গাংনীতে শিলা-বৃষ্টিতে ফসলের ক্ষতি

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে শিলাবৃষ্টি হয়েছে। শিলাবৃষ্টিতে ফল ও ফসলের ক্ষতি হয়েছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় আকাশে ঘন মেঘ বিরাজ করছিল। এ সময় শুরু হয় শিলাবৃষ্টি। এ ধরণের শিলাবৃষ্টিতে আম ও গম ফসলসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষতি হয়। গাংনী উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, শিলাবৃষ্টির কারণে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। পরিদর্শন শেষে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বলা সম্ভব হবে।

ঝিনাইদহে অতিরিক্ত ক্লাসের নামে চলছে কোচিং বাণিজ্য

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে কোচিং বানিজ্য বন্ধে নীতিমালা প্রয়োগ করার কথা বললেও বাস্তবায়ন হচ্ছে না। নীতিমালায় ফাঁক ফোকর দিয়ে প্রকাশ্যে প্রতিষ্ঠানের শ্রেণীকক্ষেই অতিরিক্ত ক্লাসের নামে কৌশলে এ বাণিজ্য করা হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটির দিনেও সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে শুরু হয় ক্লাস গ্রহণ। অতিরিক্ত ক্লাসের নামে শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলছে এ বাণিজ্য। এ কারণে ছেলে মেয়ের পড়ালেখার খরচ চালাতে গিয়ে অভিভাবকগণ হিমশিম খাচ্ছেন ও উপেক্ষিত হচ্ছে সরকারের নীতিমালা। বৃহস্পতিবার পবিত্র সবে মেরাজ উপলক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ছিল। তবে সকালে শহরের জমিলা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় ৩ টি কক্ষে কোচিং করানো হচ্ছে। নিচতলা ও ২য় তলায় ২ টি কক্ষে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও অন্য কোচিংয়ের একজন শিক্ষক শিক্ষার্থীদের পাঠদান করাচ্ছেন। ছবি তুলতে গেলে অনেকটা ধেয়ে আসেন এক শিক্ষক। একই সময় শহরের চাকলাপাড়ার শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠে দিয়ে দেখা যায় একটি কক্ষে অর্ধ-শতাধিক শিক্ষার্থীদের ক্লাস করাচ্ছেন এক শিক্ষক। সকাল ৮ থেকে শুরু করে ক্লাস চলে সকাল ১০ টা পর্যন্ত। সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে শহরের মুক্তিযোদ্ধা মসিউর রহমান মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়। একটি কক্ষে ক্লাস চলছে। সেখানে রয়েছে প্রায় ৪০ জন শিক্ষার্থী। ক্লাসের বাইরে অপেক্ষা করছে আরও কিছু ছাত্রী। ছাত্রীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতিটি ছাত্রীর নিকট থেকে ৬’শ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও শহরের আরাপপুর উকিলপাড়ায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে  কোচিং করাচ্ছেন সরকারি বালক বিদ্যালয়ের আক্কাস নামের এক শিক্ষক। অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, অধিকাংশ সময় নিয়মিত শিক্ষকগণ তাদের রুটিন ক্লাশের সময় গল্পগুজবে মশগুল থাকেন। এতে করে মানসম্মত শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষার্থীরা ও নির্ভর হয়ে পড়ছে কোচিংয়ের উপর এবং আগ্রহ হারাচ্ছে ক্লাসের উপস্থিত থাকায়। অভিভাবকরা জানায়, ভালোমন্দের বাছ-বিচার না করে ঢালাও ভাবে ক্লাসের সব শিক্ষার্থীকে কোচিং করতে বাধ্য করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ জেলা শিক্ষা অফিসার সুশান্ত কুমার দেব বলেন, বিষয়টি আমরা দেখছি। যদি কোন অভিযোগ আসে তাহলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। এ সংক্রান্ত কমিটি আছে। কমিটির মাধ্যমে কোচিং বাণিজ্য বন্ধে অভিযান করা হবে।

অবশেষে আজ খুলছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা অফিস ॥ টানা ১২ দিন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনের পর তা থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।গতকাল শনিবার সার্কিট হাউসে বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বরিশালের প্রশাসন, শিক্ষক, সুশীল সমাজ ও শিক্ষার্থীদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।এদিকে আজ রোববার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কার্যক্রম চালুর ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. হাসিনুর রহমান।এছাড়া শনিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে হল পূর্ণরূপে চালু করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।রুদ্ধদ্বার বৈঠক থেকে বের হয়ে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করে শিক্ষার্থীরা প্রথম থেকে যে ২২ দফা দাবির কথা বলে আসছিল তা মেনে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার। পাশাপাশি ভিসি ইমামুল হককে ছুটিতে যাওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে বৈঠক থেকে এবং এ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানানো হবে। পরবর্তী সিদ্ধান্ত তিনিই গ্রহণ করবেন।বৈঠকে উপস্থিত আন্দোলনরত ছাত্র নেতা সিফাত জানান, বৈঠকে যারা উপস্থিত হয়েছেন তাদের সঙ্গে একমত হয়েছি আমরা। তাই মিটিংয়ে আমরা শিক্ষার্থীদের যে প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলাম তারা আপাতত আন্দোলন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, শিক্ষাবিদ প্রফেসর হানিফ, বিএমপি কমিশনার মোশারফ হোসেন, বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাস, জেলা প্রশাসক অজিয়র রহমান, ডিজিএফআই বরিশালের কর্নেল শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।উল্লেখ্য, ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের আয়োজনে শিক্ষার্থীদের না জানানোর কারণে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। পরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের রাজাকারের বাচ্চা বলে গালি দেয়া হলে আন্দোলন আরও বেগবান হয়।একপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয় শিক্ষার্থীদের। এরপরও শিক্ষার্থীরা টানা ১২ দিন আন্দোলনের পর শনিবার বরিশালের জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকে বসে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

