দৌলতপুর সীমান্তে ভারতীয় মদ উদ্ধার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ভারতীয় মদ উদ্ধার হয়েছে। রবিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে রামকৃষ্ণপুর বিওপি’র টহল দল ঠোটারপাড়া মাঠে অভিযান চালিয়ে ১০০বোতল ভারতীয় জেডি মদ উদ্ধার করেছে। অপরদিকে রংমহল বিওপি’র টহল দল একইদিন রাত পৌনে ৯টার দিকে খাসমহল কবরস্থানে অভিযান চালিয়ে মাত্র ৯ বোতল ভারতীয় বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে। তবে বিজিবি’র এসব মাদক বিরোধী অভিযানে কোন মাদক ব্যবসায়ী বা পাচারকারী আটক হয়নি।

গাংনী পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন

গাংনী প্রতিনিধি ॥ সরকারী কোষাগার থেকে বেতন ভাতা ও পেনশন সুবিধার দাবিতে মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করেছেন। গতকাল সোমবার সকালে গাংনী পৌরসভার প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে কর্মবিরতি পালন করা হয়। এসময় পৌরসভাতে বিভিন্ন কাজের জন্য আসা  সেবাগ্রহীতারা ভোগান্তিতে পড়ে।

ঝিনাইদহে নলকূপের পাইপ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় একটি নলকূপের গোড়া দিয়ে গ্যাস বের হচ্ছে। ম্যাচের কাঠি দিয়ে আগুন জ্বালানোর পর থেকে গত পাঁচদিন ধরে ওই নলকূপের গোড়ায় আগুন জ্বলছে। এ অবস্থায় টিউবওয়েলের পাইপের চারপাশ ইট-খোয়া, সিমেন্ট দিয়ে ঢালাই দেয়া হলেও ঢালাই ভেদ করে বের হচ্ছে গ্যাস। জানা যায়, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বিষয়খালীতে মাঠের মধ্যে সাদমান এগ্রো ফুড লিমিটেড কারখানার পাশে একটি কোয়ার্টার নির্মাণের কাজ চলছে। সেখানে একটি টিউবওয়েল বসানো হয়। ২৩০ ফুট গভীরের টিউবওয়েলের গোড়ার পাইপ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস। স্থানীয়রা জানান, ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের বিষয়খালীতে সড়কের পূর্ব পাশের মাঠে সাদমান কারখানা এলাকায় একটি টিউবওয়েল বসানো হয়। গত বৃহস্পতিবার হঠাৎ করে টিউবওয়েলের গোড়ার পাইপ দিয়ে বের হয় গ্যাস। ম্যাচের কাঠি দিয়ে আগুন জ্বালানোর পর থেকে গত পাঁচদিন ধরে ওই নলকূপের গোড়ায় আগুন জ্বলছে। খবর পেয়ে উৎসুক জনতা তা দেখতে ভিড় করেন। গ্যাসের গতি থামাতে টিউবওয়েলের গোড়ায় ঢালাই করে দেয়া হয়। এরপরও সেখান থেকে গ্যাস বের হচ্ছে। নলকূপের পাশে কোয়ার্টারে কাজ করা এক নির্মাণ শ্রমিক বলেন, গত কয়েকদিন ধরে টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে বের হচ্ছে গ্যাস। ম্যাচের কাঠি দিয়ে আগুন জ্বালানোর পর থেকে নলকূপের গোড়ায় আগুন জ্বলছে। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ ফায়ার স্টেশন অফিসার দিলিপ কুমার বলেন, টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে অনবরত গ্যাস উঠতে থাকলে ক্ষতির আশঙ্কা নেই। তবে ঢালাই দেয়া হলে গ্যাস নিচে থেকে শক্তি বৃদ্ধি পেয়ে অঘটনের আশঙ্কা থাকে। সামগ্রিক বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম সেখানে যাবে।

হরিনারায়নপুর ইউনিয়ন বিএনপি নেতা সিদ্দিকুর রহমানের মৃত্যুতে অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিনের শোক

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিনারায়নপুর ইউনিয়ন বিএনপি’র সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান রবিবার রাত আনুমানিক ১২টার সময় নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না লিল্লাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। তিনি এক ছেলে এক মেয়ে ও স্ত্রী সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল বাদ যোহর হরিনারায়নপুর ঈদগাহ মাঠে জানাজা শেষে গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়। সিদ্দিকুর রহমানের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। তিনি মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। তিনি শোক বার্তায় আরো উল্লেখ করেন, সিদ্দিকুর রহমান ছিলেন বিএনপি’র নিবেদিত প্রাণ। তার মৃত্যুতে হরিনারায়নপুর ইউনিয়ন বিএনপি অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। উল্লেখ্য, অধ্যক্ষ  সোহরাব উদ্দিন নিজে মরহুমের বাড়িতে ছুটে যান এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পরবর্তীতে তিনি জানাজায় অংশ নিয়ে দাফন সম্পন্ন করে আসেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ট্রাম্প-কিম বৈঠকের প্রশংসায় পোপ, শান্তির আশাবাদ

ঢাকা অফিস ॥ উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বৈঠকের গুরুত্বপূর্ণ এ পদক্ষেপ শান্তি বয়ে আনবে, বলেছেন পোপ ফ্রান্সিস। দুই কোরিয়ার সীমান্ত এলাকায় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠককে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে প্রশংসা করেছেন রোমান ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। এ উদ্যোগ শান্তি বয়ে আনবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। পিটার্স স্কয়ারে হাজার হাজার মানুষের উদ্দেশে পোপ তার সাপ্তাহিক ভাষণে বলেন, “গত কয়েক ঘন্টায় আমরা কোরিয়ায় মেলবন্ধনের এক চমৎকার উদাহরণ দেখলাম। এর হোতাদের আমি স্যালুট করছি।” “সেইসঙ্গে এও প্রার্থনা করছি যেন এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ শান্তি প্রতিষ্ঠার পথে আরো একধাপ এগিয়ে যায়। কেবল কোরিয়া উপদ্বীপই নয় বরং গোটা বিশ্বের ভালর জন্যই যেন তা হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসাবে ডনাল্ড ট্রাম্পই প্রথম রোববার উত্তর কোরিয়ায় পা রেখেছেন।  দুই কোরিয়ার মধ্যবর্তী অসামরিক এলাকায় (ডিএমজেড)  সাক্ষাৎ করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে। বৈঠকে থমকে থাকা পরমাণু আলোচনা ফের শুরুও করতে রাজি হয়েছেন ট্রাম্প এবং কিম। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন এর আগে কিমের পক্ষ থেকে মৌখিকভাবে পোপকে উত্তর কোরিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। ভ্যাটিকানের কর্মকর্তারা বলছেন, শান্তির জন্য সহায়ক হলে কয়েকটি শর্তসাপেক্ষে উত্তর কোরিয়া সফরের ইচ্ছা রয়েছে পোপের। এ বছরই জাপান সফরের কথা রয়েছে পোপের। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন জানান, পোপ তাকে বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কাছ থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক, লিখিত আমন্ত্রণ পেলে তিনি অবশ্যই এর উত্তর দেবেন। তবে এ ধরনের কোনো আমন্ত্রণ এখনো জানানো হয়নি।

চুয়াডাঙ্গা কমলাপুর পিটিআই কর্তৃক আয়োজিত বার্ষিক সাংস্কৃতিক ও রচনা প্রতিযোগীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ

শাহ আলম মন্টু ॥ চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কমলাপুর পিটিআই কর্তৃক আয়োজিত বার্ষিক সাংস্কৃতিক ও রচনা প্রতিযোগীদের পুরস্কার বিতরণ আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উলে¬খ্য ঐতিহাসিক ৭ মার্চ, ১৭ এপ্রিল রচনা প্রতিযোগিতা ও বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। তারই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল সোমবার বিকাল ৫টায় পিটিআই হলরুমে ওই পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। কমলাপুর পিটিআই ইন্সট্রাকটর আলাউদ্দিনের উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কমলাপুর পিটিআই সুপার মোল্যা শহীদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী সুপার আব্দুল মান্নান, ইন্সট্রাক্টর মোঃ আরিফ, মুন্সী শহিদুল ইসলাম, হারুন অর রশিদ। শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপস্থিত থেকে পুরস্কার প্রাপ্তিতে হ্যাট্টিক করেছেন ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ ও ১৭ই এপ্রিলের উপর রচনা প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান ও সাধারণ নৃত্যে ৩য় স্থান অধিকার করেন খান মোহাম্মদ জামিরুল ইসলাম (জামিল)। পুরস্কার  নেন আমিনুল ইসলাম, শিউলী খাতুন, আমানত আলি, ওয়াসিম আলি, সেলিম, মশিয়ারসহ বেশ ক’জন। এছাড়াও এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রবিউল ইসলাম, ফরিদ হোসেন, আব্দুস সালাম, আওয়াল, শাফায়েত, ঝন্টু, সোনিয়া, লাবনি, মাজেদা, শাফিয়া, জুয়েল, আলিম, সেলিম, আবু বকর সিদ্দিক, আখি তারা, নাছিমা, ইমাজ, আব্দুস সালাম, কবরি, সাবিনা, কবিতা, পূবন, জিনিয়া নাজমা, নাহিদা প্রমুখ।

কুমারখালীতে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি পালন

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শতভাগ বেতন-ভাতা, পেনশন প্রথা চালু এবং জনপ্রতিনিধিদের সন্মানীভাতা প্রদানসহ নানাবিধ দাবীতে কুষ্টিয়ার কুমারখালী পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করেছে। বাংলাদেশ পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বানে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত পৌর ভবনের সামনে বসে এই অবস্থান কর্মসূচী পালন করা হয়। কেন্দ্র ঘোষিত দুই দিনের উক্ত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আজও মঙ্গলবার পৌর সভার সকল প্রকার নাগরিক সেবা বন্ধ রেখে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করবে। পৌর ভবনের প্রতিটি কক্ষে তালা ঝুলিয়ে কর্মবিরতি পালন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করার কারনে সাময়িক ভাবে নাগরিক সেবা বন্ধ রয়েছে, এই সাময়িক অসুবিধার জন্য সকল নাগরিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন কুমারখালী পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল হালিম ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান টুটুল। দুপুরে কর্মবিরতি সমাবেশে উন্মুক্ত বক্তব্য প্রদান করা হয়। এসময় “এক দেশে দুই নীতি মানিনা-মানবোনা” বলে শ্লোগান দেয়া হয়। বক্তারা বলেন, আগামী ১৩ জুলাইয়ের মধ্যে আমাদের দাবী সরকার মেনে না নিলে পরদিন ১৪ জুলাই থেকে কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বানে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করা হবে। উল্লেখ্য, কুমারখালী পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ৩৩ মাস বেতন-ভাতা বকেয়া রয়েছে। এজন্য চরম কষ্টে মানবেতর জীবন যাপন করছে তারা।

এরশাদকে নিয়ে রাজনীতি চলছে – বিদিশা

ঢাকা অফিস ॥ গুরুতর অসুস্থ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের পদ ও সম্পত্তি দখলের তৎপরতা শুরু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তার সাবেক স্ত্রী বিদিশা। গত রোববার রাতে বিদিশা তার ফেইসবুক পেইজে লিখেছেন, তিনি (এরশাদ) এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছেন। অথচ তাকে নিয়ে চলছে রাজনীতি, কেউ বা চায় তার পদ দখল করতে, কেউ বা তার স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি। ৯০ বছর বয়সী সাবেক স্বৈরশাসক এরশাদ বেশ কয়েক মাস ধরে রক্তে সংক্রমণ ছাড়াও লিভার জটিলতায় ভুগছেন। গত ২২ জুন সিএমএইচে ভর্তি করা হয় তাকে। এরপর গত রোববার সন্ধ্যায় বনানীতে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে কাদের বলেন, শনিবার পর্যন্ত এরশাদের অবস্থার উন্নতি হচ্ছিল। গত রোববার সকালে তার অবস্থা খারাপ হয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে হঠাৎ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখন তার রক্তে হিমোগে¬াবিন ঘাটতির কথা জানান চিকিৎসকরা। পরে সিঙ্গাপুরে গিয়ে চিকিৎসা করিয়ে আসেন এরশাদ। তাতেও পুরোপুরি সেরে উঠেননি তিনি। এরই মধ্যে ট্রাস্ট গঠন করে তাতে তার সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি দান করেছেন এরশাদ। বিদিশা ফেইসুবকে আরও লেখেন, স্ত্রী দেখতে পারছে না তার স্বামীকে সন্তান দেখতে পাচ্ছ না তার পিতাকে, এরকম এক নির্মমতার মধ্যে দিয়ে অতিবাহিত করতে হচ্ছে আমার দিনগুলো। সবসময়ই বুকের ভেতরটা কেঁপে উঠছে এই বুঝি কোনো দুঃসংবাদ শুনি, আর কারো কথা বলছি না আমি সাবেক রাষ্ট্রপতি হোসেন মোহাম্মদ এরশাদ সাহেবের কথা বলছি। কি নির্দয় এ সমাজের মানুষগুলো? যাদের জন্য জীবনে এত কিছু করে গেলেন তিনি, তারাই আজ তার মৃত্যু কামনা করছেন। বাবার মৃত্যু ক্ষণে ছেলেকে সুকৌশলে দূরে রাখা হচ্ছে, কেউ কেউ তাকে নিয়ে নতুন স্বপ্ন দেখাও শুরু করেছেন। আমি অতো সাত, পাঁচ বুঝিনা,আর এগুলো বুঝতে চাইও না, আমি চাই আমার ছেলেটা সুন্দরভাবে বেড়ে উঠুক, বাবার স্বপ্ন পূরণে সেও একসময় দেশ ও জাতির জন্য কাজ করবে, কিন্তু আমার ভয় হচ্ছে আমার ছেলেকে নিয়ে, ও যেন আমার মত কোনো ষড়যন্ত্রের শিকার না হয় এরিককে ষড়যন্ত্রের হাত থেকে বাঁচাতে জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদের এগিয়ে আসার আহবানও জানিয়েছেন বিদিশা।

জঙ্গিবাদের সাংগঠনিক কাঠামো ভেঙে গেছে – মনিরুল ইসলাম

ঢাকা অফিস ॥ কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান ও ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, জঙ্গিবাদের সাংগঠনিক কাঠামো ইতিমধ্যে ভেঙে গেছে । তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের যে সাংগঠনিক কাঠামো গড়ে উঠেছিল, আমরা বিভিন্ন অভিযানে তা ভেঙে দিতে সক্ষম হয়েছি। হলি আর্টিসানে হামলার মতো ঘটনা যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেলক্ষ্যে পুলিশ ও সিটিটিসি কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে বাংলাদেশকে জঙ্গিমুক্ত করা সম্ভব। তিনি গতকাল সোমবার রাজধানীর গুলশান হলি আর্টিসান বেকারিতে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন। মনিরুল ইসলাম বলেন, আজ হলি আর্টিসান বেকারিতে ভয়াবহ ও নৃশংস হামলার তৃতীয় বার্ষিকী। ৩ বছর আগে ২০১৬ সালে ১ জুলাই এই দিনে হলি আর্টিসানে নৃশংস হামলায় পুলিশের দুইজন কর্মকর্তাসহ ২২ জন নিহত হয়েছিলেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মনিরুল ইসলাম বলেন, এই হামলার সঙ্গে যারা নব্য জেএমবির জড়িত ছিল, তারা সবাই নিহত হয়েছে। অনেকে অভিযানে নিহত ও জীবিত গ্রেফতার হয়। আমরা আশা করছি, দ্রুত বিচার কাজ শেষ হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির মাধ্যমে নিহতের পরিবার তাদের অপূরণীয় ক্ষতির ক্ষেত্রে একটু হলেও মানসিক সান্তনা পাবেন। নাগরিক তথ্য সংগ্রহ, সরাসরি অভিযান, সচেতনতামূলক কর্মসূচিসহ ডিএমপির নানা উদ্যোগ রয়েছে উল্লেখ করে মনিরুল ইসলাম বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে বাংলাদেশকে জঙ্গিমুক্ত করা সম্ভব। তিনি বলেন, হলি আর্টিসান হামলার পরপরই শোলাকিয়ায় ঈদের জামাতে হামলার চেষ্টা হয়। একই কায়দায় আরও কয়েকটি সহিংস ও নৃশংস হামলার পরিকল্পনা ছিল। আমাদের ইনটেলিজেন্স তথ্যের মাধ্যমে, প্রি অ্যাক্টিভ অপারেশন ও প্রো অ্যাক্টিভ ইনভেস্টিগেশনের মাধ্যমে তাদের সেই পরিকল্পনাগুলো নস্যাৎ করা হয়েছে। তিনি বলেন, বৈশ্বিক, আঞ্চলিক ও জাতীয় প্রেক্ষাপটে বড় কোন ঝুঁকির মাত্রা না থাকলেও ছোট খাটো ঝুঁকি বা হামলা যাতে না ঘটাতে পারে সেলক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। কাজেই সুনির্দিষ্ট কোন হামলার তথ্য না থাকলেও সকলকে সতর্ক থাকতে হবে এবং আমরা সমবেত চেষ্টার মাধ্যমে যেকোন হামলার প্রচেষ্টাকে রুখে দিতে পারব। তিনি বলেন, বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে কখনও কখনও জঙ্গিরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠার চেষ্টা করে। কিন্তু সেটা যাতে না পারে সেজন্য আইনি প্রক্রিয়ার পাশাপাশি নাগরিক উদ্যোগের মাধ্যমে জঙ্গিবাদের ঠেকানো সম্ভব হবে। ডিএমপি’র গুলশান বিভাগের পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমেদ, গুলশান জোনের এডিসিসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া জেলা জাসদের বিশেষ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ কুষ্টিয়া জেলার বিশেষ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় কুষ্টিয়া থানামোড়স্থ দলীয় কার্যালয়ে জেলা জাসদের সভাপতি হাজি গোলাম মহসিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশেষ সভায় নেতৃবৃন্দ মতামত দিয়ে বক্তব্য রাখেন। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, জাসদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন,  কেন্দ্রীয় সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহাবুব আলী, কেন্দ্রীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পদাক শরিফুল কবির স্বপন, এমদাদুল ইসলাম আতা, জেলা জাসদের যুগ্ম-সাধারণ সম্প্দাক জিল্লুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী অসিত কুমার সিংহ রায়, প্রচার সম্প্দাক কারশেদ আলম, দপ্তর সম্প্দাক এ্যাড. জয়দেব কুমার বিশ^াস, জেলা কমিটির সদস্য আশরাফুল ইসলাম নান্নু, মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ আলী, ভেড়ামারা উপজেলা জাসদের সাধরণ সম্পাদক এসএম আনছার আলী, জাসদ নেতা আকতার হোসেন প্রমুখ। বিশেষ সভায় বক্তব্য রেখে নেতৃবৃন্দ বলেন, সারাদেশে এক অস্বাভাবিক অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক নাগরিক জীবন আজ দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে। দেশব্যাপী হত্যা-খুন, ধর্ষণ, অপহরণ, প্রকাশ্য দিবালোকে নিয়ন্ত্রনহীন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, আকণ্ঠ নিমজ্জিত ঘুষ, দুর্র্ণীতির সাথে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক ব্যর্থতার মধ্যদিয়ে জনজীবনের জানমাল নিরাপত্তাহীনতার মুখে ঠেলে দিয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মদান ২লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির মধ্যদিয়ে অর্জিত এই স্বাধীন বাংলাদেশে আজ এক গুমট পরিস্থিতির মুখে গণতান্ত্রিক রাজতৈনিক চর্চা অসম্ভব হয়ে উঠলেও মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা বিরোধীরা লেবাস পাল্টে আরও বেপরোয়া ও আগ্রাসী হয়ে উঠায় দেশ আজ জঙ্গী আতংকে নিমজ্জিত। এসব অপশক্তির বিনাশ ও প্রতিরোধ করে পরিস্থিতির উত্তরোনে দেশব্যাপী সার্বজনীন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগ্রাম গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই। বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অগ্রগামী দেশের চলমান ধারাকে অব্যহত রাখতে দেশের সকল গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ সম্পন্ন নাগরিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান করেন নেতৃবৃন্দ। এছাড়া এই সভা থেকে সাম্প্রতিক সময়ে মৃত্যু বরণকারী জাসদ পরিবারের নিকটাত্মীয়দের রূহের মাগফিরাত কামনাসহ শোকাক্রান্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয় এবং কয়েকটি দলীয় কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সিদ্ধান্ত গুলি হলো- আগামী ১৪ জুলাই প্রয়াত জাসদ নেতা মাহমুদ হোসেন সাচ্চুর মৃত্যু বার্ষিকী, ২১ জুলাই কর্ণেল তাহের দিবস পালন এবং ২৭ জুলাই জেলা কমিটির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দুবাইয়ে ভারতীয় কোম্পানিতে না খেয়ে মরছেন ১৬৮ বাংলাদেশি!

ঢাকা অফিস ॥ সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের একটি কারখানায় কয়েক মাস ধরে বেতন না পেয়ে অর্থ ও খাদ্যাভাবে ভুগছেন ১৬৮ বাংলাদেশি শ্রমিক। ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় তাদের অনেকেই অবৈধ হয়ে পড়েছেন, যে কারণে অন্য কোনো কোম্পানিতে যোগদান বা দেশেও ফিরতে পারছেন না তারা। খবর খালিজ টাইমসের। এসব বাংলাদেশি শ্রমিকের এমন করুণ অবস্থার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ কনস্যুলেটের প্রথম সচিব (শ্রম) ফকির মুহাম্মদ মনোয়ার। তিনি এক গণমাধ্যমকে জানান, দুবাইয়ে একটি ‘ভারতীয় নির্মাণ কোম্পানিতে’ বিভিন্ন দেশের প্রায় ৩০০ শ্রমিক অর্থ ও খাদ্যহীন অবস্থায় আটকে রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৬৮ বাংলাদেশি। ওই কোম্পানির পক্ষ থেকে তাদের ভিসা নবায়নের কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না বলেও জানান তিনি। এমন পরিস্থিতিতে দূতাবাসের পক্ষ থেকে ভুক্তভোগী বাংলাদেশিদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে বলে জানান ফকির মুহাম্মদ মনোয়ার। ওই ভারতীয় কোম্পানির বিষয়ে মি. মনোয়ার তথ্য দেন, সম্প্রতি ভারতীয় নির্মাণ কোম্পানিটি’ দেউলিয়া হয়ে যায়। এ কারণে সে কোম্পানির শ্রমিকদের অনেকেই গত ছয় মাস বা আরও বেশি সময় ধরে বেতন পাচ্ছেন না। এ বিষয়ে গত ২৮ জুন দেশটির জনপ্রিয় দৈনিক খালিজ টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা গেছে, ওই ভারতীয় কোম্পানিতে আটকেপড়া এসব শ্রমিকের বেশিরভাগের বেতন ৭০০ থেকে দেড় হাজার দিরহাম, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৬ থেকে সাড়ে ৩৪ হাজার টাকা, তা নিয়মিত পরিশোধ করতে পারছে না কোম্পানিটি। প্রবাসে নিজেদের এমন কঠিনতর জীবনযাপন প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমটিতে এক শ্রমিক জানান, দেশে টাকা পাঠানো তো দূরের কথা, আমাদের কাছে কোনো দিরহাম নেই যে নিজেরা খাবার কিনে খাব। আমাদের ভিসার মেয়াদও শেষ এবং পাসপোর্টও নিয়োগকারীর কাছে। ফলে অন্য কোথাও কাজ করারও সুযোগ হারিয়েছি আমরা।’ অন্য আরেক শ্রমিক খালিজ টাইমসকে বলেন, খুবই কষ্টে আছি। পথচারী বা আশপাশের দোকান থেকে খাবার চেয়ে খাচ্ছি। বলতে পারেন প্রবাসে এসে ভিক্ষা করছি। আরেকজন বলেন, আমরা শক্ত-সমর্থ ও কর্মঠ হয়ে কেন ভিক্ষা করব। আমরা সম্মানের সঙ্গে আয় করতে চাই। নিজেদের এবং আমাদের পরিবারের আর্থিক নিশ্চয়তা দিতে এখানে এসেছিলাম। ভিক্ষা করতে বা অবৈধ অভিবাসী হতে নয়। কোম্পানি তাদের ভিসা নবায়ন না করার কারণেই এমন পরিস্থিতিতে পড়েছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। এমন পরিস্থিতিতে একটি সমাধান চান ওই শ্রমিক। আর দ্রুত সমাধান না হলে বা বকেয়া পরিশোধ না করলে ওই কোম্পানিতে নিয়োগকারীর বিরুদ্ধে মামলা করার কথা শ্রমিকরা ভাবছেন বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের মি. মনোয়ার বলেন, আটকেপড়া ওসব শ্রমিককে আইনি সহায়তা ও খাদ্য দেয়া হচ্ছে। তবে এতে যে সমাধান মিলছে তা সাময়িক ও অপ্রতুল বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, স্থানীয় আইনে এ সমস্যার সমাধান বেশ জটিল। যদি শ্রমিকরা দাবি ছেড়ে দেন, তা হলে জামানতের অর্থ নিয়ে ফিরে যেতে পারবেন। তিনি বলেন, পুরো প্রক্রিয়ায় প্রায় সাত মাস লাগতে পারে। তার পরও কেউ মামলা করতে আগ্রহী হলে আমরা সহযোগিতা করব। কেউ ফিরে যেতে চাইলেও তাদের জন্য সে সুযোগ রয়েছে।

শেখ হাসিনার ট্রেনে গুলির মামলার রায় কাল

ঢাকা অফিস ॥ পাবনার ঈশ্বরদীতে ২৫ বছর আগে বিএনপি সরকারের সময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে গুলির মামলার রায় আগামীকাল বুধবার ঘোষণা করা হবে বলে আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল সোমবার যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে পাবনার অতিরিক্ত দায়রা জজ রোস্তম আলী রায়ের দিন ঠিক করে এই আদেশ দেন। এর আগে রোববার মামলার সাক্ষ্য ও জেরা শেষে একই বিচারক ৩০ আসামির জামিন বাতিল করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পাবনার জজ আদালতের পিপি আখতারুজ্জামান মুক্তা বলেন, “৩৮ জনের সাক্ষ্য নিয়ে আদালত বিচারকাজ শেষ করেছে। তারা যে সাক্ষ্য দিয়েছেন তাতে হামলার ঘটনায় আসামিদের সংশ্লি¬ষ্টতা প্রমাণিত হয়েছে। বুধবার আদালত যে রায় ঘোষণা করবে তাতে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে বলে আশা করছি।” তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী মাসুদ খন্দকার বলেন, “এ মামলায় উচ্চ আদালতে লিভ টু আপিল চলমান। এর পরও রায়ের দিন ঠিক হয়েছে। কোনো সাক্ষীই সুনির্দিষ্টভাবে অভিযুক্ত আসামিরাই যে বোমাবাজি ও গুলি করেছে তা বলেননি। রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত রায় হলে অবশ্যই আসামিরা খালাস পাবেন।” এ মামলার প্রধান আসামি ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু, পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও ঈশ্বরদী পৌরসভার সাবেক মেয়র মকলেছুর রহমান বাবলু এবং বিএনপি নেতা হুমায়ুন কবীর দুলাল আদালতে হাজির না হওয়ায় তাদের বিরদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছেন বিচারক। ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ট্রেনমার্চ করার সময় পাবনার ঈশ্বরদী রেলস্টেশনে তখনকার বিরোধী দলীয় নেতা শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনের বগি লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। তবে ওই ঘটনায় প্রাণে বেঁচে যান আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় সরকারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। হামলার ঘটনায় রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে ১৩৫ জনকে আসামি করে মামলা করলেও বিএনপির আমলে তদন্ত এগোয়নি। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে তদন্ত গতি পায়। তদন্ত শেষে পুলিশ মোকলেছুর রহমান বাবলু, জাকারিয়া পিন্টুসহ ৫২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। রাষ্ট্রপক্ষে এ মামলায় শুনানি করছেন পিপি আক্তারুজ্জামান মুক্তা। অন্যদিকে আইনজীবি নুরুল ইসলাম গ্যাদাসহ কয়েকজন আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন।

মিরপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের  ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে তিন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ১৭ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল সোমবার সকালে মিরপুর ঈগল চত্বর বাজারে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ সেলিমুজ্জান’র নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান চালায়। এ সময়ে তিনি মিষ্টির প্যাকেটের ওজন  বেশি ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি করায়, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৩৮ ও ৪৩ ধরায় উজ্জ্বল মিষ্টান্ন  ভান্ডারকে ৫ হাজার টাকা, জাহাঙ্গীর হোটেলকে ৪৩ ধারা ২ হাজার টাকা ও নিষিদ্ধ ক্যামিক্যাল এমুনিয়াম ব্যবহার করার অপরাধে রুমন বেকারীকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। এসময় মিরপুর থানার এসআই সালাউদ্দিন খাঁন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি অযৌক্তিক – গণফোরাম

ঢাকা অফিস ॥ গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধিকে অযৌক্তিক বলে তা প্রত্যাহারের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছে গণফোরাম। গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে গণফোরাম দাবি জানায়। গণফোরাম বলেছে, যে হারে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। সরকার দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ। গ্যাসের দাম বাড়িয়ে জনগণের ওপর নতুন বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। বিবৃতিতে গণফোরাম জানায়, গ্যাসের দাম বাড়ানোর ফলে গণ-পরিবহনের ভাড়া বাড়বে, শিল্পোৎপাদনে খরচ বাড়বে। গ্যাসের দাম বাড়িয়ে সরকার প্রমাণ করল যে তারা জনগণের স্বার্থে দেশ পরিচালনা করছে না। গ্যাসের যে মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে তা দ্রুত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে গণফোরাম। গত রোববার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা দেয়। আবাসিক, বাণিজ্যিকসহ সব ধরনের গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে বিইআরসি। গড়ে গ্যাসের দাম বেড়েছে ৩২ দশমিক ৮০ শতাংশ। মূল্যবৃদ্ধির এই সিদ্ধান্ত আজ ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। রান্নাঘরে যাদের গ্যাসের চুলা একটি, তারা এত দিন মাসে বিল দিত ৭৫০ টাকা। এখন থেকে গ্যাস বিল বাবদ মাসে তাদের ব্যয় হবে ৯২৫ টাকা। খরচ বেড়েছে ১৭৫ টাকা। যাদের বাসায় দুই চুলা, তারা বিল দিতে হতো ৮০০ টাকা। এখন তাদের দিতে হবে ৯৭৫ টাকা। বাসাবাড়ির গ্যাসের পাশাপাশি যানবাহনে ব্যবহার করা সিএনজির দামও বেড়েছে। সিএনজির ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটারে দাম বেড়েছে ৩ টাকা। ৪০ টাকার সিএনজি গ্যাসের দাম বেড়ে হয়েছে ৪৩ টাকা।

 

মিরপুরে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানববন্ধন

আমলা অফিস ॥ বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির আহবানে সরকারের রাজস্ব কোষাগার হতে শতভাগ বেতন ভাতা ও পেনশন সুবিধা প্রদানের দাবীতে মিরপুর পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মানববন্ধন, কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে। গতকাল সোমবার সকালে পৌর ভবনের প্রধান ফটকে এ কর্মসূচী পালন করে। এসময় পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী নিজ নিজ টেবিল থেকে ওঠে এসে পৌরসভার প্রধান ফটোকের সামনে এবং বারান্দায় সমাবেশ করে। পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারী এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আসাদুল হকের সভাপতিত্বে দাবী-দাওয়া বাস্তবায়নের স্বপক্ষে বক্তব্য রাখেন পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী আনারুল ইসলাম, কর্মচারী ইউনিয়নের সম্পাদক ছহরাপ আলী বিশ^াস, সেলিম আহম্মেদ, শহিদুল ইসলাম, সুজন আলী, মহাদেব চন্দ্র ঘোষ, সাইদুল হক, আশরাফ হোসেন, রফিকুল ইসলাম তারা, খন্দকার খাইরুল আলম, হায়দার আলী, বিল্লাল হোসেন, খাইরুল ইসলাম, মকলেছুর রহমান, সামছুল, নাছরিন, সেলিনা, মাবিয়া, রিনা খাতুন, আর্জেনা খাতুন, মোহন প্রমুখ। বক্তারা বলেন স্থানীয় সরকারের অধীনে পৌরসভা ব্যতিত অন্যান্য সকল প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা সরকারের রাজস্ব কোষাগার থেকে বেতন ভাতা পেয়ে থাকেন। কিন্ত শুধুমাত্র পৌরসভা স্থানীয় সরকারের অধীনে হওয়া স্বত্ত্বেও বেতন ভাতা সরকারী রাজস্ব কোষাগার থেকে প্রদান করা হয় না। পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নাগরিকগণের মৌলিক চাহিদা পূরণে জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মানুষের সেবা দিয়ে থাকেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল নাগরিকদের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দেওয়ার কাজেও আমরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছি। যেখানে বর্তমান সরকারের অঙ্গীকার স্থানীয় সরকার শক্তিশালী করণ, সু-শাসন প্রতিষ্ঠা, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন এবং ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা। সেখানে বাংলাদেশের হাতে গোনা কয়েকটি পৌরসভা ব্যতিত অন্যান্য সকল পৌরসভায় নিয়মিত বেতন ভাতা হয়না এবং মাসের পর মাস বেতন বকেয়া থাকে। নিয়মিত বেতন ভাতা না হওয়ায় পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীগন পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করেন। এ বিষয়ে সকল মেয়র মহোদয়গন অবগত আছেন এবং ইতোমধ্যে তাঁরা দাবীর প্রতি একমত পোষন করেছেন। বক্তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী, অর্থ মন্ত্রী এবং আইনমন্ত্রীর প্রতি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা ও পেনশন সুবিধা সরকারী রাজস্ব কোষাগার থেকে প্রদানের দাবী জানান।

 

দৌলতপুর মডেল কলেজে একাদশ শ্রেণীর ক্লাস উদ্বোধন   

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর মডেল কলেজে একাদশ শ্রেণীর ক্লাস উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় দৌলতপুর মডেল কলেজের লালন শাহ ভবন মিলনায়তনে ২০১৯-২০২০ইং শিক্ষা বর্ষের একাদশ শ্রেণীর প্রথম বর্ষের ক্লাসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন দৌলতপুর মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপাধ্যক্ষ মো. আজিজুল হকসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ এবং শিক্ষকবৃন্দ। উদ্বোধন পূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে দৌলতপুর মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান উপস্থিত শিক্ষার্থীদের মন দিয়ে পড়া লেখা করার নির্দেশনা প্রদান করেন। সেই সাথে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে সবধরনের সহায়তা এবং সুযোগ সুবিধা প্রদানের আশ্বাস দেন। পরে উপস্থিত সকল শিক্ষার্থীর হাতে ফুল দিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এরপর কলাভবনের ১০৫নং কক্ষে কারিগরি শাখার (বিএম) ২০১৯-২০২০ইং শিক্ষা বর্ষের একাদশ শ্রেণীর প্রথম বর্ষের ক্লাসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন দৌলতপুর মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান। এসময় উপাধ্যক্ষ মো. আজিজুল হকসহ কারিগরি বিভাগের সকল শিক্ষক এবং বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বেতন ভাতাদী ও পেনশন গ্রাচুইটি সরকারী কোষাগার থেকে প্রাপ্তির দাবীতে কুষ্টিয়ায় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি

গতকাল সোমবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের আয়োজনে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদী ও পেনশন গ্রাচুইটি সরকারী কোষাগার থেকে প্রাপ্তির দাবীতে কর্মবিরতী পালন করা হয়েছে। পরে পৌর চত্তরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  এক দেশে দুই নীতি মানি না মানবো না । এই স্লোগানকে সামনে রেখে কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম ছারয়ার’র সভাপতিত্বে বাংলাদেশ পৌর সার্ভিস এসোসিয়েশনের কেন্দ্রিয় কমিটির উপদেষ্টা রফিকুল ইসলাম প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাজ করে যাচ্ছে। অথচ দীর্ঘদিন আন্দোলন করেও ৩২৮টি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সরকারী  সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এমনকি ১ হতে ৫৭ মাস পর্যন্ত বেতন না পেয়ে অনাহারে পরিবার পরিজন নিয়ে জীবন-যাপন করছে। অথচ এই পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পৌরবাসীর সেবা প্রদান করে আসছে। তিনি আরোও বলেন,  ৩২৮টি পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২০১৮ সাল পর্যন্ত সাতশত বিরানব্বই কোটি টাকা বকেয়া আছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্র  সৈনিকদেরকে সরকারী নীতির পরিবর্তন করার আহবান জানান। তিনি বলেন, আমাদের ঐক্য ও আন্দোলনের কোন বিকল্প নেই। লক্ষ্য সুনিশ্চিত করে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে কারন আমাদের পরিবারকে বাঁচানোর জন্য। এসময় বক্তব্য রাখেন পৌর সার্ভিস এসোসিয়েশন’র কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি আমান উল্লাহ, কুষ্টিয়া জেলা এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আলতাফ হোসেন, কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক, সদস্য মজিরব রহমান, শরিফুল ইসলাম, কাজল হোসেন, আরিফ হোসেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার কর্মকতা-কর্মচারীবৃন্দ।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন প্রচার সম্পাদক বিকাশ কুমার ঘোষ। উল্লেখ্য আগামী ২ জুলাই কুষ্টিয়া জেলার পাঁচটি পৌরসভার সার্ভিস এসোসিয়েনের নেতৃবৃন্দ কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবে ও মিছিল করে পৌর বিজয় উল্লাস চত্বরে অলোচনা সভা অনুুুষ্ঠিত হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ

উপাধ্যক্ষ পদে যোগ দিলেন অধ্যাপক আনছার হোসেন

নিজ সংবাদ ॥ জেলার শীর্ষস্থানীয় বিদ্যাপীঠ কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের উপাধ্যক্ষের শুন্যপদ পূরণে যোগদান করলেন বাংলা বিভাগের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অধ্যাপক মো: আনছার হোসেন। এ সংক্রান্তে গত ৩০ জুন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব স্বাক্ষরিত ও প্রেরিত পত্রে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজে বিদ্যামন উপাধ্যক্ষের শুন্য পদে অধ্যাপক মো: আনছার হোসেনকে যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন অধ্যক্ষ অধ্যাপক কাজী মনজুর কাদির। এর মধ্যদিয়ে গত বছরের ৯ জুন থেকে শুন্য হওয়া এই পদটির শুন্যতা পূরণে নানা নাটকীয় ঘটনার যবনিকা ঘটল। অধ্যাপক আনছার হোসেন ১৯৯৪ সালে ১৪তম বিসিএসে আত্মীকৃত ১০% কোটায় বাংলা বিভাগে প্রভাষক পদে যোগদান করেন। এরপর ২০১৪ সালে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হিসেবে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজে যোগদান করেন। তিনি কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার এলঙ্গী গ্রামে জন্মগ্রহন করেন এবং অদ্যবধি তার জন্মভিটায় বসবাস ও জীবন যাপন করেন। উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে এই পদ পূরণে জেষ্ঠ্যতা লংঘন ও শর্ত জালিয়াতির মাধ্যমে নিয়োগ প্রাপ্ত জনৈক শিক্ষক একটি অস্বচ্ছ সরকারী আদেশের সূত্রে যোগদানকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অসন্তোষে কলেজ কর্তৃপক্ষ বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়েন। এমন পরিস্থিতি নিরসনে কলেজ কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর অবহিত পূর্বক সমাধান চেয়ে পত্র প্রেরণ করেন। অন্যদিকে ওই শিক্ষক পূর্বের অস্বচ্ছতা ঢাকতে আবারও একটি অস্বচ্ছ ও তথ্য বিভ্রাট সম্বলিত সরকারী আদেশ এনে উপাধ্যক্ষ পদে যোগদানে উঠেপড়ে লাগেন। এলক্ষ্যে বিভিন্ন মহলের সাথে যোগাযোগ করে সাহায্য নেয়ার চেষ্টা করেও সর্বশেষ কাঙ্খিত পদে যোগাদানের ইচ্ছা পূরণ করতে পারেননি। এমনকি তিনি কলেজের কতিপয় শিক্ষককে তার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রনোদিত ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে দায়ি করে সকল অভিযোগ সম্পূর্নরূপে অসত্য, বানোয়াট, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রনোদিত ও বিভ্রান্তিকর তথ্য হিসেবে  গণমাধ্যমে সংবাদ ছাপিয়েও শেষ রক্ষা করতে পারেন নি। কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ কাজী মনজুর কাদির বলেন, কলেজে দীর্ঘদিন ধরে উপাধ্যক্ষের পদটি শুন্য ছিলো যা অধ্যক্ষ হিসেবে আমার উপরও একটা বাড়তি চাপ ছিলো। এর মাঝে এই পদটি পূরণে কলেজেরই একজন শিক্ষকের যোগদানকে কেন্দ্র করে একটা অস্বাভাবিক অস্বস্তি সৃষ্টি হয়েছিলো। তবে সব জটিলতার অবসান ঘটিয়ে নতুন যোগদানকৃত উপাধ্যক্ষ কলেজেরই বাংলা বিভাগের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অধ্যাপক মো: আনছার হোসেনকে কলেজ কর্তৃপক্ষ শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

সিএমএইচে এরশাদকে দেখে এলেন ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে দেখতে গেছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। জাতীয় পার্টির উপ দপ্তর সম্পাদক এম এ রাজ্জাক খান জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল সোমবার সকালে সিএমএইচে গিয়ে বিরোধী দলীয় নেতা এরশাদকে দেখে আসেন। এরশাদের ভাই জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের গতকাল সোমবার সকালে জানিয়েছেন, এরশাদের ফুসফুসের সংক্রমণ কিডনিতেও ছড়িয়েছে। উনাকে অক্সিজেন সাপোর্ট দিয়ে রাখা হয়েছে। অবস্থার খুব একটা পরিবর্তন হয়নি। আমরা আশা করছি উনি সুস্থ হয়ে উঠবেন। জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের পাশাপাশি মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁও তখন হাসপাতালে ছিলেন। এদিকে গতকাল সোমবার সকাল থেকেই বারিধারায় এরশাদের প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসভবনে চলে কোরআন তেলাওয়াত। ৯০ বছর বয়সী এরশাদ রক্তে সংক্রমণ ছাড়াও লিভার জটিলতায় ভুগছেন। গত ২২ জুন সিএমএইচে ভর্তি করা হয় তাকে। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে এরশাদকে দেখে এসে তার স্ত্রী ও জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ কো চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ বলেন, উন্নতি হচ্ছে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের, এই ধারা অব্যাহত থাকলে দ্রুতই তিনি সেরে উঠবেন। এরপর গত রোববার সন্ধ্যায় বনানীতে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে কাদের বলেন, শনিবার পর্যন্ত এরশাদের অবস্থার উন্নতি হচ্ছিল। গত রোববার সকালে তার অবস্থা খারাপ হয়। ফুসফুসে পানি চলে এসেছে, দেখা দিয়েছে ইনফেকশন। পরে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় তাকে অক্সিজেন দেওয়া হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য এরশাদকে দেশের বাইরে নিয়ে যেতে পরিবার প্রস্তুত রয়েছে জানিয়েই কাদের বলেন, এই মুহুর্তে সিএমএইচের চিকিৎসায় আমাদের আস্থা আছে। রাতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এরশাদের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়লে কাদের তা নাকচ করেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে ফেইসবুকে তিনি বলেন, তার অবস্থা অপরিবর্তিত আছে। তিনি এখনও অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন। সাবেক সামরিক শাসক এরশাদ বেশ কয়েক মাস ধরেই অসুস্থ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে হঠাৎ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখন তার রক্তে হিমোগ্লোবিন ঘাটতির কথা জানান চিকিৎসকরা। পরে সিঙ্গাপুরে গিয়ে চিকিৎসা করিয়ে আসেন এরশাদ। তাতেও পুরোপুরি সেরে ওঠেননি তিনি। অসুস্থতার জন্য এরশাদ তার দলের কোনো রাজনৈতিক কর্মকা-েও যোগ দিতে পারছেন না। রংপুর-৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পরে হুইল চেয়ারে করে জাতীয় সংসদে শপথ নিতে গিয়েছিলেন তিনি। গত ঈদুল ফিতরের আগে গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে কূটনীতিকদের সম্মানে এক ইফতার মাহফিলে আসেন এরশাদ। এরইমধ্যে ট্রাস্ট গঠন করে তাতে তার সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি দান করেছেন।

চলতি মাসের মধ্যেই নবম ওয়েজবোর্ডের রোয়েদাদ ঘোষণা – ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ চলতি মাসের মধ্যেই নবম ওয়েজবোর্ডের রোয়েদাদ ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ওয়েজবোর্ড শিগগিরই হবে, কিছু দিনের মধ্যেই দিয়ে দেব। এটা আর ঝুঁলিয়ে রাখা সম্ভব নয়। জুলাই মাসের মধ্যেই নবম ওয়েজবোর্ডের রোয়েদাদ ঘোষণা করা সম্ভব।’ ওবায়দুল কাদের গতকাল সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

সরকার জঙ্গিবাদ নিয়ে আতঙ্কে আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দেখুন শ্রীলঙ্কার মতো দেশে হামলার ঘটনার পর থেকে কোনো দেশই স্বস্তিতে নেই। এখন নরওয়ে এবং নিউজিল্যান্ডের মতো দেশে মসজিদে হামলা হচ্ছে। আমেরিকার মতো দেশেও এসব হামলা হচ্ছে। জঙ্গিবাদ নিয়ে সরকার আতঙ্কিত নয়, সতর্ক আছে। বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে জড়িতরা আওয়ামী আদর্শের সঙ্গে যুক্ত হতে পারবে কি-না জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, গেল নির্বাচনে আমাদের বেশ কয়েকজন তরুণ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। ফলে আমাদের রুট লেভেলে নেতৃত্ব নিয়েও কোনো সঙ্কট নেই। আর আমরা এটা পরিষ্কার বলেছি, কোনোভাবেই যেন জামায়াত বা স্বাধীনতা বিরোধীরা আমাদের দলে না ঢোকে। তিনি বলেন, দেখুন এটা আমাদের অনেক আগের সিদ্ধান্ত। আমাদের পার্টিতে স্বাধীনতা বিরোধী কোনো দলের কোনো ব্যক্তি আসতে পারবেন না। এখানে আমরা তাদের কোনো প্রশ্রয় দেব না। গত নির্বাচনে এমন বিতর্কিত কিছু ব্যক্তি আমাদের পার্টির হয়ে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন, সেটা আমরা বন্ধ করেছি। ফলে এটার আর কোনো সম্ভাবনা নেই। স্বাধীনতা বিরোধীদের কীভাবে চিহ্নিত করা হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা আমরা দলীয়ভাবে করব। প্রয়োজনে ইনটেলিজেন্স সদস্যরা এটা দেখবে।’ বর্তমান বিদ্যমান মন্ত্রিসভার আকার সম্প্রসারিত হতে পারে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কেবিনেট সাফল-রিসাফলের বিষয়টা প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। আমার মনে হয় কিছু কিছু পদ-পদবি এখনও খালি আছে। কাজেই এখানে রিসাফলিংয়ের (পুনর্বিন্যাস) চেয়ে এক্সপানশনের (সম্প্রসারণ) বিষয়টা ফোকাস। এক্সপান্ড (সম্প্রসারিত) হতে পারে। যেমন মহিলা ও শিশু, এখানে কোনো মন্ত্রী নেই। বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িতরা সরকারি দলের হলেও রেহাই পাবে না জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এই ঘটনায় ইতোমধ্যে নয়জন গ্রেফতার হয়েছে। আমার বিশ্বাস, বাকিরাও অচিরেই গ্রেফতার হয়ে যাবে। গ্রেফতারের জন্য সিরিয়াসলি অভিযান চলছে। তিনি বলেন, আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে যে বা যারাই জড়িত, তারা যদি সরকারি দলেরও কেউ হন; রেহাই পাবে না। এটা পুলিশকে জানানো হয়েছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সরকারের মনোভাব জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

 

এস কে সিনহার মামলার প্রতিবেদন জমার তারিখ পিছিয়ে ৬ আগস্ট

ঢাকা অফিস ॥ সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য ৬ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত। গতকাল সোমবার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার শেষ দিন থাকলেও তদন্ত কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন পারেননি। সেজন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদারের আদালত প্রতিবেদন জমার নতুন দিন ৬ আগস্ট ধার্য করেন। এস কে সিনহার বিরুদ্ধে তিন কোটি ২৫ লাখ টাকা ঘুষ চাওয়ার অভিযোগে ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট অ্যালায়েন্সের (বিএনএ) নেতা ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। নাজমুল হুদা মামলার অভিযোগে বলেন, ২০১৭ সালের ২০ জুলাই তৎকালীন প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা তার জমাদারের মাধ্যমে নাজমুল হুদাকে ডেকে নিয়ে যান এবং তাকে বলেন, একজন সংসদ সদস্য তাকে (এস কে সিনহা) নগদ দুই কোটি টাকা দিতে চেয়েছেন, একটি মামলায় সাজা নিশ্চিত করার জন্য। যেন তিনি নির্বাচনে অযোগ্য হন। এরপর হুদার বিরুদ্ধে দু’টি মামলার একটিতে দুই কোটি ও অপর মামলাটিতে এক কোটি ২৫ লাখ টাকা দাবি করেন এস কে সিনহা। টাকা দিলে তিনি ও তার স্ত্রীকে মামলা থেকে মুক্তির ব্যবস্থা করে দেবেন বলেও জানান। এই প্রস্তাবে হুদা সম্মত না হওয়ায় সাজা বহাল রাখেন তৎকালীন প্রধান বিচারপতি।