লিভার প্রতিস্থাপন

রোগী-চিকিৎসকদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

ঢাকা অফিস ॥ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে প্রথমবারের মতো সফল যকৃৎ প্রতিস্থাপনে রোগী ও চিকিৎসকদের অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ২৪ জুন এই হাসপাতালের চিকিৎসকরা ১৮ ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত ২০ বছরের তরুণ সিরাতুল ইসলামের দেহে তার মায়ের দেওয়া যকৃতের অংশ প্রতিস্থাপন করেন। সিরাতুল ও তার মা সুস্থ হয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। এ উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দনের কথা জানান। এই হাসপাতালের হেপাটোবিলিয়ারি, প্যানক্রিয়াটিক, লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জুলফিকার রহমান খান জানান, রোগী ও দাতা দুজনেই সুস্থ আছেন। এই অস্ত্রোপচারে চিকিৎসকদের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জুলফিকার খান। মা ও ছেলে পরে আবার তাদের কাছে এসে সর্বশেষ পরিস্থিতি জানাবেন বলে জানান তিনি। বাংলাদেশে পুরোদমে লিভার প্রতিস্থাপন শুরু করতে চায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। সে লক্ষ্যে বিনা খরচে এই অস্ত্রোপচার করে দিয়েছে তারা। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য খাতে এই লিভার প্রতিস্থাপনকে ‘যুগান্তকারী’ সফলতা বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। লিভার প্রতিস্থাপনে বাংলাদেশি চিকিৎসক দলকে সহযোগিতা করেছেন ভারতের লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জন ডা. বালাচন্দ্র মেননসহ তার চিকিৎসক দল। বাংলাদেশে এর আগে ২০১০ সালে বারডেম হাসপাতাল দেশে প্রথম লিভার প্রতিস্থাপন করে। তবে এরপর তারা এই উদ্যোগ চালু রাখতে পারেনি। পূর্ণ বয়স্ক একজন ব্যক্তি তার যকৃতের অংশ বিশেষ অপর একজনকে দিতে পারেন। কারণ যকৃতই শরীরের একমাত্র অঙ্গ যেটা নিজেই ক্ষতপূরণ করে পুনর্গঠিত হয়। দেশে কত সংখ্যক রোগীর লিভার প্রতিস্থাপন জরুরি, তা নিয়ে সরকারি- বেসরকারি পরিসংখ্যান না থাকলেও বিএসএমএমইউ উপাচার্য বলেছিলেন, প্রতি বছর প্রায় ৫০০ রোগী বিদেশে গিয়ে লিভার প্রতিস্থাপনের চিকিৎসা নিয়ে থাকেন।

চির নিদ্রায় শায়িত হলেন শিক্ষক নেতা সিদ্দিক মোল্লা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে চির নিদ্রায় শায়িত হয়েছেন শিক্ষক নেতা আব্দুস সিদ্দিক মোল্লা। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাকে তারাগুনিয়া কবরস্থানে চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়। এরাগে বিকেল ৬টায় তারাগুনিয়া ফুটবল মাঠে তার নামাজে জানাযা করা হয়। জানাযায় বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক, রাজনীতিবিদ ও সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন। তারাগুনিয়া এলাকার অতিপরিচিত প্রিয়মুখ মরহুম আব্দুস সিদ্দিক মোল্লা (৭০) দীর্ঘদিন দৌলতপুর প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করে অবসরে যান।

 

আমলায় এমআরএ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষনার্থীদের নবীনবরণ ও বিদায়

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে এমআরএ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষনার্থীদের নবীনবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে এমআরএ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে এমআরএ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক আক্তারুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর উপজেলার ছাতারপাড়া ডাক ঘরের পোস্ট মাস্টার কাজেম আলী। অনুষ্ঠানে এমআরএ কম্পিউটারট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষক শামীম আহম্মেদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন গাংনী কলেজের প্রভাষক শামীম আহম্মেদ, ডাক্তার মতিয়ার রহমান, আমলাসদরপুর কিন্ডার গার্টেনের সহকারী শিক্ষক ফজলুর রহমান, সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম, জাহিদ হাসান, এমআরএ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের প্রশিক্ষক হাসিবুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই নবাগত জুলাই-ডিসেম্বর’১৯ সেশনের ২০জন প্রশিক্ষনার্থীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। এবং শেষে বিদায়ী জানুয়ারী-জুন’১৯ সেশনের ৪০জন প্রশিক্ষনার্থীকে প্রবেশপত্র প্রদান করা হয়।

জিপিএ-৫ পেয়েছে দরিদ্র ঘরের মেয়ে বৈশাখী

ভেড়ামারা প্রতিনিধি ॥ একদিকে দারিদ্র পরিবারে জন্ম অপরদিকে জন্ম থেকেই দৃষ্টিশক্তির সমস্যা বৈশাখীর। অর্থনৈতিক ও শারীরিক প্রতিবন্ধকতা, কোন বাধায় আটকাতে পারেনি তাকে। অধ্যাবসায় ও অদম্য ইচ্ছাশক্তির বলে এবার এইচএসসিতে মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে মোছাঃ জান্নাতুন নাহার বৈশাখী। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, বাংলা ও অর্থনীতি বাদে প্রত্যেকটি বিষয়ে এ প্লাস পেয়েছে। সে এসএসসি পরীক্ষায় মাত্র ৫নম্বরের জন্য জিপিএ ৫ পেয়েছিল না। কিন্ত এবার তার আশা পূরণ হয়েছে। দরিদ্র্যতা ও শারীরিক প্রতিবন্ধকতা তার এই ভালো ফলাফলে বাধা হয়ে উঠতে পারেনি। কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা উপজেলার পল্লী অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান বিজেএম ডিগ্রি কলেজ থেকে এবার এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় মোছাঃ জান্নাতুন নাহার বৈশাখী। একমাত্র সেই উক্ত কলেজ  থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে। কুষ্টিয়া জেলার  ভেড়ামারা উপজেলার রায়টা ফয়জুল্লাহপুর গ্রামের দরিদ্র কাঠ মিস্ত্রি সাইদুর রহমান ও গৃহবধূ বিউটি খাতুনের দ¤পতির ৩ মেয়ের মধ্যে বড় মোছাঃ জান্নতুুন নাহার বৈশাখী। তামান্নার খুব ইচ্ছা পাবলিক বিশ^বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে ভবিষ্যতে সরকারি প্রশাসনিক কর্মকর্তা হওয়ার। কিন্তু কিভাবে তা সম্ভব হবে, এই চিন্তায় হতাশ হয়ে পড়ে মেধাবী মেয়েটি। কারণ তার শারীরিক প্রতিবন্ধকতার চেয়ে তার বাবার আর্থিক দুরবস্থার বাধা অনেক বড়। ভালো ফল সম্পর্কে বৈশাখী জানায়, “নিয়মিত ক্লাস করতাম এবং মা-বাবার উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় নিয়মিত পড়ালেখা করেছি। আর্থিক কারণে নিয়মিত প্রাইভেটও পড়তে পারিনি। শিক্ষকদের সহযোগিতার কারণে আমার এই ভালো ফলাফল।” কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আসলাম উদ্দীন বলেন, বৈশাখীর হাতের লেখা খুব সুন্দর। দরিদ্র পরিবারে জন্ম নিয়েও অদম্য ইচ্ছা শক্তিতে সে ভালো ফল করে তার বাবা-মা ও কলেজের মুখ উজ্জ্বল করেছে। আমরা তার জন্য গর্বিত। মোছাঃ জান্নাতুন নাহার বৈশাখী সকলের নিকট সহযোগিতা ও দোয়া প্রার্থী।

