হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. বসির উদ্দিনের এমআরসিপি(ইউকে) ডিগ্রী লাভ

নিজ সংবাদ ॥ বিশিষ্ট হৃদরোগ ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. বসির উদ্দিন এমআরসিপি(ইউকে) ডিগ্রী অর্জন করেছেন। গত শুক্রবার এ ফলাফল প্রকাশিত হয়। চিকিৎসক বসির উদ্দিন বর্তমানে কুষ্টিয়া  মেডিকেল কলেজে কর্মরত আছেন। এমআরসিপি ডিগ্রী অর্জন করায় তাকে তার সহকর্মি চিকিৎসক বন্ধুসহ বিভিন্ন মহল অভিনন্দন জানিয়েছেন। বসির উদ্দিন সবার কাছে দোয় চেয়েছেন। চিকিৎসা পেশার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। সাধারন ও গরীব মানুষকে তিনি বিভিন্ন সময় বিনা পয়সায় চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। তার গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার হরিণারায়নপুর ইউনিয়নের পদ্মনগরে।

আজ অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের

ঢাকা  অফিস ॥ সচিবালয়ে আজ রোববার নিজ দপ্তরে অফিস করবেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সকাল ১০টায় সংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের মাধ্যমে তাঁর দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু করবেন। এ তথ্য জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা আবু নাসের। আবু নাসের বলেন, সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় ছাড়াও মন্ত্রী এদিন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন চলমান উন্নয়ন প্রকল্প বিষয়ক সভায় সভাপতিত্ব করবেন। সিঙ্গাপুরে দুই মাস ১০ দিন চিকিৎসা শেষে গত বুধবার দেশে ফিরেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ওই দিন বিকেল ৫টা ৫২ মিনিটে তাঁকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমান থেকে নেমেই তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি দেশবাসীর কাছে দোয়া চান। বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের সামনে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে ওবায়দুল কাদের বলেন, মমতাময়ী মা, যিনি সত্যিই মাদার অব হিউম্যানিটি। তাঁর কাছে আমার ঋণের বোঝা আরো বেড়ে গেল। বঙ্গবন্ধুর আরেক কন্যা শেখ রেহানা আমার জন্য কোরআন শরিফ পড়ে দোয়া করেছেন। তাঁর কাছে আমার কৃতজ্ঞতা। দেশবাসী ও দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দোয়ার কথা স্মরণ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, অনেকে হাসপাতালে ছুটে এসেছেন, যদিও আমি তখন আমার মধ্যে ছিলাম না। গত ৩ মার্চ সকালে ওবায়দুল কাদের বুকে প্রচন্ড ব্যথা নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হন। এনজিওগ্রাম করার পর তাঁর হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। ভারতের বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠির পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়। সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে বাইপাস সার্জারির পর তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে ওঠেন। ৫ এপ্রিল হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পান তিনি। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে তিনি সিঙ্গাপুরেই একটি ভাড়া বাসায় ওঠেন।

কুষ্টিয়ায় ২ হাজার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিল ক্যামব্রিয়ান কলেজ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া, ঈশ্বরদী ও আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার ২  হাজার কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিয়েছে ক্যামব্রিয়ান কলেজ। শুক্রবার কুষ্টিয়া পৌরসভা মিলনায়তনে এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্র“পের চেয়ারম্যান লায়ন এম.কে বাশারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে কুষ্টিয়া ইসলামিক ইউনিভার্সিটির বিজনেস স্টাডিজ ডিপার্টমেন্ট এর চেয়ারম্যান আরেফিন সিদ্দিকী, বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেতা আহমেদ শরীফ, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট টেকনিকাল এডভাইজার মিঃ ইয়েন ফসটার, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ কুষ্টিয়া ও বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি জেব-উন-নিসা (সবুজ), ডিপার্টমেন্ট অব টুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরফিন, সমকালের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি সাজ্জাদ রানা, ঈশ্বরদী প্রতিনিধি সেলিম সরদার উপস্থিত ছিলেন। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দুই পর্বের প্রথমে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তির্ণ কৃতি ছাত্রীদের এবং বিকেল ৩টায় দ্বিতীয় পর্বে কৃতি ছাত্রদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সংবর্ধিত প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের সুদৃশ্য মেডেল, ব্যাগ, বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণসহ ইফতার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

বাগেরহাটে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ৬

ঢাকা অফিস ॥ বাগেরহাটের ফকিরহাটের সড়কে বাস দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ছয়জন। বাসটি বেপরোয়া গতিতে এসে সড়কের পাশে একজনকে চাপা দেওয়ার পর গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে যায় বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধার কার্যক্রমে যাওয়া বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাসটির চাকা ফেটে যাওয়ায় চালক এর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিলেন। নিহতদের মধ্যে বাসচালকও রয়েছেন। খুলনা-মোল্লাহাট রুটের এই বাসটির চালকের নাম ফরহাদ (২৫)। তিনি খুলনা জেলার রূপসা উপজেলা নৈহাটি গ্রামের আবু বক্করের ছেলে। অন্যরা হলেন চালকের সহকারী একই উপজেলার পাঁচানি গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে সুমন (২৩), যাত্রী বাগেরহাট সদর উপজেলার কোদলা গ্রামের হাকিম বিশ্বাসের ছেলে হেকমত আলী বিশ্বাস (৪৫), একই উপজেলা আড়পাড়া গ্রামের ইসারাত মল্লিকের ছেলে লিটু মল্লিক (৩০),  ফকিরহাট উপজেলার বৈলতলি গ্রামের সেলিম শেখের স্ত্রী হোসনেয়ারা (৩০) ও সড়কের পাশে কর্মরত নির্মাণ শ্রমিক কয়রা উপজেলার অর্জুনপুর গ্রামের কাদের সরদারের ছেলে কদ্দুস সরদার (৫০)। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কাকডাঙা এলাকায় এই দুর্ঘটনাটি ঘটে বলে বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় জানিয়েছেন। ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক (ডিএডি) সরদার মাসুদ বলেন, “যাত্রীবাহী বাসটির সামনের চাকা ফেটে গিয়েছিল। তখন বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে গাছের সাথে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে পাঁচজন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজনের মৃত্যু হয়।” প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, বাসটি বেপরোয়া গতিতে চলছিল। এটি কাকডাঙায় রাস্তার পাশে এক দিনমজুরকে চাপা দিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে উল্টে যায়। এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ২০ জন বাসযাত্রী। তাদের ফরিহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মো. তারিফ উদ্দীন। তিনি বলেন, “দুর্ঘটনায় আহত ১৫ থেকে ২০ জনকে হাসপাতালে আনা হয়। আনার পর একজনের মৃত্যু হয়। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে পাঁচ থেকে সাত জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ডায়ালগ অব এশিয়ান সিভিলাইজেশন শীর্ষক আন্তর্জাতিক বেইজিং সম্মেলনে ইবি ভাইস চ্যান্সেলর

ধর্মীয় জঙ্গিবাদ এবং বর্ণবাদ বিশ^শান্তিকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে

চীনের বেইজিং লিয়াওনিং ইন্টারন্যাশনাল হোটেলে গত ১৫ ও ১৬ মে অনুষ্ঠিত “ডায়ালগ অব এশিয়ান সিভিলাইজেশন” শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (রাশিদ আসকারী) যোগদান এবং বক্তব্য প্রদান করেন। সম্মেলনে আন্ডারস্ট্যান্ডিং এশিয়ান সিভিলাইজেশন: টুওয়ার্ডস বিল্ডিং এ্যা গ্লোবাল কমিউনিটি উইথ এ্যা শেয়ারড্ ফিউচার ফর ম্যানকাইন্ড” বিষয়ে প্রদত্ত বক্তৃতায় ভাইস চ্যান্সেলর বলেন, জঙ্গিদের আক্রমণে আমরা আফগানিস্তান, ইরাক, সিরিয়াসহ বিশে^র বিভিন্ন দেশে ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শনসমূহ নির্মমভাবে ধ্বংস হতে যেতে দেখেছি। ধর্মীয় জঙ্গিবাদ এবং বর্ণবাদ বিশ^শান্তিকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে এবং যৌথ ভবিষ্যতের এক মানবসমাজ গড়ার প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। সুতরাং ধর্মীয় সম্প্রীতির এবং বহুবর্ণের সমন্বিত একটি মানবসম্প্রদায় গড়ে তুলতে আমাদের অবশ্যই এই সঙ্কট মোকাবেলায় মনোযোগ দিতে হবে। তিনি বলেন, নতুন সহস্রাব্দে আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রান্তে অবস্থান করছি। আমরা এমন একটি ক্রসরোডে পৌঁছেছি যেখানে আমাদের জীবনযাত্রা এবং একে অপরের সাথে যোগাযোগের পদ্ধতিতে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা, স্বচালিত পরিবহন, থ্রি-ডি প্রিন্টিং, ন্যানোটেকনোলজি এবং কোয়ান্টাম কম্পিউটিং-এর মতো অকল্পনীয় প্রযুক্তির আবির্ভাব ঘটেছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রতিক্রিয়ার সাথে সমন্বয় করে আমাদের সামনে এগুতে হবে। তিনি আরও বলেন, পশ্চিমাদের মতো করে প্রাচ্যকে উপস্থাপন এশিয়ান সভ্যতাগুলো সঠিকভাবে বোঝার ক্ষেত্রে বড় বাধা।

চীনের রাজধানী বেইজিং-এ আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশটির রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। কম্বোডিয়ার রাজা নরোদম শিয়ামনি, গ্রীসের রাষ্ট্রপ্রধান প্রোকপিক পাভলোপৌলস, সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি হালিমা ইয়াকুব, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি মৈত্রীপাল সিরিসেন, আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী পাসিনিয়ান এবং ইউনেস্কো মহাপরিচালক অড্রে আজুলেই প্রমুখ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। ৪৭ দেশের প্রায় ৫ শত প্রতিনিধি সম্মেলনে যোগদান করেন, যার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে যোগদান করেন দুইজন। আজ (১৯ মে) ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সরকার পাগল হয়ে গেছে – রব

ঢাকা অফিস ॥ সরকার পাগল হয়ে গেছে বলেই কৃষকের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্য মূল্য দিচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব। তিনি বলেছেন, আমার মনে হয়, এ সরকার পাগল হয়ে গেছে। যার কারণে কৃষকের ধানের ন্যায্য মূল্য দিচ্ছে না। শনিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জেএসডি আয়োজিত ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গভবন-গণভবনে ফসল উৎপাদিত হয় না উল্লেখ করে আবদুর রব বলেন, বঙ্গভবনে, গণভবনে, সচিবালয়ে ফসল উৎপাদন হয় না। উৎপাদন হয় ক্ষেত-খামারে। আর সেই উৎপাদন যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে দেশ চলবে কীভাবে? দেশের মানুষ বাঁচবে কীভাবে? কৃষক না বাঁচলে দেশ বাচবে কী করে? কৃষক না বাঁচলে দেশের জনগণ বাঁচবে না। তিনি বলেন, আন্দোলন না করলে কৃষকরা তাদের ফসলের ন্যায্য মূল্য পাবেন না। আর দেশে গণতন্ত্রও ফিরে আসবে না। কৃষকদের আন্দোলনেই সরকারের পতন হবে মন্তব্য করে রব বলেন,আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে বর্তমান অবৈধ সরকারকে পদত্যাগ করিয়ে দেশটাকে নতুন করে গড়তে হবে। মন্ত্রীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘মন্ত্রীরা কী ভুলে গেছেন তাদের বাড়ি কোথায় ছিল? তাদের পূর্বপুরুষ কী ছিল? এই সরকার বুঝতে পারছে না। দেশে আগুন জ্বলে যাবে। যেভাবে কৃষকদের ন্যায্য মূল্য দেয়া হচ্ছে না, কৃষকরা যদি একবার ক্ষেপে যায় তাহলে দেশের মানুষ না খেয়ে মরবে।

বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি রক্ষায় সহযোগিতা দেবে নির্বাহী বিভাগ – আইনমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বিচার বিভাগ সম্পূর্ণ স্বাধীন বলে মন্তব্য করে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি রক্ষা করার জন্য যা করতে হয়, নির্বাহী বিভাগ সেই ব্যাপারে সব ধরনের সহযোগিতা দেবে। গতকাল শনিবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে কসবা উপজেলা সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এই মন্তব্য করেন। বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া বিবৃতি প্রতিবন্ধকতা হবে কিনা জানতে চাইলে আনিসুল হক বলেন, প্রধান বিচারপতি বা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ যেটা বলেছেন, সেটা হলো, বিচারাধীন কোনও মামলা সম্পর্কে ব্যক্তিগত অভিমত দিয়ে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ করা যাবে না। বিচারাধীন বিষয়ে কোনও কথা না বললে বিচারকদের ওপর কিন্তু কোনও প্রভাব পড়ে না। সে জন্যই প্রধান বিচারপতি ও আপিল বিভাগের বিচারপতিরা ওই বিৃবতি দিয়েছেন। আইনমন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয় না, আপনারা যে রিপোর্ট করেন তা বন্ধ করতে ওই বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। যেটা তারা (আপিল বিভাগের বিচারপতিরা) বলেছেন, মামলাটি পেন্ডিং কিন্তু বিচার কাজ শেষ হয়নি, এমতাবস্থায় ওই বিচার নিয়ে রিপোর্ট করলে তা আদালতের ওপর প্রভাব ফেলবে। এর আগে কসবা উপজেলা সমিতির আয়োজনে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে দেশবাসীর সুখ ও সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া করা হয়।

কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা মহাসড়কের স্থায়ীত্ব নষ্ট হচ্ছে

কুষ্টিয়া পৌরসভার নালা নির্মাণ সামগ্রী ও কাদা মাটির স্তুপে দূর্ভোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়াÑঝিনাইদহ মহাসড়ক ঘেঁষে পৌরসভার প্রধান নালা নির্মাণ হচ্ছে। অভিযোগ পাওয়া গেছে, নালা নির্মাণে কাটা কাদা মাটি ও নির্মাণ সামগ্রী মহাসড়কে ফেলে রাখা হয়েছে। এতে যান চলাচলে ব্যহত হচ্ছে। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে সড়কে চলাচলকারী মানুষ। প্রায় পাঁচ মাস ধরে নালা নির্মাণ কাজ চলছে। সওজ অভিযোগ করেছে, মহাসড়কে কাদা মাটি ফেলে রাখায় কোটি টাকা ব্যয়ে সদ্য নির্মাণ করা মহাসড়কের স্থায়ীত্ব নষ্ট হচ্ছে। এ ব্যাপারে পৌরসভাসহ জেলা প্রশাসকের কাছে একাধিক চিঠিও দিয়েছে। কিন্তু পৌরসভা কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না এমনকি সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার তা আমলে আনছেন না।

কুষ্টিয়া পৌরসভার প্রকৌশলী কার্যালয় সূত্র জানায়, কুষ্টিয়া শহরের মজমপুর রেলগেট এলাকা থেকে চৌড়হাস এলাকা পর্যন্ত ২ হাজার ৬৭০ মিটার পৌরসভার প্রধান নালা নির্মাণ হচ্ছে। শহরের বিভিন্ন এলাকার পানি নালা দিয়ে চৌড়হাস এলাকায় জিকে সেচ প্রকল্পের খালে গিয়ে পড়বে। ৬ ফিট চওড়ার নালা নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। আবু হানিফ অ্যান্ড সন্স ও আল কনস্ট্রাকশন নামে দুটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে কাজ পান। গত বছরের ১৮ আগষ্ট থেকে নালা নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে।  শেষ হবে চলতি বছরের ১৯ আগষ্ট। নালাটি কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক ঘেষে নির্মাণাধীন করা হচ্ছে। সওজ বলছে, নির্মাণের শুরু থেকেই নালার কাদা মাটি ও নির্মাণ সামগ্রী মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় স্তুপ করে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে কয়েক দফায় অন্তত চারটি চিঠি দিয়েছে পৌরসভাকে। কোন সুরাহা না হওয়ায় নিরুপায় হয়ে শেষে জেলা প্রশাসককে একটি চিঠি দেয়। চিঠিগুলোতে উলে¬খ করা হয়েছে, নালা নির্মাণের সময় ময়লা আবর্জনা ও কাদা মাটি দিনের পর দিন সড়কে স্তুপ করে রাখা হচ্ছে। এতে সম্প্রতি নির্মাণ হওয়া মহাসড়কের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। জেলা প্রশাসনের চিঠিতে বলা হয়, বারবার চিঠি দেওয়া স্বত্বেও সংশি¬ষ্ট দপ্তর কোন কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়নি।

