ভারত চলতি মাসেই আরেকটি হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে – পাকিস্তান

ঢাকা অফিস ॥ ভারত চলতি মাসেই পাকিস্তানে আরেকটি হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ সম্পর্কে ‘নির্ভরযোগ্য গোয়েন্দা তথ্য’ও পাকিস্তান পেয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। রোববার মুলতানে সাংবাদিকদেরকে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী কুরেশি বলেন, ভারত নতুন করে পাকিস্তানে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে সে ব্যাপারে তাদের কাছে পাকা খবর আছে। তিনি বলেন, “আমাদের কাছে বিশ্বাসযোগ্য গোয়েন্দা তথ্য আছে। সে তথ্যানুযায়ী, এ হামলা হতে পারে ১৬ থেকে ২০ এপ্রিলের মধ্যে।” পাকিস্তান তাদের উদ্বেগের কথা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ৫ স্থায়ী সদস্যকে জানিয়েছে বলেও জানান কুরেশি। কিন্তু পাকিস্তানের কাছে কী তথ্য রয়েছে, কী করেই বা তিনি এতটা নিশ্চিত হয়ে হামলার সময় পর্যন্ত বলে দিচ্ছেন- সে সম্পর্কে বিস্তারিত আর কিছু বলেননি কুরেশি। তবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশবাসীর সঙ্গে এ তথ্য শেয়ার করতে চান বলে জানিয়েছেন তিনি। পাকিস্তানের এ দাবির ব্যাপারে ভারতের পররাষ্ট্রন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। গত ২৪ ফেব্র“য়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদের গাড়িবোমা হামলার পর পারমাণবিক শক্তিধর দুই প্রতিবেশীর মধ্যে যে ভয়াবহ উত্তেজনা দেখা গিয়েছিল, দিন দিন তা থিতিয়ে এলেও এর রেশ এখনও আছে। এর মধ্যেই কুরেশি ফের ভারতের হামলার আশঙ্কার কথা বললেন। পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার প্রতিক্রিয়ায় ২৭ ফেব্র“য়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে একটি জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবিরে হামলার দাবি করে ভারতীয় বিমান বাহিনী। পরদিন পাকিস্তান ভারতের একটি বিমানকে ভূপাতিত করে এর পাইলটকে আটকও করেছিল। ইসলামাবাদ পরে ওই পাইলটকে ছেড়ে দিলে উত্তেজনা অনেকখানিই প্রশমিত হয়। এখন ভারতে নির্বাচনের আগে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) পাকিস্তানে সেই হামলার কৃতিত্ব নিয়ে এবং ভারতীয় নাগরিকদের জাতীয়তাবাদী চেতনা কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে জেতার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ পাকিস্তানের। আর সে কারণেই এ সময়টিতে আরেকটি নতুন হামলার আশঙ্কায় আছে পাকিস্তান। বিজেপি সরকার পাক এফ-১৬ জঙ্গি বিমান গুলি করে নামানোর দাবি করে যুদ্ধের জিগির জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ করেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ফেব্র“য়ারিতে মুখোমুখি অবস্থানের সময় পাকিস্তানের ওই জঙ্গিবিমান ভূপাতিত করার নয়া দিল্লির দাবির প্রতিক্রিয়ায় ইমরান এ মন্তব্য করেন। এরপরই ফের যুদ্ধের আবহ সৃষ্টির এ নতুন আশঙ্কা প্রকাশ করলেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মালয়েশিয়ায় বাস দুর্ঘটনায় পাঁচ বাংলাদেশিসহ নিহত ১১

ঢাকা অফিস ॥ মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে শ্রমিক বহনকারী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নালায় পড়ে পাঁচ বাংলাদেশিসহ ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন ৩৩ জন। রোববার রাত ১১টার দিকে সেপাংয়ে কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে মালয়েশিয়ার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। নিউ স্ট্রেইটস টাইমস জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তিন নারীসহ দশজনই বিদেশি কর্মী। তাদের মধ্যে পাঁচজন বাংলাদেশি, তিনজন ইন্দোনেশীয় এবং দুজন নেপালি। নিহত অন্যজন মালয়েশিয়ার নাগরিক, তিনি ওই বাসের চালক ছিলেন। নিহত বাংলাদেশিরা হলেন- মো. রাজিব মুনশী (২৬), মো. সোহেল (২৪), মহিন (৩৭), আল আমিন (২৫), গোলাম মোস্তফা (২২)। আহতদের স্থানীয় তিনটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে সাতজন বাংলাদেশি বলে জানিয়েছে নিউ স্ট্রেইটস টাইমস। তাদের মধ্যে মো. নাজমুল হক (২১), মো. রজবুল ইসলাম (৪৩), ইমরান হোসাইন (২১) সেরডাং হাসপাতালে এবং জাহিদ হাসান (২১), সামিম আলী (৩২), মোহাম্মদ ইউনূস (২৭) ও মো. রাকিব (২৪) পুত্রাজায়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যমগুলো লিখেছে, কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরের এমএএস কার্গো কমপ্লেক্সের ৪৩ জন কর্মী ছিলেন ওই বাসে। রাতের পালার ডিউটির জন্য বিভিন্ন হোস্টেল থেকে তাদের নিয়ে কার্গো কমপ্লেক্সে যাওয়ার সময় বাসটি দুর্ঘটনায় পড়ে। চাকা পিছলে গিয়ে বাসের সামনের অংশ রস্তার পাশের গভীর নালায় পড়ে যায়। পুলিশ ও এমএএস কার্গো কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে স্ট্রেইটস টাইমস জানায়, ওই বাসের মালয়েশীয় চালক এবং আটজন বিদেশি শ্রমিক ঘটনাস্থলেই মারা যান। আহতদের হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়। জেলা পুলিশের সহকারী কমিশনার জুলফিকার আদমশাহ বলেন, “আমরা দুর্ঘটনার কারণ তদন্ত করে দেখছি। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিলেন।”ফায়ার অ্যান্ড রেসকিউ বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ ফাদিল সালেহ বলেন, তারা ওই দুর্ঘটনার খবর পান রাত সোয়া ১১টার দিকে। আরোহীরা ভেতরে আটকা পড়েছিলেন। বাসের কয়েকটি অংশ কেটে তাদের বের করতে প্রায় এক ঘণ্টা সময় লেগে যায়।

