কুমারখালীতে ভোক্তা কমিটির সদস্যদের বাজার মনিটরিং

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ নিরাপদ খাদ্য নিশ্চয়তায় কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে মুরগীর বাজার মনিটরিং করলেন বীজ বিস্তার ফাউন্ডেশনের ভোক্তা কমিটির সদস্যরা। গতকাল দুপুরে কুমারখালী পৌর বাজারের জীবন্ত মুরগী বিক্রয় কেন্দ্রেগুলো পর্যবেক্ষণ করে ভোক্তা কমিটির সদস্যরা। এ সময় উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা: মুহাম্মদ নুর এ আলম সিদ্দিকী, উপজেলা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো: আরাফাত আলী, ভোক্তা কমিটির সদস্য ও নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নওশের আলী বিশ্বাস, বীজ বিস্তার ফাউন্ডেশনের প্রকল্প সমন্বয়কারী ডলি ভদ্র, ভোক্তা কমিটির সদস্য ও সাংবাদিক হাবীব চৌহান উপস্থিত ছিলেন। এ সময় জীবন্ত মুরগি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে স্বাস্থ সম্মত ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশ নিশ্চিতকরণ বিষয়ে মতবিনিময় করেন প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা। সরেজমিন বাজার পরিদর্শনে দেখা যায়, পৌর সভার অসমাপ্ত কাজের কারণে জীবন্ত মুরগির বাজারে অস্বাস্থকর পরিবেশ তৈরী হচ্ছে।

কালুখালীর  রতনদিয়া ইউপিতে ভিজিএফের চাউল বিতরণ

ফজলুল হক ॥ গতকাল বৃহস্পতিবার রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে উপজেলার ১নং রতনদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ১৫২২ জন দুঃস্থ ও দারিদ্র পরিবারের মাঝে ১৫ কেজি করে পবিত্র ঈদ উল ফিতরের ভিজিএফ এর চাউল বিতরণ করা হয়েছে। সকাল ১১ টায় ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বর থেকে এ চাউল বিতরণ উদ্বোধন করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা। চাউল বিতরণকালে রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা, উপজেলা সমবায় অফিসার মোল্লা সাইফুল ইসলাম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শরিফুল ইসলাম, রতনদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি খোন্দকার আনিছুল হক বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম জিন্নাহ, ইউপি সচিব মোঃ ইউনুস, ইউপি সদস্য আঃ লতিফ, মোহাম্মদ আলী, মাসুদ শেখ ও আনিসুর রহমান আলম সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে ভেড়ামারায় আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে  ভেড়ামারা উপজেলা ও পৌর বিএনপি’র আয়োজনে আলোচনা সভা, দোয়া ও ইফতার মাহফিল গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে সাবেক সাংসদ অধ্যাপক শহীদুল ইসলামের ভেড়ামারাস্থ বাসভবনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভেড়ামারা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি শিহাবুল ইসলাম’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া-২ (ভেড়ামারা-মিরপুর) আসনের সাবেক সাংসদ অধ্যাপক শহীদুল ইসলাম। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. তৌহিদুল ইসলাম আলম, উপজেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম বিষু, মোস্তাক আহমেদ মিন্টু, আবুল কালাম, পৌর বিএনপি’র সভাপতি আবু দাউদ, সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন ডাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ডাবলু, উপজেলা যুবদলের আহবায়ক জাহিদুল ইসলাম লাভলু, যুগ্ম আহবায়ক ও রেলবাজার বণিক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা, উপজেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রোকনুজ্জামান, সুলতান আলী সহ দলীয় নেতাকর্মীরা।

মিরপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে গেজেট প্রকাশিত মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই এ “গ” তালিকায় অর্ন্তভূক্ত করার প্রতিবাদে ভাতা বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধারা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বরে তারা এ মানববন্ধন করেন। এ সময়ে জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাংগঠনিক কমান্ডার মানিক কুমার ঘোষ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ইকবল মাসুদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কামন্ডের সাকেব কমান্ডার নজরুল করিম, সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমানসহ ভাতা বঞ্চিত মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন। এ সময়ে বক্তরা যাচাই-বাছাইয়ে “গ” তালিকাভুক্ত সম্মানীভাতা প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা অব্যাহত রাখা ও “গ” তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রত্যাহারের দাবী জানান।

সদর উপজেলার আ.লীগ নেতা পলান মন্ডলের বাড়ীতে ইফতার ও দোয়া মাহফিল

মিলন আলী ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা সমাজ সেবক আলহাজ পলান মন্ডলের বাড়ীতে ইফতার মাহফিল ও দোয়ার অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। রমজানের তাৎপর্যায়ের উপর আলোচনা করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আলহাজ মাওলানা এ কে এম এনামুল শাফি। প্রধান অতিথি ছিলেন পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি ছিলেন পাটিকাবাড়ী খানকা শরিফের পীর মুন্সি হাজী আব্দুস সাত্তার, যুবলীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিশ্বাস, সাবেক চেয়রাম্যান হাজি মসলেম প্রামানিক, ইউনিয়ন আ.লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক উজ্জল, আব্দুর রাজ্জাক মাস্টার, মোহাম্মদ আলী মাস্টার, কামরুজ্জামান ফড়িং, যুবলীগ নেতা ওয়াহেদ আলী, আজিজুল হক, ছাড়াও পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ । মুসলিম উম্মার শান্তি ও দেশের সুখ শান্তি কামনা করে ইফতারের পূর্বে বিশেষ দোয়া পরিচালনা করেন আলেমীদীন হযরত মাওলানা এ কে এম এনামুল হক শাফি সাহেব।

