কালুখালীতে বিশ্ব মা দিবস উদযাপনে স্বপ্নজয়ী মাকে সম্মাননা প্রদান

ফজলুল হক ॥ গতকাল রবিবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে বিশ্ব মা দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষ্যে স্বপ্নজয়ী মাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে বেলা ১২টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় কর্তৃক আয়োজনে এক আলোচনা সভায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তহমিদা খানম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী শারমিন আক্তার। অন্যান্যের মধ্যে সমাজসেবা অফিসার মোঃ জিল্লুর রহমান, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা হাওয়া খাতুন, প্রোগ্রামার অফিসার উপনানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো মোঃ রেজাউল করিম এছাড়াও উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সম্পাদিকা রেহানা পারভীন সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভাপতির বক্তব্যে তহমিদা খানম তিনি তার সমাপনী বক্তব্যে বিশ্ব মা দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে মায়ের পদতলে সন্তানের বেহেশত উল্লেখ করে বলেন সকলকে মায়ের মর্যাদা দিতে হবে। বিশেষ করে নারীদেরকে শিক্ষিত করে তুলতে হবে যাতে করে একটি শিক্ষিত দেশ পাওয়া যায়। অনুষ্ঠানে উপজেলার মধ্যে স্বপ্নজয়ী মা মোছাঃ জাহিদা বেগমের পুত্র মোঃ ওয়াহিদুজ্জামানের নিকট সম্মাননা প্রদান করা হয়।

কৃষির আধুনিকায়নই তামাক চাষে নিরুৎসাহিত করবে – কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, তামাক চাষে কৃষকদের নিরুৎসাহিতকরণে উৎপাদিত অন্য সব কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হবে। কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে কৃষির আধুনিকায়ন, যান্ত্রিকিকরণ এবং রপ্তানির বাজার অপরিহার্য। সামগ্রীক অর্থে কৃষির আধুনিকায়নই তামাক চাষে নিরুৎসাহিত করবে চাষিদের। গতকাল রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) মিলনায়তনে তামাক বিরোধী জাতীয় প্ল্যাটফর্ম-এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘সেমিনার ও তামাক নিয়ন্ত্রণ পদক-২০১৯’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পিকেএসএফ-এর সভাপতি ড. খলীকুজ্জমান আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় আধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব:) আবদুল মালিক। অনুষ্ঠানে তামাক বিরোধী জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে অগ্রণী ভূমিকার জন্য চার জনকে সম্মাননা দেওয়া হয়। কৃষিমন্ত্রী অনুষ্ঠানে আরও বলেন, তামাক ও তামাকজাত পণ্য উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলো থেকে প্রতিবছর সরকারের প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হচ্ছে। আর পরোক্ষভাবে তার চেয়ে বেশি খরচ হচ্ছে তামাকজনিত রোগে আক্রান্ত লোকদের দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক ব্যয়ের জন্য। শুধু যারা ঢাকায় বসবাস করে, তারা সঠিকভাবে তাদের কর দিলে তামাক কোম্পানির এই কর পরিহার করা সহজ হবে এবং তামাক উৎপাদনও বন্ধকরা যাবে। কৃষি মন্ত্রী বলেন, কৃষিকে সত্যিকার অর্থে বাণিজ্যিক কৃষি ও আধুনিক কৃষি করা গেলে ২০৪০ সালের আগেই তামাক মুক্ত সমাজ গড়া যাবে। এরই মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জন সম্ভব হবে। এ ক্ষেত্রে সকলের অংশগ্রহণ জরুরী। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিশ্বের তামাক উৎপাদনকারি ২০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১২তম, আর প্রথমে আছে চীন। বাংলাদেশের মধ্যে তামাক উৎপাদনকারী জেলার মধ্যে প্রথম হচ্ছে কুষ্টিয়া জেলা। তামাক চাষের নিবিড়তা ২০০৬ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ১৪৫% থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ২১৩% হয়েছে। এতে আরও জানানো হয়, সামগ্রীকভাবে তামাক চাষের চেয়ে সবজি চাষ লাভজনক। তামাক উৎপাদন ও ব্যবহার বন্ধ করা গেলে দারিদ্র্যের দুষ্টচক্র ভেঙ্গে কৃষি, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তন রোধ করা সম্ভব।

আজকেই ফাইনাল নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ

ঢাকা অফিস ॥ জিতলেই ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত, এমন সমীকরণ নিয়ে আজ টুর্নামেন্টে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নামছে বাংলাদেশ। এ ম্যাচে মাশরাফি বাহিনীর প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ ম্যাচ জিতলেই ফাইনালের টিকিট পাবে বাংলাদেশ। প্রথম পর্বে ক্যারিবীয়দের ৮ উইকেটে হারিয়েছিলো টাইগাররা। ডাবলিনের মালাহিডে বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিটে শুরু হবে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওয়ানডে। দুর্দান্ত জয় দিয়ে এবারের টুর্নামেন্ট শুরু করে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারের লজ্জা দেয় তারা। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নিয়েছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। শাই হোপের ১০৯ রানের সুবাদে ৯ উইকেটে ২৬১ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় ক্যারিবীয়রা। জবাবে তামিম ইকবাল-সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসানের হাফ-সেঞ্চুরিতে ৫ ওভার বাকী রেখেই জয়ের স্বাদ নেয় বাংলাদেশ। তামিম ৮০, সৌম্য ৭৩ ও সাকিব অপরাজিত ৬১ রান করেন।

বাংলাদেশের আগে টুর্নামেন্টে খেলতে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই উড়ন্ত সূচনা করে ক্যারিবীয়রা। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ঐ ম্যাচে দুই ওপেনার জন ক্যাম্পবেল ও শাই হোপের জোড়া সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ৩৮১ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ১৮৫ রানেই গুটিয়ে যায় আইরিশরা। প্রথম পর্বে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়ে যায়। প্রথম পর্ব শেষে ২ খেলায় ১ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে ছিলো বাংলাদেশ। সমানসংখ্যক ম্যাচে ১টি করে জয়-হারে ৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয়স্থানে ছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২ খেলায় এক হার ও একটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ায় ২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে অবস্থান করছে আয়ারল্যান্ড। তবে ফিরতি পর্বেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রতিশোধ নিতে পারেনি আয়ারল্যান্ড। গত শনিবার অনুষ্ঠিত ম্যাচে ৫ উইকেটে হারে আইরিশরা। ৫ উইকেটে ৩২৭ রান করেও ম্যাচ হারে তারা। ৩৩১ রান তুলে ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে ফাইনাল নিশ্চিত হয় ক্যারিবীয়দের। এই হারে ফাইনালে উঠার পথ অনেক কঠিন হয়ে গেল আয়ারল্যান্ডের। বাংলাদেশ যদি নিজেদের শেষ দু’ম্যাচে হারে এবং আয়ারল্যান্ড যদি নিজেদের শেষ ম্যাচ জিতে পারে তবেই ফাইনালে যাবার সুযোগ তৈরি হবে স্বাগতিকদের। তবে এসব সমীকরন নিয়ে মাথা ঘামাতে নারাজ বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সিরিজে নিজেদের উজার করে দিতে চায় টাইগাররা। দেশ ছাড়ার আগে এমনটাই জানিয়েছিলো বাংলাদেশ। একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে হারলেও, দুর্দান্তভাবে টুর্নামেন্ট শুরু করতে পেরে খুশী ছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা, ‘অবশ্যই জয় দিয়ে শুরু করাটা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। আমি মনে করি অনুশীলন ম্যাচে পরাজিত হওয়ার পর আমাদের শুরুটা ভাল হয়েছে। ছেলেরা পরের ম্যাচের জন্য অধীর আগ্রহে আছে।’ কিন্তু পরের ম্যাচে মাঠেই নামতে পারেনি বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়। তাই ম্যাচ শেষে হতাশই ছিলেন বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস, ‘হতাশ হয়েছি আমরা। ম্যাচ থেকে ২ পয়েন্টের বেশি চেয়েছিলাম আমরা। আবহাওয়া নিয়ে এখানে কিছুই করার নেই।’ আয়ারল্যান্ড-ইংল্যান্ডের বর্তমান কন্ডিশন নিয়েও হতাশ রোডস, ‘আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডে এই মৌসুমটায় বৃষ্টিতে খেলা পরিত্যক্ত হয়। কিন্তু সামনে আমাদের অনেক ম্যাচ। সে হিসেবে অনুশীলনগুলো মিস করা নিয়ে আমি সত্যিই শঙ্কিত। আশা করছি আবহাওয়া ভালো হয়ে উঠবে।’ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে নিজেদের পারফরমেন্সে ধারাবাহিক হতে চান রোডস। এমন ইঙ্গিতও দিলেন তিনি, ‘আমাদের দলের প্রধান লক্ষ্যই হলো দলের পারফরম্যান্সে আরও ধারাবাহিকতা আনা। যদি সেটা করতে পারি তাহলে মনে করি বিশ্বকাপে অনেক দূর পর্যন্ত যেতে পারবো।’

পয়েন্ট টেবিল : দল খেলা জয় হার টাই পরিত্যক্ত পয়েন্ট রান রেট

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩ ২ ১ ০ ০ ৯ ১.২৩। বাংলাদেশ ২ ১ ০ ০ ১ ৬ ০.৬৪৭।  আয়ারল্যান্ড ৩ ০ ২ ০ ১ ২ -২.১৫৮

খাদ্য নিরাপত্তায় ‘জরুরি অবস্থা’ চান হাইকোর্ট

ঢাকা অফিস ॥ পণ্যের ভেজাল প্রতিরোধে প্রয়োজনে যুদ্ধ ঘোষণার আহ্বান জানিয়েছেন হাইকোর্ট। এ ছাড়া খাদ্য নিরাপদ রাখতে প্রয়োজনে দেশে জরুরি অবস্থা জারির জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মানহীন ৫২ খাদ্যপণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার চেয়ে দায়ের করা রিটের শুনানি নিয়ে গতকাল রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ অনুরোধ জানান। ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সরকার, সরকারি দল এবং প্রধানমন্ত্রীকে মাদক নির্মূলের মতো ভেজাল খাদ্যপণ্যের বিরুদ্ধেও যুদ্ধ ঘোষণার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন হাইকোর্ট। মাদক দ্রব্য নির্মূলের মতো জিরো টলারেন্স দেখানোর আহ্বান জানিয়েছেন। আদালত তার আদেশে বাজার থেকে নিম্নমানের ৫২টি খাদ্যপণ্য প্রত্যাহার করতে বলেছেন। একই সঙ্গে বাজার থেকে এসব পণ্য প্রত্যাহার করে তা ধ্বংস করতে বলা হয়েছে, যাতে এসব পণ্য তৃতীয় কোনো পক্ষের কাছে বা হাতে না যায়। আদেশের প্রতিপালন বিষয়ে আগামি ২৩ মে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আদালতে গতকাল রোববার রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শিহাব উদ্দিন খান। বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফরিদুল ইসলাম ও বিএসটিআই এর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আর হাসান এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান। আদালত উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে পর্যবেক্ষণ দিয়ে বলেন, ‘খাদ্যে ভেজাল নিয়ন্ত্রণে শুধুমাত্র রমজান মাসেই অভিজান চালানো যথেষ্ট নয়। সারাবছরই খাদ্যে ভেজালের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখা উচিৎ। খাদ্যপণ্যের ভেজাল নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের শুধুমাত্র নিজেদের কর্মকর্তা মনে না করে দেশ প্রেমিক নাগরিক ও জনগণের প্রতি ভালোবাসা থেকে দায়িত্ব পালন করা উচিৎ।’ আদালত আরও বলেন, ‘যদিও এই জাতীয় বিষয়ে হাইকোর্টের নিয়মিত দেখা উচিত নয়। কারণ, এর জন্য যথাযথ প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ রয়েছে। কিন্তু এ রকম অবস্থায় হাইকোর্ট কিছু না করেও বসে থাকতে পারে না। তাই ভেজাল রোধে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সমন্বিত প্রচেষ্টা জরুরি।’ একই সঙ্গে হাইকোর্ট অনুরোধ জানিয়ে বলেন, সরকার ও সরকারি দল এবং প্রধানমন্ত্রীর নিকট অনুরোধ জানাচ্ছি, যেন এসব ভেজাল খাদ্যপণ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করা হয়। সরকার মাদকের বিরুদ্ধে যেমন যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল তেমনি ভেজাল খাদ্যের বিরুদ্ধেও যুদ্ধ ঘোষণার অনুরোধ জানাচ্ছি। প্রয়োজনে ভেজাল খাদ্য রোধে জরুরি অবস্থা ঘোষণারও অনুরোধ জানাচ্ছি। আদালত বলেন, ‘হাইকোর্ট সরকার ও নির্বাহী বিভাগের কাজের অগ্রাধিকার কী হবে তা নির্ধারণ করে দিতে পারে না। কিন্তু খাদ্যে ভেজাল রোধের বিষয়টিকে এক নম্বরে অগ্রাধিকার দেওয়ার অনুরোধ জানানো হলো। ভেজালের বিষয়ে আর কোনো আপস কিংবা ছাড় দেওয়া হবে না বলেও আদালত তার আদেশে হুশিয়ারি দেন। গত ৯ মে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্স অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় প্রমাণিত ৫২টি ভেজাল ও নিম্নমাণের পণ্য জব্দ এবং এসব পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার ও উৎপাদন বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। কনশাস কনজ্যুমার সোসাইটির (সিসিএস) পক্ষে ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান জনস্বার্থে এ রিট দায়ের করেন। রিটের শুনানি নিয়ে আদালত বিএসটিআই ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক নীচে নন এমন দু’জন কর্মকর্তাকে হাইকোর্ট তলব করেন। যার ধারাবাহিকতায় তারা গতকাল বিএসটিআই এর উপ-পরিচালক মো. রিয়াজুল হক এবং বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের পরিচালক ড. সহদেব চন্দ্র সাহা আদালতে হাজির হন। আদালত উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে বাজার থেকে সংশ্লিষ্ট ভেজাল পণ্য প্রত্যাহারের আদেশ দেন।

আলমডাঙ্গায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিশ্ব মা দিবস উদযাপিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে বিশ্ব মা দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উম্মে ছালমা আক্তারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আফাজ উদ্দিন, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা হামিদুল ইসলাম আজম। আলমডাঙ্গা কলেজিয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামিম রেজার উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা প,প,কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান, প্রশিক্ষক শামসুজ্জামান বাবু, হুসনেয়ারা বেগম, প্রশিক্ষক শান্তনা খাতুন, সভাপতি জাহানারা বেগম ও সাজেদা খাতুন প্রমুখ।

মায়ের অনুপ্রেরণাই সন্তানের পথচলার শক্তি – স্পিকার

ঢাকা অফিস ॥ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, ‘একজন সুস্থ মা সুস্থ জাঁতি উপহার দিতে পারেন। মায়ের অনুপ্রেরণাই সন্তানের পথচলার শক্তি।  সব কষ্ট, যন্ত্রণা ও বেদনা থেকে পরিত্রাণের আশ্রয়স্থল একমাত্র মা। তিনি গতকাল রোববার  ‘গরবিনী মা’ বিশেষ সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন। রাজধানীর রাওয়া কনভেনশন সেন্টারে বিশ্ব মা দিবস উপলক্ষে ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উদ্যোগে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। এ সময় স্পিকার সন্তানদের উদার হয়ে মায়েদের যেকোনও প্রয়োজনে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। ঢাকা নগরীতে মা-বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য ডিএনসিসির মেয়রের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। ‘গরবিনী মা-২০১৯’ সম্মাননা পেলেন- স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসানের মা মনোয়ারা বেগম, সংসদ সদস্য ও নন্দিত কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের মা উজালা বেগম,হাইওয়ে পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. আতিকুল ইসলামের মা জাহেদা খাতুন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সাবিতা রিজওয়ানা রহমানের মা আসিয়া রহমান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলমের মা মোছা. আমেনা খাতুন, এটিএন নিউজের প্রধান নির্বাহী সম্পাদক মুন্নী সাহার মা আপেল রানী সাহা, চিত্রনায়িকা সাদিকা পারভীন পপির মা মরিয়ম বেগম, অভিনয়শিল্পী আফরান নিশোর মা আঞ্জুমান আরা, দক্ষ পাইলট ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ জাকারিয়ার মা কাজী মাহফুজা বেগম এবং প্রথম আলো অদম্য মেধাবী: হৃদয় সরকারের মা সীমা সরকার। অনুষ্ঠানে গরবিনী মায়ের আলোকিত সন্তানরা অনুভূতি প্রকাশ করেন। এ অনুষ্ঠানের আয়োজকদের উদ্দেশে স্পিকার বলেন, ‘ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের “গরবিনী মা” অনুষ্ঠানের আয়োজন সত্যিই অনন্য।’ তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন সফল মা। প্রধানমন্ত্রী একজন মা হিসেবে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মায়েদের কল্যাণে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। মাতৃত্বকালীন ভাতা, ল্যাকটেটিং মায়েদের ভাতা, চাকরিজীবী মায়েদের সবেতনে ৬ মাস মাতৃত্বকালীন ছুটি, পাসপোর্টে বাবার পাশাপাশি মায়ের নাম অন্তর্ভুক্তিকরণসহ কর্মজীবী মায়েদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করেছেন।’ এ সময় জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপির কাছ থেকে ১০ জন গরবিনী মা সম্মাননা গ্রহণ করেন। ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক প্রীতি চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন-  ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ‘গরবিনী মা’র প্রধান উদ্যোক্তা ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নাগরিক টেলিভিশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. আবদুন নূর তুষার।

দৌলতপুরে প্রশাসনকে না জানিয়ে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে শিশু গাছ কর্তন 

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের প্রশাসনকে না জানিয়ে কেসিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে অর্ধশত বছরের প্রাচীন দু’টি শিশু গাছ কেটে নিয়েছে এলাকার প্রভাবশালী মহল। তবে গাছ কাটার বিষয়ে প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করায় এলাকার সাধারণ জনমনে তীব্র ক্ষোভ ও সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে। শনিবার রাতে উপজেলার কাঞ্চনগর চুয়ামল্লিকপাড়া (কেসিপাড়া) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে এলাকার চিহ্নিত মাদক সম্রাট ও মাদকাসক্ত সাফিউল ইসলামের নেতৃত্বে সংগবদ্ধ একটি মহল গাছ দুটি কেটে নিয়েছে বলে জানাগেছে। এলাকাবাসী জানায়, শনিবার রাতে একই এলাকার মাদকাসক্ত সাফিউল ইসলামের নেতৃত্বে ৫-৬ জনের একটি সংগবদ্ধ চক্র চুয়ামল্লিকপাড়া (কেসিপাড়া) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে অর্ধশত বছরের পুরনো দু’টি শিশু গাছ কেটে নেয়। যার মূল্য প্রায় প্রায় এক লক্ষ টাকা হবে। পরে সংগবদ্ধ চক্র কেটে নেয়া গাছ দু’টি দৌলতপুর হাসপাতাল সড়কের ইমান আলীর কাছে বিক্রয় করে। বর্তমানে গাছের মোটগুড়িগুলি ইমান আলীর বাড়ির সমানে রাখা রয়েছে। তবে সাফিউল ইসলাম নিজেকে দৌলতপুর যুবলীগের বিশাল নেতা পরিচয় দিয়ে সরকারী বিধিমোতাবেক মাত্র সাড়ে ৭ হাজার টাকা মূল্য দিয়ে গাছ দু’টি কর্তন করার কথা জানিয়েছেন।

সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে গাছ কাটার বিষয়ে দৌলতপুর প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মুনতাকিম বলেন, গাছ কাটার বিষয় তার জানা নেই। খোঁজখবর নিয়ে দেখছি কি করা যায়। গাছ কাটার বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার বলেন, কিছুক্ষন আগে গাছ কাটার খবরটি আমি শুনেছি। বর্তমানে দৌলতপুরের বাইরে রয়েছি। দৌলতপুরে ফিরে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ. কা. ম. সরওয়ার জাহান বাদশা বলেন, এলাকাবাসীর কাছ থেকে সরকারী জায়গা কেসিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর থেকে দু’টি শিশু গাছ কেটে নেয়ার খবর শুনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নিদেশ দিয়েছি। উল্লেখ্য এরআগে চুয়ামল্লিকপাড়া রেজওয়ানুল উলুম আলিম মাদ্রাসা চত্বর থেকে সাফিউল ইসলাম ৪টি বড় বড় মেহগনি গাছসহ মাদ্রাসা চত্বরের বাঁশ বাগান থেকে কয়েকশত বাঁশ কেটে নিয়েছে। এছাড়াও সে ওই মাদ্রাসার আসবাবপত্রও রাতের আধাঁরে চুরি বিক্রয় করে সমুদয় অর্থ আত্মসাত করেছে বলে মাদ্রাসা সংশ্লিষ্টগণ নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন। একই সাথে মাদ্রাসা চত্বরে মাদক সেবনের আস্তানাও গড়ে তুলে সেখানে সাফিউল ইসলাম গংরা নিয়মিত মাদক সেবন করে থাকে বলেও তারা জানিয়েছে। এনিয়ে দৌলতপুর উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচিত হলেও অদ্যাবধি কোন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ না হওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে তীব্র ক্ষোভ ও সংশয় বিরাজ করছে।

কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির নতুন কমিটিকে যুবদলের অভিনন্দন

দীর্ঘদিন পর হলেও সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী ও অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিনের নেতৃত্বে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির একটি সুন্দর কমিটি উপহার দেওয়ায় বিএনপির কেন্দ্রিয় কমিটি ও  জেলা বিএনপির নতুন কমিটিকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল কুষ্টিয়া জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মেজবাউর রহমান পিন্টু, সহ-সভাপতি মীর আল আরেফিন বাবু, সহ-সভাপতি এ্যাডঃ শাতীল মাহমুদ, সহ-সভাপতি ওহিদুল ইসলাম (সাবু), সহ-সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দোহা লাল্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম বিপ্লব, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সবুজ। এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ নতুন কমিটির  নেতারা স্বৈরাচারী সরকার বিরোধী আন্দোলনে জোরালো ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

চলন্ত বাসে ধর্ষণ

জবানবন্দিতে যা বললো ড্রাইভার নুরু

ঢাকা অফিস ॥ কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে নার্স শাহীনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করেছে মামলার প্রধান আসামি স্বর্ণলতা বাসের ড্রাইভার নূরুজ্জামান নুরু। গত শনিবার রাতে তাকে আদালতে হাজির করলে সে তানিয়াকে ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়। গতকাল রোববার ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আবদুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। আদালত সূত্রে জানা যায়, ‘ড্রাইভার নূরুজ্জামান ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে জানিয়েছে, তার খালাতো ভাই বোরহান পথের মধ্যে বাসটিতে ওঠে। দ্বিতীয় সিটে বসা ছিল তানিয়া। হেলপার লালন এ সময় টেনেহেঁচড়ে বাসের মাঝখানে নিয়ে যায় তানিয়াকে। কিছুক্ষণ পর হেলপার লালন বাস চালায়। আর ড্রাইভার পেছনের সিটে বসে সিগারেট খেতে থাকে। বোরহান মেয়েটিকে ধরে জোরপূর্বক বাসের মেঝেতে ফেলে ধর্ষণ করতে থাকে। এ সময় মেয়েটি নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করে। ড্রাইভার বাসের সিটে বসে এ দৃশ্য দেখছিল। এরপর ড্রাইভার নুরু ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে গাড়িটি একটি কলাবাগানের সামনে থামানো হয়। সেখানে লালন মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এ সময় তানিয়া লালনকে লাথি মেরে ফেলে দেয়। পরে ওরা তিনজন মিলে বাস থেকে জোরে ধাক্কা দিলে তানিয়া নিচে পড়ে যায়। পড়ে যাওয়ার সময় বাসের সঙ্গে মাথায় বাড়ি খায় মেয়েটি। পরে নিচে পড়েও মাথায় আঘাত পায় সে।’ ধর্ষণের পর তানিয়াকে বাস থেকে ফেলে দেওয়ার পর ধর্ষকরা নিজেরাই আবার ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে মেয়েটিকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রাও এগিয়ে আসে। কিন্তু ধর্ষকরা স্থানীয়দের জানিয়েছিল, এয়ারফোনে গান শুনতে শুনতে মেয়েটি বাস থেকে পড়ে গেছে, আমরাই হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি। তাদের কথা বিশ্বাসও করেছিল স্থানীয়রা। পরে অচেতন অবস্থায় তানিয়াকে পিরিজপুর বাজারের সততা ফার্মেসিতে নিয়ে যাওয়া হয়। ফার্মেসি থেকে মেয়েটিকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়ার কথা বললে স্বর্ণলতা বাসের অপর স্টাফ আল আমিন ও রফিককে দিয়ে কটিয়াদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায় তারা। এরপর তানিয়াকে নিয়ে হাসপাতালে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনার বর্ণনা দেয় ড্রাইভার ও হেলপার। হাসপাতালের আশপাশ থেকে রফিককে গ্রেফতার করলে পালিয়ে যায় আল আমিন। প্রসঙ্গত, শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরের পিরিজপুর রুটে চলাচলকারী স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে গত ৬ মে তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। বাজিতপুর উপজেলার গজারিয়ায় কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে। ওই দিন ঢাকা থেকে কটিয়াদী ও বাজিতপুরের পিরিজপুর হয়ে নিজ গ্রামে ফিরছিলেন তানিয়া। তিনি কটিয়াদী উপজেলার লোহাজুরি ইউনিয়নের বাহেরচর গ্রামের মো. গিয়াসউদ্দিনের মেয়ে। তানিয়া ঢাকার কল্যাণপুরে ইবনে সিনা হাসপাতালে সেবিকা পদে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় বাসের চালক নূরুজ্জামান নুরু (৩৯) ও সহকারী লালন মিয়াসহ (৩২) মোট পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সভাপতি অল্ডাম  ॥ সম্পাদক কানন 

গাংনী উপজেলা প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা প্রেসক্লাবের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে গাংনী উপজেলা অডিটোরিয়ামে নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা হয়েছ্।ে সিনিয়র সাংবাদিক দৈনিক ইত্তেফাক সংবাদদাতা আমিরুল ইসলাম অল্ডামকে সভাপতি ও দৈনিক বাংলা নিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কমের মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধি  জুলফিকার আলী কাননকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে দৈনিক নয়াদিগন্ত প্রতিনিধি প্রভাষক হারুন অর রশিদ রবিকে প্রধান উপদেষ্টা করা হয়। কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন, এম.নুরুজ্জামান পাভেল, সহ-সভাপতি আবুল কাশেম অনুরাগী, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মিনারুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক লিটন মাহমুদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল্লাহ গালিব, অর্থ সম্পাদক শাহীনুজ্জামান, দপ্তর সম্পাদক জাহিদ হোসেন, প্রচার সম্পাদক  রাকিব, একইভাবে নির্বাহী সদস্য হিসাবে আছেন, এমএ লিংকন, সাহাজুল ইসলাম সাজু, নাসিরউদ্দীন, বদরুজ্জামান ছাড়াও সাধারণ সদস্য তালিকাভূক্ত করা হয় । এদিকে কমিটির  সকল সদস্যবৃন্দকে অভিনন্দন জানিয়েছেন, মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন, গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি সিরাজুল ইসলাম স্যারসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক  নেতৃবৃন্দ।

খাদ্যে ভেজালকারীরা দেশ ও মানবতার শক্র – খাদ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার খাদ্যে ভেজালকারীদের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে বলেছেন, যারা খাবারে ভেজাল দেয় তারা সমাজের শক্র, মানবতার শক্র। তিনি বলেন, ‘শুধু রমজান মাসেই নয়, আমরা চাই ১২ মাসই জনগণ নিরাপদ খাদ্য খাবে।’

গতকাল সকালে বাংলাদেশ সচিবালয়স্থ ২ নং গেটের সম্মূখে অনুষ্ঠিত “পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সুসজ্জিত মোবাইল ভ্যানের মাধ্যমে ঢাকা মহানগরীতে প্রচার-প্রচারণার শুভ উদ্বোধন” শেষে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, খাদ্যে ভেজালের বিষয়ে সবার মধ্যে আরও সচেতনতা বৃদ্ধি করা জরুরী। খাদ্যে ভেজালকারীদের বিরুদ্ধে সবাই মিলে একযোগে, এক হয়ে কাজ করে এটিকে সামাজিক আন্দোলনে রূপান্তরিত করতে হবে। তিনি বলেন, আতঙ্কিত না হয়ে ভেজাল প্রতিরোধে নিজেরা যদি আরও সোচ্চার হয় তাহলে ভেজালমুক্ত নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা সম্ভব। পবিত্র রমজান মাসে ভেজাল বিরোধী অভিযানে নিয়মিতভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হচ্ছে জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনে মোবাইল কোর্টের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। প্রচলিত আইনে শাস্তির যে বিধান রয়েছে দরকার হলে আইন সংশোধন করে শাস্তির মাত্রা বৃদ্ধি করা হবে। মন্ত্রী ভেজালমুক্ত খাবার নিশ্চিতকরণে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে সকলের প্রতি আহবান জানান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মাহফুযুল হক ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব একে আজাদ।

গাংনীতে বিশ্ব ‘মা’ দিবস পালিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিশ্ব ‘মা’ দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে  র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল রোববার সকাল ১০টার সময় গাংনী উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের আয়োজনে ‘মা’ দিবস উদযাপিত হয়। আয়োজনের প্রথমে ব্যানার সম্বলিত একটি র‌্যালি গাংনী শহর প্রদক্ষিণ করে। এ সময় প্রধান অতিথি হিসাবে র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খোকন। পরে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন গাংনী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসিমা খাতুন। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খোকন। সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম অল্ডামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন,গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল, মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাসার। বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান, জেলা আ.লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নুরজাহান বেগম, বিশিষ্ট আ.লীগ নেতা হাজী মহাম্মদ মহসিন আলী, মনিরুজ্জামান আতু, নাজমূল হুদা বিশ্বাস, গাংনী উপজেলা সমবায় অফিসার মিলন কুমার দাশ প্রমুখ। আলোচনা অনুষ্ঠানে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের বিভিন্ন ট্রেডের শতাধিক প্রশিক্ষণার্থী  উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে ব্যবসায়ী বিশ্বনাথ সাহা বিশুর অভিনন্দন

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে নির্বাচিত গাজী মাহাবুব রহমান-আনিসুজ্জামান ডাবলু পরিষদের সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও বড় বাজার মন্দির কমিটির সভাপতি, সমাজসেবক বিশ্বনাথ সাহা বিশু। এই পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক প্রার্থী দৈনিক সময়ের কাগজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নূরুন্নবী বাবু সর্বোচ্চ ভোটে নির্বাচিত হওয়ায় তাকে বিশেষভাবে অভিনন্দন জানিয়ে বাবু বিশ্বনাথ সাহা  বিশু। তিনি আশা পপ্রকাশ করেছেন যে, তরুণ সাংবাদিক নেতা বাবুকে যে প্রত্যাশা নিয়ে সাংবাদিকগণ (ভোটারগণ) সর্বোচ্চ  ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন সেই প্রত্যাশা পূরণে তিনি সক্ষম হবে বলে আমি আশাবাদী। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়া জেলা আইনশৃংখলা কমিটির সভায় ডিসি আসলাম হোসেন

মাদক ও সন্ত্রাস দমনে নিজেদের দায়িত্ববোধ বাড়াতে হবে

আরিফ মেহমুদ ॥ কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেছেন, মাদকদ্রব্য পরিবার, দেশ তথা রাষ্ট্রে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরী করছে। আগামীর নেতৃত্বদানকারী আজকের প্রজন্মকে মাদকের ছোয়া থেকে বাইরে রাখতে বেশি বেশি করে সচেতন হতে হবে। জেলাকে মাদকের ভয়াবহতা মুক্ত করতে নিজেদের দায়িত্ববোধ থেকেই মাদকের মুল উৎপাটন ও জঙ্গী হামলাসহ সন্ত্রাস দমন করতে হবে। এলাকায় কোন অপরিচিতি কিংবা সন্দেহভাজন কাউকে দেখলেই আপনার নিকটস্থ পুলিশ প্রশাসনকে খবর দিন। সচেতনতায় বড় ধরনের বিপদ থেকে রক্ষা করতে পারে। কোন বহনকারীকে সাজা দেয়ার আগে তার তথ্য মতে মাদকের নাটের গুরু গডফাদারকে আইনের আওতায় আনা হবে। সে যে দলেরই হোক না কেন। জেলায় মাদকের ব্যবহার কমাতে মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর সহ আইনশংখলা বাহিনী নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তাদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসতে হবে।

গতকাল রবিবার সকালে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে  জেলা আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, মাদক নির্মুলে ও বাজার দর নিয়ন্ত্রণে যে মোবাইল কোর্টসহ অভিযান চলছে, তা আগের মতই চলবে। এক্ষেত্রে আইনের প্রয়োগ যেন যথার্থই হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে মোবাইল কোটি পরিচালনা করতে হবে। এতে কিছু মানুষ ক্ষুদ্ধ হলেও অভিযুক্তকে তাৎক্ষনিক সাজা প্রদান করায় দেশের অধিকাংশ মানুষই এই মোবাইল কোর্টকে গ্রহন করেছেন। তিনি ইউএনও এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দ্যেশে বলেন, মনে রাখতে হবে অভিযান চলাকালিন সময়ে নানান পরিচয় দিয়ে তোমাকে যেন তার পক্ষে ব্যবহার করতে না পারে। তিনি জেলায় কোন বড় ধরনের অঘটন ছাড়ায় জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ায় জেলাবাসীসহ নির্বাচনের নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ, বিজিবি আনসারসহ সকল প্রশাসনের কর্মকর্তাগণকে অভিনন্দন জানান।

সভার সদস্যদের বিভিন্ন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, রমজানে সিন্ডিকেট করে নিত্য প্রয়োজনীয় যে কোন পন্যের দাম বাড়িয়ে বাজারকে অস্থিতিশীল করে তুলবেন এটা মেনে নেয়া হবে না। প্রয়োজনে সরেজমিন ঘুরে তদন্ত টিম গঠন করে বাজার দর নিয়ন্ত্রণ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। অধিক মুনাফার লোভে যারা এসব করছেন প্রমান পেলেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। শহরের আবাসিক এলাকায় গ্যাস সিলিন্ডার গোডাউনে মজুদ রাখা এবং বিক্রি করা দুটোই বিপদজ্জনক। যে কোন সময় বিস্ফোরণ হয়ে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের জীবন নাশের ঘটনা। এধরনের দাহ্রদ্রব্য বেচা-বিক্রি বন্ধে প্রয়োজনে ভ্রাম্যমান অভিযান চালানো হবে।  তিনি বলেন, জনজীবনে দূর্ভোগ সৃষ্টি করে কোন বিশৃংখলা করতে দেয়া হবে না। দূর্ভোগ সৃষ্টিকারীদের কঠোরহস্তে দমন করা হবে। জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর পাশাপাশি আপনাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর একার পক্ষে গোটা জেলাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা সম্ভব নয়। কোনভাবেই জেলায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে দেয়া হবে না।

সভায় কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভির আরাফাত বলেন, জেলাকে মাদকের ভয়াবহতা মুক্ত করতে নাটের গুরু গডফাদারকে আইনের আওতায় আনা হবে। কিন্তু মাদকের চেয়ে বর্তমানে জেলায় ভয়াবহ রূপ নিয়েছে নারী নির্যাতন। নির্যাতনের এক পর্যায়ে হত্যার মত অপরাধ ঘটে যাচ্ছে। বিভিন্ন চাপের মুখে এসব হত্যাকে এলাকায় আত্মহত্যা বলে চালিয়ে মিমাংশা করে নিচ্ছে। পক্ষান্তরে ঘটনা কিন্তু থেকে থাকছে না। নারী নির্যাতন বন্ধে এবং সচেতনতা বৃদ্ধিতে তৃণমুল পর্যায়ে উঠান বৈঠকসহ অভিভাবক বৈঠক করতে হবে। এতেও যদি বন্ধ না হয় তাহলে আইনের সর্বচ্চ প্রয়োগ করা হবে। বিগত মাসের প্রতিবেদন তুলে ধরে তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফুন নাহার। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভিন আরাফাত, জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা, বিজিবি’র অধিনায়ক ল্যাঃ কর্ণেল রফিকুল ইনলাম, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান খান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, কুষ্টিয়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান মজনু, পিপি এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী, জেলা জাসদের সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম মহসিন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, কুমারখালি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খান, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ, মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহমেদ, জেল সুপার জাকের হোসেন, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এ জেড এম শফিউল হান্নান, কুষ্টিয়া জিলা স্কুলে প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম, ওজোপাডিকোর নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান, বিআরটিএ’র ইন্সপেক্টর ওমর ফারুক, বিএফএ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ, বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোকারম হোসেন মোয়াজ্জেম, ইসলামীয়া কলেজের অধ্যক্ষ নওয়াব আলী, পল্লী বিদ্যুতের জিএম হারুন-অর-রশিদ, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহেদুল হক, জেলা তথ্য কর্মকর্তা তৌহিদুজ্জামান, জেলা শিশু কর্মকর্তা মখলেছুর রহমান বাজার মনিটরিং অফিসার রবিউল ইসলাম প্রমুখ। সভায় এছাড়াও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগ বজায় রাখা, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত টহল অব্যাহত রাখা, পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার চুরি প্রতিরোধ, ইভটিজিং, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজে বহিরাগতদের উপদ্রব বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহন, যৌন হয়রানী এবং চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা প্রতিরোধ, অবৈধ যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ, মানব পাচার রোধ, বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়, ফরমালিন সনাক্তকরণে ফলের স্যাম্পল সংগ্রহকরণ ইত্যাদি বিষয়ে বিশদ আলোচনা করা হয়।

সাগর-রুনি হত্যা

ফের পেছাল প্রতিবেদনের তারিখ

ঢাকা অফিস ॥ সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহরুন রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ আরেক দফা পিছিয়ে গেছে। গতকাল রোববার আদালতে এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমার দিন ছিল। কিন্তু প্রতিবেদন না আসায় ঢাকার মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস আগামি ২৬ জুন নতুন রিখ রাখেন। মামলার নথিপত্রে দেখা গেছে, এ নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমার তারিখ জন্য ষাটবারের বেশি তারিখ পড়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের এএসপি মো. শহিদার রহমান ২০১২ সালের ১১ ফেব্র“য়ারি রাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের ভাড়া বাসায় খুন হন মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং তার স্ত্রী এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মেহেরুন রুনি। দুজনকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। ওই রাতে তারা ছাড়া ঘরে ছিল তাদের একমাত্র শিশুসন্তান। হত্যাকান্ডের পর রুনির ভাই মো. নওশের আলম রোমানের করা মামলাটি প্রথমে তদন্ত করেন শেরেবাংলা নগর থানার এসআই জহুরুল ইসলাম। তার কাছ থেকে তদন্তের দায়িত্ব গিয়েছিল ডিবির পরিদর্শক রবিউল আলমের কাছে। ৬২ দিন পর ডিবি আদালতের কাছে ব্যর্থতা স্বীকার করলে ২০১২ সালের এপ্রিলে তদন্তের দায়িত্বে আসে র‌্যাব। এরপর র‌্যাবের কয়েকজন কর্মকর্তার হাত ঘুরে তদন্তভার আসে এএসপি শহিদারের কাছে। মামলাটিতে গ্রেপ্তার হয়ে এখন কারাগারে রয়েছেন ওই বাড়ির নিরাপত্তা রক্ষী এনাম আহমেদ ওরফে হুমায়ুন কবির, রফিকুল ইসলাম, বকুল মিয়া, মিন্টু ওরফে বারগিরা মিন্টু ওরফে মাসুম মিন্টু, কামরুল হাসান অরুণ ও আবু সাঈদ। রুনির কথিত বন্ধু তানভীর রহমান ও বাড়ির দারোয়ান পলাশ রুদ্র পাল জামিনে বাইরে রয়েছেন।

দাবদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন

বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হতে পারে আজ

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন রাজু ভাস্কর্য়ের সামনের রাস্তা এক্কেবারে ফাঁকা। প্রচন্ড রোদের কারণে যান চলাচল নেই বললেই চলে। শিক্ষার্থীদের পদচারণায় সদামুখরিত টিএসসির ক্যান্টিন চত্বরটিতেও হাতে গোনা কয়েকজন শিক্ষার্থী গাছের ছায়ায় বসে আছেন। পাশেই বেলি ফুলের মালায় সুতা গাঁথছেন এক নারী। রোকেয়া হলের সামনে এক ভ্যানচালককে ঘর্মাক্ত দেহে গন্তব্যে ছুটতে দেখা যায়। ক্লান্ত দেহে বেশ কয়েকজন রিকশাচালককে বিশ্রাম নিতে দেখা যায়। সামনে এগুতেই জহুরুল হক হল গেট থেকে নীলক্ষেত পর্যন্ত তীব্র যানজট দেখা যায়। এ দৃশ্যপট গতকাল দুপুর ১২টার। রাজধানীর একদিকে রাস্তাঘাট ফাঁকা থাকলেও শপিং মল, বিপণিবিতানসহ বিভিন্ন ব্যস্ততম রাস্তায় প্রচন্ড যানজটের বিপরীত দৃশ্যে দেখা যায়। রাজধানীসহ সারাদেশে প্রচন্ড দাবদাহের কারণে বিভিন্ন বয়সী লাখ লাখ নারী, পুরুষ ও শিশুরা ঘরে-বাইরে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। সবার মুখে একটাই প্রশ্ন এত গরম কেন? গরম কমবে কখন, বৃষ্টি নামবে কি? আবহাওয়া অধিদফতরের কর্মকর্তারা বলছেন, গতকাল রোববার থেকে তাপমাত্রা কমবে। আজ সোমবার নাগাদ রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত হতে পারে। অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, গতকাল দুপুর ১২টায় ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে বেলা যত গড়াবে তাপমাত্রা তত বাড়বে বলে মন্তব্য করেছেন আবহাওয়াবিদরা। বেলা ১টা থেকে পরবর্তী ছয় ঘণ্টা রাজধানী ঢাকার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, আকাশ আংশিক মেঘলা থাকতে পারে। দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৮ থেকে ১২ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে। দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। দুপুর ১২টায় বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৫২ শতাংশ। গতকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে গতকাল সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছুকিছু জায়গায় এবং ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এদিকে টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, নোয়াখালী, রাজশাহী ও পাবনা অঞ্চলসহ খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং কিছু কিছু জায়গায় তা প্রশমিত হতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা ২/১ডিগ্রি হ্রাস পেতে পারে। গত শনিবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রাজশাহীতে ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। গতকাল সরেজমিন রাজধানীর ধানমন্ডি, লালবাগ ও রমনা এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, প্রচন্ড গরমের কারণে কিছুকিছু রাস্তায় মানুষের উপস্থিতি অপেক্ষাকৃত কম। প্রয়োজন ছাড়া অনেকেই ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না। অনেকেই ছাতা মাথায় বের হলেও তবুও গরমে ঘামছেন। তবে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবী মানুষ। দিন আনে দিন খায় এ মানুষগুলো গরমের মধ্যেও হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করছেন। ট্রাফিক পুলিশকে রোদে দাঁড়িয়ে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে রীতিমতো হাঁপিয়ে উঠতে দেখা যায়। এ ছাড়া কোথাও কোথাও ট্রাফিক পুলিশকে ক্লান্ত হয়ে বিশ্রাম নিতে দেখা যায়। কোন কোন সড়কে প্রচ- যানজটে যানবাহনকে ঠাঁই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। পাবলিক ট্রান্সপোর্টে প্রচন্ড ভিড়ের কারণে যাত্রীদের ঘামে ভিজতে দেখা যায়।

২০ দলের বৈঠক আজ আন্দালিব পার্থকেও আমন্ত্রণ

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের বৈঠক ডাকা হয়েছে। এতে সদ্য জোট ছাড়ার ঘোষণা দেওয়া বিজেপির সভাপতি ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ২০ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান ও বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান এনটিভি অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গতকাল রোববার দুপুরে এই দুই নেতা বলেন, সোমবার বিকেল ৪টায় ২০ দলীয় জোটের বৈঠক ডাকা হয়েছে। গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এই বৈঠক হবে। জোটের শরিকদের সঙ্গে চলমান সংকট নিরসনে এই বৈঠক ডাকা হয়েছে বলেও ইঙ্গিত দেন জোটের দুই নেতা। অপরদিকে বিএনপির একটি সূত্র জানায়, জোটের শরিকদের ক্ষোভ প্রশমনে এই বৈঠক ডাকা হয়েছে। বৈঠকে ২০ দলীয় জোট থেকে সম্প্রতি বেরিয়ে যাওয়া বিজেপির সভাপতি ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পার্থ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘২০ দলীয় জোটের বৈঠকে আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় থেকে ফোন দেওয়া হয়েছে। তবে আমি ওই বৈঠকে অংশগ্রহণ করব না।’ বিএনপি থেকে নির্বাচিত পাঁচ সংসদ সদস্যের শপথ গ্রহণ, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ২০ দলীয় জোট থেকে বিজেপির বেরিয়ে যাওয়াসহ অন্যান্য প্রবণতার মধ্যে আজ জোটের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর এটি ২০ দলীয় জোটের দ্বিতীয় বৈঠক।

কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনকের ইফতার ও দোয়া মাহফিল ও নতুন কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠান

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ গত ১১ মে নিউইর্য়কের জেকশন হাইটস হাটবাজার পার্টি হলে কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনকের ইফতার দোয়া মাহফিল ও নতুন কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠান সম্পুর্ন হলো । অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনকের সভাপতি আবু মুসা, অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান ও সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম ও উপদেষ্টা আহসান দুলাল। অনুষ্ঠান শুরুতেই কোরআন তেলোয়াত করেন মাওলানা জোবাইর রহমান। এরপর প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিদের আসন গ্রহণ করেন । আমাদের মাঝে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ এন মজুমদার ( মাষ্টার্স অব ল), বিশেষ অতিথি ও মিডিয়া পার্টনার হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মিলেনিয়াম টিভির কর্ণধার নূর মোহাম্মদ ভাই, প্রধান উপদেষ্টা মাহাবুব জোয়ার্দার, আব্দুস সাত্তার, নুরুজ্জামান বিশ্বাস (সভাপতি স্বেচ্ছাসেবকলীগ যুক্তরাষ্ট্র), সাখাওয়াত  হোসেন, যশোর জেলা সমিতির সাধারন সম্পাদক  বাদল ভাই, বাংলাদেশ সোসাইটির ডালিম ভাই, উপদেষ্টা আব্দুর রহমান ভাই, সাজেজুল ইসলাম সুজন ভাই, মতিউর রহমান, আবুতালেব, মাহাবুব আলম চাঁদ, মিলু ভাইসহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সমিতির সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি রাশেদুল আলম , সহ-সভাপতি কাজী পারভেজ বাবু , সাইদুর রহমান, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আম্বিয়া অন্তরা, প্রচার সম্পাদক আশিক রহমান, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবদুল¬াহ যোবায়ের, আসাদুজ্জামান বাবু , মো: তয়িবুর রহমান, মো: ইসলাম সহ কুষ্টিয়া জেলা সমিতির সকল সদস্য ও পরিবারবর্গ।  স্বাগত বক্তব্য রাখেন আহ্বায়ক আশরাফুল আলম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রধান সমন্বয়কারী ও উপদেষ্টা মো আহসান  দুলাল, সমিতির সভাপতি আবু মুসা, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান ও সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন । এছাড়া সংক্ষিপ্ত  বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি মোহাম্মদ এন মজুমদার, প্রধান উপদেষ্টা মাহাবুব জোয়ার্দার, আব্দুস সাত্তার। নতুন কমিটির পরিচিতি করে দেন সমিতির সম্মানিত উপদেষ্টা মোঃ আহসান দুলাল। ইফতারের আগ মুহুর্তে মাওলানা যোবাইর রহমান কুষ্টিয়াবাসীসহ সকলের জন্য দোয়া করেন। দোয়াতে অংশগ্রহণ করেন উপস্থিত সকলেই।  দোয়া শেষে ইফতার ও রাতের খাবার পরিবেশন করা হয়। পরিশেষে সভাপতি সকলকে ধন্যবাদ দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দেশে ফিরছেন বুধবার

ঢাকা অফিস ॥ সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বুধবার দেশে ফিরছেন। ওইদিন সন্ধ্যা ৬টায় বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ওবায়দুল কাদেরের পৌঁছার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সেতু বিভাগের তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ।  শেখ ওয়ালিদ আরও জানা গেছে, অস্ত্রোপচারের ধকল সামলে ওঠার পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এখন পুরোটাই সুস্থ। এ অবস্থায় চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী তার দেশে ফেরার সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। ওবায়দুল কাদের দেশে এসে আগামি ২৫ মে দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘২৫ মে দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ওবায়দুল কাদের থাকবেন এমন আশা আমরা করছি। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ভয়াবহ যানজট নিরসনে এই সেতু দুটি বড় ভূমিকা রাখবে এমন আশা বারবার ব্যক্ত করেছিলেন ওবায়দুল কাদের। তিনি দেশে থাকাবস্থায় বহুবার সরেজমিনে সেতুর নির্মাণকাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে যান।’ বাইপাস সার্জারির পর সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল থেকে ওবায়দুল কাদের গত ৫ এপ্রিল ছাড়পত্র পান। তিনি হাসপাতালের কাছেই একটি ভাড়া নেওয়া অ্যাপার্টমেন্টে থাকছেন। এখান থেকেই নিয়মিত তার চিকিৎসক ডা. ফিলিপ কোহের চেম্বারে চেকআপের জন্য যাতায়াত করছেন। ২০ মার্চ মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ওবায়দুল কাদেরের বাইপাস সার্জারি হয়। গত ৩ মার্চ সকালে বুকে প্রচ- ব্যথা নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। পরে উপমহাদেশের বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠির পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ তাকে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়। সেখানে ২০ মার্চ ওই হাসপাতালে তার বাইপাস সার্জারি করেন মেডিকেল বোর্ডের সিনিয়র সদস্য কার্ডিওথোরাসিক সার্জন ডা. সিবাস্টিন কুমার সামি। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে গত ২৬ মার্চ ওবায়দুল কাদেরকে হাসপাতালের আইসিইউ থেকে কেবিনে নেওয়া হয়। সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে রয়েছেন তার সহধর্মিণী ইসরাতুন্নেসা কাদের, এপিএস মহিদুল হক, সেতু বিভাগের তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফাইয়াজ, ব্যক্তিগত কর্মকর্তা সুখেন চাকমা, ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফার মনসুরুল আলমসহ ঘনিষ্ঠ কয়েকজন।

উন্নয়নের আড়ালে রক্তোৎসব চলছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী সরকারের উন্নয়নের আড়ালে সারা দেশে রক্তোৎসব চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। রিজভী বলেন, মানুষের চোখের পানিতে বাংলাদেশের মাটি আজ কর্দমাক্ত, আর সেই কাদামাটিতে শেখ হাসিনার উন্নয়নের রথ আটকে গেছে। তিনি বলেন, আওয়ামী উন্নয়নের জিকিরে জনমনকে বিভ্রান্ত করা যায়নি। কারণ আওয়ামী উন্নয়নের আড়ালে যে রক্তোৎসব চলছে, তাতে সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত। ‘জনগণের সব অধিকার কেড়ে নেয়া রাজনৈতিক দল হচ্ছে আওয়ামী লীগ। এটি এখন মাফিয়াদের দলে পরিণত হয়েছে। গুম-খুন-অপহরণই হচ্ছে এদের বাণিজ্য। বিএনপির এ নেতা বলেন, বর্তমান সরকার জনগণের কাছে জবাবদিহিকে ঘৃণা করে। এ কারণেই নুসরাত, শাহীনুর, তনু, মিতুর মতো অসংখ্য নারী-কিশোরী প্রতিনিয়ত হত্যার বলি হচ্ছে। এ ম্যান্ডেটহীন সরকারের কারণেই অসংখ্য মানুষের কান্না ও দীর্ঘশ্বাসে বাংলাদেশের বাতাস ভারী হয়ে আছে। তিনি আরও বলেন, দেশের একজন বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবী বলেছেন- দেশজুড়ে উন্নতির অন্তরালে আর্তনাদ চলছে। তিনি বলেছেন, এ রকম দুরাবস্থা বাংলাদেশে আর কখনও দেখা যায়নি। আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, এ দলটি এমনই পাপহারা দল, যেখানে নিজেদের লোকেরা পাপ করার পরেও তা মোচন হয়ে যায়। আওয়ামী লীগ কখনই গণতন্ত্রের অনুশীলনের কোনো ঐতিহ্য সৃষ্টি করতে দেয়নি। তারা একদলীয় মানসিকতা থেকে কখনও বের হতে পারেনি।

একাদশে ভর্তি শুরু, লাগবে অভিভাবকের এনআইডি নম্বর

ঢাকা অফিস ॥ দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল গতকাল রোববার দুপুরে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড মিলনায়তনে অনলাইনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। তিনি বলেন, কেউ যেন ‘প্রতারণার’ আশ্রয় নিতে না পারে সেজন্য এবার একাদশের ভর্তি প্রক্রিয়ায় ‘অনেক পরিবর্তন’ আনা হয়েছে। “প্রথমবারের মত অভিভাবকের ন্যাশনাল আইডি কার্ডের নম্বর বাধ্যতামূলক করেছি। এরপরও যদি কেউ প্রতারণা করে, তাহলে তাকে দমন করার জন্য আমরা কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।” আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক জানান, পাসের হারের ওপর ভিত্তি করে কলেজগুলোকে এবার তিনটি শ্রেণিতে ভাগ করা হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠানে পাসের হার ৭০ শতাংশ, সেগুলোকে ‘এ’ শ্রেণি, ৫০-৭০ শতাংশ পাসের হার প্রতিষ্ঠানকে ‘বি’ শ্রেণি এবং যেসব প্রতিষ্ঠানের পাসের হার ৫০ শতাংশের কম সেগুলোকে ‘সি’ শ্রেণিতে রাখা হয়েছে। ফলে একজন শিক্ষার্থী আবেদন করার সময় জানতে পারবে, তার পছন্দের কলেজটি কোন শ্রেণিতে পড়েছে। এসএসসির ফলাফলের ভিত্তিতে তার ওই কলেজে ভর্তি হওয়ার সযোগ কতটা, সেই ধারণাও সে পাবে।  ভর্তি অনলাইনে গত কয়েক বছরের মত এবারও মাধ্যমিকের ফলাফলের ভিত্তিতে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। আটটি সাধারণ বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ড থেকে ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে মাধ্যমিক উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন। আর উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৬, ২০১৭ ও ২০১৮ সালে উত্তীর্ণরা একাদশে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন। উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভতির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়স হবে ২২ বছর।   সময় সূচি ঃ-  ভর্তির আবেদন করা যাবে আগামী ২৩ মে পর্যন্ত। যারা এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করেছেন, তাদেরকেও ওই সময়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে। ২৪ থেকে ২৬ মের মধ্যে শিক্ষার্থীদের আবেদন যাচাই-বাছাই ও আপত্তি নিষ্পত্তি করা হবে। পুনঃনিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে তারা ৩ থেকে ৪ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন। পছন্দক্রম পরিবর্তন করা যাবে ৫ জুন থেকে। ১০ জুন প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে। প্রথম তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ১১ থেকে ১৮ জুনের মধ্যে এসএমএস করে নিশ্চিত করতে হবে, যে কলেজের তালিকায় তার নাম এসেছে, সেই কলেজেই তিনি ভর্তি হবেন। এরপর ২১ জুন দ্বিতীয় পর্যায়েন এবং ২৫ জুন তৃতীয় পর্যায়ের ফল প্রকাশ করা হবে। দ্বিতীয় পর্যায়ের তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা ২২-২৩ জুন এবং তৃতীয় পর্যায়ের তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা ২৬ জুন কলেজ সিলেকশন নিশ্চিত করবেন। ২৭ থেকে ৩০ জুন শিক্ষার্থী ভর্তি শেষে আগামী ১ জুলাই কলেজগুলোতে একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরুর সময়সূচি ঠিক করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আবেদনে খরচ কত? ঃ- অনলাইনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করতে ফি দিতে হবে ১৫০ টাকা। টেলিটক/বিকাশ/শিওরক্যাশ/গ্রামীণফোন-এর মাধ্যমে এই টাকা জমা দিয়ে আবেদন করতে হবে অনলাইনে। আবেদনে একজন শিক্ষার্থী সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজের পছন্দক্রম ঠিক করে দিতে পারবেন। এসএমএসের মাধ্যমে আবেদনের ক্ষেত্রে ফি হবে প্রতি কলেজের জন্য ১২০ টাকা। একজন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে আবেদন করতে পারবেন। এসএমএসে আবেদন করা যাবে কেবল টেলিটক মোবাইল থেকে। কীভাবে ভর্তি ঃ- একজন শিক্ষার্থী যতগুলো কলেজে আবেদন করুক না কেন, এসএসসির ফলাফল এবং পছন্দক্রমের ভিত্তিতে তার ভর্তির জন্য একটি কলেজ নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। কলেজ ভর্তি নীতিমালায় বলা হয়েছে, বিভাগীয় এবং জেলা সদরের কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কলেজের শতভাগ আসন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। শিক্ষার্থী ভর্তি হবে মেধার ভিত্তিতে। মেধার ভিত্তিতে ভর্তির পরে যদি বিশেষ অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত কোনো আবেদনকারী থাকে তাহলে মোট আসনের অতিরিক্ত ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের জন্য, ৩ শতাংশ বিভাগীয় ও জেলা সদরের বাইরের শিক্ষার্থীদের জন্য, ২ শতাংশ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্ত দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী এবং স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সন্তানদের জন্য, ০.৫০ শতাংশ বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য এবং ০.৫০ শতাংশ প্রবাসীদের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত থাকবে। উপযুক্ত কোটায় যদি প্রার্থী পাওয়া ন যায় তবে ওই আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে না। মেধাক্রম বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণরা যে কোনো বিভাগে ভর্তির আবেদন করতে পারবে। মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণরা মানবিকের পাশাপাশি ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ভর্তি হতে পারবে। ব্যবসায় শিক্ষায় শিক্ষার্থীরা ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগে ভর্তি হতে পারবে। জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে সর্বমোট প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাক্রম নির্ধারণ করা হবে। বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তির ক্ষেত্রে সমান জিপিএ প্রাপ্তদের মেধাক্রম ঠিক করতে সাধারণ গণিত, উচ্চতর গণিত অথবা জীববিজ্ঞানে প্রাপ্ত গ্রেড পয়েন্ট বিবেচনায় আনা হবে। এরপরেও একই নম্বরপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তির বিষয়ে সুরাহা না এলে পর্যায়ক্রমে ইংরেজি, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়নে প্রাপ্ত নম্বর বিবেচনায় আনতে হবে। আর মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে সমান জিপিএ প্রাপ্তদের ভর্তির ক্ষেত্রে পর্যায়ক্রমে ইংরেজি, গণিত ও বাংলায় অর্জিত গ্রেড পয়েন্ট বিবেচনা করা হবে। এক বিভাগের প্রার্থী অন্য বিভাগে ভতির ক্ষেত্রে মোট গ্রেড পয়েন্ট একই হলে পর্যায়ক্রমে ইংরেজি, গণিত ও বাংলা বিষয়ে অর্জিত গ্রেড পয়েন্ট বিবেচনায় আনতে হবে। ভর্তি ফি ঃ- মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সেশনচার্জসহ সর্বসাকুল্যে এক হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় দুই হাজার টাকা এবং ঢাকা ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকার বেশি ফি নেওয়া যাবে না। ঢাকা মহানগর এলাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না। ঢাকা মহানগর এলাকায় আংশিক এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও এমপিও বর্হিভূত শিক্ষকদের বেতনভাতা দেওয়ার জন্য ভর্তির সময় মাসিক বেতন, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফি বাবদ বাংলা মাধ্যমে নয় হাজার টাকা এবং ইংরেজি মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। নীতিমালা অনুযায়ী, উন্নয়ন খাতে কোনো এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠান তিন হাজার টাকার বেশি নিতে পারবে না। সরকারি কলেজগুলো পরিপত্র অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ফি সংগ্রহ করবে। দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে সংশি¬ষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ফি যতদূর সম্ভব মওকুফ করতে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কানো শিক্ষার্থীর কাছ থেকে অনুমোদিত ফির বেশি নেওয়া যাবে না উইেমই র নীতিমালায় বলা হয়েছে, অনুমোদিত সকল ফি রশিদের মাধ্যমে গ্রহণ করতে হবে। গুচ্ছ পদ্ধতি চালু হবে বিশ্ববিদ্যালয়েও শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভোগান্তি কমাতে একাদশ শ্রেণির মত বিশ্ববিদ্যালয়েও গুচ্ছ পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল। এ নিয়ে ইউজিসির সঙ্গে বৈঠক করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ইউজিসি একটি প্রতিবেদন তৈরি করছে, সেখানে সব পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তুলে ধরা হবে। “ওই প্রতিবেদন পাওয়ার পর আমরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করব। কীভাবে এটি বাস্তবায়ন করা যায় তা আলাপ-আলোচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পদ্ধতি চালু করা হবে।” বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি প্রক্রিয়া চালু করতে মন্ত্রণালয় ‘অনেক দূর এগিয়েছে’ জানিয়ে নওফেল বলেন, “কয়েক বছরের মধ্যে আমরা সব বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করব।”