মাছ চাষে ভেজাল প্রোবায়োটিক গবেষকদের উদ্বেগ

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশে মাছ উৎপাদনে খামারি পর্যায়ে মাছের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা অনেকটাই সঠিক নয়। মাছ উৎপাদনে ক্ষতিকর অ্যান্টিবায়োটিকের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা প্রোবায়োটিকেও ভেজাল রয়েছে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন একদল গবেষক। গতকাল শুক্রবার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল গেস্টহাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তাঁরা এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে দেশে ভেজাল প্রোবায়োটিক চিহ্নিত করতে গবেষণা করছে বিশেষজ্ঞদের একটি দল। এই দলে আছেন যুক্তরাজ্যের স্টার্লিং বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ফ্রান্সিস মুরে ও অ্যান্ডিও ডেসবস, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকোয়াকালচার বিভাগের অধ্যাপক মুহাম্মদ মাহফুজুল হক, যুক্তরাজ্যভিত্তিক উন্নয়ন সংস্থা প্র্যাকটিক্যাল অ্যাকশনের ফারুক উল ইসলাম এবং ওয়ার্ল্ড ফিশের গবেষক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। ইতিমধ্যে তাঁরা বেশ কিছু ভেজাল প্রোবায়োটিক শনাক্ত করেছেন। গবেষকেরা বলেন, অ্যান্টিবায়োটিক মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর হওয়ায় খামারিরা মাছ চাষে প্রোবায়োটিক ব্যবহার করছেন। প্রোবায়োটিক হলো মাছ চাষে ব্যবহৃত এমন কিছু উপকারী ব্যাকটেরিয়া, যা অ্যান্টিবায়োটিকের বিকল্প হিসেবে মাছের রোগ প্রতিরোধ করে। কিন্তু এই প্রোবায়োটিকেও মিলেছে ভেজাল, যা ব্যবহারে হুমকির মুখে পড়তে পারে দেশের মাছ উৎপাদন। ভেজাল প্রোবায়োটিকের প্রভাবে দেশের মাছ চাষ মারাত্মক হুমকির মুখে পড়তে পারে বলে জানান তাঁরা। গবেষক দলের সদস্য ফ্রান্সিস মুরে বলেন, ‘বাংলাদেশের বাজারে প্রাপ্ত প্রোবায়োটিকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া এবং রোগ সৃষ্টিকারী জীবাণু পাওয়া গেছে। কিন্তু ভেজাল প্রোবায়োটিক শনাক্ত কিংবা নিষিদ্ধের ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ নেই। শনাক্তকরণের পাশাপাশি প্রোবায়োটিক ব্যবহারের বিষয়ে একটি নীতিমালা সরকারকে দিতেই আমরা গবেষণা করছি।’

 

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত নির্বাহী পরিষদের এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব এম এ রাজ্জাক মিলানায়তনে এ জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত সভাপতি গাজী মাহাবুব রহমান। কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু’র সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত সহ-সভাপতি তারিকুল হক তারিক, লুৎফর রহমান কুমার, যুগ্ম-সম্পাদক নুরুন্নবী বাবু, শরিফ বিশ্বাস, কোষাধ্যক্ষ আবু মনি জুবায়েদ রিপন, দপ্তর সম্পাদক এম.লিটন-উজ-জামান, প্রচার প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তৌহিদী হাসান, নির্বাহী সদস্য মিজানুর রহমান লাকী, আক্তার হোসেন ফিরোজ, আব্দুল জিহাদ, ডালিয়া পারভিন (শিউলি), দেবাশীষ দত্ত, মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম ও নিজাম উদ্দিন। সভায় বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা শেষে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। উল্লেখ্য, গত ৪ মে শনিবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব এর দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন (২০১৯-২০২১) সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে গাজী মাহাবুব রহমান-আনিসুজ্জামান ডাবলু পরিষদের পূর্ণ প্যানেল জয়লাভ করে।

রমজানুল মোবারক

ব্যবসাকে সর্বোত্তম ইবাদত

আ.ফ.ম নুুরুল কাদের ॥ আল্লাহ সোবহানাহু তায়ালা ব্যবসাকে হালাল করেছেন। রাসূল সা: বলেছেনÑ মানুষ নিজ হাতে হালাল ব্যবসায়ের মাধ্যমে যা উপার্জন করে তা-ই সবচেয়ে পবিত্র। রাসূল সা: আরো বলেছেনÑ ইবাদত কবুলের শর্ত হচ্ছে হালার রিজিক। আমরা এই হালাল রিজিক আর পবিত্র উপার্জনকে তাকওয়া বা আল্লাহভীতির অভাবে হারাম বা অপবিত্র করে ফেলি। বছর ঘুরে প্রতিবারই আসে মাহে রমজানের সিয়াম, আর হু হু করে বৃদ্ধি পায় নিত্যপণ্যের দাম! যা কিনা রমজান ও সিয়ামের উদ্দেশ্যের বিপরীত।

ব্যবসা হালালঃ সূরা বাকারার ২৭৫ নম্বর আয়াতে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন  ঘোষণা করেছেন, আর আল্লাহ ব্যবসাকে হালাল করেছেন। সূরা নিসার ২৯ নম্বর আয়াতে ঘোষণা করা হয়েছে, হে ঈমানদারগণ তোমরা একে অপরের সম্পদ অন্যায়ভাবে ভক্ষণ করো না, কেবল তোমাদের (ক্রেতা-বিক্রেতার) পরস্পরের সম্মতিক্রমে যে ব্যবসা করো তা বৈধ।