দেশবাসীর গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করে উন্নয়নের নামে বর্তমান সরকার জনগণকে বিভ্রান্ত করছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘আজ বরিশালে আমাদের মহাসমাবেশ হবে। জনসমুদ্রে পরিণত হবে সমাবেশ। সমাবেশের অনুমতি নিয়ে টালবাহানা করছে পুলিশ প্রশাসন। বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বরিশালে এক সপ্তাহ ধরে অনিশ্চয়তায় রেখে গত বুধবার শেষ মুহূর্তে পুলিশ ঈদগাহ মাঠে মহাসমাবেশের অনুমতি দিলেও বিভিন্ন এলাকায় বিএনপি নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে। আমরা বরিশালের বেলস পার্কে সমাবেশের জন্য আবেদন করলেও অনুমতি দেওয়া হয়েছে ঈদগাহ মাঠে; যার পরিসর অত্যন্ত ছোট। এটা সরকারের রাজনৈতিক দেওলিয়াত্বেরই বহিঃপ্রকাশ। সরকারের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘প্রবাদ আছে, মিথ্যা বলা মহাপাপ। আর এখন বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সত্য বলা মহাভয়। মিথ্যা বলা যদি কোনো ‘শিল্প’ হতো, তাহলে অনর্গল মিথ্যা বলা এই সরকারের মন্ত্রী-নেতারা হতেন সেই শিল্পের নায়ক-মহানায়ক। এরা তাদের রাজনৈতিক পাঠশালায় সত্য কথা বলার শিক্ষা অর্জন করেননি।’ খুন, গুম, হত্যা, ধর্ষণ মহামারি আকারে বেড়েই চলছে উল্লেখ করে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘দেশবাসীর গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করে উন্নয়নের নামে বর্তমান সরকার জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। বাক ও ব্যক্তি স্বাধীনতা ভূলুণ্ঠিত। আইনের শাসন অনুপস্থিত। মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নেই। দেশে এখন স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি নেই। ’ তিনি আরও বলেন, ‘গণতন্ত্রের চাইতে উন্নয়নকে প্রাধান্য দেওয়ার নামে সব সামাজিক চুক্তি ভঙ্গ করে জনগণকে শৃঙ্খলিত করেছে। জনগণের ভাগ্যের উন্নয়নের নামে চলছে বল্গাহীন লুণ্ঠন। …প্রকৃত বাস্তবতা হলো, এই উন্নয়ন হলো ক্ষমতাসীন দলের লোকজন আর তাদের সহযোগিতাকারীদের পকেটের উন্নয়ন। আর নিরন্ন মানুষের সংখ্যা বাড়ানোর উন্নয়ন।’ খালেদা জিয়াকে কারাবন্ধি করা হয়ে অভিযোগ এনে রিজভী বলেন, ক্ষমতা নিরুপদ্রব রাখতেই সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারারুদ্ধ রাখা হয়েছে গত দেড় বছর। গুরুতর অসুস্থ নেত্রীকে জামিনে বাধা দিচ্ছে সরকার। তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি ও দ্রুত নতুন নির্বাচনের দাবিতে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে বিএনপির বিভাগীয় মহাসমাবেশ। বিএনপি পর্যায়ক্রমে সব বিভাগে এই মহাসমাবেশ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এটা আমাদের আন্দোলনের একটি ধাপ।’

মেক্সিকোর মাদক সম্রাট গুজমানের যাবজ্জীবন

ঢাকা অফিস ॥ মেক্সিকোর কুখ্যাত মাদক সম্রাট হোয়াকিন ‘এল চ্যাপো’ গুজমানকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডসহ অতিরিক্ত ৩০ বছরের জেল দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত। গত ফেব্র“য়ারিতে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল কোর্টে মাদক ও অর্থ পাচারসহ মোট ১০ টি অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন ৬২ বছর বয়সী গুজমান। ২০১৬ সালে মেক্সিকোর সুরক্ষিত কারাগার থেকে টানেল খুঁড়ে পালিয়েছিলেন গুজমান। পরে তিনি আবার ধরা পড়েন। ২০১৭ সালে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ মাদক সম্রাটের মাদক পাচার ও অপরাধ চক্র ‘সিনালোয়া কার্টেল’ মেক্সিকো ছাড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও আমেরিকা মহাদেশের বিভিন্ন দেশে কোকেন, হেরোইন, মারিজুয়ানা ও মেথাম্ফেটামাইন পাচারের জন্য কুখ্যাত। বিবিসি জানায়, গুজমান তার কার্টেলের শক্রদের নির্যাতনও করতেন বলে বিচার চলাকালে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। বুধবার ব্র“কলিনের আদালত কক্ষে সাজার রায় ঘোষণার আগে এক দোভাষীর মাধ্যমে গুজমান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে তাকে আটকে রাখা দিনে ২৪ ঘন্টাই মানসিক নিপীড়ন এবং মানবেতর অবস্থায় রাখার সামিল। তিনি ন্যায়বিচার পাননি এবং তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করা হয়েছে বলেও গুজমান অভিযোগ করেছেন। গুজমান যে সব অপরাধ করেছেন তার বিচারে ন্যূনতম সাজা হিসাবেই তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। বাড়তি ৩০ বছরের সাজা তিনি পেয়েছেন আগ্নেয়াস্ত্রের বেআইনি ব্যবহারের কারণে। তাকে প্রায় তেরশ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানও গুনতে হবে। গুজমানকে কলোরাডোর ফ্লোরেন্সে দেশটির সবচেয়ে সুরক্ষিত ফেডারেল কারাগারে রাখা হবে। এ বিষয়ে সরকার পক্ষের আইনজীবীরা বলেছেন, গুজমান ‘টন টন স্টিলের পেছনে’ কারাভোগ করবেন। আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে গুজমান আবেদন করবেন কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। এর আগে ২০০১ ও ২০১৫ সালেও মেক্সিকোর কারাগার থেকে কৌশলে পালিয়ে গিয়েছিলেন  ‘এল চ্যাপো’ বা ‘পিচ্চি’ নামে পরিচিত গুজমান। গত কয়েক দশকে তিনি বিশ্বের সবচেয়ে সুগঠিত ও অন্যতম ক্ষমতাশালী অপরাধী চক্রের ‘বস’ হয়ে উঠেছিলেন, এমনকি ফোর্বস সাময়িকীতে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় কোটিপতিদের তালিকায় তার নামও উঠেছিল। সর্বশেষ ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে গুজমানকে মেক্সিকোর উত্তরাঞ্চলীয় শহর লস মোচিস থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরের বছরে মেক্সিকো সরকার তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করে।

