লোকসভা নির্বাচন

বিজেপি জয়ী ৩০৩ আসনে, কংগ্রেসের আসন ৫২

ঢাকা অফিস ॥ বিপুল বিক্রমে আবারও ভারতের ক্ষমতায় এসেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। বিজেপি একাই ৩০৩টি আসনে জয়লাভ করে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। ভারতের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভার ৫৪৩টি আসনের মধ্যে তামিলনাড়ুর একটি বাদে সবকটি আসনে এবার নির্বাচন হয়েছে। সরকার গঠনের জন্য কোনো দল বা জোটকে পেতে হবে ২৭২টি আসন। গতবার বিজেপি ২৮২ আসনে জয়লাভ করেছিল। আর তাদের জোট এনডিএ পেয়েছিল ৩৩৬টি আসন। এবারের লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দল বিজেপিকে হারাতে একাট্টা হয়েছিল বিভিন্ন আঞ্চলিক দল, কংগ্রেস তো ছিলই। বিশেষ করে ভোটের প্রচারে রাহুল গান্ধী, পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে মোদীর কথার লড়াই বেশ জমে উঠেছিল। কিন্তু সব বাক্যবাণকে পেছনে ফেলে শেষতক মোদী ম্যাজিকেই বাজিমাত করেছে বিজেপি। কংগ্রেস গত বারের তুলনায় আটটি আসন বেশি পেলেও নির্বাচনে ভরাডুবি আটকাতে পারেনি। ভারতের শতাব্দী প্রাচীন এই দলটি এবার ৫২ আসনে জিতেছে, গতবার তারা ৪৪ আসন পেয়ছিল। যা ছিল ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে পুরনো এ দলের ইতিহাসে সবচেয়ে বাজে পরাজয়। এছাড়া এবার পশ্চিমবঙ্গের দল অল ইন্ডিয়া তৃণমূল কংগ্রেস ২২টি আসনে জয়লাভ করেছে। এনডিএ জোটের দল শিবসেনা ১৮টি আসনে জিতেছে। গতবারও দলটির আসন সংখ্যা একই ছিল। এছাড়া, এবার এম করুণানিধি মুথুবেলের দল দ্রাভিদা মুন্নেত্রা কাঝাঘাম ২৩টি, যুবজন শ্রমিক রিথু কংগ্রেস পার্টি ২২টি, জনতা দল (ইউনাইটেড) ১৬টি, বিজু জনতা দল ১২টি, বহুজন সমাজ পার্টি ১০টি, তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি ৯টি এবং লোক জন শক্তি পার্টি ৬টি আসনে জয়লাভ করেছে। অন্যান্য সেসব দল এবার লোকসভায় প্রতিনিধি পাঠাতে যাচ্ছে: আম আদমি পার্টি  ১টি, এজেএসইউ পার্টি ১টি , অল ইন্ডিয়া আন্না দ্রাভিড়া মুন্নেত্রা কাঝাঘাম (এডিএমকে) ১টি,  অল ইন্ডিয়া মজলিস ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন ২টি, অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমক্রেটিক ফ্রন্ট ১টি, কমিউনিস্ট পার্টি ইন্ডিয়া (সিপিআই) ২টি,  কমিউনিস্ট পার্টি ইন্ডিয়া (সিপিএম) ৩টি,  ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিমলীগ ৩টি,  জম্মু ও কাশ্মীর ন্যাশনাল কনফারেন্স ৩টি , জনতা দল (সেকুলার) ১টি,   ঝাড়খন্ড মুক্তি মার্চ ১টি, কেরালা কংগ্রেস (এম) ১টি,  মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট ১টি, নাগা পিপলস পার্টি ১টি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি ১টি, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি ৫টি, ন্যাশনালিস্ট ডেমক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টি ১টি,  রেভল্যুশনারি সোস্যালিস্ট পার্টি ১টি, সমাজবাদী পার্টি ৫টি, শিরোমনি আকালি দল ২টি, সিকিম ক্রান্তিকারি মোর্চ ১টি, তেলুগু দেসাম ৩টি এবং অন্যান্য ৮টি।

জুনেই পদত্যাগ করছেন টেরিজা মে

ঢাকা অফিস ॥ যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে আগামী ৭ জুন পদত্যাগ করছেন। ব্রেক্সিট প্রশ্নে এমপিদের একজোট করতে ব্যর্থ মে কান্না ভেজা চোখে কনজারভেটিভ পার্টি প্রধানের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। ডাউনিং স্ট্রিট থেকে শুক্রবার দেওয়া এক বিবৃতিতে মে বলেন, “এমপিদের বোঝাতে আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। দুঃখজনক হলো, আমি তাদের বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছি। “যুক্তরাজ্যের স্বার্থে এই বিষয়টি এগিয়ে নেওয়ার জন্য একজন নতুন প্রধানমন্ত্রীর প্রয়োজনীয়তা এখন আমার কাছে স্পষ্ট।” ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে সম্পর্কোচ্ছেদের প্রক্রিয়া নিয়ে তাড়াহুড়া থাকায় কনজারভেটিভ পার্টি এ সপ্তাহেই নতুন নেতা নির্বাচনের কাজ শুরু করতে পারে। এ বিষয়ে মে বলেন, “নতুন নেতা নির্বাচনের কাজ এ সপ্তাহেই শুরু হবে।  আমি এ বিষয়ে দলের চেয়ারম্যানের সঙ্গে একমত। “জানি, কনজারভেটিভ পার্টি নিজেই নিজেকে নবায়ন করতে পারে এবং আমরা একটি ব্রেক্সিট চুক্তিতেও উপনীত হতে পারবো। “একটি ব্রেক্সিট চুক্তিতে উপনীত হতে ব্যর্থ হয়ে আমি খুবই অনুতপ্ত। আশা করি আমার উত্তরসূরি একটি ঐকমত্যে পৌঁছাতে সক্ষম হবেন। যদি উভয় পক্ষই ছাড়া দিতে রাজি হয় তবেই কেবল এই ঐকমত্য সম্ভব।” মের পদত্যাগের ঘোষণার পর স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে কে হচ্ছেন তার উত্তরসূরি। এরই মধ্যে কয়েকজনের নাম সামনে এসেছে। এ বিষয়ে কনজারভেটিভ নেতা পিটার বোন বলেন, ‘সম্পর্কোচ্ছেদের পক্ষের কেউ’ পরবর্তী নেতা হবেন। “তিনি হতে পারেন এস্টার ম্যাকভি, ডমিনিক রাব, ডেভিড ডেভিস বা বরিস জনসন। “এছাড়া আমাদের এমন একজনকে প্রয়োজন যিনি বিশ্বমঞ্চে মাথা উঁচু করে চলতে পারবেন এবং যিনি পরবর্তী নির্বাচনে জিতবেন। আমার মনে হয় সঠিক ব্যক্তি বরিস জনসন।” মে পদত্যাগ করে ‘সঠিক কাজ’ করেছেন বলে টুইট করেন লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন।