ব্যবসা হালাল হওয়ার শর্ত হচ্ছে, ক্রেতা ও বিক্রেতা পরস্পরের মধ্যে ব্যবসা হারাম : সূরা নিসার ২৯ নম্বর আয়াতের ঘোষণা অনুযায়ী, (হে ঈমানদারগণ  তোমরা একে অপরের সম্পদ অন্যায়ভাবে ভক্ষণ করো না, কেবল তোমাদের (ক্রেতা-বিক্রেতার) পরস্পরের সম্মতিক্রমে যে ব্যবসা করো তা বৈধ।) অন্যায় ও অবৈধভাবে পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে ভোক্তার কাছ থেকে অধিক মূল্য গ্রহণ করারই হচ্ছে সে ভোক্তার সম্পদ অবৈধভাবে ভক্ষণ করা। এটা ব্যবসায়ের জন্য হারাম। সূরা মোতাফফিফিনের ১-৩ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, ‘ধ্বংস তাদের জন্য যারা (অধিক মুনাফার জন্য) মাপে কম দেয়। তাদের অবস্থা এই যে, লোকদের থেকে নেয়ার সময় পুরোমাত্রায় নেয় এবং ওজন করে বা মেপে দেয়ার সময় কম দেয়।’ব্যবসা সর্বোত্তম ইবাদত : সূরা নুরের ৩৭ আয়াতে ঘোষণা করা হয়েছে, ‘যারা ব্যবসায় ও বেচাকেনার ব্যস্ততার মধ্যেও আল্লাহর স্মরণ এবং সালাত কায়েম ও জাকাত আদায় করা  থেকে গাফিল হয় না, তারা সেদিনকে ভয় করতে থাকে যেদিন হৃদয় বিপর্যস্ত ও দৃষ্টি পাথর হয়ে যাওয়ার উপক্রম হবে।’ সূরা জুম’আর ৯ ও ১০ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, ‘হে ঈমানদাগণ, জুমা’র দিন যখন তোমাদের সালাতের জন্য ডাকা হয়, তখন আল্লাহর জিকিরের দিকে ধাবিত হও এবং বেচাকেনা  ছেড়ে দাও, এটাই তোমাদের জন্য বেশি ভালো যদি তোমরা বুঝো। তারপর যখন সালাত শেষ হয়ে যায় তখন ভূপৃষ্ঠে ছড়িয়ে পড়ো এবং আল্লাহর অনুগ্রহ তালাশ করো এবং অধিক মাত্রায় আল্লাহকে স্মরণ করতে থাকো, আশা করা যায় তোমরা সফলকাম হবে।’ তাকওয়াহ অর্জনের জন্য সিয়াম: সিয়াম ফরজ করার উদ্দেশ্য সম্পর্কে সূরা বাকারার ১৮৩ নম্বর আয়াতে ঘোষণা করছেন, ‘হে ঈমানদাগণ! তোমাদের ওপর সিয়াম ফরজ করে দেয়া হয়েছে, যেমন  তোমাদের পূর্ববর্তীগণের ওপর ফরজ করা হয়েছিল, এ থেকে আশা করা যায়  যে, তোমাদের মধ্যে তাকওয়ার বা আল্লাহভীতির গুণাবলি সৃষ্টি হবে।’ ‘সিয়াম’ শব্দের আভিধানিক অর্থ হচ্ছে, বিরত থাকা, পরিত্যাগ করা বা অসৎ প্রবৃত্তিকে দমন করা। সিয়াম পালনের মাধ্যমে আল্লাহ সোবহানাহু ওয়া তায়ালা সাধারণত নিষিদ্ধ (বস্তু) কাজ, কথা ও অসৎ প্রবৃত্তি থেকেই বিরত থাকতে নির্দেশ করেছেন। সিয়ামের কাজ হচ্ছে মানুষের মধ্যে আল্লাহর ভয় সৃষ্টি করা। সিয়াম পালনের মাধ্যমে আমরা যদি আল্লাহর ভয়ে নিষিদ্ধ কাজ, কথা ও অসৎ প্রবৃত্তি থেকেই বিরত থাকতে না পারি তাহলে বুঝতে হবে, রমজানের সিয়াম আমার কোনো কাজে আসেনি। অথচ জিবরাইল আ: রমজানের  কোনো এক জুমা’য় দোয়া করছিলেন, হে আল্লাহ! যে ব্যক্তি রমজান মাস পেল, কিন্তু তার গুনাহ থেকে ক্ষমা পেল না, সে ধ্বংস হোক। রাসূল সা: বলছিলেন, আমিন।’ এমন দোয়া তো ব্যর্থ হওয়ার কথা নয়। অতএব, রমজানের সিয়ামের ফজিলত হাসিল করতে হলে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ  থেকে সব নিষিদ্ধ কাজ থেকে আমাদের বিরত থাকতে হবে। আল্লাহর বান্দাদের  কোনোভাবেই কষ্টে ফেলা যাবে না, ধোঁকা দেয়া যাবে না, প্রতারণা করা যাবে না, কোনোভাবেই ঠকানো যাবে না।

সূরা নাহলের ১২৮ নম্বর আয়াতে ঘোষণা করা হয়েছে, ‘আল্লাহ তো তাদের সঙ্গে রয়েছেন যারা তাকওয়াহ বা আল্লাহভীতির সাথে কাজ করে এবং মুহসিনিন বা ইহসানের পথ অবলম্বন করে।’ রমজান মাসে বিভিন্ন অজুহাতে অধিক মুনাফা করা  যেমন তাকওয়ার পরিপন্থী, তেমনি মুহসিনিন বা ইহসানেরও সম্পূর্ণ বিপরীত কাজ। অধিক মুনাফা তাকওয়াহ পরিপন্থী : সূরা শুরার ১২ নম্বর আয়াতের ঘোষণা অনুযায়ী, ‘সকলের রিজিক নির্ধারিত করা আছে’। অতএব,  কেউ চাইলেই যেকোনোভাবে তার রিজিক বা অর্থ-সম্পদ বৃদ্ধি করতে পারবে না। অধিক মুনাফার আশায় অসৎ প্রবৃত্তির বশে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করে অধিক অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করা অনৈতিক। সিয়ামের উদ্দেশ্য হচ্ছেÑ তাকওয়াহ বা আল্লাহভীতি অর্জন করা। রমজান মাসে অসৎ প্রবৃত্তিকে নিয়ন্ত্রণ না করে অধিক অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্যে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির মাধ্যমে নিজের ও ভোক্তার প্রতি জুলুম করা হয়। ‘হজরত ইবনে মাসউদ রা: থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূল সা: বলেছেন, আল্লাহর নির্ধারিত রিজিক (অর্থ-সম্পদ) পূর্ণমাত্রায় লাভ না করা পর্যন্ত কোনো ব্যক্তিই মৃত্যুবরণ করবে না। সাবধান! আল্লাহকে ভয় করো, আর লবধ পন্থায় আয় উপর্জনের রচষ্টা করো। রিজিক প্রাপ্তিতে বিলম্ব যেন তোমাদের অবৈধ পন্থা অবলম্বনে প্ররোচিত না করে। কেন না, আল্লাহর কাছে যা কিছু রয়েছে তা কেবল আল্লাহর আনুগত্যের মাধ্যমে লাভ করা যায়’ (ইবনে মা’জা)।

এটাই মানুষের স্বভাব। আপনি ব্যবসা করছেন, অধিক মুনাফার জন্য ভাইকে ঠকাচ্ছেন! আপনি ভাইকে ঠকিয়ে সম্পদশালী হচ্ছেন আর আপনার ভাই নিঃস্ব হচ্ছে। আপনি কিভাবে মুসলিম হবেন? আগে তো ঈমানদার হতে হবে। ভাবেন তো আপনি কি ঈমানদার হতে পেরেছেন ? ব্যবসায়ে আনন্দ উৎসবে মুসলিম-অমুসলিমের মধ্যে পার্থক্য : আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতের বেশির ভাগ জনগণ হিন্দু। তাদের বিভিন্ন আনন্দ উৎসব বা পূজা পার্বণে বিশেষ করে, দুর্গাপূজা, রথযাত্রা বা দিপাবলি ইত্যাদিতে সে দেশের ব্যবসায়ীরা কখনোই দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করে না বরং সব দ্রব্যসামগ্রীর ওপর ২৫  থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেয়। সারা বিশে^ ২৫ ডিসেম্বর খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের বড়দিন বা ক্রিসমাস ডে উপলক্ষে আমেরিকা, ব্রিটেন, কানাডা, অষ্ট্রেলিয়াসহ উন্নত দেশগুলোর ব্যবসায়ীরা দ্রব্যমূল্যে ছাড় দেয় সে সব  দেশের সরকার ও এ ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতাসহ আইনেও সিথিলতা প্রদর্শন করে, এমনকি তাদের আনন্দ উৎসবে যোগদানের জন্য বিদেশীদের ভিসা প্রদানেও সহজ করে থাকে। যে কাজটা মুসলমানরা সিয়াম ও ঈদ উপলক্ষে করার কথা সে কাজটা আজ অমুসলিমরা করছে, যা বলতেও লজ্জার ব্যাপার। তারপরও মুসলমান হিসেবে আমাদের কোনো বোধোদয় হচ্ছে না। আর এটা হচ্ছে তাকওয়াহ বা আল্লাহভীতির অভাবে। ৯৫ শতাংশ মুসলমানের  দেশে ব্যবসায়ীদের অসৎ প্রবৃত্তির কারণে অধিক মুনাফা অর্জনের উদ্দেশে বিভিন্ন অজুহাতে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে রমজানের সিয়াম শেষে ঈদ বা মুসলমানদের জীবনে সবচাইতে বড় আনন্দ উৎসবেও ভাটা পড়ে যায়। বিশেষ করে ঈদের মতো আনন্দ উৎসবে হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীই বঞ্চিত হয়। মধ্যপ্রাচ্যের প্রায় সব দেশের ব্যবসায়ীরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল আর সে সব  দেশে আইনের শাসনও আছে, ফলে কখনোই কোনো উৎসব বা উপলক্ষে বিশেষ করে সিয়াম ও ঈদকে কেন্দ্র করে রাতারাতি হু হু করে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি  পেতে দেখা যায় না।

মোসাদ্দেকের অবিশ্বাস্য ব্যাটে প্রথম শিরোপা জিতল বাংলাদেশ

ওয়ানডে সিরিজের প্রথম শিরোপা জয়ের পথে রয়েছে বাংলাদেশ। এ শিরোপার জন্য প্রয়োজন ১৮ বলে মাত্র ২৭ রান। ক্রিজে রয়েছেন ক্রিজে রয়েছেন মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেক। মাত্র ৯ রানের ব্যবধানে মুশফিকের পর সাজঘরে ফিরেন মোহাম্মদ মিঠুন। দুজনই এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন। ১৪ বলে ১৭ রান করে বিদায় নেন মিঠুন। তার ইনিংসটি ছিল একটি ছক্কা ও একটি চারে। এ রিপোর্ট  লেখা পর্যন্ত ১৭ ওভারে ৫ উইকেটে ১৫২ রান সংগ্রহ করেছে টাইগাররা। এর আগে ঝড়ো ইনিংস খেলার পর সাজঘরে ফিরেন মুশফিকুর রহিম। দলীয় ১৩৪ রানে রেইমন রেইফারের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন দেশের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান। মাত্র ২২ বলে ৩৬ রানের ইনিংসটি ছিল তিনি দুটি চার ও দুটি ছক্কায় সাজানো। ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বৃষ্টি আইনে ২৪ ওভারে ২১০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে তামিম-সৌম্য ৫৯ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়ে তুলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশাল টার্গেটে খেলতে নেমে দুর্দান্ত ব্যাটিং তাণ্ডব চালান সৌম্য সরকার (৬৬)। তার ৪১ বলে ৬৬ রানের ইনিংসটি ছিল ৯টি চার ও ৩টি ছক্কায় সাজানো। বৃষ্টির কারণে ২৪ ওভারে টার্গেট দাঁড়ায় ২৪ ওভারে ২১০ রান। এমন কঠিন সমীকরণ তাড়া করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। উদ্বোধনী জুটিতে তারা ৫.৩ ওভারে ৫৯ রান যোগ করেন। এরপর মাত্র ১ রানের ব্যবধানে ২ উইকেট হারায় বাংলাদেশ দল। ১৩ বলে ১৮ রান করে ফেরেন তামিম। তার বিদায়ের পর ব্যাটিংয়ে নেমেই আউট হয়ে ফেরেন সাব্বির রহমান রুম্মন।

আজ শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা

ঢাকা  অফিস ॥ শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা আজ। দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায় তাদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব বুদ্ধ পূর্ণিমা সাড়ম্বরে উদযাপন করবে। বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে শনিবার সরকারি ছুটির দিন। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মৈত্রীময় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, মহামতি বুদ্ধ একটি সৌহার্দ্য ও শান্তিপূর্ণ বিশ্ব প্রতিষ্ঠায় আজীবন সাম্য ও মৈত্রীর বাণী প্রচার করে গেছেন। ‘অহিংস পরম ধর্ম’ বুদ্ধের এই অমিয় বাণী আজও সমাজে শান্তির জন্য সমভাবে প্রযোজ্য। প্রধানমন্ত্রী তাঁর বাণীতে এ দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায় গৌতম বুদ্ধের আদর্শ ধারণ করে জ্ঞান, মেধা, কর্মদক্ষতা ও কৃতিত্বে নিজেদের আরও ঊর্ধ্বে তুলে ধরবেন বলে প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেন। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয়, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বুদ্ধ পূর্ণিমা। প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে এই তিথিতে বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক গৌতমবুদ্ধ জন্মগ্রহণ করেছিলেন নেপালের লুম্বিনী কাননে। এ রাতেই তিনি বোধিজ্ঞান লাভ করেছিলেন ভারতের বিহার রাজ্যের বুদ্ধগয়ায়। এ ছাড়া গৌতমবুদ্ধের মৃত্যুও হয়েছিল এ রাতেই। আর এ কারণেই এ তিথিকে বলা হয় ত্রিস্মৃতি বিজড়িত বুদ্ধপূর্ণিমা। এছাড়া গৌতমবুদ্ধের জন্ম, মহাপ্রয়াণ ও বোধিলাভ বৈশাখী পূর্ণিমার দিনে হয়েছিল বলে এর অপর নাম বৈশাখী পূর্ণিমা। দিনভর বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা দিনটি পালন করে থাকে। বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশন, বাসাবো সবুজবাগ বৌদ্ধ বিহার দিবসটি উৎসবমূখর এবং ভাবগম্ভীর পরিবেশে উদযাপনের জন্য দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কমৃসূচির মধ্যে রয়েছে বুদ্ধপূজা, মহাসংঘদান এবং আলোচনাসভা।