 

তিন মাসে মন্ত্রিসভার ৩৬ সিদ্ধান্তের ২৪টি বাস্তবায়ন

ঢাকা অফিস ॥ চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসে মন্ত্রিসভায় নেওয়া সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের হার গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এক দশমিক ৫৮ শতাংশ পয়েন্ট কমেছে বলে মন্ত্রিসভাকে জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত  বৈঠকে এ বছরের প্রথম ত্রৈমাসিক অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে মার্চ মাসের প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান, গত জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত পাঁচটি মন্ত্রিসভা বৈঠকে ৩৬টি সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যে বাস্তবায়ন হয়েছে ২৪টির, ১২টি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নাধীন। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের হার ৬৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ। গত বছরের একই সময়ে সাতটি মন্ত্রিসভা বৈঠক হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ওই সময়ে সিদ্ধান্ত হয় ৬৩টি, যার মধ্যে বাস্তবায়িত হয়েছে ৪৩টি। আর ২০টি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নাধীন ছিল। বাস্তবায়নের হার ছিল ৬৮ দশমিক ২৫ শতাংশ। শফিউল জানান, গত জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মন্ত্রিসভা বৈঠকে একটি চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), দুইটি নীতি বা কর্মকৌশল অনুমোদিত হয়েছে। আর সংসদে পাস হয়েছে পাঁচটি আইন। ২০১৮ সালের একই সময়ে মন্ত্রিসভা বৈঠকে চারটি চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক (এমওইউ), তিনটি নীতি বা কর্মকৌশল অনুমোদিত হয়েছিল। ওই সময়ে সংসদে ১৫টি আইন পাস হয়।

 

কালুখালীর রতনদিয়া ইউপিতে ভিজিডির চাউল বিতরণ

ফজলুল হক ॥ গতকাল সোমবার রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার ১ নং রতনদিয়া ইউপিতে ভিজিডির চাউল বিতরণ করা হয়েছে। সকাল ১১টায় ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর থেকে ২৪৮টি কার্ডধারীদের মাঝে একসাথে ২মাসের জানুয়ারী ও ফেব্র“য়ারী ৩০ কেজি করে ৬০ কেজি চাউল বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার। মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তহমিদা খানম, ট্যাগ অফিসার মোল্লা সাইফুল ইসলাম, রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা এছাড়াও উপজেলা প্রোগ্রামার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের সহকারী কর্মকর্তা সুবর্ণা রাণী সরকার, রতনদিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি খোন্দকার আনিসুল হক বাবু, সাধারন সম্পাদক আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ, ইউপি সদস্য মাসুদুর রহমান হিটুসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি প্রকাশ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ঢাকা অফিস ॥ আগামী ২১ এপ্রিল দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র লাইলাতুল বরাত বা শবে বরাত পালিত হবে। শবে বরাতের ১৫ দিন পরে শুরু হয় রমজান মাস। সে হিসেবে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে রমজান শুরু হতে পারে ৭ মে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বরাবরের মতো এ বছরও সেহরি ও ইফতারের সূচি প্রকাশ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর মুফতি ওয়ালীয়র রহমান খান, মুহাদ্দিস মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ এবং দীনী দাওয়াত ও সংস্কৃতি বিভাগ এর পরিচালক মো. আনিছুর রহমান সরকার স্বাক্ষরিত এই সময়সূচিতে ধর্মীয় নিয়ম কানুনগুলো সতর্কতার সঙ্গে প্রতিফলিত হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রণীত এই রোজা ও সেহরির সময়সূচি সরকারিভাবে গণ্য এবং দেশের সব মসজিদে এই সময়সূচি অনুসারে রমজান মাসে আযান দেওয়া হয়ে থাকে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, সেহরির শেষ সময় সতর্কতামূলকভাবে সুবহে সাদিকের ৩ মিনিট আগে ধরা হয়েছে। ফজরের নামাজের ওয়াক্তের শুরু সুবহে সাদিকের ৩ মিনিট পর রাখা হয়েছে। তাই সেহরির সতর্কতামূলক শেষ সময়ের ৬ মিনিট পর ফজরের আযান দিতে হবে। অন্যদিকে, সূর্যাস্তের পর সতর্কতামূলকভাবে ৩ মিনিট বাড়িয়ে ইফতারের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। সূচি অনুযায়ী, আগামি ৬ মে রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেলে ওই রাতে সেহরি খেয়ে ৭ মে মঙ্গলবার থেকে রোজা রাখতে হবে। ওইদিন সেহরির শেষ সময় হবে রাত ৩টা ৫২ মিনিটে আর ইফতারের সময় হবে সন্ধ্যা ৬টা ৩৪ মিনিটে। রোজা শুরু হবে বৈশাখ মাসের ২৪ তারিখে। ৩০ রমজান হিসেবে চলবে জ্যৈষ্ঠ মাসের ২২ তারিখ পর্যন্ত। রমজান মাস পূর্ণ ৩০ দিনের হলে অর্থাৎ রোজা ৩০টি হলে ঈদুল ফিতর আগামি ৬ জুন হওয়ার কথা রয়েছে।

