দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতের মৃত্যু

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের কংগ্রেস দলীয় বর্ষীয়ান নেত্রী ও দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন। শনিবার দিল্লির বেসরকারি হাসপাতাল এসকোর্টসে স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ৫৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয় বলে পরিবারের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, জানিয়েছেন এনডিটিভি। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে হাসপাতালটি। তার ৮১ বছর বয়স হয়েছিল। টানা তিন মেয়াদে সবচেয়ে বেশি দিন ধরে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছিলেন তিনি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি দিল্লির কংগ্রেস দলীয় প্রধান ছিলেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে এ দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। দীক্ষিতের মৃত্যু সংবাদে শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েছেন বলে এক টুইটে জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। বলেছেন, “কংগ্রেসের স্নেহভাজন কন্যা শীলা দীক্ষিত জী-র মৃত্যু সংবাদ শুনে আমি বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছি। তার সঙ্গে আমার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। গভীর এ দুঃখের সময় তার পরিবার ও দিল্লির নাগরিকদের প্রতি আমার সমবেদনা জানাচ্ছি। তিন মেয়াদে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালে নিঃস্বার্থভাবে দায়িত্বপালন করেছেন তিনি।” এক টুইটে কংগ্রেস দল বলেছে, “শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। আজীবন কংগ্রেসী এই নারী তিন মেয়াদ ধরে মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালে দিল্লির চেহারা বদলে দিয়েছিলেন। তার পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি আমরা। দুঃখের এ সময়ে তারা শক্তি পান এই কামনা করছি।” ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক টুইটে মোদী বলেছেন, “প্রাণবন্ত ও অমায়িক ব্যক্তিত্ব ছিল তার। দিল্লির উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা ছিল তার। তার পরিবার ও সমর্থকদের প্রতি সমবেদনা।” ভারতের প্রেসিডেন্ট রাম নাথ কোবিন্দও তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। শীলা দীক্ষিত ১৯৯৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত টানা ১৫ বছর ধরে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। তার পর আম আদমি পার্টির অরবিন্দ কেজরিওয়াল দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন। দীক্ষিতের মৃত্যুতে কেজরিওয়ালও শোক প্রকাশ করেছেন। পাঞ্জাবের কাপুরথালায় জন্ম নেওয়া দীক্ষিত জনমুখি বহু কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে খ্যাতি পেয়েছিলেন।

 

পোড়াদহে ফেন্সিডিলসহ মাদক চোরাকারবারি আটক

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহে ট্রেন থেকে ফেন্সিডিলসহ এক মাদক চোরাকারবারিকে আটক করেছে রেলওয়ে থানা পুলিশ। গতকাল সকাল আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে খুলনা হতে রাজশাহীগামী ৭১৫নং আন্তঃনগর কপোতাক্ষ ট্রেনটি হালসা রেলওয়ে ষ্টেশন পার হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে ৯০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ আমিনুল ইসলাম (২৭)নামের ঐ মাদক চোরাকারবারি ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। পোড়াদহ রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ সলেমান হোসেন মোল্লা জানান, রেলকে মাদকদ্রব্যমুক্ত করার জন্য মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রেখেছি। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল সঙ্গীয় টিজি পার্টির এস আই শ্রী গোবিন্দ কুমার মন্ডলকে সঙ্গে নিয়ে কপোতাক্ষ ট্রেনে চুয়াডাঙ্গা ষ্টেশন থেকে অভিযান পরিচালনা শুরু করা হয়। ট্রেনটি হালসা রেল ষ্টেশন পার হওয়ার পর পরই অভিযানকালে ট্রেনের মধ্য হতে দুইটি স্কুল ব্যাগে থাকা ৯০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মাদক চোরাকারবারী ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলামকে আটক করা হয়। সে চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার ছয় ঘরিয়া মাঠপাড়া গ্রামের ওসমান কাজীর ছেলে। এ ব্যাপারে গতকালই পোড়াদহ রেলওয়ে থানায় মামলা হয়েছে, যার নং ৪। উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিলের আনুমানিক মূল্য ৯০ হাজার টাকা। আটককৃতকে কুষ্টিয়া কোর্টে চালান দেয়া হয়েছে।

সাবেক সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ফজলুর রহমান পবিত্র হজব্রত পালনের উদ্দেশে সস্ত্রীক সৌদি আরব গমন

সাবেক সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ ফজলুর রহমান পবিত্র হজব্রত পালনের উদ্দেশে সস্ত্রীক সৌদি আরবে গমন করেছেন। গত ২১ জুলাই রবিবার দুপুর ১২ টা ১৫ মিনিটের সময় বাংলাদেশ বিমান যোগে তিনি ঢাকা থেকে সৌদি আরবের মক্কার উদ্দেশে সহধর্মিনী মোছাঃ সায়রা সুলতানা (সহকারী অধ্যাপক, হালসা কলেজ, কুষ্টিয়া) কে সাথে নিয়ে রওনা হয়েছেন।  ঢাকা থেকে সৌদি আরব যাওয়ার আগে সময় স্বল্পতার কারণে বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন, শুভাকংখীসহ প্রিয়জনদের সাথে দেখা করে যেতে পারেনি বলে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন সেই সাথে সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেছেন যাতে করে তিনি পবিত্র হজ ব্রত পালন করে সুস্থ শরীরে ভালভাবে দেশে ফিরতে পারেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

