দেখানোতেও ওয়াশিংটন তার ওপর ক্ষেপেছে বলে ধারণা সৌদি সূত্রগুলোর। সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে চলতি বছরের ১৫ মে লেখা মোহাম্মদের এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দেখার কথাও জানিয়েছে রয়টার্স। চিঠিতে ক্রাউন প্রিন্স রাশিয়ার ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাপনাসহ অত্যাধুনিক অস্ত্র ও যুদ্ধে ব্যবহৃত সরঞ্জাম কেনার ওপর জোর দিতে বলেছিলেন। এ প্রসঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বা রিয়াদের  কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

ট্রাম্পের সমালোচনা

মার্কিন দূতকে তলব করল পাকিস্তান

ঢাকা অফিস ॥ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে পাকিস্তানের ভূমিকা এবং আল কায়েদা নেতা লাদেনকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাম্প্রতিক সমালোচনার প্রতিবাদে মার্কিন দূতকে তলব করেছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদে যুক্তরাষ্ট্রের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স  কে মঙ্গলবার ডেকে পাঠায় পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কোনো প্রমাণ ছাড়াই অযাচিত যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তার ঘোর প্রতিবাদ জানাতেই মার্কিন উপরাষ্ট্রদূত পল জোনস কে ডেকে পাঠিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব।” ট্রাম্প গত কয়েকদিনে যে সব কথা বলেছেন তাতে ক্ষুব্ধ হয়েছে পাকিস্তান। ক্ষোভ ঝেড়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও। সোমবার ট্রাম্প ও ইমরান  টুইটারে পরস্পরের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে কটুক্তিও করেছেন। এতে যুক্তরাষ্ট্র- পাকিস্তান সম্পর্কে আরো অবনতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

গত রোববার ‘ফক্স নিউজ’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ‘পাকিস্তান কিছুই করেনি’ বলে ভর্ৎসনা করেন। তিনি বলেন, পাকিস্তানকে শ’শ’ কোটি ডলার সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অথচ সেই পাকিস্তানই জঙ্গি গোষ্ঠী আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে লুকিয়ে থাকতে সহায়তা করেছিল। পাকিস্তান কিছুই না করায় যুক্তরাষ্ট্র আর তাদেরকে অর্থ দেবে না বলেও জানান ট্রাম্প।

সঙ্গে সঙ্গেই ট্রাম্পের অভিযোগের জবাব দেন ইমরান খান। যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে পাকিস্তানের যত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রের সাহায্য অতি নগন্য ছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি। তাছাড়া, আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যর্থতার জন্য পাকিস্তানকে বলির পাঁঠা বানানো উচিত না বলেও তিনি মন্তব্য করেন। ইমরানের একের পর এক টুইটের জবাবে সোমবার পাল্টা টুইটে আরো দ্বিগুণ অভিযোগ নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন ট্রাম্পও। তিনি অভিযোগ করে বলেন, লাদেনের আরো আগেই ধরা পড়া উচিত ছিল, কিন্তু পাকিস্তান অর্থকড়ি নিয়েও যুক্তরাষ্ট্রকে লাদেনের অবস্থান জানায়নি। মঙ্গলবার মার্কিন দূতকে ডেকে ট্রাম্পের এ অভিযোগেরই কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এমন ভিত্তিহীন অভিযোগ মেনে নেওয়া যায়না মন্তব্য করে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলেছে, “তারা যুক্তরাষ্ট্রকে স্মরণ করিয়ে দিতে চায় যে, পাকিস্তানের দেওয়া গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতেই প্রাথমিকভাবে ওসামা বিন লাদেনের অবস্থান সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছিল।” মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রসচিব তাহমিনা জানজুয়া বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে কোনো দেশই পাকিস্তানের মত এত চড়া মূল্য দেয়নি। তাছাড়া, যুক্তরাষ্ট্রের নেতারাও অনেক ক্ষেত্রেই আল-কায়েদা নেতাদের পাকড়াও করা এবং সন্ত্রাসের হুমকি দূর করতে পাকিস্তানের সহযোগিতার কথা স্বীকার করেছেন। পাকিস্তানের সক্রিয় সহযোগিতার কারণেই বহু শীর্ষ আল কায়েদা নেতা নিহত হয়েছে কিংবা ধরা পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সেকথা ভুলে গেলে চলবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ফলোআপ: ৯দিনের শিশু বিক্রি!

মায়ের কোল কি ফিরে পাবে ফাতেমা?