ঝিনাইদহের মহারাজপুর ইউনিয়নে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ৭নং মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে এ বাজেট ঘোষণা করা হয়। ইউনিয়ন পরিষদের ২০১৯-২০ অর্থ বছরের জন্য ৯৩ লাখ ৯৪ হাজার ৪ শত ২৪ টাকার বাজেট ঘোষণা করেন  চেয়ারম্যান খুরশিদ আলম। এসময় উপস্থিত ছিলেন- প্যানেল চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, ইউপি সচিব ওয়ারিজুর রহমান, ইউপি সদস্য জালাল উদ্দিন,  সোলাইমান সরকার, এরশাদ আলী, এস এম নাইমুর রহমান রাজিব, আহম্মদ আলী, সেলিম হোসেন, শাহআলম, শাবানা বেগম, হালিমা খাতুন, নুরুন্নাহার বেগমসহ বিভিন্ন  শ্রেণি পেশার মানুষ।

 

 

কুষ্টিয়ায় ইসলামী আন্দোলনের আলোচনা ও ইফতার

কুষ্টিয়ায় ইসলামী আন্দোলনের আয়োজনে আলোচনা ও ইফাতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে শহরের পালকি রেষ্টুরেন্টে এ অনুষ্ঠান হয়। ইসলামী আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি আলহাজ্ব আহম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি ইব্রাহীম হুসাইন কাসেমী। ইসলামী আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ এনামুল হকের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল্লাহ আখন্দ, জয়েন্ট সেক্রেটারী আব্দুল মোমিন, মাওলানা আব্দুল জলিল, উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মোহাম্মাদ আলী, এসএম সাইফুল ইসলাম, আলহাজ্বাব আনিছুর রহমান কাবিল, দ্বীনি সংগঠন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি নুর মোহাম্মাদ বীন হানিফ, সাধারণ সম্পাদক শেখ শিহাব উদ্দিন, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা দেওয়ান আব্দুল খালেক, সেক্রেটারী আব্দুল্লাহ আল মামুন, ইসলামী যুব আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি ওমর ফারুক, ইশা ছাত্র আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি বিপ্লব হাসান প্রমুখ। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দেশের মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ করে বাংলার জমিনে ইসলামী হুকুমত কায়েম করে বাংলাদেশকে একটি আদর্শ ও উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করতে চায়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আলমডাঙ্গা উপজেলায় সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনলেন জেলা প্রশাসক

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা খাদ্য গুদামের জন্য বোরো ধান ক্রয় কার্যক্রমের অংশ হিসেবে চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ১০৪০ টাকা মন দরে ধান ক্রয় করলেন। গতকাল বেলা ২টার দিকে ধান ক্রয় করেন আলমডাঙ্গা উপজেলার কালিদাশপুর ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খন্দকার খন্দকার ফরহাদ আহম্মদ, জেলা খাদ্য কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম, আলমডাঙ্গা উপজেলা ভারপ্রাপ্ত খাদ্যগুদাম রক্ষক মিয়ারাজ, চুয়াডাঙ্গা সদর খাদ্যগুদাম রক্ষক সাহাবুল হক, আলমডাঙ্গা উপজেলা ভাইস  চেয়ারম্যান সালমুন আহম্মদ ডন, কৃষি অফিসার মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, উপজেলা মিলচাতাল মালিক সমিতির সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, কালিদাশপুর উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা প্রমুখ। আলমডাঙ্গা উপজেলায় ২০১৯ অর্থবছরে বোরোধান মোট ৫শত ৪৮ মেঃ টন চাল ক্রয় করা হবে। গতকাল জেলা প্রশাসক কালিদাশপুর ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রাম থেকে ৬ মেঃ টন ধান সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ক্রয় করেছেন। এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয়ের নির্দেশ দেন।

