চুয়াডাঙ্গায় ধর্ষকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ চুয়াডাঙ্গায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে  দেহভোগের অভিযোগে হাসেম আলী (২৭) নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ জিয়া হায়দার গতকাল রোববার দুপুরে আসামীর উপস্থিতিতে এই আদেশ দেন।  দন্ডিত হাসেম আলী জেলার দামুড়হুদা উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের বকুল হোসেনের  ছেলে। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৬ ডিসেম্বর রাতে হাসেম আলী  একই গ্রামের এক কিশোরীকে  জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এতে ওই কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়লে বিয়ের আশ্বাসে আরও দুইবার ধর্ষণ করে। বিষয়টি  নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে বিচার দিলে চেয়ারম্যান ও একজন  মেম্বার ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বাবার কাছ থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেন। এরপর কিশোরী একটি কন্যা সন্তান প্রসব করে। ঘটনার প্রায় ১০ মাস পর ২০১৪ সালের ২ সেপ্টেম্বর ওই কিশোরী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর আদালতের নির্দেশে ভূমিষ্ট শিশুর ডিএনএ টেস্ট করলে  রেজাল্ট পজিটিভ পাওয়া যায়। আলোচিত মামলায় স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এই দন্ডাদেশ দেন।

চুয়াডাঙ্গায় ডিলাক্স পরিবহনে  অভিযানে  ফেনসিডিল উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গা অফিস ॥ চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহনের ঢাকাগামী একটি বাসে অভিযান চালিয়ে  থলেতে রাখা ট্রাফিক পুলিশ ৬১ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। তবে, ফেনসিডিল বহনকারী পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জানালা দিয়ে পালিয়ে যায়। ট্রাফিক পুলিশের  সার্জেন্ট মৃত্যুঞ্জয়  বিশ্বাস জানান, গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১০টায় সদর উপজেলার ডিঙ্গেদহ  বাজারে দায়িত্বরত ছিলেন। গোপনসূত্রে খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহন বাসে সঙ্গীয় ফোর্সসহ তল্লাশী চালান। এসময় এফ-২ সিটে বসে থাকা যাত্রী জানালা দিয়ে নেমে পালিয়ে যায়। পরে তার সিটের পাশে রাখা থলের ভেতর থেকে ৬১ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। খবর পেয়ে এসময় চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. কলিমুল্লাহ, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মাহবুব কবির, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) আহসান জাবীব, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) মাহফুজুর রহমান ও এটিএসআই  মোমতাজ হোসেনসহ সঙ্গীয়  ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।

খালেদার মুক্তির ব্যাপারে মির্জা ফখরুলের বক্তব্য অবান্তর – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বেগম জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য অবান্তর ও অমূলক, কারণ বেগম জিয়া আবেদন না করলে প্যারোল বিবেচনারই সুযোগ নেই’। গতকাল রোববার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পল¬ী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) আয়োজিত যুব সম্মেলন ২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে দন্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন। তিনি আবেদন করলেই শুধু সেটি বিবেচনা করার সুযোগ আছে। বেগম খালেদা জিয়া নিজে যদি না চান, তার আগে তাকে মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনারই কোনো সুযোগ নেই বা তাকে সরকার প্যারোলে মুক্তি দেওয়ার কোনো চিন্তাভাবনা করছে এমনও নয়’। তিনি আরও বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য অবান্তর ও অমূলক। কারণ এখানে বেগম জিয়ার মতামতের বিষয় নেই, তিনি আবেদন করলেই শুধু তা বিবেচনার সুযোগ থাকে’। এ সময় বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান বলেন, ‘আমি অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে চাই মির্জা ফখরুল ইসলাম, রিজভী, খন্দকার মোশাররফসহ তাদের অনেক নেতারা যেভাবে কথা বলছে, তাতে মনে হয় তারা এক এক জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। যিনি রোগী তিনি বলছেন আগের চেয়ে অনেক ভালো অনুভব করছেন, তার চিকিৎসা ভালো হচ্ছে। আর যারা নেতা তারা বলছেন এখানে ভালো চিকিৎসা হবে না! জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদককে স্কয়ার হাসপাতাল অতিক্রম করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে যে বিশ্বমানের চিকিৎসা রয়েছে সেটি সিঙ্গাপুর এবং ভারত থেকে আসা বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররাও বলেছেন’। এ সময় বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা নিয়ে রাজনীতি বাঞ্ছনীয় নয় বলেও মন্তব্য করেন ড. হাছান মাহমুদ।

গাংনীতে সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত-৬

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে পশু শিকারের জাল ভাগাভাগি নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মহিলাসহ ৬জন আহত হয়েছে। উভয়পক্ষের আহতরা হলেন-গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের বাথানপাড়া গ্রামের মৃত মজিবুর রহমানের ছেলে আব্দুল জলিল, তার স্ত্রী আরিফা খাতুন,তাদের দু’সন্তান জমিরুদ্দীন ও রাজু আহমেদ, একই গ্রামের ইসরাইল হোসেনের স্ত্রী শিরিনা খাতুন ও তার ছেলে নালিম হোসেন। গতকাল রোববার সন্ধ্যারাতে সংঘর্ষে আহতের ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বাথানপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে রাজু আহমেদ ও ইসরাইল হোসেনের ছেলে গ্রামের মাঠে খোরগোস শিকার করার জন্য শেয়ারে একটি জাল ক্রয় করে। এ জাল ভাগাভাগি নিয়ে এদিন সন্ধ্যায় সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