প্রিয়ার ভয়ংকর মিথ্যা বিশ্বাস করার মতো বোকা ট্রাম্প নন – জয়

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রীর ছেলে ও তাঁর তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর সরকার অন্যান্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার নীতিতে বিশ্বাসী নন। তাঁরা প্রিয়া সাহার ভয়ংকর মিথ্যা দাবি বিশ্বাস করার মতো বোকাও নন। গতকাল রোববার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে সজীব ওয়াজেদ জয় এসব কথা বলেন। দেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার করা অভিযোগ প্রসঙ্গে জয় এ স্ট্যাটাস দেন। প্রিয়া সাহা বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের অন্যতম সাংগঠনিক সম্পাদক। গত বুধবার ওয়াশিংটনের ওভাল অফিসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহা অভিযোগ করে বলেন, বাংলাদেশ থেকে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান উধাও হয়ে গেছেন। তিনি এ ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাহায্য চান। সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে প্রিয়া সাহার অভিযোগকে পুরোপুরি মিথ্যা ও কাল্পনিক বলেছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। জয় তাঁর স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘গত নির্বাচনের পর আমি একটু বিরতি নিই, তাই এই পেজেও কম পোস্ট করা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক কিছু ঘটনার প্রেক্ষিতে আমার কিছু বলা উচিত বলে মনে হলো। আপনারা হয়তো দেখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার ভয়ংকর ও মিথ্যা দাবি। উনি বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে নাকি ৩ কোটি ৭০ লাখ ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা ‘গায়েব’ বা ‘গুম’ হয়ে গেছেন। প্রায় ৪ কোটির কাছাকাছি যে সংখ্যাটি উনি বলছেন, তা আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যার ১০ গুণেরও বেশি, আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহতদের সংখ্যার কাছাকাছি। এত মানুষ গুম হলো সবার অজান্তে? ৩ কোটি ৭০ লাখ মানুষ গায়েব হলো কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই?’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে জয় লিখেছেন, ‘প্রিয়া সাহাকে আমেরিকায় পাঠানো হয় বাংলাদেশে মার্কিন দূতাবাসের মনোনয়নে। অনেক সমালোচনার পর আজ তাঁরা একটি বিবৃতি দিয়েছেন। সেখানে তারা বলেছেন, তাঁরা অংশগ্রহণকারীদের কথাবার্তার ওপর কোনো বিধিনিষেধ আরোপ করেন না। কিন্তু যখন তাঁদের একজন মনোনীত অংশগ্রহণকারী তাঁদেরই রাষ্ট্রপ্রধানের কাছে কেন ভয়ংকর মিথ্যা বক্তব্য দিলেন, তাঁদের উচিত ছিল তাৎক্ষণিকভাবে তার প্রতিবাদ জানানো, যা তাঁরা করেননি।’ জয় তাঁর স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘এই বিষয়টি থেকে কিন্তু মার্কিন দূতাবাসেরই দুরভিসন্ধি প্রকাশ পায়। তারা জেনেশুনেই প্রিয়া সাহাকে বাছাই করে, কারণ তারা জানত, উনি এই ধরনের ভয়ংকর মিথ্যা মন্তব্য করবেন। এই ধরনের কাজের পিছে একটাই কারণ চিন্তা করা যায়: মানবিকতার দোহাই দিয়ে আমাদের এই অঞ্চলে সেনা অভিযানের ক্ষেত্র প্রস্তুত করা। মনে রাখা ভালো, কয়েক দিন আগেই মার্কিন এক কংগ্রেসম্যান একটি বক্তব্যে বলেছিলেন বাংলাদেশের মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য দখল করা উচিত।’ প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা বলেন, মার্কিন দূতাবাস যে আওয়ামী লীগবিরোধী, তা নতুন কিছু নয়। তাদের সব অনুষ্ঠানেই জামায়াতের নেতা-কর্মীরা ও যুদ্ধাপরাধীরা নিয়মিত আমন্ত্রিত হতেন। প্রিয়া সাহার মিথ্যা বক্তব্যকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে তাদের সরাসরি আধিপত্য বিস্তারের ষড়যন্ত্র পরিষ্কারভাবেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সৌভাগ্যবশত, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর সরকার অন্যান্য দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার নীতিতে বিশ্বাসী নন। তাঁরা এ ধরনের ভয়ংকর মিথ্যা দাবি বিশ্বাস করার মতন বোকাও নন।

ইরানের সঙ্গে উত্তেজনা, সৌদি আরবে সৈন্য পাঠাচ্ছে পেন্টাগন

ঢাকা অফিস ॥ ইরানের সঙ্গে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যেই সৌদি আরবে মার্কিন সেনা মোতায়েনের প্রক্রিয়া শুরু করেছে পেন্টাগন।

মধ্যপ্রাচ্যে ‘উদ্ভূত হুমকি’ থেকে মার্কিন স্বার্থকে রক্ষা করতেই এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে, বলেছে তারা। পেন্টাগনের ঘোষণার পাশাপাশি সৌদি আরবও তার দেশে মার্কিন সেনা মোতায়েনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বাদশা সালমান ‘আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা জোরদারে’ দেশে মার্কিন সেনা উপস্থিতিতে অনুমোদন দিয়েছেন, সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টুইটের বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে বিবিসি। পারস্য উপসাগরে তেলবাহী ট্যাংকার চলাচলের নিরাপত্তা নিয়ে পশ্চিমাদের সঙ্গে তেহরানের মুখোমুখি অবস্থানের মধ্যেই ওয়াশিংটন মধ্যপ্রাচ্যে তার ঘনিষ্ঠ মিত্রদেশটিতে সৈন্য পাঠানোর এ সিদ্ধান্ত নিল। ইরাকের কুয়েত দখলের পর ১৯৯১ সালে ‘অপারেশন ডেজার্ট স্টর্মের’ মাধ্যমে সৌদি আরবে মার্কিন সেনা মোতায়েন শুরু হয়েছিল। ২০০৩ সালের পর সেটি বন্ধ রাখা হয়। ওই বছর ইরাক অভিযান শেষে যুক্তরাষ্ট্র সৌদি ঘাঁটি থেকে তার সৈন্যদের ফিরিয়ে আনে। এবার পেন্টাগন সৌদি আরবের প্রিন্স সুলতান ঘাঁটিতে বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাপনা প্যাট্রিয়ট ও ৫০০ সেনা মোতায়েন করতে যাচ্ছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। ঘাঁটিটিতে এফ-২২ জঙ্গিবিমানের একটি স্কোয়াড্রন পাঠানোরও পরিকল্পনা আছে। সৌদি আরবে মার্কিন সেনা মোতায়েনের এ ঘটনা তেহরান-ওয়াশিংটন উত্তেজনায় ঘি ঢালবে বলে আশঙ্কা পর্যবেক্ষকদের। গত বছর যুক্তরাষ্ট্র ইরান পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়ার পর থেকে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনার পারদ চড়তে শুরু করে। তেহরানের তেল রপ্তানি বন্ধে ওয়াশিংটনের একের পর এক পদক্ষেপও দুই দেশকে মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড় করিয়েছে। সম্প্রতি ইরান যুক্তরাষ্ট্রের একটি মনুষ্যবিহীন ড্রোনকে গুলি করে ভূপাতিতও করেছে। বৃহস্পতিবার হরমুজ প্রণালীতে মার্কিন নৌযান ইউএসএস বক্সার একটি ইরানি ড্রোনকে ভূপাতিত করেছে বলে ওয়াশিংটন দাবি করলেও তেহরান তা উড়িয়ে দিয়েছে।

মিরপুরে মৎস্য চাষ বিষয়ক আলোচনা সভা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য দপ্তরের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে মৎস্য চাষ বিষয়ক আলোচনা সভা ও প্রামান্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। গতকাল রোববার সকালে নিমতলা কলেজের হলরুমে এ আলোচনা সভা ও প্রামান্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। কলেজের অধ্যক্ষ শাহজাহান আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাজিউল ইসলাম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন  উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান, কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান, জয়নাল আবেদীন, নিজাম উদ্দিন, প্রভাষক আব্দুর রশিদ, বুলবুল হোসেন, জহিরুল ইসলাম, সোহেল রানা, সাইফুল আলম, জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা মৎস্য দপ্তরের ক্ষেত্র সহকারী আসাদুজ্জামান, অফিস সহকারী এখলাছ হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোস্তফা এফ রায়হান।