আমলা অফিস ॥ “মাত্র ৯দিন বয়সেই মায়ের কোল থেকে বিক্রি হওয়া শিশু ফাতেমা কি মায়ের কোল ফিরে পাবে? নিজের মাকে মা বলে ডাকতে পারবে? ভাই বোনের সাথে বড় হতে পারবে? কি অপরাধ করেছিলো শিশু ফাতেমা” এমন প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সাধারন মানুষের মনে।

বলছিলাম কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার খলিসাকুন্ডি পাইকপাড়া এলাকায় জন্মের ৯দিনের মাথায় কন্যা শিশু বিক্রি করে দেওয়ার মতো লোমহর্ষক সেই ঘটনার কথা। পর পর তিন কন্যা সন্তানকে জন্ম দেওয়ায় স্ত্রীকে তালাক দিয়ে মাত্র ৯দিনের কন্যা শিশুকে বিক্রি করেন রবিউল ইসলাম।

জানা যায়, দৌলতপুর উপজেলার খলিসাকুন্ডি ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের হযরত আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম একই এলাকার রেজাউল হকের মেয়ে জেসমিনের সাথে গত ১০ বছর আগে বিয়ে হয়। এর আগে জেসমিনের আরেক স্থানে বিয়ে হয়। বিয়ের দুই মাসের মাথায় রবিউল ইসলামের সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে জেসমিন। তারপর দুজনে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে। বাধে সুখের সংসার। তাদের ঘর আলোকীত করে আসে সালেকী নামের এক মেয়ে। তারপর কয়েক বছর পরে আবারো মায়া নামের এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেয় জেসমিন। পর পর দুই কন্যা সন্তান হওয়ায় তার উপরে নেমে আসে নির্যাতন। চলতি বছরেই জেসমিনের গর্ভের আসে আরো একটি সন্তান। এই নিয়ে স্বামীর সাথে শুরু হয় মনমানিল্য। রবিউল দাবী করেন, জেসমিনের গর্ভের তৃতীয় সন্তান তার নয়। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে একাধিকবার বাবার বাড়ীতে চলে আসে জেসমিন। এর মধ্যে পার্শ্ব এলাকার এক গৃহবধুর সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে রবিউল। বিয়ে করে ঘরে তুলে আনে। আবারো বাধে পারিবারিক অশান্তি। এরই মাঝে গত ৭ নভেম্বর আরেকটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেয় জেসমিন। এই নিয়ে তিনটি কন্যা সন্তানের জন্য দেয় সে। এই অপরাধে ৯ দিনের শিশুকেসহ তাকে তালাক দেয় তার স্বামী রবিউল।

গত শুক্রবার (১৬ নভেম্বর) স্থানীয় ইউপি সদস্য শরিফুল, মাতব্বর শহিদুল ইসলাম এবং খলিসাকুন্ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের লাইব্রেরীয়ান আসলামের সহযোগিতায় শালিশী বৈঠক করে রবিউল। সেখানে তার সদ্য সন্তান প্রসব করা স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার কথা বলে। পরে তাকে তালাক দিয়ে দেয়।

তবে স্ত্রীকে তালাক দিতে তার দেনমোহরের টাকা দিতে হবে। রবিউল পেশায় একজন কৃষক। টাকা কোথায় পাবে সে। তাই মা জেসমিনের কোল থেকে শিশু কন্যাকে মাতব্বর শহিদুল ইসলামের সহায়তায় কেড়ে নেয় রবিউল। শিশুটিকে বিক্রি করে দেয় ঈদগাহ পাড়ার আয়ূব আলীর কাছে। এ ঘটনার পর শিশুটিকে হারিয়ে ভেঙ্গে পড়ে জেসমিন।

জেসমিন জানান, আমার স্বামী জোর করে আমার কোল থেকে আমার বাচ্চাকে কেড়ে নিয়েছে। শুনেছি তারা শিশুকে ১ লক্ষ্য ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছে। আমি আমার মেয়েকে ফেরত চাই।

তিনি আরো বলেন, যারা আমার কোল থেকে আমার মেয়েকে কেড়ে নিয়েছে তাদের বিচার চাই।

জেসমিনের বাবা রেজাউল হক বলেন, বিয়ের পর আমার মেয়ের ২টা মেয়ে সন্তান জন্ম দেয়। কিছুদিন আগে আবার একটি মেয়ে জন্ম দেয়। এর জন্য আমার মেয়েকে তালাক দেয় রবিউল। আমার মেয়েকে বিনা অপরাধে সে তালাক দিয়েছে। সে বলে ফাতেমা তার সন্তান না। কিন্তু পরে আবার তার সন্তান বলে আমার ৯ দিনের নাতনি ফাতেমাকে কেড়ে নিয়ে গেছে। সে ফাতেমাকে বিক্রি করে দিয়েছে পাশের গ্রামে।

তিনি আরো বলেন, আমি গরীব মানুষ তাতে কোন কষ্ট নেই আমি আমার নাতনি ফেরত চাই প্রয়োজনে আমি ভিক্ষা করে আমার নাতনিকে মানুষ করবো।

ফাতেমার বড় বোন সালেকী জানায়, আমার ছোট বোনকে আমার বাবা আরেকজনের কাছে বেঁচে দিয়েছে। সেদিন আমার মায়ের কাছ থেকে নিয়ে গেছে। ফাতেমা কোথায় আমি জানি না।

রেজাউলের প্রতিবেশি নাসরিন ও রোজিনা বলেন, যেদিন বাচ্চাটা মায়ের কাছ থেকে কেড়ে নেয় সেদিন খুব কান্নাকাটি করেছিলো জেসমিন। তবে বিচারে কেউ তার কথা শোনেনি। তার বাচ্চাটাকে তার বাবা বিক্রি করে দিয়েছে। বাচ্চাটার বয়স মাত্র কয়েকদিন। সে মায়ের দুধ পাচ্ছে না। সে কি আদৌ মাকে ফিরে পাবে?