গাংনীর ছেলে রাজিব জারিগানে খুলনা বিভাগের সেরা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ কলেজ পর্যায়ে জারিগানে মেহেরপুরের গাংনীর ছেলে হাসিবুজ্জামান রাজিব খুলনা বিভাগের সেরা হিসাবে সাফল্য অর্জন করেছেন। রাজিব গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের শিমুলতলা গ্রামের শফিকুল ইসলাম বাবলুর ছেলে। সম্প্রতি কলেজ পর্যায়ে প্রতিযোগিতামূলক জারিগানে রাজিব যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজ থেকে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ওই প্রতিযোগিতায় সে খুলনা বিভাগের সেরা নির্বাচিত হয়ে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ পান। রাজিবের সঙ্গীত জগতের হাতেখড়ি গাংনী উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর প্রশিক্ষক ওস্তাদ রতন সরকার ও সহকারী প্রশিক্ষক সেলিম রেজা। এদিকে রাজিব জারিগানে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়ায় তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তার শিক্ষক যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজের প্রধান লেঃ কর্ণেল আমিনুর রহমান, মেহেরপুর জেলার সর্বজন শ্রদ্ধেয় সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, রাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সাকলায়েন ছেপুসহ বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ।

কালুখালীতে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস উদযাপনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

ফজলুল হক ॥ গতকাল রবিবার রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ৭এপ্রিল ২০১৯ উদযাপনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কালুখালী রাজবাড়ীর আয়োজনে “সমতা ও সংহতি নির্ভর সার্বজনীন প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা” প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে বিশাল একটি র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীতে সূর্যের হাসি নেটওয়ার্ক কালুখালী অংশ নেয়। র‌্যালীটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আশপাশ রাস্তা প্রদক্ষিন করে র‌্যালী পরবর্তী  স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের  দ্বিতীয় তলায় সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুন নাহার। তিনি তার বক্তব্যে বিশ্বস্বাস্থ্য দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে উপস্থিত সকল ডাক্তারদের জেনে বুঝে একজন রোগীর সম্পর্কে ঔষুধ লেখার সৎপরামর্শ প্রদান করেন। বিশেষ করে তিনি বলেন চিকিৎসা সেবায় অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশকে আরও অগ্রগতি সহকারে ডাক্তারদের চিন্তা চেতনা বা রিসার্চ করতে বলেন। রোগী দেখার ক্ষেত্রে সবাইকে যতœবান হতে বলেন। অন্যান্যের মধ্যে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ খোন্দকার আবু জালাল, রতনদিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ এছাড়াও সেনেটারি ইন্সপেক্টর তালেবুর রহমান, ইপিআই টেকনোলজিস্ট শম্ভুনাথ দেবনাথ, স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুশীল রাহা, সিনিয়ার স্টাফ নার্স মল্লিকা বানু ও সূর্যের হাসি ক্লিনিকের ম্যানেজার মঞ্জুর রহমান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

আলমডাঙ্গায় পাটের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড : প্রায় দেড় হাজার মণ পাট পুড়ে ছাই

আলমডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ আলমডাঙ্গায় একটি পাটের গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় দেড় হাজার মণ পাট ভস্মীভূত হয়েছে। শনিবার রাতে আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের পশুরহাট এলাকার মহিদুল ইসলামের পাটের গোডাউনে ওই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ৩০ লক্ষাধিক টাকার পাট পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট রাতভর চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভায়। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করছে অনেকে। জানা গেছে, পার্শ্ববর্তী কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মালিহাদ গ্রামের বিশিষ্ট পাট ব্যবসায়ী মহিদুল ইসলামের পাটের গোডাউন রয়েছে আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের পশুরহাট এলাকায়। ওই গোডাউনে এক হাজার চারশ’ মণ পাট মজুদ ছিল বলে গোডাউন মালিকের স্বজনরা জানান। শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে আকস্মিক আগুন দেখে এলাকার লোকজন পুলিশ ও দমকল বাহিনীকে খবর দেয়। আলমডাঙ্গা দমকল বাহিনী আগুন নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে চুয়াডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়া হয়। চুয়াডাঙ্গা ও আলমডাঙ্গার ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে রাত ৪টার দিকে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। ততক্ষণে ৩০ লক্ষাধিক টাকার পাট পুড়ে ছাই হয়েছে। এ ঘটনার পর গোডাউন মালিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। তিনি বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না। এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানার ওসি মুন্সি আসাদুজ্জামান বলেন, ‘আগুনের সূত্রপাত কিভাবে হয়েছে তা বলতে পারব না। তবে অনেকের ধারণা বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে থাকতে পারে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত কেউ থানায় কোনো অভিযোগ বা মামলা করেনি।’

দৌলতপুর নাসির উদ্দীন বিশ্বাস কল্যাণ ট্রাস্টের ২ দিনব্যাপী চক্ষু চিকিতসা শিবির অনুষ্ঠিত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে নাসির উদ্দীন বিশ্বাস কল্যাণ ট্রাস্টের ২দিন ব্যাপী চক্ষু চিকিৎসা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। উপজেলার আল্লারদর্গা আনোয়ারা বিশ্বাস মা ও শিশু হাসপাতালে নাসির উদ্দীন বিশ্বাস কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে ২দিন ব্যপী এ চক্ষু চিকিৎসা শিবির অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতকাল রবিবার সকাল ৯টায় চক্ষু চিকিৎসা শিবির উদ্বোধন করা হয়। এতে বিভিন্ন এলাকার মানুষের চোখের চিকিৎসা সেবা প্রদান এবং ছানি পড়া রোগীদের বিনা খরচে লেন্স সংযোজনের জন্য নিজস্ব পরিবহনে খুলনা নিয়ে যাওয়া হবে এবং লেন্স সংযোজোনের পর নিয়ে আসা হবে। প্রথমদিন বিভিন্ন এলাকার ১২০০রোগীর চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এদের মধ্যে ৩’শ রোগীর লেন্স সংযোজন করা হবে বলে জানিয়েছেন ডাঃ আসিফ ও ডাঃ মইচ। নাসির গ্রুফ অব ইন্ডাঃ লিঃ এর কর্মকর্তা মুকুল হোসেন জানান প্রতি বছর ৩ বার নাসির উদ্দীন বিশ্বাস কল্যাণ ট্রাস্টের অর্থায়নে ও উদ্যোগে এবং খুলনা বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের সহযোগিতায় রোগীদের বিনা খরচে চক্ষু চিকিৎসা শিবির পরিচালিত হয়ে আসছে এবং কল্যাণ স্ট্রাষ্টের উদ্যোগে আনোয়ারা বিশ্বাস মা ও শিশু হাসপাতালে স্বপ্ল খরচে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়ে থাকে।

আত্মসমর্পণ করছেন ৬১৪ চরমপন্থি

ঢাকা অফিস ॥ পাবনা অঞ্চলের ৬১৪ জন চরমপন্থি সরকারের কাছে আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।রোববার ঢাকার মিরপুরের পুলিশ স্টাফ কলেজে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান। আগামী মঙ্গলবার পাবনায় এই আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠান হবে বলে জানান মন্ত্রী। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকাকালে কুষ্টিয়া অঞ্চলের চরমপন্থিদের এক দল আত্মসমর্পণ করেছিল। কমিউনিস্ট আদর্শে বিশ্বাসী সশস্ত্র কয়েকটি দল পাবনা, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা অঞ্চলে এক সময় সক্রিয় থাকলেও এখন তাদের তৎপরতা আগের মতো নেই। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশে কোন এক সময়, প্রায় ৩০-৪০ বছর আগে চরমপন্থিরা নানাভাবে প্রভাব বিস্তার করতো। তারা একটা বলয় সৃষ্টি করে অরাজকতা সৃষ্টি করতো। এগুলো কিন্তু ক্রমশ্যই ছোট হয়ে গেছে, এরা দূর্বল হয়ে গেছে। “যেই কয়জন অবশিষ্ট ছিলেন, তারা আমাদের কাছে স্বীকার করেছেন, আমাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আত্মসমর্থন করবেন। তাদের কৃতকর্মের জন্য তারা লজ্জা বোধ করছেন, তারা সেই পথ থেকে সরে আসবেন। তাদেরকে সুযোগ দিয়েছি। মোট ৬১৪ জন আগামী নয় তারিখ পাবনতে স্যারেন্ডার করবে।” কী নিশ্চয়তায় তারা আত্মসমর্পণ করছেন- জানতে চাইলে কামাল বলেন, “এর আগে জলদস্যু-বনদস্যুরা যেভাবে স্যারেন্ডার করেছে, সেভাবে। এই কর্ম আর কোনোদিন করবেন না- ওয়াদা করলে তাদের আইনি সহযোগিতাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আমরা গ্রহণ করব।” বাংলাদেশ ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা জারির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, “আমারা দেখেছি এটা তাদের প্রাকটিস হয়ে গেছে। মাঝে মাঝেই তারা এলার্ট দিয়ে থাকেন। আমাদের জানা নেই, তারা কেন বাংলাদেশে এ ধরনের এলার্ট দেন। এমন কোনো সিচ্যুয়েশন ঘটেনি যে কোন দেশের নাগরিকরা মনে করবেন তারা এ দেশে নিরাপদ নয়। সারা বাংলাদেশের কোথাও কোনো ধরনের ঝুঁকি আছে বলে আমাদের কাছে কোনো ইনফরমেশন নেই। তাদের কাছে থাকলে তারা আমাদের শেয়ার করতে পারে।”  বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্যারেলে মুক্তির জন্য কোনো আবেদন করেছেন কি না- জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমাদের কাছে এই ধরনের আবেদন আসেনি, কাজেই এটার স্যাংশন দেওয়ার প্রশ্ন আসে না। আমি বলেছিলাম যদি তিনি আবেদন করেন, আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করব, আমাদের আইনে কোনো ইয়ে (সুযোগ) থাকে, তাহলে পরীক্ষা করে জানাব।”

 

ঝিনাইদহে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘সমতা ও সংহতি নির্ভর সার্বজনীন প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস পালিত হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে গতকাল রোববার সকালে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে সিভিল সার্জনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ঝিনাইদহের ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা: মোকাররম হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ছাদেকুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাস, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নিলুফা ইয়াছমিন। মুখ্য আলোচক ছিলেন ঝিনাইদহ সদর হাসাপাতালের চিকিৎসক ডা: নাঈদ সিদ্দিকী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা: প্রসেনজিং বিশ্বাস পার্থ। এসময় বক্তারা, যার যার অবস্থান থেকে স্বাস্থ্যসেবা পেতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

মিরপুরে এনএসআই’র ভূয়া এডি আটক

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ায় জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) এর ভূয়া এডিকে আটক করেছে মিরপুর থানা পুলিশ। গতকাল রবিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে মিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা অফিস থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) এর ভূয়া এডির নাম সুমন আহম্মেদ (৩৫)। সে নাটোর জেলার বাড়াদীপাড়া উপজেলার রহিমানপুর এলাকার লিয়াকত আলীর ছেলে। মিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার নজরুল করীম জানান, আমাকে সাড়ে ১১টার দিকে ফোন দিয়ে সুমন আহম্মেদ নামের এক এনএসআই কর্মকর্তা পরিচয় দেয়। এবং আমাকে আমার অফিসে  ডেকে নেয়। তারপর আমাকে এনএসআই পরিচয় দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের তথ্যসহ গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্র দেখতে চাই। আমি তার কথাবার্তা দেখে কুষ্টিয়া এনএসআই অফিসে ফোন দিয়ে জানতে পারি সে ভূয়া পরিচয় প্রদান করছে। আমি মিরপুর থানায় খবর দিলে মিরপুর থানা পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। এসময় তার কাছ থেকে ভেড়ামারা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং বিভিন্ন দপ্তরের সিল  দেখা যায়। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, আটককৃত সুমন আহম্মেদের কাছে থেকে এনএসআই এর আইডি কার্ড, একটি সেনা সদস্যের ভূয়া আইডি কার্ড, খেলনা পিস্তল এবং ৫০ হাজার টাকা, বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের সীল  উদ্ধার করা হয়।

কালুখালীতে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস পালন

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া দিবস ২০১৯ উদযাপণ উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে গত শনিবার। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে সকাল ১১টায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণ থেকে  একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি উপজেলা শহর প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদের সমনে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলম, রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আয়ুব আলী, জেলা ক্রীড়া অফিসের অফিস সহকারী সেলিম হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তনয় চক্রবর্তী শম্ভু, রতনদিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি খোন্দকার আনিছুল হক বাবু, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ, উপজেলা রেজিষ্টার সমিতির আহবায়ক আব্দুর রশিদ, উপজেলা শেখ রাসেল ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের আহবায়ক এনামুল হক সেতু ও রাজিব সরকার সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরে উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার বক্তব্য প্রদান করেন। বিকেলে রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা একাদশ বনাম উপজেলা শেখ রাসেল ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠন একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

ঝিনাইদহে অস্ত্র ও গুলিসহ ২অস্ত্র ব্যবসায়ী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না বাজার এলাকা থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ ২ জন আটক করেছে র‌্যাব-৬। রোববার ভোররাতে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো-সদর উপজেলার তালিনা গ্রামের ওহাব মন্ডলের ছেলে কালাম বিশ্বাস ও কোটচাঁদপুর উপজেলার রামনগর গ্রামের বিমল কর্মকারের ছেলে সুভাষ কর্মকার। ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে সদর উপজেলার গান্না এলাকায় অবৈধ অস্ত্র বেচা- কেনা হচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কালাম বিশ্বাস ও সুভাষ কর্মকার নামের ২ জনকে আটক করা হয়। পরে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি বিদেশী পিস্তল ও ৪ রাউন্ড গুলি। আটককৃতরা অস্ত্র ব্যবসায়ী বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

আমলাপাড়া (ঘোষপাড়া) সার্বজনীন পূজা মন্দির ও ১৭ হাত উঁচু বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দিরের কার্যনির্বাহী পরিষদ ও উন্নয়ন কর্মকান্ডের বিবরণ

কুষ্টিয়া শহরের প্রাণকেন্দ্র আমলাপাড়ায় ‘আমলাপাড়া (ঘোষপাড়া) সার্বজনীন পূজা মন্দির ও ১৭ হাত উঁচু বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দির’ টি অবস্থিত। বর্তমান মন্দির কমিটি গঠনকালে এ্যাডঃ অঘোর কুমার সরকারকে, আহবায়ক,  সনৎ পাল বাবলু (অবসর শিক্ষক) সদস্য সচিব ও গৌতম কান্তি চাকীকে সদস্য হিসাবে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি দ্বারা কার্যনির্বাহী কমিটি গঠনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে লিখিত ভোটের মাধ্যমে গত ৮ই জুলাই, ২০১৬ হতে ৯ জুলাই ২০১৯ পর্যন্ত ০৩ (তিন) বছর মেয়াদী কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হয়। উক্ত কমিটিতে সভাপতি হিসাবে সুনীল চক্রবর্তী এবং সাধারণ সম্পাদক হিসাবে সরজিৎ কর্মকারসহ মোট ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন হয়। পরবর্তীতে ১৮Ñ০৭Ñ২০১৬ ইং তারিখে সরজিৎ কর্মকার সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পারিবারিক সমস্যার কারণে মন্দিরের দায়িত্ব পালন করা সম্ভব হচ্ছে না লিখে সভাপতি বরাবর দরখাস্ত জমা দেন। ২২Ñ০৭Ñ২০১৬ ইং তারিখে মন্দিরের কার্যনির্বাহী পরিষদের সভায় উপস্থিত সকল সদস্যের সর্বসম্মতিক্রমে সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরজিৎ কর্মকারকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়। মন্দিরের গঠনতন্ত্র মোতাবেক উক্ত সাধারণ সম্পাদক পদে  বাবু সুজিত ঘোষকে উপস্থিত সকল সদস্যের সর্বসম্মতিক্রমে সাধারণ সম্পাদকের পদে দায়িত্ব পালনের জন্য সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। অতঃপর এই কমিটির কার্য্য চলাকালীন অবস্থায় মন্দির কমিটির কোষাধ্যক্ষ সাধু বাবুর ছোট বোন শান্তা অধিকারী ব্রেষ্টটিউমার রোগে আক্রান্ত হওয়ায় বোন শান্তাকে নিয়ে বিভিন্ন সময়ে ভারতের অন্ধপ্রদেশ বাঙ্গলর শহরে বৈদি মেডিকেল সাইন্স অব ইনষ্টিটিউট হাসপাতালে সুচিকিৎসার জন্য মাঝে মধ্যে যাতায়াত করেন। সেই সময়ে মন্দিরের বিভিন্ন কর্মকান্ডে কোষাধ্যক্ষ সাধু বাবু উপস্থিত থাকতে না পারার সুযোগে সভাপতি সুনিল কুমার চক্রবর্তী, মন্দিরের সহকারী কোষাধ্যক্ষ পাভেল পাল ও সহ-সাধারণ সম্পাদক বরুণ বিশ্বাস এর নিকট হতে মিথ্যা বলিয়া সর্বমোট ৫৩,০০০/- টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করে। পরবর্তীতে কোষাধ্যক্ষ সাধু মন্দিরের হিসাবের সময় বুঝিতে পারিয়া কার্যনির্বাহী পরিষদের সকল সদস্যকে অবগতি করেন। সভাপতি সুনিল কুমার চক্রবর্তী ০৬Ñ০৮Ñ২০১৭ তারিখ হতে ২৯Ñ১২Ñ২০১৭ তারিখ পর্যন্ত মন্দিরের মোট ৫৩,০০০/- টাকা যা তিনি আত্মসাৎ করিয়াছিলেন তাহা তিনি স্বীকার করিয়া পরিশোধের অঙ্গিকার করা সত্ত্বেও বারংবার মন্দিরে রেজুলেশন খাতায় নিজ হাতে লিখিয়া সহি করিয়া টাকা পরিশোধের অঙ্গীকার করেন। অঙ্গীকার করার পরেও সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী উক্ত তারিখে টাকা পরিশোধ করিতে না পারায় তাহাকে কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় উপস্থিত সকল সদস্যের সর্বসম্মতি ক্রমে ২৯Ñ১২Ñ২০১৭ তারিখে সভাপতি পদ হইতে অব্যাহতি দেওয়া হয়।  এরপর কার্যনিবাহী পরিষদের সিনিয়র সহসভাপতি এ্যাডঃ অঘোর কুমার সরকারকে সভাপতি পদে উপস্থিত সকল সদস্যের সর্বসম্মতিক্রমে সভাপতি মনোনীত করিয়া পরবর্তী মেয়াদকাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করিবার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। মন্দিরের উন্নয়নমূলক কাজের জন্য মন্দির কমিটির কোষাধ্যক্ষ সাধু বাবুকে নিমার্ণাধীন কাজের আহবায়ক বানিয়ে ০৩ (তিন) সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। কোষাধ্যক্ষ সাধু বাবুর নেতৃত্বে আমলাপাড়া (ঘোষপাড়া) সার্বজনীন পূজা মন্দির ও ১৭ হাত উঁচু বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দির এর বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ শুরু করে দৃশ্যমান হয়। হঠাৎ একটি কু-চক্রি মহল মন্দিরের উন্নয়ন কাজের হিংসা ও বিরোধীতা করে কোষাধ্যক্ষ সাধুর বিরদ্ধে দৈনিক সময়ের কাগজ প্রকাশিত পত্রিকায় ৪ ও ৫ এপ্রিল, ২০১৯ ইং তারিখে কোষাধ্যক্ষ সাধুর বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির লিখিত অভিযোগ এই সংবাদটি প্রকাশ হয়। তারপর মন্দির কমিটি কার্যনির্বাহী পরিষদ  ০৫Ñ০৪Ñ২০১৯ ইং তারিখে একটি জরুরী সভা ও তদন্ত  করে দেখে কোষাধ্যক্ষ সাধুর বিরুদ্ধে প্রকাশিত অভিযোগ সম্পন্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মন্দির কমিটি এ ব্যাপারে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করে। ০৬Ñ০৪Ñ২০১৯ শনিবার দৈনিক সময়ের কাগজ ও দৈনিক আন্দোলনের বাজার পত্রিকা কাগজে প্রতিবাদ প্রকাশিত হয়। বর্তমান মন্দির কমিটির নির্মানাধীন কার্য্যরে আহবায়ক সাধু বাবু মন্দিরের কোষাধ্যক্ষ কার্যনির্বাহী কমিটির নির্দেশনায় আমলাপাড়া (ঘোষপাড়া) সার্বজনীন পূজা মন্দির ও ১৭ হাত উঁচু বিশিষ্ট কালী পূজা মন্দিরের উন্নয়ন কার্য্যে কুষ্টিয়া সদরের মাননীয় সংসদ সদস্য ও মাননীয় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহোদয়, কুষ্টিয়া পৌরসভার মাননীয় ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও স্থানীয় বিভিন্ন দাতাগণদের আর্থিক সহযোগিতায় ১৭ হাত উঁচু বিশিষ্ট কালী মন্দিরের অনুকুলে বাউন্ডারি দেওয়াল নির্মাণ, প্লাষ্টার করণ ও ৯টি বাথরুম, মন্দির প্রাঙ্গনে সাবমার্চিবল বোরিং মন্দিরের সামনে পাকা বারান্দা নির্মাণ, একটি ছোট লোহার গেট ও মন্দিরের প্রধান প্রবেশ পথে দক্ষিনেশ্বেরী দ্বার মঠ মডেল নির্মাণ, এসএস লোহার একটি বড় গেট ও অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প নির্মানাধীন এবং আমলাপাড়া সার্বজনীন পুজা মন্দিরের মাতৃদেবীর মন্দিরের গ্রীল, দরজা, ভিতরে দেওয়ালে টাইলস্ করণ, বেদী ও ফ্লোর টাইলসকরণ, শিব মন্দিরের গ্রীল, কেসি গেট,  মন্দিরের সিঁড়ি গেটের লোহার দরজা ও নাট মন্দিরের দেওয়াল এর সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য টাইলস্ করণ। লোকনাথ বাবা ও ঠাকুর রামকৃষ্ণ পরমহংস দেবের মন্দির টাইলস করণ করা হইয়াছে ও আমলাপাড়া সার্বজনীন পূজা মন্দিরের চৈত্র পূজা সন্ন্যাসীদের সহযোগিতায় মন্দিরে দোতলায় একটি লক্ষèী ভাড়ার ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। যে সমস্ত সৃহৃদয়বান দাতাগণ এই উন্নয়ন কাজে আর্থিক সহযোগিতা করিয়াছেন তাহাদের নাম শ্রদ্ধার সহিত কমিটির পক্ষ হতে সংরক্ষণ করা হইয়াছে। যাহা সকলের চোখে দৃশ্যমান। এছাড়া আরও উন্নয়ন মুলক কাজ এর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হইয়াছে। যাহা ভবিষ্যতে আপনাদের সকলের সার্বিক সহযোগিতা ও শ্রীশ্রী ভগবানের কৃপায় বাস্তবায়ন করা সম্ভব। এ ব্যাপারে আমলাপাড়ার এলাকাবাসীসহ মন্দির কমিটির সভাপতি এ্যাডঃ অঘোর কুমার সরকার, সাধারণ সম্পাদক সুজিত কুমার ঘোষ ও আমলাপাড়া মন্দিরের অনেক আজীবন সদস্য ও কার্যনির্বাহী সদস্যরা বলেন, মন্দিরের উন্নয়ন কাজে কোষাধ্যক্ষ সাধুবাবুর ভূমিকা মন্দির উন্নয়ন কাজে খুবই প্রশংসনীয়। তাই কোষাধ্যক্ষ সাধুবাবুকে মন্দির উন্নয়নের রূপকার বলা হয়। অত্র মন্দির কমিটির সভাপতি এ্যাডঃ অঘোর কুমার সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক সুজিত কুমার ঘোষ স্বাক্ষরিত এক বার্তায় উপরোক্ত তথ্য জানানো হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুরে ক্যাবল অপারেটরদের সংবাদ সম্মেলন

অবৈধ ক্যাবল ব্যবসা উচ্ছেদ না হলে সম্প্রচার বন্ধের ঘোষনা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অবৈধ ক্যাবল ব্যবসা বন্ধের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন দৌলতপুর ক্যাবল অপারেটর এসোসিয়েশন (ডি-কোয়াব)। গতকাল রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এসোসিয়েশনের নিজ কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্বেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্বেলনের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন দৌলতপুর ক্যাবল অপারেটর এসোসিয়েশনের সভাপতি আরিফুল ইসলাম গেদু। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডলের সহযোগিতায় মিন্নাত আলী প্রভাব খাটিয়ে সরকারী নীতিমালা ব্যতিত অবৈধভাবে কন্ট্রোলরুম স্থাপন করে বাংলালিং ক্যাবল নেটওয়ার্ক নামে ব্যবসা চালাচ্ছেন। ভ্রাম্যমান আদালদের ম্যাজিষ্ট্রেট মিন্নাত আলীর অবৈধ কন্ট্রোলরুম সীলগালা করে তা বন্ধ করে দিলেও সিরাজ চেয়ারম্যান প্রভাবশালী হওয়ায় ম্যাজিষ্ট্রেটের আদেশ অমান্য করে সীলগালা ভেঙে ডিস কন্ট্রোলরুম চালু করে পুনরায় অবৈধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছেন। অবিলম্বে এই অবৈধ ব্যবসা বন্ধ করে মিন্নাত ও সিরাজ চেয়ারম্যানকে আইনের আওতায় নেয়া না হলে আগামী ১০এপ্রিল থেকে দৌলতপুরে প্রতিদিন দুই ঘন্টা করে ডিস বন্ধ রাখা হবে। তারপরও অবৈধ ক্যাবল নেটওয়ার্ক বন্ধ করা না হলে ২১এপ্রিল থেকে বিরতিহীন ভাবে ডিস নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখা হবে বলে ঘোষনা দেয়া হয়। এসময় এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম, আলী আকবর, পিয়ারুল ইসলাম, শহীদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, গিয়াস উদ্দীন, সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান, সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্বেলন শেষে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। এরআগে একই দাবিতে দৌলতপুর ক্যাবল অপারেটর এসোসিয়েশন (ডি-কোয়াব) গত ২এপ্রিল দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরের সামনের প্রধান সড়কে মানববন্ধন করে।

কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান খাঁনকে মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান খাঁনকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কুমারখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করেছেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক-সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের নেতৃত্বে সাংগঠনিক কমান্ড মুক্তিযোদ্ধাদের একটি প্রতিনিধি দল। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন নাগ চৌধুরী, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার হাজী মহসিন আলী মন্ডল, সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ, জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবীন্দ্রনাথ সেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলাইমান হোসেন, জাহিদ হোসেন, মোক্তার হোসেন, সিরাজুল হক, মাহমুদুল হাসান, নুরুজ্জামান, হাজী লিয়াকত, গোলাম হোসেন, আঃ মান্নান, ওহিদুর রহমান টগর, ডাঃ আঃ মতিন, কিয়াম উদ্দিন, কৌতুক, ডাঃ আঃ কালাম, নিজাম উদ্দিন, লুৎফর রহমান, ওমর আলী, গোলাম হোসেনসহ অর্ধশত বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

২২সিডিএল ট্রাস্টের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের সাথে সৃজনশীল বই পরিচিতি সভা  

শনিবার  সি.ডি.এল. ট্রাস্ট এর  উদ্যোগে এবং দিশা স্বেচ্ছাসেবী আর্থ সামাজিক উন্নয়ন সংস্থার  সহযোগিতায় কলকাকলী মাধ্যমিক  বিদ্যালয়ে , দুপুর ১২টায় নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সাথে সৃজনশীল বই পরিচিতি সভার আয়োজন করা হয়। কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের  প্রধান শিক্ষক  জেব-উন-নিসা সবুজের সভাপতিতে¦ ড. রাগিব হাসানের বিদ্যাকৌশল বইটির উপর আলোচনা করেন ঝিনাইদহ নুরুননহার মহিলা কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অজয় কুমার বিশ^াস। অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক হাসিনা আক্তার হাসি ও নারী ফোরামের সদস্য সাহিদা পারভিন রেখা। শিক্ষার বিভিন কৌশল  সুন্দর উপস্থাপনার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বই পাঠ বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করেন। সভাপতি বলেন শিক্ষার্থীদের জ্ঞান ভান্ডারকে সমৃদ্ধ করতে বই পাঠের বিকল্প  নেই। সাথে সৃজনশীল বই পরিচিতি সভার অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিডিএল ট্রাস্ট এর নির্র্বাহী পরিচালক আক্তারী সুলতানা। তিনি আর ও জানান এভাবে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে দিশা  সংস্থার  সহযোগিতায় সি ডি এল ট্রাস্ট শিক্ষার্থীদের সাথে  নিয়ে পাঠচক্র ও আড্ডা, সৃজনশীল বই পরিচিতি সভা করতে আগ্রহী এবং সকল স্কুল কলেজের সহযোগিতা আশা করেন। অনুষ্ঠানে প্রত্যেক বক্তার পক্ষ  থেকে একটি কথাই উচ্চারিত হয়েছে  পড়ার কোন বিকল্প  নেই। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত জানার শেষ নেই। অতএব জ্ঞান অণে¦ষনের জন্য পাঠ্য পুস্তকের পাশাপাশি অন্যান্য বই পাঠ করার উপর গুরুত্ব দেয়া হয়। সহযোগিতায় ছিলো আফরিন রেজা হিরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মেহেরপুর তাহের ক্লিনিকে আবারো  ভূল চিকিতসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যু     

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর জেলা শহরের তাহের ক্লিনিকে আবারো ভূল চিকিৎসায় রিমা খাতুন (২৫) নামের এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রিমা গাংনী উপজেলার রামদেবপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। গত শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিজারিয়ান অপারেশনের পর রিমা মারা যায়। রিমার ফুফা মারুফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, শনিবার রিমার প্রসব বেদনা উঠলে তাকে মেহেরপুর তাহের ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। দুপুর ১২ টায় ক্লিনিক মালিক ডাক্তার আবু তাহের রিমার সিরিয়ান অপারেশন করান। অপারেশন থিয়েটার থেকে রিমা খাতুনকে বের করার পরপরই সে ছটফট করতে থাকে। পরে শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় সময় মারা যায় সে। তিনি আরো বলেন, ভূল অপারেশন করার কারণেই রিমার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে। রিমার পরিবার জানায়, ভূল অপারেশনের কারণে রিমার মৃত্যু হওয়ায় তাহের ক্লিনিকের কর্মকর্তারা দায় এড়াতে ক্লিনিকের নিজস্ব এ্যামবুলেন্সে লাশ বাড়িতে পৌছে দেয়। এসময় বিক্ষুদ্ধ জনতা ও স্থানীয় লোকজন এ্যামবুলেন্সসহ ড্রাইভারকে আটকিয়ে রাখে। ডাক্তার আবু তাহের বলেন, দুপুর ১২ টায় সময় রিমার সিজারিয়ান অপারেশন করার পর একটি পুত্র সন্তান হয়। মা ও ছেলে সুস্থ ছিল। সন্ধ্যায় রিমা অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে চিকিৎসা দিয়েও তাকে বাঁচানো যায়নি। মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডাক্তার শামীম আরা নাজনীন জানান, গতকাল রবিবার সকালে ঘটনার বিষয়ে জেনে তদন্ত কমিটি গঠন করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ মোহাম্মদ দারা জানান,রিমার পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। উল্লেখ্য’ গত বছরের ১২ সেপ্টম্বর মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল খালেকের শরীরে তাহের ক্লিকিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভূল ইনজেকশন পুশ করার পর তার মৃত্যু হয়। ওই ঘটনায় নিহত আব্দুল খালেকের স্বজনরা তাহের ক্লিনিক ভাঙচুর করে।

গাংনীতে বর্ষবরণ উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

গাংনী প্রতিনিধি  ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে বাংলা বর্ষবরণ (১৪২৬ খ্রীষ্টাব্দ) উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে গাংনী উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। গাংনী উপজেলা প্রশাসন প্রস্তুতি সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল। সভায় বক্তব্য রাখেন গাংনী থানার ওসি (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, গাংনী পৌরসভার সাবেক মেয়র ও আ.লীগ নেতা আহম্মদ আলী, মেহেরপুর জেলা জাতীয় পার্টি (জাপা)’র সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সেলিম, গাংনী উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন। এ সময় বক্তব্য রাখেন,বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ। উল্লেখ্য, আগামী বাংলা বর্ষবরণ উপলক্ষে পহেলা বৈশাখ সকাল ৮টার দিকে গাংনী উপজেলা পরিষদ চত্বরে গণজমায়েত, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। পরে গাংনী উপজেলা শহরের প্রধান-প্রধান সড়কে বাঙ্গালী ঐতিহ্য তুলে ধরে নানা রঙে-নানা ঢংয়ে সেজে বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে। পরে সকাল সাড়ে ৮টার সময় গাংনী উপজেলা শিশু পার্কে পান্ত-ইলিশ খাওয়ার আয়োজন করা হবে। পাশা-পাশি গাংনী উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর শিল্পী ও অতিথি শিল্পীদের পরিবেশনায় গান-নাচ, কবিতা অনুষ্ঠিত হবে। বিকেল ৪টার দিকে গাংনী উপজেলা পরিষদ চত্বরে ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হবে।

শিগগির ১৫ হাজার চিকিতসক নিয়োগ – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ১৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক। গতকাল রোববার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বিশ্বস্বাস্থ্য দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই সভার আয়োজন করে। জাহিদ মালেক বলেন, ‘আগামী দুমাসের মধ্যে আমরা প্রায় ৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিতে সক্ষম হবো। এর কিছুদিন পরেই আরো ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে।’ শিগগিরই দেশে দেড়শো নতুন আইসিইউ নির্মাণের কথা জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতিটি নাগরিকের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার। তিনি বলেন, এখন ৬০ শতাংশ সেবা দেয়া হয় প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে, কিন্তু এখানে চিকিৎসায় অনেক বেশি। আমরা তাদের চার্জ কমানোর আহ্বান জানাচ্ছি। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাবিবুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

রক্তপাত পরিহার করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আহ্বান সিইসির

ঢাকা অফিস ॥ প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা বলেছেন, পাহাড়ের জনপদ যারা অশান্ত করে তুলেছেন তাদের প্রতি আমার অনুরোধ আপনারা সংঘাতের পথ পরিহার করুন, অনাকাঙ্খিত সহিংস কর্মকান্ড থেকে বেরিয়ে আসুন। নিজেরা স্বাভাবিক জীবন যাপন করুন অন্যদেরকেও নিরাপদে বসবাস করার সুযোগ দিন। তিনি বলেন, অস্ত্র দিয়ে প্রাণহানির মধ্যে দিয়ে রক্তপাত করে কোনদিন শান্তি প্রতিষ্ঠিত হতে পারে না সংঘাত শুধু সংঘাত বাড়াতে থাকে দুটি হত্যা হলে চারটি ‘প্রতিহত্যা’র পথ সৃষ্টি হয়। আপনারা জানেন সুন্দরবনের জলদস্যুরা বাংলাভাইদের জঙ্গীরা কক্সবাজারেরর ইয়াবা ব্যবসায়ীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে, আপনারাও এই হত্যকান্ড- রক্তপাতের পথ থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন। গতকাল রোববার বাঘাইছড়ি উপজেলার সম্মেলন কক্ষে দুপুর ১২টায় এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনের দায়িত্ব শেষে ফেরার পথে ব্রাশফায়ারে সাতজন নিহতের ঘটনায় হতাহতদের পরিবারের মধ্যে অনুদান প্রদান উপলক্ষে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।এসময় নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন, সেনাবাহিনীর চট্রগ্রাম ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল এসএম মতিউর রহমান, জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধনের মহাপরিচালক ব্রি. জেনারেল মো. সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রি. জেনারেল হামিদুল হক, বিজিবির খাগড়াছড়ি সেক্টর কমান্ডার কর্নেল গাজী মোহাম্মাদ সাজ্জাদ, ২৭ বিজিবির অধনায়ক লে. কর্নেল মাহাবুবুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক সহিদুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপার আলমগীর কবির, খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার আহমারউজ্জামান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।মতবিনিময় শেষে নিহত ও আহতদের স্বজনদের হাতে চেক বিতরণ করেন সিইসি।নিহত সাতজনের মধ্যে ৪ জন আনসার ভিডিপি সদস্য, প্রিজাইডিং পোলিং অফিসার ২ জন, প্রার্থীর এজেন্ট ছিলেন ১ জন। গুরুতর আহত হয়েছেন ১৯ জন ও সাধারণ আহত হয়েছেন ১৪ জন।নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা, গুরুতর ১৯ জন আহতদের এক লাখ টাকা এবং সাধারণ আহত ১৪ জনকে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে চেক প্রদান প্রদান করা হয়।প্রসঙ্গত, গত ১৮ মার্চ সোমবার দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হয় বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। নির্বাচনে দিনভর দায়িত্বপালন শেষে নির্বাচনী সরঞ্জামসহ উপজেলার সাজেকের কংলাক, মাচালং, বাঘাইহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ছেড়ে গাড়িবহর নিয়ে উপজেলা সদরে ফিরছিলেন, নির্বাচনী কর্মকর্তা, কর্মচারী ও নিরাপত্তাকর্মীদের দল। দিঘীনালা-মারিশ্যা সড়কের ৯ কিলোমিটার নামক এলাকায় পৌঁছা মাত্র নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বহনকারী জিপগাড়ি লক্ষ্য করে অতর্কিত এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা।এতে কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ৬ জন। যাদের মধ্যে ছিলেন নির্বাচনী দায়িত্বপালন করা শিক্ষক, সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী ও আনসার-ভিডিপি সদস্য। রাতে বাঘাইছড়ি থেকে হেলিকপ্টারে করে চট্টগ্রাম নেয়ার পথে মারা যান গুলিবিদ্ধ শিক্ষক মো.  তৈয়ব। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে পুলিশ ও আনসার-ভিডিপি সদস্য, স্কুল-কলেজের শিক্ষকসহ আহত হন ৩৩ জন।