সরেজমিনে গত সোমবার দেখা গেছে, শহরের সার্কিট হাউজ এলাকায় মহাসড়কের অর্ধেক জায়ঘা জুড়ে কাদা মাটি ফেলে রাখা হয়েছে। এছাড়া জিলা স্কুল, ফুলতলা ও ষ্টেডিয়াম এলাকায় সড়কে মাটি ও পাথর পড়ে আছে। সার্কিট হাউজ এলাকায় মিশ্রণ যন্ত্র (মিকচার মেশিন) ফেলে রাখা হয়েছে। সেখানে শ্রমিকেরা কাজ করছেন।

পলাশ হোসেন নামে এক শ্রমিক বলেন, কাদা মাটি অন্য কোথায় ফেলার জায়গা নেই। তবে ট্রলি দিয়ে কয়েক দিন পরপর মাটি অন্যত্র সরিয়ে ফেলা হচ্ছে। প্রকল্প এলাকায় থাকা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের এক কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, যত দ্রুত সম্ভব কাদামাটি সরিয়ে ফেলা হয়ছ। হয়তো কয়েকদিন দেরি হয়।

সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, গত বছরের সেপ্টম্বর মাসে প্রায় প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে মহাসড়ক সংস্কর করা হয়েছে। কাদামাটি ফেলে রাখায় এর স্থায়ীত্ব নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আসছে বর্ষায় ওই এলাকায় গর্তের সৃষ্টি হতে পারে। বিষয়টি ভেবেই লিখিত ও মৌখিকভাবে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। কিন্তু কেউ কোন কথা শোনে না।

পৌরসভার এক প্রকৌশলী নামপ্রকাশ না করার শর্তে বলেন,‘নালাটি মূল ঠিকাদার কাজ করছে না। তারপরও মূল ঠিকাদারকে বিষয়টি লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। এর বেশি কিছু বলতে পারবো না।’ মুল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্তাধীকারী আবদুল মতিন বলেন,‘বিষয়টি জানা আছে। তবে দরপত্রে বলা আছে ৩০ মিটারের মধ্যে মাটি রাখতে। এজন্য হয়তো সড়কেই মাটি রাখা হচ্ছে। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যেই সেগুলো অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। আর আমার লাইসেন্সে আরেকজন ঠিকাদার কাজ করছে। তাকেও বলা হয়েছে।’ জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, ‘আমি নিজেও সড়কে চলতে গিয়ে সমস্যায় পড়ি। মহাসড়ক নষ্ট করা কোনভাবেই যাবে না। এ ব্যাপারে পৌরসভাকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।’

অস্ট্রেলিয়ায় ভোট গ্রহণ

ঢাকা অফিস ॥ অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশটির রাজনীতিতে বিরাজমান অস্থিরতার কারণে ২০০৭ সালের পর কোনো প্রধানমন্ত্রী মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। শনিবার সকাল থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয় বলে জানায় বিবিসি। অস্ট্রেলিয়ার সব প্রদেশ ও অঞ্চলে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়। অস্ট্রেলিয়ায় ভোট দেওয়া বাধ্যতামূলক এবং এ বছর রেকর্ড এক কোটি ৬৪ লাখ ভোটার ভোট দিচ্ছেন। যেহেতু ভোট দান বাধ্যতামূলত তাই ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সের সবাই ভোট দেবে, নতুবা ২০ অস্ট্রেলীয় ডলার জরিমান গুনতে হবে। অস্ট্রেলিয়ায় প্রতি তিন বছর পরপর জাতীয় নির্বাচন হয়। কিন্তু ২০০৭ সালের পর এখন পর্যন্ত কোনো প্রধানমন্ত্রী তার মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। ক্ষমতাসীন দল লিবারেল-ন্যাশনাল পার্টি টানা তৃতীয় মেয়াদের জন্য লড়াই করছে। যদিও দলটির মধ্যে চরম অন্তর্দ্বন্দ্ব বিরাজ করছে। নিজ দলের ভিতরে বিদ্রোহের কারণে মাত্র নয় মাস আগে দলীয় নেতৃত্ব হারান ম্যালকম টার্নবুল, সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীত্ব। গত বছর অগাস্টে দলের নেতা নির্বাচনের ভোটাভুটিতে দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহযোগী স্কট মরিসনের কাছে হেরে যান তিনি। ওই হারের পর টার্নবুল পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগ করেন। নতুন প্রধানমন্ত্রী হন মরিসন। টার্নবুলের সঙ্গে সব ধরণের তিক্ততা মিটিয়ে ফেলেছেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী মরিসন বলেন, অল্প সময় হাতে পেলেও তিনি দল অনেকটা গুছিয়ে নিয়েছেন। নির্বাচনী প্রচারে মরিসন অর্থনৈতিক বিষয়গুলোকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। প্রধান বিরোধীদল লেবার পার্টির নেতা বিল শর্টেনও জয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। গত ছয় বছর ধরে তিনি লেবার পার্টির নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি নিজ দলের ঐক্যের উপর জোর দিয়ে বলেন, তার দল ক্ষমতায় গেলে জলবায়ু পরিবর্তন, জীবনযাপন ব্যয় ও স্বাস্থ্য খাতে গুরুত্ব দেবেন। উভয় নেতাই শনিবার সকাল সকাল ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেন। কিভাবে ভোট হয় : অস্ট্রেলিয়ায় সবসময় শনিবার ভোট গ্রহণ করা হয়। এবার দেশজুড়ে প্রায় সাত হাজার ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা ভোট দেবেন বলে জানায় নির্বাচন কমিশন।

তবে ভোটাররা চাইলে আগাম ভোটও দিতে পারেন। এবার  রেকর্ড প্রায় ৪০ লাখ ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ায় সর্বশেষ নির্বাচনে ৯৫ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছিলেন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় যা অনেক বেশি। সর্বশেষ নির্বাচনে যুক্তরাষ্ট্র ৫৫ শতাংশ এবং যুক্তরাজ্যে ৬৯ শতাংশ ভোট পড়েছে।

কে জিতবে? সিডনি মর্নিং হেরাল্ড পত্রিকায় শুক্রবার প্রকাশিত জরিপে ক্ষমতাসীন জোটের চেয়ে লেবার পার্টি ২ শতাংশ ভোট বেশি পাওয়ার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। তবে যেই জিতুক ভোটের লড়াই যে হাড্ডাহাড্ডি হবে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। সেক্ষেত্রে কোনো দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলে  গ্রিন্স, ওয়ান নেশন এবং ইউনাইটেড  অস্ট্রেলিয়া পার্টির মত ছোট দলগুলো এমনকি স্বতন্ত্রভাবে জয়ীরা গুুত্বপূর্ণ ভূমিকায় চলে আসতে পারে।

যদি মরিসনের দল হেরে যায় তবে চার বছরের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া চতুর্থ প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে।