এদিকে মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) রবিউলের বাড়ীতে গেলে তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। রবিউলের মা জানান, আমি আমার ছেলেকে অনেকবার নিষেধ করেছি তবে সে শোনেনি। শুনেছি বাচ্চাটা আয়ূব নামের একজনকে দিয়ে দিয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না। বিচারে আমি ছিলাম না।

স্থানীয় মাতব্বর শহিদুল ইসলাম জানান, দুই পরিবারের মধ্যে একটা মনোমানিল্য ছিলো। আমরা সেটা ২ লাখ টাকার বিনিময়ে দফা রফা করে দিয়েছি। শিশুটির ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাচ্চা আছে। আমরা বিক্রি করে দেয়নি। খলিসাকুন্ডি ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি শুনেছি শালিশের মাধ্যমে মাত্র ৯দিনের বাচ্চাকে তার মায়ের কাছ থেকে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছে। তবে কত টাকায় বিক্রি করে দিয়েছে আমি সেটা জানি না। এবং কিভাবে তার তালাক হলো সেটাও জানি না। তবে এটা ঠিক হয়নি। এটা একটা অপরাধ। এ ঘটনার জেসমিনের বাড়ীতে উপস্থিত থাকা দৌলতপুর থানার ওসি তদন্ত আজগার আলী বলেন, আমাদের কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভাব অনটন ও পারিবারিক অশান্তি এবং পর পর তিনটি মেয়ে হওয়ায় তাকে তালাক দিয়ে দেয়। এবং বাচ্চাটি নিয়ে যায়। আমি রবিউলের বাড়ীতে গিয়ে দেখি সবাই পালিয়েছে। খোজ নিয়ে জানা গেছে, বাচ্চাটিকে তারা ফুপুর কাছে রেখেছিলো। তবে এখন কোথায় জানিনা। তবে মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেবে শুনেছি। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার জানান, কোন শিশুকে বিক্রি করে দেওয়ার কোন নিয়ম নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গাংনীতে ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মীসভা অনুষ্ঠিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে মেহেরপুরেরর গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া বাজার সংলগ্ন পলাশীপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে ওয়ার্কার্স পার্টির কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার কর্মীসভার আয়োজন করে স্থানীয় ওয়ার্কার্স পার্টি। কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- মেহেরপুর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড আব্দুল মাবুদ। এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা বক্তব্য রাখেন। অন্যদিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার হোগলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে স্থানীয় কৃষক-যুব-ছাত্রমৈত্রীর সম্মিলিত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি গঠন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য কমরেড মজনুল হক মজনু, কমরেড হাশেম আলী, কমরেড আরজ আলী। এছাড়াও এদিন গাংনী উপজেলার রামনগর গ্রামে নারী কর্মি সভার আয়োজন করা হয়। কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা নারী-মুক্তি সংসদের সভানেত্রী নুরুন-নাহার।

 

৩৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায়

কুমারখালীতে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন বাস্তবায়নে অভিযান

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন বাস্তবায়নে কুষ্টিয়ার কুমারখালী বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে শহরের কসমেটিকস, ফার্মেসী, মুদি দোকান, কাপড়ের দোকান, খাবার হোটেল, ফাস্টফুড সমগ্রী প্রস্তুতকারী ও বিক্রয় কেন্দ্রে অভিযান চালানো হয়। এতে নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। এ সময় সহকারি কমিশনার (ভুমি) মুহাম্মদ নূর-এ-আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ, কে, এম মিজানুর রহমান, উপজেলা নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা ও স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো: আরাফাত আলীসহ জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের জেলা কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। অভিযান পরিচালনাকালে ফাস্টফুড প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান রাহাত বেকারীর বিক্রয় কেন্দ্রে ও আরেকটি খাবার হোটেলে ভোক্তা-অধিকার বিরোধী কার্য ও অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য্য ও আদায় করা হয়েছে। এ ছাড়াও ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ বাস্তবায়নে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে সর্বস্তরে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বাজারের বিভিন্ন দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে খুচরা বিক্রয় মূল্য, মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ, ইত্যাদি দেখে পণ্য বা ঔষধ ক্রয়, মিথ্যা ও প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন হতে সতর্ক থাকার, ভেজাল ও নকল পণ্য বা ঔষধ প্রস্তুত এবং ফরমালিনসহ ক্ষতিকর দ্রব্য মিশ্রিত খাদ্যপণ্য ও মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া, পণ্য ক্রয়ের সময় ওজন বা পরিমাপ সঠিকভাবে বুঝে নেওয়া, মূল্য নির্ধারিত থাকলে তা দেখে কেনা ও হোটেলের খাবারের বিশুদ্ধতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার আহবান জানানো হয়। এ সময় সাধারন ভোক্তাদের মাঝে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর অধীন অভিযোগ দায়ের এবং অপরাধ ও দন্ডের বিধান সমন্বলিত প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়।