ঝিনাইদহ সরকারী বালক বিদ্যালয়ে নীতিমালা বহির্ভুত ভর্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে বিভিন্ন শ্রেনীতে অর্থের বিনিময়ে নীতিমালা বহির্ভুত ছাত্রভর্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে সচেতন মহল ও দুর্নীতি বিরোধী অভিভাবকবৃন্দ। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সামনে ব্যানার ও ফেষ্টুন হাতে দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামানের শাস্তির দাবীতে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা এই মানববন্ধন কর্মসুচিতে অংশ নেন। মানববন্ধন কর্মসুচিতে অভিভাবকদের মধ্যে আনোয়ার হোসেন, বশির উদ্দীন, আসলাম হোসেন, কেসি কলেজের ছাত্র ইমরান হোসেন, আশরাফুল ইসলাম ও শাহিন রহমান বক্তব্য রাখেন।  অভিভাবকদের অভিযোগ সরকারের ভর্তি নীতিমালা উপেক্ষা করে ঝিনাইদহ সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামান ছাত্র প্রতি আড়াই লাখ টাকা করে নিয়ে শহরের ধর্ণাঢ্য পরিবারের সদস্যদের ভর্তি করেছে। এভাবে তিনি ২৮ জনকে বিভিন্ন শ্রেনীতে ভর্তি করেছেন যা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষার খুলনা বিভাগীয় পরিচালক প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ সরেজমিন তদন্ত করে তৃতীয় শ্রেণীতে ৫ জনের অবৈধভাবে ভর্তির সত্যতা পেয়েছে। অভিভাবকবৃন্দ প্রধান শিক্ষক মিজানুজ্জামানের অপসারণ ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন।

দৌলতপুরে পুলিশ হেফাজত থেকে হ্যান্ডকাফসহ ২মাদক সেবী পালানোর পর হ্যান্ডকাফসহ ১জন উদ্ধার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পুলিশ হেফাজত থেকে হ্যান্ডকাফসহ ২ মাদকসেবী পালানোর পর ৪ঘন্টা পর ১জন হ্যান্ডকাফসহ উদ্ধার হয়েছে। অপরজন পলাতক রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার মহিষকুন্ডি ডাকপাড়া এলাকা থেকে মাদক সেবন অবস্থায় ২জন মাদক সেবীসহ ৩জনকে আটক করে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে তাদের থানায় নেওয়ার সময় হ্যান্ডকাফসহ ২জন পালিয়ে যায়। পরে সন্ধ্যার সময় ১জনকে উদ্ধার করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানাযায়, উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের মহিষকুন্ডি ডাকপাড়া গ্রামের মৃত তুফান হালসানার ছেলে মাদক ব্যবসায়ী সুমন হালসানার বাড়িতে গতকাল বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সেফুল (২৬) ও কনক (২৫) নামে মাদক সেবী দু’যুবক ইয়াবা সেবন করছিল। মাদক সেবীদের মাদক সেবনের খবর পেয়ে দৌলতপুর থানার এস আই খসরু মাদক ব্যবসায়ী সুমন হালসানার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মাদক সেবী সেফুল ও কনক এবং মাদক ব্যবসায়ী সুমন হালসানাকে আটক করে। পরে সেফুল ও কনকের হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে এবং মাদক ব্যবসায়ী সুমন হালসানাকে বিনা হ্যান্ডকাফে ভ্যানে উঠিয়ে দৌলতপুর থানায় নেওয়ার পথে মোটরসাইকেল নিয়ে এস আই খসরু পেছন পড়েন। এসময় মহিষকুন্ডি বাজারে ভ্যান থেকে লাফ দিয়ে হ্যান্ডকাফসহ মাদক সেবী সেফুল ও কনক পালিয়ে যায়। তবে মাদক ব্যবসায়ী সুমন হালসানা পুলিশ হেফাজতে রয়ে যায়। পরে সন্ধ্যায় সেফুলের পরিবার সেফুলকে হ্যান্ডকাফসহ এস আই খসরুর হাতে সোপর্দ করে। তবে দৌলতপুরের মাদক সেবী কনক পলাতক রয়েছে। উদ্ধার সেফুল মহিষকুন্ডি ক্যাম্পের পেছন এলাকার মোস্তফার ছেলে। হ্যান্ডকাফসহ মাদক সেবী পালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে দৌলতপুর থানার এস আই খসরু বলেন, ৩জন মাদক সেবী ও ব্যবসায়ীকে আটক করে থানায় নেওয়ার পথে হ্যান্ডকাফসহ ২জন পালিয়ে যায়। তাদের ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে একজনকে হ্যানকাফসহ উদ্ধার করা হয়। সেফুল ও মাদক ব্যবসায়ী সুম হালসানাকে থানা নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

কুর্শা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কুর্শা তারাচাঁদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভাগ্যবান আলীর উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয় সম্পাদক আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার। সম্মেলন উদ্বোধন করেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য হাসমত আলী, উপজেলা শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল আলম হীরা, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সোহাগ আহম্মেদ, কুর্শা ইউনিয়ন আওয়ামলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোহন জোয়ার্দ্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কাদের প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ। সম্মেলন শেষে আজগার আলী মেম্বর সভাপতি ও তারাচাঁদ আলী সাধারণ সম্পাদক এবং আব্দুল করীমকে সহ-সভাপতি, আনারুল ইসলামকে যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