কুষ্টিয়ায় গড়াই নদীকে দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযানে নেমেছে উপজেলা প্রশাসন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় গড়াই নদীকে দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে সদর উপজেলা প্রশাসন। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে গতকাল শনিবার সকাল থেকে শুরু হয় এ উচ্ছেদ অভিযান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান, সহকারি কমিশনার ভূমি (সদর) মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম, কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উচ্ছেদ অভিযানের সময় বিপুল সংখ্যাক পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয় নদী পাড়ে।  শহরের থানাপাড়া জিকে ঘাটে শেখ রাসেল সেতুর পশ্চিম পাশ ঘেঁষে গড়ে ওঠা স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া। উচ্ছেদ অভিযানের নেতৃত্ব দানকারী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী বলেন,‘ স্থানীয় কিছু অসাধু লোকজন গড়াই নদীর জায়গা দখল করে মার্কেটসহ দোকানপাট গড়ে তোলে। এসব দোকানপাট ভাড়া দিয়ে তারা অর্থ আয় করে আসছিল। গড়াই নদীকে দখল করতে দখলদারদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে গড়াই নদীর ওপর নির্মিত শেখ রাসেল সেতুর পাশে অবৈধ ভাবে জমি দখল করে গড়ে ওঠা প্রায় ৩০টি পাকা ও আধা পাকা ভবন ভেঙ্গে দেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।’ উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, পর্যায়ক্রমে সকল দখলদারদের হটিয়ে নদীর জাগয়া রক্ষা করা হবে। ১০দিন আগে নোটিশ করা হয় দখলদারদের। এছাড়া শুক্রবার মাইকিং করা হয়। নোটিশ পাওয়ার পর দখলদাররা তাদের মালামাল সরিয়ে নেয়। কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান বলেন, নদী রক্ষায় বর্তমান সরকার প্রধান শেখ হাসিনা বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে। সেই নির্দেশনা মোতাবেক গড়াই নদী রক্ষায় বিশেষ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সব দখলদারদের তালিকা প্রস্তুত করে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে। প্রাথমিক ভাবে শহরের জিকে ঘাটে অবৈধ দখল করে গড়ে ওঠা স্থাপনা উচ্ছেদ করে দেয়া হলো। এরপর নোটিশ করে সব অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হবে। নদী তার স্বাভাবিক প্রবাহ যাতে ধরে রাখতে পারে সে জন্য উচ্ছেদ পরিচালনা করা হচ্ছে।

আবারো ঈশিতার নতুন গান

বিনোদন বাজার ॥ অভিনেত্রী রুমানা রশীদ ঈশিতা। এই পরিচয়ের পাশাপাশি একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবেও জনপ্রিয় তিনি। তার শেষ গান রিলিজ হয় গত বছর। এ বছর আবারো নতুন গান নিয়ে হাজির হবেন ঈশিতা।‘আমার অভিমান’ শিরোনামে গানটি লিখেছেন ও সুর করেছেন লুৎফর হাসান এবং সংগীত আয়োজন করেছেন শাহরিয়ার আলম মার্সেল। আগামী ঈদে জি-সিরিজের ব্যানারে প্রকাশ হবে গানটি।এ প্রসঙ্গে ঈশিতা বলেন, ‘সারাবছর তো গান করা হয় না। ঈদের জন্য গানটি করলাম। গানের কথা ও সুর দারুণ লেগেছে। শ্রোতাদের ভালো লাগবে আশা করি। গানটির মিউজিক ভিডিও শেষ করে ঈদে প্রকাশ করা হবে।’উল্লেখ্য, গত বছর চ্যানেলে আইয়ের ইউটিউব প্লাটফর্মে ঈশিতার ‘তোমার জানালায়’ শিরোনামে একটি গান প্রকাশিত হয়। গানটির কথা লিখেছেন সোহেল আরমান এবং সুর সংগীত করেছেন ইবরার টিপু। ২০০২ সালে আহমেদ রিজভীর কথায় এবং প্রণব ঘোষের সুর সংগীতে ঈশিতার ‘রাত নিঝুম’অ্যালবামটি প্রকাশিত হয়েছিল।

 

সবজি চাষে বোরন সারের ব্যবহার

কৃষি প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশে যত ধরনের সবজি চাষ হয়, এসব সবজির মধ্যে সব সবজিরই সব ধরনের সারের প্রয়োজন সমান নয়। যেসব সার ফসলের জন্য কম লাগে কিন্তু একেবারেই ব্যবহার না করলে বা নিধাির্রত মাত্রায় ব্যবহার না করলে ফসলের জন্য সমস্যার সৃষ্টি হয়। সেই সারগুলোর মধ্যে বোরন অন্যতম। বোরন সার পরিমিত মাত্রায় ব্যবহারে যেমন ফলন বাড়ে তেমনি অতিরিক্ত ব্যবহারে ফসলের ক্ষতি হয় ও ফলন মারাত্মকভাবে কমে যেতে পারে। তাই বোরন সার ব্যবহারে খুবই সতর্ক থাকতে হয়। তেল ফসল হিসেবে বাংলাদেশে সরিষার চাষই প্রধান। প্রতি বছর প্রায় সাড়ে তিন লাখ হেক্টর জমিতে সরিষার চাষ হয়ে থাকে। যা থেকে প্রায় সাড়ে চার লাখ মে. টন সরিষা বীজ উৎপাদন হয়। যা থেকে প্রায় পৌনে দুই লাখ মে. টন ভোজ্য তেল পাওয়া যায়। পরীক্ষায় দেখা গেছে যে, সরিষা চাষে বোরন সার ব্যবহার করলে শতকরা ১৯.৮-২৩.০ ভাগ পর্যন্ত ফলন বৃদ্ধি পায়। এজন্য হেক্টর প্রতি মাত্র ১৫০-২০০ টাকা খরচ করে অতিরিক্ত প্রায় ৭-৮ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। শীত মৌসুমে যেসব সবজি চাষ করা হয় সেগুলোর মধ্যে কিছু কিছু সবজির বোরনের চাহিদা লক্ষ্য করা যায়। এসব সবজির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোÑ বেগুন, টমেটো, ফুলকফি, বাঁধাকপি, শিম, বরবটি, মটরশুঁটি, মূলা, আলু, গাজর, শালগম, বীট, সরিষা শাক, পালং শাক, পেঁয়াজ ইত্যাদি। জমিতে মাটির উপরের স্তরের তুলনায় নিচের স্তরেই বোরন বেশি থাকে। বিশেষ করে বেলে বা বেলে দো-আঁশ মাটিতে সেচের পানির সঙ্গে বোরন চুঁইয়ে মাটির নিচের দিকে চলে যায়। এজন্য এধরনের মাটিতে বোরন সার প্রয়োগের চেয়ে পাতায় প্রয়োগ বেশি কার্যকর। তবে অন্য ধরনের মাটিতে বিশেষ করে ভারী মাটি বা চুন মাটিতে বোরন বেশি লাগে। বোরন সার প্রয়োগ করা যায়। পাতায় প্রয়োগ করলে প্রতি লিটার পানিতে ১.৫-২.০ গ্রাম এবং মাটিতে প্রয়োগ করলে ৩-৪ কেজি বোরন সার প্রয়োজন হয়। পাতায় ¯েপ্র করলে বীজ বোনার বা চারা রোপণের ২০-২৫ দিন এবং ৪০-৪৫ দিন পর ¯েপ্র করতে হয়। বোরন পাতায় ¯েপ্র করার অসুবিধা হলোÑ অভাবজনিত লক্ষণ দেখা দেয়ার পর এটি যখন প্রয়োগ করা হয়, তখন ফসলের বেশ কিছু ক্ষতি হয়ে যায়। একটা ফসলে বোরন ব্যবহার করার পরের ফসলে ব্যবহার করতে হয় না। তৃতীয় ফসল চাষের সময় প্রয়োজন বুঝে আবার ব্যবহার করতে হয়। বোরনের অভাবে বাড়ন্ত আলুগাছের ডগার পাতা পুরু হয় ও কিনারা বরাবর ভিতরের দিকে গুটিয়ে গিয়ে অনেকটা কাপের আকৃতি ধারণ করে। এই সব পাতা ভঙ্গুর হয়। আলুগাছের শিকড়ও গুটিয়ে যায়, গাছ দুর্বল হয়। আলু ছোট আকারের হয়, খোসা খসখসে ও তাতে ফাটা ফাটা দাগ দেখা যায়। কখনো কখনো আলুর কন্দের ভেতরে বাদামি দাগ দেখা যায়। বোরনের অভাবে টমেটোর চারা গাছে সবুজ রঙের পরিবর্তে কিছুটা বেগুনি রং লক্ষ্য করা যায়। বাড়ন্ত টমেটোগাছের ডগার কুঁড়ি শুকিয়ে মরে যায়। পাতা এবং পাতার বৃন্ত পুরু ও ভঙ্গুর হয়। কান্ড খাটো হয়ে পুরো গাছ ঝোপালো হয়ে যায়। ফল বিকৃত হয় ও খোসা খসখসে হয়ে ফেটে যায়। বোরনের অভাবে বেগুনগাছের বৃদ্ধি কমে যায়। ফুল সংখ্যায় কম আসে এবং ফুল ঝরা বৃদ্ধি পায়। ফল আকারে ছোট হয় ও ফল ফেটে যায়। কখনো কখনো কচি ফল ঝরে পড়ে। বোরনের অভাবে শিম ও বরবটির নতুন বের হওয়া পাতা কিছুটা পুরু ও ভঙ্গুর হয়। পাতার রং গাঢ় সবুজ ও শিরাগুলো হলদে হয়ে যায়। শেষে পাতা শুকাতে শুরু করে, গাছে ফুল দেরিতে আসে ও শুঁটি বীজহীন হয়। বোরনের অভাবে ফুলকপির চারার পাতা পুরু হয়ে যায় এবং চারা খাটো হয়। ফুল বা কাডের্র উপরে ভেজা ভেজা দাগ পড়ে। পরে ওই দাগ হালকা গোলাপি এবং শেষে কালচে হয়ে ফুলটিতে পচন ধরে। পাতার কিনারা নিচের দিকে বেঁকে যায় ও ভঙ্গুর প্রকৃতির হয়। পুরনো পাতা প্রথমে সাদাটে এবং পরে বাদামি হয়ে কিছুটা উঁচু খসখসে দাগে পরিণত হয়। কাটলে আক্রান্ত অংশ থেকে এবং ফুলকপি রান্নার পর এক ধরনের দুগর্ন্ধ বের হয়। বাঁধাকপির মাথা বাঁধা শুরু হওয়ার সময় দেখা যায় যে মাথা বাঁধছে না এবং ভেতরটি ফাঁপা হয়ে যায়। একেবারে ভেতরের কচি পাতাগুলো বাদামি রঙের হয় এবং পচন ধরে। কান্ডের ভেতরের মধ্যাংশ ফাঁপা হয় ও পচে যায়। বোরনের অভাবে মরিচ বা মিষ্টি মরিচের কচি পাতা হলুদ হয়ে এবং ফুল বা কচি ফলও ঝরে পড়ে। গাছের বৃদ্ধি প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। বোরনের অভাবে সরিষার বীজ গঠন ঠিকভাবে হয় না। হেক্টরপ্রতি ১.৫ কেজি বোরন প্রয়োগ করলে সরিষার বীজ উৎপাদন প্রায় ৫৯% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে (হালদার ও অন্যান্য, ২০০৭)। জাত, মাটি, স্থান (কৃষি পরিবেশ অঞ্চল) ও মাটিতে রসের তারতম্য অনুসারে বোরন সার হিসেবে পানিতে গুলে নিয়ে ¯েপ্র করতে হয়। পানিতে মিশিয়ে প্রয়োগ করলে নিধাির্রত মাত্রার অধের্ক পরিমাণ সার প্রয়োজন হয়। এ জন্য ১০-১৫ দিন পর পর ২-৩ বার বোরন সার ¯েপ্র করা যেতে পারে। জমিতে সরাসরি বোরন সার প্রয়োগ করা যায়। সে ক্ষেত্রে টিএসপি, এমওপি, জিপসাম, জিংক অক্সাইড ও বোরন সারের সবটুকু এবং ইউরিয়ার অধের্ক পরিমাণ শেষ চাষের সময় মাটিতে প্রয়োগ করতে হয়। বাকি ইউরিয়া গাছে ফুল আসার সময় উপরি প্রয়োগ করে একবার পানি সেচ দিতে হয়। বোরন সার হিসেবে ব্যবহারের জন্য ফলিরিয়েল, সলুবোর, লিবরেল বোরন, আলফা বোরন ইত্যাদি পাওয়া যায়। এ ছাড়া দানাদার বোরিক এসিড ও বোরাক্স বা সোহাগা (সোডিয়াম টেট্রাবোরেট) বোরন সার হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