গাংনীতে একাধীক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর উন্মোচন 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার একাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (ফলক) ভিত্তিপ্রস্তুর উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল চাহিদা অনুযায়ী সরকারী বিদ্যালয় অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প (১০ পর্যায়)-এর আওতায় বিভিন্ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন মেহেরপুর-২ (গাংনী)  আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা আ.লীগের সহ- সভাপতি ও বামন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা বিশ্বাস, উপজেলা প্রকৌশলী সেলিম চৌধুরী, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান, আ.লীগের বিশিষ্ট নেতা মনিরুজ্জামান আতু, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মজিরুল ইসলাম, গাংনী থানার এসআই বিশ্বজিৎ কুমার, গাংনী উপজেলা বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান আলী আজগর।  এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কাজীপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আবু নাতেক, ষোলটাকা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান, মটমুড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আবুল হাশেম বিশ্বাস, কাথুলী ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি গোলজার হোসেন, বামন্দী ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুর রহমান কমল, সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খোকনের একান্ত সহকারী মোখতারুল ইসলাম, ঠিকাদার মখলেছুর রহমান, আকাশ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দসহ  দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীবৃন্দ। ভিত্তিপ্রস্তুর উদ্বোধনকৃত বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে রয়েছে,  গাংনী উপজেলার ধানখোলা ইউনিয়নের চাঁন্দামারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ষোলটাকা ইউনিয়নের ভোলাডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাইপুর ইউনিয়নের বড় বামন্দী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, গাংনী পৌর এলাকার চৌগাছা ভিটাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বামন্দী ইউনিয়নের রামনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও তেরাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় । এসব বিদ্যালয়ের নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৮২ লাখ ৩৩ হাজার ২৫৮ টাকা ।

মিরপুরে জাসদ নেতার স্ত্রী’র মৃত্যু

মিরপুর অফিস ॥ কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলা জাসদের সভাপতি ও বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মহম্মদ শরীফের স্ত্রী ও মিরপুর প্রেসক্লাবের সাবেক কোষাধ্যক্ষ ফেরদৌস-উর-রহমান রাজনের মা মমতাজ বেগম (৫৭) ইন্তেকার করেছে। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী ও ২ ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল রোববার সকালে মিরপুরস্থ নিজ বাড়ীতে হার্ট স্ট্রোক জনিতকারণে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। দুপুর ২টায় স্থানীয় ফুটবল মাঠে প্রথম ও বিকেলে নওদাবহলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় জানাযা শেষে তাকে নওদাবহলবাড়ীয়া গোরস্থানে দাফন করা হয়। তার মৃত্যুতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শোক জানিয়েছেন। উল্লেখ্য আগামী ২৬ জুলাই স্বামীর সাথে হজব্রত পালনের উদ্দেশ্যে তার সৌদি আরব গমনের কথা ছিলো।

গাংনীতে ডা. এম কে রেজার উপর হামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী (উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স) হাসপাতালের চিকিৎসক এম কে রেজার উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল রোববার দুপুর ২টার দিকে গাংনী হাসপাতাল কোয়ার্টারে হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার সাথে জড়িত গাংনী সনো ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক বিজয়কে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। হামলার শিকার গাংনী হাসপাতালের চিকিৎসক এম কে রেজা জানান, একটি রিপোর্ট দেখাকে কেন্দ্র করে গাংনী সনো ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক বিজয় হোসেনসহ তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে আমার উপর হামলা করে। গাংনী হাসপাতালের আরএমও ডাক্তার বিডি দাস জানান, হামলায় আহত এম.কে.রেজা বর্তমানে গাংনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ইতোমধ্যে অভিযুক্ত বিজয়সহ তার ক্যাডার বাহিনীকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে।  বিজয়সহ তার ক্যাডার বাহিনীর সদস্যদের গ্রেফতারে ব্যর্থ হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধ রাখা হবে। এছাড়া উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানানো হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।  কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে হাসপাতালের প্রধান সহকারী আসাদুজ্জামান লিটন বলেন- বিজয় নারী কেলেঙ্ককারীসহ বহু অপকর্মের হোতা। ডাক্তার এম কে রেজার উপর অতর্কিত হামলার ঘটনায় তাকে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। এছাড়া সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত ও অভিযুক্তদের গ্রেফতারে ব্যর্থ হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে। স্থানীয়রা জানান, বিজয় হাসপাতাল থেকে দালালের মাধ্যমে রোগীকে ভাগিয়ে নেওয়াসহ  রোগী ও তার স্বজনদের জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক আতাউল গনি বলেন-চিকিৎসকের উপর হামলার ঘটনা ন্যাক্কারজনক। দ্রুত অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে। পাশাপাশি গাংনী সনো ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে অনিয়ম পেলে সিলগালা করে দেয়া হবে। মেহেরপুরের সিভিল সার্জন শামীম আরা নাজনীনের সাথে এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি (রিসিভ) গ্রহণ করেননি।  গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান জানান,অভিযুক্ত বিজয়সহ তার ক্যাডার বাহিনীকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

২৫ জুলাই খুলনা বিভাগীয় মহাসমাবেশ সফল করতে কুমারখালী থানা পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের প্রস্তুতি সভা

বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আগামী ২৫ জুলাই খুলনা বিভাগে মহাসমাবেশ কর্মসূচি সফল করতে কুমারখালী থানা পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকালে কুমারখালী বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুমারখালী পৌর বিএনপির সভাপতি কেএম আলম টমের সভাপতিত্বে সবায় বক্তব্য রাখেন কুমারখালী পৌর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক হাজী মনোয়ার হোসেন, কুমারখালী থানা বিএনপি সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান, আবুল কালাম আযাদ, যুগ্ম সম্পাদক হাফিজুর রহমান, মামুনুর রশিদ মামুন, সাংগঠনিক সম্পাদক আল কামাল মোস্তফা, কুমারখালী থানা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ওহিদুল ইসলাম সাবু, কুমারখালী থানা যুবদলের সভাপতি এ্যাড. শাতীল মাহমুদ, কুমারখালী থানা  স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি ডাঃ শরীফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম, থানা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদসহ কুমারখালী থানা পৌর ইউনিয়ন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সভায় বক্তারা বলেন, সরকারের অমানবিকতা, নির্দয়-নিষ্ঠুরতার কোপানলে পড়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখন কারাগারে, তিনি গুরুতর অসুস্থ। তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে আগামী ২৫ জুলাই খুলনায় মহাসমাবেশ কর্মসূচি সফল করতে আমাদের ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। উপজেলায় প্রস্তুতি সভা হচ্ছে। এই শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশগুলোতে যোগ দিতে মানুষের আগ্রহের কোনও কমতি নেই। মহাসমাবেশ ঘিরে সাধারণ জনগণের অভাবনীয় সাড়া ফেলেছে। তাই আগামী ২৫ জুলাই খুলনায় মহাসমাবেশে কুমারখালীর প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার ওয়ার্ড থেকে শত শত জনতা যোগ দিবে ইনশাআল্লাহ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