পুরান ঢাকার ভবন ভেঙে ফ্ল্যাট করে দেয়া হবে – গণপূর্তমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ পুরান ঢাকাকে নিয়ে রি-ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। তিনি বলেন, ‘পুরান ঢাকাকে নিয়ে আমরা রি-ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প হাতে নিয়েছি। এই প্রকল্পের আওতায় পাঁচ কাঠা জায়গার উপর যদি তিনটি ভবন থাকে তাহলে আমরা পরিবেশসম্মত, বিল্ডিং কোড অনুযায়ী ভবন করে দেব এবং রেশিও (অনুপাত) অনুযায়ী ওই ভবন মালিকদের ফ্লাট দেব।’ রেজাউল করিম গতকাল শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তে ঢাকা ইউটিলিটি রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ডুরা) আয়োজিত ‘ইমারত নির্মাণে সরকারের দায়িত্ব ও নাগরিকদের করণীয়’ শীর্ষক মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ঢাকা শহরের বয়স অনেক হয়েছে। পুরান ঢাকার ভবনগুলো এমনভাবে গড়ে উঠেছে- যে কারণে পুরনো ঢাকাকে রাতারাতি ভেঙে ফেলে নিরাপদ,ঝুঁকিমুক্ত ও পরিবেশসম্মত আবাসন এখনো গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। আপাতত পুরান ঢাকায় একেবারে ঝুঁকিহীন সব রকম ব্যবস্থা করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি বলেন, ‘আমাদের নতুন শহরগুলো যেমন-পূর্বাচল, ঝিলমিল, উত্তরা তৃতীয় প্রকল্প; সেখানে ৪৫ শতাংশ জায়গা ফাঁকা রেখে ভবনের অনুমোদন দিচ্ছি; যাতে একটি বাড়ি থেকে আরেকটি বাড়ির মাঝখানে বিশাল জায়গা ফাঁকা থাকে, পরিবেশ দূষণ না হয়, মানুষ যেন মুক্ত বাতাস নিতে পারে।সেখানে খেলার মাঠ, পার্ক, লেক, বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা রেখেছি।’ সংগঠনের সভাপতি মশিউর রহমান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন রুবেল, সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম শামীম, অর্থ সম্পাদক রুহুল আমিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেকড়ের সন্ধানে নেদারল্যান্ডসের তরুণী জামালপুরে

ঢাকা অফিস ॥ নানি এবং খালার সন্ধানে বাংলাদেশে এসেছেন নেদারল্যান্ডসের তরুণী নওমি উইলেমসেন (২১)।বুধবার মা লিপি বেগমের হারানো পরিবারের খোঁজে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার কাজিয়ারচর ও কাজিরবাড়ি গ্রামে আসেন তিনি।নওমির সঙ্গে আসা ভারতের আইনজীবী অঞ্জলি পাওয়ার জানান, ১৯৭৪ সালে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার কাজিয়ারচর গ্রাম বা কাজিরবাড়ি গ্রামের মো. আরসি শেখ দুই মেয়েসহ তার সন্তানসম্ভবা স্ত্রী সখিনা বেগমকে রেখে মারা যান।তার মৃত্যুর দুই মাস পর এক কন্যাশিশুর জন্ম দেন সখিনা বেগম। মেয়ের নাম রাখা হয় লিপি বেগম।

কিন্তু তিন মেয়েকে লালনপালন করা কষ্টসাধ্য হয়ে ওঠে তার। এ জন্য সখিনা বেগম নিরুপায় হয়ে তিন মাস বয়সী শিশু লিপি বেগমকে ঢাকার একটি অরফানেজ ট্রাস্টে রেখে আসেন।১৯৭৭ সালে নেদারল্যান্ডসের একজন নাগরিক ওই অরফানেজ ট্রাস্ট থেকে লিপি বেগমকে দত্তক নিয়ে নিজ দেশে নিয়ে যান।বড় হওয়ার পর থেকেই তার মা-বোনের খোঁজ করতে থাকেন লিপি বেগম।এ কারণে জন্মের প্রায় ৪৪ বছর পর গত বছর স্বামী জেসপিয়ার উইলেমসেনকে নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন লিপি বেগম।ঢাকার ওই অরফানেজ ট্রাস্টের ঠিকানার সূত্র ধরে মাদারগঞ্জের কাজিয়ারচর ও কাজিরবাড়ি গ্রাম ঘুরে পরিবারের কথা জানতে পারেন তিনি।তবে মা-বোনদের খুঁজে পাননি তিনি। তাই মেয়ে নওমি এসেছেন মায়ের পরিবারকে খুঁজে বের করতে। নওমি বলেন, আমি আশাবাদী যে আমার নানি আর দুই খালাকে খুঁজে পাব। এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা চাই।

খালেদা জিয়ার অবস্থার দিন দিন উন্নতি হচ্ছে – বিএসএমএমইউ পরিচালক

ঢাকা অফিস ॥ দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে থেকে অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালোর দিকে। আগের চেয়ে তার অবস্থার উন্নতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহবুবুল হক। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া ভালো আছেন। আশা করি, আরও ভালো হবেন।গতকাল শনিবার খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের সবশেষ অবস্থা সম্পর্কে তিনি এসব কথা বলেন।বিএসএমএমইউতে আসার পর থেকেই সাবেক প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে জানিয়ে মাহবুবুল হক বলেন, মেডিকেল বোর্ডের দেয়া ওষুধ তিনি নিয়মিত খাচ্ছেন, তার ভালো ঘুমও হচ্ছে।তিনি বলেন, খালেদা জিয়া ডায়াবেটিসে আক্রান্ত। এটা নিয়ন্ত্রণে এসে যাবে, এর জন্য সময় লাগবে।শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়াকে দেখতে পারেন নি জানিয়ে মাহবুবুল হক জানান, গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তাকে মেডিকেল বোর্ড দেখেছেন, তিনি ভালো ছিলেন। তিনি ওষুধ খাচ্ছেন, তার অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।এর আগে সোমবার দুপুরে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিএসএমএমইউয়ে আনা হয় খালেদা জিয়াকে।তার চিকিৎসায় এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক মো. জিলন মিঞা সরকারের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি মেডিকল বোর্ড গঠন করা হয়। বোর্ডে রয়েছেন- রিউমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, ফিজিকেল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. বদরুন্নেসা আহমেদ, কার্ডিলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তানজিলা পারভিন ও অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক চৌধুরী ইকবাল মাহমুদ।জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৭ বছর দ- নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন কারাগারে বন্দী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।

 

পরকীয়ার জেরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন!