আগামী মৌসুমে দলে পরিবর্তন নিশ্চিত করলেন গুয়ার্দিওলা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ চলতি মৌসুমে ঘরোয়া প্রতিযোগিতার তিনটি শিরোপাই জয়ের হাতছানি রয়েছে ম্যানচেস্টার সিটির সামনে। তবে আগামী মৌসুমে আবার শূন্য থেকেই শুরু করতে হবে বলে খেলোয়াড়দের সতর্ক করেছেন দলটির কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা। দল-বদলে নতুন খেলোয়াড় কেনার পাশাপাশি লেরয় সানে, ইলকাই গিনদোয়ান ও অধিনায়ক ভিনসেন্ট কোম্পানিকে ধরে রাখতে চান বলে জানিয়েছেন এই স্প্যানিয়ার্ড। শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত দশটায় ওয়েম্বলিতে এফএ কাপের ফাইনালে ওয়াটফোর্ডের মুখোমুখি হবে সিটি। ২০১০-১১ মৌসুমে সবশেষ এই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দলটি এর আগেই ঘরে তুলেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও ইংলিশ লিগ কাপের শিরোপা। সাফল্য ধরে রাখতে শিষ্যদের সতর্ক করেছেন গুয়ার্দিওলা। “মানুষ এটাকে কত সুন্দর বলে, কিন্তু আমাদের বার বার জিততে হবে। আর খেলোয়াড়দের এটা বুঝতে হবে।” “মৌসুমটা দারুণ ছিল। কিন্তু আগামী মৌসুমের প্রথম দিন আমরা শূন্য থেকেই শুরু করব।” নিয়মিত খেলার সুযোগ না পাওয়ায় কিছু খেলোয়াড় দল ছাড়তে চান বলে জানান গুয়ার্দিওলা। “পরের মৌসুমের জন্য আমাদের কিছু পরিবর্তন আনতে হবে। হ্যাঁ, কারণ কয়েকজন দল ছাড়তে চায়, খেলোয়াড়রা খেলতে চায়।” “একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য তারা খেলতে না পারাটা মেনে নেয়। কিন্তু যখন সময়টা লম্বা হয়, তখন এটা স্বাভাবিক যে তারা আরও বেশি খেলতে চাইবে। আমি কাউকে সেটার নিশ্চয়তা দিতে পারি না।” গুঞ্জন আছে এ বছরের দল-বদলে জার্মান ফরোয়ার্ড লেরয় সানে যোগ দিতে পারেন বায়ার্ন মিউনিখে। ইলকাই গিনদোয়ানের চুক্তির মেয়াদ এক বছর বাকি আছে। চলতি মৌসুম শেষেই চুক্তির মেয়াদ শেষ কোম্পানির। তবে তাদের ধরে রাখতে আশাবাদী গুয়ার্দিওলা। “লেরয়, আমরা গত দেড় বছর ধরে তার সঙ্গে নতুন চুক্তির চেষ্টা করছি। আমরা তাকে চাই। গিনদোয়ানের ব্যাপারও একই।” “আমরা এই ম্যাচের (এফএ কাপের ফাইনাল) পর কথা বলব। ভিনসেন্ট আবারও দেখিয়েছে যে ফিট থাকলে সে কী করতে পারে।”

 