র‌্যালি আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণের মধ্যদিয়ে কুমারখালীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ বর্ণাঢ্য র‌্যালি আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণের মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় কুমারখালী উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে সমবেত হয়। সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ শেষে বিআরডিবি হলরুমে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানের মধ্যদিয়ে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা করেন কুষ্টিয়া- ৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। মৎস্য চাষ সম্প্রসারণ ও সংরক্ষণ এবং আতœকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে “মাছ চাষে গড়বো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ স্লোগান” ও মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি, শীর্ষক প্রতিপাদ্য শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ নূর- এ আলম। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার মো:  রোকনুজ্জামান।  এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো: জালাল উদ্দিন, থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) শুভ্র প্রকাশ দাস, শিলাইদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: সালাহ্ উদ্দিন খান তারেক। আলোচনা সভা ও র‌্যালিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, মৎস্য চাষী, মৎস্যজীবি, মাছ বিক্রেতা, আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্য, শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, মসজিদের ইমান, পুরোহিত, গণমাধ্যম কর্মী ও সম্প্রসারণ কর্মীরা  উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে মনোসেক্স তেলাপিয়া জাতীয় মাছ উৎপাদনে উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের মো: শারফুজ্জামান শারফু, রুই জাতীয় বড় মাছ উৎপাদনে সদকী ইউনিয়নের দরবেশপুর গ্রামের মো: সোহেল রানা ও গুণগত মানস্মত পোনামাছ উৎপাদনে নন্দলালপুর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের মুন্সী ইকবাল হোসেনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে সংসদ সদস্যকেও উপজেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিপ্তরের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার জানান, জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সরকারের অগ্রগতি বিষয়ে আলোচনা ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন, ফরমালিন বিরোধী অভিযান ও মৎস্য বিষয়ক আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা, বিভিন্ন স্কুল-কলেজে মৎস্য চাষ বিষয়ক আলোচনা, হাট-বাজার ও জনবহুল স্থানেমাছ চাষ বিষয়ক উদ্বুদ্ধকরণ সভা ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হবে। আগমী ২৩ জুলাই মঙ্গলবার জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ কুমারখালী উপজেলায় কার্যক্রম মুল্যায়ন ও সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

দৌলতপুরে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ ‘মাছ চাষে গড়বো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ, মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার দৌলতপুরেও র‌্যালি, মুক্ত জলাশয়ে পোনা মাছ অবমুক্তকরণ ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায়  দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদ চত্বরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ করা হয়। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য সরওয়ার জাহান বাদশা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এজাজ আহমেদ মামুন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর মৎস্য অফিসার সহিদুর রহমান। এসময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কির আহমেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুনসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

আজ ডাঃ আকবর আলী আহম্মদের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী

বিশিষ্ট সমাজসেবক দি কো-অপারেটিভ ইন্ডাষ্ট্রিজ ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সাবেক সভাপতি ও কুমারখালীর সাওতা হাসপাতালের সাবেক মেডিকেল অফিসার এবং কুষ্টিয়া জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি এ কে সিদ্দিকের পিতা মরহুম ডাঃ আকবর আলী আহম্মদের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী। এ উপলক্ষে আজ শুক্রবার বাদ জুম্মা শহরের আড়–য়াপাড়াস্থ নফরসা মাজার সংলগ্ন মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত  দোয়া মাহফিলে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে বিশেষভাবে  অনুরোধ জানানো হয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ইরাকে কূটনীতিককে গুলি করে হত্যা

ঢাকা অফিস ॥ তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইরাকি কুর্দি শহর ইরবিলে তুর্কি কূটনীতিককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। সূত্র জানায়, বুধবারের হামলায় নিহত তিনজনের মধ্যে তিনি ছিলেন। যা পরে নিশ্চিত করা হয়। বিবিসি। ওই কূটনীতিক ইরবিলে তুরস্কের কনসাল জেনারেল ছিলেন। বন্দুকধারী গুলি চালানোর সময় তিনি একটি রেস্টুরেন্টে ভোজনরত একটি দলের মধ্যে ছিলেন। এ পর্যন্ত কেউ এই হামলার দাবি করেনি কিন্তু তুর্কি-কুর্দি জঙ্গিরা এ অঞ্চলে প্রভাব বিস্তার করে থাকে। টুইটারে এক বিবৃতিতে, তুরস্কের রাষ্ট্রপতির মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, “যারা এই প্রতারণামূলক আক্রমণ করেছে তাদের কাছে প্রয়োজনীয় জবাব পৌঁছে দেওয়া হবে”। তুরস্ক এই অঞ্চলে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) জঙ্গিদের উপর হামলা শুরুর পর থেকে অঞ্চলটিতে হামলা বেড়েছে।

রিফাফকে কুপিয়ে হত্যার আসামি রিশান ফরাজী গ্রেপ্তার

ঢাকা অফিস ॥ বরগুনায় প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার তিন নম্বর আসামি রিশান ফরাজীকে গ্রেপ্তার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ। জেলার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে এ খবর দেন। রিশানকে সকাল ১০টার দিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানালেও কোথা থেকে তাকে ধরা হয়েছে, সে তথ্য তিনি দেননি। বরগুনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের ভায়রার ছেলে রিশান ও তার ভাই রিফাত ফরাজী এ মামলার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ডের সহযোগী। পুলিশ দুই সপ্তাহ আগে রিফাত ফরাজীকে গ্রেপ্তার করলেও নয়ন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গত ২ জুলাই নিহত হয়েছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়। রিফাত শরীফের স্ত্রী এ মামলার ১ নম্বর সাক্ষী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মঙ্গলবার দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর রাতে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। বুধবার তাকে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন। বৃহস্পতিবার সকালের সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার বলেন, “যারা হত্যাকারী ছিল শুরু থেকে মিন্নি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে এবং সে এই হত্যাকান্ডের পরিকল্পনার অংশ। এই হত্যাকান্ড সংঘটিত হওয়ার পূর্বেও সে পরিকল্পনার জন্য মিটিং করেছে হত্যাকারীদের সাথে।” অবশ্য মিন্নি বুধবার রিমান্ড শুনানিতে আদালতকে বলেন, “আমার স্বামী রিফাত শরীফ। আমি আমার স্বামীর হত্যাকারীদের বিচার চাই। হত্যাকান্ডে আমি জড়িত নই। এ মামলায় আমাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হয়েছে।” গত ২৫ জুন সকালে জেলা শহরের কলেজ রোডে রিফাত শরীফকে (২৩) স্ত্রীর সামনেই কুপিয়ে জখম করে একদল যুবক। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রিফাতের মৃত্যু হয়। রিফাতের ওপর হামলার ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে শুরু হয় আলোচনা। সেখানে দেখা যায়, দুই যুবক রামদা হাতে রিফাতকে একের পর এক আঘাত করে চলেছে। আর তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি স্বামীকে বাঁচানোর জন্য হামলাকারীদের ঠেকানোর চেষ্টা করছেন। বরগুনার সরকারি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী মিন্নি হামলাকারী সবাইকে চিনতে না পারার কথা জানালেও নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও তার ভাই রিশান ফরাজীর নাম বলেছিলেন। রিফাত খুন হওয়ার পরদিন তার বাবা দুলাল শরীফ ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় মামলা করেন। সেখানে ১ নম্বরে নয়ন, ২ নম্বরে রিফাত ফরাজী এবং ৩ নম্বরে রিশান ফরাজীর নাম ছিল। রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, তাদের মধ্যে আটজন এজাহারভুক্ত আসামি। গ্রেপ্তারদের মধ্যে ১০ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনা থানার পরিদর্শক মো. হুমায়ুন কবির জানান, এ মামলায় গ্রেপ্তার তিনজন এখনো রিমান্ডে রয়েছেন।  তাদের মধ্যে আরিয়ান শ্রাবণকে বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতে হাজির করা হবে।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারকে চাপ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহবান

ঢাকা অফিস ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টি ও বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের উপর সম্ভাব্য সব ধরনের চাপ সৃষ্টি করতে মার্কিন আইন প্রণেতাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ দূতাবাস গতকাল এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন আইনপ্রণেতাদের সাথে ধারাবাহিক  বৈঠক করেন। এ সময় তিনি তাদের প্রতি এই আহ্বান জানান।  বৈঠকে মার্কিন আইনপ্রণেতারা এই বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশের উদারতার ভূয়সী প্রশংসা করেন। বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, এ ব্যাপারে তারা তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবেন বলে আশ্বাস দেন। এ সময় মোমেন মিয়ানমার সৃষ্ট রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশকে যুক্তরাষ্ট্রের জোরালো রাজনৈতিক ও মানবিক সমর্থন দেয়ার কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্বীকার করেন। বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলায় জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। এদের অধিকাংশই মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দমনপীড়ন শুরু হওয়ার পর ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে এদেশে এসেছে। যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এই দমনপীড়নকে ‘জাতিগত নির্মূলের প্রকৃষ্ট উদাহরণ’ হিসেবে অভিহিত করেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রী সিনেটর জেমস ই. রিচ ও সিনেটর বব মেনেন্ডেজের সাথে বৈঠক করেন। জেমস (রিপাবলিকান-আইদাহো), চেয়ারম্যান, সিনেট ফরেন রিলেশন্স কমিটি এবং মেনেন্ডেজ (ডেমোক্র্যাট-নিউজার্সি), একই কমিটির ব্যাংকিং মেম্বার। তিনি কংগ্রেস সদস্য এলিওট এঙ্গেল, কংগ্রেস সদস্য ব্র্যাড শেরম্যান ও কংগ্রেস সদস্যা গ্রেস মেংয়ের সাথেও বৈঠক করেন। এলিওট (ডেমোক্র্যাট-নিউইয়র্ক), চেয়ারম্যান, হাইজ ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটি, শেরম্যান (ডেমোক্র্যাট-ক্যালিফোর্নিয়া), চেয়ারম্যানম সাবকমিটি অব এশিয়া, দ্য প্যাসিফিক ও ননপ্রলিফারেশন, অব দ্য হাউজ কমিটি অন ফরেন অ্যাফেয়ার্স, মেং ডেমোক্র্যাট- নিউইয়র্ক)। বৈঠকগুলোতে মোমেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশে ব্যাপক আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের বিষয়টি তুলে ধরেন। এসময় মার্কিন আইনপ্রণেতারাও বাংলাদেশের এই উন্নয়নের প্রশংসা করেন। এসব বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর আমন্ত্রণে সেকেন্ড মিনিস্টারেল টু অ্যাডভান্স রিলিজিয়াস ফ্রিডমে অংশ নিতে মোমেন বর্তমানে ওয়াশিংটন ডি.সি. সফর করছেন। ২০১৯ সালের ১৬ থেকে ১৮ জুলাই পর্যন্ত মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরে এটি আয়োজন করা হবে।

 

মিন্নিকে আইনি সহায়তা দিতে চান ওসি মোয়াজ্জেমের আইনজীবী

ঢাকা অফিস ॥ বরগুনা সদরে প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলায় গ্রেফতার তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির পক্ষে বুধবার আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। পরে আদালত তার ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এ খবর শুনে মিন্নির পক্ষে মামলা পরিচালনার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ফেনীতে মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত হত্যায় গ্রেফতার সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ। তিনি মিন্নির পক্ষে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা দিতে ইচ্ছুক বলে জানিয়েছেন। ফারুক আহম্মেদ বলেন, মিন্নির পরিবার চাইলে তার পক্ষে ফারুক অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস দাঁড়াতে চায়। ফারুক অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস সব সময় নির্যাতিত, অসহায় ও অসচ্ছল পরিবারের পক্ষে ন্যায়বিচারের জন্য মামলা পরিচালনা করে থাকে। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা ঢাকা থেকে মিন্নির জন্য মামলা পরিচালনা করব। এ জন্য মিন্নির পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। আমরা তাকে লিগ্যাল এইড (বিনা পয়সায় মামলা পরিচালনা) দেব।’ বুধবার বিকালে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে হাজির করা হয় রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী তার স্ত্রী মিন্নিকে। এদিন আদালতে মিন্নির পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না। এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি সঞ্জিব দাস। তিনি আদালতকে জানান, এ ঘটনায় আইনজীবীদের কেউ আসামিদের পক্ষে নিয়োগ না হওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে মিন্নির পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। মিন্নির পক্ষে আদালতে আইনজীবী না থাকার বিষয়ে তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর বলেন, ‘আমি তিন আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলেছিলাম, তাদের দাঁড়ানোর কথা ছিল, আমার মনে হয় প্রতিপক্ষের ভয়ে তারা আমার মেয়ের পক্ষে দাঁড়াননি।’ মিন্নির বাবা আরও বলেন, আমার মেয়েকে বুধবার আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় আদালতে আমার মেয়ের পক্ষে অ্যাডভোকেট জিয়াউদ্দিন, অ্যাডভোকেট গোলাম সরোয়ার নাসির ও অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা কাদেরের দাঁড়ানোর কথা ছিল। কিন্তু কী কারণে দাঁড়াননি আমি বলতে পারব না। তবে ধারণা করছি, প্রতিপক্ষের ভয়ে হয়তো কোনো আইনজীবী দাঁড়াননি।’ কোন প্রতিপক্ষের কারণে আইনজীবী দাঁড়াননি এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কোন প্রতিপক্ষ সেটি আপনারাই বুঝে নিন। আমি বলতে গেলে বরগুনা থাকতে পারব না। এ ছাড়া খুব অল্প সময়ের মধ্যে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। সে কারণেই হয়তো সব কাগজপত্র প্রস্তুত করা সম্ভব হয়নি।’ ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির অভিযোগের ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা করেছিলেন ব্যারিস্টার সাইয়েদুল হক সুমন। ওই মামলায় ওসি মোয়াজ্জেমের প্রধান আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ। এর আগে তিনি পুলিশ দম্পতি হত্যা মামলার আসামি ঐশী, বিডিআর বিদ্রোহ মামলা, রমনা বটমূলে বোমা হামলা মামলা, হলি আর্টিজান হামলার মামলাসহ একাধিক মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী হিসেবে মামলা পরিচালনা করেন।