ঢাকা অফিস ॥ নাটোর সদর উপজেলার দস্তানাবাদ গ্রামে ছোট ভাই আরিফুল ইসলামের (৩৮) চাপাতির কোপে গুরুতর আহত বড় ভাই দুলাল হোসেন (৪৪) গত শুক্রবার রাতে মারা গেছেন।নাটোর সদর থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দুলালের স্ত্রীর সঙ্গে ছোট ভাই আরিফুলের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর জের ধরে ওই পরিবারে প্রায়ই ঝগড়া-বিবাদ লেগে থাকত। সম্প্রতি একটি পারিবারিক সালিসও হয়। তবে তাতে কোনো কাজ হয়নি। ৩ এপ্রিল এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বাগ্বিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে ছোট ভাই আরিফুল বড়ভাই দুলালের গলায় ধারালো চাপাতি দিয়ে কোপ দেন। গুরুতর আহত দুলালকে চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাতে তাঁর মৃত্যু হয়।নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী জালাল উদ্দীন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে ঘটনার দিন খবর পাওয়ার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়দের বক্তব্য শুনেছে। ঘটনার পর থেকে আরিফুল পলাতক আছেন। তাঁকে আটকের চেষ্টা চলছে।

 

এরশাদের নতুন নির্দেশ, উত্তরসূরি হিসেবে ভাইয়ের নাম

ঢাকা অফিস ॥ দলে ভাই জি এম কাদেরের যেসব পদ কেড়ে নিয়েছিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ, তার প্রায় সবই ফেরত দিলেন। দুদিন আগেই জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যানের পদে ফেরত আনা হয় কাদেরকে। গতকাল শনিবার নিজের অবর্তমানে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের জন্যও তাকে মনোনীন করেন এরশাদ। সিদ্ধান্ত ঘন ঘন পরিবর্তনের জন্য বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচিত এরশাদ গতকাল শনিবার এক ‘সাংগঠনিক নির্দেশে’ জিএম কাদেরকে উত্তরসূরি ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, “গত ২২ মার্চ তারিখে আমার স্বাক্ষরিত একটি সাংগঠিক নির্দেশ জারি করেছিলাম, যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছিল। উক্ত সাংগঠনিক নির্দেশ অত্র সাংগঠনিক নির্দেশ দ্বারা বাতিল ঘোষণা করছি। আমি আবারো জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের স্মরণ করিয়ে দিতে চাই যে, আমার অবর্তমানে বা চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিদেশে থাকাকালীন সময়ে পার্টির বর্তমান কো চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। অত্র সাংগঠনিক নির্দেশ দ্বারা পুনর্বহাল করলাম।” এরশাদ বলেন, “আমার অবর্তমানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিদেশে থাকাকালীন সময়ে পার্টির কো চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।” একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এরশাদ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তিনি ভাই জি এম কাদেরকে দলের ‘ভবিষ্যৎ চেয়ারম্যান ‘হিসেবে ঘোষণা দেন। ১ জানুয়ারি দল প্রধানের সে সিদ্ধান্তে ‘নাখোশ’ ছিলেন দলের অনেক জ্যেষ্ঠ নেতা। দলের এক গুরুত্বপূর্ণ সভায় দলের জ্যেষ্ঠ কো চেয়ারম্যান রওশন এরশাদের সঙ্গে ‘দ্বন্দ্বের’ কথা নিজেই স্বীকার করে নিয়েছিলেন জি এম কাদের। দলের সভাপতিমন্ডলীর একাধিক সদস্য এসময় জি এম কাদেরকে হটাতে ‘চেষ্টা করেছিলেন’ বলে জানান দলের কজন জ্যেষ্ঠ সদস্য। পরে গত ২২ মার্চ সাংগঠনিক কার্যক্রমে ব্যর্থতা ও দলে বিভেদ তৈরির অভিযোগে জি এম কাদেরকে গত ২২ এপ্রিল দলের কো চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরিয়ে দেন এরশাদ। তাকে সাংগঠনিক সব কার্যক্রম থেকেও বিরত করেন তিনি কেড়ে নেওয়া হয় দলের উপনেতার পদ। তবে বহাল থাকে সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পদ।ভাইকে সরিয়ে স্ত্রী রওশন এরশাদকে জাতীয় সংসদে দলের উপনেতা করেন এরশাদ।এরশাদের এ সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন রংপুর বিভাগের নেতারা। দলের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার নেতৃত্বে তারা সিদ্ধান্ত নেয়, জি এম কাদেরকে পুনর্বহাল না করলে তারা একযোগে পদত্যাগ করবেন।মোস্তাক জানিয়েছেন, গত ৩ এপ্রিল তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এরশাদ জি এম কাদেরকে আবারও স্বপদে বহালের সিদ্ধান্ত নেন এরশাদ।পুরনো ‘দ্বন্দ্ব’ নিরসনের আভাস দিয়েছেন রওশন এরশাদও। কদিন আগে দলের যুব সংগঠন জাতীয় যুব সংহতির এক অনুষ্ঠানে রওশন এরশাদ ও জি এম কাদেরকে দেখা গেছে একমঞ্চে।দলকে ক্ষমতায় নিতে একযোগে কাজ করার ঘোষণা দিয়ে রওশন এরশাদ বলেছেন, তাদের দলে ‘কোনো দ্বন্দ্ব বা বিভেদ নেই’। এরশাদের এই সিদ্ধান্ত বদলের বিষয়ে মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁকে ফোন করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

গাংনীতে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের হেমায়েতপুর গ্রামের একটি বাগান থেকে হাসমত আলী ওরফে হাসু (২৮) নামের এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এক সন্তানের জনক হাসু রাজারপাড়া হেমায়েতপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। গতকাল শনিবার সকাল ৯টার দিকে স্থানীয় হেমায়েতপুর পুলিশ ক্যাম্পের সদস্যরা হাসুর বাড়ির অদূরে একটি বাগানের চটকা গাছ থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে। স্থানীয়রা জানান, সকালে একটি চটকা গাছের ডালে হাসুর লাশ ঝুলছিল। এ সময় কয়েকজন কৃষক তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। পারিবারিক কলহের কারণে হাসু আত্মহত্যা করেছে বলে মনে হচ্ছে। পারিবারিক সূত্র জানায়, হাসুকে রাত থেকে পাওয়া যাচ্ছিলনা। সকালে বাড়ির পাশে একটি বাগানের চটকা গাছে তার মরদেহ ঝুলছে এমন খবর পায়। হাসু মানষিক রোগী ছিল। এ কারণেই সে আত্মহত্যা করেছে।

কালের কন্ঠের শুভ সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির জাতীয় সম্মেলন উদ্বোধন

এপার বাংলা ওপার বাংলার জনপ্রিয় লেখক, কথাসাহিত্যিক ও কালের কন্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন বলেছেন, শুভ কাজে সবার পাশে কালের কণ্ঠের শুভ সংঘের এমন স্লোগানটিকে বাস্তবায়নে সারাদেশে কাজ করতে হবে। এজন্য শুভ সংঘের আজকের এই জাতীয় সম্মেলন। শুক্রবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কমপ্লেক্স মিলনায়তনে দুই দিনব্যাপী শুভ সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির জাতীয় সম্মেলন উদ্বোধনকালে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, শুভ সংঘের সকল সদস্যদের সাথে অনেক কথা বলার আছে। তোমরা শুভ কাজে পাশে আছো কিনা আমি জানতে চাই, শুনতে চাই। কতটা নিজেকে ভালোবাসতে চেয়েছো।  সেই ভালোবাসার মাধ্যমে নিজের ও পরিবার এবং সমাজের জন্য শুভ কাজে সবার পাশে কতটুকু থাকতে পেরেছো। শুভ সংঘের সকল সদস্যরা যেন প্রত্যেকেই নিজ নিজ এলাকায় আলোকবর্তিকা হিসেবে গড়ে উঠতে পারে এবং  তোমাদের আলোয় সারা বাংলাদেশ যেন আলোকিত করতে পারবে এমন চিন্তা  বেশি বেশি করতে হবে।  অভিভাবকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা আপনাদের সন্তানদের ভালো কাজের সাথে সম্পৃক্ত করেছেন বলে।

জাতীয় সঙ্গীতের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ইমদাদুল হক মিলন। পরে থিম সং গেয়ে শোনানোর পর বক্তব্য রাখেন, শুভ সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা শাখাওয়াত হোসেন মামুন, সভাপতি সাদিকুল ইসলাম, সহসভাপতি তারিকুল হক তারিক, লিমন বাশার প্রমুখ।  শ্রেষ্ঠ সংগঠক হিসেবে নাজমুস সাকিবকে সম্মাননা ক্রেষ্ট তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত, নৃত্য ,দলীয় নৃত্য, নাটিকা,  জাদু প্রদর্শন করেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা সদস্যরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মিরপুরে কবিতা ও প্রবন্ধ পাঠের আসর

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে কবিতা পাঠ ও প্রবন্ধের আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকাল ৪টার দিকে মিরপুর মিনি রিসোর্ট এন্ড পার্কে এই কবিতা পাঠের আসর অনুষ্ঠিত হয়। এতে কলম সৈনিক সাহিত্য পরিষদের সভাপতি কবি জলীম উল্লাহ আল হামিদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কবি ও সাহিত্যিক হাসান টুটুল, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সাবেক মফস্বল সম্পাদক আব্দুল বারী, আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন বিশ্বাস, এনজিও সংস্থা পিপাসার পরিচালক ও কবি শ্যামল কুমার চৌধুরী, শিক্ষক শাহিনুল ইসলাস, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার মিরপুর উপজেলা সংবাদদাতা হুমায়ুন কবির হিমু, মিরপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি কাঞ্চন কুমার হালদার, ঢাকা ট্রিবিউন ও বাংলা ট্রিবিউন পত্রিকার কুষ্টিয়া প্রতিনিধি কুদরতে খোদা সবুজ, সাংবাদিক হাবিবুর রহমান, সুমন সাহমুদ, কবি জলীম উল্লাহ আল হামিদের পিতা আব্দুল হামিদ, কবি হাসমত আলী, কবি নাজির উল্লাহ, শাকিবুল ইসলাম আবীর, রমজান উল্লাহ আশিক, মনিরুল ইসলাম, তামান্না তানজিল মিতা প্রমুখ। কবিতা পাঠের আসরটি পরিচালনা করেন শিক্ষক ও কবি মজিবুল হক। এসময় উদিয়মান কবি ও সাহিত্যিকরা তাদের স্বরোচিত কবিতা আবৃত্তি করেন।

 

অগ্নি-নিরাপত্তা – ভবন পরিদর্শনে ডিএনসিসির ১০ দল

ঢাকা অফিস ॥ বহুতল ভবনের অগ্নিঝুঁকি চিহ্নিত করতে এবার মাঠে নেমেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এরই অংশ হিসেবে ভবন পরিদর্শনের জন্য ডিএনসিসি ১০টি দল গঠন করেছ। গতকাল শনিবার তাদের কার্যক্রম উদ্বোধন করে উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, প্রথম পর্যায়ে সিটি করপোরেশন ভবনগুলোতে ফায়ার এক্সিট, ফায়ার ডোর ও নিরাপত্তাকর্মীদের ফায়ার ড্রিল (প্রশিক্ষণ) রয়েছে কি না তা পরীক্ষা করে দেখবে। প্রথম ধাপে ত্রুটি পেলে ভবন মালিকদের সতর্ক করবেন তারা। এরপরও কেউ ত্রুটি সারাই না করলে সিটি করপোরেশনের ম্যাজিস্ট্রেট তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন। “দ্বিতীয় দফা অভিযানে ত্রুটিযুক্ত কোনো ভবনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থাকলে তার লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হবে।” এ কার্যক্রমে নগরবাসীর সহায়তা চেয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, “যেভাবে পরিকল্পনা করে নগর গড়ে তোলার দরকার ছিল তা আমরা করিনি। এখন আমাদের সচেতন হতে হবে। সীমিত সামর্থ্য নিয়েই আমরা কাজ করব। আমাদের অভিযানের পাশাপাশি কেউ যদি তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেন, তার অভিযোগও আমরা নেব। সেক্ষেত্রে তার গোপনীয়তা রক্ষা করা হবে।” আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে ২টি করে দল গঠন করা হয়েছে ডিএনসিসির প্রতিটি অঞ্চলের জন্য । ডিএনসিসি, ফায়ার সার্ভিস, বেসরকারি সংস্থা, বিভিন্ন কমিউনিটির সদস্য সমন্বয়ে প্রতিটি দলে ১০ থেকে ১৫ জন সদস্য থাকবে। ভবন পরিদর্শন দলগুলো ডিএনসিসি এলাকার বহুতল ভবনে গিয়ে আগে থেকে তৈরি করা একটি চেকলিস্টের মাধ্যমে ভবনের অগ্নি-ঝুঁকি পরীক্ষা করবে। কোনো ভবনে অগ্নি-নিরাপত্তা যথেষ্ট না থাকলে সে ভবনের প্রবেশস্থলে ‘এই ভবনটির অগ্নি-প্রতিরোধ ব্যবস্থা পর্যাপ্ত নয়, সতর্ক থাকুন’ লেখা একটি স্টিকার লাগিয়ে দেওয়া হবে। তাছাড়া ভবনে বসবাসকারী বা ভবন মালিককে দ্রুততম সময়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হবে। সভায় মেয়র আতিকুল ইসলাম জানান, ঢাকা উত্তরের ২০টি ভবনকে তিনি এ কার্যক্রমে ‘মডেল ভবন’ হিসেবে উপস্থাপন করবেন, যাতে অগ্নি নিরাপত্তার সব বন্দোবস্ত থাকবে।  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল হাই, সচিব রবীন্দ্র শ্রী বড়ুয়া, আরবান রিজিলিয়েন্স প্রজেক্ট ডিরেক্টর ড. তারিক বিন ইউসুফ, বেসরকারি সংস্থা প¬্যান ইন্টারন্যাশনাল, একশনএইড, ওয়ার্ল্ডভিশন, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই

ঢাকা অফিস ॥ জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা আবদুস সামাদ আর নেই। অভিনয় করে মানুষকে হাসানো এই অভিনেতা টেলি সামাদ নামে অধিক পরিচিত। ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার মৃত্যু হয়েছে তার। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। আবদুস সামাদ ‘টেলি সামাদ’ হিসেবেই চলচ্চিত্রে অভিনয় করতেন; টেলিভিশন থেকে চলচ্চিত্রে পা রাখায় তার এই নাম হয়ে যায়, যা তিনি নিজেও আর বদলাননি। বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন সামাদ; শুক্রবার অবস্থা গুরুতর হলে তাকে নেওয়া হয় স্কয়ার হাসপাতালে। শনিবার দুপুর দেড়টায় চিকিৎসক এই অভিনেতার মৃত্যু ঘোষণা করেন বলে হাসপাতালে যোগাযোগ করে জানা যায়। গত ডিসেম্বর মাসে বুকে ইনফেকশন নিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন টেলি সামাদ। তখন আইসিইউতেও ছিলেন কিছু দিন। টেলি সামাদকে এর আগে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বাইপাস সার্জারি করা হয়। এরপর ২০১৭ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি কিছুটা সুস্থ হয়ে দেশে ফেরেন। কিন্তু দেশে আসার পর অক্টোবর ও নভেম্বরে দুই দফা স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল তাকে। অসুস্থ টেলি সামাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিয়ে তার চিকিৎসায় উদ্যোগী হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৪ সালে এই অভিনেতার হাতে ২০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র তুলে দেন। মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকন্ঠ নয়াগাঁও এলাকার সন্তান সামাদ। সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে বেড়ে ওঠা সামাদ তার বড়ভাই চারুশিল্পী আব্দুল হাইকে অনুসরণ করে ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায়। ১৯৭৩ সালে ‘কার বউ’ দিয়ে চলচ্চিত্রে পা রাখেন সামাদ। গত চার দশকে ৬০০ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি। তার অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ২০১৫ সালে মুক্তি পাওয়া ‘জিরো ডিগ্রী’। কমেডিয়ান হিসেবে দর্শক টেলি সামাদকে চিনলেও প্রায় ৪০টির বেশি চলচ্চিত্রে গানও গেয়েছেন টেলি সামাদ। ‘মনা পাগলা’ ছবির সংগীত পরিচালনাও করেন তিনি। সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ অভিনেতা টেলি সামাদের চাচা।

কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০ বছর পূর্তির আলোচনাসভা এফতে খাইরুল ইসলাম

শিশুদের মেধা বিকশিত করার জন্য বহুমুখি কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে কুষ্টিয়া পৌরসভা

কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ এফতে খাইরুল ইসলাম বলেছেন, দীর্ঘ তেইশ বছর ধরে যিনি তিল তিল করে কুষ্টিয়া পৌরসভাকে আজকের এই অবস্থানে গড়ে তুলেছেন তিনি আজকের অনুষ্ঠানের সভাপতি কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। শুধু পৌরসভাই নয় একসময় বৃহত্তর কুষ্টিয়ার নৌকার হাল ধরেছিলেন প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তি এই আনোয়ার আলী। কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের দুর্দিনের কান্ডারী কুষ্টিয়া পৌরসভার চারবার নির্বাচিত মেয়র তার পৌর পরিষদকে নিয়ে ১৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষে ১৪ দিনব্যাপি যে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন তা কোন পৌরসভা বা অন্য কোন প্রতিষ্ঠান করেছে কিনা আমার জানা নেই। তিনি আরো বলেন, এই পৌরসভার রাস্তা, ড্রেন, বাজার উন্নয়নসহ বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সাথে নিবিড়ভাবে জড়িত হয়ে কাজ করে যাচ্ছে। শিশুদের মেধা বিকশিত করার জন্য বহুমুখি কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। তার হাত দিয়েই কুষ্টিয়া পৌরসভা সিটি করপোরেশনে রূপান্তরিত করার দাবী জানাই। কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষে ৬ষ্ঠ দিনের আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের বক্তৃতায় কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ এফতে খাইরুল ইসলাম এসব কথা বলেন। সভার সভাপতির বক্তৃতায় মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, প্রতিকূল অবস্থা উপেক্ষা করে  পৌরসভার এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে আমাদের এই আয়োজনকে সার্থক করায় সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। এছাড়াও তিনি পৌরসভার চৌদ্দদিন ব্যাপী আয়োজিত অনুষ্ঠানে  সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পৌর শিল্পীগোষ্টির পরিবেশনায় জাতীয় সংগীত পরিবেশিত হয়। এছাড়াও বিকেলে রংধনু একাডেমীর পরিবেশনায় সংগীতানুষ্টান অনুষ্ঠিত হয়। পরে নৃত্য রং একাডেমীর শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন কুষ্টিয়া পৌর উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাবিনা ইসলাম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

প্রেমের কারনে আত্মবলি

ট্রেনে কাটা পড়ে দৌলতপুরের এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ট্রেনে কাটা পড়ে শাহীন রেজা (২০) নামে এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তবে এটা আত্মহত্যা না দূর্ঘটনা তা নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন চলছে। নিহত শাহীন রেজা দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া গঙ্গারামপুর গ্রামের নিহার মন্ডলের ছেলে এবং সে দৌলতপুর কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। শনিবার সকাল ৯টার দিকে ভেড়ামারা উত্তর রেলগেটের সন্নিকটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভেড়ামারা ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন অফিসার প্রবীর কুমার দেবনাথ জানান, রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা রাজবাড়ি গোয়ালন্দ ঘাটগামী আন্তঃনগর ট্রেন মধুমতি এক্সপ্রেসে কাটা পড়ে কলেজ ছাত্র শাহীন গুরুতর আহত হয়। খবর পেয়ে ভেড়ামারা ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬¬ক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬¬ক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডাঃ আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, মাথায় আঘাত জনিত কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এদিকে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু নিয়ে দৌলতপুরের নিজ এলাকায় নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী জানিয়েছেন, কলেজ ছাত্র শাহীন রেজার সাথে তারাগুনিয়া শালিমপুর গ্রামের হামিদ আলীর মেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। প্রেমের সম্পর্কের কারনে শুক্রবার ওই মেয়েটি বাড়ি ছেড়ে ভেড়ামারা সাতবাড়িয়া এলাকায় তার আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। বিষয়টি জানাজানি হলে মেয়ের বাবা দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দিলে দৌলতপুর থানা পুলিশ শুক্রবার বিকেলে নিজ বাড়ি থেকে শাহীন রেজাকে আটক করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে মেয়েটির সন্ধান নেয়। এরপর মেয়েটির সাথে কোন প্রকার সম্পর্ক বা যোগাযোগ রাখা হবে না এই মর্মে মুচলেখা নিয়ে শাহীন রেজাকে থানা হেফাজত থেকে ছেড়ে দেয় দৌলতপুর থানা পুলিশ। এঘটনার জের ধরে এবং অপমানের জ্বালা সইতে না পেরে কলেজ ছাত্র শাহীন রেজা আজ সকালে ট্রেনের নীচে মাথা দিয়ে আত্মহত্যা করে। এ বিষয়ে জানতে দৌলতপুর থানার ওসি মো. নজরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তবে দৌলতপুর থানার ডিউটি অফিসার এএসআই নকিব বলেন বিষয়টি তার জানা নেই। এদিকে নিহত কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।

 

ঝড়ে গাছের ডালচাপা পড়ে চুয়াডাঙ্গায় একজন নিহত

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ গতকাল শনিবার রাতের ঝড়বৃষ্টি চলাকালে চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর-দত্তনগর সড়কে গাছের ডাল চাপা পড়ে মারা গেছেন মনিরুল ইসলাম ওরফে ডিশ মনির (৩৮) নামে এক ডিশ ক্যাবল ব্যবসায়ি। শনিবার রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে একাধিক প্রত্যক্ষদর্শি। নিহত মনিরের বাড়ী জীবননগরের তেতুঁলিয়া গ্রামে, পিতার নাম আমিরুল ইসলাম। ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারি পরিচালক রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ঝড়বৃষ্টি চলাকালে মনিরুল ইসলাম ওরফে ডিশ মনির মোটরসাইকেলে চেপে দত্তনগর থেকে বাড়ী ফিরছিলেন। পথিমধ্যে রাস্তার পাশের একটি গাছের ডাল ভেঙে তাঁর মাথায় পড়ে। ঘটনাস্থলে মারা যান মনির। ঝিনাইদহ ফায়ার সার্ভিস খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

মিরপুরে হাজী কল্যাণ পরিষদের সমাবেশ

আছাদুর রহমান বাবু ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে হাজীকল্যাণ পরিষদের বাৎসরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আব্দুল্লাহ হেল কাফির সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ( ইবি) দাওয়া এন্ড ইসলামীক ইস্টাডিস বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ছ ম তরিকুল ইসলাম। সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম জামাল আহমেদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর  পৌরসভার মেয়র হাজী এনামুল হক, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, হাজী কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা হাজী মাওলানা জহুরুল ইসলাম, হাজী আক্তারুজ্জামান, সহ-সভাপতি হাজী আবুল হাশেম, সহ সাধারণ সস্পাদক আলহাজ্ব বাছতুল্লাহ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাজী আব্দুল মান্নান, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাজী মুফতি হাবিবুল্লাহ, অর্থ সম্পাদক আনোয়ার  হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বাৎসরিক প্রতিবেদন উপস্থান করেন হাজী কল্যাণ পরিষদের প্রচার সম্পাদক হাজী আছাদুর রহমান বাবু। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুস সালাম। অনুষ্ঠানে প্রায় তিন শতাধিক হাজী উপস্থিত ছিলেন।

 

 

টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৩ রোহিঙ্গা নিহত

ঢাকা অফিস ॥ কক্সবাজারের টেকনাফে গ্রেপ্তার তিনজন রোহিঙ্গা পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। নিহতরা খুন, ডাকাতিসহ নানা অভিযোগ বেশ কয়েকটি মামলার আসামি বলে পুলিশ জানিয়েছে। গতকাল শনিবার ভোররাতে হ্নীলা ইউনিয়নের মুছনী রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় এই ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয় বলে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানিয়েছেন।   তিনি বলেন, “বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের ৩ সদস্যও আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে অস্ত্র ও গুলি।” নিহতরা হলেন হ্নীলা ইউনিয়নের মুছনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি-ব্লকের আমির হোসেনের ছেলে নুর আলম (২৩) এবং একই ক্যাম্পের এইচ-ব্লকের মোহাম্মদ ইউনুসের ছেলে মোহাম্মদ জুবায়ের (২০) ও ইমাম হোসেনের ছেলে হামিদ উল্লাহ (২০)। পুলিশের দাবি, এই শরণার্থীরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পকেন্দ্রিক সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন এসআই স্বপন, কনস্টেবল মোহাম্মদ মেহেদী ও মং মং। ওসি প্রদীপ বলেন, শুক্রবার রাতে মুছনী ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে নুর আলম, জুবায়ের ও হামিদকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। “জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের নিয়ে পুলিশের একটি দল ভোর রাতে মুছনী ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে অভিযানে যায়। সেখানে পৌঁছামাত্র তাদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। তখন পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে নুর আলম, জুবায়ের ও হামিদ গুলিবিদ্ধ হয়। আহত হয় পুলিশের ৩ সদস্যও।” গুলিবিদ্ধ ৩ রোহিঙ্গাকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা দেখে জানান, তিনজনই মারা গেছেন। কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শাহীন মো. আব্দুর রহমান চৌধুরী বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই পথে ৩ রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়েছে। তাদের শরীরে গুলির জখম রয়েছে। ঘটনাস্থলে দেশে তৈরি চারটি বন্দুক ও সাতটি গুলি পাওয়া যায় বলে জানান ওসি। তিনি বলেন, “নিহত ৩ রোহিঙ্গা টেকনাফের ক্যাম্পকেন্দ্রিক গড়ে উঠা সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য। তারা রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ আশপাশের এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, হত্যা, অপহরণ ও মাদক পাচারসহ নানা অপরাধ সংঘটন করত।” তারা তিনজনই টেকনাফ থানার পাঁচটি মামলার আসামি বলে ওসি জানান। তিনি বলেন, এসব মামলায় তারা পলাতক ছিলেন। মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গারা নিজ দেশে দমন-পীড়নের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা কক্সবাজারে বিভিন্ন শরণার্থী শিবিরে রয়েছে।

 

বন্দুকের নলের জোরে ক্ষমতায় আছে আ.লীগ – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে কীভাবে ক্ষমতায় টিকে আছে? শুধু বন্দুকের নলের জোরে রাষ্ট্রযন্ত্রকে সম্পূর্ণ করায়ত্ত করে জোর করে ক্ষমতায় টিকে আছে। গতকাল শনিবার দুপুরে পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনে কল্যাণ পার্টির চতুর্থ জাতীয় ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসব কথা বলেন।মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ চক্রান্তকারীদের সঙ্গে আপস করে ক্ষমতায় টিকে আছে। তিনি বলেছেন, এই সরকার অত্যন্ত সচেতনভাবে দীর্ঘকাল ধরে যারা চক্রান্ত করছে, তাদের সঙ্গে আপস করে ক্ষমতায় টিকে আছে। আজকে আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে সম্পূর্ণ দূরে। জনগণের সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই, বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তারা সম্পূর্ণ দেউলিয়া হয়ে গেছে।মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, জোর করে ক্ষমতায় বেশি দিন টিকে থাকা যায় না। সাময়িক সময়ের জন্য থাকা যায়, বিশ্বের ইতিহাস তাই বলে। তিনি বলেন, বিএনপি কখনো চক্রান্ত করে ক্ষমতায় আসেনি। আওয়ামী প্রায়ই বলে, বিএনপি চক্রান্ত করে ক্ষমতায় আসে। বিএনপি কোনো দিন চক্রান্ত করে ক্ষমতায় আসেনি। বিএনপি প্রতিবার জনগণের সুষ্ঠু ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় এসেছিল। কখনোই পেছনের দরজা বা অসুস্থভাবে ক্ষমতায় আসেনি।বিএনপির কারও বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়নিানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতকালের এই মন্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘অবৈধ’ সরকারের প্রধান একটি ‘মিথ্যা’ কথা যদি বারবার বলেন, তা জনগণ বিশ্বাস করে। এ দেশের মানুষ সবাই জানে, বিএনপি নেতাদের ও খালেদা জিয়াকে যে মামলায় সাজা দেওয়া হয়েছে, সেগুলো মিথ্যা মামলা, নাকি সত্য মামলা। বাংলাদেশের রাজনীতিকে কবর দেওয়া হয়েছে মন্তব্য করে মির্জা ফখফখরুল বলেন, ‘এ দেশের রাজনীতিকে রাজনীতিকরণের অনেক আগেই ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল। ১/১১-এর সময় যে সরকার ক্ষমতায় এসেছিল, তা অসাংবিধানিক সরকার। আমরা এটাও জানি, আজকে যারা ‘অবৈধ’ ক্ষমতায় আছে, তারা দীর্ঘকাল আন্দোলন করে তাদের এনেছিল। তখনো আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গর্ব করে বলেছিলেন, ১/১১-এর সরকার আমাদের আন্দোলনের ফসল। এসব কথা আমরা ভুলে যাইনি।’ খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘খালেদা জিয়া এখন চলতে পারেন না, কিছু খেতে পারেন না। আমরা বারবার দাবি জানিয়েছি তাঁকে বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য। কিন্তু সরকার তাঁকে পিজি (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নিয়ে গেছে। আমরা মনে করি না, সেখানে তাঁর সঠিক চিকিৎসা হবে।’ সম্মেলনের প্রধান আলোচক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘যে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছি, সেই গণতন্ত্র নেই। গণতন্ত্রের বাহন নির্বাচন। আমরা সবাই জানি, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন “২৯ তারিখ রাতে” হয়ে গেছে। এই নির্বাচনে জনগণ ভোট দেয়নি। ভোট দিয়েছে সরকারি কর্মচারী, আওয়ামী লীগের কর্মীরা এবং তাদের পাহারা দিয়েছে পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাব।’ কল্যাণ পার্টির চতুর্থ সম্মেলনে আবারও দলটির চেয়ারম্যান মনোনীত হয়েছেন মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, মহাসচিব হিসেবে মনোনীত হয়েছেন এম এম আমিনুর রহমান এবং যুগ্ম মহাসচিব হয়েছেন নুরুন্নবী ভূঁইয়া। সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম এসব নাম ঘোষণা করে বলেন, ‘আমাকে চতুর্থবারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত করায় দলের সব পর্যায়ের কাউন্সিলরদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ আগামী ৯৬ ঘণ্টার মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে তিনি জানান। বিএনপির স্থায়ী যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কল্যাণ পার্টির যুগ্ম মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমানসহ কল্যাণ পার্টির সদ্য বিদায়ী কমিটির বিভিন্ন পদের নেতারা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

জবাবদিহির আওতায় আনা হচ্ছে অনলাইন – আইনমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনার জন্য রেজিস্ট্রেশনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। গতকাল শনিবার রাজধানীর কসমস সেন্টারে ‘ফেইক নিউজ অ্যান্ড হেইট স্পিচ: কজেজ অ্যান্ড কনসিক্যুয়েন্সেস, হাউ ইট সাবভার্ট আওয়ার ডেমোক্রেটিক সিস্টেমস’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা জানান।

কসমস ফাউন্ডেশন আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী বলেন, অনলাইন নীতিমালা প্রণয়নে সরকার কাজ করছে। সাইবার আদালত গঠন, গুজব প্রতিরোধে ও অবহিতকরণ সেল গঠনের পাশাপাশি অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনার জন্য রেজিস্ট্রেশনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।ভুয়া খবরের প্রচার ও প্রকাশ বন্ধে সরকার ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন প্রণয়নের কাজ করছে জানিয়ে মূল ধারার গণমাধ্যমগুলোকে ভুয়া খবর প্রকাশ বন্ধে কার্যকরি ভূমিকা রাখার আহ্বান জানার মন্ত্রী। আনিসুল হক বলেন, আমাদের দেশে পাঁচটি উদ্দেশে ভুয়া খবর প্রকাশ করা হয়। উদ্দেশ্যগুলো হলো- সাম্প্রদায়িক গুজব ছড়ানো, উগ্র রাজনৈতিক ধর্মীয় মিথ্যাচার প্রচার, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করা, জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করা এবং অবৈজ্ঞানিক জল্পনা-কল্পনা প্রচার। এসব উদ্দেশ্যের মধ্যে পাঁচ নম্বর কারণ ক্ষতিকর না হলেও বাকি চারটি ভুয়া খবরের কারণে জনমনে সহিংস প্রভাব পড়ে। ভুয়া খবরের প্রচার ও প্রকাশ বন্ধে বিটিআরসি, আইসিটি বিভাগ, পুলিশ ডিপার্টমেন্ট ও সরকারের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো কাজ করছে বলেও জানান তিনি। কসমস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইনায়েতুল্লাহ খানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিঙ্গাপুরের ইনস্টিটিউট অব সাউথ এশিয়ান স্ট্যাডিসের (আইএসএএস) প্রধান গবেষক ড. ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী, অ্যাসোসিয়েশন ফর অ্যাকাউন্টিবিলিটি অ্যান্ড ইন্টারনেট ডেমোক্রেসির প্রেসিডেন্ট ডান সেফেটসহ অতিথিরা।

স্যানিটেশন ও হাইজিন সেবা নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে – তাজুল ইসলাম

ঢাকা অফিস ॥ স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, সরকার সবার জন্য উপযুক্ত স্যানিটেশন ও হাইজিন সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করছে ।গতকাল শনিবার রাজধানীর গুলশানে স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, আইটিএন-বুয়েট ও বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস্ ফাউন্ডেশন আয়োজিত বাংলাদেশে শহরব্যাপী সমন্বিত স্যানিটেশন (সিডব্লিউআইএস) এর উপর জাতীয় পর্যায়ের পরামর্শ ও পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী একথা বলেন।সিডব্লিউআইএস ধারণাকে সকলের সাথে পরিচিত করা এবং এ ধারণার প্রয়োগ কিভাবে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ৬ দশমিক ২ ভাগ বা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অবদান রাখতে পারে সে লক্ষ্যে এ সভার আয়োজন করা হয়।এ সভায় সভাপতিত্ব করেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাইফুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব এস.এম. গোলাম ফারুক, গেস্ট অব ওনার হিসাবে ছিলেন বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস্ ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক ড.রুশান রাজ শ্রেষ্ঠা।মন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী স্যানিটেশনের সকল ক্ষেত্রকে সমন্বিতভাবে মোকাবেলার জন্যে সিডব্লিউআইএস এর ধারণা এখন সর্বত্র প্রয়োগ হচ্ছে। সিডব্লিউআইএস সবার জন্য পর্যাপ্ত, উপযুক্ত স্যানিটেশন এবং হাইজিন সেবা নিশ্চিত করার পদক্ষেপগুলো নিয়ে কাজ করে। সঠিক প্রযুক্তি সহকারে ব্যাপক পরিকল্পনা এবং রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি উভয়ই এক্ষেত্রে একই রকম গুরুত্বপূর্ণ।তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ সরকারের সুদৃঢ় পদক্ষেপ ও প্রতিশ্র“তি, আর্থিক বরাদ্দ এবং অন্যান্য সহায়তা, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাসমুহের আর্থিক সহযোগিতাসহ দেশের জনগনের পাশে দাড়াচ্ছে।তিনি বলেন,‘গেটস্ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সিডব্লিউআইএস এ আমাদের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্যে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রোগ্রাম এবং অন্যান্য সাপোর্ট প্রদান করছে। এতে বাংলাদেশে শহরভিত্তিক পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিবেশ উন্নয়নের সূচনা ঘটেছে।’