৩ বছরেরও বেশি সময় পর স্পেন দলে কাসোরলা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ২০১৫ সালের পর প্রথমবারের মতো স্পেন দলে জায়গা পেয়েছেন ভিয়ারিয়ালের মিডফিল্ডার সান্তি কাসোরলা। আগামী মাসে হতে যাওয়া ইউরো ২০২০ বাছাইপর্বের দুটি ম্যাচের জন্য শুক্রবার দল ঘোষণা করেছে দেশটি। দুই বছরের মধ্যে কাসোরলার হাঁটু, পায়ের ও গোড়ালি গাঁটে অস্ত্রোপচার করা হয়। বারবার চোটে পড়ায় টানা ৬৬৮ দিন বাইরে থাকার পর গত বছর ভিয়ারিয়ালের হয়ে এক প্রীতি ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেন আর্সেনালের সাবেক এই ফুটবলার। স্পেনের হয়ে ৭৭ ম্যাচে ১৪টি গোল করা ৩৪ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার  ২০১৫ সালের নভেম্বরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচে জাতীয় দলের হয়ে শেষবার মাঠে নেমেছিলেন। ২০১৮ সালের জুলাইয়ে ফ্রি ট্রান্সফারে আর্সেনাল থেকে ভিয়ারিয়ালে যোগ দেওয়া কাসোরলা চলতি মৌসুমে স্প্যানিশ দলটিকে লা লিগায় অবনমনের হাত থেকে বাঁচাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। চারটি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করান ১০টি। এখন পর্যন্ত হওয়া ভিয়ারিয়ালের ৩৭টি ম্যাচের মধ্যে ৩৪টিতেই খেলেছেন তিনি। ইউরো ২০২০ বাছাইপর্বে আগামী ৭ জুন ফারো আইল্যান্ডের মুখোমুখি হবে স্পেন। আর ১০ জুন মাদ্রিদে সুইডেনের মুখোমুখি হবে লুইস এনরিকের দল। স্পেন দল: গোলরক্ষক: দাভিদ দে হেয়া (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), কেপা আরিসাবালাগা (চেলসি), পাউ লোপেস (রিয়াল বেতিস)। ডিফেন্ডার: দানি কারভাহাল (রিয়াল মাদ্রিদ), সের্হিও রামোস (রিয়াল মাদ্রিদ), দিয়েগো লরেন্তে (রিয়াল সোসিয়েদাদ), ইনিহো মার্তিনেস (আথলেতিক বিলবাও), সের্হি রবের্তো (বার্সেলোনা), জর্দি আলবা (বার্সেলোনা), হোসে গায়া (ভালেন্সিয়া), হেসুস নাভাস (সেভিয়া), মারিও এরমোসো (এস্পানিওল)। মিডফিল্ডার: সের্হিও বুসকেতস (বার্সেলোনা), রদ্রিগো (আতলেতিকো মাদ্রিদ), ইসকো (রিয়াল মাদ্রিদ), দানি পারেহো (ভালেন্সিয়া), ফাবিয়ান রুইস (নাপোলি), সান্তি কাসোরলা (ভিয়ারিয়াল)। ফরোয়ার্ড: মার্কো আসেনসিও (রিয়াল মাদ্রিদ), ইয়াগো আসপাস ( সেল্তা ভিগো), রদ্রিগো মোরেনো (ভালেন্সিয়া), আলভারো মোরাতা (আতলেতিকো মাদ্রিদ), মিকেল ওইয়ারসাবাল (রিয়াল সোসিয়েদাদ)।

নিজের ‘যমজ’ খুঁজে পেলেন শহীদ কাপুর!

বিনোদন বাজার ॥ একই রকম দেখতে দুই শহীদ কাপুর! কোনটি আসল? একই ছবিতে দুই শহীদ কাপুরকে নিয়ে গোলকধাঁধায় মেতেছেন নেটজনতা।বৃহস্পতিবার সকালে নিজের ইনস্টাগ্রামে এমন একটি ছবি পোস্ট করেছেন বলি অভিনেতা শহীদ কাপুর। আর সেখানে ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন- যমজ।আর এতেই সিনেপ্রেমীরা ভাইরাল করে দেয় ছবিটি।ছবিতে দেখা গেছে, স্যুটেড লুকে হাস্যোজ্জ্বল শহীদ কাপুর ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে। ঠিক তারই পেছেন অন্যদিকে তাকিয়ে আরেক শহীদ কাপুর। যার পরনে একটি চেক ব্লেজার, কালো প্যান্ট ও গলায় বো টাই ঝুলছে।মূলত পেছনের শহীদ কাপুর আসল নয়, তার মোমের মূর্তি। ছবি সিঙ্গাপুরের মাদাম তুসো মিউজিয়ামে তোলা।অর্থাৎ শহীদ কাপুরের প্রথম মোমের মূর্তি উন্মোচিত হলো। সেই মোমের মূর্তির সঙ্গেই এভাবে পোজ দিয়ে দাঁড়িয়ে ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়েছেন এ বলি অভিনেতা।মাদাম তুসোতে ঠাঁই পাওয়ায় কমেন্ট বক্সে শহীদের বন্ধু কিয়ারা আদভানি এবং হৃত্বিক রোশন তাকে শুভকামনা জানিয়েছেন।অগণিত মন্তব্য এসেছে শহীদের ভক্ত-অনুরাগীদের থেকেও।অনেকেই লিখেছেন- সত্যি মূর্তিটি একেবারে শহীদ কাপুরের মতোই দেখতে!কেউ কেউ লিখেছেন- এতই অবিকল যে কোনটি আসল শহীদ বোঝাই যাচ্ছে না।এক ভক্ত রসিকতা করে লিখেছেন- আমাদের হ্যান্ডসাম হিরোর আবার যমজ রয়েছে!প্রসঙ্গত মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে শহীদ কাপুরের নতুন ছবি ‘কবির সিং’। নতুন এ ছবি দিয়ে কিছু একটা করে দেখাতে উদগ্রীব হয়ে আছেন এই তারকা। ছবির প্রচারণায় বেশ ব্যস্ত তিনি।তবে এরই মধ্যে মুম্বাই বিমানবন্দরে গাড়ির দরজা খুলে বেরিয়ে যাওয়ার দৃশ্যটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলে বেশ সমালোচনার শিকার হন তিনি। এবার মাদাম তুসোয় স্থান পেয়ে সে সমালোচনার আগুনে জল ঢাললেন তিনি।

 

কোপা আমেরিকার ব্রাজিল দলে ফিরলেন নেইমার, নেই মার্সেলো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ পায়ের চোট কাটিয়ে দীর্ঘ সময় পর মাঠে ফেরা নেইমারকে নিয়ে কোপা আমেরিকার জন্য দল ঘোষণা করেছে ব্রাজিল। তবে জায়গা হয়নি তরুণ ফরোয়ার্ড ভিনিসিউস জুনিয়র ও অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার মার্সেলোর। দেশের মাটিতে আগামী মাসে শুরু হতে হতে যাওয়া কোপা আমেরিকার জন্য শুক্রবার ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেন কোচ তিতে। গত জানুয়ারিতে পায়ে চোট পাওয়া নেইমার এপ্রিলে মোনাকোর বিপক্ষে লিগ ওয়ানের ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফেরেন। এই চোটের কারণে মার্চে পানামা ও চেক রিপাবলিকের বিপক্ষে ম্যাচেও ব্রাজিল দলে ছিলেন না পিএসজি ফরোয়ার্ড। চলতি মৌসুমে নিজেকে খুঁজে ফেরা রিয়াল মাদ্রিদ ডিফেন্ডার মার্সেলো ওই দুই ম্যাচের দলেও ছিল না। ১৪ জুন শুরু হবে কোপা আমেরিকার এবারের আসর। আগামী বুধবার থেকে অনুশীলন শুরু করবে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ব্রাজিলের সঙ্গে ‘এ’ গ্র“পে আছে ভেনেজুয়েলা, বলিভিয়া ও পেরু। প্রতিযোগিতাটির আট বারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল শেষ বার ট্রফিটি জিতেছিল ২০০৭ সালে। বাংলাদেশ সময় আগামী ১৫ জুন সকালে বলিভিয়ার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

ব্রাজিল দল: গোলরক্ষক: আলিসন (লিভারপুল), এদেরসন (ম্যানচেস্টার সিটি), কাসিও (করিন্থিয়ান্স)। ডিফেন্ডার: আলেক্স সান্দ্রো (ইউভেন্তুস), দানি আলভেস (পিএসজি), ফাগনার (করিন্থিয়ান্স), এদের মিলিতাও (পোর্তো), ফিলিপে লুইস (আতলেতিকো মাদ্রিদ), মার্কিনিয়োস (পিএসজি), মিরান্দা (পোর্তো), চিয়াগো সিলভা (পিএসজি)। মিডফিল্ডার: আলান (নাপোলি), আর্থার (বার্সেলোনা), কাসেমিরো (রিয়াল মাদ্রিদ), লুকাস পাকুয়েতা (এসি মিলান), ফের্নান্দিনিয়ো (ম্যানচেস্টার সিটি)। ফরোয়ার্ড: এভেরতন (গ্রেমিও), রবের্তো ফিরমিনো (লিভারপুল), গাব্রিয়েল জেসুস (ম্যানচেস্টার সিটি), রিশার্লিসন (এভারটন), ফিলিপে কৌতিনিয়ো (বার্সেলোনা), নেইমার (পিএসজি), দাভিদ নেরেস (আয়াক্স)।

 

 

যে কারণে অমিতাভের ওপর নাখোশ ঐশ্বরিয়া

বিনোদন বাজার ॥ শ্বশুর অমিতাভের ওপর বেজায় চটেছেন বলিউড সেনসেশন ঐশ্বরিয়া রাই। অভিনেতা ইমরান হাশমির সঙ্গে ছবি করায় শ্বশুরের ওপর এ ক্ষোভ বিশ্বসুন্দরীর। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।ঐশ্বরিয়া-ইমরান হাশমির সম্পর্কের বিষয়টি তো সবারই জানা। সিরিয়ার কিসারের একটি মন্তব্য এখনও পোড়াচ্ছে রাই সুন্দরীকে।ওই মন্তব্যের পর থেকে ইমরান হাশমি ঐশ্বরিয়ার দুচোখের বিষ। সেই হাশমির সঙ্গে ছবি করায় শ্বশুরের ওপর নাখোশ হয়েছেন অভিষেকবধূ।রুমি জাফারি পরিচালিত ‘সেহরে’ সিনেমায় ইমরান হাশমির সঙ্গে এরই মধ্যে শুটিং শুরু করে দিয়েছেন বিগ বচ্চন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইমরান হাশমির সঙ্গে কাজ করায় শ্বশুর অমিতাভ বচ্চনের ওপর যারপরনাই বিরক্ত ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। তিনি এটি মেনে নিতে পারছেন না। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বচ্চন পরিবারের কাউকে হেয় করে মন্তব্য করেছেন, এমন মানুষের সঙ্গে পরিবারের অভিভাবকের কাজ করায় নাখোশ ঐশ্বরিয়া।

ঐশ্বরিয়া ইমরান হাশমির সঙ্গে অভিনয় করবেন না, এটি আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন। ইমরান হাশমির সঙ্গে বাদশাহে ছবিতে ঐশ্বরিয়াকে কাজ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। তিনি সেটি একবাক্যে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। তাই হাশমির সঙ্গে শ্বশুর কাজ করায় হতাশ বচ্চন পরিবারের বধূ।ঐশ্বরিয়া-হাশমির দ্বন্দ্বের সূত্রপাত বলিউড অভিনেতার একটি মন্তব্য কেন্দ্র করে। ঐশ্বরিয়াকে ‘ফেক ও প্লাস্টিক’ বলে মন্তব্য করেছিলেন ‘সিরিয়ার কিসার’ হাশমি। এই মন্তব্য রাই সুন্দরীকে প্রচন্ড আহত করেছিল। তিনি আজও সে কথা ভোলেননি।কিছু দিন আগেও একটি শোতে ঐশ্বরিয়াকে জিজ্ঞেস করা হয়, তার জীবনে পাওয়া সবচেয়ে বেদনাদায়ক মন্তব্য কোনটি। উত্তরে ঐশ্বরিয়া বলেন, ‘ফেক অ্যান্ড প্লাস্টিক।’অবশ্য ইমরান হাশমি তার ওই মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছেন।নির্মাতা-প্রযোজক করণ জোহরের ‘কফি উইথ করণ’-এ ইমরান হাশমি বলেন, মজা করে ওই মন্তব্য করেছিলাম। আগেও বহু সাক্ষাৎকারে আমি এ কথাই বলেছি- রাই সুন্দরীর প্রতি যথেষ্ট সম্মান রয়েছে আমার। আমার মতে, তিনি খুব ভালো শিল্পী।

ঈদে যমজ-১১ নিয়ে আসছেন  মোশাররফ করিম

বিনোদন বাজার ॥ বাংলা নাটককে ভিন্নমাত্রা দিয়েছেন মোশাররফ করিম। প্রতিটি উৎসব-পার্বণে তার নাটক বিনোদন দেয় দর্শকদের। তার কমেডি অভিনয়ে মুগ্ধ দর্শক।

গত কয়েকটি ঈদে যমজ নাটক নিয়ে আসছেন মোশাররফ করিম। এই নাটকের চাহিদা দর্শকদের কাছে তুঙ্গে। দর্শক চাহিদা মাথায় রেখে ভিন্নধর্মী গল্প নিয়ে এবারও নির্মিত হচ্ছে যমজের সিক্যুয়েল। নাটকের শুটিং এখনও শেষ হয়নি। শেষ মুহূর্তে শুটিংয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মোশাররফ করিম।বাবা কদু আজাদ তার যমজ দুই ছেলে একাব্বর-নেকাব্বর। এই তিনজনের চরিত্রেই আছেন মোশাররফ। তিনজনের চরিত্র তিন রকম। কৃপণ বৃদ্ধ বাবা, অতিসরল ও অতিচালাক দুই ছেলে। গল্পে পরতে পরতে হাসির খোরাক।যমজে এবারও ব্যতিক্রম কিছু থাকছে। মোশাররফ করিমের বিপরীতে আছেন অভিনেত্রী অপর্ণা ঘোষ। মোশাররফ করিমের নিজ কণ্ঠে গানও থাকছে।নাটকটির নির্মাতা আজাদ কালাম। এবারও তিনি যমজ-১১ নির্মাণ করেছেন। প্রচার হবে বেসরকারি টেলিভিশন আরটিভির ঈদ আয়োজনে।নাটকটি নিয়ে মোশাররফ করিম বলেন, ‘যমজ নাটক দর্শকদের কাছে এমন জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে ঈদের আগে থেকেই পরিচালক, আমি ও চ্যানেল কর্তৃপক্ষের কাছে সিক্যুয়েলের জন্য অনুরোধ আসতে থাকে। দর্শকদের এ বিষয়টিকে শ্রদ্ধা করি আমরা। তাই একের পর এক যমজের সিক্যুয়েল নির্মাণ করা হচ্ছে। এবারের সিক্যুয়েলে দারুণ একটি গল্পও থাকবে। সেই সঙ্গে থাকছে দর্শকদের হাসানোর সব উপকরণও।

 

শ্রাবন্তী-রোশন এখন কোথায়?

বিনোদন বাজার ॥ টালিউডের হার্টথ্রব অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের প্রেম বিনোদন নিয়ে কম কথা হয়নি। তার বিয়ের বিষয়টি এখন সবার মুখে মুখে। এক এক করে তিনটি বিয়ে করে ফেলেছেন এ অভিনেত্রী। ঘরে রয়েছে কিশোর ছেলে। বিয়ের আগে বিমান সংস্থার কেবিন ক্রু সুপারভাইজার রোশন সিংয়ের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রেম নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। তৃতীয় বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই শুরু হয় নিন্দুকদের কড়া সমালোচনা। এসব কোনোটিই কানে নেননি গুণী এ অভিনেত্রী। সব বিতর্ক মাড়িয়ে চন্ডীগড়ে চুপিসারে বিয়ে সেরে ফেলেন শ্রাবন্তী-রোশন।বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে থাকলেও সময়টা বেশি দিয়েছেন অভিনয়ে। তাই মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া হয়নি। সপ্তাহখানেক আগে হঠাৎ শ্রাবন্তীর ইনস্ট্রাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট হয়। এটি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়ে যায় নেটিজনদের।নেটিজনরা ধরে নেন নবদম্পতি মধুচন্দ্রিমায় গেছেন। তবে বিষয়টি ধাঁধার মতোই রয়ে গেছে। এর পর দুদিন আগে ইনস্টাগ্রামে আরও একটি রোমান্টিক ছবি শেয়ার করেন শ্রাবন্তী-রোশান। ক্যাপশনে রোশন লিখেছিলেন, ‘এই পৃথিবীর কোনো এক স্থানে।’খড়ের গাদায় স্বামীর পাশে বসে পোজ দেয়া ওই ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। তখন সবাই নিশ্চিত হয়ে যান যে তারা হানিমুনেই আছেন।কিন্তু তারা কোথায় মধুচন্দ্রিমা করছেন, এ রহস্য থেকেই যায়। কদিন ধরেই এ নিয়ে চলছে নানা জল্পনা।শ্রাবন্তী-রোশন ভ্রমণ-স্থানের নাম লুকানোর চেষ্টা করলেও রোশনের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট জানান দিচ্ছে- তারা রয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী বালিতে। একটি ছবি সেই সাক্ষ্যই দিচ্ছে। অবশ্য ভক্তরা আগেই অনুমান করেছিলেন।একে অপরের সঙ্গে সময়টা যে মন্দ কাটছে না, তা তাদের ছবি দেখলেই বেশ বোঝা যায়। কখনও একসঙ্গে চা খেয়ে, কখনওবা একসঙ্গে খড়ের গাদায় বসে দিব্যি সুন্দর সময় কাটছে শ্রাবন্তী-রোশনের।গত ১৯ এপ্রিল। অর্থাৎ ৪ বৈশাখ পাঞ্জাবি রীতিতে গাঁটছড়া বাঁধেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ২৩ এপ্রিল কলকাতায় ফেরেন অভিনেত্রী।এর আগে শ্রাবন্তীর দুবার বিয়েবিচ্ছেদ হয়।২০০৩ সালে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রথম বিয়ে হয়। তাদের ঘরের সন্তান ঝিনুক। রাজীবের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর মডেল কৃষ্ণ ব্রজের সঙ্গে শ্রাবন্তীর প্রেম হয়। বিয়েও করেন তারা। গত জানুয়ারিতে কৃষ্ণের সঙ্গেও বিচ্ছেদ হয়ে যায় শ্রাবন্তীর।

ঈদ ‘ইত্যাদি’র বিশেষ আয়োজনে ফেরদৌস-পূর্ণিমা

বিনোদন বাজার ॥ ঈদ এলেই আমাদের চারপাশ আনন্দ-উৎসবে ভাসে। আর প্রতি ঈদেই দর্শকদের জন্য বাড়তি আনন্দের উপলক্ষ্য নিয়ে আসে ঈদের বিশেষ ইত্যাদি। দর্শকরাও অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন ইত্যাদির বিশেষ ঈদ পর্ব দেখার জন্য।প্রতি ঈদেই ইত্যাদিতে বিষয় ভাবনার নতুনত্ব ও গভীরতা দর্শকদের দেয় আনন্দের ভিন্ন মাত্রা। এবার থাকছে দর্শক প্রিয় ৪ অভিনয় তারকাকে নিয়ে একটি বিষয় ভিত্তিক গান ও নৃত্য। আর নৃত্যগীত এই পর্বটিকে প্রাণবন্ত করেছেন জনপ্রিয় চিত্রতারকা ফেরদৌস, পূর্ণিমা ও এই প্রজন্মের সিয়াম এবং পূজা। এই পর্বের জন্য প্রেম বিষয়ক জনপ্রিয় দু’টি লোকসঙ্গীতের সমন্বয়ে কিছু নতুন কথার সংযোজনে ভিন্ন আঙ্গিকের একটি নতুন গান করা হয়েছে। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন মেহেদী। বেশ কিছু তরুণ গায়ক-গায়িকার বিভিন্ন ধরনের কণ্ঠ প্রতিভাকে কাজ লাগিয়ে হানিফ সংকেত এই গানটি তৈরী করেছেন। নৃত্য পরিচালনা করেছেন ইত্যাদির নিয়মিত নৃত্য পরিচালক মামুন। তারকা সমৃদ্ধ চমৎকার এই পরিবশনাটি উপস্থিত কয়েক হাজার দর্শক দারুণভাবে উপভোগ করেছেন।শিল্পীরা বলেন, শত ব্যস্ততা থাকলেও তাদেরও প্রিয় অনুষ্ঠান ইত্যাদির জন্য সময় বের করতে চেষ্টা করেন। ইত্যাদি যেন শিল্পীদের একটি মিলন কেন্দ্র। তারা বলেন, এখানে এলে নতুন-পুরানা অনেকর সঙ্গেই দেখা হয়। আড্ডায় আড্ডায় কখন যে মধ্যরাত গড়িয়ে যায় টেরই পাওয়া যায় না।হানিফ সংকেতও শিল্পীদের এই আন্তরিকতা ও সহযোগিতায় মুগ্ধ। তিনি বলেন, পরিকল্পনাজনিত কারণে অনেক আগে থেকে সিডিউল নেয়া না থাকলেও ইত্যাদির প্রয়োজনে যখন যাকে প্রয়োজন হয়, যোগাযোগ করলে-সবাই আন্তরিকতার সঙ্গে সহযোগিতা করেন। সেজন্য তিনি সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

আমাদের মাত্র যাত্রা শুরু হলো – মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ পুরো দাপটের সাথেই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে পাত্তা না দিয়ে এবারের টুর্নামেন্টে যা করলো টাইগাররা, তাতে প্রশংসার দাবীদার মাশরাফি বাহিনী। লিগ পর্বে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের পর, ফাইনালেও দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়েছে বাংলাদেশ। তাই প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোন টুর্নামেন্টের শিরোপা জয় করলো বাংলাদেশ। তাই এই জয়কে ‘মাত্র শুরু’ বলে অ্যাখায়িত করলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। শুক্রবার রাতে ফাইনাল শেষে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের মাত্র যাত্রা শুরু হলো এবং আশা করি ভবিষ্যতে এটি ধরে রাখতে পারবো আমরা।’ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওয়ানডে ও টি-২০ মিলিয়ে গতকালের আগে মোট ৬টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলেছিলো বাংলাদেশ। শিরোপার দোড় গোড়ায় পৌঁছেও হতাশাকেই সঙ্গী করতে হয়েছে তাদের। অবশেষে সপ্তম ফাইনালে এসে শিরোপা খড়া ঘুচলো বাংলাদেশের। প্রথমবারের মত জিতলো কোন ট্রফি। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বৃষ্টি আইনে ৫ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। ছয়বার ব্যর্থ হবার পর অবশেষে জয়ের তৃপ্তিতে উচ্ছসিত বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, ‘আমরা আগের ছয়বার ফাইনাল খেলেও পারিনি। অবশেষে সপ্তম বারে এসে শিরোপা জিততে পারলাম। অবশ্যই দারুন অনুভূতি, খুবই ভালো লাগছে। দলের সবাই অনেক খুশি।’ বৃষ্টির কারণে ২৪ ওভারে নামিয়ে আনা ম্যাচে ১ উইকেটে ১৫২ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে বৃষ্টি আইনে ম্যাচ জয়ের জন্য ২১০ রানের বড় টার্গেট পায় বাংলাদেশ। জবাবে ওপেনার সৌম্য সরকারের ৪১ বলে ৬৬ ও মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেনের ২৪ বলে অপরাজিত ৫২ রানের সুবাদে ২২ দশমিক ৫ ওভারে ২১৩ রান তুলে ফাইনাল ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা। সৌম্য ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা ও মোসাদ্দেক ২টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন। মাত্র ২০ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন মোসাদ্দেক। এই জয়কে দলীয় পারফরমেন্সের ফসল হিসেবে দেখছেন মাশরাফি। তাই দলের প্রশংসা করতে ভুল করেননি তিনি, ‘এ জয়টা পুরোপুরি টিমওয়ার্ক। শুরুতে দারুণ জুটি গড়েছিল তামিম-সৌম্য। যেভাবে মারমুখী ব্যাটিং দরকার ছিল তেমনই করলো সৌম্য। মাঝে মুশফিক রানের চাকা সচল রেখেছে। আর শেষ দিকে মোসাদ্দেক এবং মাহমুদুল্লাহর দুর্দান্ত ফিনিশিং। এ ম্যাচে দারুন পারফরমেন্স ছিলো দলের।’ ত্রিদেশীয় সিরিজের সাফল্য নিয়ে এবার দ্বাদশ ওয়ানডে বিশ্বকাপের মিশন বাংলাদেশের সামনে। এই শিরোপা আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো খেলতে অনুপ্রেরণা দিবে বলে জানান মাশরাফি, ‘বিশ্বকাপ আমাদের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। এই জয় আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো পারফরমেন্স করতে অনুপ্রেরণা দেবে আমাদের। বড় টার্গেট তাড়া করে ম্যাচ জয়ের জন্য আমরা এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী।’