ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী আক্তারুজ্জামান মিঠুকে কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে ভোড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আক্তারুজ্জামান মিঠুকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করেছেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক-সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের নেতৃত্বে সাংগঠনিক কমান্ড মুক্তিযোদ্ধাদের একটি প্রতিনিধি দল। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন নাগ চৌধুরী, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার হাজী মহসিন আলী মন্ডল, সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ, জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবীন্দ্রনাথ সেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন সহ আবু হায়াত, আবু বকর সিদ্দিক (ফেলু বিশ্বাস), নুরুল ইসলাম মোল্লা প্রমুখ ২০জন বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

হাওলাদারকে তলব করে দুদকের নোটিস হাই কোর্টে আটকে গেল

ঢাকা অফিস ॥ জাতীয় পার্টির (জাপা) সাবেক মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে তলব করে দুর্নীতি দমন কমিশনের দেওয়া নোটিসের কার্যকারিতা চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছে হাই কোর্ট। ফলে হাওলাদারকে বৃহস্পতিবার আর দুদকে হাজির হতে হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। দুদকের নোটিস চ্যালেঞ্জ করে হাওলাদারের করা এ রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের হাই কোর্ট বেঞ্চ বুধবার রুলসহ আদেশ দেয়। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন। দুদকের পক্ষে ছিলেন খুরশীদ আলম খান। খুরশীদ আলম খান পরে সাংবাদিকদের বলেন, “দুদকের তলবের নোটিস চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে রুল জারি করেছে আদালত। ফলে দুদকের তলবে আগামীকাল উনাকে হাজির হতে হচ্ছে না।” সরকারি সম্পদ আত্মসাতের মাধ্যমে শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তদন্তের জন্য গতবছর ১৩ সেপ্টেম্বর রুহুল আমিন হাওলাদারকে তলব করে দুদক। কিন্তু সে সময় নির্বাচনের প্রস্তুতির কারণ দেখিয়ে দুদকে হাজির না হয়ে তিনি হাজিরা থেকে অব্যাহতির আবেদন করেন। এরপর গত ২৮ মার্চ তাকে ফের চিঠি পাঠান দুদকের উপপরিচালক সৈয়দ আহমদ। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় হাওলাদারকে সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয় সেখানে। ওই নোটিসের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাওলাদার রিট আবেদন করলে আদালত প্রাথমিক শুনানি নিয়ে তা স্থগিত করে দেয়।

 