দেশে এখন গণতন্ত্র নেই – দুদু

ঢাকা  অফিস ॥ খালেদা জিয়া প্যারোলের আবেদন করলে মুক্তির বিষয়টি বিবেচনা করা হবে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, আপনার সরকার যদি পদত্যাগপত্র দেয়, আমরা ভেবে দেখব আপনাদের শাস্তি জেলে হবে না জেলের বাইরে হবে। গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী চালক দলের উদ্যোগে ‘গণতন্ত্র: আজকের বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। শামসুজ্জামান দুদু বলেন, একসময় বাংলাদেশের গণতন্ত্র ছিলো, কিন্তু এখন বাংলাদেশে গণতন্ত্র আছে, এটা দাবি করা যাবে না। দেশে এখন গণতন্ত্র নাই, গণতন্ত্রকে কবর দেওয়া হয়েছে। যারা ছাত্র রাজনীতি করেন তারা জানেন গণতন্ত্রের কিছু শর্ত থাকে। তার মধ্যে একটি শর্ত হলোÑজনগণের ভোটের অধিকার, সে অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশনকে কটাক্ষ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, নির্বাচনের জন্য একটি নির্বাচন কমিশন আছে কিন্তু সেই কমিশনে বসে আছে গোপাল ভাড়। সরকারের কড়া সমালোচনা করে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, প্রশাসনের এমন ন্যাক্কারজনক চরিত্র গত ৪৭ বছরে আমরা লক্ষ্য করিনি। প্রশাসনের ডিসি-এসপি-ইউএনও মিলে রাতে ঘরে ঘরে গিয়ে জনগণকে নির্বাচন কেন্দ্রে যেতে নিষেধ করে এবং রাতেই ভোট শেষ করে দেয়। আর নির্বাচন কমিশন বলে, ইভিএম থাকলে রাতে নির্বাচন হতো না, দিনে হতো। জিয়াউর রহমানের মতো নেতা বাংলাদেশে শতাব্দীতে আর একটা জন্মাবে কিনা সন্দেহ আছে বলেও মন্তব্য করেন শামসুজ্জামান দুদু। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন কবিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বি এম শাজাহানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দিন মামুন, কৃষকদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য লায়ন মিয়া মোঃ আনোয়ার, কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

 

আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ক্রিকেট ও ফুটবল  টুর্নামেন্ট উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ক্রিকেট ও ফুটবল  টুর্নামেন্ট উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ হল রুমে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সহসভাপতি জাইদুল আলম, সম্পাদক খন্দকার জিহাদী-ই-জুলফিকার টুটুল, কোষাধ্যক্ষ প্রভাষক আবু নাসির, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য এরশাদপুর একাডেমির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মীর কানজুল আরেফীন, আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের অবঃ শিক্ষক পূর্ণিমা রানী সাহা,  পৌর কাউন্সিলর কাজী আলী আজগর সাচ্চু, ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রোকন, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ইসলামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রকিবুস সালেহীন,  পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক, শিক্ষক প্রতাপ কুমার অধিকারী, জাতীয় এ্যাথলেট মিজানুল হক, ইউপি সদস্য হীরা লাল, প্রাক্তন খেলোয়াড় মীর আসাদুজ্জামান উজ্জ্বল, শেখ ওবাইদুল¬াহ জুয়েল, মেহেদী হাসান টগর, সেলিম রেজা, ইয়াসির আরাফাত সবুজ, শেখ গাউসুল কাওনাইন প্রমুখ।

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে

ঢাকা অফিস ॥ গ্যাসের মূল্য বাড়ানো হলে বড় বড় কারখানা বন্ধ হয়ে যাবে, কমে যাবে আমাদের রফতানির পরিমাণ। তাছাড়া ছোট ও মাঝারি কারখানার জন্য হবে মরার ওপর খাড়ার ঘা। আরও বিপদে পড়বে তারা। এর ফলে দেশের শিল্পায়ন, বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। গতকাল সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ লাভিঞ্জি হোটেলে বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজের (বিসিআই) নব-নির্বাচিত পরিচালনা পর্ষদের অভিষেক উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব মন্তব্য করেন সংগঠনটির সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজ। আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজ বলেন, মুনাফা করা সত্ত্বেও গ্যাস বিতরণ কোম্পানি তিতাস শিল্প ও আবাসিকখাতে ১০২ দশমিক ৮৫ শতাংশ বাড়ানো প্রস্তাব করেছে যা অগ্রহণযোগ্য। মূল্য বাড়ানোর পাশাপাশি তিতাস বিতরণ চার্জ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। তবে অনাবশ্যকভাবে গ্যাসের মূল্য বাড়ানো হলে শিল্পের উৎপাদন ব্যয় বাড়বে, এরফলে উৎপাদন পণ্যের দাম বাড়বে। তিনি বলেন, এতে বড় বড় কারখানা বন্ধ হয়ে যাবে, কমে যাবে দেশের রফতানি। এসএমই খাত ভয়াবহ বিপদের মুখে পড়বে। নেতিবাচক প্রভাব পড়বে দেশের শিল্পায়ন, বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের ওপর। বাধাগ্রস্ত হবে উন্নত হওয়ার ভিশন ২০৪১ ও এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে। বিসিআই সভাপতি বলেন, সরকারি-বেসরকারি প্রচেষ্টায় দেশের অর্থনীতি একটি শক্তিশালি অবস্থায় এসেছে। জাতীয় প্রবৃদ্ধি ৭ থেকে ৮ শতাংশের উপর স্থিতিশীল রয়েছে। তিনি আরও বলেন, জিডিপির এ ধারাকে অব্যাহত রাখা জরুরি। এজন্য ব্যক্তিখাত ও অবকাঠামো উন্নয়নে বিশেষ নজর দিতে হবে। তরুণ শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য ট্রেড লাইসেন্স ফি পাঁচবছর ৩০০ টাকা নির্ধারন করতে হবে। শিল্প প্রতিষ্ঠানে ৫ শতাংশ শারীরিক প্রতিবন্ধী ও তৃতীয় লিঙ্গের শ্রমিক নিয়োগ করলে বিশেষ কর সুবিধা দেওয়া হবে।

রিটার্ন দাখিল নিশ্চিত করতে পেশাজীবিদের সহায়তা চায় এনবিআর

ঢাকা অফিস ॥ সকল ইলেকট্রনিক কর সনাক্তকরণ নম্বরধারীর (ইটিআইএন) আয়কর বিবরণী (রিটার্ন) দাখিল নিশ্চিত করতে কর আইনজীবী ও সনদধারী হিসাববিদসহ সংশ্লিষ্ট পেশাজীবিদের সহযোগিতা চেয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া। তিনি বলেন, অনেক ইটিআইএনধারী রিটার্ন দাখিল করেন না। তারা যাতে রিটার্ন দাখিল করেন বা তাদেরকে করের আওতায় আনা যায়, সেক্ষেত্রে পেশাজীবিরা সহযোগিতা করতে পারেন। তাই সকল ইটিআইএনধারীর রিটার্ন দাখিল নিশ্চিত করতে আপনাদের সহযোগিতা চাই। বর্তমানে ৩৮ লাখ ইটিআইএনধারীর মধ্যে রিটার্ন দাখিল করেন মাত্র ২০ লাখ। গতকাল সোমবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় রাজস্ব ভবন সম্মেলনকক্ষে আসন্ন ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রাক-বাজেট আলোচনায় সভাপতির বক্তব্যে এনবিআর চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। আলোচনায় কর আইনজীবি, সিএন্ডএফ, শিপিং ফ্রেইট ফরওয়ার্ডিং, আইসিএমএবি, আইসিএবি, স্থপতি, ইন্সটিটিউট অব চাটার্ড সেক্রেটারিয়েটসহ সহায়ক পেশাজীবিদের সংগঠনসমূহ অংশগ্রহণ করে। মোশাররফ হোসেন ভূইয়া পেশাজীবিদের উদ্দেশ্য বলেন, আমাদের পক্ষ থেকে করজাল সম্প্রসারণের প্রানান্তকর চেষ্টা রয়েছে। কিন্তু পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় অনেক সময় আমরা সবকিছু করতে পারি না। সেক্ষেত্রে আপনারা আমাদের সহযোগিতা করতে পারেন। করজাল সম্প্রসারণে আপনারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। তিনি বলেন, দেশের অগ্রগতি-উন্নতির জন্য বেশি রাজস্ব প্রয়োজন। তাই যত বেশি রাজস্ব আহরণ করা যাবে,তত পরিকল্পিত উন্নয়ন করা সম্ভব হবে। সরকারের নির্ধারিত লক্ষ্য অনুযায়ী রাজস্ব আহরণে আপনারা করদাতাদের সঠিকভাবে কর পরিশোধের পরামর্শ দেবেন। প্রাক-বাজেট আলোচনায় ঢাকা ট্যাকসেস বার অ্যাসোসিয়েশন ব্যক্তিশ্রেণীর করমূক্ত আয়সীমা আড়াই লাখ টাকার পরিবর্তে তিন লাখ টাকা করা এবং ব্যক্তিশ্রেণীর নীট পরিসম্পদের মূল্যমান সাড়ে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত সারচার্জ আরোপের প্রস্তাব করে। সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বলা হয়,শিল্প স্থাপনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ১ বছরের মধ্যে আমদানি করার বিধান রয়েছে। সেটা সংশোধন করে আমদানি করার সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব করেন তারা।

আলমডাঙ্গা থানা মুজিব বাহিনির কমান্ডার কাজী কামালের মৃত্যুবার্ষিকী পালন

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ বিশিষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধা, আলমডাঙ্গা থানা মুজিব বাহিনির কমান্ডার কাজী কামালের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী ছিল গতকাল ৮ এপ্রিল। এবারে উপজেলার নানা প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা মুক্তিযোদ্ধাদের উপস্থিতিতে দোয়া মাহফিল ও আলোচনানুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে অতিবাহিত হলো খ্যাতিমান এ মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি ৭২ বছর বয়সে ২০১৫ সালে ৮ এপ্রিল ঢাকা ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। ওই দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান, আলমডাঙ্গা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার শফিউর রহমান জোয়ার্দ্দার সুলতান,  মুক্তিযোদ্ধা শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, মুক্তিযোদ্ধা মনি মাস্টার, আব্দুল কুদ্দুস, শওকত আলী, ফজলুল হক, ওমর ফারুক, ওয়াজেদ আলী মাস্টার, আলী আকবার, ফজলু মাস্টার, সোয়েব আলী, আবু সাঈদ, ডা. আব্দুল কাদের, এ্যাড. নাসির উদ্দিন মঞ্জু, শফি উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুণ, উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সালমুন আহমেদ ডন, মরহুমের ছেলে কাজী চন্দন,  মীর উজ্জল। দোয়া পরিচালনা করেন মওলানা আরিফুল ইসলাম।

শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাস পেয়ে এবতেদায়ি শিক্ষকদের আন্দোলন প্রত্যাহার