জনপ্রশাসনের কর্মকর্তাদের জন্য ব্যাংক করার প্রস্তাব জেলা প্রশাসকদের

ঢাকা অফিস ॥ জনপ্রশাসনের কর্মকর্তাদের জন্য একটি ব্যাংক করার প্রস্তাব এসেছে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে। ঢাকায় বার্ষিক এ সম্মেলনের শেষ দিন গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে জনপ্রশাসন সম্পর্কিত অধিবেশনের পর প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, “তাদের জন্য একটি ব্যাংক করতে পারি কিনা সেটা একটা প্রস্তাব তারা করেছেন। সেটা আমরা বিবেচনা করব বলে আমরা তাদেরকে জানিয়েছি।” সবগুলো সরকারি দপ্তর এরকম ব্যাংক চাইলে তার ফলাফল কী হতে পারে- সে বিষয়ে প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন সাংবাদিকরা। জবাবে তিনি বলেন, “জনপ্রশাসনে পাঁচ হাজার কর্মকর্তা আছেন। যারা সাবেক, তারাও এখানে সংযুক্ত হতে পারেন। যদি দেশের জন্য কল্যাণকর হয়, তাহলে অবশ্যই বিবেচনা করা যায়। আর যদি কল্যাণকর না হয়, সেটা বিবেচনার দায়িত্ব সরকারের।” এদিন জনপ্রশাসন সম্পর্কিত অধিবেশনে জেলা প্রশাসকদের পক্ষ থেকে মোট ২৬টি প্রস্তাব দেওয়া হয়, যার মধ্যে একটিতে ডিসিদের গাড়ির তেল খরচের বেঁধে দেওয়া সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “তেলের সিলিংটা একেক জায়গায় একেক রকম। সেই বিষয়টি আমরা স্পষ্ট করেছি, যথেষ্ট দেওয়া হচ্ছে, পর্যাপ্ত দেয়া হচ্ছে। যিনি প্রশ্নটা করেছেন হয়তো তার বোঝার কিছু…..। “আশা করি বুঝতে তারা সক্ষম হয়েছেন। এ বিষয়টি এভাবে সুরাহা করা হয়েছে যে, যা দেওয়া হয়েছে পর্যাপ্ত দেওয়া হচ্ছে।” ফরহাদ হোসেন বলেন, “জনপ্রশাসনকে আরও শক্তিশালী করার জন্য আমরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করি। প্রতিবছর জেলা প্রশাসকদের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে বেশ ভালো ভালো পরামর্শ আসে। কীভাবে আমরা জেলা প্রশাসনকে আরও সুন্দরভাবে সাজিয়ে দেশের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করতে পারি, জনগণের সেবায় জেলা প্রশাসনকে আরও কীভাবে সম্পৃক্ত করতে পারি। সে বিষয়গুলো এ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আলোচনা হয়।” সম্মেলনে সরকারের তরফ থেকে জেলা প্রশাসকদের প্রতি কিছু নির্দেশনাও দেওয়া জয় জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “আমাদের যে নির্বাচনী ইশতেহার- দুর্নীতিমুক্ত জনপ্রশাসন গড়ে তুলব; জনমুখী, জনকল্যাণমুখী জনপ্রশাসন গড়ে তুলবো…। গত ১০ বছরে অনেক কাজ করা হয়েছে। এ সরকার জনপ্রশাসনকে মাঠ পর্যায়ের জনগণের খুব কাছাকাছি নিয়ে গেছে।” সেবার ধরণ পরিবর্তন করে কীভাবে জনগণের আরো কাছাকাছি যাওয়ায় যায়- সে বিষয়েও জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানান ফরহাদ।

‘হটলাইন কমান্ডো’ নিয়ে আসছেন সোহেল তাজ

ঢাকা অফিস ॥ সামাজিক বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরা এবং সুস্বাস্থ্যের প্রতি নজর দিতে মানুষকে সচেতন করতে একটি টেলিভিশন শো নিয়ে আসছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ। লাইফস্টাইল বিষয়ক এই রিয়্যালিটি শোর নাম ‘হটলাইন কমান্ডো’। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে সোহেল তাজ এই শোর ঘোষণা দেন। সোহেল তাজ মানুষের জীবনযাপন, খাদ্যাভ্যাস ও সুস্থতা নিয়ে কথা বলেন। এ ছাড়া সামাজিক বিভিন্ন সমস্যা ও অসংগতি তুলে ধরেন। শারীরিক সুস্থতার পাশাপাশি সমাজের সুস্থতাও দরকার উল্লেখ করে সোহেল তাজ বলেন, ‘সুস্থ থাকা মানে শুধু স্বাস্থ্যই না; সমাজের সুস্থতাও দরকার। গণমাধ্যমে এখন ধর্ষণের খবর পাওয়া যাচ্ছে। ইভটিজিং রয়েছে, মাদক এগুলো সমাজের ব্যাধি। সমাজের সব ব্যাধিকে আমাদের লাল কার্ড দেখাতে হবে। সমাজের সমস্যাগুলোকে সমাধান করা না গেলে সোনার বাংলা গড়া যাবে না।’ চলতি বছরের ৩ এপ্রিল সোহেল তাজ তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি টিজার প্রকাশ করেন। সেখান দেখানো হয়, সোহেল তাজ মানুষের দরজায় গিয়ে টোকা দিচ্ছেন। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ‘হটলাইন কমান্ডো’ দল দেশের বিভিন্ন স্থানে নানার শ্রেণি- পেশার মানুষের দরজায় কড়া নাড়বে। ‘হটলাইন কমান্ডো’ আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে আরটিভি দেখানো হবে। এই রিয়্যালিটি শো মাসে দুদিন করে, মঙ্গলবার রাত আটটায় হবে। ১২ পর্বের শোটি উপস্থাপনা করবেন সোহেল তাজ। বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের ছেলে সোহেল তাজ। তিনি ২০০৮ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত আওয়ামী লীগ সরকারের সময় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। অবশ্য মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তিনি পদত্যাগ করেন। পরে রাজনীতিতে আর সক্রিয় হননি। সংবাদ সম্মেলনে সোহেল তাজ তাঁর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে নানান প্রশ্নের উত্তর দেন। ফের রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা আছে কি নাÑ এ প্রশ্নের জবাবে সোহেল তাজ বলেন, ‘রাজনীতিতে আমি নাই। কিন্তু রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। রাজনীতি আমার রক্তে, দেশ আমার রক্তে। এটার বাইরে যাওয়ার সুযোগ নাই। এই মুহূর্তে সক্রিয়ভাবে রাজনীতি করার সুযোগ নাই। এই প্রোগ্রামটা আমার সমস্ত সময় নিয়ে নেবে। মানুষের কাছে আমি ঋণী। মানুষের ভালোবাসা পরিশোধ করতে যাচ্ছি এই প্রোগ্রামটার (হটলাইন কমান্ডো) মধ্য দিয়ে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ যদি সোহেল তাজকে কোনো রাজনৈতিক দায়িত্ব দেয়, তা তিনি গ্রহণ করবেন কি নাÑ জানতে চাইলে সোহেল তাজ বলেন, তিনি ও তাঁর পরিবার দেশের ও আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে পাশে ছিল, থাকবে। আজকের সুদিনে থাকবেন কি না প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘সুদিনে আমি অন্যভাবে সহায়তা করছি।’ সোহেল তাজ তাঁর টিভি শোর মাধ্যমে দুর্নীতি প্রতিরোধে কাজ করবেন কি নাÑ এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনো দেশ যদি উন্নতি করতে চায়, তার পথে সবচেয়ে বড় বাধা হচ্ছে দুর্নীতি। আমি শহীদ তাজউদ্দীন আহমদের সন্তান হিসেবে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে অবশ্যই চাই, বাংলাদেশ দুর্নীতিমুক্ত হবে। ব্যক্তিগতভাবে সে লক্ষ্যে আমি কাজ করে যাব। এই প্রোগ্রাম হচ্ছে সামাজিক বিষয়বস্তু নিয়ে, সোনার মানুষ তৈরি করা নিয়ে।’

রিফাত হত্যার পরিকল্পনাকারীদের একজন মিন্নি – পুলিশ

ঢাকা অফিস ॥ বরগুনায় শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার পরিকল্পনাকারীদের একজন তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি বলে পুলিশ জানিয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন বলেন, “মিন্নি হত্যাকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা এবং হত্যা পরিকল্পনাকারীদের সঙ্গে বৈঠক করেন।” গত ২৫ জুন জেলা শহরের কলেজ রোডে রিফাতকে (২৩) স্ত্রী মিন্নির সামনে কুপিয়ে জখম করে একদল লোক। হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় মামলা করেন। এ ঘটনায় ১৩ জনকে আটকের পর মঙ্গলবার রিফাতের স্ত্রী মিন্নিকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয় পুলিশ। আর মামলার ১ নম্বর আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। পুলিশ সুপার গতকাল বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন বলেন, “মিন্নিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই হত্যা পরিকল্পনার সঙ্গে মিন্নির যুক্ত থাকার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ।”

হামলার ঘটনার একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে শুরু হয় আলোচনা। সেখানে দেখা যায়, দুই যুবক রামদা হাতে রিফাতকে একের পর এক আঘাত করছে। তার স্ত্রী মিন্নি তাকে বাঁচানোর জন্য হামলাকারীদের ঠেকানোর চেষ্টা করছেন। বরগুনার সরকারি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্রী মিন্নি হামলাকারী সবাইকে চিনতে না পারার কথা জানালেও নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও তার ভাই রিশান ফরাজীর নাম বলেন। রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ মিন্নিকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের দাবি জানান। মিন্নি শ্বশুর দুলাল শরীফের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন। দুলালের দাবি, মামলার ১ নম্বর আসামি নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নির বিয়ে হয়েছিল। রিফাতকে হত্যার ঘটনায় মিন্নি জড়িত ছিলেন। আহত রিফাতকে হাসপাতালে নেওয়ার সময় মিন্নি সঙ্গে যাননি। মিন্নি বলছেন, নয়নের সঙ্গে তার বিয়ে হয়নি। জোর করে কাবিনে সই নেওয়া হয়েছিল।

জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জিএম কাদের

ঢাকা অফিস ॥ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন জিএম কাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে তিনি এ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। নতুন দায়িত্ব নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে জিএম কাদের বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে এ মুহূর্তে আমার প্রথম কাজ বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়ানো। তিনি সারা দেশের নেতাকর্মীদের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। জাতীয় পার্টিতে কোনো বিভেদ নেই বলে এ সময় জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যানকে পরিচয় করিয়ে দেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা। তিনি বলেন, জিএম কাদের এখন থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নন, তিনি পার্টির চেয়ারম্যান। পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তিনি এ পদে দায়িত্ব পালন করবেন। জিএম কাদের এতদিন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও কো- চেয়ারম্যান পদে ছিলেন। পার্টির সদ্যপ্রয়াত চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ মৃত্যুর আগে তাকে পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেন। গত কয়েক মাস ধরেই এ দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন জিএম কাদের। প্রসঙ্গত রোববার সকাল পৌনে ৮টায় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন মৃত্যুবরণ করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। তিনি রক্তে সংক্রমণসহ লিভার জটিলতায় ভুগছিলেন। রোববার বাদ জোহর ঢাকা সেনানিবাস কেন্দ্রীয় মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর পর সোমবার বেলা ১১টায় জাতীয় সংসদে দ্বিতীয় এবং বাদ আসর বায়তুল মোকাররম মসজিদে তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। রংপুরের কালেক্টরেট ঈদগাহ ময়দানে জানাজা শেষে মঙ্গলবার তাকে পল্লী নিবাসে সমাহিত করা হয়। এরশাদের মৃত্যুতে জাতীয় পার্টির নেতৃত্বে এলেন তার ছোট ভাই সাবেক মন্ত্রী জিএম কাদের। জাতীয় পার্টিও নতুন চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, জাতীয় পার্টিতে কোনো দ্বন্দ্ব বা বিভেদ নেই। জাতীয় পার্টিতে সবাই ঐক্যবদ্ধ আছেন। তিনি বলেন, পল্লী বন্ধুর শোক শক্তিতে পরিণত করে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে দলকে আরও শক্তিশালী করব। আগামী দিনে শক্তিশালী দল হিসেবে জাতীয় পার্টি আরও এগিয়ে যাবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জি এম কাদের বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রংপুর-৩ শূন্য আসনে মনোনয়ন দিতে গঠনতন্ত্র মোতাবেক দলীয় ফোরামে আলোচনা হবে। আলাপ আলোচনা করেই প্রার্থী ঠিক করা হবে। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা নির্বাচনের ক্ষেত্রে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। পরে তা স্পিকারকে জানিয়ে দেয়া হবে। তিনি বলেন, ২৬ জুন থেকে পার্টি চেয়ারম্যান পল্লী বন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ অসুস্থ থাকায় আমরা দলীয় কোনো কর্মকান্ডে অংশ নিতে পারিনি। দলকে শক্তিশালী করতে অচিরেই সারাদেশে সাংগঠনিক টিম কাজ শুরু করবে। পল্লী নিবাসের এরশাদের দাফনের বিষয়ে তিনি বলেন, পল্লী বন্ধুকে দাফন করার ব্যাপারে দু’টি প্রস্তাব ছিলো- ঢাকার বনানীতে সেনা কবরস্থান এবং রংপুরে তার নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসে। শেষ পর্যন্ত রংপুরবাসীর ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমরা পারিবারিকভাবে রংপুরেই তাঁকে সমাহিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং সেখানে সম্পূর্ণ রাষ্ট্রীয় এবং সামরিক মর্যাদায় তাঁকে দাফন করা হয়েছে। আমরা অচিরেই পল্লীবন্ধুর স্মরণে একটি স্মরণ সভার আয়োজন করবো। জিএম কাদের বলেন, আজ আমি মিডিয়ার সব বন্ধুসহ যারা পল্লী বন্ধু এরশাদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন, সহমর্মিতা প্রকাশ করেছেন, যারা তার জানাজায় শরিক হয়েছেন, যারা তার শবযাত্রায় শামিল হয়েছেন, সারাদেশের মানুষ যারা তার জন্য দোয়া করেছেন, যারা তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন, তারাসহ গোটা দেশবাসীর প্রতি আমি, আমাদের পার্টি এবং আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাদের মাধ্যমে গভীর কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। এই কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্যই আজকের সংবাদ ব্রিফিং। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, আমি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জানাই বাংলাদেশ সরকারের প্রতি। কৃতজ্ঞতা জানাই- আমাদের গর্বিত তিন বাহিনীর সব সদস্যদের প্রতি, যারা পল্লীবন্ধু এরশাদকে সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শন করেছেন, আমি কৃতজ্ঞতা জানাই- বাংলাদেশে অবস্থানরত সব কূটনৈতিক মিশনের সদস্যদের প্রতি যারা পল্লীবন্ধু এরশাদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন, আমি কৃতজ্ঞতা জানাই সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের সুদক্ষ চিকিৎসকদের প্রতি- যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করে পল্লীবন্ধু এরশাদকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন। আমি আরও কৃতজ্ঞতা জানাই- যেসব স্টাফ পল্লীবন্ধুর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে সেবা দিয়েছেন। গতকাল আজাদ মসজিদে অনুষ্ঠিত পল্লীবন্ধুর কুলখানিতে যেসব বরেণ্য ব্যক্তিত্ব এবং সর্বস্তরের জনগণ অংশ নিয়েছেন তাদের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। এর আগে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেন, অসুস্থ হবার আগে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সাংগঠনিক নির্দেশে গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপিকে পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং পল্লীবন্ধুর অবর্তমানে গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপিকে পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা করেছেন। সেই নির্দেশনা মোতাবেক গোলাম মোহাম্মদ কাদের পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সুনীল শুভ রায়, এস.এম. ফয়সাল চিশতী, মো. আজম খান, এটিইউ তাজ রহমান, মেজর (অব.) খালেদ আখতার, পার্টির নেতা শফিকুল ইসলাম সেন্টু, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ফখরুজ্জামান জাহাঙ্গীর, জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, ড. নুুরুল আজহার, অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, জহিরুল আলম রুবেল, আহসান আদেলুর রহমান আদেল এমপি, যুগ্ম মহাসচিব- গোলাম মোহাম্মদ রাজু, হাসিবুল ইসলাম জয়, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, সুলতান আহমেদ সেলিম, শাহজাহান মানসুর, রাজ্জাক খান, এনাম জয়নাল আবেদীন, ফজলে এলাহী সোহাগ, সুজন দে, আব্দুস সাত্তার, বেলাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন তোতা, জাহাঙ্গীর আলম।

কুষ্টিয়ায় কলেজ শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি মামলায় অধ্যক্ষের ১০বছর কারাদন্ড

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি মামলায় একই কলেজের অধ্যক্ষের ১০বছর কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত। দন্ডপ্রাপ্ত চৌধুরী নুরুদ্দিন মো: সেলিম ওরফে সজল চৌধুরী (৫২) কুষ্টিয়া শহরের মিলপাড়ার বাসিন্দা চৌধুরী আব্দুল আলীর পূত্র এবং সৈয়দ মাছুদ রুমী কলেজের অধ্যক্ষ। গতকাল বৃহষ্পতিবার  বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের বিচারক মুন্সী মোঃ মশিয়ার রহমান জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৩০মার্চ দুপুরে সৈয়দ মাছুদ রুমী কলেজের মহিলা কমন রুমের ওয়াস রুম সেরে বেরুনোর সময় আসামী কলেজের অধ্যক্ষ চৌধুরী নুরুদ্দিন মো: সেলিম ওরফে সজল চৌধুরী জোরপূর্বক এই শিক্ষিকার শ্লীলতাহানি ঘটান। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী শিক্ষিকা নিজেই বাদি হয়ে এপ্রিল মাসের ৭ তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আইনের দ:বি: ১০ ধারায় অভিযোগ এনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ১৩ আগষ্ট আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন পুলিশ। কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ কৌশুলী আকরাম হোসেন দুলাল জানান, কুষ্টিয়া মডেল থানার  চাঞ্চল্যকর শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির দায়ে একই কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে করা মামলাটি চার্জগঠন পূর্বক বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ স্বাক্ষ্য শুনানী করেন এবং আসামীর বিরুদ্ধে আনীত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আইনের দ:বি: ১০ ধারায় আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমানিত হওয়ায় তাকে ১০ বছর কারাদন্ডসহ ১লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত।