ঝিনাইদহে টিউবওয়েলের পানি নিয়ে গুজব, দলে দলে আসছে মানুষ

সুলতান আল একরাম ॥ যুগ যুগ ধরে চলে আসা সামাজিকভাবে প্রচলিত অনেক কুসংস্কার যা শিক্ষিত সমাজও দূরে ঠেলে দিতে পারেনা একমাত্র মানসিক অন্ধত্ব বা দ্বিধাবোধ থেকেই এসবের প্রচলন হয়ে থাকে। এমনই একটি ঘটনা জানা গেছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ২নং মধুহাটি ইউনিয়নের বাজার গোপালপুর সড়কের ভিখের মোড় নামক স্থানে মেহগনি বাগানের ভেতর একটি টিউবওয়েলের পানি পান করলেই সব রোগ থেকে মুক্তি পাচ্ছেন মানুষ। এমন গুজব চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে সেখানে প্রতদিন হাজার হাজার মানুষ যাচ্ছে পানি সংগ্রহ করার জন্য। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে একটি নলকূপ স্থাপন করা আছে। স্থানীয় লোকজন জানান নলকূপটি ২নং মধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ জুয়েল স্থাপন করেছেন। কে বা কারা গুজব রটনা করেছে এই নলকূপের পানি পান করলে সমস্ত রোগ নিরাময় হয়ে যাচ্ছে। কারো রোগ ভালো হয়েছে এমন সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। অনেক দূর থেকে গভীর রাত্রেও সেখানে লোকজন আসছে এবং পানি সংগ্রহ করছে। জানা যায়, অনেক মহিলা এবং পারিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে দূর থেকে এখানে আসছে। কিন্তু স্থানটিতে নিরাপত্তা ব্যাবস্থা না থাকায় যে কোন মুহুর্তে ঘটতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, একজন জানান, তিনি দীর্ঘদিন প্যারালাইজড রোগে ভূগছেন এই নলকূপের পানি পান করে রোগমুক্তি হবে ভেবে তিনি সেখানে যান এবং পানি পান করেন। কিন্তু এতে তার কোন রোগ নিরাময় হননি বলে জানান। এই বিষয়ে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা খাতুন আমাদেরকে জানান বিষয়টা আমি শুনেছি ভিত্তিহীন ও আমি তদন্ত টিম পাঠাচ্ছি।

বিরোধীদলকে নির্মূল ও নিশ্চিহ্ন করতে আদালতকে ব্যবহার করা হচ্ছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘রাষ্ট্র ও ক্ষমতাসীন দলের মধ্যকার পার্থক্যের অবসান ঘটেছে। রাষ্ট্র, এক ব্যক্তি ও দল এখন একাকার। এক ব্যক্তির অঙ্গুলি হেলনে জঙ্গলের শাসন চলছে। আইন-আদালত, বিচার-আচার, প্রশাসন সবকিছু মিডনাইটে সিলমারা ভোটে নির্বাচিত অবৈধ সরকারের করতলে। বিচারের বাণী আলো-আঁধারে নিভৃতে কাঁদছে। বিরোধী দলকে নির্মূল ও নিশ্চিহ্ন করতে আদালতকে নগ্নভাবে ব্যবহার করার মাধ্যমে এক ভয়াবহ অশনি সংকেত সুষ্পষ্ট হয়ে উঠেছে। আদালতের ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপের মাধ্যমে সরকারের অসহিষ্ণুতা ফুটে উঠেছে। তাতে ভিন্ন মতকে দেশদ্রোহী হিসেবে দেখা হচ্ছে। সুতরাং বিএনপিসহ সরকারবিরোধী দলগুলো যেন অপরাধী ও দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিকের মর্যাদায় নামিয়ে আনা হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার জামিন না দেওয়ার পেছনে সরকারের হস্তক্ষেপ জনগণের কাছে দিবালোকের মতো স্পষ্ট।’ গতকাল রোববার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। রিজভী বলেন, গত বুধবার ১৯৯৪ সালে পাবনার ঈশ্বরদীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা) ট্রেনবহরে হামলার সম্পূর্ণ বানোয়াট ও প্রহসনের সাজানো মামলায় বিএনপির ৯ জনের ফাঁসি, ২৬ জনের যাবজ্জীবন দিয়েছে একটি আদালত। যে ঘটনায় কেউ হতাহত হয় না সেই মামলায় ফাঁসি হওয়ার কোনো আইন পৃথিবীতে আছে কিনা আমাদের জানা নেই। এই ধরনের রায় পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন হয়ে থাকবে। ২৪ বছর আগে পরিকল্পিতভাবে শুধু তামাশা করার জন্য নিজ দলীয় লোকদের দিয়েই ট্রেনের কাছে ফাঁকাগুলির ঘটনায় বিএনপির নেতাকর্মীদের গণফাঁসির রায় প্রমাণ করে দেশ এখন দুঃশাসনের কালো রাতে আচ্ছন্ন। সর্বশেষ ঈশ্বরদীর এই হাস্যকর মামলার রায় জনগণের কাছে স্পষ্ট করেছে যে, কী পরিমাণ অপশাসন-কুশাসন আর জুলুম চলছে। যাদের ফাঁসির রায় দেওয়া হয়েছে তাদের অধিকাংশের এফআইআর এ নাম পর্যন্ত ছিল না। আওয়ামী লীগ অভিযোগ করে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর দলীয় কর্মসূচিতে ট্রেনবহর নিয়ে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশনে যাত্রাবিরতি করলে ওই ট্রেন ও শেখ হাসিনার কামরা লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করা হয়। মামলাটির সময় পুলিশ কোনো সাক্ষী না পেয়ে আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্টও দাখিল করে। পরে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর শেখ হাসিনার নির্দেশে আজ্ঞাবহ পুলিশকে দিয়ে মামলাটি পুনঃতদন্ত করে নতুনভাবে ঈশ্বরদীর শীর্ষস্থানীয় ৫২জন বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীকে এ মামলার আসামি বানানো হয়। তাদের অপরাধ তারা বিএনপি করে। এই কারণে বিচারের নামে আওয়ামী প্রহসনের নির্মম শিকার হলেন তারা। গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা না হলে সরকারের পরিণতি খুব ভালো হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, যে সরকারের জনগণের ম্যান্ডেট নাই তারা কী করবে না করবে আমরা জানি না, তবে এই যে সংগ্রাম, তা এই পর্যায়ে থাকবে না, এর স্ফুলিঙ্গ দাবানল আকারে ছড়িয়ে পড়বে একদিন। তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন, মেনে নেন। কিন্তু আপনারা মধ্যরাতের নির্বাচন করবেন সেটা মেনে নিতে হবে, আপনারা একতরফা নির্বাচন করবেন সেটা মেনে নিতে হবে, আপনারা ইভিএম দিয়ে একটা জোচ্চুরি নির্বাচন করবেন সেটা মেনে নিতে হবে, আপনারা গ্যাসের দাম বাড়াবেন সেটা মেনে নিতে হবে, আপনারা বিদ্যুতের দাম বাড়াবেন সেটা মেনে নিতে হবে। আপনারা কারা? সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য নাজমুল হক নান্নু, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, ফিরোজ-উজ জামান প্রমুখ।

‘জুলাইয়ের শেষে’ পুরান ঢাকায় চক্রাকার বাস

ঢাকা অফিস ॥ চলতি মাসের শেষেই পুরান ঢাকায় বিআরটিসির চক্রাকার বাস চলাচল শুরু করার ঘোষণ দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। এছাড়া এ মাসেই রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচলকারী সব বাসে টিকেট পদ্ধতি চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। নগর ভবনে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনয়নে গঠিত কমিটির বৈঠক শেষে মেয়র খোকন সাংবাদিকদের বলেন, চক্রাকার বাস যাত্রা শুরু করবে বাবুবাজার ব্রিজ থেকে। “বাবুবাজার থেকে ধোলাইখাল, দয়াগঞ্জ, যাত্রাবাড, ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার, আমুলিয়া, মেরাদিয়া, রামপুরা, মালিবাগ হয়ে মগবাজার পর্যন্ত আসবে বাস। তবে সেখান থেকে বাবুবাজার ব্রিজ পর্যন্ত আপাতত এই বাস আসবে না। মগবাজার থেকে সদরঘাট পর্যন্ত বেসরকারি পরিবহনের অনেক বাস চলাচল করছে। যদি যাত্রীদের চাহিদা থাকে তাহলে বাসগুলো পুরান ঢাকায় যাবে। অন্যথায় মগবাজার থেকে মালিবাগ, রামপুরা, স্টাফ কোয়ার্টার, যাত্রাবাড়ী হয়ে বাবুবাজার চলে আসবে। মোহাম্মদপুর- মতিঝিল রুটের বাসে টিকেটের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহন বাধ্যতামূলক করার ঘোষণা দিয়ে মেয়র বলেন, “এই রুটের কোনো বাস টিকেট সিস্টেমের বাইরে চলতে পারবে না। এ বিষয়ে মালিক সমিতি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবং ঢাকা মহানগর পুলিশ এ বিষয়ে মালিক সমিতিকে প্রয়োজনীয় সহায়তা করবে। যাত্রীরা টিকেট কেটে বাসে চড়বেন, এতে বাসের মধ্যে অসুস্থ প্রতিযোগিতা কমে যাবে।” রাজধানীর গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনতে প্রস্তাবিত ছয়টি কোম্পানির মধ্যে একটি কোম্পানি দ্রুত কাজ শুরু করবে বলে সভা শেষে সাংবাদিকদের জানান মেয়র খোকন। এ বিষয়ে আগামী সাত দিনের মধ্যে সবাইকে নিয়ে বৈঠকে বসবেন জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা প্রাথমিকভাবে ঘাটারচর থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত একটি কোম্পানির আওতায় বাস চলাচল শুরু করতে চাই। কোম্পানির বাসের একটি নির্দিষ্ট রঙের বাস হবে। আগামী সপ্তাহে প্রস্তুতি সভা হবে। সভায় সবার মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এটা দ্রুতই করতে চাই।” এসব রুটে বর্তমানে যেসব বাস চলাচল করছে সেসব বাসই একটি নির্দিষ্ট কোম্পানির আওতায় আনা হবে। পরে ধীরে ধীরে নতুন বাস নামানো হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল হাই, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, ডিটিসিএর নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুল আলম, বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. ফরিদ আহমেদ ভুইয়া, ডিটিসিএর সাবেক নির্বাহী পরিচালক ড. সালেহ আহমেদ, ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মো. মফিজ উদ্দিন আহমেদ, বিআরটিএর পরিচালক মাহবুব ই রব্বানী, মালিক সমিতির প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

শাহজালালে ২৮টি স্বর্ণবারস চীনা নাগরিক আটক

ঢাকা অফিস ॥ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২৮টি স্বর্ণবারসহ শিয়ান ঝু নামে চীনের এক নাগরিককে আটক করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। রবিবার সকালে তাকে আটক করা হয়। কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানায়, দুবাই থেকে ইকে-৫৮২ বিমানে আগত যাত্রীদের মাধ্যমে স্বর্ণ চোরাচালান হবে এমন খবরের ভিত্তিতে বিমানবন্দরে নজরদারি বাড়ানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে কাস্টমস গোয়েন্দা দল ফ্লাইটে আগত যাত্রীদের দিকে নজর রাখে । এক পর্যায়ে যাত্রীকে শনাক্ত করা হয়। ওই যাত্রী গ্রিন চ্যানেল অতিক্রম করার সময় তার কাছে স্বর্ণ আছে কিনা জানতে চাওয়া হয়। তিনি স্বর্ণ থাকার কথা অস্বীকার করলে দেহ তল্লাশি করে কোনো কিছু না পেয়ে তার ল্যাগেজ স্ক্যানিং করে ধাতব বস্তুর অস্তিত্ব পাওয়া যায় । তার ল্যাগেজ কাউন্টারে এনে বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে খোলা হয়। ল্যাগেজে রক্ষিত তিনটি চার্জার লাইটের ব্যাটারির মধ্যে ২৮টি স্বর্ণবার পাওয়া যায়, যার ওজন ৩ কেজি ২৫০ গ্রাম । জব্দকৃত স্বর্ণবারের মূল্য ১ কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার টাকা (প্রায়)। জব্দকৃত স্বর্ণের বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং যাত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ওয়ারীতে ধর্ষণের পর খুন

নিস্তেজ সায়মাকে গলায় রশি বেঁধে টেনে রান্নাঘরে নিয়ে যায় হারুন

ঢাকা অফিস ॥ রাজধানীর ওয়ারীর বনগ্রামের স্কুলছাত্রী সামিয়া আফরিন সায়মাকে (৭) ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত হারুন অর রশিদ গ্রেফতারের পর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। পুলিশকে দেয়া জবানবন্দিতে সে জানিয়েছে, ছাদ ঘুরে দেখানোর কথা বলে ওই বাসার ৮ তলার লিফট থেকে সায়মাকে ছাদে নিয়ে যায় সে। সেখানে নবনির্মিত ৯ তলার ফ্ল্যাটে নিয়ে সায়মাকে ধর্ষণ করে। এরপর নিস্তেজ অবস্থায় পড়ে থাকে সায়মা। মৃত ভেবে সায়মার গলায় রশি বেঁধে টেনে রান্নাঘরে রেখে পালিয়ে যায় এই নরপশু। হারুন অর রশিদকে গ্রেফতারের পর গতকাল রোববার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রোমহর্ষক এই হত্যাকান্ডের বর্ণনা দেন অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) আবদুল বাতেন। ডিএমপির এ কর্মকর্তা বলেন, ‘এ ধরনের অপরাধীরা সাধারণত ধর্ষণের পর যখন ভাবে এ অপকর্মের কারণে সে বাঁচতে পারবে না তখনই হত্যার মতো ঘটনা ঘটায়। এ ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে।’ হারুনের স্বীকারোক্তির বর্ণনা দিয়ে আবদুল বাতেন বলেন, ‘শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সাড়ে ৬টার মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। ওই দিন মাকে বলে শিশু সায়মা ৮ তলায় যায়। সেখানে ফ্ল্যাট মালিক পারভেজের একটি শিশুর সঙ্গে খেলা করতে যায় সায়মা। সেখানে গেলে পারভেজের স্ত্রী জানায় তার মেয়ে ঘুমাচ্ছে। সেখান থেকে বাসায় ফেরার উদ্দেশে লিফটে ওঠে সায়মা। লিফটেই সায়মার সঙ্গে দেখা হয় পারভেজের খালাতো ভাই হারুনের। হারুন সায়মাকে লিফট থেকে ছাদ ঘুরে দেখানোর কথা বলে ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে সায়মাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। সায়মা চিৎকার করলে মুখ চেপে ধর্ষণ করে। সায়মাকে নিস্তেজ দেখে গলায় রশি লাগিয়ে টেনে নিয়ে যায় রান্নাঘরে। সেখানে সিঙ্কের নিচে রাখে। এরপর পারভেজের বাসায় না ফিরে হারুন গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার তিতাস থানার ডাবরডাঙ্গা এলাকায় গিয়ে গা ঢাকা দেয়।’ আবদুল বাতেন বলেন, ‘হারুন পারভেজের খালাতো ভাই। পারভেজের বাসায় গত দুমাস ধরে থাকে সে। কাজ করত পুরান ঢাকায় পারভেজের রঙের দোকানে।’ আবদুল বাতেন আরও বলেন, ‘হারুনকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আজই আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ড চাওয়া হবে।’ গ্রেফতার হারুনের বাড়ি কুমিল্লায়। ওয়ারীর বনগ্রামের যে বহুতল ভবনে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনাটি ঘটেছে, তার সপ্তম তলায় থাকত সে। আর শিশুটি পরিবারের সঙ্গে থাকত ষষ্ঠ তলার ফ্ল্যাটে। শিশুর বাবা আবদুস সালাম নবাবপুরের একজন ব্যবসায়ী। গত ফেব্র“য়ারিতে ওই ভবনে ফ্ল্যাট কেনার পর তিনি পরিবার নিয়ে সেখানে ওঠেন। তার দুই ছেলে, দুই মেয়ের মধ্যে সবার ছোট সায়মা রাজধানীর একটি স্কুলে নার্সারিতে পড়ত। অন্য ফ্ল্যাটের শিশুদের সঙ্গে খেলতে যাওয়ার কথা বলে প্রতিদিনের মতোই বাসা থেকে বের হয়েছিল সে। কিন্তু রাত হওয়ার পরও না ফেরায় তার পরিবার খোঁজাখুঁজি শুরু করে। নবম তলায় খালি ফ্ল্যাটের ভেতরে তাকে পাওয়া যায় গলায় রশি পেঁচানো, মুখ বাঁধা ও রক্তাক্ত অবস্থায়। শিশু সায়মার লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেছেন ওয়ারী থানার এসআই হারুন অর রশিদ। প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেছেন, শিশুটির মাথার বামপাশে সামান্য থেঁতলানো জখম রয়েছে। মুখ দিয়ে রক্ত বের হওয়ার চিহ্ন রয়েছে। গোপনাঙ্গ রক্তাক্ত ও থেঁতলানো। নবম তলার উত্তর-পশ্চিম পাশের ফ্ল্যাটের রান্নাঘরে লাশ পাওয়া যায়। ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ জানান, মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয় এবং পরে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার বিকালে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয় শিশুটিকে। সায়মার বাবা আবদুস সালাম বলেন, মসজিদে মাগরিবের নামাজ পড়ে বাসায় আসি। বাসায় ফিরে সায়মার মাকে জিজ্ঞেস করি মেয়ে কোথায়? তিনি জানান, উপরের ফ্ল্যাটে খেলতে গেছে। পরে ৯ তলার নির্মাণাধীন ফ্ল্যাটে তার মৃতদেহ পাই। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, মেয়ে হত্যার বিচার চাই। ঘাতককে চিহ্নিত করে এমন শাস্তি দেয়া হোক যাতে তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকে। আর যেন কারও মেয়ে সায়মার মতো নিষ্ঠুরতার বলি না হয়। আর যেন কোনো বাবা-মায়ের কোল খালি না হয়। তিনি বলেন, তার মেয়ের ঘাতককে চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি।

সভাপতি লিয়াকত, সাঃ সম্পাদক নাসির, সাংগঠনিক মোকলেছুর

প্রেস মালিক সমিতি কুষ্টিয়ার সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ প্রেস মালিক সমিতি কুষ্টিয়ার সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ জুলাই রবিবার রাত ৮ টায় কুষ্টিয়া শহরস্থ ল’কলেজ মার্কেট প্রাঙ্গনে এ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রেস মালিক সমিতি কুষ্টিয়ার সভাপতি লিয়াকত আলী খাঁন। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট প্রেস মালিক সমিতি কুষ্টিয়ার ২বছর মেয়াদি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। নব গঠিত প্রেস মালিক সমিতি কুষ্টিয়ার নেতৃবৃন্দরা হলেন, সভাপতি লিয়াকত আলী খান (পপুলার প্রিন্টিং প্রেস), সহ-সভাপতি আবুল কাশেম (হাই কোয়ালিটি প্রেস), আব্দুল আজিজ (জ্ঞানকোষ প্রেস), মোস্তাকিম হোসেন (মতিন প্রেস), সাধারণ সম্পাদক নাসির দেওয়ান (দেওয়ান প্রিন্টিং প্রেস), যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাজনু হোসেন (ঢাকা বুক বাইন্ডিং), জসিম উদ্দিন (সাজিয়া প্রিন্টিং প্রেস), সাংগঠনিক সম্পাদক মোকলেছুর রহমান (মায়ের দোয়া প্রিন্টিং প্রেস), কোষাধ্যক্ষ কাজী মনোয়ার হোসেন বকুল (পৃথ্বি প্রিন্টিং প্রেস)। এছাড়াও নব গঠিত কমিটির নির্বাহী সদস্যরা হলেন ফয়সাল মাহমুদ (আল হেলাল প্রিন্টিং প্রেস), শহিদুল ইসলাম পদ্মা প্রিন্টিং প্রেস), মিঠু সাহা (কল্লোল মূদ্রায়ণ), আব্দুল রাজ্জাক (মা অফসেট), রুবেল হোসেন (রহমান প্রেস) ও আসলাম হোসেন (নোভা অফসেট)।

কালুখালীতে নবাগত জেলা প্রশাসকের সাথে মতবিনিময় ও নবাগত উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরণ

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ গতকাল রবিবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগমের সাথে পরিচিতি ও মতবিনিময় এবং নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো) কে বরণ করেছে উপজেলা প্রশাসন। এ উপলক্ষ্যে সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলার জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, উপজেলা পর্যায়ের সকল কর্মকর্তা, সুশীল সামাজের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গে সাথে অনুষ্ঠিত পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো) এসময় উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুল বাসার চৌধুরীর সঞ্চালনায় উপজেলা সহকারী কমিশার (ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলাম, জেলা পরিষদের সদস্য খায়রুল ইসলাম খায়ের, মিজানুর রহমান মজনু, নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান শেখ এনায়েত হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ ডলি পারভীন, রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ আব্দুল খালেক মাষ্টার, কালিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আতিউর রহমান নবাব, এছাড়াও কালুখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ ফজলুল হক, রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আয়ুব আলী, প্রধান শিক্ষক মোঃ হাবিবুর রহমান, দুর্নীতি দমন কমিশনের সভাপতি শরৎ চন্দ্র বিশ্বাস প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নবাগত জেলা প্রশাসক ও নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

শৈলকুপায় কৃষকের ঘর থেকে ৩২টি গোখরা উদ্ধার

শৈলকুপা প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সাদেক শেখ নামে এক কৃষকের বসতঘর থেকে ৩২টি বিষধর গোখরা সাঁপের বাচ্চাসহ ডিম উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌর এলাকার মালিপাড়া গ্রামে এ বিষধর গোখরা সাঁপের বাচ্চাগুলো উদ্ধার করা হয়। কৃষক সাদেক শেখের পুত্র হালিম জানান, গত শুক্রবার সকালে ঘরের কোণে সাঁপের খোসা দেখতে পাওয়া যায়। সেই কারনেই রবিবার সাপুড়ে ডেকে ঘর খোঁড়ার কাজ শুরু করা হয়। খোঁড়াখুঁড়ির একপর্যায়ে ঘরের কোন থেকে ৩২টি বিষধর গোখরা সাঁপের বাচ্চাসহ বেশ কয়েকটি ডিম উদ্ধার করেছে সাপুড়ে। সাপুড়ে চিত্তরঞ্জন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে কড়ি চালান দিয়ে বুঝতে পারে অনেক গুলো বিষধর সাপ আছে। পরে ঘরের মাটি খুঁড়ে ৩২টি বিষধর গোখরা সাঁপের বাচ্চাসহ ডিম উদ্ধার করা গেলেও মা গোখরা সাঁপটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তবে মা গোখরা ধরতে চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

ওসি বললেন ঘটনাটি রেল লাইনের উপর যা করবে রেল পুলিশ

খোকসায় হামলায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আহত

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় প্রকাশ্য বাজারের প্রতিপক্ষের হামলায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন আহবায়ক গুরুতর আহত হয়েছে। জানা গেছে, গতকাল রবিবার দুপুরে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা সিরাজুল ইসলাম মুকুল (৪০) মোটর সাইকেল যোগে উপজেলা সদর থেকে বাড়ি ফিরছিল। সে শোমসপুর রেল গেটে পৌচ্ছালে প্রতিপক্ষের লোকেরা দেশী তৈরী ধারালো অস্ত্রসহ তার উপর হামলা করে। বাজারের ব্যবসায়ীরা প্রতিরোধ গড়ে তুললে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে যায়। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। আহত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ভাই টুটুল জানায়, স্থানীয় রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খানের সাথে বিরোধ চলছিল। কয়েকদিন আগে ওই নেতা তাকে জিপগাড়ি চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। এ ঘটনা নিয়ে বিরোধ চরমে পৌছায়। এ ঘটনার সূত্র ধরে মুকুলের উপর হামলা হয়েছে বলে তিনি দাবি করে। তিনি আরো বলেন, প্রতিপক্ষের হামলার আশংঙ্কায় মুকুল থানায় জিডি করার চেষ্টা করে কিন্তু থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিডি নেয়নি বলেনও তিনি দাবি করেন। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলার জন্য তার মোবাইল ফোনে কল করা হয় কিন্তু তিনি রিসিভ করেনি।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক নাফসুন রইচ জানান, রোগীর দুই হাতের বৃদ্ধা আঙ্গুল ও মাথার স্কার্ব কেটে গেছে। তার আঘাত গুরুতর। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়াতে পাঠানো হয়েছে। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবিএম মেহেদী মাসুদের কথা বলা হলে তিনি বলেন, ঘটনাটি রেল লাইনের উপর। রেল পুলিশের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। এ ছাড়া মুকুল জিডি করতে আসেনি।

সভাপতি মুন্না ॥ সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার রাশিদুল

কুষ্টিয়া পৌর ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড (আড়–য়াপাড়া) আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেলে দিনমণি মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি শেখ মিজানুর রহমান মুন্নার সভাপতিত্বে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খাঁন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী। প্রধান বক্তা ছিলেন শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি রাহেন আলী খান, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা হাবিবুল হক পুলক, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ডাক্তার  গোলাম মওলা, শহর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মীর আরিফুল ইসলাম বাবু, কুষ্টিয়া বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক কৌশিক আহাম্মেদ প্রমুখ। এসময় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে আড়–য়াপাড়া ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নির্বাচিত হন শেখ মিজানুর রহমান মুন্না, সহ-সভাপতি সরোয়ার হোসেন, শাকিল আহমেদ জালাল, এ্যাডঃ মোকারম হোসেন লাল, মিজানুর রহমান মজনু, অজয় সুরেখা, সিরাজুল ইসলাম, মোকারম হোসেন মোয়াজ্জেম, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রাশিদুল হাসান রাশু, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক তারিকুল আলম পলাশ, এ এইচ তুহিন, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ প্রদীপ বাগচী, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক শাহান শাহ, তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক বিকাশ কুমার সাহা, ত্রান ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল কুদ্দুস, দপ্তর সম্পাদক সাফিউল করিম সাগর, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল জব্বার, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক বিকাশ দত্ত, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার কিসলুর রহমান বাবু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রউফ রবি, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শালিমা সুলতানা, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আতিউর রহমান, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম মানিক, শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক লাভলু মাষ্টার, শ্রম সম্পাদক শুকুর আলী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান খোকন, স্বাস্থ্য ও জন সংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার বিশ্বনাথ পাল বিশু, সাংগঠনিক সম্পাদক এস,কে, কামরুল ইসলাম, আব্দুল আজিজ, সহ-দপ্তর সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সফি, সহ- প্রচার সম্পাদক আব্দুল¬াহ হাসান মারুফ, কোষাধ্যক্ষ শাহিন, নির্বাহী সদস্য আব্দুল হামিদ রায়হান, ডাঃ আতিয়ার রহমান, আতাউর রহমান বাবু, আশরাফ, সহিদুল ইসলাম শহিদ, মেজবার রহমান পিয়ারু, আলাউদ্দিন শেখ দুলাল, সোহরাব হোসেন, অসীম পাল, সাইফুল ইসলাম রুনু, সুভাস সেন, জাহাঙ্গীর আলম, রুহুল আমিন, রমিজ খান মাখন, আনিস, শরিফুল ইসলাম মানিক, সোহেল রান, শরিফুল ইসলাম শশী, আব্দুল আলিম, মাহাদুল হক কচি, হোসনে আলী, আলাউদ্দিন আহাম্মেদ, মোছাঃ রুপালী বেগম, মোছাঃ তহমিনা বেগম, আজগর হোসেন বাবু, সোহরাব হোসেন বাবু, আব্দুল লতিফ (১), আব্দুল লতিফ (২), মুরাদুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান, তারিকুল ইসলাম তারিক, রবিউল ইসলাম লাল্টু, শরিফুল ইসলাম বাবু, আলী হোসেন, ফকির মকুল হোসেন, এ এস এম কবির পলাশ, জাফরুল ইসলাম। ৬৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি তিন বছর মেয়াদী ঘোষণা করেন কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খাঁন। উক্ত সভায় পুর্বে ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল জলিল, মরহুম সিরাজুল হক ও হায়দারীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সমবেদনা প্রকাশ করেন সকল সদস্যবৃন্দরা।

 

 

লতিফ সিদ্দিকীর জামিন কেন নয় – হাইকোর্ট

ঢাকা অফিস ॥ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদকের) করা মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে কেন জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। আগামি চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জামিনের বিষয়ে করা আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। এদিন কাদের সিদ্দিকীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম ও উমর ফারুক। এর আগে জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে ড়শ বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ আজকে (গতকাল) আদেশ দেবেন বলে ঠিক করে আদেশ দেন। এর আগে গত ২০ জুন জামিন নামঞ্জুর করে সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বগুড়ার একটি আদালত। বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় অবৈধভাবে সরকারি জমি বিক্রি করে প্রায় ৪১ লাখ টাকা ক্ষতি করা-সংক্রান্ত দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় বগুড়ার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ নরেশ চন্দ্র সরকারের আদালত এ আদেশ দেন। এরপর থেকে কারাগারে আছেন লতিফ সিদ্দিকী। কারাবন্দি সাবেক এ মন্ত্রীকে ৬ জুলাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই আছেন তিনি। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে আদমদীঘি থানায় পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার অপর আসামি হলেন ওই জমির ক্রেতা বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া এলাকার মৃত হারুন-অর-রশিদের স্ত্রী জাহানারা রশিদ।

বিচারকের নামের আগে কোনো উপাধি নয় – হাইকোর্ট

ঢাকা অফিস ॥ নিম্ন আদালতের কোনো বিচারক তাদের নামের আগে ডক্টর, ব্যারিস্টার বা অন্য কোনো পদবি লিখতে পারবে না বলে আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গতকাল রোববার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। পরে ওই কোর্টের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ইউসুফ মাহমুদ মোরশেদ যুগান্তরকে বলেন, ‘ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আক্তারুজ্জামানের একটি আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন নিয়ে এসেছিলেন আকরাম উদ্দিন নামে একজন আইনজীবী। ওই আবেদনের শুনানির সময় আদালত দেখতে পান বিচারকের নামের আগে ডক্টর পদবী লেখা আছে। তখন আদালত স্বপ্রণোদিতভাবে আদেশ দেন, ‘নিম্ন আদালতের কোনো বিচারক বা ম্যাজিস্ট্রেট তাদের নামের আগে ডক্টর, ব্যারিস্টার বা অন্য কোনো পদবি লিখতে পারবেন না।’ আদালত বলেছেন, বিচারকের পরিচয় হচ্ছে বিচারক, হাকিমের পরিচয় হাকিম।

সভাপতি ড. রেজওয়ানুল ॥ সাধারণ সম্পাদক ড. মাহবুবর

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শাপলা ফোরামের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষকদের সংগঠন শাপলা ফোরামের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সভাপতি হয়েছেনÑবায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ রেজওয়ানুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান। কমিটির অন্যান্যরা হলেনÑসহ-সভাপতি প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোঃ মেহের আলী এবং কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. এস.এম মোস্তফা কামাল। সদস্যরা হলেন-প্রফেসর ড. মোঃ কামাল উদ্দিন, প্রফেসর ড. মোঃ জাকারিয়া রহমান, প্রফেসর ড. মোঃ মাহ্বুবুর রহমান, প্রফেসর ড. কাজী আখতার হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ  আলমগীর হোসেন ভূইয়া, প্রফেসর ড. মোহাঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন,  প্রফেসর ড. রেবা মন্ডল, প্রফেসর মোঃ ইব্রাহীম  আব্দুল্লাহ এবং ড. প্রদীপ কুমার অধিকারী। উল্লেখ্য গত ২৯ জুন ক্যাম্পাসে উৎসব মুখর পরিবেশে শাপলা ফোরামের ২৩৫ জন সদস্যের মধ্যে ২০৯ জন সদস্য সরাসরি ব্যালোটের মাধ্যমে তাঁদের ১৫ জন প্রতিনিধি নির্বাচিত করেন। গতকাল রবিবার দুপুরে নির্বাচিত ১৫ জনের মধ্য থেকে এক বছর মেয়াদী এ কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন করা হয়।

এরশাদের শারীরিক অবস্থার সামান্য উন্নতি – জিএম কাদের

ঢাকা অফিস ॥ সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শারীরিক অবস্থার সামান্য উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। তিনি বলেন, ‘ডাক্তাররা জানিয়েছেন, তিনি কালকে (শনিবার) যেরকম ছিলেন, সেরকমই আছেন। অবস্থার অবনতি হয়নি। কোনো কোনো ক্ষেত্রে সামান্য উন্নতি হয়েছে।’ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে গতকাল রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে জিএম কাদের এরশাদের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে এসব তথ্য জানান। জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আরও বলেন, আজও পল্লীবন্ধুর ডায়ালাইসিস চলছে। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল-সিএমএইচের চিকিৎসকরা পল্লীবন্ধুকে বিশ্বমানের চিকিৎসা দিচ্ছেন। অত্যাধুনিক হেমো পারফিউশন এবং হেমো ডায়া ফিল্টারেশন এর মাধ্যমে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রক্ত থেকে অপ্রয়োজনীয় পানি, বর্জ্য অপসারণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এরশাদের শ্বাস-প্রশ্বাসসহ অন্যান্য অঙ্গ-প্রতঙ্গ কৃত্রিমভাবে সচল রাখা হয়েছে। চিকিৎসকরা আশা করছেন, ধীরে ধীরে পল্লীবন্ধুর শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে উঠবে। তিনি সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন। এরশাদের চিকিৎসায় রক্তদাতাদের হাসপাতালে ভিড় করার বিষয়টি উল্লেখ করে জি এম কাদের বলেন, পল্লীবন্ধুর রক্ত প্রয়োজন এমন সংবাদে হাজারো মানুষ সিএমএইচ-এ লাইন দিয়েছিলেন। অনেকেই রক্ত দিয়েছেন আবার অনেকেই রক্ত দেয়ার জন্য তালিকাভূক্ত হয়েছেন। পল্লীবন্ধুর জন্য সাধারণ মানুষের এই ভালোবাসায় আমরা কৃতজ্ঞ। এছাড়া গত শুক্রবার সারোদেশের সব মসজিদ এবং মন্দিরে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রোগমুক্তি এবং সুস্থতা কামনা দোয়া অনুষ্ঠানের জন্যও দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। এসময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া গুজব ও বিভ্রান্তিকর তথ্যে দেশবাসীকে বিভ্রান্ত না হতে অনুরোধ জানান। তিনিও দেশবাসীর কাছে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রোগমুক্তি এবং সুস্থতা কামনা দোয়া প্রার্থনা করেছেন। এর আগে বেলা ১১টায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রোগমুক্তি ও সুস্থ্যতা কামনায় বিশেষ দোয়ার আয়োজন করে জাতীয় ওলামা পার্টি। এসময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, এস এম ফয়সল চিশতী, এটিইউ তাজ রহমান, মেজর (অব.) মো. খালেদ আখতার, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, উপদেষ্টা ড. নুরুল আজাহার, ভাইস চেয়ারম্যান- নুরুল ইসলাম নুরু, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, যুগ্ম মহাসচিব- হাসিবুল ইসলাম জয়, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য ইসাহাক ভূঁইয়া, মো. জসীম উদ্দিন, মো. হেলাল উদ্দিন, সুলতান মাহমুদ, মো. বেলাল হোসেন, এম এ রাজ্জাক খান, সুমন আশরা, কেন্দ্রীয় নেতা মো. মহিবুল্লাহ, আব্দুল বাতেন, মাসুদুর রহমান চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আবু তৈয়ব, আনোয়ার হোসেন তোতা। ২৬ জুন এরশাদকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৪ জুলাই তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। শুক্রবার ও রোববার তার কিডনীর ডায়ালাসিস করানো হয়।

দৌলতপুরে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের আহ্বান করা দরপত্রের লটারী

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের তত্বাবধানে ব্রীজ বা কালভার্ট নির্মানের জন্য আহ্বান করা দরপত্র লটারীর মাধ্যমে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় এ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুর ১২টায় উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে দরপত্র সংগ্রকারী বিভিন্ন ঠিকাদার, উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কির আহমেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুন আলেয়াসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধাদের উপস্থিতিতে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। দৌলতপুর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ২০টি ব্রীজ বা কালভার্ট নির্মানে দরপত্র আহ্বান করা হলে কুষ্টিয়া জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও জেলার বাইরে বিভিন্ন জেলার ঠিকাদারসহ দৌলতপুর উপজেলার ঠিাকাদারগণ দরপত্রে অংশ নেন। ২০টি গ্র“পে দরপত্রে অংশ নেওয়া ঠিকাদারদের নামের তালিকা করে পর্যায়ক্রমে লটারী করা হয়। প্রতিটি গ্র“পেই শতাধিক ঠিকাদার দরপত্রে অংশ নেন। দৌলতপুর প্রকল্পবাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাইদুর রহমান লটারী কার্যক্রম সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে সার্বিক সহযোগিতা করেন। ২০টি ব্রীজ বা কালভার্ট নিমার্নে প্রায় সাড়ে ৪কোটি টাকা ব্যয় হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছেন।

আজও ব্যবস্থা নেয়া হয়নি

ইবি কর্মকর্তা আতাউল হকের খুঁটির জোর কোথায় ?

নিজ সংবাদ ॥ “কুষ্টিয়াতে ইবি প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকারীরা আজও অবমূল্যায়িত’ বিরোধীতাকারী আতাউল হক গংরা দাপটের সাথে চাকুরী করছে” এ শিরোনামে গত ২৭ মে কুষ্টিয়ার বেশ কিছু স্থানীয় এবং অনলাইন পত্রিকায় তথ্য ভিত্তিক সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত সংবাদে কুষ্টিয়াতে ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করে গাজীপুরে ক্যাম্পাস রাখার ষড়যন্ত্রকারীদের মুল হতো ইবি তথ্য, প্রকাশনা ও জনসংযোগ অফিসের উপ-পরিচালক আতাউল হকের আসল চেহারা  বেড়িয়ে আসে। দীর্ঘদিন পরে হলেও তথ্য র্ভিত্তিক এ সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় কুষ্টিয়াতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার আন্দোলনকারীরা এবং কুষ্টিয়াবাসীসহ আতাউল হকের অত্যাচারের স্বীকার ইবি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আশায় বুক বেঁধে ছিলেন, এবার হয়তো আতাউল হক তার অপকর্মের প্রকৃত সাজা পাবেন। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। আজও তার বিরুদ্ধে কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি ইবি প্রশাসন। পাশাপাশি আতাউল হক নিজেকে ক্ষমতাধর ভেবে আরও দাপটের সাথে চলছেন। এমনকি সরাসরি আতাউল হকের নাম উলে¬খ করে তার অপকর্মের সংবাদ প্রকাশিত হলেও তিনি নিজেকে অপরাধী না ভেবে উল্টো সাংবাদিকদের অপরাধি করে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়ে বিভিন্ন পত্রিকা অফিসে সাদা কাগজে নিজ স্বাক্ষরিত প্রতিবাদ ডাক যোগে প্রেরণ করেছেন। তিনি প্রতিবাদ লিপিতে উলে¬খ করেছেন-শিরোনামে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জড়িয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতি আমার দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় যখন শিক্ষা, প্রশাসনিক ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় আন্তর্জাতিকীকরণের পথে অগ্রসরমান ঠিক সেই মুহুর্তে এ ধরণের অপপ্রচার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে হীন ষড়যন্ত্রেরই অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছুই নয়। তার এ প্রতিবাদটি সাংবাদিক মহলে দাগ কেটেছে। কারণ প্রকাশিত সংবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রশাসনকে জড়িয়ে কোন কথা উলে¬খ করা না হলেও তিনি কিভাবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জড়িয়ে এ ধরনের প্রতিবাদ প্রেরণ করলেন। এর প্রেক্ষিতে বিষয়টি উলে¬খ করে গত ১৫ জুন এবং ২২ জুন দু’টি পত্রিকার পক্ষ থেকে ইবি রেজিস্ট্রার (ভার:) নিকট আবেদন করা হয়। আবেদনে উলে¬খ করা হয় আতাউল হক তার ব্যক্তিগত প্রতিবাদ লিপিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জড়িয়ে এধরনের কথা লিখতে পারেন কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য এবং আলোচিত সংবাদটি আমলে নেয়ার জন্য। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে আজও এ বিষয়ে কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। আর এ সুযোগে আতাউল হক সকলকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে দাপটের সাথে চলছেন। তিনি নিজেকে সর্বেসর্বা মনে করছেন। এ ঘটনায় বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে আতাউল হকের খুঁটির জোর কোথায়? তিনি অপকর্ম করেও কি পার পেয়ে যাবেন। কোন অদৃশ্য কারণে তার বিষয়ে সবাই নিরব। তাঁরা আরও বলেন, বর্তমান প্রশাসন অত্যন্ত বিচক্ষণ, দক্ষ এবং সাহসী প্রশাসন। আশারাখি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিদ্রুত এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গ্যাসের বাড়তি দাম

১৪ জুলাই জ্বালানি মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি বাম জোটের

ঢাকা অফিস ॥ গ্যাসের বাড়তি দাম প্রত্যাহার করা করা না হলে আগামী ১৪ জুলাই বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের ঘোষণা দিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। এছাড়া ওইদিন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশের কর্মসূচিও রেখেছে জোট। গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে গতকাল রোববার সারাদেশে আধাবেলা হরতাল পালনের পর নতুন এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। বাম জোটের হরতালে বিএনপিও সমর্থন দিয়েছিল। হরতাল শেষে পল্টন মোড়ে এক সমাবেশে জোটের সমন্বয়ক ও ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু বলেন, “দেশের মানুষের অতিপ্রয়োজনীয় হল গ্যাস, এই গ্যাসের দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সব পণ্যের দাম বাড়বে, কারখানার উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে, এর প্রভাব পড়বে সাধারণ জনগণের ওপর। আমরা সরকারকে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহ্বান জানাই। সরকার যদি আমাদের এই আহ্বান না মেনে নেয় তাহলে আগামী ১৪ জুলাই সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ এবং একই দিনে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ঘেরাও করা হবে।” এরপরও সরকার বাম জোটের দাবি মেনে না নিলে ১৯ জুলাই বাম দলগুলো প্রতিনিধি সম্মেলন করে পরবর্তিতে লাগাতার কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানান তিনি। “এরপরও সরকার গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরে না এলে কর্মসূচির মাধ্যমে সারাদেশ অচল করে দেওয়া হবে।” সমাবেশে সিপিবির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলণের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাফি রতন, যুগ্ন সম্পাদক সাজ্জাদ জহির চন্দন প্রমুখ বক্তব্য দেন। সকাল ৬টা থেকে হরতালের মধ্যে রাজধানীর পল্টন, প্রেসক্লাব, শাহবাগ এলাকায় থেমে থেমে বৃষ্টির মধ্যেই মিছিল করছেন সিপিবি, বাসদ, বিপ¬বী ওয়ার্কার্স পার্টি, গণসংহতি আন্দোলনসহ জোটভুক্ত বাম সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা। প্রগতিশীল ছাত্র জোটের কর্মীরা শাহবাগ এলাকায় সড়বে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করায় ওই মোড় হয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। তবে রাজধানীর অন্যান্য এলাকায় যানবাহন চলেছে স্বাভাবিকভাবে। হরতালে বিশৃঙ্খলা এড়াতে বিভিন্ন মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অবস্থান নিয়ে থাকতে দেখা গেছে।

‘মরিচা’ ধরা হরতাল আর গণআন্দোলনের অস্ত্র নয় – কাদের

ঢাকা অফিস ॥ গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে সারা দেশে বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকা আধাবেলা হরতালে কোনো আবেদন ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।গতকাল রোববার দুপুরে ধানমন্ডিতে দলীয় সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যাকলয়ে সম্পাদকমন্ডলীর সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি এ কথা বলেন।বাম জোটের হরতালকে আওয়ামী লীগ কিভাবে দেখছে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “জনগণের পক্ষ থেকে এই হরতালের কোনো আবেদন কেউ কি কোথাও দেখেছেন? কোথাও কি আপনারা হরতালের চিহ্ন পেয়েছেন? ঢাকা শহরের চিরপরিচিত দৃশ্য আজও বহাল আছে। আমি মনে করি বাংলাদেশে যারা মনে করেন হরতালের মাধ্যমে গণআন্দোলন করা যাবে, হরতাল এখন গণআন্দোলনের অস্ত্র নয়। হরতাল নামক অস্ত্রটিতে মরিচা ধরে গেছে। আন্দোলনের জন্য এখন হরতাল কার্যকর নয়।”গ্যাসের বাড়তি দাম মেনে নিতে এর আগে আহ্বান জানানো কাদের আবারও এই মূল্যবৃদ্ধিকে যৌক্তিক বলেন।“গ্যাসের দামের ব্যাপারে আবারও বলি, সমন্বয় করার জন্য গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। সরকারকে যে ভর্তুকি দিতে হত, এখনও দিতে হবে। কাজেই গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি বাস্তব এবং যুক্তিসম্মত।”গ্যাসের দাম বৃদ্ধির পিছনে এলএনজি কোম্পানিকে সুবিধা দেওয়াই সরকারের মূল লক্ষ বলে বিশিষ্টজন এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তকব্যের প্রতিক্রিয়ায় ওবায়দুল কাদের বলেন, “এটা সরকারবিরোধীদের কথা, বিরোধীদল বলার জন্য বলছে।”সম্পাদকমন্ডলীর সভায় ১৫ আগস্ট সামনে রেখে মাসব্যাপী কর্মসূচি, জাতীয় সম্মেলনের সাংগঠনিক প্রস্তুতি, বিভিন্ন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের বিরুদ্ধাচরণ নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান তিনি।“ডিসিপ্লিন ব্রেক করে, আশকারা পেলে এর প্রবণতা বাড়ে। তাই আমরা এর লাগাম টেনে ধরতে চাই। তাদের বিষয়ে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে ওয়ার্কিং কমিটির মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হবে। কেউ এমপি, মন্ত্রী হয়ে দলের বিরুদ্ধে কাজ করলে তাকে মনোনয়ন নাও দেওয়া হতে পারে, কম গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হতে পারে। নানা রকম শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে,” বলেন কাদের। আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রমের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সদস্য সংগ্রহ অভিযান সম্ভাব্য ২১ জুলাই শুরু হবে। তবে এর আগে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, এ কে এম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আইন বিষয়ক সম্পাদক রেজাউল করিম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় সদস্য রিয়াজুল কবির কাওছার, মারুফা আক্তার পপি।

 

সৌদি আরবের দুই বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা

ঢাকা অফিস ॥ সৌদি আরবের সীমান্তবর্তী দুটি বিমানবন্দরে আবারও ড্রোন হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিরুদ্ধে লড়াইরত বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুতি। শনিবার ওই হামলা চালানো হয় আনাদোলুর খবরে প্রকাশ। তবে ওই ড্রোন বিমানবন্দর দুটিতে আঘাত হানার আগেই আকাশে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে বলে দাবি সৌদি নিরাপত্তা বাহিনীর। হুতিনিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম আল মাসিরাহ জানিয়েছে, সানা থেকে পাঠানো কাসেফ-২কে ড্রোনটি সৌদি আরবের আভা ও জিহান বিমানবন্দরে আঘাত হেনেছে। সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব সামরিক জোট এক বিবৃতিতে জানায়, আঘাত হানার আগেই হুতিদের ছোড়া ওই ড্রোনে গুলি চালিয়ে ভূপাতিত করা হয়েছে। এতে বিমানবন্দরের কোনো ক্ষতি হয়নি। ইয়েমেনের রাজধানী সানা থেকে সৌদি আরব লক্ষ্য করে ওই ড্রোন হামলা চালানো হয় বলে দাবি আরব জোটের মুখপাত্র কর্নেল তুর্কি আল-মালিকির। তিনি বলেন, সৌদি আরবের আকাশে প্রবেশের আগেই ড্রোনটিকে মাটিতে নামানো হয়েছে। এক বিবৃতিতে হুতি বিদ্রোহীদের মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারির দাবি, কাসেফ-২ কে নামের ড্রোন ব্যবহার করে সৌদি আরবের আভা ও জিহান বিমানবন্দরে হামলা চালিয়েছে তারা। ইয়েমেনের সীমান্তবর্তী এ দুই টার্গেটে ড্রোনটি আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে। হামলার পর এ দুই বিমানবন্দরের বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। সম্প্রতি সৌদি আরবের সীমান্তবর্তী বিভিন্ন প্রদেশে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা বাড়িয়েছে ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিরুদ্ধে লড়াইরত হুতি বিদ্রোহীরা। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদসহ দেশটির আরও কয়েকটি শহরে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালিয়েছে তারা। গত মে মাসের শেষ দিকে পবিত্র নগরী মক্কা ও জেদ্দায় হুতিদের নিক্ষেপিত দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করে সৌদি প্রতিরক্ষা বাহিনী। ওই মাসেই সৌদির নাজরান বিমানবন্দরে তিনবার হামলা চালানোর দাবি করে হুতি। সূত্র, আনাদোলু, এবিসি নিউজ

 

অনাবাদি পদ্মার চরে চিনা বাদাম চাষ করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছেন দৌলতপুরের চাষীরা

শরীফুল ইসলাম ॥ অনাবাদি পদ্মার চরে চিনা বাদাম চাষ করে এবছরও ব্যাপক সাফল্য পেয়েছেন কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের চরাঞ্চলের চাষীরা। উপজেলার রামকৃষ্ণপুর, চিলমারী, মরিচা ও ফিলিপনগর ইউনিয়নের পদ্মা নদীর বিস্তীর্ণ চরে সোনলী ফসল বাদাম চাষ করে সাফল্যের অর্থ ঘরে তুলেছেন তারা। অর্থকরী এ ফসল চাষ করে সংসারে স্বচ্ছলতা এসেছে দরিদ্র চরবাসির। সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা পেলে ক্ষতিকর তামাক চাষ না করে অর্থকরী বাদাম চাষে আরও বেশী আগ্রহী হবেন তারা।  পদ্মার চরজুড়ে বালির নীচ থেকে টান দিলেই উঠে আসছে থোকা থোকা দানাভরা সোনালী ফসল বাদাম। জেগে ওঠা পদ্মা নদীর বুক জুড়ে এক সময় মাইলের পর মাইল ধুধু বালু চর লক্ষ্য করা যেত। যা চরবাসীদের কোন কাজেই আসতো না। কিন্তু গত কয়েক বছর পূর্বে স্বল্প পরিসরে চাষীরা চিনা বাদামের চাষ শুরু করেন। তারা সাফল্য পাওয়ায় ক্রমান্বয়ে লাভজনক এ অর্থকরী ফসলের চাষ পুরো চরে ছড়িয়ে পড়েছে। চলতি মৌসুমে চরাঞ্চালে প্রায় সাড়ে ৮হাজার হেক্টর জমিতে চিনা বাদামের চাষ হয়েছে। বিঘা প্রতি ৬-৮ মন হারে ফলনও হচ্ছে। ২৫’শ টাকা মন বিক্রয় করে খরচ বাদ দিয়ে লাভ হওয়ায় দরিদ্র চাষীদের সংসারে সুদিন ফিরেছে। কৃষি বিভাগের সহায়তা পেলে চরজুড়েই অর্থকরী ফসল বাদাম চাষ করে সারা বছরের অর্থের যোগান দেওয়া সম্ভব হবে বলে জানান মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীরচর গ্রামের বাদাম চাষী সাইদুর রহমান। এদিকে বাদাম ক্ষেতে কাজ করে দিন মজুররাও চরম খুশি। তারাও কৃষকের বাদাম ক্ষেতে গাছ থেকে বাদাম ঝরিয়ে প্রতিদিন প্রায় আড়াইশত থেকে তিনশত টাকা আয় করেছেন। আর এমটাই জানলেন আয়েসা খাতুন নামে এক নারী শ্রমিক। এদিকে বাদামের ব্যবসা লাভজনক হওয়ায় চাষীদের পাশাপাশি ব্যবসায়ীরাও খুশি। কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও প্রয়োজনীয় প্রনোদনা দেওয়ায় এবছর বাদাম চাষে ভাল ফলন হয়েছে। তামাক চাষে অনাগ্রহী করতে আর চরের অনাবাদি জমি বাদাম চাষের আওতায় আনা যায় সে লক্ষ্যে কৃষি বিভাগ কাজ করছে বলে জানিয়েছে দৌলতপুর কৃষি কর্মকর্তা এ কে এম কামরুজ্জামান। দৌলতপুরের পদ্মাচরে প্রায় আড়াই হাজার হেক্টর জমিতে কোন ফসল হয় না। এসব জমি বাদাম চাষের আওতায় আনা গেলে একদিকে যেমন চরের দরিদ্র কৃষকদের মুখে হাসি ফুটানো সম্ভব হবে, অপরদিকে অর্থকরী ফসল বাদাম চাষ করে সারা বছরের আর্থিক চাহিদা পুরন করা সম্ভব হবে এমনটাই মনে করেন চরবাসী।

নবায়ন হচ্ছে না ওয়ালশের চুক্তি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বিশ্বকাপ দিয়েই শেষ হয়েছে বাংলাদেশের বোলিং কোচ হিসেবে ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি কোর্টনি ওয়ালশের চুক্তি। বিসিবি অবশ্য আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি। তবে এমনিতেই চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ায় ঘোষণার প্রয়োজনও পড়ছে না। বোর্ড সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে, ওয়ালশের চুক্তি নবায়ন করা হচ্ছে না। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হওয়ার পর লন্ডনের একটি হোটেলে সভায় বসেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান ও বেশ কয়েকজন বোর্ড পরিচালক। আগে থেকেই অনেকটা এগিয়ে রাখা সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে এই সভায়। ওয়ালশ নিজেও মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলেন বলে জানা গেছে। আপাতত মাসখানেক লন্ডনে সময় কাটিয়ে তিনি ফিরবেন নিজের দেশ জ্যামাইকায়। বোলিং কোচের পাশাপাশি ফিজিও তিহান চন্দ্রমোহনের চুক্তিও নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। কাজের ক্ষেত্রে তার দক্ষতা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই প্রশ্ন উঠছিল। ক্রিকেটাররা এই ফিজিওর ওপর আস্থা পাচ্ছিলেন না বলে খবর শোনা গেছে নানা সময়। এই মাসের শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে পেস বোলিং কোচ হিসেবে যেতে পারেন চম্পাকা রামানায়েকে। বিসিবি একাডেমি, ডেভেলপমেন্ট ও নানা সময়ে ‘এ’ দলের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করে আসছেন এই শ্রীলঙ্কান। চন্দ্রমোহনের জায়গায় দলের সাবেক ফিজিও দক্ষিণ আফ্রিকার বিভব সিংকে আবার আনতে যোগাযোগ শুরু করেছে বোর্ড। পারফরম্যান্স অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরনের চুক্তি দুই বছর বাড়ানো হয়েছে বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার আগেই। বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি ছিল ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি ও ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকেরও। ম্যাকেঞ্জির কাজে দারুন সন্তুষ্ট  বোর্ড ও ক্রিকেটাররা। তার চুক্তি নবায়নের প্রস্তাব দিয়েছে বিসিবি, ম্যাকেঞ্জিও রাজি হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে দল শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে সেখানে নাও থাকতে পারেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান। বিশ্বকাপে এবার বাংলাদেশের ব্যর্থতার অন্যতম বড় কারণ ছিল ফিল্ডিং। ক্যাচ পড়েছে ৮-১০টি। যেটির চড়া মূল্য দিতে হয়েছে দলকে। গ্রাউন্ড ফিল্ডিংও ছিল বাজে। তবে ফিল্ডিং কোচ কুকের প্রচেষ্টায় বোর্ড সন্তুষ্ট বলে জানা গেছে। তার চুক্তিও বাড়ানো হতে পারে। স্পিন বোলিং কোচ সুনীল যোশী দিন হিসেবে বেতন পান। তাকে নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোন সিদ্ধান্ত আপাতত হয়নি সভায়। প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের সঙ্গে চুক্তি আগামী বছরের অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত। বিশ্বকাপে দলের ব্যর্থতার পর তাকে নিয়েও কথা হয়েছে সভায়। তবে সম্ভাব্য শ্রীলঙ্কা সফরে রোডসই থাকছেন কোচ, এটি নিয়ে সন্দেহ নেই।