 

স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দেশের জন্য কাজ করতে এবং গণতান্ত্রিক ধারা ফিরিয়ে আনতে দেশে ফিরেছিলাম

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের জন্য কাজ করতে এবং গণতান্ত্রিক ধারা ফিরিয়ে আনতে তিনি দেশে ফিরেছিলেন। এজন্যই তিনি দিনের পর দিন সংগ্রাম করেছেন। কেননা, গণতান্ত্রিক ধারা ছাড়া দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নতি সম্ভব নয়। গতকাল শুক্রবার তার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে দলের নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে তাকে শুভেচ্ছা জানাতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। এই দেশটা যেন আবারও স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীÑ এদের হাতে না যায়। কেউ যেন দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে না পারে। সেদিকে সবাইকে সর্তক থাকতে হবে। শেখ হাসিনা বলেন, যারা বারবার চেয়েছে আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে, তারা সফল হয়নি। আওয়ামী লীগ কিন্তু আওয়ামী লীগের মতোই ধীরে ধীরে গড়ে উঠেছে। আজকে সারা বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ এক নম্বর রাজনৈতিক দল। যে দল মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছে। সেই আস্থা ও বিশ্বাস আমরা দেখতে পেয়েছি এবারের নির্বাচনে। নারী-পুরুষ থেকে শুরু করে প্রথমবার ভোটার হওয়া তরুণরা সবাই আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে তাদের আস্থা, বিশ্বাস ও সমর্থন ব্যক্ত করেছে। তিনি বলেন, এর কারণটা হলোÑআমরা যে ক্ষমতায় থেকে মানুষের জন্য কাজ করেছি, মানুষের জন্য উন্নয়ন করেছি, মানুষের ভাগ্য গড়ার জন্য যে কাজগুলো করেছি, সেটা মানুষ উপলব্ধি করতে পেরেছে। এটা ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। যেকোনও রাজনৈতিক নেতার জন্য এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যে, মানুষের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করা। নইলে ক্ষমতায় থাকলে সাধারণত মানুষের জনপ্রিয়তা হ্রাস পায়। কিন্তু আমরা ক্ষমতায় এসে মানুষের আস্থা- বিশ্বাস অর্জন করতে পেরেছি বলেই মানুষের ভোট আমরা পেয়েছি, জনপ্রিয়তা ও সমর্থন দুটোই বেড়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষের মর্যাদা ক্ষুণœ হোক, বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ হোক, গত ৩৮ বছরে এমন কোনও কাজ আমি বা আমার পরিবারের কোনও সদস্য কখনও করিনি। নিজেদের চাওয়া-পাওয়ার জন্য কাজ করিনি, কাজ করেছি দেশের মানুষের জন্য। সব সময় চিন্তা করেছি মানুষকে কী দিতে পারলাম, মানুষের জন্য কতটুকু করতে পারলাম। আমরা যতবার ক্ষমতায় এসেছি, মানুষের জন্য কাজ করেছি, তত মানুষের আস্থা- বিশ্বাস অর্জন করতে পেরেছি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘৭৫-এর পড় এত বড় দায়িত্ব আমাকে নিতে হবে, এটা কখনও আমি ভাবিনি, চাইওনি, এটা চিন্তাও ছিল না। কিন্তু নিতে হয়েছে। চরম প্রতিকূল পরিবেশের ভেতর দিয়ে দলকে সংগঠিত করতে হয়েছে। তবে টানা ৩৮ বছর দলের সভাপতি থাকা বোধহয় একটু বেশি হয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। তখন উপস্থিত নেতাকর্মীরা সমস্বরে না বলে ওঠে। তারা শেখ হাসিনার উদ্দেশে বলেন, আপনিই সঠিক নেতা, আপনার হাতেই দেশ ও দল নিরাপদ। আপনাকেই এ দায়িত্ব চালিয়ে যেতে হবে। জবাবে তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আমার মনে হয় আপনাদেরও সময় এসেছে, তাছাড়া বয়সও হয়েছে, এ বিষয়গুলো তো দেখতে হবে। সরকার প্রধান বলেন, ক্ষমতায় থেকেও মানুষের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করতে পেরেছি এটা বিশাল অর্জন। নেতাকর্মীদের কাছে এইটুকু চাইবো- এই আস্থা-বিশ্বাস যেন আমরা ধরে রাখতে পারি। ব্যক্তিগত জীবনে কী পেলাম, না পেলাম সে চিন্তা করি না। দেশের মানুষের জন্য কতটুকু করতে পারলাম, কতটুকু দিতে পারলাম সেটাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় কথা। প্রসঙ্গত, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা সপরিবারে নিহত হওয়ার পর কয়েক বছর বিদেশে অবস্থান করে ১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফিরে আসেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। দেশে ফিরে আসার আগে বিদেশে থাকা অবস্থায়ই তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। এরপর থেকে তিনি টানা ৩৮ বছর বাংলাদেশের প্রাচীনতম রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর এক মেয়াদে পাঁচ বছর এবং ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর থেকে টানা তিনবার মিলিয়ে বাংলাদেশে ইতিহাসে চারবারের মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে ছাত্র রাজনীতির স্মৃতিচারণ করে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, স্কুলজীবন থেকেই রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম। তারপর কলেজে ও ইউনিভার্সিটিতে ছাত্রলীগেরই সদস্য ছিলাম। আর আওয়ামী লীগের (সদস্য) হলাম ৮১ সালে। আমার রাজনীতি ছাত্ররাজনীতি থেকেই শুরু। তবে কখনও কোনও বড় পোস্টে ছিলাম না, বড় পোস্ট চাইও নি কখনও। যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি তখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির একজন সদস্য ছিলাম। কখনও পদ নিয়ে চিন্তা করিনি, পদ আমরা চাইও নি। আমরা পদ সৃষ্টি করে সবাইকে পদে বসানোÑএই দায়িত্বটাই পালন করতাম। প্রত্যেকটা কনফারেন্সে হাজির থাকতাম। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ দলটির শীর্ষনেতারা প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের শীর্ষনেতারাও।

ইউভেন্তুস ছাড়তে পারেন দিবালা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ এ বছরের গ্রীষ্মকালীন দল-বদলে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালা ইউভেন্তুস ছাড়তে পারেন বলে দাবি করেছেন তার ভাই গুস্তাভো দিবালা। গত মাসে টানা অষ্টম সেরি আ শিরোপা ঘরে তুলেছে ইউভেন্তুস। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের স্বপ্ন চলতি মৌসুমেও পূরণ হয়নি। ক্লাব পর্যায়ে ইউরোপের সেরা প্রতিযোগিতায় শেষ আটে আয়াক্সের কাছে হেরে ছিটকে যায় মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির দল। পুরো মৌসুমে ছন্দ খুঁজে ফিরেছেন দিবালা। নিয়মিত শুরুর একাদশে জায়গা পাননি। সেরি আয় এ পর্যন্ত ২৮ ম্যাচ খেলে মোটে পাঁচ গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের ছয়টি গোলে অবদান রেখেছেন ২৫ বছর বয়সী এই ফুটবলার। ইতালিয়ান ক্লাবটিতে পাওলো দিবালা ভালো নেই বলে মন্তব্য করেন গুস্তাভো। “হ্যাঁ, তার ইউভেন্তুস ছাড়ার ভালো সম্ভাবনা আছে।  তার একটা পরিবর্তন দরকার।” “সে কোথায় যাবে তা আমি বলতে পারছি না। কিন্তু পাওলোর দল ছাড়ার জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে। অবশ্যই এখানে সে সুখে নেই। শুধু পাওলো একা নয়, অনেক খেলোয়াড়ই ইউভেন্তুসে অস্বস্তিতে আছে। এই গ্রীষ্মে সে একাই দল ছাড়বে না।”

ইউভেন্তুস ছাড়ছেন আল্লেগ্রি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ চলতি মৌসুম শেষে ইউভেন্তুসের কোচের দায়িত্ব ছাড়ছেন ইতালিয়ান কোচ মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রি। শুক্রবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানায় ক্লাবটি। গত কয়েক দিনে আল্লেগ্রির ভবিষ্যৎ নিয়ে তার ও ক্লাব কর্তৃপক্ষের মধ্যে কয়েক দফা বৈঠক হয়। এরপরই এই সিদ্ধান্তের কথা জানায় ইউভেন্তুস। ২৬ মে সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে সেরি আর ম্যাচে শেষ বারের মতো ইউভেন্তুস ডাগ আউটে থাকবেন আল্লেগ্রি।এসি মিলানের সাবেক এই কোচ ২০১৪ সালে ইউভেন্তুসে আন্তোনিও কোন্তের স্থলাভিষিক্ত হন। তার অধীনে গত চার মৌসুমের প্রতিটিতে সেরি আ ও ইতালিয়ান কাপ জিতেছে তুরিনের ক্লাবটি। এই সময়ে দুইবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালেও পৌঁছেছে তারা। তবে চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে আয়াক্সের কাছে হারের পাশাপাশি ইতালিয়ান কাপের ফাইনালে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয় ইউভেন্তুস। তবে সেরি আয় টানা অষ্টম বারের মতো শিরোপা ঘরে তোলে তারা।

আন্তর্জাতিক উৎসবে আমন্ত্রিত মোনালিসা

বিনোদন বাজার ॥ গত ৯ মে থেকে কানাডার টরেন্টোতে শুরু হয়েছে অষ্টমবারের মতো দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ চলচ্চিত্র উৎসব ‘ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভাল অব সাউথ এশিয়া’। মূলত দক্ষিণ এশিয়ার ঐতিহ্যকে সেলিব্রেট করার উদ্দেশ্যেই এই চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করা হয়ে থাকে। ১২ দিনব্যাপী এই চলচ্চিত্র উৎসবে ১৫টি ভাষার ১৫০টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকা, পরিচালক এই উৎসবে অংশ নেন। বাংলাদেশের একজন সংস্কৃতিকর্মী হিসেবে এবারের উৎসবে অংশগ্রহণের জন্য বিশেষ অতিথি হিসেবে নিমন্ত্রণ পেয়েছেন নন্দিত মডেল ও অভিনেত্রী মোজেজা আশরাফ মোনালিসা। এরই মধ্যে উৎসব কমিটির পক্ষ থেকে তিনি এই উৎসবে অংশগ্রহণের জন্য চিঠিও পেয়েছেন। মোনালিসা বর্তমানে আমেরিকাতে আছেন। সেখান থেকে মুঠোফোনে মোনালিসা বলেন, অবশ্যই এই নিমন্ত্রণ আমার জন্য অনেক সম্মানের, গর্বের। আয়োজক কমিটির কাছে আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। সে সঙ্গে আমার ভীষণ ভালো লাগছে এই ভেবে যে, বাংলাদেশের একজন সংস্কৃতি প্রতিনিধি হয়ে এই উৎসবে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছি। কোনো চলচ্চিত্র উৎসবে এভাবে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে অংশগ্রহণ করা এবারই প্রথম। তাই বিষয়টি আমার কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ও বটে। আমার দেশের সব ভক্ত-দর্শকের জন্য রইলো অনেক ভালোবাসা। উল্লেখ্য, আগামী ১৮ ও ১৯ মে টরেন্টোতে এই উৎসবে বাংলা ভাষাভাষীর সিনেমা প্রদর্শিত হবে। আর এ দুদিনই তিনি উপস্থিত থাকবেন।

ইমন খানের নতুন গান

বিনোদন বাজার ॥ এবার ঈদ উপলক্ষে আসছে ইমন খানের বেশ কয়েকটি গান। এর মধ্যে বিশেষ চমক হিসেবে থাকছে ‘আজো প্রতি রাত জেগে থাকি তোমার আশায়-২’। গানটি বাজারে আসছে সাউন্ডটেকের ব্যানারে। ইমন খান বললেন, বর্তমানে বেশ ব্যস্ত সময় পার করতে হচ্ছে। এবারে ঈদে আমার নিজস্ব চ্যানেলসহ বিভিন্ন চ্যানেল থেকে আমার ৫/৬টি গান বাজারে আসবে। সবগুলো গান চমৎকার। আশা করছি সবার ভালো লাগবে। তবে বিশেষ চমক হিসেবে থাকছে আমার ‘আজো প্রতি রাত জেগে থাকি তোমার আশায় ২’। সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে তার গাওয়া ‘প্রিয় নবী মোহাম্মদ’ শিরোনামের একটি ইসলামিক গান। গাজীপুরের মনোরম লোকেশনে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন এস এম রুবেল রানা। গানটি প্রকাশ হয়েছে ইমন খানের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল ‘আবর্তন মিডিয়ায়’।

ফ্যাশন হাউসের মডেল অপি করিম

বিনোদন বাজার ॥ কয়েক বছর আগে অনেকটাই শখের বশে স্বামী নাট্যাভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বর অনুপ্রেরণায় ফ্যাশন ডিজাইনার নাজিয়া হাসান অদিতি একটি স্টুডিও বুটিকের যাত্রা শুরু করেন। যার নাম ‘অদ্রিয়ানা’। এই হাউসের মডেল হিসেবে এর আগে তারিন, মিথিলা, সারিকা, মেহজাবিনসহ আরো অনেকেই কাজ করেছেন। এরই মধ্যে গত মঙ্গলবার ‘অদ্রিয়ানা’র জন্য মডেল হিসেবে স্টিল ফটোগ্রাফির কাজ করেছেন অভিনেত্রী অপি করিম। প্রতিষ্ঠানের নতুন চারটি ড্রেস’র মডেল হয়েছেন অপি করিম। নাজিয়া হাসান অদিতি বলেন, আমার ভীষণ ভালোলাগার বিষয় এই যে অপি আপু আমার ডিজাইন করা শাড়ি ভীষণ পছন্দ করেন। অনেক আগ্রহ নিয়েই তিনি আমার ডিজাইন করা শাড়ির মডেল হয়েছেন। আমি অনেক খুশি। অন্যদিকে এবারের ঈদ উপলক্ষে অপি করিম এরই মধ্যে চয়নিকা চৌধুরীর নির্দেশনায় রিয়াজের বিপরীতে একটি নাটকে অভিনয় করেছেন। নাটকের নাম ‘সুইজারল্যান্ড’। এদিকে ভারতের ইন্দ্রনীল রায়ের ‘মায়ার জঞ্জাল’ নামক একটি সিনেমার কাজ করেছেন। এ ছাড়াও হৈচৈ অ্যাপে মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘ঢাকা মেট্রো’।

আর গান গাইবেন না ব্রিটনি!

বিনোদন বাজার ॥ নব্বই দশকের শেষের দিকে আমেরিকান পপ জগতে আবির্ভাব হয়েছিলো ব্রিটনি স্পিয়ার্সের। নিজের সৌন্দর্য ও স্টেজ পারফর্ম্যান্সের মাধ্যেমে পপ গানকে নিয়ে গিয়েছিলেন এক অনন্য উচ্চতায়। ১৯৯৯ সালে বাজারে আসে তার প্রথম অ্যালবাম ‘বেবি ওয়ান মোর টাইম’। রেকর্ড সংখ্যাক কপি বিক্রি হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিলো অ্যালবামটি।এবার হঠাৎ করেই দুনিয়া জুড়ে ছড়িয়ে থাকা ব্রিটনির ভক্তদের জন্য আসলো দুঃসংবাদ। আর কখনোই নাকি গানের পারফর্ম করতে পারবেন না প্রিয় এই শিল্পী। এমন খবর জানিয়েছে খোদ ব্রিটনির ম্যানেজার নিজেই।ব্রিটনির ব্যাক্তিগত ম্যানেজার ল্যারি রুডলফ জানান, আমার জীবনের অর্ধেক সময় আমি পার করেছি ব্রিটনির দেখা শোনার জন্য। ব্রিটনির প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ হতে এখন পর্যন্ত ওর পেছনে ছায়ার মতো ছিলাম। সে অনেকটা আমার মেয়ের মতো। কিন্তু সম্প্রতি সে ভীষণ মানসিক বিপর্যয়ে ভুগছে । আর যে কারণে লাস ভেগাসে বসবাসরত বাড়িটিও বিক্রি করে দিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী এই তারকা।কারণ হিসেবে রুডলফ বলেন, ব্রিটনির বাবা জ্যামি স্পিয়ার্স ব্রিটনির জীবনে অযাচিত হস্তক্ষেপ করছেন। তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে মানসিক চিকিৎসার জন্যে জোর দিয়ে তার জীবনকে বিষিয়ে তুলেছেন, এ নিয়ে লস এঞ্জেলসের আদালতে মামলাও নাকি চলছে। ব্রিটনির পক্ষে অবশ্যে কথা বলেছেন তার মা লিন। আদালতের কাছে তার মা লিন জানিয়েছেন, ব্রিটনির উপর তার বাবার এ হস্তক্ষেপ বন্ধ হওয়া উচিত, কারণ ব্রিটনি এখন যথেষ্ট প্রাপ্ত বয়স্ক হয়েছে। ২০০২ সালে ব্রিটনি বাবা জেমি স্পিয়ার্সের সাথে তার মা লিন স্পিয়ার্সের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে।

রোজা নিয়ে আসিফ আকবরের গান

বিনোদন বাজার ॥ কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর প্রেম-বিরহের বাইরেও গেয়েছেন ভিন্ন স্বাদের কিছু গান। এরই ধারাবাহিকতায় এবার তিনি কণ্ঠে তুলেছেন রোজা নিয়ে গান। এর নাম ‘রোজা মানে’। আত্মশুদ্ধির মাস রমজানে মুসলমানদের দৈনিক রুটিনে বেশ পরিবর্তন আসে। চারপাশের সেই চিত্রটা ফুটে উঠেছে আসিফের নতুন এই গানে। পাশাপাশি সংযমের শিক্ষা নিয়ে পথচলার বার্তাও দেয়া হয়েছে গানটিতে। সাদাত হোসাইনের রচনায় এর সুর-সঙ্গীতায়োজন করেছেন কিশোর। বাংলাঢোলের প্রযোজনায় ‘রোজা মানে’ গানটির ভিডিও তৈরি করেছেন হৃদয় চৌধুরী। ১৫ মে প্রতিষ্ঠানটির ইউটিউব চ্যানেলে এটি উন্মুক্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি এটি উপভোগ করা যাচ্ছে দেশের জনপ্রিয় স্ট্রিমিং অ্যাপ বাংলাফ্লিক্স, রবিস্ক্রিন, এয়ারটেলস্ক্রিন ও টেলিফ্লিক্সে। আসিফ আকবর বলেন, ‘মানুষ মাত্রই সমান, ভেদাভেদ নেই। আত্মশুদ্ধির মাস রমজানে এই উপলব্ধিটা সুন্দরভাবে লিখেছেন সাদাত হোসাইন। আশা করি, গানের মূল বার্তাটুকু আমরা মনে রাখব।’

কানের গালিচায় হাঁটতে প্রস্তুত হীনা খান

বিনোদন বাজার ॥ শুরু হয়ে গেছে কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭২তম আসর। গত ১৪ মে প্রথম দিন কানের লালগালিচায় রুপের জাদু দেখিয়েছেন গায়িকা সেলেনা গোমেজ, অভিনেত্রী জুলিয়ান মুর, ইভা লোঙ্গেরিয়া ও টিলডা সুইনটন। শুধু হলিউড তারকা নয়, শিগগিরই কানের লালগালিচায় পা মাড়াতে দেখা যাবে বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন, দীপিকা পাড়ুকোন, সোনম কাপুর, কঙ্গনা রনৌত, রিচা চাড্ডা ও মল্লিকা শেরাওয়াতকে। এ বছর কানের লালগালিচায় হলিউড-বলিউডের নামি-দামি তারকাদের পাশাপাশি হাঁটতে দেখা যাবে ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী হীনা খানকে। এরই মধ্যে তার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তিনি। পৌঁছে গিয়েছেন কান শহরে। কান শহরে গিয়ে পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের সামনে ঘোরাঘুরিও করেছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে কয়েকটি ছবিও শেয়ার করেছেন হীনা। যেখানে গোলাপি রঙা পোশাকে দারুণ দেখাচ্ছে ছোট পর্দার এই তারকাকে। হীনা এখন ব্যস্ত রয়েছেন তার প্রথম বলিউড ছবির কাজ নিয়ে। কিন্তু ছবিটির নাম এখনো অজানা।

 

মুক্তি পেল অজয়ের নতুন সিনেমা

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড অভিনেতা অজয়ের বয়স ৫০। এই বয়সে প্রায় অর্ধেক বয়সী এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছেন জনপ্রিয় এই নায়ক। তবে বাস্তবে নয়, অজয়ের নতুন সিনেমা ‘দে দে প্যায়ার দে’ ছবিতে এমনই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ১৭ মে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। এর আগে ছবিটির ২ মিনিট ৫৬ সেকেন্ডের ট্রেলার দেখেছেন দর্শক। যেখানে দেখা যাবে বিবাহ বিচ্ছেদের কয়েক বছর বাদে অজয় এক ২৬ বছরের নারীর প্রেমে পড়েন। ওই চরিত্রে অভিনয় করেছেন রকুলপ্রীত সিং। অজয় দেবগণ ও কাজলের বিয়ের বয়স ২০ বছর। বলিউডের সবচেয়ে সুখী দম্পতিদের মধ্যে অন্যতম। বাস্তবে কি কোনো সময় অজয়ের সঙ্গে এমন ঘটনা ঘটেছে? সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অজয় জানিয়েছেন, বাস্তবে কাজল ছাড়া আর অন্য কোনো মেয়ের প্রেমে কখনোই পড়েননি তিনি। কিন্তু অন্য মেয়েদের দিকে হাজারোবার তাকিয়েছেন। আর সেই সময় যদি কাজল তাকে ধরে ফেলেন, তখন অজয়কে কাজল কী বলেন? অজয়ের কথায়, অন্য মেয়েদের দিকে তাকাচ্ছি দেখলে কাজল এমন একটা কমেন্ট করে, সেটাই জোক হয়ে যায়।

বছরে হবে ৮ থেকে ১০টি ভেড়ার বাছুর

কৃষি প্রতিবেদক ॥ সুপার অভিউলেশনের মাধ্যমে ভেড়ার ভ্রুণ সংখ্যা বৃদ্ধি-সংক্রান্ত গবেষণা প্রকল্পের বাকৃবির গবেষকগণ সুপার অভিউলেশনের মাধ্যমে সম্প্রতি ভেড়ার ভ্রুণ উৎপাদন, সংরক্ষণ, স্থানান্তর ও বাচ্চা উৎপাদনে সফলতা পেয়েছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) একদল গবেষক। ভ্রুণ থেকে বাচ্চা প্রসবের ঘটনা এটিই বাংলাদেশে প্রথম। সুপার অভিউলেশনের মাধ্যমে গবাদিপশুর বছরে ২৫-৩০টি ভ্রুণ উৎপাদন করা সম্ভব। এমন কি হিমায়িত করে ভ্রুনও সংরক্ষণ করা সম্ভব। প্রথমবারের মতো  সেই ভ্রুণ ভেড়ার বাচ্চা উৎপাদন করা হয়েছে। এতে বছরে ৮ থেকে ১০টি বাচ্চা উৎপাদন করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। দেশে কৃত্রিম প্রজননের ব্যবস্থা থাকলেও তা নানা কারণে আশানুরূপ নয়। তাই দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও আমিষের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে ২০১৪ সালে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের হায়ার এডুকেশন  কোয়ালিটি এনহেনসমেন্ট (হেকেপ) প্রজেক্টের মাধ্যমে বাকৃবি ভেটেরিনারি অনুষদের সার্জারি ও অবস্টেট্রিক্স বিভাগ কাজ এই ভ্রুণ উৎপাদন শুরু করে। স্বল্পসময়ে মানসম্পন্ন অধিক বাচ্চা উৎপাদনের জন্য কাজ করছে প্রকল্পটি।প্রকল্পের প্রধান গবেষক ড. নাছরিন সুলতানা জুয়েনা ও সহকারী গবেষক ড. ফরিদা ইয়াসমিন বারী। এতে তিনজন পিএইচডি গবেষক ও বেশ কয়েকজন মাস্টার্স শিক্ষার্থীরাও সহযোগিতা করছেন। দীর্ঘদিনের এ গবেষণায় গত সোমবার রাতে ভ্রুণ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে একটি ভেড়ার দুটি শাবক জন্ম  দেয়। এ বিষয়ে প্রকল্পটির প্রধান গবেষক ড. নাছরিন সুলতানা জুয়েনা জানান, সাধারণত গাভী এবং ভেড়া বছরে একটি মাত্র বাচ্চা প্রসব করতে পারে। কিন্তু প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় উন্নত জাতের গাভী এবং ভেড়া থেকে সুপার অভিউলেশনের মাধ্যমে বছরে ২৫ থেকে ৩০টি ভ্রুণ উৎপাদন করা সম্ভব।  ভেড়ার ভ্রুণ সংরক্ষণ করে এখন বছরে ৮ থেকে ১০টি বাচ্চা উৎপাদন করা সম্ভব হবে। এই প্রকল্পের অর্থায়নে রিসার্চ অ্যানিমাল ফার্ম প্রতিষ্ঠা করে উন্নত জাতের গাভী, ষাঁড়, ভেড়ার সিমেন সংগ্রহ করে গবেষণা করা হচ্ছে। ভ্রুণ প্রতিস্থাপনের ফলে গরু অথবা ভেড়ার বাচ্চা উৎপাদন এবং দুধ, মাংস ও চামড়া উৎপাদনে বিপ্লব ঘটবে বলে আশা করছেন গবেষকরা। এতে আর্থিকভাবে কয়েকগুণ বেশি লাভবান হবেন দরিদ্র চাষি ও মাঠপর্যায়ের পশুপালনকারীসহ বাণিজ্যিক খামারিরা। একই বিষয়ে প্রকল্পের সহকারী পরিচালক ড. ফারদা ইয়াসমিন বারী বলেন, দেশে প্রথমবারের মতো গবাদিপশুর ভ্রুণ সংরক্ষণ হয়েছে। এতে কৃষকরা প্রয়োজন মতো ভ্রুণ সংগ্রহ করে তা প্রতিস্থাপন করে গবাদিপশুর মানসম্মত কৃত্রিম প্রজনন নিশ্চিত করতে পারবেন। এ লক্ষ্যে স্থায়ী সিমেন ও ভ্রুণ ব্যাংকও তৈরি করা হচ্ছে।প্রকল্পের পিএইচডি ফেলো মোহাম্মদ রফিফুল ইসলাম তালুকদার বলেন, হিমায়িত ভ্রুণের মাধ্যমে কাঙ্খিত জাতের গবাদিপশু পাওয়া যায়। যা দেশের খাদ্য নিরাপত্তায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

একনজরে বিশ্বকাপের প্রাইজমানি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে গড়াবে বিশ্বকাপ। ইতিমধ্যে প্রকাশ্যে এসেছে টুর্নামেন্টের প্রাইজমানি। বরাবরের চেয়ে এবার বেশি থাকছে অর্থের পরিমাণ। বিশ্বকাপের জন্য ১০ মিলিয়ন ডলার প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৮৫ কোটি টাকা। আসরজুড়ে পুরস্কার স্বরূপ খরচ হবে বিপুল পরিমাণ এ ।সবচেয়ে বেশি ৪ মিলিয়ন ডলার তথা ৩৪ কোটি টাকার প্রাইজমানি পাবে চ্যাম্পিয়ন দল। র্সআপ দল পাবে ঠিক এর অর্ধেক। অর্থাৎ ২ মিলিয়ন ডলার বা ১৭ কোটি টাকা। বাকি  লগুলোর জন্যও বরাদ্দ থাকছে বিপুল অঙ্কের অর্থ। সেমিফাইনালে বাদ পড়া দুই দলকে দেয়া হবে ৮ লাখ ডলার বা ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা করে। মোট ১৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা পাবে উভয় দল। বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়া ছয় দলকে দেয়া হবে ১ লাখ ডলার বা ৮৫ লাখ টাকা করে। এর মোট পরিমাণ ৫ কোটি ১০ লাখ টাকা। লিগ পর্বে ম্যাচজয়ী দলের জন্যও থাকছে পুরস্কার। প্রথম পর্বের প্রতিটি ম্যাচে জয়ী দল পাবে ৪০ হাজার ডলার। টাকায় এ অংক ৩৪ লাখ। এ পর্বে জয়ী দলগুলোর পেছনে মোট ব্যয় হবে ১৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা। তবে ব্যক্তিগত পুরস্কার- প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ, প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট কিংবা অন্যান্য কোনো পুরস্কারের অর্থ প্রকাশ করেনি আইসিসি। সেসব যোগ করলে পুরস্কারের অর্থমূল্য আরো বাড়বে। আগামী ৩০ মে থেকে মাঠে গড়াবে ওয়ানডে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর। কেনিংটন ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচে লড়বে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। ৪৬ দিনে ৪৮ ম্যাচের এ বৈশ্বিক আসরের পর্দা নামবে ১৪ জুলাই, লর্ডসে। ইতিমধ্যে এবারের বিশ্বকাপ স্মরণীয় করে রাখার ঘোষণা দিয়েছে আইসিসি। শুধু অর্থ না, এতে ব্যবহৃত হবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। নিঃসন্দেহে টুর্নামেন্টটিকে তা দেবে ভিন্নমাত্রা।

 

মেসির সঙ্গে অনুশীলন করতে উদ্গ্রীব ডি ইয়ং

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নতুন দল বার্সেলোনায় যোগ দিতে মুখিয়ে আছেন আয়াক্সের মিডফিল্ডার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং। কাম্প নউয়ে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসির সঙ্গে অনুশীলন করার কথা ভেবে রোমাঞ্চিত নেদারল্যান্ডসের এই ফুটবলার। এ বছরের জানুয়ারিতে সাড়ে সাত কোটি ইউরোয় ডি ইয়ংকে দলে টানে বার্সেলোনা। ১ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে বার্সেলোনায় যোগ দেবেন তিনি। পাঁচ বছরের জন্য কাতালান ক্লাবটিতে যোগ দিতে যাওয়া ২২ বছর বয়সী তরুণ এই খেলোয়াড়ের জন্য আরও এক কোটি ১০ লাখ ইউরো গুনতে হতে পারে লা লিগা চ্যাম্পিয়নদের। বার্সেলোনায় মানিয়ে নিতে আশাবাদী ডি ইয়ং। “অনুশীলনের সময় লিওনেল মেসিকে দেখার কথা ভেবে আমি খুব রোমাঞ্চিত। আমি মনে করি, আমি তাকে শুধু বল পাস দিয়েই যাব।” “আমি সেখানে কেমন খেলব তা নিয়ে আমার কৌতুহল আছে। আর সেরা খেলোয়াড়ের কাছ থেকে শিখতে মুখিয়ে আছি আমি।”