ঢাকা অফিস ॥ শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আশ্বাস পেয়ে অবস্থান কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছেন স্বতন্ত্র এবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর বাংলাদেশ স্বতন্ত্র এবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাজী ফয়েজুর রহমান এবং মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান জানান, শিক্ষামন্ত্রী এবতেদায়ি শিক্ষকদের বেতন কাঠামোর আওতায় নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। গত ১ এপ্রিল থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন এবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকরা। আট দিনের মাথায় মন্ত্রীর আশ্বাসে কর্মসূচি প্রত্যাহার করলেন তারা। সচিবালয় থেকে বেরিয়ে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র এবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শামছুল আলমবলেন, মন্ত্রীর আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন বাজেটের পর বেতন কাঠামোর আওতায় নেওয়া হবে। বাজেটের পর যদি আমাদের বেতন কাঠামোর আওতায় নেওয়া না হয় তাহলে বাজেটের পর পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে মোট ১৮ হাজার ১৮৯টি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা নিবন্ধন দেয় সরকার। এর মধ্যে ১৯৯৪ সালে এক হাজার ৫১৯টি মাদ্রাসাকে ৫০০ টাকা করে অনুদান দেওয়া শুরু হয়। একই সময় সমান সংখ্যক অনুদান পাওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় সরকারি করা হয়েছে। তবে এখনও সামান্য অনুদানেই চলছে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসাগুলো। স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক শামছুল আলম বলেন, ২০১৭ সালের জরিপে মাদ্রাসার সংখ্যা ১২ হাজারের মতো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনেক কমে গেছে। এসব মাদ্রাসার মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক কোডধারী অ্যাকাডেমিক স্বীকৃত পাওয়া মাদ্রাসার সংখ্যা ৬ হাজার ৯৯৮টি। ব্যানবেইসের হিসাবে, ইআইআইএন নম্বরধারী প্রতিষ্ঠান ৩ হাজার ৩৩৪টি।

ইবি’র সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ আলী এর মৃত্যুতে ভিসি’র শোক

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী এক শোকবার্তায় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিসের সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) মোহাম্মদ আলী ছিলেন একজন সৎ, দক্ষ, কর্মঠ, বন্ধুভাবাপন্ন ও প্রগতিশীল মানুষ। শোক বার্তায় তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। এছাড়া পৃথক পৃথক শোকবার্তায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান এবং ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা সাবেক পরীক্ষঅ নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তাঁরা মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। অপর এক শোকবার্তায় সাবেক পরীক্ষঅ নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) মোহাম্মদ আলী এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস. এম. আব্দুল লতিফ। তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।  উল্লেখ্য যে, সাবেক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) মোহাম্মদ আলী গতকাল দিবাগত রাতে পাবনায় নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাস্ট কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি নির্বাচিত হলেন সাইফুদ-দৌলা তরুণ

বাংলাদেশ মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাস্ট কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি নির্বাচন হলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতার আস্থাভাজন ও কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চেয়ারম্যান সাইফুদ-দৌলা তরুণ।

গত ৭ এপ্রিল বাংলাদেশ মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাস্ট কুষ্টিয়া জেলা শাখার কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কল্যাণ ট্রাস্ট (ডিষ্ট্রিক এন্ড সেশন জজ (অবঃ) ফখরুদ্দিন। সাইফুদ-দৌলা তরুণ ইতিমধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছেন। তিনি এই কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় আশা ব্যক্ত করেন যে, তিনি সাধারণ মানুষ নিয়ে কাজ করবেন। এছাড়াও কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছে লিলুফা আক্তার নাসরিন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঝিনাইদহে দুই নারীসহ তিন মাদক ব্যবসী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর ১৭৭ বোতল ফেন্সিডিলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে দুইজন নারী মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে কোটচাঁদপুর থানায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মির্জা সালাউদ্দীন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার সকাল ৭টায় কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবদালপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই নিরব হোসেন এবং এএসআই আজাদ হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার সোয়াদী গ্রামের বৈদ্যনাথ তলা নামক স্থান থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা থানার আকন্দবাড়িয়া গ্রামের হাসমত আলীর স্ত্রী জোহরা খাতুন (৪০), একই গ্রামের মৃত রেজাউল ইসলামের স্ত্রী শিউলী বেগম (৪৮) এবং মৃত রজব আলী মন্ডলের ছেলে ফজল মন্ডল (৫০)। তিনি আরো বলেন, এরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। এদের মধ্যে জহুরা বেগমের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী, চুয়াডাঙ্গা, জীবননগর থানায় ৭টি এবং শিউলী বেগমের নামে রাজবাড়ী থানায় ১টি মাদক মামলা রয়েছে। এ বিষয়ে এসআই নিরব হোসেন বলেন, এই তিন মাদক ব্যবসায়ী ভ্যানযোগে জীবননগর থেকে দুটি বড় ধরনের ব্যাগ ভর্তি মুড়ির মধ্যে ১৭৭ বোতল ফেন্সিডিল লুকিয়ে কোটচাঁদপুরের দিকে নিয়ে আসছিল। আমরা আগে থেকে জানতে পেরে এ মাদক ব্যবসায়ীদেরকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই।

 ॥ নাজীর আহ্মদ জীবন ॥

বারো শরীফÑতথা মোহাম্মদী

রাসূল (সাঃ) বলেছেন; “শাবান, আমার মাস, রমযান আল্লাহ।” আরও বলেছেন, “শাবান, রমজান ও রজব মাসের তুলনায় এমনই এক মাস যার শ্রেষ্ঠত্ব সম্পর্কে মানুষের জ্ঞান নাই।” কোরাণ ও হাদীসের বিভিন্ন বাণীকে আমরা কি তার গভীরতর তাৎপর্যের অর্থে নিব নাকি আক্ষরিক অর্থে গ্রহণ করবো তার উপর  অনেক কিছু নির্ভর করে। আল¬ামা ড. ইকবাল বলেছেন, “আধ্যাত্মিকতা হচ্ছে ধর্মের মূল বুনিয়াদ। মানুষ যখন তার আধ্যাত্মিকতাকে হারায় তখন তার মৃত্যু ঘটে।” জানতে হবে এত মাস থাকতে কেন আল¬াহ এ মাসকে তার শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি মানুষের ভাগ্য বন্টনের জন্য মুক্তির রজনী বলে ঘোষণা দিলেন। কেন এ মাসের ১৬Ñই শাবান, সোমবার হতে বারো শরীফের মহান ইমাম হযরত শাহ্ সূফী মীর  মাস্উদ হেলাল (রঃ) কে “বারো শরীফ তথা মোহাম্মদী তরীকা” প্রচারের নির্দেশ দেয়া হলো। এ সব জ্ঞান দিয়ে চিন্তার সময় এসেছে।

আল্লাহর এ সৃষ্টি জগৎ তার এক গোপন প্রেমের এক প্রকাশ্যরূপ। মানুষ তার সৃষ্টি রহস্যের মূল। আর সব রহস্যের মূল হলেন মানব শ্রেষ্ঠ; প্রেমিক শ্রেষ্ঠ হযরত মোহাম্মদ (সাঃ)। মোহাম্মদ (সাঃ) কে জানার শেষ নেই। বিভিন্ন সময়ে  বিভিন্ন জগতে, বিভিন্ন রূপে প্রকাশিত ও বিকশিত হয়ে চলেছেন। এ এক অব্যক্ত রহস্য ও জ্ঞান। তাই বারো শরীফের ইমাম (রঃ) বলেছিলেন Ñ “মোহাম্মদ (সাঃ) যে কি জিনিস তা যদি জানতে চাও তো আল্লাহর ওলীকে জিজ্ঞাসা কর।”

তাই আল্লাহ ও রাসূল হতে বিশেষ তত্ত্বজ্ঞান প্রাপ্ত  হয়ে ১২ শরীফের ইমাম (রঃ) প্রচার করে গেছেন বারো শরীফ বা মোহাম্মদী। যা ছিল এত দীর্ঘ বছর অপ্রকাশ্য ও মারেফাত এর গভীরে। রাসূল (সাঃ) যে সময়ে এসেছিলেন সে সময়টা মোহাম্মদী তথা বারো শরীফ প্রচারের জন্য ছিল না। তাই মোহাম্মদ (সাঃ) কে জানতে হবে, আর সে জানাটা কেবল পুঁথিগত হলে  চলবে না। কারণ, তিনি মারেফাত এর মূল। শরীয়ত তার প্রকাশ।

যুগে যুগে কত কারবালা, কত রক্তস্নাত হয়ে যেÑবারোশরীফ আজ আমরা পেয়েছি তা এক বড় অমূল্য আধ্যাত্মিক সম্পদ। মহান রাসূল প্রেমিক ইমাম (রঃ) এর জন্য যে কত বড় ত্যাগ ও কষ্ট স্বীকার করেছেন তা আল্লাহ চাহেত আগামী দিনের ইতিহাস বলবে। বারো শরীফ, রাসূল (সাঃ)  এর তরীকা। আমরা এত দীর্ঘ সময় ইব্রাহিমী পালন করছিÑতাই বিভিন্ন নবীর বিষয় আমাদের মানতে হচ্ছে। রাসূল (সাঃ) কে জিজ্ঞাসা করা হয়Ñইব্রাহিমী কত দিন পর্যন্ত চলবে? উনি তাঁর পবিত্র শাহাদত আঙ্গুল চাঁদের দিকে নির্দেশ করেছিলেন। সেদিন ছিল চাঁদের চৌদ্দ তারিখ। অর্থাৎ ১৪০০’শ হিজরী পর্যন্ত। আমরা আজ বহু দলে বিভক্ত। ইমাম (রঃ) বলে গেছেন একমাত্র “মোহাম্মদী” পারবে বিশ্ব মসুলমানকে এক করতে।

সেখ সাদী (রঃ) দুঃখ করে বলেছেন, “মুসলমান চলে গেছে কবরে। আর ইসলাম লুকিয়েছে কেতাবে।”

আজ এ অশান্ত বিশ্বের শান্তির জন্য প্রয়োজন মোহাম্মদ (সাঃ) কে। আর তা এ সময়ে হতে হবে “বারো শরীফ তথা মোহাম্মদী” গ্রহণের মাধ্যমে। এ শেষ জামানায় এ ছাড়া আর কোন বিকল্প নেই। আসেন, আমরা বারো শরীফ সম্পর্কে জানতে স্বচেষ্ট হয়। আপনাদের প্রতি রইলো মুক্তির  শাশ্বত দাওয়াত “মোহাম্মদী”।

ডক্টর আল¬ামা ইকবালের কবিতা দিয়ে সমাপ্ত করছি ঃ

ঃ মন্যিল ঃ

এখানে শেষ নয়Ñএখানে শেষ নয় পথ;

তোমার সম্মুখে আছে অনন্ত জগৎ।

ওই শূন্যে নক্ষত্র লোকে নব নব নভে;

প্রেমের পরীক্ষা তোমার আরও দিতে হবে।

সেখানে চলছে আরো অনেক কাফেলা।

হে পথিক! হে মুসাফির! দিতে হবে পাড়ি;

অনেক বাগিচা নীড় যেতে হবে ছাড়ি।

যে জগৎ পেয়েছ তুমি রুপগন্ধময়;

এটাতো সরাইখানা, এ তোমার নয়।

নিজেকে রেখোনা বেঁধে দিবা রাত্রি জুড়ে;

তোমাকে যে যেতে হবে আরো বহু দূরে।”

কুমারখালীতে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: আকুল উদ্দিন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফেরদৌস নাজনীন, অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুর রহমান, নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নওশের আলী বিশ্বাস, বাগুলাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন খান, সদকী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ, মহিলা পরিষদের সভাপতি মমতাজ বেগম, উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. জয়দেব কুমার বিশ্বাস, মুক্তিযোদ্ধা চাঁদ আলী  প্রমূখ। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির সামগ্রিক উন্নয়নের পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদ ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সক্রিয় ভূমিকা রাখার আহবান জানানো হয়েছে। সভায় মাদক, সন্ত্রাসবাদ ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সদস্যদের সক্রিয় ভুমিকা পালনের আহবান জানিয়েছেন উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। এ সময় থানার অফিসার ইনচার্জ বলেন, উপজেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নের পাশাপাশি মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অন্যদিকে, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বলেছেন, বাল্যবিবাহ ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসা নিয়ে নিষ্ঠুর তামাশা হচ্ছে