বিলুপ্তপ্রায় সকল বন্যপ্রাণি সংরক্ষণেসরকার সচেষ্ট – পরিবেশ মন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন বিলুপ্তপ্রায় সকল বন্যপ্রাণি সংরক্ষণে বর্তমান সরকার সব সময়ই সচেষ্ট। এই প্রাণি গুলোর মধ্যে শকুন অন্যতম। শকুন সংরক্ষণে সরকার দক্ষিণ এশিয়ার সকল দেশের সাথে একযোগে কাজ করছে। গতকাল রাজধানীর সোনারগাঁ হোটেলে ‘শকুন সংরক্ষণে দক্ষিণ এশিয় আঞ্চলিক সম্মেলন’-এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন পরিবেশ, বন উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার এমপি। সম্মেলনে বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, পাকিস্তান ও কম্বোডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরিবেশ মন্ত্রী আরও বলেন, সরকার শকুন সংরক্ষণে ইতোমধ্যে অনেক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। শকুন সংরক্ষণের সকল আন্তর্জাতিক উদ্যোগ বাংলাদেশ সাফল্যের সাথে বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, শকুনের জন্য ক্ষতিকারক ঔষধ ডাইক্লোফেন ২০১০ সালে নিষিদ্ধ করা হয়েছে । বাংলাদেশ বন বিভাগ শকুন সংরক্ষণে সিলেট ও সুন্দরবন এলাকায় দ’ুটি নিরাপদ অঞ্চল ঘোষণা করেছে। শকুন সংরক্ষণে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে শকুন পুনরুদ্ধার কমিটি গঠন করা হয়েছে ২০১৩ সালে। একই সাথে গঠন করা হয়েছে শকুন সংরক্ষণে দীর্ঘমেয়াদী এ্যাকশন প¬্যান, যা বাংলাদেশে শকুন সংরক্ষণে একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার বলেন, সরকার আন্তরিকভাবে বন বিভাগের মাধ্যমে শকুন সংরক্ষণে সকল উদ্যোগ ও পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে। পশুর শরীরের প্রয়োগকৃত যে সকল ঔষধ শকুনের জন্য ক্ষতিকারক সেগুলি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অসুস্থ শকুনকে চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে তোলার কাজ একই সাথে বন বিভাগের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে শকুনের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য আঞ্চলিক উদ্যোগসমূহের ওপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রাইস গ্রিন। প্রবন্ধে তিনি বলেন, ডাইক্লোফেনাক জাতীয় ঔষধ বন্ধ করার পর ওই জাতীয় আরো ঔষধ ইতোমধ্যে বাজারে এসেছে। এসব বিপণন ও পরিবহন বন্ধ করা প্রয়োজন। পরিবেশ সচিব আবদুল¬াহ আল মোহসীন চৌধুরী বলেন, দক্ষিণ এশিয়া আঞ্চলিক স্টিয়ারিং কমিটির এই সভার মাধ্যমে এ অঞ্চলের শকুন সংরক্ষণে এক অভাবনীয় লক্ষ্য অর্জনে সম্ভব হবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি আজকের এই সম্মেলনে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও কম্বোডিয়া থেকে আগত সকল সরকারি প্রতিনিধি ও বিজ্ঞানীগণকে ধন্যবাদ জানান। সকলের প্রচেষ্টায় প্রকৃতি ও পরিবেশের জন্য উপকারি প্রাণি শকুন রক্ষায় একটি কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা যাবে বলে তিনি মনে করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মোঃ বিল¬াল হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রধান বন সংরক্ষক মোহাম্মদ শফিউল আলম চৌধুরী। এছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আইইউসিএন-এর উপ আঞ্চলিক পরিচালক ড. তেজপা সিং।

‘অগ্নিঝুঁকিতে’ বনানীর ইকবাল সেন্টারসহ তিন ভবন

ঢাকা অফিস ॥ এফআর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে প্রাণহানির পর বনানীর বিভিন্ন বহুতল ভবনের ত্রুটি চিহ্নিত করতে রাজউক তৃতীয় দিনের মতো অভিযান চালায়। পরিচালক মামুন মিয়ার নেতৃত্বে রাজউক জোন-৪ এর একটি দল গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর একটার মধ্যে চারটি ভবন পরিদর্শন করে তিনটিকে ‘অগ্নি ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে চিহ্নিত করে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য এইচবিএম ইকবালের মালিকানাধীন ‘ইকবাল সেন্টার’ও রয়েছে, যেটি ১৮ তলার অনুমোদন নিয়ে ২৩ তলা করার প্রমাণ মিলেছে রাজউকের পরিদর্শনে। অন্য ভবন দুটি হচ্ছে ২১ তলা বুলু ওশান টাওয়ার এবং ১৬ তলা ডেল্টা ডালিয়া। রাউজকের আগেই অবশ্য ফায়ার সার্ভিস ‘অগ্নি ঝুঁকিতে’ এই দুই ভবনের সামনে ব্যানার ঝুলিয়েছে। রাজউকের দলটি সকাল সাড়ে ১০টায় প্রথমে আওয়াল টাওয়ারে যায়। এরপর একে একে ডেলটা ডালিয়া, বুলু ওশান টাওয়ার এবং ইকবাল সেন্টার পরিদর্শন করে। রাজউকের জোন-৪ এর পরিচালক মামুন মিয়া বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত ডেলাটা ডালিয়া ও বুলু ওশান টওয়ার আবাসিক অনুমোদন নিয়ে নির্মিত হলেও দুটি ভবনের কয়েকটি ফ্লোরে বাণিজ্যিক কার্যক্রম চলছে। এছাড়া ভবন দুটিতে ফায়ার এক্সিট ত্রুটিসহ বিভিন্ন ত্রুটি পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। এক প্রশ্নে তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিসের পর রাজউকও ভবন দুটিকে ঝুঁকিপূর্ণ বলছে। মামুন মিয়া বলেন, “১৯৯৬ সালে নির্মিত ডেল্টা ডালিয়া ভবনটির সিঁড়ির অবস্থা ভালো নেই। ভবনের নকশায় যে খালি জায়গাটুকু দেখানো হয়েছিল সেখানে এটিম বুথ ও দোকান করা হয়েছে। আমরা সেগুলো সরিয়ে ফেলার নির্দেশনা দিয়েছি। ভবনের রেসিডেন্সিয়াল পারমিশন ছিল। কিন্তু সেখানে বাণিজ্যিক কার্যক্রম চলছে। নকশা পরিবর্তন করায় তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” ডেল্টা ডালিয়ার ২০ জন মালিকের একজন এবি শরিফুদ্দীন বলেন, “ভবনের অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কিছু ঘাটতি রয়েছে। আমাদের জ্ঞানের অভাব রয়েছে। রাজউক বলে গেছে কি করতে হবে, সে অনুযায়ী ঘাটতি পূরণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” আর বুলু ওশান টাওয়ারের ডানপাশে সিঁড়ি থাকার কথা থাকলেও তা নেই বলে জানান রাজউক পরিচালক মামুন মিয়া।

“তাছাড়া এই ভবনে ফায়ার এক্সিট নীচতলা পর্যন্ত না এসে তৃতীয় তলা পর্যন্ত রয়েছে।” নকশা অনুযায়ী ২১ তলা বুলু ওশান টাওয়ার আবাসিক হলেও এর ২০ ও ২১ তলায় বাণিজ্যিক কার্যক্রম চলছে বলে জানান তিনি।তবে বুলু ওশান টাওয়ারের একজন ব্যবস্থাপক দাবি করেছেন নকশা মেনেই তাদের ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে।“প্ল্যান সব ঠিকঠাক আছে। ২০০২ সালে এই ভবন নির্মাণ করা হয়,” বলেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই কর্মকর্তা।ইকবাল সেন্টার সম্পর্কে রাজউক পরিচালক মামুন মিয়া বলেন, “এই ভবনটিও ঝুঁকিপূর্ণ, কোনো ফায়ার এক্সিট নেই। জিরো সেট ব্যাকে ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। সামনে-পেছনে জায়গা নেই। আঠারো তলার অনুমোদন নিয়ে ভবনটি ২৩ তলা করা হয়েছে। ২০১৫ সালে বাড়তি তলাগুলোর অনুমতি চেয়েছিল কিন্তু গ্রাহ্য হয়নি।”ইকবাল সেন্টারে বাড়তি তলার একটি অংশে মসজিদও রয়েছে। ভবনটির বর্ধিত অংশ অপসারণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান মামুন মিয়া।তবে ভবনটিকে ঝুঁকিমুক্ত বলছেন এইচবিএম ইকবালের সহকারী জাহিদ চৌধুরী।তিনি বলেন, “এ ভবন ঝুঁকিমুক্ত। আমরা ফায়ার এক্সিট নির্মাণের কাজ শুরু করছি। আর ভবনের বাড়তি তলা নির্মাণের অনুমতি রাজউকই দিয়েছিল।” এর আগে গত দুইদিনে বনানীতে ৪২টি পরিদর্শন করেছে রাজউকের দল।