বামনগাড়ী মাদরাসার এতিম ছাত্রদের মাঝে ঈদ উপলক্ষে পোশাক প্রদান

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহি বামনগাড়ী দারুল উলুম কওমিয়া হাফেজিয়া এতিমখানা মাদরাসার এতিম ছাত্রদের ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে নতুন পোশাক প্রদান করেন এতিমখানার সভাপতি সাবেক মেম্বর নজরুল ইসলাম নায়েব, মাদরাসার মহতামিম মাওলানা ফরিদ উদ্দীন, সমাজ সেবক আলমডাঙ্গা বিশিষ্ট মনিরুল ইসলাম, মুফতি জাহিদুল ইসলাম, ঈদ কমিটির সেক্রেটারী আনারুল ইসলাম। বাদ ফজর মাদরাসার এতিম, অসহায় ছাত্রদের ঈদের নতুন পোশাক পরিধান করে মাদরাসা ছুটি ঘোষনা করা হয়। সভাপতি নজরুল ইসলাম বলেন প্রতি বছর মাদরাসার এতিম ছাত্রদের মাঝে নতুন পোশাক বিতরন করা হয়।

মিরপুর প্রেসক্লাবের মতবিনিময় সভা ও ইফতার মাহফিল

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর প্রেসক্লাবের উদ্যোগে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সরকারী কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক ও সুধী মহলের সাথে এক মতবিনিময় সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে প্রেসক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম। এসময় তিনি বলেন রমজান সিয়াম সাধনা ও বরকতময় মাস। কুরআন নাজিলের কারণে এ মাসের মর্যাদা ও ফজিলত অনেক বেশী। এ মাস মানুষকে আত্মসংযমের শিক্ষা দেয়। তিনি আরো বলেন সাংবাদিকরা জাতির বিবেক। তাদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে সমাজ সংস্কার সম্ভব। দেশকে এগিয়ে নিতে সাংবাদিকদের অগ্রণী ভুমিকা রাখতে হবে। প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রিমনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহমেদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন, মিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার নজরুল করিম, আফতাব উদ্দিন খান। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের ডিজিএম প্রকৌশলী এনামুল হক, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আব্দুস সালাম, চিথলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন, সাগরখালী আদর্শ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, সুলতানপুর সিদ্দিকীয়া সিনিয়র মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুল মান্নান ফারুকী, মিরপুর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়েল প্রধান শিক্ষক আনোয়ারুল ইসলাম, আমলা জাহানারা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল ইসলাম, উপজেলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম, নব্য জাতীয়করণ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিঠু, মিরপুর নতুন বাজার কমিটির সভাপতি ফেরদৌস ওয়াহেদ জোয়ার্দ্দার, মিরপুর পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মফিদুল শেখ, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম, উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম কোরবান,  প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হাজী আসাদুুর রহমান বাবু, সহ-সভাপতি কাঞ্চন কুমার, সাবেক আহ্বায়ক হুমায়ূন কবির হিমু, সাবেক অর্থ সম্পাদক সোহেল রানা, প্রচার সম্পাদক আব্দুল মজিদ জোয়ার্দ্দার, দপ্তর সম্পাদক ফিরোজ আহাম্মেদ, আমলা প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া মাসুম, সাংবাদিক জাহিদ হাসান, আব্দুস সালাম, উপজেলা শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল আলম হীরা প্রমুখ। ইফতারের পূর্বে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে  এক বিশেষ দেয়া মোনাজাত করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ঈমাম হাফেজ মাওঃ আব্দুল মতিন।

কুষ্টিয়া জেলা জাসদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ জতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার উদ্যোগের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা জাসদের সভাপতি হাজি গোলাম মহসিনের সভাপতিত্বে শহরের পালকি রেস্টুরেন্টে আয়োজিত এই ইফতার মাহফিলে জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় ইফতার পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন, কুষ্টিয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম, ডা. আছমা জাহান লিজা প্রমুখ। বক্তারা পবিত্র সিয়াম সাধনার মাসে সংযম সাধনের গুরুত্ব তুলে ধরার পাশাপাশি আসন্ন ইদুল ফিতরের অগ্রীম শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ইফতার মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক আন্দোলনের বাজার পত্রিকার সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু প্রমুখ। শেষে পবিত্র কোরান থেকে তেলওয়াতসহ দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

গাংনীতে নবজাতক হত্যাকারীরা প্রকাশ্যে ঘুরলেও পুলিশ প্রশাসন নিরব 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে নবজাতকের হত্যাকারীরা প্রকাশ্যে ঘুরলেও অজ্ঞাত কারণে পুলিশ প্রশাসনের নিরব ভূমিকায় জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। গাংনী উপজেলার ধানখোলা বাজার সংলগ্ন মুন্নাফ মিয়ার পুকুর পাড় থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। লাশ উদ্ধার হওয়ার একদিন পর ওই নব জাতকের লাশের পরিচয় মিললেও নবজাতকের মা কমেলা খাতুন ও বাবা শফিউল ইসলাম প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। শিশু হত্যার এ ঘটনা  গ্রামে সবার মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়লেও সামাজিকভাবে বা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। ফলে জনমনে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, ধানখোলা গ্রামের উত্তরপাড়ার মৃত আব্দুল আজিজ ওরফে খোকনের স্ত্রী কমেলা খাতুন তার অবৈধ মেলা-মেশার ফসল নবজাতককে সমাজের চোখকে ফাঁকি দিতে পানিতে ফেলে দেয়। কমেলা খাতুন ২ কন্যা সন্তানের জননী। কমলার স্বামী খোকন ৫ বছর আগে মারা গেলে সে বিভিন্ন সময়ে সবজি ক্ষেতে অথবা তামাক ঘরে শ্রমিকের কাজ করে দিনাতিপাত করে আসছে। বর্তমানে গোপালনগর গ্রামের তামাক ব্যবসায়ী মাসুদের আড়তে তামাক বাছাইয়ের কাজ করে। কমেলা জানায়, ঘটনা প্রকাশ করলে শফিউল আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আমার দেহ ভোগ করে আসছিল। তার কথামতো আমার কলঙ্ক ঢাকতে আমি সন্তান মেরে পানিতে ফেলে দিয়ে এসেছি। শফিউলের স্ত্রী ভানুয়ারা  জানান, আমার স্বামী আগে ঐ মহিলার কাছে যেতো। বর্তমানে আর যায়না। এদিকে এ ঘটনায় পর থেকে শফিউল ইসলাম আত্মগোপনে থাকলেও  পুলিশের তৎপরতা না থাকায় মাঝে-মাঝে সে এলাকায় ঘোরাফেরা করছে বলে এলাকাবাসি জানায়। এলাকাবাসির দাবীতে সন্তান ডেলিভারী কাজে (দাই বা ধাত্রী)কে কে ছিল পুলিশের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নিলে, তা প্রকাশ পাবে। উল্লেখ্য, সোমবার সকাল ৮টায় গাংনী উপজেলার ধানখোলা গ্রামের বাজারপাড়া সংলগ্ন মুন্নাফ মিয়ার একটি পুকুর পাড় থেকে নব জাতকের লাশটি উদ্ধার করা হয়। গাংনী থানা সূত্র জানায়, এখনো কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে  জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সেতু’র উদ্যোগে ৫শ’ দুস্থ নারী-পুরুষের মাঝে বস্ত্র বিতরণ

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সেতু’র উদ্যোগে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার হাজরাহাটী শাখা অফিস প্রাঙ্গনে হাজরাহাটী, সাতগাছী, বেলগাছী, ফকিরাবাদ, কেউপুর, বাবুইপাড়া, মশান গ্রামের ৫শ’ দুস্থ নারী-পুরুষের মধ্যে শাড়ী ও লুঙ্গি বিতরণ করা হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন সেতু’র সভাপতি মোঃ শহিদুল্লাহ শেখ, সহ-সভাপতি উজ্জ্বল কুমার দেবনাথ, সাবেক সভাপতি মোঃ ওমর আলী, সংস্থার নির্বাহী পরিচালক এম এ কাদের, কুষ্টিয়া ট্রাষ্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মোঃ আশিকুর রহমানসহ সংস্থা‘র অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন সংস্থার সভাপতি, সহসভাপতি, নির্বাহী পরিচালক প্রমুখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

জাসদ নেতা কারশেদ আলমের বাবা ইদ্রিস  আলীর ইন্তেকাল

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলা জাসদ’র প্রচার সম্পাদক, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য কারশেদ আলমের বাবা ইদ্রিস আলী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না এলাহে রাজিউন)। গতকাল সকাল ৭টার দিকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। মরহুমের ছেলে কারশেদ আলম জানান হৃদযন্ত্রের ক্রীয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার বাদ আসর তাঁর নিজ গ্রাম মিরপুর উপজেলার মহিষাখোলা গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। দাফন অনুষ্ঠানে সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের শোক

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ নেতা কারশেদ আলমের বাবা ইদ্রিস আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক শরীফ বিশ্বাস জানান বাবা পরিবারের অভিভাবক। এই অভিভাবক হারানোর ঘটনা  অত্যন্ত বেদনাদায়ক। মহান আল্লাহর কাছে মরহুমের পরিবারের সদস্যদের শোক সইবার সক্ষমতা কামনার পাশাপাশি মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

 

আলমডাঙ্গা পৌরসভায় বিশেষ ভিজিএফ এর চাল বিতরণ

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা পৌরসভায় বিশেষ ভিজিএফ এর ৪ হাজার ৬ শত ২১ জন দুস্হ গরীবদের মাঝে চাল বিতরন কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করলেন আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাসান কাদীর গনু। এ সময় পৌর মেয়র বলেন বর্তমান সরকার বিগত ১০ বছর ক্ষমতায় থেকে দেশ থেকে দারিদ্রতা দুর করতে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছে। ২০২১ সালের মধ্যে আমরা মধ্যম আয়ের  দেশ হব। তখন দারিদ্রতার হার কমে আসবে। আসুন আমরা পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সকলের পাশে দাড়ায়।এ সময় উপস্থিত ছিলেন এমপি প্রতিনিধি পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌর সচিব রকিবুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র সদরদ্দিন ভোলা, জহুরুল ইসলাম, কাউন্সিলর কাজী আলী আসগার সাচ্চু, আলাল উদ্দিন, জাহিদুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ হাসান, নুর জাহান, কল্পনা খাতুন, হাফিজুর রহমান, আনিছুর রহমান, আব্দুল হামিদ প্রমুখ। উল্লেখ্য গতকাল ১নং ওয়ার্ড, ২নং ও ৮নং ওয়ার্ডের মোট ১৩ শত কার্ডধারিদের মাঝে চাল বিতরন করা হয়, ৩১ মে, ১জুন ২ও ৩জুন বাকিদের মাঝে চাল বিতরণ করা হবে। সরকার এ বছর পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের জন্য মোট ৬৯  মেঃ টন ৩১৫  কেজি চাল বরাদ্ধ দিয়েছে। মোট কার্ডধারির সংখ্যা ৪হাজার ৬২১ জন। ১৫ কেজি করে চাল দেওয়া হচ্ছে বলে জানান পৌর কতৃপক্ষ।

দৌলতপুরে কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার আল¬ারদর্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে হোগলবাড়িয়া ও পিয়ারপুর ইউনিয়নের কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয় করা হয়। এর আগের বুধবার প্রাগপুর ও আদাবড়িয়া ইউনিয়নের কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় করা হয়েছে। ধান ক্রয়কালে উপস্থিত ছিলেন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর আলী, দৌলতপুর কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা সজিব আল মারুফ, দৌলতপুর খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন, কৃষক প্রতিনিধি দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরদার তৌহিদুল ইসলাম, হোগলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম চৌধুরী ও পিয়ারপুর ইউপি চেয়ারম্যানন আবু ইউসুফ লালুসহ স্থানীয় কৃষক। গতকাল হোগলবাড়িয়া ও পিয়ারপুর ইউনিয়নের কৃষকদের কাছ থেকে ১২ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করা হয়। আগেরদিন বুধবার প্রাগপুর ও আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের কৃষকদের কাছ থেকে ২০মেট্রিক টন ধান ক্রয় করা হয়েছে। এনিয়ে গত ৫দিনে প্রায় ৮৫ মেট্রিক টন ধান সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ক্রয় করা হয়েছে। দৌলতপুরে মোট ১৩৯ মেট্রিক টন ধান ক্রয় করা হবে। ধান ক্রয়কালে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার উপস্থিত থেকে সার্বিক তদারকি করছেন বলে সংশ্লি¬ষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

রমজানে গরীবদের হক সদকাতুল ফিতর

আ.ফ.ম নুরুল কাদের ॥ সদকাতুল ফিতর একটি ইসলামী পরিভাষা। দু’টি শব্দের সমষ্টি তথা ‘সদকাহ’ ও ‘আল-ফিতর’। ‘সদকাহ’ অর্থাৎ দান, যা একজন অধিক সামর্থ্যবান ব্যক্তি কোনো অভাবী দরিদ্রকে  প্রদান করে থাকেন। ‘আল-ফিতর’ অর্থাৎ রোজা ভঙ্গ করা। অতএব, এর অর্থ দাঁড়ায়; এটা এমন এক সদকাহ যা একজন রোজাদার রমজান মাসে সিয়ামের নির্দেশ পালন করার পর ১ শাওয়াল যেদিন প্রথম রোজা রাখা বন্ধ করবেন সেদিন যে সদকাহ দিয়ে থাকেন তাই সদকাতুল ফিতর। আল্লাহ ও তার রাসূলের নির্দেশে পুণ্যের উদ্দেশ্যে যে বাধ্যতামূলক বা ঐচ্ছিক ‘দান’ সম্পাদন করা হয়, তা-ই সদকাহ। এখানে এ সদকাহ যেহেতু রাসূল করিমের  প্রত্যক্ষ নির্দেশে সম্পাদিত হয় তাই ওয়াজিব। সদকাতুল ফিতরকে হাদিস শরিফে জাকাতুল ফিতর নামেও অভিহিত করা হয়েছে। এ সদকাহটি আমাদের দেশে ‘ফিতরা’ নামে অভিহিত। ইমাম নাওয়াভি এ পরিভাষাটির উল্লেখ করে মন্তব্য করেছেন, এটি মূলত আরবি পরিভাষা না হলেও ফোকাহাদের মধ্যে এর ব্যাপক প্রচলন, একে ‘জাকাত’ ও ‘সালাত’-এর অনুরূপ একটি স্বতন্ত্র পরিভাষার মর্যাদা দেয়া হয়েছে।

‘সদকাতুল ফিতর’-এর যৌক্তিকতা : এ সদকাহর প্রধান কারণ হচ্ছে ঈদের দিনে ফকির-মিসকিনদের  প্রতি দয়া প্রদর্শন এবং তাদের ঈদের আনন্দে শরিক করা। যাতে করে এ উৎসবের দিনে খাবারের জন্য তাদের কোনো উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় ভুগতে না হয়। এর আরো একটি উদ্দেশ্য হলোÑ রমজানের  রোজা রাখতে গিয়ে আমাদের যেসব ক্রটি-বিচ্যুতি হয়ে গেল তার প্রতিবিধান। এ প্রসঙ্গে হজরত ইবনে আব্বাস রা: বর্ণিত হাদিসের উদ্ধৃতি দেয়া যায়। তিনি বলেছেন, আল্লাহর রাসূল সা: জাকাতুল ফিতর বাধ্যতামূলক করেছেন। সদকাতুল ফিতর’ কার ওপর ওয়াজিব এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার এখানে সুযোগ নেই। তবে সংক্ষেপে এতটুকু বলা যায়, প্রত্যেক স্বাধীন মুসলিম নর-নারী যিনি ঈদের দিনে নিসাব পরিমাণ সম্পদের অধিকারী তার ওপর বাধ্যতামূলক। তিনি নিজের পক্ষে, তার স্ত্রী ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তান-সন্তানাদিদের পক্ষে এ সদকাহ আদায় করবেন। ইমামদের অনেকেই নিসাবের অধিকারী হওয়ার শর্ত করেননি। তাদের মতে, যদি কেউ সদকাতুল ফিতর আদায় করার সামর্থ্য রাখে তাকেও এ সদকাহ আদায় করতে হবে। চাই তিনি নিসাব পরিমাণ সম্পদের অধিকারী না হবেন। ‘সদকাতুল ফিতর’-এর পরিমাণ  প্রসঙ্গ : ‘সদকাতুল ফিতর’-এর পরিমাণ সংক্রান্ত বিষয়ের মূল ভিত্তি হিসেবে নিম্নোক্ত হাদিসগুলোর উল্লেখ করা যায় : ১. হজরত ইবনে উমর রা: বর্ণিত হাদিস; তিনি বলেন, আল্লাহর রাসূল সা: (মুসলিম) জনতার ওপর ‘সদকাতুল ফিতর’ বাধ্যতামূলক করেছেন, (যার পরিমাণ হলো) এক সা  খেজুর অথবা এক সা জব। এটা স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে  প্রত্যেক স্বাধীন মুসলিম অথবা দাসের ওপর  প্রযোজ্য। বুখারি (৩/৩৬৭), মুসলিম (২/৬৭৭)। পর্যালোচনা : গরিবদের স্বার্থ সংরক্ষণের খাতিরে সদকাতুল ফিতরের পরিমাণ নির্ধারণের ক্ষেত্রে নিম্নরূপ পলিসি গ্রহণ বাঞ্ছনীয়Ñ ক. ধনীদের জন্য এসব বস্তুর মধ্যে যার মূল্য সর্বোচ্চ তার এক সা পরিমাণ। যেমনÑ কিশমিশ। খ. উচ্চ-মধ্যবিত্তদের ক্ষেত্রে যে বস্তুর মূল্য মাঝামাঝি তার এক সা পরিমাণ। যেমনÑ খেজুর। গ. নিম্ন মধ্যবিত্তদের ক্ষেত্রে যে বস্তুর মূল্য সর্বনিম্ন তার এক সা পরিমাণ। যেমনÑ গম বা জব হবে সদকাতুল ফিতরের পরিমাণের ভিত্তি। সদকাতুল ফিতরের নিসাব নির্ধারণের  ক্ষেত্রে উপরি উক্ত নীতিমালা অবলম্বনই শরিয়াহর মূল স্পিরিটের সাথে অধিকতর সঙ্গতিপূর্ণ বলে মনে করি। কারণ একজন ব্যক্তি যিনি কোটি টাকার মালিক এবং হয়তো লক্ষাধিক টাকা জাকাত বাবদ আদায় করে থাকেন, তার উচিত হবে না সর্বনিম্ন বস্তুর দামে সদকাতুল ফিতর আদায় করা। পক্ষান্তরে একজন নিম্ন মধ্যবিত্ত যিনি ঐচ্ছিকভাবেই সদকাতুল ফিতর আদায় করছেন তাকেও সর্বোচ্চ মূল্যের বস্তুর বাজার দরে সদকা দিতে বাধ্য করাও সমীচীন হবে না। আধুনিক যুগের প্রখ্যাত ফকিহ সাইয়িদ সাবিক সদকাতুল ফিতরের পরিমাণ বিষয়ে উল্লেখ করেছেন, সদকাতুল ফিতরের ওয়াজিব পরিমাণ হচ্ছে এক সা গম অথবা জব অথবা খেজুর অথবা কিশমিশ অথবা পনির অথবা চাল অথবা ভুট্টা ইত্যাদি। (ফিকহুস সুন্নাহ ১/৩৬৪)। বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে বরং এক সা পরিমাণ খেজুর বা কিসমিসের মূল্যই কমপে দুই সা পরিমাণ গমের মূল্যের  চেয়েও অধিক। অতএব অর্ধ সা পরিমাণ গমকে সদকাতুল ফিতরের পরিমাণ হিসেবে চিহ্নিত করা মোটেই যুক্তিযুক্ত হবে না বরং উপরিউক্ত দ্রব্যগুলোর প্রত্যেকটির ক্ষেত্রে এক সা হবে স্ট্যান্ডার্ড। তা ছাড়া এগুলোর কোনটিকে ভিত্তি হিসেবে বিবেচনা করা হবে তা নির্ধারিত হবে দাতার সামর্থ্যরে বিচারে। প্রসঙ্গত এখানে আরো একটি বিষয় উল্লেখ করা সমীচীন মনে করি, হজরত আবু সাইদ খুদরি বর্ণিত হাদিসে ‘অথবা এক সা পরিমাণ খাবার’ এর আলোকে আমাদের দেশের জন্য গম, খেজুর, জব বা কিশমিশের বিকল্প হিসেবে এক সা পরিমাণ (৩.৩ কেজি) চাল অথবা এর দামও সদকাতুল ফিতরের পরিমাণ হিসেবে গ্রহণ করা যেতে পারে। যেমনটি সাইয়িদ সার্বিক উল্লেখ করেছেন। এতদত সংক্রান্ত বিষয়ে উল্লিখিত হাদিসগুলো ও ইসলামের স্পিরিট অনুযায়ী আমাদের দেশের বাজার দরের আলোকে সদকাতুল ফিতরের সর্বনিম্ন পরিমাণ হবে এক সা গমের দাম যা নিম্ন মধ্যবিত্তদের জন্য প্রযোজ্য। মধ্যম নিসাব হবে এক সা খেজুরের দাম বা ২০০ থেকে ৪০০ টাকা যা উচ্চ-মধ্যবিত্তের জন্য  প্রযোজ্য এবং উচ্চতর নিসাব হবে ৫০০ থেকে ৬৬০ টাকা যা উচ্চবিত্তদের জন্য প্রযোজ্য। এখানে আরো উল্লেখ্য, বাজারে  যেসব দ্রব্যের মান ও মূল্যমানে অনেক তফাত বিদ্যমান তার কোনটিকে ভিত্তি করা হবে তা-ও নির্ধারিত হবে দাতার ব্যক্তি পর্যায়ে ব্যবহারের অগ্রাধিকারের আলোকে। যেমন কেউ ব্যক্তি পর্যায়ে ২০০ টাকা দামের কিশমিশ ব্যবহার করলে তিনি ২০০ টাকা হিসেবে এক সা কিশমিশের দাম দেবেন ৬৬০ টাকা। অন্যজন ৬০ টাকা দামের খেজুর ব্যবহার করলে তিনি ৬০ হিসেবে এক সা  খেজুরকে ভিত্তি ধরবেন। চালের ক্ষেত্রেও অভিন্ন পলিসি প্রয়োগ করা যেতে পারে।

কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস মালিক গ্র“পের বার্ষিক সাধারন সভা ও ইফতার মাহফিলে আসগর আলী

পরিবহন মালিকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হবে

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস মালিক গ্র“পের বার্ষিক সাধারন সভা গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে গ্র“পের মজমপুরস্থ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি আসগর আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারন সম্পাদক এস.এম রেজাউল ইসলাম বাবলু। সভায় বিগত সভার গৃহিত সিদ্ধান্তসমূহ পাঠ করেন সাধারন সম্পাদক এবং তা উপস্থিত সদস্যদের সমর্থনে অনুমোদন হয়। এছাড়া বার্ষিক প্রতিবেদন পাঠ ও অনুমোদিত হয়। সভায় ২০১৮ সালের অডিট রিপোর্টের উপর আলোচনা  এবং অনুমোদিত হয়। সভা শেষে নবনির্বাচিত পরিষদের সদস্যবৃন্দ দায়িত্বভার গ্রহন করেন। সমিতির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন সমিতির নব নির্বাচিত কার্যকরি সভাপতি আতাহার আলী, সাবেক কার্যকরি সভাপতি কাজী রফিকুর রহমান রফিক, সাবেক সাধারন সম্পাদক হাসান আবুল ফজল সেলিম, কুষ্টিয়া বাস-মিনিবাস কোচ মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু, সাবেক সহ-সভাপতি আমজাদ হোসেন, মিরাজউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ। বার্ষিক সাধারন সভায় সভাপতি আসগর আলী বলেন- কুষ্টিয়া বাস-মিনিবাস মালিক গ্র“প কুষ্টিয়ার একটি ঐতিহ্যবাহি প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের  নেতৃত্ব গ্রহনের মধ্যদিয়ে আমাদের অনেক দায়িত্ব বেড়ে গেল। এই প্রতিষ্ঠানের সদস্যদের স্বার্থ সংরক্ষনে আমাদের সকলকে আন্তরিক হতে হবে। তিনি বলেন, পরিবহন ব্যবসায়ীদের ব্যবসা সংক্রান্ত বিষয়গুলোকে বিশেষ নজর রেখে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, সততা, নিষ্ঠা এবং দায়িত্ববোধের ব্যাপারে সকল সদস্যকে বিশেষ নজর রাখতে হবে। আসগর আলী বলেন-সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করতে চাই। আপনারা আমাদের পরিষদকে সহযোগিতা করলে ইনশাআল্লাহ বিগত দিনের চেয়ে অনেক ভাল কিছু করে দেখানে সম্ভব বলে মনে করি। পরে তিনি নব নির্বাচিত সদস্যদের হাতে ফুলের তোলা দিয়ে বরন করে নেন। এসময় সদস্যদের মাঝে উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।  বার্ষিক সাধারন সভায় গ্র“পের সদস্যদের মেধাবী সন্তানদের নগদ অর্থ ও ক্রেষ্ট দিয়ে সম্বর্ধিত করা হয়। বিকেলে একই স্থানে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ইপতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন  গ্র“পের সভাপতি আসগর আলী, সাধারন সম্পাদক এস.এম রেজাউল ইসলাম বাবলু, সাবেক সভাপতি শিহাব উদ্দিন, বর্তমান কার্যকরি সভাপতি আতাহার আলী, সাবেক কার্যকরি সভাপতি হাজী নুরুল ইসলাম, সাবেক সাধারন সম্পাদক হাসান আবুল ফজল সেলিম, গ্র“পের নির্বাচন কমিশনার এ্যাড. আক্তারুজ্জামান মাসুম। পরে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। গ্র“পের কার্যকরি পরিষদ নিম্নরুপঃ  সভাপতি আসগর আলী বিনা প্রতিন্দ্বীতায় জয়ী হন। কার্যকরি সভাপতি আতাহার আলী, সিনিয়র সহসভাপতি  আকিল আহমেদ, সহ-সভাপতি মাসুদুজ্জামান, সাধারন সম্পাদক এস.এম রেজাউল ইসলাম বাবলু, যুগ্ম সম্পাদক এমদাদুল হক  নান্টু, সহকারী সম্পাদক আমজাদ আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক সাহেদুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক এস.এম রেজাউল করিম, নির্বাহী সদস্য হাফিজুর রহমান, আয়ুব আলী, শেখ মাহমুদ আল আবদী ঝন্টু, আতিয়ার রহমান।

মিরপুর উপজেলা পরিষদের বাজেট ঘোষণা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলা পরিষদের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা সভাকক্ষে  উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিনের সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশনের প্রধান অতিথি ছিলেন ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান। এ সময়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহমেদ ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের জন্য ৫ কোটি ৩৬ লক্ষ ৩০ হাজার টাকার সম্ভাব্য বাজেট ঘোষণা করেন। এতে ৪ কোটি ৪০ লক্ষ ৭ হাজার ১শ’ ৮৭ টাকা ব্যয় ও ৯৬ লক্ষ ২২ হাজার ৮শ’ ১৩ টাকা উদ্বৃত্ত ধরা হয়েছে। বাজেট ব্যয়ে উন্নয়ন হিসাব থেকে বস্তগত অবকাঠামো উন্নয়ন, জনস্বাস্থ্য, স্বাস্থ্য ও সমাজ কল্যাণ, বসতবাড়ী রক্ষনাবেক্ষণে ৩০ লাখ টাকা করে, কৃষি ও ক্ষুদ্র সেচ, আর্থ সামাজিক অবকাঠামো, যুব, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি এবং মহিলা ও শিশু কল্যাণে ২০ লাখ টাকা করে এবং মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প ও বিবিধ খাতে ১০ লাখ টাকা করে বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এ সময়ে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন, মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম হোসেন ফরাজী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাজিউল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী মিজানুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দার, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নূরুল ইসলাম নান্নু, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা নাজনিন আক্তার, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তমান্নাজ খন্দকার, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, ছাতিয়ান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন বিশ্বাস, আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, চিথলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আব্দুস সালাম, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা বিশ্বাস, মালিহাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন, পোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সেলিম হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মুসলিম হাই স্কুলের প্রয়াত প্রধান শিক্ষক ওয়ারেস হোসেনের স্মরণ সভা ৭ জুন

কুষ্টিয়া সিরাজুল হক মুসলিম হাই স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাহিত্য অনুরাগী মরহুম ওয়ারেস হোসেন  স্মরণে সভা আগামী ৭ জুন শুক্রবার বিকাল ৪ টায় স্কুল ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ শাহ্ আজম (শান্তনু)। প্রধান অতিথি থাকবেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। সম্মানীত অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন  কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান (আতা), পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী, মুসলিম স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা নীলিমা আখতার, চাঁদ সুলতানা বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষিকা শিরিনা আখতার। উক্ত স্মরণ সভায় সকল প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র, শুভাকাঙ্খীদের উপস্থিত থাকার জন্য আহবান জানিয়েছেন অনুষ্ঠানের আহবায়ক স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র কাজল তালুকদার। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় শিক্ষাবৃত্তি পেল অস্বচ্ছল মেধাবী ৪০ শিক্ষার্থী

নিজ সংবাদ ॥ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে অধ্যায়নরত কুষ্টিয়ার অসচ্ছল মেধাবী ৪০জন শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে ১২ হাজার করে টাকা দেওয়া হয়। বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা দিশার আয়োজনে সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সেখানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়ার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আজাদ জাহান। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক রোখসানা পারভীন, জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম ও কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেব উন নেসা সবুজ প্রমুখ। দিশার নির্বাহী পরিচালক রবিউল ইসলাম বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় সহযোগিতা করা হয়। ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত রাখা হবে।

কুষ্টিয়া চিনিকল সিবিএ সভাপতি ফারুক গুরুতর অসুস্থ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া চিনিকল শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত সভাপতি ফারুক হোসেন গুরুতর অসুস্থ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ভর্তি করা হয় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় শারীরিক অবনতি ঘটলে রাতে ঢাকায় পাঠানো হয়। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আরএমও তাপস কুমার সরকার জানান স্ট্রোকজনিত কারনে ফারুক হোসেন হাসপাতালে ভর্তি হন। অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন। এদিকে ফারুকের অসুস্থতার সংবাদে সন্ধ্যায় কুষ্টিয়া চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান আনিস, সহ-সভাপতি সুমন আহমেদসহ পরিষদের সকল নেতৃবৃন্দ হাসপাতালে দেখতে যান। ফারুক ২৯ মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হন।

 

খালেদার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলার শুনানি ফের পিছিয়েছে

ঢাকা অফিস ॥ নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষে সময়ের আবেদনের কারণে চার্জ শুনানি ফের পিছিয়েছে। এ শুনানির জন্য আগামি ২৩ জুন নতুন দিন ধার্য করেছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনে অস্থায়ী আদালতের বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান নতুন এ দিন ধার্য করেন। অসুস্থতার কারণে খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। সে কারণে তাকে আদালতে হাজির করা যায়নি। যেহেতু চার্জ শুনানি আসামির উপস্থিতিতে হতে হয়, তাই খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতে এদিন চার্জ শুনানি সম্ভব নয় বিধায় তার আইনজীবীরা সময়ের আবেদন করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আদালত সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে ২৩ জুন নতুন দিন ধার্য করেন। এর আগে গত ১ এপ্রিল খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করে কারা কর্তৃপক্ষ। সেদিন খালেদা জিয়া আদালতে না আসায় ১০ এপ্রিল নতুন তারিখ ধার্য করা হয়। সেদিনও খালেদা জিয়া হাসপাতালে থাকায় ৬ মে, এবং পরবর্তীতে ১৯ মে একই কারণে শুনানি পেছানো হয়। সবশেষ ৩০ মে শুনানির দিন ধার্য করা হলেও পেছালো এই তারিখও। ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম তেজগাঁও থানায় খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। এরপর সংস্থার তৎকালীন সহকারী পরিচালক এস এম সাহেদুর রহমান ২০০৮ সালের ৫ মে মামলায় খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে কানাডার কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা ক্ষতির অভিযোগ এনে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলার ১১ আসামির মধ্যে সাবেক সচিব শফিউর রহমান ২০১৮ বছরের ৫ মে মারা যাওয়ায় বর্তমানে আসামি সংখ্যা ১০ জন। এ মামলায় গত ৩ মার্চ সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, সাবেক জ¦ালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, জ¦ালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম নিজেদের নির্দোষ দাবি করে চার্জ শুনানি শেষ করেছেন। খালেদা জিয়া ছাড়া সব আসামির পক্ষে চার্জ শুনানি শেষ হয় তখন। নাইকো দুর্নীতি মামলায় খালেদা, মওদুদ, মোশাররফ, শহীদুল ছাড়া অপর আসামিরা হলেনÑ ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন এবং জ¦ালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন। এ মামলায় পলাতক রয়েছেন আরও তিন আসামি। তারা হলেন- সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক ও নাইকোর দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় যথাক্রমে ১০ ও ৭ বছরের কারাদ-ে দ-িত হয়ে কারাবন্দি রয়েছেন খালেদা জিয়া।

ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় না নামানোর আহ্বান সেতুমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ এবারের ঈদ যাত্রা নিয়ে শঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তবে তিনি বাসমালিকদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন, বলেছেন, ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় নামিয়ে যানজট সৃষ্টি করবেন না। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে ঈদযাত্রা নিয়ে প্রস্তুতি সভায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ঈদ উপহার হিসেবে দেশবাসীকে দুই গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কে সেতু, ফ্লাইওভার ও আন্ডারপাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফলে এবার ঈদযাত্রা স্বস্তির হবে। দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী সেতু উদ্বোধনের ফলে চট্টগ্রামের সঙ্গে ঢাকার সহজ সড়ক যোগাযোগ নিশ্চিত হয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এখন সাড়ে চার ঘণ্টায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যাওয়া যাচ্ছে। টাঙ্গাইল মহাসড়কে ফ্লাইওভার ও আন্ডারপাস হওয়ায় উত্তরবঙ্গের চিরায়ত যানজট কমেছে। এটা সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থায় মাইলফলক। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে চার লেন প্রকল্পের বেশ অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এ মহাসড়কের চার লেন প্রকল্পের ফান্ডের যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। তাই খুব শিগগির প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে ঢাকার বিমানবন্দর পর্যন্ত বাস র‌্যাপিড ট্রানজিটের কাজ চলায় এ অংশে কিছুটা ভোগান্তি হতে পারে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, যদি সড়কে গাড়ি শৃঙ্খলা মেনে চলাচল করে, তাহলে এখানেও ভোগান্তি হবে না। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জয়দেবপুর থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত ঈদে ৩০০ স্বেচ্ছাসেবকের ব্যবস্থা করেছেন। তাছাড়া ঈদের সময়টাতে এ প্রকল্পের কাজ বন্ধ রাখা হবে। যেন গাড়ি নির্বিঘেœ চলাচল করতে পারে। ঈদের সময় ২৪ ঘণ্টা সিএনজি স্টেশন খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ঈদের আগে ও পরে মহাসড়কে ট্রাক ও লরি চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, যেন যাত্রীবাহী বাস নিরাপদে চলাচল করতে পারে। ঈদ উপলক্ষে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের রাত জেগে, এমনকি প্রয়োজনে ঈদের দিন সড়কে থেকে দায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা জনগণ তথা দেশের স্বার্থে কাজ করবেন। মানুষের বাড়ি ফেরা নিরাপদ করবেন। এটা আপনাদের দায়িত্ব। ঈদের সময় লক্কড়-ঝক্কড় গাড়ি সড়কে না নামানোর অনুরোধ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমি বাস মালিকদের অনুরোধ করবো, আপনারা এসব বন্ধ করবেন। ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় নামিয়ে যানজট সৃষ্টি করবেন না এসময় সেতু সচিব নজরুল ইসলামসহ সওজের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে, সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের বেতন বাড়াতে আগামি জুনের মধ্যে নবম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন এ-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির প্রধান ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার তথ্য মন্ত্রণালয়ে নবম ওয়েজবোর্ড সংক্রান্ত সভা শেষে তিনি বলেন, নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের রোয়েদাদ বাস্তবায়নের বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করেছি। আসলে বিষয়টি আরও আগেই আমরা সমাধানে যেতে পারতাম। আরও আগেই আমরা ঘোষণা দিতে পারতাম। আমাকে সভাপতি করার পরপরই আমি একটি মিটিং করার সুযোগ পেয়েছিলাম। সেদিন আমরা নোয়াবের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মূলত আলোচনা করেছি। এর পরপরই আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি। আলোচনার অগ্রগতি জানিয়ে কাদের বলেন, একটি বিষয়ে ঐকমত্য পোষণ করেছি- এ বিষয়টিকে আর ঝুলিয়ে রাখা সমীচীন হবে না। যত দ্রুত সম্ভব আমরা সমাধান করে সবার কাছে মোটামুটি গ্রহণযোগ্য একটা ঘোষণা দেব। নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের বিষয়ে আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাব। বিষয়টি চূড়ান্ত করার আগে ১২ জুন বেলা ১১টায় তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অংশীজনদের সঙ্গে বৈঠক করার পরিকল্পনা জানিয়ে কাদের বলেন, বোর্ড সদস্যদের উপস্থিতিতে সেই যৌথ সভাটি আমরা করব। সেদিন সকল পক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে আমরা একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছাব। জুন মাসের মধ্যে, এই অর্থবছরের মধ্যে এই রোয়েদাদ বাস্তবায়ন সম্পর্কিত আমাদের ঘোষণা পেশ করব, এটাই মোটামুটি সিদ্ধান্ত হয়েছে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ হুমায়ুন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসান বৃহস্পতিবারের বৈঠকে অংশ নেন। ২০১৫ সালে সরকারি কর্মচারীদের নতুন বেতন কাঠামো ঘোষণার পর থেকেই নতুন বেতন কাঠামোর দাবি জানিয়ে আসছিল সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো। এ দাবিতে তারা বিভিন্ন কর্মসূচিও পালন করেছেন। দীর্ঘদিন বিষয়টি ঝুলে থাকার পর আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হককে প্রধান করে গতবছর ২৯ জানুয়ারি ১৩ সদস্যের নবম ওয়েজবোর্ড গঠন করা হয়। এরপর গত ১১ সেপ্টেম্বর সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের জন্য মূল বেতনের ৪৫ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করে সরকার, যা ২০১৮ সালের ১ মার্চ থেকে কার্যকর করার কথা বলা হয়। বিচারপতি নিজামুল হক গত ৪ নভেম্বর সচিবালয়ে তখনকার তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর কাছে প্রতিবেদন জমা দেন।