ঢাকা অফিস ॥ খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসা নিয়ে সরকার নিষ্ঠুর তামাশা করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল সোমবার নয়া পল্টনে দলের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, দেশনেত্রীর চিকিৎসার জন্য প্যারোলে মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের বক্তব্য এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ সাহেবের বক্তব্য বিপরীতধর্মী। এতে বোঝা যায়, তারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিসা নিয়ে নিষ্ঠুর তামাশা করছেন। দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য গত ১ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে ৬২১ নম্বর কেবিনে রেখে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। রিজভী বলেন, দেশনেত্রীকে সাজানো মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে এক বছরের বেশি সময় বন্দি করে রাখা হয়েছে। জামিন পাওয়া তার নাগরিক অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার। যে মিথ্যা মামলায় দেশনেত্রীকে জোর করে সাজা দেওয়া হয়েছে, সেই মামলায় অন্যান্য ব্যক্তিরা সবাই জামিনে রয়েছেন। আদালতের ওপর প্রভাব খাটিয়ে শুধু দেশনেত্রীকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না। অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, উচ্চতর আদালতে যখন দেশনেত্রীর জামিনের বিষয়টি যাচ্ছে তখনই অ্যাটর্নি জেনারেল গিয়ে বাধা দিচ্ছেন। মিথ্যা ও সাজানো মামলায় দেশনেত্রীকে কারাগারে বন্দি করে রাখতে এই অ্যাটর্নি জেনারেল সবচাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিনে মুক্ত পেতে সরকারের নির্দেশেই সবচাইতে বড় বাধা হিসেবে তিনি কাজ করছেন। বিএনপির কারও বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলাও দেওয়া হয়নি বলে গত ৫ এপ্রিল গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানান রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, তার এই পর্বতপ্রমাণ মিথ্যা বক্তব্যে দেশের মানুষ পাথর হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী মিথ্যা বলতে বলতে সত্য বলা ভুলে গেছেন। মুখস্ত করা কবিতার মতো অবলীলায় তিনি গড় গড় করে মিথ্যা বলতে পারেন। তিনি জানান, বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সারাদেশে ১ লাখের বেশি মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে ২৫ লাখের বেশি। এর মধ্যে ২৫ হাজার গায়েবি মামলা। মৃত ব্যক্তি, পঙ্গু, প্রবাসী, অন্ধ এমনকি হজ পালনে মক্কায় অবস্থান করা ব্যক্তিদেরও ‘গায়েবি’ মামলায় আসামি করা হয়েছে বলে অভিযৈাগ করেন রিজভী। কারাবন্দি মহানগর ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি হাবিবউন নবী খান সোহেলকে ফাঁসির সেলে রাখা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্রচন্ড অসুস্থ অবস্থায় সে কাতরাচ্ছে। এর ওপর তাকে ফাঁসির সেলে রাখা শুধু অমানবিক নয়, তার মানবাধিকার হরণেরও সামিল। গত রোববার পুলিশ কর্তৃক কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রামে বিএনপি কার্যালয় ভেঙে ফেলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে দোষীদের শাস্তি দাবি জানান রিজভী। সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, অধ্যাপিকা সাহিদা রফিক, কেন্দ্রীয় নেতা মুনির হোসেন, আবদুল আউয়াল খান, কৃষক দলের ভিপি ইব্রাহিম, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

ফায়ারম্যান সোহেল রানা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন – প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ ফায়ার সার্ভিস কর্মী সোহেল রানার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার এক শোকবার্তায় তিনি বলেছেন, অন্যের জীবন রক্ষার জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করার ক্ষেত্রে সোহেল রানা এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। গত ২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আটকা পড়া মানুষের জীবন বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হন কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান সোহেল রানা। সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হয়, শেখ হাসিনা তার বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।দুর্ঘটনার পরপরই সোহেল রানাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল।কিন্তু সেখানে প্রত্যাশা অনুযায়ী উন্নতি না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত শুক্রবার তাকে সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়।

ফায়ারম্যান রানার আত্মত্যাগ অনুকরণীয়- রাষ্ট্রপতি

ঢাকা অফিস ॥ বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডের সময় উদ্ধার কাজে গিয়ে আহত ফায়ার সার্ভিসের কর্মী সোহেল রানার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সোমবার এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, “ফায়ারম্যান সোহেল রানা মানবসেবায় আত্মত্যাগের যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা সকলের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে।” রাষ্ট্রপতি সোহেল রানার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। সিঙ্গাপুরের জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাতে রানার মৃত্যু হয়। কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান সোহেল রানার বাড়ি কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার চৌগাংগা গ্রামে। পরিবারের বড় ছেলে রানা ২০১৫ সালে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সে যোগ দেন। গত ২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আটকা পড়া মানুষের জীবন বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হন কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান সোহেল রানা। দুর্ঘটনার পরপরই সোহেল রানাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানে প্রত্যাশা অনুযায়ী উন্নতি না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত শুক্রবার তাকে সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়।

 

বনানী অগ্নিকান্ডে আহত দমকলকর্মীর সিঙ্গাপুরে মৃত্যু

ঢাকা অফিস ॥ রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে উদ্ধার অভিযানে আহত দমকল কর্মী সোহেল রানা গতকাল সোমবার ভোরে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে মারা গেছেন। ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের একজন মুখপাত্র সোহেল রানার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডের পর সেখানে আটকে পড়াদের উদ্ধার অভিযান চলাকালে দমকল কর্মী (সোহেল) গুরুতর আহত হন। সোহেল রানা (৩৪) অবিবাহিত ছিলেন। তিনি কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার কৃষক নূর ইসলামের ছেলে। গত ২৮ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে বনানীর এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২৬ জনের মৃত্যু এবং অন্তত অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়।

 

ফেনীতে দগ্ধ ছাত্রীকে সিঙ্গাপুরে নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ ফেনীর সোনাগাজীতে আলিম পরীক্ষাকেন্দ্রে বোরকাপরিহিত দুর্বৃত্তদের আগুনে দগ্ধ হয়ে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন নুসরাত জাহান রাফিকে সিঙ্গাপুরে নেওয়ার নির্দেশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী সচিব ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে আসেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন। তাকে দেখে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার ফোনে কথা হয়েছে। ওনাকে ওই ছাত্রীর অবস্থা সম্পর্কে জানিয়েছি। পরে তিনি নির্দেশ দেন দগ্ধ ছাত্রীর উন্নত চিকিৎসা জন্য সিঙ্গাপুরে কথা বলতে, যদি ওনারা ওই ছাত্রীকে নিতে রাজি হন, দ্রুত তাকে সেখানে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। সিঙ্গাপুরে জেনারেল হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমি এখানে এসেছি। এই ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিচার হবেই, তবে প্রধানমন্ত্রী ওই ছাত্রীর উন্নত চিকিৎসার সিঙ্গাপুরে পাঠানো নির্দেশ দিয়েছেন। যৌন হয়রানির অভিযোগে করা মামলার জেরে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার পক্ষের কয়েকজন গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষা শুরু হওয়ার ঠিক আগে মাদ্রাসার ছাদে ডেকে নিয়ে সেই ছাত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। তখন তার আর্তনাদ শুনে মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীরা ছাদে ছুটে যায়। তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এরপর জেলা সদর হাসপাতাল, সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢামেকে নিয়ে আসা হয়। ওই ছাত্রীর ভাইয়ের ভাষ্যে, ২৭ মার্চ বেলা পৌনে ১২টার দিকে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা তার পিয়ন নুরুল আমিনকে দিয়ে সেই ছাত্রীকে নিজের কক্ষে ডেকে নেন। তখন সেই ছাত্রী নিজের সঙ্গে আরও ৩-৪ জন বান্ধবীকে নিয়ে অধ্যক্ষের রুমে ঢুকতে চাইলে সিরাজউদ্দোলা অন্যান্যের ঢুকতে না দিয়ে কেবল সেই ছাত্রীকে নিয়ে যান। এরপর দরজা আটকে তিনি ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখান। এমনকি পরীক্ষার আধঘণ্টা আগে তাকে প্রশ্নপত্র দেওয়া হবে জানিয়ে কুপ্রস্তাব দেওয়া হয়। এরপর সিরাজউদ্দৌলা ওই ছাত্রীর শরীর স্পর্শ করার চেষ্টা করলে সেখানে কিছুক্ষণ ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী দৌড়ে রুম থেকে বের হয়ে বেহুঁশ হয়ে পড়ে যায়। তখন খবর পেয়ে মাদ্রাসায় থাকা ওই ছাত্রীর ছোট ভাই অধ্যক্ষের কক্ষে ছুটে যায়। অধ্যক্ষ তখন তাকে জানান, তার বোন অসুস্থ। সেজন্য ছুটির আবেদন করতে এসে পড়ে যায়। সেখান থেকে ওই ছাত্রীকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হলে ওই ছাত্রী কিছুটা সুস্থ হয়। তখন সে স্বজনদের জানায়, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছিলেন। এরপরে ক্ষুব্ধ হয়ে স্বজনরা মাদ্রাসায় গিয়ে অধ্যক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। তবে তিনি ওই অভিযোগ অস্বীকার করেন। এরপর মাদ্রাসার অধ্যক্ষই উপজেলা আওয়ামী লীগের এক নেতাকে ফোন করেন। আওয়ামী লীগের নেতা পুলিশসহ মাদ্রাসায় যান। তবে মাদ্রাসায় গিয়ে সব ছাত্র-ছাত্রীর মাধ্যমে পুরো ঘটনা জানতে পেরে পুলিশ অধ্যক্ষকেই আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এরপর ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় পরের দিন সিরাজউদ্দৌলাকে আদালত পাঠানো হয়। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়। দগ্ধ করার ঘটনার বর্ণনায় ওই ছাত্রীর ভাই জানায়, ৬ এপ্রিল আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা ছিলো তার বোনের। সকালে মাদ্রাসায় গেলে একজন সেই ছাত্রীকে বলে যে, তার এক বান্ধবীকে কারা যেন ছাদে মারধর করছে। এ কথা শুনে সে তখনই সেখানে ছুটে যায়। কিন্তু সেখানে বোরকাপরিহিত চারজন ওই ছাত্রীকে ঘিরে ধরে এবং অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের জন্য চাপ দেয়। এই চাপ প্রত্যাখ্যান করায় সেই চারজন প্রথমে তাকে কিল-ঘুষি মারে। একপর্যায়ে তারা সেই ছাত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় ছাত্রীর চিৎকার শুনে সেখানে ছুটে যান পরীক্ষাকেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশ কনস্টেবল রাসেল ও মাদ্রাসার অফিস সহকারী মোস্তফা। পরে তারা ছাত্রীর গায়ে কার্পেট জড়িয়ে আগুন নেভান। ঢামেকে ভর্তি এই ছাত্রীর প্রয়োজনীয় চিকিৎসার জন্য সব রকমের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার চিকিৎসায় কাজ করছে ৯ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড।