গাংনীতে কার্যকরি ওয়ার্ড সভার লক্ষে ক্যাম্পেইন

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের হাড়িয়াদহ গ্রামে কার্যকরি ওয়ার্ড সভার লক্ষে ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে হাড়িয়াদহ বাজার সংলগ্ন কেজি স্কুলে ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর সহযোগিতায় ক্যাম্পেইনের আয়োজন করে হাড়িয়াদহ (ভিডিটি) গ্রাম উন্নয়ন দল। সভায় সভাপতিত্ব করেন হাড়িয়াদহ ভিডিটির সদস্য ইকতার আলী। সভা পরিচালনা করেন যথাক্রমে-দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর ধানখোলা ইউনিয়ন সমন্বয়কারী গোলাম আম্বিয়া ও রাইপুর ইউনিয়ন সমন্বয়কারী সোনারুল ইসলাম। এ সময় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় স্বেচ্ছাব্রতি নেতা সাহাজুল ইসলাম সাজু।

আমলায় ধান ক্ষেতে আলোক ফাঁদ

আমলা অফিস॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে ধানের পোকা জরিপের জন্য আলোক ফাঁদ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার আমলা ইউনিয়ন কৃষি অফিসের উদ্যোগে শাহাপুর মাঠে এ আলোক ফাঁদ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আলোক ফাঁদের মাধ্যমে ধান ক্ষেতে থাকা উপকারী এবং অপকারী পোকা শনাক্তকরে জরিপ করেন আমলা ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো: সাদ্দাম হোসেন। এসময় প্রায় ২০ থেকে ২৫ জন সাধারন কৃষক উপস্থিত ছিলো। পরে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো: সাদ্দাম হোসেন পোকার ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে বিস্তারিত কৃষকদের মাঝে আলোচনা করেন।

আশা’র পক্ষ হতে ৩০ জন মৎস্য চাষিকে প্রশিক্ষণ প্রদান

গতকাল আশা-কুষ্টিয়া জেলা আয়োজিত মৎস্য চাষি প্রশিক্ষণে পুকুর প্রস্ততি ও পোনা মজুদ/মজুদদোত্তর ব্যবস্থাপনা, রোগ প্রতিরোধ ও উত্তম মৎস্য চাষ অনুশীলন সংক্রান্ত প্রশিক্ষনের আয়োজনে ৩০ জন মৎস্য চাষিকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। উক্ত প্রশিক্ষনে উপস্থিত ছিলেন সবুজ কুমার চৌধুরী, এ্যাসিসটেন্ট ডিরেক্টর, আশা-কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঢাকা। কুষ্টিয়া জেলার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া, জগদীশ চন্দ্র পাল, খামার ব্যবস্থাপক, পোড়াদহ, মিরপুর, কুষ্টিয়া। আশা’র স্থানীয় কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গনেশ চন্দ্র দাস, ডিস্ট্রিক্ট ম্যানেজার, আশা-কুষ্টিয়া সদর জেলা। আরো উপস্থিত ছিলেন আমানাত উল্লাহ আর.এম, আশা-কুষ্টিয়া সদর অঞ্চল, ব্রাঞ্চ ম্যানেজার সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীর যৌন হয়রানী অভিযোগে প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীর যৌন হয়রানীর অভিযোগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার শহরের আলহেরা ইসলামী ইনিস্টিটিউ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। জানাগেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম এই বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর দুই ছাত্রীকে ক্লাসে গায়ে হাত দেওয়া এবং মুখে চুম খাওয়াসহ বিভিন্ন ভাবে যৌন হয়রানী করে আসছিল। গত মঙ্গলবার প্রধান শিক্ষক এই আচরণ করলে তারা তাদের অভিভাবকে জানালে বুধবার সকালে সবাই স্কুলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াই পরে পুলিশ ঘটনা জানার পর বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে প্রধান শিক্ষককে আটক করে। এবিষয়ে পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান ঘটনাস্থলে আসেন এবং ছাত্রীদের ও স্কুলের অন্যান্য শিক্ষকদের স্বাক্ষাতকার নিয়ে ঘটনার সত্যতা প্রমান পেয়েছে বলে জানান। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতি মিজানুর রহমান জানান ঘটনা সত্য প্রমানিত হলে তদন্ত সাপেক্ষে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। এই ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।

যারা ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন করে না, তারা দেশের স্বাধীনতা বিশ্বাস করে না – ড. হাছান মাহমুদ

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যারা ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন করে না, তারা দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বেই বিশ্বাস করে না। আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষ্যে গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে রক্ষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এ কথা বলেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে এ দিন মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলা গ্রামের আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ গ্রহণ করে। পরে এই বৈদ্যনাথতলাকেই ঐতিহাসিক মুজিবনগর হিসেবে নামকরণ করা হয়। অস্থায়ী এই সরকারের সফল নেতৃত্বে নয় মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করে। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি কিংবা তাদের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ নিয়ে কোন ধরনের সমঝোতা করছে না আওয়ামী লীগ।

 

ওয়াসার পানি ফোটাতে ৩৩২ কোটি টাকার গ্যাস অপচয়  – টিআইবি

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা ওয়াসার পানির নিম্নমানের কারণে ৯৩ শতাংশ গ্রাহক বিভিন্ন পদ্ধতিতে পানি পানের উপযোগী করে। এর মধ্যে ৯১ শতাংশ গ্রাহকই পানি ফুটিয়ে বা সেদ্ধ করে পান করে। গৃহস্থালি পর্যায়ে পানি ফুটিয়ে পানের উপযোগী করতে প্রতিবছর আনুমানিক ৩৩২ কোটি টাকার গ্যাসের অপচয় হয়। এ কথা বলেছে দুর্নীতিবিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। গতকাল বুধবার ‘ঢাকা ওয়াসা : সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক এক গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলে টিআইবি। রাজধানীর ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে এই সংবাদ সম্মেলন হয়।

গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন টিআইবির গবেষক শহিদুল ইসলাম ও শাহনূর রহমান। গবেষণার জন্য টিআইবি একটি জরিপ করে। সেবার মান, দুর্নীতি, গ্রাহক সন্তুষ্টি ও অসন্তুষ্টি, অনিয়ম, সীমাবদ্ধতা, চ্যালেঞ্জ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য তুলে ধরা হয় গবেষণা প্রতিবেদনে। টিআইবির গবেষণায় বলা হয়, ওয়াসার সেবায় গ্রাহকদের এক-তৃতীয়াংশের বেশি অসন্তুষ্ট। গবেষণাটির জন্য টিআইবি মাঠপর্যায়ে দৈবচয়নের ভিত্তিতে ওয়াসার ১০টি মডস জোনের মোট ২ হাজার ৭৬৮ জন গ্রাহকের মতামত নেয়। জরিপের ফলাফলে বলা হয়, এই গ্রাহকদের ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশই ওয়াসার সেবায় অসন্তুষ্ট। এর মধ্যে ২০ দশমিক ১ শতাংশ সন্তুষ্ট। আর ৪২ শতাংশ গ্রাহক ওয়াসার সেবায় মোটামুটি সন্তুষ্ট। গবেষণায় ১৩ দফা সুপারিশ করেছে টিআইবি। এর মধ্যে  স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের জন্য তিনটি এবং ওয়াসার জন্য ১০টি। ওয়াসার চুক্তিভিত্তিক পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা ও পেশাগত অভিজ্ঞতা বিচার করার সুপারিশ করা হয়েছে। এ ছাড়া এসব নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রার্থীর বয়সের ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়ন, নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত ব্যক্তিদের নিয়োগের সুপারিশ করে টিআইবি। ওয়াসার ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা একাধিক কর্তৃপক্ষের হাতে না রেখে একটি কর্তৃপক্ষের হাতে দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে প্রতিবেদনে। অনুষ্ঠানে ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান সুলতানা কামাল ও টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বক্তব্য দেন।

তিন মাসে সরবে বিজিএমইএ ভবনের ধ্বংসস্তূপ

ঢাকা অফিস ॥ আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিজিএমইএ ভবন ভাঙতে এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে কার্যাদেশ দেওয়া হবে জানিয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলছেন, তিন মাসের মধ্যে সরানো হবে ভবনের ধ্বংসস্তূপ। সচিবালয়ে গতকাল বুধবার নিজের দপ্তরে এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী জানান, ভবনটি ভাঙতে ইতোমধ্যে টেন্ডার ডাকা হয়েছে। ২৪ এপ্রিলের মধ্যে দরপত্র জমা দিতে হবে আর ২৫ এপ্রিলের মধ্যে বাছাই করা হবে ঠিকাদার। উপযুক্ত দেশীয় প্রতিষ্ঠান না পেলে বিদেশি প্রতিষ্ঠানকেই ভবনটি ভাঙার দায়িত্ব দেওয়া হবে। তিনি বলেন, হাতিরঝিলের মাঝখানে বিষফোঁড়ার মত বিজিএমইএ ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। নির্মাণের সময় সতর্কতা অবলম্বন করা হয়নি, ফলে অনাকাঙ্খিতভাবে ভবনটি সেখানে বেড়ে উঠেছে। এই ব্যর্থতার দায় আমাদের বিভিন্ন পর্যায়ের অনেকেরেই রয়েছে।” গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অনুমতি না নিয়ে এবং উন্মুক্ত স্থান ও প্রাকৃতিক জলাধার সংরক্ষণ আইন-২০০০ ভঙ্গ করে বেগুনবাড়ি খালের একাংশ ভরাট করে গড়ে তোলা হয় ১৫ তলা বিজিএমইএ ভবন। ২০০৬ সালে সেই নির্মাণ কাজ শেষ হয়। জলাশয়ের উপর আড়াআড়িভাবে গড়ে ওঠা এই ভবনকে হাতিরঝিলের প্রকল্পের ‘ক্যান্সার’ আখ্যায়িত করে হাই কোর্ট ২০১১ সালে এক রায়ে ইমারতটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয়। পরে আপিল বিভাগেও তা বহাল থাকে। সর্বোচ্চ আদালত বিজিএমইএ ভবন ভাঙার রায় দেওয়ার পর কয়েক দফায় সময় নিয়েছিলেন তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকরা। সবশেষ আদালতের দেওয়া সাত মাস সময় শেষ হলে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-রাজউক মঙ্গলবার ভবনটি খালি করে তালা ঝুলিয়ে দেয়। সেই প্রসঙ্গ টেনে রেজাউল করিম বলেন, “ভবনটি ভাঙার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ভবনটিকে আমাদের দখলে নিয়েছি, ভবনে অন্য কারো প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছি।” মন্ত্রী জানান, ইতোমধ্যে জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞাপন দিয়ে ভবনটি ভাঙার জন্য ঠিকাদারদের কাছ থেকে দরপ্রস্তাব চাওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে অভিজ্ঞদের ২৪ এপ্রিলের মধ্যে কোটেশন দাখিল করতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, “আমরা আইনগত পদ্ধতি অনুসরণের স্বার্থেই বিভিন্ন আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের কাছে টেন্ডার আহ্বান করেছি। ২৪ তারিখের ভেতরে টেন্ডার পেয়ে ২৫ এপ্রিলের মধ্যেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব কোন সংস্থা উপযুক্ত যাদেরকে দিয়ে এটা ভাঙা সম্ভব হবে। আমরা যদি উপযুক্ত সংস্থা পাই, তাহলে তাদের সমন্বয়ে, আর যদি উপযুক্ত সংস্থা না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে আধুনিক নির্মাণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে আমরা রাজউকের পক্ষ থেকে এই বিল্ডিং উচ্ছেদের জন্য যে প্রক্রিয়া দরকার সে প্রক্রিয়ায় যাব।” রেজাউল করিম বলেন, “উপযুক্ত ঠিকাদার পাওয়া না গেলে সরকারের তরফ থেকেই ভবনটি ভাঙার ব্যবস্থা করা হবে। ভাঙার ক্ষেত্রে দায়দায়িত্ব আমাদেরই নিতে হবে, কারণ আমরা চাই রাষ্ট্রের চমৎকার একটি স্থাপনার মাঝখানে বেআইনি ওই ভবন টিকে না থাকুক।” পূর্তমন্ত্রী বলেন, যারা টেন্ডারে অংশ নেবে তাদের মধ্যে ‘আধুনিক প্রযুক্তি’ ব্যবহারে অভিজ্ঞ কেউ আছে কি না সেটা আমরা খতিয়ে দেখা হবে। প্রয়োজনে বিদেশি প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে আসা হবে। আমরা অগ্রাধিকার দিতে চাই দেশীয় প্রতিষ্ঠানকে। যদি সে রকম না পাই, বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ রয়েছে। কোনোভাবেই ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে না, জীবন এবং মালের ঝুঁকিপূর্ণ পদ্ধতিতে এই ভবন ভাঙা হবে না। রেজাউল করিম বলেন, ভবনটি ভাঙার প্রক্রিয়া শুরুর অংশ হিসেবে গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি, টেলিফোনসহ সব ইউটিলিটি সার্ভিসের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। ভনটি গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর আশপাশে যাতে কোনো দুর্ঘটনা না হয়, সেজন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিরও প্রয়োজন আছে। র‌্যাংগস প¬াজা ভাঙার সময় প্রাণহানির কথা মনে করিয়ে দিয়ে পূর্তমন্ত্রী বলেন, “এবারে আমাদের প্রস্তুতি বিজ্ঞান সম্মত, প্রযুক্তি সম্মত হবে, যাতে এই ভবনটি ভাঙতে গিয়ে কোনোভাবে প্রাণহানি অথবা কোনো রকমের অনাকাক্সিক্ষত ক্ষতির মুখোমুখি না হই।” ভবনটি ভাঙতে ডিনামাইট ব্যবহার এবং সেখানে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে কি না- এ প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, “সিভিল প্রশাসন, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং রাজউকই যথেষ্ট। আমরা এলাকার নিরাপত্তা ও অন্যান্য বিষয়ের স্বার্থে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ অনেকের সাহায্য নিতে পারি। কিন্তু ইমারতটি ভেঙে ফেলতে বাইরের অন্য কোনো সংস্থার প্রয়োজন হবে না।” তিনি বলেন, ভবনটি ভাঙার জন্য যে পদ্ধতির কথা পত্র-পত্রিকায় লেখা হয়েছে, তা ‘সঠিকভাবে আসেনি’। ডিনামাইট ব্যবহারের যে কথা বলা হয়েছে, তা ‘বোমা মেরে বিল্ডিং ভেঙে ফেলার’ মত কোনো বিষয় নয়। “এটা ইমারত ভেঙে ফেলার একটা কৌশল। এটা প্রযুক্তি, কোনোভাবেই সেটা প্রচলিত অর্থে যে ডিনামাইট বোমা- সেটা নয়।” ২৪ এপ্রিলের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংবাদিকদের সামনে প্রকাশ করা হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “আধুনিক প্রযুক্তিতে এমনসব কৌশল সৃষ্টি করা হয়েছে যে ভবনটি ভাঙতে বেশি সময় লাগবে না, এক ঘণ্টার ভেতরে স্তূপ আকারে ওই জায়গায় বসে পড়বে।” তিনি বলেন, পুরো ভবন ভেঙে স্তূপ সরিয়ে ফেলাসহ সব কাজ সেরে তিন মাসের মধ্যে জায়গাটা পরিষ্কার করে ফেলা হবে। “কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। যে যেখানে বেআইনি ইমারত বা স্থাপনা নির্মাণ করবেন তাদের সকলকেই আমরা আইনের আওতায় আনতে চাই, যাতে কেউ বলতে না পারে- ‘আমি ইমারত নির্মাণ করে ফেলেছি এখন আর কিছু করার নেই’। আমরা আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার স্বার্থেই পদক্ষেপ নিতে চাই।”

ইবি’তে উচ্চ শিক্ষায় ব্লুম’স ট্যাক্সনোমি অব লার্নিং অবজেকটিভ’স  শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর আই কিউ এসি’র সেমিনার কক্ষে বুধবার “উচ্চ শিক্ষায় ব্লুম’স ট্যাক্সনোমি অব লার্নিং অবজেকটিভ’স” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ইন্সটিটিউশনাল কোয়ালিটি এস্যুরেন্স সেল (আইকিউএসি) এর আয়োজনে দিনব্যাপী সেমিনারে (আইকিউএসি)-এর পরিচালক প্রফেসর ড. কে. এম. আব্দুস ছোবহান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হবে জ্ঞানের অধিকারী। পৃথিবীকে যারা গতিশীল করে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে গেছে তারা সকলেই কোন না কোন ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি বলেন, নিজের দিকে তাকিয়ে নিজেকে ভাংচুর করে নতুনভাবে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি আরো বলেন, বিদ্যমান জ্ঞান আহরন করে নতুন জ্ঞানের সৃষ্টি করা একজন শিক্ষকের নৈতিক দায়িত্ব। তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে যার কাছে যত বেশি তথ্য থাকবে সে তত বেশি সমৃদ্ধ ও আধুনিক। তিনি বলেন, জ্ঞান বিতরনের ও গ্রহনের জন্য অর্থবহ পরিবেশ গড়ে না তুললে সেই জ্ঞান বিতরন অর্থবহ হয় না। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রো ভাইস-চ্যান্সেলর  প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, কারিকুলাম ছাড়া কোন বিষয় হয় না। প্রত্যেকটি বিষয়ের একটি কারিকুলাম থাকতে হবে। তিনি বলেন, জানার কোন সীমা পরিসীমা নেই তাই মহাবিশ্বের সবকিছু এক জনমে জানা সম্ভব নয়। তবে জানবার নতুন জ্ঞান আহরন করবার চেষ্টা থাকতে হবে। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে উন্মুক্ত শিক্ষা চর্চার ক্ষেত্র। তাই আমাদের শিক্ষকদের মুল কাজটি হবে মানসম্মত শিক্ষা গ্রহন ও বিতরণ করা। অপর বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, আজ এই কর্মশালার মাধ্যমে আমাদের শিক্ষকের উপকৃত হলে আমাদের ছাত্র-ছাত্রীরা তথা বিশ্ববিদ্যালয় উপকৃত হবে। সেমিনারের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্সটিটিউশনাল কোয়ালিটি এস্যুরেন্স সেল (আইকিউএসি)-এর পরিচালক প্রফেসর ড. কে.এম.আব্দুস ছোবহান। সেমিনারে রিসোর্স পারর্সন হিসাবে বক্তব্য রাখেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস-চ্যান্সেলর ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের কোয়ালিটি এস্যুরেন্স ইউনিটের সাবেক প্রধান প্রফেসর সঞ্জয় কে অধিকারী। সেমিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের নির্বাচিত শিক্ষকেরা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের ইন্তেকাল

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া খোদাদাদ খান সড়ক নিবাসী রফিকুল ইসলাম বাবলু ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি—-রাজেউন)। মরহুমের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে- মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে তিনি অসুস্থ হলে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। মরহুম বাবলু মেধা কুষ্টিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। শহরের এনএস রোডের কুষ্টিয়া জামে মসজিদ মার্কেটের সিটি ষ্টেশনারীর স্বত্বাধিকারী ছিলেন। ঐ দিন বাদ এশা কুষ্টিয়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে পৌর গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। মরহুম বাবলুর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন মেধা কুষ্টিয়ার সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সালাহউদ্দিন। তিনি মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন সেই সাথে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।

ফরিদপুরে বিস্ফোরক মামলায় ২ জঙ্গির যাবজ্জীবন

ঢাকা অফিস ॥ ফরিদপুরে বিস্ফোরক আইনে মামলায় আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য বলে পরিচয় দেওয়া দুইজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ-ের রায় দিয়েছে আদালত। ফরিদপুরের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. মতিয়ার রহমান বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া আদালত তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। জরিমানা না দিলে তাদের আরও তিন মাস করে বিনাশ্রম কারাভোগ করতে হবে। সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন জেলার ভাঙ্গা উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রমের নাহিদ মোল্লা (২২) ও সদরপুর উপজেলার দক্ষিণ আলমনগর গ্রামের ফরিদ মৃধা (৩৫)। রায় ঘোষণার সময় তারা আদালতের কাঠগড়ায় ছিলেন। ফরিদপুরের পিপি বাবু মৃধা মামলার নথির বরাতে জানান, ২০১৬ সালের ২৬ অগাস্ট নাহিদকে ভাঙ্গা বাজার এলাকা থেকে হাতবোমা ও জিহাদি বইসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার দেওয়া তথ্যমতে ওই দিন রাতে সদরপুরের আলমনগরের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ফরিদ মৃধাকে। ফরিদের কাছ থেকে পুলিশ উদ্ধার করে একটি পিস্তল, শুটার গান, চারটি গুলিভর্তি ম্যাগজিন, ১২টি হাত বোমা ও বোমা তৈরির সরমঞ্জাম। “তারা নিজেদের আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য বলে পরিচয় দেন। টিমের প্রধান হলেন ফরিদ মৃধা। ফরিদ অস্ত্র চালানো ও শারীরিক প্রশিক্ষণ দিতেন।” এ ঘটনায় ভাঙ্গা থানার এসআই গাজী সালাহউদ্দিন বাদী হয়ে বিস্ফোরক আইনে মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ দুইজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। পিপি বাবু বলেন, “সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে আদালত দুইজনকেই দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন দিয়েছে। এছাড়া তাদের ২০ হাজার টাকা করে জারিমানা এবং জরিমানা না দিলে আরও তিন মাস বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়ার রায় দেয় আদালত।”

 

মুজিবনগর দিবসের কর্মসূচীতে কুষ্টিয়া সাংগঠনিক কমান্ডের মুক্তিযোদ্ধারা

নিজ সংবাদ ॥ ১৭ই এপ্রিল ২০১৯। ১৯৭১ সালের এই দিনে তৎকালীন মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথ তলার ভবেরপাড়া গ্রামের এক আম্রকাননে শপথ নেন বাংলাদেশের প্রথম সরকার। দিনটি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসে স্মরনীয় এবং মুজিবনগর দিবস হিসেবে পরিচিত। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের কর্মসূচীতে অংশ নিয়েছে জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের বীরমুক্তিযোদ্ধারা। কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক , সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের নেতৃত্বে ২৫টি যাত্রীবাহি গাড়ীর বহর নিয়ে ছয়টি উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধারা মুজিবনগর দিবস সমাবেশে অংশ গ্রহণ করে। পরিবহন সহযোগীতায় ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান এবং সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী। গাড়ী বহরের তত্বাবধানে ছিলেন সাংগঠনিক কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, ডেপুটি কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সহকারী কমান্ডার মহসিন আলী মন্ডল, সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ, খোকসার সাবেক উপজেলা কমান্ডার ফজলুর রহমান, মনজিল হোসেন, কুমারখালির সাবেক উপজেলা কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম, মোক্তার হোসেন, মিরপুর উপজেলা কমান্ডের যুদ্ধাহত জহুরুল হক, শহিদুল ইসলাম, ভেড়ামারা কমান্ডের মাহবুবুর রহমান ও বৃহত্তর দৌলতপুর উপজেলা থেকে মোহাম্মদ আলী, কাওসার বিশ্বাস, আবু হায়াত, রফিকুল ইসলাম, নাজিম উদ্দিন, জালাল উদ্দিন, আতাউল গনি, ডাক্তার আ: সোবহান, শিক্ষক আলাউদ্দিন, ওমর আলী, মোর্শেদ আলম, আ: ওয়াহাব মোল্লা, ইউনুছ আলী, জিয়া উদ্দিন প্রমুখ মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দ। অন্যান্যদের মধ্যে অঅরও উপস্থিত ছিলেন আহসান হাবিব দুলাল, রবীন্দ্রনাথ সেন, শহিদুর রহমান, মহিদ্দিন, আবুল হোসেন, ডাক্তার মতিয়ার রহমান, সাইদুল ইসলাম সিরাজুল, আ: করিম, শহিদুল ইসলাম মনি, সার্জেন্ট অব: সোলাইমান হোসেন, সার্জেন্ট অব: আ: খালেক, নুরুজ্জামান, মকবুল হোসেন, জিল্লুর রহমান, আ: রাশেদ, নুরুল ইসলাম, খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা (ব্যাংকার), শহিদুর রহমান (সহিদ), আ: হাকিম, হাসিবুর রহমান, সাদেকুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, নজরুল ইসলাম, শেখ মনির উদ্দিন,  আ: মালেক, আবেদ আলী প্রমুখ সহ প্রায় নয় শত বীর মুক্তিযোদ্ধা। পরে কমান্ডার মানিক কুমার ঘোষ সঙ্গীয় মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে মুজিবনগর স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যাহ্ন ভোজে আপ্যায়িত করেন। তিনি সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে গাড়ী বহর নিয়ে কুষ্টিয়া প্রত্যাবর্তন করেন।

জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে কুমারখালীতে র‌্যালি ও  আলোচনা সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে কুষ্টিয়অর কুমারখালীতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স’র আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যারি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে এসে সমবেত হয়। র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন উপজেলা পর্যায়ে স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উদযাপন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান খান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। এ সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আকুল উদ্দিন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো: জালাল উদ্দিনসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসারসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা, প্রাইভেট হাসপাতালের পরিচালক ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। র‌্যালি শেষে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আকুল উদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য সেবা কমিটির সদস্য ও শিলাইদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: সালাহা উদ্দিন খান তারেক, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালটেন্ট (শিশু) ডা: মাহাবুবা তাজমিলা, ডা: মানা সায়ন্তা ঘোষ। আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

যৌন হয়রানির সর্বোচ্চ শাস্তির আইন ফাঁসির দাবিতে ইবিতে মানববন্ধন

ইবি প্রতিনিধি ॥ চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের এক ছাত্রীকে চলন্ত বাসে যৌন হরয়ানির চেষ্টা ও নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্বদ্যিালয়ে ছাত্রীর শ্লীলতাহানি ও হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারন শিক্ষার্থীরা। বুধবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিবের পাদদেশে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন ফেরদৌসুর রহমান সোহাগ, শাহজালাল ইসলাম সোহাগ, শামিমুল ইসলাম সুমন, জি.কে সাদিক ও তানজিমুল ইসলাম পিয়াস প্রমুখ। বক্তারা বলেন, ‘যৌন হরয়ানির সব্বোর্চ শাস্তির আইন হতে হবে ফাঁসি। তাহলেই ঘটনাগুলোর পুনরাবৃত্তি ঘটবে না।’ উল্লেখ্য, গত ১২ এপ্রিল চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের এক ছাত্রীকে চলন্ত বাসে যৌন হরয়ানির চেষ্টা করা হয়। জীবন বাঁচাতে চলন্ত বাস থেকে লাফ দেয় ওই শিক্ষার্থী। এর কয়েকদিন পরেই নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি ও হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনায় হৃদয় নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কালুখালীতে জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উদযাপনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী

ফজলুল হক ॥ গতকাল বুধবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আয়োজনে জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ ২০১৯ উদযাপনে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের সামনে থেকে বিশাল একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে র‌্যালীটি সোনাপুর বাসষ্ট্যান্ড মোড় সহ আশপাশ রাস্তা প্রদক্ষিণ করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে এসে সমাপ্ত করে। র‌্যালী পরবর্তী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের অডিটোরিয়ামে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ডাঃ শান মোহাম্মদ ইরানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ। অন্যান্যের মধ্যে  আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ খোন্দকার আবু জালাল, মেডিকেল অফিসার আঃ রহমান, এছাড়াও সিনিয়র স্টাফ নার্স মল্লিকা বানু এছাড়াও স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুশিল কুমার রাহা, সেনেটারি ইন্সপেক্টর মোঃ তালেবুর রহমান, ইপিআই টেকনোলজিষ্ট শম্ভুনাথ দেবনাথ সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। র‌্যালীতে বিভিন্ন স্বাস্থ্য কর্মী ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

দৌলতপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ১৭এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনা সভার অয়োজন করা হয়। উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী, দৌলতপুর প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. কাজী নজরুল ইসলাম ও দৌলতপুর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান। মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভায় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ ও আমন্ত্রিত সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের রায়

চৌড়হাসের ফল ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় খালাতো ভাইয়ের মৃত্যুদন্ড

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর থানায় ফল ব্যবসায়ী রবিউল ইসলামকে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় নূর আলম (৩০) নামে এক আসামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ  বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী এক জনাকীর্ণ আদালতে আসামীর উপস্থিতিতে দন্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে আসামী নূর আলমকে এই মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রদান করেন। অভিযুক্ত নূর আলম মাদারীপুর  জেলার রাজৈর থানার শংকরদি মৃত আবুল হাছেনের ছেলে। নিহত ফল ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম ও অভিযুক্ত আসামী নূর আলম সম্পর্কে আপন খালাতো ভাই। চৌড়হাঁস মোড় এলাকায় “মামা ভাগ্নে” নামে একটি ফলের দোকানে এক সাথে ব্যবসা করতো তারা। মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২০ জুন কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাঁস মোড় এলাকায় “মামা ভাগ্নে” নামে একটি ফলের দোকানে খালাতো দুভাইয়ের ব্যবসায়ীক দ্বন্দ্বে নূর আলম অপর ব্যবসায়ী রবিউল ইসলামকে হত্যা করে লাশ গুম করতে ফলের দোকানের পিছনে থাকা একটি ড্রামের ভিতর লুকিয়ে রাখে। পরে রবিউলকে খোঁজা- খোজি শুরু হলে স্থানীয়রা মানুষ পচা গন্ধ পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ওই ফলের দোকানের পিছনে থাকা একটি ড্রামের ভিতর থেকে তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বন্যা আক্তার বাদী হয়ে নূর আলমকে প্রধান আসামী করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। লাশ উদ্ধারের পর এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশ নূর আলমকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করে। পুলিশের দেয়া তদন্ত প্রতিবেদনের পরে সেসন ২৩২/১৮নং মামলায় নথিভূক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। রাষ্ট্র পক্ষের একাধিক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন ও উভয় পক্ষের দীর্ঘ শুনানি শেষে আসামী নুর আলমের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমানীত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত এই রায় প্রদান করেন। একই সাথে এই ঘটনায় জড়িত না থাকায় টিপু মন্ডল নামে অপর একজনকে মামলা থেকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী কুষ্টিয়া জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাড.অনুপ কুমার নন্দী জানান, পুলিশের দেয়া তদন্ত প্রতিবেদনে বিজ্ঞ আদালত দীর্ঘ স্বাক্ষ্য শুনানী শেষে আসামির বিরুদ্ধে খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামির মৃত্যুদন্ডাদেশ দিয়েছেন। আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাড. মীর আরশেদ আলী।

যুব স্পোর্টিং ক্লাবের আয়োজনে এম এ শামীম আরজুর স্মরণে দোয়া মাহফিল

কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও যুব স্পোর্টিং ক্লাবের প্রয়াত সভাপতি এম এ শামীম আরজুর স্মরণে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। আগামীকাল শুক্রবার বাদ আছর কুষ্টিয়া শহরের কোর্টপাড়াস্থ যুব স্পোর্টিং ক্লাব প্রাঙ্গনে এ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উক্ত দোয়া মাহফিলে যুব স্পোর্টিং ক্লাবের পক্ষ থেকে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাড. জাহাঙ্গীর আলম গালীব বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

 

কুমারখালীতে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। বক্তব্য রাখেন, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ নূর-এ আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা: আকুল উদ্দিন, উপজেলা কৃষি অফিসার দেবাশীষ কুমার দাস, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) শুভ্র প্রকাশ দাস, মুক্তিযোদ্ধা সামছুল আলম পিন্টু, মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন। আলোচনা সভায় যুদ্ধাবস্থায় মুক্তিকামী মানুষের নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবর্তমানে মুজিবনগর সরকার গঠনের মধ্যদিয়ে মুক্তিযোদ্ধাসহ সর্বস্তরের মানুষকে সুসংগঠিত করার অন্যতম মহান নেতাদের স্মরণ করেন বক্তারা।

নুসরাত হত্যায় গ্রেপ্তার কামরুন নাহার মণি রিমান্ডে

ঢাকা অফিস ॥ ফেনীর সোনাগাজীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার মামলায় তার সহপাঠী আলিম পরীক্ষার্থী কামরুন নাহার মণিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদলত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক মো. শাহ আলম গতকাল বুধবার কামরুন নাহার মণিকে ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক শরাফউদ্দিন আহমেদ পাঁচ দিনের হেফাজতে নিয়ে আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন বলে আদালত পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়। নুসরাতের মত কামরুন নাহার মণিও এবার সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা থেকে আলিম পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। ৬ এপ্রিল পরীক্ষা চলাকালে মাদ্রাসার একটি ভবনের ছাদে যে পাঁচজন নুসরাতের গায়ে আগুন দিয়েছিল, তাদের মধ্যে মণিও ছিলেন বলে পিবিআইয়ের ভাষ্য। ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ এনেছিলেন নুসরাত। গত ২৬ মার্চ নুসরাতের মা শিরীনা আক্তার মামলা করার পরদিন সিরাজকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। ওই মামলা প্রত্যাহার না করায় পরীক্ষার হল থেকে ছাদে ডেকে নিয়ে নুসরাতের গায়ে আগুন দেয় বোরখা পরা কয়েকজন। আগুনে শরীরের ৮৫ শতাংশ পুড়ে যাওয়া নুসরাত ১০ এপ্রিল রাতে মারা যান। পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার গত সোমবার বলেন, “আগুন দেওয়ার সময় প্রথমে চারজনের নাম পাওয়া গেলেও তদন্তকালে নিশ্চিত হওয়া গেছে পাঁচজন ছিল। এই পাঁচজনের মধ্যে দুইজন নারী।” ওই দুই নারীর মধ্যে অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার ভায়রার মেয়ে উম্মে সুলতানা পপিকে আগেই সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়েছিল পিবিআই। এদিকে এ মামলার এজহারভুক্ত দুই আসামি নূর উদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন শামীম আদালতে যে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন, তার ভিত্তিতে মো. শরীফুল ইসলাম ওরফে শরীফ নামে আরও একজনকে পিবিআই গ্রেপ্তার করেছে। মঙ্গলবার রাতে ঢাকার কামরাঙ্গীরচর এলাকা থেকে শরীফকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও তাকে আদালতে তোলার আগে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করতে চাননি পিবিআইয়ের ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার।

সুন্দর বাংলাদেশ দিতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আমরা কেন এই হিংসা, প্রতিহিংসা, ক্ষোভ, হত্যাযজ্ঞের মধ্যে নেমে পড়েছি? কেন আমাদের রাফিকে (নুসরাত জাহান) এভাবে নির্যাতিত হয়ে মরতে হয়? কেন? আমি জানি না। এই উত্তর আমাদের রাজনীতিবিদদেরই দেওয়ার কথা। কিন্তু আমরা ব্যর্থ হয়েছি, সুন্দর বাংলাদেশ দিতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি। ব্যর্থ হয়েছি তোমাদের নিরাপত্তা দিতে।’ গতকাল বুধবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপে¬ামা ইঞ্জিনিয়ার্সে মির্জা ফখরুল ইসলাম এ মন্তব্য করেন। জিয়া শিশু একাডেমি আয়োজিত দশম জাতীয় শিশুশিল্পী প্রতিযোগিতা ‘শাপলাকুঁড়ি’ উপলক্ষে এক পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার উত্তর দিতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি।’ এ সময় শিশুদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘তারপরও আমি স্বপ্ন দেখি। আমি স্বপ্ন দেখি, এই বাংলাদেশ একটা সুন্দর ও সমৃদ্ধির দেশ হবে। আমি স্বপ্ন দেখি, এই শিশুরা নির্ভয়ে বিচরণ করবে। কোথায়ও তাদের ওপরে কখনো আঘাত আসবে না। আমাদের মেয়েদের পুড়িয়ে মারবে না। এই স্বপ্নগুলো আমরা দেখি।’ নিজের শৈশবের স্মৃতিচারণ করে শিশুদের উদ্দেশে ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘প্রতিমুহূর্তে আমরা যান্ত্রিক হয়ে যাচ্ছি। যন্ত্রের কাছে চলে যাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তে আমরা প্রযুক্তির কাছে হেরে যাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘আমরা ১৯৭১ সালে একটি মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম। কেন করেছিলাম? আমরা সবাই বইয়ে পড়ি স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলাম। তাই না? কিন্তু সেই স্বাধীনতাযুদ্ধ কেন করেছিলাম? তখন আমরা যে দেশে বাস করছিলাম, সেই দেশটা নিজেদের দেশ বলে মনে হচ্ছিল না। মনে হচ্ছিল, কেউ বুঝি আমাদের বুকের ওপর চেপে বসে আছে। আমরা নিশ্বাস নিতে পারতাম না। এটা থেকে আমরা বের হয়ে আসতে চেয়েছিলাম, সে কারণে আমরা যুদ্ধ করেছিলাম।’ বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে আমাদের যাঁরা নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, তাঁরা অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় মানুষ। কিন্তু যে মানুষটি স্বাধীনতা যুদ্ধের “ ঘোষণা” দিয়েছিলেন এবং নিজেই অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন, সেই মানুষটির নামেই জিয়া শিশু একাডেমি। তোমরা নামটি শুনেছ। কিন্তু তোমরা জানো না। কারণ, তোমাদের বই থেকে আস্তে আস্তে নামটি মুছে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু নামটি বারবার আমরা বলতে চাই। কারণ, যে মানুষটি স্বাধীন মুক্ত বাতাসের স্বপ্ন দেখিয়েছেন, এই কথাটি আজকে ভুলে গেলে চলবে না।’ পরে আবৃত্তি, অভিনয়, সংগীত, নৃত্যের ১৩টি একক ও তিনটি দলীয় বিষয়ে ক-খ বিভাগে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানপ্রাপ্ত ৮৫ জন খুদে শিল্পীকে ‘শাপলাকুঁড়ি-২০১৮’ পুরস্কার ও সনদ প্রদান করা হয়। পরে পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পীরা মনোজ্ঞ সংগীত পরিবেশন করে।

আয়োজক সংগঠনের মহাপরিচালক এম হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এমাজউদ্দীন আহমদ, ১০ম জাতীয় শিশুশিল্পী প্রতিযোগিতার বিচারক চলচ্চিত্রকার ছটকু আহমেদ, অভিনেত্রী রিনা খান, শিল্পী শফি মন্ডল, শিল্পী জিনাত রেহানা প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সম্মুখে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে এ মহান নেতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবেও শেখ হাসিনা দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে তাঁর দলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আরেকবার পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ ও কৃষক লীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের নেতারা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। ১৯৭১ সালে ১৭ এপ্রিল দেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান পালন উপলক্ষে গতকাল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হয়। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে নিরস্ত্র বাঙালীদের ওপর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বর্বর গণহত্যা চালানোর পর স্বাধীন বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠনের লক্ষ্যে ১৭ এপ্রিল আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলায় সমবেত হন। বৈদ্যনাথতলা ছিল মূলত একটি আমবাগান। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠনের পর এটির নাম পরিবর্তন করে মুজিবনগর রাখা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করা হয়। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে সৈয়দ নজরুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি করা হয়। তাজউদ্দিন আহমেদকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। খন্দকার মোশতাক আহমেদ, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলি ও এএইচএম কামরুজ্জামানকে মন্ত্রিপরিষদ সদস্য বানানো হয়। এই অস্থায়ী সরকারের সফল নেতৃত্বে ১৬ ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জিত হয়।