ইবি “সোনালী স্বপ্ন” সমিতির প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা আর বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যদিয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঞ্চয়ী সমিতি   সোনালী স্বপ্ন’র প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল রবিবার দিনব্যাপী ক্যাম্পাসস্থ মমতাজ ভবনে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়। বেলা ১১টা হতে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সমিতির সদস্যরা এ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত, কবিতা আবৃতি ও কৌতুক পরিবেশন করেন। এরপর সমিতির সভাপতি  মোঃ মাসুদ পারভেজ’র সভাপতিত্বে এবং মোঃ আরিফুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক। সভায় বক্তব্য রাখেন সমিতির কোষাধ্যক্ষ বাবলুর রহমান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক মোঃ আব্দুল লতিফ, সদস্য-সচিব মোঃ রাশিদুজ্জামান খান টুটুল, সমিতির সদস্য আমিরুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, জহুরা খাতুন, মোহাঃ শামীম আকতার, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (শিমুল), ওয়ালিদ হাসান (মুকুট), নাসিরুল ইসলাম (রাসেল), উকিল উদ্দিন, হেলাল উদ্দিন ও জেবুন নাহার প্রমুখ। সভা শেষে মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়। উল্লেখ্য ২০১৮ সালে ২১ জুলাই ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে “সোনালী স্বপ্ন” সঞ্চয়ী সমিতি প্রতিষ্ঠা করা হয়।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুরে সর্প দংশনে কৃষকের মৃত্যু

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সর্প দংশনে কালু মহলদার (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুষ্টিয়া হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। সে মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীরচর গ্রামের জামাত মহলদারের ছেলে। নিহতের চাচাত ভাই সাইদুর রহমান জানান, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে বৈরাগীরচর মাঠে পাট কাটতে গেলে কৃষক কালু মহলদারকে বিষাক্ত সাপে দংশন করে। তাকে দ্রুত দৌলতপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কালু মহলদারকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন। কুষ্টিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।

বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন রওশন এরশাদ

ঢাকা অফিস ॥ জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন। বিষয়টি জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা। এ প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির মহাসচিব গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, ‘রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা হচ্ছেন এখন পর্যন্ত এমন সিদ্ধান্ত রয়েছে বলে জানি। ম্যাডাম (রওশন এরশাদ) সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা আর জিএম কাদের পার্টি পরিচালনা করবেন।’ একাদশ জাতীয় সংসদে রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে রয়েছেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ছিলেন বিরোধীদলীয় নেতা। এরশাদের মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতার পদ শূন্য হয়েছে। একাদশ সংসদে প্রথমে বিরোধীদলীয় উপনেতা ছিলেন জিএম কাদের। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ গত ৭ এপ্রিল চিঠি দিয়ে সেই পদে বসান স্ত্রী রওশন এরশাদকে। রওশন এরশাদ দশম জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা ছিলেন। ওই সময় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় পার্টির একাধিক সূত্র জানিয়েছে, শনিবার দুপুরে রওশন এরশাদের বাসায় গিয়ে বৈঠক করেন দলটির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। ওই বৈঠকে রওশন এরশাদ জিএম কাদেরকে পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে আশীর্বাদ করেন। পাশাপাশি তিনি নিজে বিরোধীদলীয় নেতা হওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন। জিএম কাদেরকে রওশন বলেছেন, ‘তুমি পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দলকে শক্তিশালী করো। আর আমি সংসদীয় দলের নেতা হিসেবে থাকি।’

প্রিয়া সাহার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেবে সরকার -ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ করা প্রিয়া সাহার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেবে সরকার এবং এর আগে কোন আইনী প্রক্রিয়া শুরু না করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি গতকাল রোববার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মেট্রোরেল নেটওয়ার্কের সময়বদ্ধ পরিকল্পনার ব্রান্ডিং বিষয়ক সেমিনার শেষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। প্রিয়া সাহার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ওবায়দুল কাদের বলেন,“এ বক্তব্য বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে, ভেরি সেনসেটিভ ইস্যু, দেশের বাইরে গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে এ ধরণের বক্তব্য কেন দিয়েছেন, সেটা দেশে ফিরে এলে আমার মনে হয় তারও আত্মপক্ষ সমের্থনের সুযোগ থাকা উচিত।” এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বার্তা দিয়েছেন জানিয়ে কাদের বলেন,“প্রধানমন্ত্রী আমাদের লিডার, গতরাতে আমাকে মেসেস পাঠিয়েছেন, সেটা হচ্ছে এখানে তড়িঘরি করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। প্রিয়া সাহা যা বলেছেন শি শুড মেইক এ পাবলিক স্টেটমেন্ট। তিনি আসলে কি বলেছেন, কি বলতে চেয়েছেন তার একটি পাবলিক স্টেটমেন্ট করা উচিত, তারও আত্মপক্ষ সমর্থনের একটা সুযোগ থাকা উচিত। তার আগে কোন প্রকার মামলা বা আইনী প্রক্রিয়া শুরু না করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।” এ বিষয়ে কোন প্রকার আইন প্রক্রিয়ায় যেতে মানা করা হচ্ছে জানিয়ে কাদের বলেন, “মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রীর আজ একটা মামলা করার কথা ছিল, তাকে আমি জানিয়েছি এ ধরণের মামলার প্রসিডিং শুরু না করতে এবং আইনমন্ত্রীর সাথেও এ ব্যাপারে কথা হয়েছে। এছাড়া প্রিয়া সাহার ব্যক্তিগত বাড়িঘর সম্পদ সেখানে যাতে প্রটেকিটিভ মেজার থাকে, যথার্থ নিরাপত্তা থাকে স্টেপ নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে প্রধানমন্ত্রীর মেসেজ জানিয়ে দিয়েছি।” সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সায়্যেদুল হক সুমন এবং ঢাকা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী পরিষদের সদস্য ইব্রাহিম খলিল রোববার সকালে ঢাকার হাকিম আদালতে ইতিমধ্যে দুটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা অগ্রাহ্য করা হয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন,“আইনমন্ত্রী বলেছে এ মামলা অগ্রাহ্য করা হয়েছে। সরকারের অনুমিত ছাড়া রাষ্ট্রদ্রোহী মামলাতো করাও যায় না। যে অভিযোগটা করেছেন সে অভিযোগের বিষয়ে তার বক্তব্যটাও জানা দরকার। জাতির জানা দরকার তার আগে কোন প্রকাশ স্টেপ আমরা নেব না।” রোববার সকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাথে বৈঠকের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন,“মার্কিন রাষ্ট্রদূত আমার বক্তব্য শুনেছেন এবং প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য আমি তাকে বলেছি, হি ইজ ভ্যারি হ্যাপি আমার মনে হয় , হি ইজ ভ্যারি স্যাটিসফাইড, আমাদের ভাবনা সাথে পজিটিভলি রেসপন্স করেছে দেখেছি।” বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রিয়া সাহা দেশে আসবে বলে কি আপনার মনে হয়, সাংবাদিকদের প্রশ্নে কাদের বলেন,“সে তার দেশে আসবে না কেন। এখানে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের রানা দাস গুপ্তের সাথে কথা হয়েছে, এই বক্তব্য তার ব্যক্তিগত কমেন্ট, এর সাথে পরিষদের কোন সম্পর্ক নেই।” তিনি বলেন, “দেশের আসার অধিকার তার আছে, দেশে আসার পথে কোন প্রতিবন্ধকতা সুষ্টি করছি না বা কোন লিগ্যাল প্রসিডিউরও শুরু করছি না।” দেশে আনার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কোন উদ্যেগ নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে কাদের বলেন,“আমার মনে হয় তিনি স্বতস্ফূর্তভাবে এখানো দেশে আসতে পারেন, সেখানে সরকারের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়ার বা বাধা দেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।” ট্রাম্পের সাথে সরাসরি কথা বলা সহজ বিষয় নয়, এর পেছনে কোন মদত আছে কিনা জানতে চাইলে কাদের বলেন,“এটি উদ্দেশ্য প্রণোদিত, উস্কানীমূলক এবং অসত্য কাল্পনিক বক্তব্য। তিনি কেন দিলেন আমরা তার কাছে জানতে চাইবো, তিনি দেশে ফিরে আসুক তার কাছে জানতে চাইবো উদ্দেশ্য কি মোটিভ টা কি।এটা তো তার থেকে আমাদের পাবলিক স্টেটমেন্টটা জানা উচিত, আসার পরই কোন স্টেপ নেয়ার বিষয়ে ভাবা যাবে।” এর পেছনে কারা রয়েছে এ বিষয়ে সরকারের কাছে কোন তথ্য আছে কিনা জানতে চাইলে কাদের বলেন, “এ মুহূর্তে আমরা এখনো সব কিছু পরিষ্কার না। গোটা বিষয়টা পরিষ্কার হওয়া উচিত।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের রায়

ফেন্সিডিল মামলায় মাইক্রো চালকসহ ২জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মিরপুর থানায় নিজ হেফাজতে ফেন্সিডিল রাখার অপরাধে দায়ের করা একটি মাদক মামলায় মাইক্রো চালকসহ ২ জনের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল রবিবার দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী এক জনাকীর্ণ আদালতে আসামীদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মিরপুর উপজেলার বালিদাপাড়া গ্রামের হাজি আব্দুল মালেক মন্ডলের ছেলে তাহাজ্জত হোসেন ওরফে সোহেল (৪০) এবং আনারুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে মাইক্রো চালক আমিরুল ইসলাম (২৮)। এছাড়া এই মামলায় চার আসামীর মধ্যে দৌলতপুর উপজেলার আব্দুস সামাদের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক এবং আজহার মোল্লার ছেলে আতিয়ার রহমানের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত। আদালত সূত্রে জানায়, ২০১৭ সালের ১০ আগষ্ট বিকেল পৌনে ৪টায় উপজেলার ধলসা গ্রামে মিরপুর থানা পুলিশের এক মাদক বিরোধী অভিযানকালে একটি মাইক্রোবাস তল্লাসী করে চালকের সীটের নীচ থেকে ২০২ বোতল আমদানি নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। জব্দকৃত ফেন্সিডিলসহ আটককৃতদের বিরুদ্ধে মিরপুর থানার এস আই কাজী আবু জুবাইর বাদি হয়ে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের দ:বি: ১৯(১), ৩(খ) ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৬, তারিখ-১০-০৮১৭ইং। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ২৩ অক্টোবর আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন পুলিশ। যা পরে ১১৬/১৮ নং সেসন মামলায় নথিভুক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী কুষ্টিয়া জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, মিরপুর থানায় দায়েরকৃত ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১), ৩(খ) ধারার এই মাদক মামলাটি রাষ্ট্রপক্ষের একাধিক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমানিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত এই রায় ঘোষনা করেন। একই সাথে অপর দুই আসামীকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন। আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাড. দেওয়ান মাসুদ করিম মিঠু ও এ্যাড. মোহাম্মদ আলী।

বন্যার্তদের পাশে না দাঁড়িয়ে ঢাকায় বসে গলাবাজি করছেন এমপি-মন্ত্রীরা – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে ঢাকায় বসে ক্ষমতাসীন দলের এমপি-মন্ত্রীরা গলাবাজি করছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। রিজভী বলেন, দেশের উত্তরাঞ্চল-মধ্যাঞ্চলে এখন বন্যায় সর্বস্বহারা মানুষের হাহাকার চলছে। ভারতের উজান থেকে নেমে আসা ঢলে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। নতুন করে আরও পাঁচ জেলায় পানি প্রবেশ করেছে। তিনি বলেন, শুকনো আশ্রয় ও খাবারের সন্ধানে ছুটছে বানভাসি মানুষ। কোথাও ত্রাণের গাড়ি কিংবা নৌকার সংবাদ শুনলেই ছুটে যাচ্ছেন তারা। ‘ত্রাণের অভাবে যখন করুণ অবস্থা, তখন সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা ঢাকায় বসে গলাবাজি করছেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে ত্রাণ পৌঁছেনি এখনও। দুর্ভাগ্যজনকভাবে সরকারের যে উদ্যোগ প্রয়োজন, সেটি আমরা লক্ষ্য করছি না।’ বিএনপির এ নেতা বলেন, সরকারের চরম উদাসীনতা প্রমাণ করে জনগণের প্রতি তাদের ন্যূনতম কোনো দায়বদ্ধতা নেই। তারা জনবিদ্বেষী। সরকারের দায়িত্ব বন্যাকবলিত মানুষকে রক্ষা করা। যেটি সরকার করছে না। রিজভী বলেন, উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে চার দিনে ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। বন্যার পানিতে ডুবে তিন জেলায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে জামালপুরে ৪, শেরপুরে ৪, গাইবান্ধায় দুজন রয়েছে। তিনি আরও বলেন, সহায়সম্পদ ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছুটছেন বন্যার্তরা। অনেকেই পরিবারসহ ডিঙি নৌকায় আশ্রয় নিয়েছেন। প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ছোট ছোট নৌকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে-অর্ধাহারে কাটছে তাদের জীবন। রিজভী বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে যতটা সম্ভব বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াচ্ছি। এই লক্ষ্যে দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আহ্বায়ক করে ২১ সদস্যবিশিষ্ট একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে কমিটির সদস্যরা ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন বলে জানান তিনি।

কুষ্টিয়ায় ৪৩তম কর্ণেল তাহের দিবস পালিত

মহান মুক্তিযুদ্ধের ১১ নম্বর সেক্টর কমান্ডার ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা নেতা কর্নেল আবু তাহের বীর-উত্তমের ৪৩তম হত্যা দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেল ৪টায় জেলা শিল্পকলার সামনে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা জাসদের উদ্যেগে বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিরুল ইসলাম মকলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন- জেলা জাসদ সভাপতি হাজি গোলাম মহসিন, কেন্দ্রীয় জাসদের উপদেষ্টা সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধার শাহাবুব আলী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ আকতার হোসেন, প্রচার সম্পাদক আল-মামুন বিশ^াস, হরিপুর ইউনিয়ন জাসদের সাধারণ সম্পাদক আবু তৈয়ব, জাতীয় যুবজোটের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হাসান, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিক ইকবাল প্রমুখ। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, কর্নেল তাহেরকে ১৯৭৬ সালের এই দিনে স্বৈরশাসক মেজর জিয়ার রোষানলে গঠিত মনগড়া সাজানো সামরিক ট্রাইব্যুনালের রায়ে ফাঁসি দেওয়া হয়। ২০১১ সালে বিশেষ সামরিক ট্রাইব্যুনালে কর্নেল আবু তাহের ও তাঁর সঙ্গীদের এই গোপন বিচার অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করেন হাইকোর্টের একটি  বেঞ্চ। দিবসটি স্মরনে জাসদ ও কর্নেল তাহের সংসদ ‘তাহের দিবস’ হিসেবে পালন করে। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে পাকিস্তানের কোয়েটার স্টাফ কলেজে প্রশিক্ষণরত তাহের পাকিস্তানি বাহিনীর গণহত্যার প্রতিবাদে কলেজ ত্যাগ করে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৭৫ সালের আগস্ট মাসে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর একাধিকবার সামরিক অভ্যুত্থানের সময় তাহের ওই বছরের ৭ নভেম্বর একটি অভ্যুত্থানে নেতৃত্ব দেন। ওই অভ্যুত্থানের মধ্যদিয়েই বন্দিদশা থেকে জিয়াউর রহমান মুক্ত হয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আরোহণ করেন এবং প্রতিদান স্বরূপ মেজর জিয়া তাহেরকে বন্দি করে এক প্রহসনের বিচারে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেয়। ৩৪ বছর পর এই গোপন বিচারের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হলে ২০১৩ সালের ২০ মে উচ্চ আদালতে এই হত্যাকান্ডের পূর্ণাঙ্গ বিচার সম্পন্ন হয়। বিচারে আদালত তাহেরের মৃত্যুদন্ডকে ঠান্ডা মাথার খুন বলে অভিহিত করতে সরকারকে নির্দেশ দেন। মেজর জিয়া ঠান্ডা মাথায় তাহেরকে খুন করে বিশে^র দরবারে এক স্বৈরশাসকের লেবাসধারী হিসেবে আবির্ভূত হন। তাহের দিবস উপলক্ষে গতকাল রবিবার কুষ্টিয়া সদর উপজেলা জাসদ আয়োজিত আলোচনাসভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ধারায় ঠেলে দিতেই মেজর জিয়া ঠান্ডা মাথায় কর্নেল তাহেরকে খুন করেন। কারণ জিয়ার পাকিস্তানি রাজনীতির পথে মূল বাধা ছিলেন কর্নেল তাহের। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

দৌলতপুর সীমান্তের ভারত ভূ-খন্ড থেকে বিএসএফ’র হাতে দুই বাংলাদেশী আটক

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তের ওপর ভারত ভূ-খন্ড থেকে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিএসএফ’র হাতে দুই বাংলাদেশী আটক হয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুরে তাদের ভারতের কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলে পরিবার সূত্র জানিয়েছে। বিএসএফ’র হাতে আটক বাংলাদেশীদের পরিবার ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল জানান, উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের ভাগজোত তালতলা গ্রামের ফুলচাাঁদের ছেলে মিজানুর রহমান (৩৫) ও মৃত মসলেম মন্ডলের ছেলে তাজ্জুল ইসলাম (৩২) শনিবার দুপুরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার হোগলবাড়িয়া থানার বাউশমারী সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করে। এসময় বাউশমারী বিএসএফ ক্যাম্পের টহল দল বাউশমারী-মোহাম্মদপুর ডাংয়েরপাড়া সীমান্তের নোম্যান্স ল্যান্ড থেকে তাদের আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায় এবং জিঞ্জসাবাদ শেষে হোগলবাড়িয়া থানা পুলিশে সোপর্দ করে। হোগলবাড়িয়া থানা পুলিশ আটক বাংলাশেীদের বিরুদ্ধে সীমান্ত আইন সংক্রান্ত অবৈধ অনুপ্রবেশ মামলায় গতকাল কৃষ্ণনগর নদীয়া জেলা কারাগারে প্রেরণ করে। এবিষয়ে রামকৃষ্ণপুর বিজিবি বিওপি’র ইনচার্জ-এর সাথে মোবাইলফোনে কথা হলে তিনি কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন। বিএসএফ’র হাতে আটক দুই বাংলাদেশী মিজানুর ও তাজ্জুল ভারতের কেরালা থেকে কাজ শেষে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করছিল।

বন্যা আরও ভয়াবহ হওয়ার আশঙ্কা

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের পাশাপাশি চীনের বন্যার পানি বাংলাদেশে ঢুকতে শুরু করলে চলমান বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করে দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার আশঙ্কা আছে। তবে এ আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে সরকার পরিস্থিতি মোকাবিলা করার প্রস্তুতি রেখেছে। গতকাল রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই আশঙ্কার কথা জানানো হয়। বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি এবি তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের এই আশঙ্কার কথা জানান। তিনি বলেন, এখন ২৮টি জেলা বন্যা কবলিত। দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পরিস্থিতি মোকাবিলায় তাদের প্রস্তুতি আছে। কিছু ক্ষেত্রে ত্রাণ কম পাওয়া বা না পাওয়ার অভিযোগ থাকতে পারে। হতে পারে যেখানে ১০০ টন ত্রাণ সাহায্য দরকার, হয়তো দেওয়া হয়েছে কয়েক টন। তবে, মন্ত্রণালয় এসব মনিটর করছে। মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম যেন আরও গতিশীল ও কার্যকর হয়, কমিটি সেদিকে নজর দিতে বলেছে। তবে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ তৎপরতা নিয়ে সংসদীয় কমিটি সন্তুষ্ট। বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে অপ্রয়োজনীয় সেতু-কালভার্ট নির্মাণ নিয়ে আলোচনা হয়। কমিটির একজন সদস্য বলেন, দেখা যায় এমন জায়গায় ছোট সেতু করা হয়েছে যার সঙ্গে কোনো সংযোগ সড়ক নেই। ফলে এটি কোনো কাজে আসছে না। কমিটির এ বিষয়ে উষ্মা প্রকাশ করে। বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি এবি তাজুল ইসলাম বলেন, দেখা যায় প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও চেয়ারম্যানেরা সিদ্ধান্ত দেন কোথায় সেতু লাগবে। কোথায় সেতু হলে ইকোলজিক্যাল ব্যালান্স হবে, এটা তাঁদের জানার কথা নয়। আবারও কোথাও কালভার্ট করা হয়েছে ঠিকই কিন্তু ওই কালভার্টে ওঠার জন্য আরেকটা সেতু দরকার। এ জন্য কমিটি বলেছে, প্রকৌশলীদের মাধ্যমে সম্ভাব্যতা যাচাই করে সেতু-কালভার্ট নির্মাণ করতে হবে। যেন মানুষ এর সুবিধা পায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৈঠকে কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা) ও ৪০ দিনের কর্মসূচি প্রকল্প নিয়েও আলোচনা হয়। কমিটির সভাপতি এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, কাবিখা প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয় গম কিন্তু উপজেলা থেকে তাঁরা পান চাল। গমের চেয়ে চালের দাম কম। তাই হিসাব মিলাতে গিয়ে চেয়ারম্যানদের মিথ্যার আশ্রয় নিতে হচ্ছে। কমিটি এটি স্বচ্ছতার মধ্যে আনতে বলেছে। আর ৪০ দিনের কর্মসূচি প্রকল্পে (কাবিটা) শ্রমিকদের নামে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়। কিন্তু যে টাকা দেওয়া হয়, ওই টাকায় শ্রমিক পাওয়া যায় না। ফলে অনেকে যন্ত্রের ব্যবহার করেন। আর অস্তিত্বহীন শ্রমিকদের নামে টাকা তুলে নেন। এটা এভাবে অনির্দিষ্ট কালের জন্য চলতে পারে না। কোন প্রক্রিয়ায় গেলে চেয়ারম্যান বিপদে পড়বেন না, আর সরকারে উদ্দেশ্য হাসিল হবে, সেটা দেখতে হবে। বাস্তবতার নিরিখে এই সমস্যার সমাধান বের করত মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে। তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান, সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার, আফতাব উদ্দিন সরকার, মীর মোস্তাক আহমেদ, জুয়েল আরেং, মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী ও কাজী কানিজ সুলতানা বৈঠকে অংশ নেন।

মৎস্য ও পশু সম্পদ খাতে অনিয়ম প্রতিরোধ করুন – রাষ্ট্রপতি

ঢাকা অফিস ॥ রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ উন্নয়ন অব্যহত রাখতে মৎস্য ও পশু সম্পদ খাতে সব ধরনের অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা প্রতিরোধের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দিয়েছেন। ১৭ জুলাই থেকে শুরু হওয়া জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ- ২০১৯ উপলক্ষে বঙ্গভবনের দরবার হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘এই খাতে যারা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে অবশ্যই বিচারের আওতায় আনা হবে। আপনারা জলাশয়ে মৎস্য অবমুক্ত করাসহ সব ধরনের কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করবেন।’ মৎস্য খাতের বিশাল সম্ভাবনা রয়েছে উল্লেখ করে এ খাত থেকে সুযোগ গ্রহণে রাষ্ট্রপতি হামিদ মৎস্য অধিদপ্তরসহ এ খাতে নিয়োজিত সকল সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা, স্বেচ্ছাসেবী ও বাণিজ্যিক সংস্থাগুলোর দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের উপর জোর দেন। মৎস্য খাত কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অবদান রাখছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘মাছের খাদ্য উপাদান নিয়ে ইতোমধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বেশকিছু নেতিবাচক প্রতিবেদন প্রকাশ ও প্রচারিত হয়েছে। এতে জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।’ রাষ্ট্রপতি অসাধু লোকের জন্য যাতে এ খাতের সম্ভাবনা নষ্ট না হয় সেদিকে সংশ্লিষ্ট সকলকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছে। তিনি বলেন, ‘কিছু অসাধু ব্যবসায়ী দেশের ভাবমূর্তি ও এই অপার সম্ভাবনাময় রপ্তানী খাতকে নষ্ট করছে। কিন্তু আপনারা জানেন যে মৎস্য ও পশু সম্পদ দেশের রপ্তানী বাণিজ্যের জন্যও খুব গুরুত্বপূর্ণ।’ রাষ্ট্রপতি বলেন, মৎস্য খাত দেশের আমিষের চাহিদার ৬০ শতাংশের যোগান দেয়। অধিকন্তু দেশের ১১ শতাংশের বেশি লোক জীবন ও জীবিকার জন্য এই খাতের উপর নির্ভরশীল। বাণিজ্যিকভাবে লাভজনক মাছ চাষের পাশাপাশি পরিবেশ ও জীববৈচিত্র রক্ষায় আমরা জনগণকে সকল প্রজাতির মাছ চাষে উদ্বুদ্ধ করেছি। আব্দুল হামিদ বলেন, সম্প্রতি পাস্তরিত দুধ নিয়েও ক্ষতিকারক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এতে ভোক্তাদের মাঝে পণ্য সম্পর্কে বিরূপ ধারণা সৃষ্টির পাশাপাশি প্রান্তিক চাষি ও উৎপাদনকারীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের এই অনিয়ম ও অপকর্মে জড়িত সকল অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে হবে।’ রাষ্ট্রপতি মৎস্য আইন যথাযথভাবে বাস্তবায়নের জন্য মৎস্যজীবী, মৎস্য চাষী, মাছ ব্যবসায়ী, উৎপাদনকারী ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সকলের মাঝে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টির উপর জোর দেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০৪১ ও ২০২১ বাস্তবায়নে যথাযথ ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের সঠিক ব্যবহার খুবই জরুরি। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু এমপি, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ সচিব মো. রাইছুল আমল মন্ডল, মৎস্য বিভাগের ডিজি আবু সৈয়দ মো. রাশেদুল হক অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন। এ সময় রাষ্ট্রপতির ছেলে রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক এমপি, রাষ্ট্রপতির সচিব সম্পদ বড়–য়া, সামরিক সচিব মেজর জে. এস এম শামীম-উজ-জামান ও প্রেস সচিব মোহম্মদ জয়নায় আবেদীন অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। পরে, রাষ্ট্রপতি বঙ্গভবনের ‘সিংহ পুকুর’-এ মাছ অবমুক্ত করেন।

কুষ্টিয়া জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় ডিসি আসলাম হোসেন

কাজের প্রতি দায়িত্বশীল হলেই সফলতা আসবে

আরিফ মেহমুদ ॥ কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেছেন, আমাদের প্রত্যেকের পরিশ্রম ও আন্তরিকতার কারনে সফলতার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে জেলার প্রতিটি প্রকল্পের উন্নয়নমুলক কাজ। এসব কাজ বাস্তবায়নে আপনার সমস্যা যদি আপনি সৃষ্টি করেন তা কোনভাবেই মেনে নেয়া হবে না। প্রত্যেকটি উন্নয়নমুৃল কাজে সঠিকভাবে নিজের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে হবে। উন্নয়নমুলক প্রতিটি কাজের প্রতি দায়িত্বশীল হলে সফলতা আসবেই। সঠিক তদারকী করে দায়িত্ব পালন করতে না পারলে সরে দাড়াতে হবে। কাজের প্রতি দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিবেন না। গতকাল রবিবার সকালে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে  জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, সামনে আসন্ন ঈদুল আযহার (কোরবানীর) ঈদ। কুষ্টিয়ার কোরবানীর গরু মোটাজাতাকরণ সারা দেশে সুনাম ও খ্যাতি অর্জন করেছে। এই সুনাম ধরে রাখতে হবে। গরু মোটাজাতাকরণের নামে অস্বাস্থ্যকর পদ্ধতি ষ্টয়েট কিংবা কোন পদ্ধতি যেন ব্যবহার না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। সঠিক গো-খাদ্য ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। অন্যদিকে ডেঙ্গু জ¦র ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে কুষ্টিয়ায়। এপর্যন্ত ১০ জনের খবর পাওয়া গেছে। এডিশ মশার বংশ ধ্বংশ করতে এবং ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিবেশ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে নিজ নিজ এলাকায় জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি বলেন, কুমারখালী-রাজবাড়ী সড়ক প্রসস্থকরণ কাজের অগ্রগতি অনেক দুর এগিয়ে গেছে। তবে আরো বেশি লোকবল কাজে নিয়োগ করে জনভোগান্তি বাড়ার আগেই দ্রুত কাজ শেষ করতে হবে। দ্রুত কাজ সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহন করতে হবে। কোন কাজেই গাফিলতি মেনে নেয়া হবে না। জেলাব্যাপী ব্যাপকহারে চলছে উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ। এক সময় যোগাযোগ ব্যবস্থার ভংগুর পরিস্থিতি বার বার জনগণের মুখোমুখি করলেও আজকে সেই অবস্থা আর নেই। দ্রুত রাস্তা মেরামতের কাজ চলছে। খুব শীঘ্রই যোগাযোগ ক্ষেত্রে জনগণের ভোগান্তি কমে আসবে। তিনি বলেন, উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকেল এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন সম্ভব। যে এলাকার যত বেশি উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে সেই এলাকা তত বেশি উন্নত। আমরা যারা উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিযুক্ত সংশ্লিষ্ট তারা যদি দেশের জন্য এ জেলার জন্য স্ব-স্ব ক্ষেত্র থেকে ছোট্ট ছোট্ট পরবির্তন আনতে পারেন তাহলেই আমাদের উন্নয়নের অঙ্গীকার পূরন হবে। তবেই তো এগিয়ে যাবে দেশ। আর এক্ষেত্রে সবার আগে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন, কুষ্টিয়া জেলার উন্নয়নে আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। তবেই দেশের মধ্যে কুষ্টিয়া হয়ে উঠবে পর্যটন শিল্পে সমৃদ্ধ একটি জেলা। এজন্য সরকারী স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানগুলো যেন কোনভাবেই অনিয়ম না করতে পারে এবং জনগনকে সঠিকভাবে যথাসময়ে  সেবা প্রদান করতে পারে সে জন্য সরকারী সব কর্মকর্তাদের দিক নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি। নিজেকে একজন দেশ প্রেমিক হিসেবে মানসিকভাবে তৈরী হতে হবে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, আগামীতেও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে এগিয়ে যাবে। এক্ষেত্রে কুষ্টিয়া পিছিয়ে থাকতে পারে না। যে কাজ করবেন সেটি যেন দেশের উন্নয়নে ও জাতির কল্যাণে নিবেদিত হয়। বিগত মাসের বিস্তারিত তুলে ধরে তাকে সহযোগিতা করেন কুষ্টিয়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাদ জাহান। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ রওশনা আরা বেগম, কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান খান, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ নুরুন্নাহার বেগম, দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এজাজ আহমেদ মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, কুষ্টিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আখতার, কুমারখালি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খান, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ, মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহমেদ, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী এ এস এম শাহেদুর রহিম, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী এটিএম মারুফ আল ফারুকী, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পিযুষ কৃষ্ণ কুন্ডু, জেল সুপার জাকের হোসেন, জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সিদ্দিকুর রহমান, বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোকাররম হোসেন মোয়াজ্জেম,  জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জায়েদুর রহমান, ওজোপাডিকোর নির্বাহী প্রকৌশলী প্রণব কুমার, পাসপোর্টের সহকারী পরিচালক বজলুর রশিদ, বিএফএ’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ, পল্লী বিদ্যুতের জিএম হারুন-অর-রশিদ, জেলা তথ্য কর্মকর্তা তৌহিদুজ্জামান, বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক আতিয়ার রহমান, জেলা ত্রাণ ও পূনর্বাসন কর্মকর্তা আব্দুস সবুর, জেলা বিআরডিবি কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তার, ড্রাগ সুপার হারুন-অর-রশিদ, কৃষি সম্প্রসারণের উপ-পরিচালক বিভুতি ভুষণ সরকার, সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রোখসানা পারভীন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাসিনা বেগম, বাজার মনিটরিং অফিসার রবিউল ইসলাম, জেলা শিশু কর্মকর্তা মখলেছুর রহমান প্রমুখ।