গাংনীতে অস্ত্র-মাদকসহ আটক-১

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে অস্ত্র ও মাদকসহ আব্দুল হান্নান (৪৭) নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত হান্নান গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের করমদী গ্রামের আফিল উদ্দীনের ছেলে। সে একজন মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ী বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার  ভোররাতে গাংনী থানা পুলিশের একটিদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে করমদী গ্রামের খুশির বিল নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে আব্দুল হান্নানকে আটক করে। গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম) জানান- করমদী খুশির বিলের মাঠ দিয়ে অবৈধ দ্রব্য পাঁচার হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি দল অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে ১টি দেশীয় তৈরী শার্টাগান ও ৪ কেজি গাঁজাসহ আব্দুল হান্নানকে আটক করা হয়। আটককৃত আব্দুল হান্নান একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে মাদক মামলাসহ অন্তত ৬টি মামলা রয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে তার নামে একটি মামলা দিয়ে মেহেরপুর আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

কালুখালীর খাগজানায় গোসাই রাম কমল আশ্রমে ২ দিনব্যাপী সাধুসংঘ

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে উপজেলার ৩নং বোয়ালিয়া ইউপির খাগজানা কোমরপুর সেবাইত দাস ডাঃ কুটি-লক্ষী ও ভক্তবৃন্দদের আয়োজনে গোসাই রাম কোমল আশ্রমে ২ দিনব্যাপী সাধু সংঘ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার পূণ্য সেবার মধ্যদিয়ে এ অনুষ্ঠানের সমাপনী ঘটে। শুরুতের বিভিন্ন এলাকা থেকে ভক্তবৃন্দের আগমন বাল্য সেবা, পরদিন রাতে আশ্রমে উপস্থিত ভক্তবৃন্দদের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন ডাঃ কুটি। তিনি তার বক্তব্যে নতস্বরে বলেন, মানব সেবাই পরম ধর্ম। ধর্ম-বর্ণ নির্বশেষে সকলকে মানব সেবায় মনোনিবেশ করতে হবে। আলোচনায় আশ্রমের ভক্ত স্বর্গীয় সাধন শীলের মৃত আত্মার স্বর্গ কামনা করে নিরাবতা পালন করা হয়। এসময় বোয়ালিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ লুৎফর রহমান, ইউপি সদস্য আঃ করিম মন্ডল, উপজেলা ব্র্যাক জিজেডির ব্যবস্থাপক মেহেদী হাসান, মোঃ আনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ হাট মোড় বণিক সমিতির সভাপতি বিষু মন্ডল, সাবেক সভাপতি খোরশেদ মন্ডল, সমাজসেবক আকু শিকদার এছাড়াও সাইফুল ইসলাম ইউনুস, মোঃ আঃ রাজ্জাক ও বিল¬াল সহ এলাকার বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে বাউল সঙ্গীত পরিবেশন করেন আজীবন সদস্য ও আজীবন সম্মাননা পদক প্রাপ্ত  ঢাকা গাজীপুরের এনাম সাই, রাজবাড়ীর বিশিষ্ট বাউল শিল্পী অসীম দাস বাউল অন্যান্যের মধ্যে গাজীপুরের সাঈদ বাউল, গাংনীর ভিকু বাউল, গাজীপুরের সাইফুল ইসলাম রনি, বরাঙ্গাইল সিদ্দিক পীর, ফরিদপুরের সিদাম পাগল ও স্থানীয় রুস্তম বাউলসহ স্থানীয় শিল্পীবৃন্দ গান পরিবেশন করেন।

ঝিনাইদহে নকল ব্যান্ডরোল যুক্ত বিড়ি উদ্ধার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল যুক্ত ৯৬ হাজার পিচ শলাকা আলি বিড়ি উদ্ধার করেছে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ। সোমবার বিকালে ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার কুলবাড়িয়া বাজারের আনোয়ার হোসেন স্টোর থেকে উদ্ধার করা হয়। যার মূল্য ৪৩ হাজার টাকা। এর মধ্যে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল যুক্ত করে ব্যাবহারের কারে সরকারের ২১ হাজার টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছিলো চক্রটি। কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট বিভাগ, ঝিনাইদহ বিভাগীয় কর্মকর্তার কার্যালয়’র সহকারি কমিশনার বায়জিদ হোসেন জানান, গোপনা সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে কুষ্টিয়ার গোলাপনগরে তৈরি আলি বিড়ি হরিণাকুন্ডু উপজেলার কুলবাড়িয়া বাজারের আনোয়ার হোসেন স্টোরে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল যুক্ত অবস্থায় বিক্রয়ের জন্য মজুত রাখার হয়েছে। এসময় সেখানে অভিযান চালালে আনোয়ার হোসেন পালিয়ে গেলেও স্টোরে তল¬াসী করে নকল ব্যান্ডরোল ও ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল যুক্ত ৯৬হাজার পিচ আলি বিড়ির শলাকা উদ্ধার করা হয়। যার মূল্য ৪৩ হাজার টাকা। এর মধ্যে নকল ব্যান্ডরোল যুক্ত করে সরকারের ২১ হাজার টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছিলো চক্রটি। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজস্ব কর্মকর্তা আব্দুল হাই হাওলাদার, গৌরঙ্গ চন্দ্র চৌধুরী, ভরসা গ্র“প অব কোম্পানী, ঝিনাইদহ আরএসএম আব্দুল্লাহ নয়ন ও রুবেল ইসলাম।

কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন পক্ষ থেকে মৃত্যুবরণকারী ১৬ শ্রমিক পরিবারকে আর্থিক সাহায্য প্রদান

গতকাল ২০ নভেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজিঃ নং-খুলনা-৭২) এর “মৃত্যুবরণকারী শ্রমিক” ১৬ জনের পরিবারবর্গকে এককালীন ৩ লাখ টাকা সাহায্য প্রদান করেন। কুষ্টিয়া বনানী সিনেমা হল সংলগ্ন সংগঠনের কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি মোঃ মাহাবুল আলমের সভাপতিত্বে এবং সাধারন-সম্পাদক মোঃ আফজাল হোসেনের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কার্যকরী সভাপতি মোঃ কারিবুল ইসলাম, যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম ডাবলু, সহ-সাধারন সম্পাদক মোঃ ইসারত হোসেন, সাংগঠনিক সস্পাদক মোঃ সরোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মোঃ নুরুজ্জামান, প্রচার সম্পাদক আনিচুর রহমান, ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রশীদ হারুন, দপ্তর সম্পাদক মোঃ মামুনুর-রশীদ রিপন, নির্বাহী সদস্য মোঃ মনিরুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম আমজাদ আলী প্রমুখ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আন্তর্জাতিকীকরণের পথে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

ব্যাপক অবকাঠামোগত উন্নয়নের পদক্ষেপ গ্রহণ

একাডেমিক ও প্রশাসনিক কর্মকান্ডে অভূতপূর্ব অগ্রগতি

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২তম উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী), উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান এবং ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা’র নেতৃত্বে বর্তমান প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিকীকরণের পথে এগিয়ে নিতে অক্লান্ত কাজ করে চলেছেন। চরম ভাবমূর্তি সঙ্কটে নিপতিত, বিশৃঙ্খল ও সর্বস্বান্ত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি ক্ষেত্রে এখন ব্যাপক পরিবর্তনের ছোঁয়া দৃশ্যমান। প্রগতিশীল, অসাম্প্রদায়িক ও দুর্নীতিমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার বর্তমান প্রশাসনের অঙ্গিকার নিয়ত বাস্তব রূপ পাচ্ছে। গত ৭ জানুয়ারি ৪র্থ সমাবর্তন সফলভাবে আয়োজনের মধ্যদিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে। দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছরের ব্যবধানে অনুষ্ঠিত এ সমাবর্তনে প্রায় ১০ হাজার ডিগ্রিধারীসহ প্রায় ১৪ হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করে, যা দেশের সর্ববৃহৎ সমাবর্তন হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে। ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কর্মকান্ড অভুতপূর্ব গতি লাভ করেছে। বিভাগগুলোতে বর্তমানে সেশনজট অনেকাংশে কমে এসেছে। একাডেমিক কার্যক্রম সম্প্রসারণের লক্ষ্যে অতি সম্প্রতি অনুষদের সংখ্যা বৃদ্ধি করে ৫টি থেকে ৮টি করা হয়েছে। মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভেঙ্গে মানবিক অনুষদ ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ; ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদ ভেঙ্গে বিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি অনুষদ এবং বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদ করা হয়েছে। গত শিক্ষাবর্ষে একসঙ্গে আটটি যুগোপযোগী বিভাগ খোলা হয়েছে এবং ২০২১ সাল নাগাদ এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগ সংখ্যা দাঁড়াবে ৫৯টি। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ জন ছাত্রীসহ ২২ জন বিদেশী শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছেন। অগ্রগতির কাজকে ত্বরান্বিত করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস সময় ৮টা-২টা’র পরিবর্তে এখন ৯টা-৪টা ৩০মিনিট করা হয়েছে। ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষায় নজিরবিহীন প্রায় শতভাগ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। দূরের জেলাগুলো থেকে অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের সংখ্যা ছিল অভুতপূর্ব। বিশ্ববিদ্যালয়কে মুক্তিযুদ্ধের ধারায় ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩২তম সিন্ডিকেট সভায় টি.এস.সি.সি মিলনায়তনকে ‘বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তন’ নামকরণ করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ ২০১৭ সালের ২০ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩৫তম সিন্ডিকেট সভায় বঙ্গবন্ধু চেয়ার স্থাপনের নীতিমালা গ্রহণ করেন এবং এবছর অনুষ্ঠিত ২৪২তম সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্তানুসারে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক প্রফেসর ড. শামসুজ্জামান খানকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে পঠন-পাঠন ও গবেষণায় সহযোগিতার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার, বঙ্গবন্ধু কর্ণার এবং একুশে কর্ণার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপক অবকাঠামোগত উন্নয়নের লক্ষ্যেও কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান প্রশাসন। ৫ শত ৩৭ কোটি ৭ লক্ষ টাকার মেগাপ্রকল্পের আওতায় খুব শ্রীঘ্রই ক্যাম্পাসে ৯টি দশতলা ভবন ও ১টি কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান গবেষণাগার নির্মাণ এবং ১৮টি ভবনের উর্দ্ধমুখী সম্প্রসারণ করা হবে।  বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন ২য় পর্যায় শীর্ষক প্রকল্পের অধীনে দেশরতœ শেখ হাসিনা হলের বি-ব্লক, শেখ রাসেল হলের এ-ব্লক ও অভ্যন্তরীণ সড়ক নির্মাণ এবং মেডিক্যাল সেন্টার ও গেস্ট হাউজের উর্দ্ধমুখী সম্প্রসারণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়াও রবীন্দ্র-নজরুল কলাভবন, প্রভোস্ট ও হাউজ টিউটরদের জন্য নির্মিতব্য ৫তলা আবাসিক ভবনের ৩য় তলা পর্যন্ত, ৫০০ কেভি সাবস্টেশন এবং শিক্ষক-কর্মকর্তাদের জন্য নির্মিতব্য ১০তলা আবাসিক ভবনের ৫তলা পর্যন্ত ১ম পর্যায়ের নির্মাণ এবং বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদের উর্দ্ধমুখী ও আনুভূমিক সম্প্রসারণকাজ প্রায় শেষের দিকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরের বিভিন্ন রাস্তা মেরামত ও সংস্কার কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্যবর্ধনের জন্য পানির ফোয়ারা তৈরি করা হয়েছে এবং দৃষ্টিনন্দন লেক তৈরির কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। এছাড়াও পরিবহন সঙ্কট দূরীকরণে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন পুলে ৮টি এসি গাড়ি যুক্ত হয়েছে এবং আরও ৪টি গাড়ি শীঘ্রই যুক্ত হতে যাচ্ছে। শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি, গবেষণার প্রতি বিশেষ গুরুত্বারোপ, সকল অনুষদ হতে আন্তর্জাতিকমানের গবেষণা জার্নাল প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ, পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কর্মশালা, শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়াদক্ষতা বৃদ্ধির নানামুখী উদ্যোগ, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবিরোধী কঠোর অবস্থান এবং ব্যাপক অবকাঠামোগত উন্নয়নের মাধ্যমে বর্তমান প্রশাসনের সুদক্ষ পরিচালনায় দেশের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ ও গবেষণাকেন্দ্র হিসেবে গড়ে ওঠার পথে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত কিছু তথ্য :

বর্তমানে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী সংখ্যা ১২,৮১২ জন (ছাত্র: ৮৬৪৭, ছাত্রী: ৪১৬৫; ৩১মে ২০১৭ পর্যন্ত) । বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট শিক্ষক ৪১০ জন, কর্মকর্তা ৪২৫ জন, সহায়ক কর্মচারী ২০৯ এবং সাধারণ কর্মচারী ১৯০ জন। এম.ফিল কোর্সে  ২৮৫ জন এবং পি-এইচ.ডি প্রোগ্রামে ৩৫৭ জন শিক্ষার্থী বর্তমানে গবেষণাকর্মে নিযুক্ত রয়েছেন। এ পর্যন্ত ৬২১ জনকে এম.ফিল ডিগ্রি এবং ৪২১ জনকে পি-এইচ.ডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

সাজার রায়ের পর বিএনপি নেতা রফিফুল গ্রেপ্তার

ঢাকা অফিস ॥ দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলায় কারাদন্ডের পর বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার আদালত রায় দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন না সাবেক এই মন্ত্রী; ফলে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল।  সেই পরোয়ানায় সন্ধ্যায় রফিকুলকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের এডিসি মো. শাহজাহান। তিনি বলেন, “তাকে ইষ্কাটনের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ছিল।” সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় ব্যারিস্টার রফিকুলকে তিন বছরের কারাদন্ড দিয়েছেন ঢাকার ৬ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক শেখ গোলাম মাহবুব। ১৪ বছর আগের এ মামলার রায়ে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়ার পাশাপাশি রফিকুলকে আদালত ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম করাদন্ড দেয়া হয়। মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০০১ সালের ৭ এপ্রিল তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরো সম্পদের হিসাব বিবরণী জমা দিতে রফিকুল ইসলাম মিয়াকে নোটিস দিয়েছিল। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তিনি হিসাব না দেওয়ায় ব্যুরো কর্মকর্তা  সৈয়দ  লিয়াকত হোসেন ২০০৪ সালের ১৫ জানুয়ারি রফিকুলের বিরুদ্ধে ঢাকার উত্তরা থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ৩০ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেন ওই কর্মকর্তা। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে ২০১৭ সালের ১৪ নভেম্বর বিচার আদেশ দেন। খালেদা জিয়ার ১৯৯১-৯৬ সালের সরকারে পূর্তমন্ত্রী ছিলেন রফিকুল ইসলাম মিয়া; পরে বেশ কিছুদিন নিস্ক্রিয় ছিলেন তিনি। ২০০৭ সালে জরুরি অবস্থা জারির পর ফের বিএনপিতে সক্রিয় হন তিনি। কুমিল্লার সাবেক সংসদ সদস্য রফিকুল ২০০৮ সালের নির্বাচনে তিনি ঢাকার মিরপুরের আসন থেকে ধানের শীষ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

কুমারখালীতে মহান বিজয় দিবস উদযাপনে প্রস্তুতিমুলক সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে প্রস্তুতিমুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এ প্রস্তুতিমুলক সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, সহকারি কমিশনার (ভুমি  মোহাম্মদ নূর- এ- আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম মিজানুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোকাদ্দেস হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁদ আলী প্রমূখ। প্রস্তুতিমুলক সভায় যথাযোগ্য মর্যাদায় ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উদযাপনে বিস্তারিত কর্মসূচী আয়োজন ও পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এ ছাড়াও গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়নে সরকারি কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সমন্বয়ে একাধিক উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রস্তুতিমুলক সভার শুরুতেই শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

বিদ্যুৎ খাতে দক্ষিণ কোরীয় বিনিয়োগ চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে এবং দেশে একটি তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনে দক্ষিণ কোরিয়ার বিনিয়োগ এবং সহযোগিতা কামনা করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকায় নবনিযুক্ত দক্ষিণ কোরীয় রাষ্ট্রদূত হু ক্যাং-ইল প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে তাঁর সঙ্গে সৌজন্য সাকষাৎ করতে এলে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম  বৈঠকের পরে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী কোরীয় রাষ্ট্রদূতকে জানান, তাঁর সরকার দেশের তথ্য প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে এবং এ ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়া সহযোগিতার হাত প্রসারিত করলে কাজটি আরো সহজ হয়। তিনি বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে দক্ষিণ কোরিয়াকে আরো বিনিয়োগের আহ্বান জানান। বাংলাদেশের ক্রমবর্ধিষ্ণু অর্থনীতির ভূয়সী প্রশংসা করে দক্ষিণ কোরিয় রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘এটা খুবই প্রশংসার দাবি রাখে যে, বাংলাদেশ বিগত কয়েকবছর যাবত ৬ শতাংশের ওপরে প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে।’ ‘এটি একটি বিরাট অর্জন,’ যোগ করেন তিনি। হু ক্যাং-ইল বলেন, তার দেশ বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়ন এবং বিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতা দানে প্রস্তুত রয়েছে। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সামনে একটি উজ্জ্বল ও ইতিবাচক ভবিষ্যৎ থাকায় আরো কোরীয় বিনিয়োগকারী বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আসবে।’ রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাষ্ট্রদূত বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ গৃহীত প্রস্তাবে তাদের সমর্থন ব্যক্ত করেছে। ‘আমরা রোহিঙ্গাদের তাদের মাতৃভূমিতে সফল প্রত্যাবাসন প্রত্যাশা করি,’ যোগ করেন তিনি। রাষ্ট্রদূত এ প্রসংগে বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া ইতোমধ্যে রোহিঙ্গাদের জন্য ৫০ লাখ মার্কিন ডলার সহযোগিতা প্রদান করেছে। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সভায় ডাকতে ইসির মানা

ঢাকা অফিস ॥ নির্বাচন কমিশন ছাড়া কোনো মন্ত্রণালয় যাতে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ডেকে নিয়ে সভা না করে, সেজন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে নির্দেশনা পাঠানো হচ্ছে। বিএনপির অভিযোগ পাওয়ার পর গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনারদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে দুজন বিভাগীয় কমিশনার ও ৬৪ জন জেলা প্রশাসক রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করবেন। বিএনপি মঙ্গলবার ইসিতে পাঠানো একটি চিঠিতে অভিযোগ করে, গত ১৩ নভেম্বর এই রিটার্নিং কর্মকর্তারা ইসির নির্দেশনামূলক সভায় অংশ নেওয়ার পর তাদের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ‘ ডেকে নিয়ে ব্রিফিং করা হয়েছিল’। এ ধরনের আচরণ সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের বিরাট অন্তরায় উল্লেখ করে চিঠিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এটা ‘ লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’য়ের জন্য অশনি সংকেত। রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডেকে নেওয়ার খবর ইসির গোচরে নেই বলে সাংবাদিকদের জানান ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি সেই সঙ্গে বলেন, “আজ (মঙ্গলবার) কমিশন একটি নির্দেশনা দিয়েছে। সবগুলো বিষয় মিলে সরকারকে একটা পত্র দেব। সিদ্ধান্ত হয়েছে, পত্রপত্রিকায় বা (যেসব) অভিযোগ আসছে, তা যেন ভবিষ্যতে আর না করা হয়।” তফসিল ঘোষণার পর থেকে প্রশাসন ইসির অধীনে থাকায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেওয়ার কথা জানান হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন, “রিটার্নিং অফিসার যেহেতু ইসির অধীন; সুতরাং তাদেরকে যাতে অন্য কোনোভাবে ডেকে সভা না করা হয়, এগুলোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ বিষয়ে কনসার্ন সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেব।”

হোটেলে জামায়াত নেতার লাশ

ঢাকা অফিস ॥ কক্সবাজার শহরের একটি আবাসিক হোটেল থেকে জেলা জামায়াত ইসলামীর সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম রহিমুল্লাহর লাশ উদ্ধার হয়েছে। হৃদরোগে তার মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশের ধারণা। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসাইন বলেন, মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে শহরের সাগরগাঁও হোটেল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। হোটেলটির মালিক তার শ্বশুর। হোটেল কর্মচারীদের বরাতে তিনি বলেন, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে রহিমুল্লাহ হোটেলে এসে ৩১৬ নম্বর কক্ষে ওঠেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকেও তিনি ফোনে কথা বলেন। এরপর তিনি আবার ঘুমিয়ে পড়েন। বেলা ২টায়ও তিনি ঘুম থেকে না জাগায় কর্মচারীদের সন্দেহ হয়। তারা পুলিশে খবর দেয়।” পুলিশ হোটেলকক্ষের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকে জানিয়ে তিনি বলেন, “তাকে খাটের ওপর স্বাভাবিকভাবে ঘুমন্ত অবস্থার মত দেখতে পায় পুলিশ। পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে।” স্বজনরা অভিযোগ দিলে ময়নাতদন্তসহ পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান। রহিমুল্লাহর গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার ভারুয়াখালীতে। তিনি ভারুয়াখালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান।

 

বিএনপির ঢালাও অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না – ইসি

ঢাকা অফিস ॥ ভোটে সম্পৃক্ত প্রশাসন ও পুলিশ নিয়ে বিএনপির ‘ঢালাও অভিযোগ’ আমলে নেওয়া হবে না বলে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তবে বিএনপি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করলে তা খতিয়ে দেখা হবে, বলেছেন নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ‘ লেভেলে প্লেয়িং ফিল্ড’ তৈরির অন্তরায় হিসেবে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে মঙ্গলবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ইসিতে পাঁচটি চিঠি পাঠান। বিএনপির অভিযোগ ইসি সচিব হেলালুদ্দীনের বিরুদ্ধেও ছিল। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে হেলালুদ্দীন বলেন, “সচিব ইসির মুখপাত্র। ইসি সচিবের আলাদা সত্ত্বা নেই। কমিশনই সব সিদ্ধান্ত সিদ্ধান্ত নেয়; সচিব তা বাস্তবায়ন করে ও সাচিবিক দায়িত্ব পালন করে।” এছাড়া ৪৫ জেলার ‘মেনটর’ নিয়োগ আদেশ বাতিল; নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন বন্ধ; প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ব্রিফিং; সব বিভাগীয় কমিশনার ও ডিআইজিকে প্রত্যাহারের দাবি করে বিএনপি। ইসি সচিব বলেন, “৪৫ জন মেনটর নিয়োগ সংক্রান্ত আদেশ ১৩ নভেম্বর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ স্থগিত করেছে।” তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনে মেনটর নিয়োগ পূর্ব প্রচলিত। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এটা রুটিন কাজ। এ আদেশটি কমিশন অবহিত নয়। ৮ নভেম্বর আদেশটি করেছিল, ১৩ নভেম্বর স্থগিত করেছে। রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে ব্রিফিং করার বিষয়টি কমিশন ‘অবহিত নন’ বলে জানান ইসি সচিব। জেলা প্রশাসক, ডিআইজিসহ মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তা নিয়ে অভিযোগ ও রদবদলের বিষয়টি ঢালাওভাবে আমলে নেওয়া হবে না বলে জানান তিনি। “ঢালাও রদবদল প্রস্তাব ইসি গ্রহণ করবে না। অভিযেগ স্পেসিফিক হতে হবে। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে তা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”