কুষ্টিয়া চিনিকল সিবিএ নির্বাচনে প্যানেল পরিচিতি সভায় আতাউর রহমান আতা

আপনারা নির্বাচিত হলে রুগ্ন চিনিশিল্পকে উজ্জীবিত করতে সহায়ক ভূমিকা রাখবেন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেছেন কুষ্টিয়া চিনিকল ধারাবাহিক লোকসানের কবলে পতিত। অথচ একসময় এই চিনিকল থেকেই প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা মুনাফা লাভ করত। মুনাফা লাভের সেই দিনে ফিরে আসতে হবে। চিনিশিল্প যাতে ঘুরে দাঁড়াতে পারে সেই লক্ষে আপনারা সবাই আন্তরিকতার সাথে কাজ করবেন। তিনি গতকাল শুক্রবার রাত ১০টায় কুষ্টিয়া চিনিকল জেনারেল ক্লাবে আসন্ন চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ফারুক-আনিচ পরিষদ’র প্যানেল পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে এসব কথা বলেন। কেএসএম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির আইন ও দরকষাকষি বিষয়ক সম্পাদক ও বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি জাহিদুল ইসলাম লতিফ, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সাহাজ্জুল হোসেন, কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মীর রেজাউল ইসলাম বাবু, সাবেক ছাত্রনেতা সাইফুদ-দৌলা তরুন, সাবেক বারখাদা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রইচ উদ্দিন, কুষ্টিয়া চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি প্রার্থি ফারুক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থি আনিচুর রহমান আনিচ, জেলা শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদসহ ফারুক-আনিচ প্যানেলের সকল প্রার্থি, শ্রমিক ও কর্মচারীসহ স্থানীয় গণমান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ভেড়ামারায় কাব্যকথা পরিষদের আয়োজনে স্বরচিত সাহিত্যপাঠ ও ইফতার মাহফিল

ভেড়ামারা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় কাব্যকথা পরিষদের আয়োজনে গতকাল শুক্রবার বিকেলে স্বরচিত সাহিত্যপাঠ, আলোচনা সভা, ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্ভাবনাময়ী লেখকদের সুযোগ সৃষ্টি করে এই স্লোগানে কাব্যকথা পরিষদ ভেড়ামারা শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত শুভেচ্ছা রেষ্টুরেন্টে ইফতারের আয়োজন করে। ভেড়ামারার স্থানীয় উদীয়মান লেখকদের সাথে কুষ্টিয়ার জনপ্রিয় লেখকগণ উক্ত সাহিত্য পাঠের আলোচনা ও ইফতার মাহফিলে যোগ দেন। কুষ্টিয়া থেকে আগত লেখক ও কবি হাসান টুটুলসহ ভেড়ামারা থেকে লেখক মোঃ আসমান আলী, মোঃ আনিছুর রহমান, আরশেদ আলী, মেজবাহুর রহমান, মোঃ মুনীর উদ্দীন, মোঃ রবজেল হোসেন, মোঃ আঃ খালেক, মোঃ শহিদুল ইসলাম (মুকুল ডাঃ), শাইজী আতিয়ার রহমান, রফিকুল ইসলাম মুকুল, সোহেল পারভেজ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

ভারতে জনগণ ভোট দিতে পেরেছে, বাংলাদেশে পারেনি – আমীর খসরু

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের লোকসভা নির্বাচনকে দেশটিতে গণতন্ত্রের সফলতা হিসেবে দেখছে বিএনপি। ভারতের সাধারণ নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর গতকাল শুক্রবার এই প্রতিক্রিয়া জানান দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নে বলেন, “ভারতের লোকসভা নির্বাচনে সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে যে, সেদেশের জনসাধারণ ভোটের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে পেরেছে, যেটা বাংলাদেশের জনগণ পারে নাই। “এটা হচ্ছে সব চেয়ে পজিটিভ দিক। ভারতের জনগণ ভোটের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে সক্ষম হয়েছে, গণতন্ত্র সফল হয়েছে। তাদের মৌলিক অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার, ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে আরও বেশি মজবুত করেছে, শক্তিশালী করেছে বলে আমি মনে করি।” বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার পেছনে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সমর্থন রয়েছে বলে বরাবরই দাবি করে আসছে বিএনপি। তবে গত কয়েক বছরে বিএনপির ভারতবিরোধিতার অবস্থানের বদল দেখা গেছে। দেশটির শাসকদের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নের লক্ষ্যে বছর খানেক আগে বিএনপির কয়েকজন নেতা ভারত সফর করে আসেন, যার নেতৃত্বে ছিলেন আমীর খসরু। তিনি বলেন, “ভারতের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সম্পর্ক হবে দুই দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে, জনগণের মধ্যে হতে হবে।”

ভারতে বিজেপি গতবারের চেয়ে বেশি আসন নিয়ে জয়ী হয়েছে। ফলে নরেন্দ্র মোদী আরও শক্তিশালী হয়ে দেশটির ক্ষমতায় টিকে থাকছেন। মোদীর বিজয়ের প্রতিক্রিয়ায় আমীর খসরু বলেন, “মোদী সাহেব জনগণের ভোটে জিতেছেন। জনগণ উনার পক্ষে রায় দিয়েছেন।” বিএনপির পক্ষ থেকে মোদীকে অভিনন্দন জানানোর কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “বিএনপি পক্ষ থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ইতোমধ্যে অভিনন্দন জানিয়েছে। সেই চিঠি ভারতীয় হাই কমিশনের কাছে আজ-কালের মধ্যে চলে যাবে।”

বিএনপিকে কাদের

খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলার মতো এত অমানবিক নয় সরকার

ঢাকা অফিস ॥ খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলার মতো অমানবিক আওয়ামী লীগ সরকার নয় বলে মন্তব্য করেছেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল শুক্রবার আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমন্ডলীর এক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন্তব্য করেন। দুর্নীতির মামলায় দন্ড নিয়ে কারাগারে থাকা খালেদা জিয়াকে সরকার সুচিকিৎসা না দিয়ে মৃত্যুর পথে ঠেলে দিচ্ছে বলে বিএনপি নেতাদের অভিযোগ। এর জবাবে কাদের বলেন, “আমি এতটুকু বলতে চাই, শেখ হাসিনার সরকার অমানবিক নয়। বেগম জিয়া আইনগত কারণে হয়ত কারাগারে রয়েছেন, কিন্তু তাকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে হবে, এ ধরনের অমানবিক ও নিষ্ঠুর কাজ সরকার করবে না।” ভারতে নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বাধীন বিজেপির জয়ের পর বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তা চুক্তিসহ অন্যান্য অমীমাংসিত বিষয়গুলোর সমাধান হবে বলে আশা প্রকাশ করেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  মোদীর এবারের সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক কেমন হবে- এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবার ঐতিহাসিক বিজয় অর্জন করেছেন, স্পেকুলেশনকেও ছাড়িয়ে গেছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অভিনন্দন বার্তাও পাঠিয়েছেন।  “গত মোদী সরকারের আমলে আমাদের সঙ্গে অনেক অমীমাংসিত সমস্যার সমাধান হয়েছে। আমরা আশা করি আমাদের সঙ্গে তিস্তা যুক্তিসহ অমীমাংসিত বিষয় যেগুলো রয়েছে, সেগুলোর সমাধানের প্রক্রিয়াটা আরও দ্রুত হবে।” সম্পাদকমন্ডলীর সভায় মুজিব বর্ষ পালনে আওয়ামী লীগ নেতাদের সাংগঠনিক সফর নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কাদের বলেন, “মুজিব বর্ষের কর্মসূচি মোটাদাগে পালনের কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। আর আমাদের জাতীয় সম্মেলন সারাদেশে তৃণমূল পর্যন্ত কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে আমাদের দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দিক নির্দেশনা দিয়েছেন।” দলের কাউন্সিল ঘিরে সুবিধাবাদীদের অনুপ্রবেশের বিষয়ে তিনি বলেন, “সুযোগসন্ধানীরা চিরদিন এটা করে থাকে। আমাদের দলের সিদ্ধান্ত পরিষ্কার পরীক্ষিত, ত্যাগী নেতাকর্মীদের সংগঠন তৃণমূল থেকে নেতৃত্বে আনা হবে। কোনোখানে কোনো সুযোগ সন্ধানীর স্থান হবে না।” সম্পাদকমন্ডলীর সভায় উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এনামুল হক শামীম, আইন বিষয়ক সম্পাদক ও গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক শামসুন্নাহার চাপা, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, বন বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপ দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ¬ব বড়ুয়া, ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু, মারুফা আক্তার পপি।

 

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে নয়াপল্টনে মহিলা দলের বিক্ষোভ মিছিল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় নয়াপল্টনস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বে মিছিলে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, সিনিয়র সহসভাপতি জেবা খান, মহিলা দল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভানেত্রী পেয়ারা মোস্তফা, শামসুন্নাহার বেগম, শাহজাদী কহিনুর, মিনা বেগম, নাজনীন, গুলশান আরা মিতা, নিলুফা ইয়াসমিন নিলু, সাবিনা ইয়াসমিনসহ কয়েকশ নেতাকর্মী অংশ নেন। মিছিল শেষে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক পথসভায় রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্রের শেষ চিহ্নটুকু মুছে ফেলেছেন। ক্ষমতায় চিরস্থায়ীভাবে থাকার জন্যই ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাতের নির্বাচন করে রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে রেখেছেন। তিনি বলেন, বর্তমান শাসকগোষ্ঠী ক্ষমতা নিরাপদ করার জন্য তাদের ভয়াবহ দুঃশাসন নিয়ে কেউ যেন টু শব্দ করতে না পারে সেই কারণেই নির্দোষ খালেদা জিয়াকে বন্দি করে এখন বাকশালের গুণকীর্তন শুরু করেছেন। বিএনপির এ নেতা আরও বলেন, শেখ হাসিনার একটাই লক্ষ্য- কীভাবে খালেদা জিয়াকে কষ্ট দিয়ে তিলে তিলে নিঃশেষ করে ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করা যায়। কিন্তু বর্তমান সরকারের অপশাসন জনগণ সব শক্তি দিয়ে রুখে দেবে। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে এখন সংগ্রামী জনতা রাজপথে নেমে আসার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

গাংনীতে ইয়ূথের সাথে পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে ইয়ূথের সাথে পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে গাংনী উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর জেলা ইয়ূথ ইন্ডিং ফোরাম পর্যালোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন ইয়ূথ এন্ডিং ফোরামের যশোর অঞ্চল সমন্বয়কারী মাহফুজ রাব্বি অনিক। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও জাতীয় কন্যাশিশু এডভোকেসি ফোরামের মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি সিরাজুল ইসলাম স্যার। সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন ইয়ূথ এন্ডিংয়ের কেন্দ্রীয় ফোরামের সমন্বয়কারী রাজিব আহমেদ। মেহেরপুর জেলা ইয়ূথের সমন্বয়কারী রাকিবুল ইসলাম রকির সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর গাংনী অঞ্চল সমন্বয়কারী হেলাল উদ্দীন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইয়ূথ লিডার জুবায়ের সাকিব বাপ্পিসহ গাংনী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ইয়ূথের প্রতিনিধিবৃন্দ।

আলমডাঙ্গায় পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক

খাদ্যের কথা ভাবলে পুষ্টির কথা ভাবতে হবে

আলমডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে পুষ্টি কর্মপরিধি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন আলমডাঙ্গা উপজেলার ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওয়াসিমুল বারি। প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক  গোপাল চন্দ্র দাস। প্রধান অতিথি কর্মশালায় যোগদানকারিদের উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমান সরকার ২য় জাতীয় পুষ্টি কর্মপরিকল্পনার আলোকে উপজেলা পর্যায়ে পুষ্টি কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। এখন আমাদের খাদ্যের কথা ভাবলে পুষ্টির কথা ভাবতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রত্যেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান, উপজেলার স্বাস্থ প,প,কর্মকর্তা সহ সকল দপ্তরের কর্মকর্তাগন, স্কুল, কলেজ, বেসরকারি এনজিও সংস্থা, কমিউনিটি সাপর্ট গ্র“পসহ সকলকেই পুষ্টির সাথে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। স্কুল-কলেজের  ছেলে, মেয়েদের পুষ্টি বিষয়ে পাঠদান করতে হবে, কারন  ছেলে-মেয়ের পুষ্টি জ্ঞান না থাকলে তারা মেধাহীন হয়ে পড়বে, পুষ্টির অভাবে খর্বাকায় হতে পারে। সরকার খর্বকায় ৩৬ % থেকে নামিয়ে ২৫% করতে বদ্ধ পরিকর। সেই লক্ষে মায়েদের সচেতন করতে হবে। পরিকল্পনা মাফিক আমাদের পুষ্টির বিভিন্ন নির্দেশনা মেনে কাজ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী  ঘোষিত এসডিজি অর্জনের লক্ষে পুষ্টি উন্নয়ন সাধন করতে হবে। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খন্দকার ফরহাদ আহম্মদ, উপজেলা চেয়ারম্যান আয়ুব  হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডঃ সালমুন আহম্মদ ডন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ প,প,কর্মকর্তা ডাঃ  গোলাম সাইখ ফেরদৌস। প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক হামিদুল ইসলাম আজমের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেয়ারের টেকনোলজিক্যাল কো-অর্ডিনেটর আল আমিন, টেকনিক্যাল এফ,এস আই হোসনে আরা, কমিউটি  ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার রাবেয়া আক্তার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, পরিকার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল্লাহিল কাফি, শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুজ্জামান, সরকারি স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক ইলিয়াস হোসেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারেজ উদ্দিন, মৎস্য কর্মকর্তা কামরুন্নাহার আঁখি, ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান, আমিরুল ইসলাম মন্টু, আমিনুল ইসলাম  রোকন, মাসুদ পারভেজ, আবুল কালাম আজাদ, আবু তাহের, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উম্মে ছালমা আক্তার, প্রেসক্লাব সভাপতি শাহ আলম মন্টু, কেয়ারের কর্মকর্তা আব্দুস শুকুর প্রমুখ।

সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিটের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

গত ২২ শে  মে সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে। এসব কর্মসূচীর মধ্যে ছিল কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস এলাকায় সরকারী শিশু পরিবার  এতিমখানায় ইফতারের আয়োজন এবং এতিমদের মাঝে শিক্ষাসামগ্রী বিতরণ। এছাড়া সেখানে এতিমদের জন্য একটি হেলথ ক্যাম্প এর আয়োজন করা হয়। পরবর্তীতে সেখান থেকে সন্ধানী রুমে এসে কেক কাটার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কার্যক্রম এর সমাপ্তি  ঘোষণা করা হয়। উক্ত কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট এর উপদেষ্টা, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি ও সন্ধানী কেন্দ্রীয় পরিষদের প্রচার সম্পাদক সাকিব মাহমুদ, সভাপতি মোঃ আতিক রব্বানী রাশাহ নিলয়, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাওনুজ্জামান শাওন সহ সকল সন্ধানীয়ানরা। উল্লেখ্য সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট ২২শে মে ২০১৫ সালে থেকে যাত্রা শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের ৫ই ফেব্রুয়ারি সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ একটি স্বাধীন ইউনিট হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। মানবতার সেবায় সন্ধানী কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের কার্যক্রম কুষ্টিয়াবাসীর জন্য একটি নতুন অধ্যায়ের সূত্রপাত ।

দৌলতপুরে সাংবাদিক পুত্র রোহানের দাফন সম্পন্ন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সাংবাদিক পুত্র রোহানের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুর ২.৩০টায় উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের ধর্মদহ ফরাজিপাড়া কবরস্থানে নামাজে নাজাযা শেষে তার দাফন সম্পন্ন হয়। সকাল সাড়ে ৮টায় সাংবাদিক খোকনের একমাত্র পুত্র সন্তান রোহান (১২) দূরারোগ্য ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করে। সে দীর্ঘদিন ধরে এ রোগে ভূগছিল। রোহানের জানাযা নামাজে দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দসহ দৌলতপুরের সর্বস্তরের সাংবাদিক, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন এবং সুধীমহল ও এলাকার মুসল্লিগন উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় দিনব্যাপী ২য় এনডিএফ বিডি বিতর্ক প্রতিযোগীতা ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ “যুক্তির উচ্ছাসে মুক্তির উদ্ভাসে, মাতুক লালন ভূমি” স্লোগানে দেশের বিতর্ক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সংগঠন ন্যাশনাল ডিবেট ফেডারেশন বাংলাদেশ-এনডিএফ বিডি কুষ্টিয়া জোনের আয়োজনে ২য় এনডিএফ বিডি কুষ্টিয়া জোন বিতর্ক প্রতিযোগীতা ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ অডিটোরিয়ামে দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: এস.এম মুসতানজীদ। এনডিএফ বিডি কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের  চেয়ারম্যান একেএম শোয়েবের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক  শেখ মো: আবু সাঈদ, কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  মোজাম্মেল হক, এনডিএফ কুষ্টিয়া জোনের মাডারেটর এস.এম. শামীম রানা। কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নাদিরা খানম’র সার্বিক পরিচালনায় দিনব্যাপী এই বিতর্ক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়।

সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামালীগ কুষ্টিয়া শহর সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা । বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর কাজী মনজুর কাদির, ইবির কর্মকর্তা আমানুর আমান, এনডিএফ বিডি এর কো- চেয়ারম্যান লায়ন এম আলমগীর। সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক আহসান কবীর রানা।  বিতর্ক প্রতিযোগীতা ও কর্মশালায় কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, পাবনাসহ ৫ জেলার ৪২ টি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, পলিটেকনিক, মেডিকেল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০০ শতাধিক বিতার্কিক, শিক্ষার্থী, বিতর্ক ক্লাব ও সোসাইটির সদস্যরা পার্লামেন্টারী ডিবেট, বারোয়ারী ডিবেট ও কুইজ প্রতিযোগিতাসহ বিতর্ক কর্মশালায় অংশগ্রহন কগ্রণ। শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।

খালেদাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে সরকার – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ সরকার ‘ছলচাতুরি’ করে খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল শুক্রবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসনকে চিকিৎসা না দিয়ে ‘তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে’। দুর্নীতির মামলায় দন্ড নিয়ে এক বছরের বেশি সময় ধরে কারাগারে রয়েছেন খালেদা জিয়া। তিনি এখন চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউতে রয়েছেন। খালেদার জামিনে বাধা দিয়ে তাকে সরকার কারাগারে আটকে রাখতে চাইছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন ফখরুল। তিনি বলেন, “গতকাল (বৃহস্পতিবার) আপনারা দেখেছেন যে, কীভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়েছে দুটি মামলায়। যেটার সাথে সাথে জামিন হওয়ার কথা। সেখানে অ্যাটর্নি জেনারেল প্রথমে বলল যে, উনি অসুস্থ, পরে বলল যে, উনি আরেকটা কাজে ব্যস্ত। সেখানেও সরকার ছলচাতুরির আশ্রয় নিয়েছে। “সরকার ছলচাতুরির আশ্রয় নিয়ে দেশনেত্রী যে মুক্তি, তার আইনগত যে প্রাপ্যতা সেটাকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিলম্বিত করছে এবং আদালতের ওপর হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে। আজকে জনগণের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে এভাবে আটক করে রেখে, তাকে চিকিৎসা না দিয়ে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।” “আমাদের কাছে যেটা মনে হয়েছে, যেটা বিশ্বাস করতে চাই না, তারা (সরকার) কী দেশনেত্রীকে এইভাবে বিনা চিকিৎসায় কারাগারের মধ্যেই মেরে ফেলতে চায়, তাকে হত্যা করতে চায়?” প্রশ্ন করেন তিনি। খালেদার জামিন আটকে সরকার তার সাংবিধানিক অধিকার লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তার চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া না হলে যে কোনো ঘটনার জন্য সরকারকে দায়ী হতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এক প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবির সঙ্গে বিএনপির সংসদে যোগদানের কোনো সম্পর্ক নেই। “আমরা বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে, গণতন্ত্রের স্বার্থে, আমাদের, দলের স্বার্থে সংসদে গেছি। বেগম জিয়ার মুক্তি তো কনডিশনাল হবে না, আইনগতভাবে হবে। জামিনে মুক্তি তার পাপ্য। আমরা সেটা চাই।” বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে দলের মনোনয়ন নিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “আমি দেশের বাইরে ছিলাম। গতকালই আমি আপনাদের চ্যানেলে দেখলাম আপনরাই বলছেন যে, দুজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।” বিএসএমএমইউতে চিকিসাধীন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আারও খারাপ হয়েছে বলে দাবি করেছেন এক দিন আগেই বিদেশ থেকে ফেরা বিএনপি মহাসচিব ফখরুল। তিনি বলেন, “আগে ছিল ম্যাডামের বাম শোল্ডার ফ্রোজেন, এখন তার ডান শোল্ডার ফ্রোজেন হতে যাচ্ছে। একুয়েট পেইন হচ্ছে তার। তার হাতগুলো নাড়াতে পারছেন না। পা তিনি সোজা থাকলে বাঁকা করতে পারছেন না। তিনি এখন কারও সাহায্য ছাড়া বিছানা থেকে উঠতে পারছেন না। তাকে টয়লেটে যেতে হলেও সাহায্য নিতে হয়। আমরা যতটুকু জেনেছি যে, তার মাসলসগুলো শুকিয়ে যাচ্ছে, অকেজো হয়ে যাচ্ছে। তার যে রিউমেটিকস আর্থারাইটিস যেটা আছে সেটাও অনেক বেড়ে গেছে। “দেশনেত্রীর শরীর-স্বাস্থ্য এত খারাপ হয়ে েেগ্ছ যে, উনি বিছানা থেকে উঠতে পারেন না। আমরা আগেও বলেছি তিনি অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসে ভোগছেন। আমার কাছে যে তথ্য আছে এ্খন তিনি ইনসুলিন নিচ্ছেন। ইনসুলিন নেওয়ার পরও তার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসছে না।” বিএসএমএমইউতে যে কক্ষে বিএনপি চেয়ারপারসন রয়েছেন, তার পরিসর ছোট বলেও জানান ফখরুল। তিনি বলেন, “আমরা সরকারকে বার বার বলছি, তাকে উন্নত চিকিৎসা দিতে হবে। তিনি বাইরে থেকে চিকিৎসা করতে চান, সেই সুযোগটাও তাকে দেওয়া হচ্ছে না।

‘হেলথ বুলেটিনের’ দাবি

খালেদার স্বাস্থ্যের নিত্যকার তথ্য জানাতে সরকারের প্রতি দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব। তার নেত্রীর স্বাস্থ্যের তথ্য দিয়ে তিনি বলেন, “এই কথাগুলো বলছি এই কারণে যে জনগণের জানা উচিৎ, নেত্রীর অবস্থা কেমন। ফখরুল বলেন, “প্রতিদিন যে খবরগুলো পাচ্ছি দেশনেত্রীর স্বাস্থ্যের ব্যাপারে, আমরা উদ্বিগ্ন। এটা তো তাদের দায়িত্ব ছিল প্রতিদিন একটা করে হেলথ বুলেটিন দেওয়া। সরকারের কাস্টডিতে আছেন তিনি। এটা ডিমান্ড করে যে, উনার স্বাস্থ্য সম্পর্কে তারা জানাবে। সেটা তারা জানায় না। “আত্মীয়-স্বজনদের নিয়মিত দেখা করাও তারা এলাউ করে না। আগে ৭ দিনে দেখা করতে দিত, এখন ১৫দিনেও দেয় না। আমরা দ্‘ুএকবার দেখা করেছি, সেই সুযোগটাও দেওয়া হয় না।”

“উনি তো সাধারণ কেউ নন। উনি তিন বারের প্রধানমন্ত্রী, দুই বারের বিরোধী দলের নেতা এবং এদেশে স্বাধীনতার ক্ষেত্রে, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে, সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তার অবদান কেউ অস্বীকার করতে পারবে না,” বলেন তিনি। গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফখরুলের সঙ্গে ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী ও আবদুল কাইয়ুম।

কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেননি ২৪২০৪২ শিক্ষার্থী

ঢাকা অফিস ॥ মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়েও এবার ২ লাখ ৪২ হাজার ৪২ শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে এখনও আবেদন করেননি, যাদের বেশিরভাগই ঝরে পড়বে বলে বোর্ড কর্মকর্তারা মনে করছেন। ১২ থেকে ২৩ মে রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৮২৫ জন শিক্ষার্থী কলেজে ভর্তি হতে অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন করেছেন বলে ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক মো. হারুন-আর-রশিদ জানিয়েছেন। মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ শিক্ষার্থী পাস করেছেন। এরমধ্যে কারিগরি বোর্ড থেকে পাস করেছেন ৯১ হাজার ২৯৮ জন। কারিগরি বাদে সব বোর্ড থেকে পাস করেছেন ১৬ লাখ ৫৭ হাজার ৮৬৭ জন। আর কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেছেন ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৮২৫ জন। এই হিসেবে এবার মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়েও ২ লাখ ৪২ হাজার ৪২ শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে আবেদন করেননি; যা উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর এক-সপ্তাংশ। এ বিষয়ে কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন শুক্রবার বলেন, যারা আবেদন করেননি তাদের অনেকে ঝরে পড়বে, কেউ কেউ দেশের বাইরে পড়তে যাবেন। তবে কলেজে ভর্তি প্রক্রিয়ার দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ে কিছু শিক্ষার্থী একাদশে ভর্তি হতে আবেদন করবেন বলে মনে করছেন তিনি। ঢাকা বোর্ডের একজন কর্মকর্তা বলেন, “আমাদের অভিজ্ঞতা হল প্রথম ধাপে যারা আবেদন করেন না, তাদের বেশিরভাগই ঝরে পড়েন। দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ে হাতেগোনা কিছু শিক্ষার্থী কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেন।” কলেজ পরিদর্শক জানান, এবার কলেজে ভর্তি হতে ১০ লাখ ৫২ হাজার ১৮৪ জন অনলাইন এবং ৩ লাখ ৭৪ হাজার ২২২ জন এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন করেছেন। ২৪ থেকে ২৬ মের মধ্যে শিক্ষার্থীদের আবেদন যাচাই-বাছাই ও আপত্তি নিষ্পত্তি করা হবে জানিয়ে অধ্যাপক হারুণ বলেন, পুনঃনিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে তারা ৩ থেকে ৪ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। পছন্দক্রম পরিবর্তন করা যাবে ৫ জুন। ১০ জুন প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে। প্রথম তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ১১ থেকে ১৮ জুন সিলেকশন নিশ্চয়ন (যে কলেজের তালিকায় নাম আসবে ওই কলেজেই যে শিক্ষার্থী ভর্তি হবেন তা এসএমএসে নিশ্চিত করা) করতে হবে। এরপর ১৯ থেকে ২০ জুন দ্বিতীয় পর্যায় এবং ২৪ জুন তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আবেদন নিয়ে ২১ জুন দ্বিতীয় পর্যায় এবং ২৫ জুন তৃতীয় পর্যায়ের ফল প্রকাশ করা হবে। এবার ঢাকা বোর্ডের ৩ লাখ ৯৯ হাজার ১৯৫ জন, রাজশাহীর ১ লাখ ৮৮ হাজার ৫৮২ জন, চট্টগ্রামের ১ লাখ ২২ হাজার ৩৬ জন, কুমিল্লার ১ লাখ ৫৬ হাজার ৯৪৫ জন, যশোরের ১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৯৪ জন, বরিশালের ৭৭ হাজার ৪২০ জন, সিলেটের ৮০ হাজার ১৬২ জন, দিনাজপুরের ১ লাখ ৪৭ হাজার ৯৭৮ জন, ময়মনসিংহের ৯৬ হাজার ৫৪৩ জন এবং মাদ্রাসা বোর্ডের ১ লাখ ২৮ হাজার ৮১৮ শিক্ষার্থী কলেজে ভর্তি হতে আবেদন করেছেন বলে জানান ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক। এবারও সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে আবেদন করতে পেরেছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীর মেধা ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি কলেজে তার অবস্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। অধ্যাপক হারুন জানান, ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৮২৫ জন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৬২ লাখ ৪৯ হাজার ৮৬টি আবেদন জমা পড়েছে। এরমধ্যে অনলাইনে ৫৮ লাখ ৬২ হাজার ৯৫টি এবং এসএমএসের মাধ্যমে ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৯৫১টি আবেদন করেন শিক্ষার্থীরা।

 

হাটশহরিপুর ইউনিয়ন আ’লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে আতাউর রহমান আতা

আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা হাটশ হরিপুর  ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপির আয়োজনে গতকাল শুক্রবার হরিপুর ইউনিয়নের দি ওল্ড কুষ্টিয়া হাই স্কুল  প্রাঙ্গনে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে ইফতার ও  দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মিলন মন্ডলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আতাউর রহমান আতা। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক হাজী তরিকুল ইসলাম মানিক, শহর আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক মীর রেজাউল ইসলাম বাবু, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম সম্পা মাহমুদ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শহর ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ডা. আফিল উদ্দিন, কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি সাইফুদৌলা তরুন, জেলা বঙ্গবন্ধু মানব কল্যান পরিষদের সভাপতি সেলিম রেজা, সাধারন সম্পাদক মীর অনিক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক বজলুর রশিদ, সদর থানা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক লাল্টু রহমান, সদর থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম-আহবায়ক ইলিয়াস খান,  স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা জহুরুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা সর্দ্দার মো.পাভেল সহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের  বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সার্বিক পরিচালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সেলিম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আতাউর রহমান আতা বলেন আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় এসে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন মুলক কাজ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন জায়গায় পবিত্র রমজান মাসে এতিমদের সাথে ইফতার করছেন। তিনি অকালে তার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আদরের ছোট ভাই শেখ রাসেলসহ পরিবার হারিয়ে তিনিও এতিম, তিনি কখনও অসহায় এতিমদের ঘৃণা করেন না। তিনি আরও বলেন-বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো বাংলাদেশকে দারিদ্র মুক্ত করবে, দেশের মানুষ ডিজিটাল সেবা পাবে, সেই স্বপ্ন পুরনের জন্য কখনও ভেঙে পড়ে নাই, দেশের মানুষের কল্যানের কথা ভেবে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। দেশ আজ উন্নয়নের কাতারে পৌছে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় কুষ্টিয়ায় উন্নয়নমুলক কাজ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সদর সাংসদ মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি। বছরে বার মাসের মধ্যে একটি মাস পালিত হয় রমজান মাস। এ মাসটিকে সিয়াম সাধনার মাস বলা হয়ে থাকে। এই মাসে এমপি হানিফ সর্বস্তরের মানুষের কথা ভেবে পবিত্র মাহে রমজানের দিনে তারই আয়োজনে আজ হাটশ হরিপুর ইউনিয়নে ইফতারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আলোচনা শেষে দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কুষ্টিয়ার উন্নয়নের রুপকার এমপি হানিফের দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

 

ভারতে কোচিং সেন্টারে আগুনে ১৫ শিক্ষার্থীর প্রাণহানি

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের গুজরাটের সুরতে একটি কোচিং সেন্টারে আগুনে ১৫ শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের অধিকাংশের বয়স ১৪ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে সুরতের তক্ষশীলা নামের ওই বাণিজ্যিক ভবনের তৃতীয় ও চতুর্থ তলায় আগুন লাগে। আগুন থেকে প্রাণ বাঁচাতে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীর তৃতীয় ও চতুর্থ তলা থেকে লাফিয়ে পড়ার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের একজন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা পিটিআইকে বলেছেন, “আগুন ও ধোঁয়া থেকে বাঁচতে তৃতীয় ও চতুর্থ তলা থেকে শিক্ষার্থীরা নিচে লাফিয়ে পড়েছে। অনেককে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আগুন নেভানোর চেষ্টা চলছে।” এই ঘটনায় শোক জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরনের সহায়তা দিতে গুজরাট রাজ্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

পদত্যাগ করতে পারেন রাহুল গান্ধী

ঢাকা অফিস ॥ ভারতে কংগ্রেসকে লোকসভা নির্বাচনী বৈতরণী পার করাতে পারেন নি সভাপতি রাহুল গান্ধী। তাই দলের ভয়াবহ পরাজয়ের দায় স্বীকার করে তিনি পদত্যাগ করতে পারেন বলে জানিয়েছেন দলেরই একজন। ভোটের ফল পর্যালোচনা করতে শনিবার কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটি বৈঠকে বসবে দিল্লিতে। সেখানেই রাহুল পদত্যাগ করতে পারেন বলে জানিয়েছেন দলের ওই সদস্য। ‘দ্য ইকোনোমিক টাইমস’ পত্রিকা জানায়, দেশজুড়ে কংগ্রেসের খারাপ ফলের পর দলের হাল ধরা নিয়ে এরই মধ্যে দলের ভেতরেই গুঞ্জন শুরু হয়েছে। দলের নানা স্তর থেকে গোপনে রাহুলের সমালোচনা শুরু হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে তার নেতৃত্ব নিয়েও। দলের অনেক নেতা তাদের পদত্যাগপত্রও পাঠাচ্ছেন। উত্তরপ্রদেশে দলের খারাপ ফলের জন্য পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন রাজ বব্বর। হারের দায় নিয়ে পদত্যাগ করেছেন কর্নাটকের কংগ্রেসের প্রচার কমিটির সভাপতি পাতিল। ওড়িশার কংগ্রেস সভাপতি নিরঞ্জন পট্টনায়কও পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। এ পরিস্থিতির মধ্যেই নির্বাচনে পরাজয়ের সম্পূর্ণ দায় নিজের কাঁধে নিয়ে দলের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছার কথা বলেছেন রাহুল। মা সোনিয়া গান্ধীসহ ঊর্ধ্বতন কংগ্রেস নেতাদের কাছেও পদত্যাগ করার কথা বলেছেন তিনি।

 

দৌলতপুর সীমান্তে মালিক বিহীন ভারতীয় মদ উদ্ধার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে মালিক বিহীন অবস্থায় ভারতীয় মদ উদ্ধার হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১২টার দিকে চিলমারী বিওপি’র টহল দল আলীমডোবা মাঠ নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে মালিক বিহীন ৭১বোতল ভারতীয় জেডি মদ উদ্ধার করেছে। অপরদিকে জামালপুর বিওপি’র টহল দল একইদিন বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে জামালপুর মধ্যপাড়ায় অভিযান চালিয়ে মালিক বিহীন অবস্থায় ৪৩বোতল ভারতীয় বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে। তবে এসব মাদকের সাথে জড়িত কেউ আটক হয়নি।