চলচ্চিত্রের বিকল্প চলচ্চিত্র অন্যকিছু হতে পারে না – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ চলচ্চিত্রের বিকল্প চলচ্চিত্র, অন্যকিছু হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, চলচ্চিত্র সমাজের ক্যানভাস পরিবর্তন করে দিতে পারে। মানুষকে হাসাতে পারে ও কাঁদাতে পারে। সমাজের দর্পণ হিসেবে কাজ করে। সমগ্র পৃথিবীতে চলচ্চিত্র শিল্পের কোনো বিকল্প নেই। চলচ্চিত্র শিল্পের বিকল্প টেলিভিশন, ইউটিউব, কিংবা নেটফ্লিক্সে চলচ্চিত্র দেখা নয়। বুধবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) সপ্তম জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য সচিব আব্দুল মালেক, বিএফডিসির ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক লক্ষন চন্দ্র  দেবনাথ, চলচ্চিত্র দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব  সৈয়দ হাসান ইমাম, কো চেয়ারম্যান নায়ক আলমগীর, ইলিয়াস কাঞ্চন, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, অভিনেত্রী রোজিনা, অঞ্জনাসহ আরও অনেকে। হাছান মাহমুদ বলেন, ১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন সরকারের মন্ত্রী হিসেবে প্রাদেশিক পরিষদে পূর্ব পাকিস্তান চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন গঠনের লক্ষ্যে একটি বিল উত্থাপন করেন। বিলটি সেদিনই সংসদে পাস হয়েছিল। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে চলচ্চিত্রের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। এজন্যই আজকের দিনটিকে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস উপলক্ষে আমরা উদযাপন করছি। জাতির জনকের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি বলেন, বিএফডিসি আধুনিকায়নের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ৫৩ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিক যন্ত্রপাতি আনা হয়েছে। এছাড়া ৩২২ কোটি টাকা ব্যয়ে বিএফডিসিতে অত্যাধুনিক একটি ভবন নির্মিত হচ্ছে। যেখানে সিনেপে¬ক্স থেকে শুরু করে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে চলচ্চিত্র নির্মাণের সুযোগ থাকবে। তথ্য সচিব আব্দুল মালেক বলেন, বর্তমান সরকার চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। বিগত সরকারের আমলে বিএফডিসিতে অনেক দুর্নীতি হয়েছে। বরাদ্দকৃত টাকা লুটপাট করেছে তারা। চলচ্চিত্রের উন্নয়নের কথা ভাবেনি। আমাদের সরকার চায়, বাংলাদের চলচ্চিত্র  সোনালি দিন ফিরে পাক।

 

গাংনীতে কোমল পানি ভেবে এসিড পানে স্বর্ণ কর্মচারীর মৃত্যু

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে কোমল পানি ভেবে এসিড পানে অমিত কর্মকার (২০) নামের এক স্বর্ণ কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত অমিত চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার নান্দবার গ্রামের অনিল কর্মকারের ছেলে। এবং গাংনী উপজেলা শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহপাড়ায় বসবাসকারী। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার সময় অমিত কর্মকারের মৃত্যু হয়। অমিত কর্মকারের সহকর্মী লিজন জানান, অমিত কয়েকদিন যাবত অসুস্থ্যতায় ভূগছিল। অসুস্থ  অবস্থায় বুধবার সকালে সে গাংনী উপজেলা শহরের নাজ জুয়েলার্সের কারখানায় আসে। অমিত কারখানায় এসে অসুস্থ জনিত কারণে ওষধ পান করতে ভূলবশত সোনার গয়না তৈরীর গিল্টি (এসিড) পানি পান করে। এ সময় অসুস্থ হয়ে পড়লে,তাকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে কুষ্টিয়া হাসপাতালে নেয়ার সময় পথে মধ্যে মিরপুর নামক স্থানে মারা যায়। এদিকে গাংনী নাজ জুয়েলার্সের কারখানার সিসি ক্যামেরায় অমিতের ভূলবশত গিল্টি পানি পান করার বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন তার সহকর্মীরা ও প্রশাসন। গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম) জানান, অমিত ভূলবশত গিল্টি পানি পান করেছে এ বিষয় পুলিশের পক্ষ থেকে স্পষ্ট। তাছাড়াও এ মৃত্যুর ঘটনায় কেউ কোনো অভিযোগ না দেয়ায়। ময়না তদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন

৫ লাখ ৪০ হাজার ৭২৯ ভোট বাতিল

ঢাকা অফিস ॥ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চারটি ধাপে মোট ৫ লাখ ৪০ হাজার ৭২৯ ভোট বাতিল হয়েছে। চার পর্বে ৬ কোটি ৩ লাখ ৫৫ হাজার ৪২১ ভোটারের মধ্যে ২ কোটি ৪৩ লাখ ৬৫ হাজার ৯২৭ জন ভোট দিয়েছেন। যা ৪০.৩৭ শতাংশ। আর বাতিল হয়েছে ২.২ শতাংশ ভোট। এবার চার ধাপে (১০ মার্চ, ১৮ মার্চ, ২৪ মার্চ ও ৩১ মার্চ) প্রায় সাড়ে চারশ উপজেলায় ভোট হয়। এরমধ্যে শতাধিক উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘ভোটারদের অসচেতনতা, ব্যালট পেপারে একাধিক প্রতীকে সিল, ভাঁজ ঠিক মতো না করা, কালি ছড়িয়ে ফেলা, প্রতীকে ঘরে বাইরে সিল মারা, অনিয়মের প্রবণতাসহ নানা কারণে ভোট বাতিল হচ্ছে। ধীরে ধীরে প্রযুক্তির দিকে গেলে ভোট বাতিলের প্রবণতা কমে আসবে।’ ইসি সূত্র জানায়, উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপে ১ কোটি ১০ লাখ ৫২ হাজার ৬৩ ভোটারের মধ্যে ৪৭ লাখ ৮৭ হাজার ৫১২ জন ভোট দিয়েছেন। বৈধ ভোট পড়েছে ৪৬ লাখ ৮৩ হাজার ১৫৮। বাতিল হয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার ৩৫৪ ভোট। দ্বিতীয় ধাপের উপজেলাগুলোয় ভোটার ছিল ১ কোটি ৪৫ লাখ ১১ হাজার ৯০৭ জন। বৈধ ভোট পড়েছে ৫৭ লাখ, ৭৫ হাজার ৪৫৬। প্রদত্ত ভোট ৫৯ লাখ ৮৬ হাজার ৮৭৪। ১ লাখ ৪৪ হাজার ৪৫৪ ভোট বাতিল হয়েছে। তৃতীয় ধাপে ভোটার ছিল ১ কোটি ৮২ লাখ ১ হাজার ৭৭০। প্রদত্ত ভোট ৭৫ লাখ ৩৬ হাজার ৯২৬ জন ভোট দিলেও বাতিল হয়েছে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৮৩৩ ভোট। চতুর্থ ধাপে ১ কোটি ৬৫ লাখ ৮৯ হাজার ৬৮১ ভোটারের মধ্যে ৬০ লাখ ৫৪ হাজার ৬১৫ জন ভোট দেন। বাতিল ভোট রয়েছে ১ লাখ ২৬ হাজার ৬৮। এ ধাপে বৈধ ভোট পড়েছে ৫৯ লাখ ৩০ হাজার ২৭১ ভোট।

আত্মহত্যা নয়, আত্মকর্মসংস্থানই সঠিক পথ – তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ মেধা থাকলে বিশ্ব জয় করা যায়। একটি ল্যাপটপ দিয়ে বিশ্বকে হাতের মুঠোয় আনা সম্ভব। তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সুযোগ্য নেতৃত্বের বিকল্প নেই। এর মাধ্যমেই আমাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে। ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে সারা বিশ্বে ভারতের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান। মনে রখতে হবে আত্মহত্যা নয়, আত্মকর্মসংস্থানই সঠিক পথ। বুধবার দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভায় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নে আয়োজিত শিক্ষিত তরুণ-তরুণী ও যুবকদের আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ‘ক্যাপাসিটি বিল্ডিং’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সফল উদ্যোক্তা ও প্রশিক্ষণার্থীদের সঙ্গে এ মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন প্রতিমন্ত্রী। পলক বলেন, তরুণ জনগোষ্ঠীর পাশাপাশি অভিভাবকদেরও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সচেতন করতে হবে। তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে সফলদের কাহিনী তরুণদের শোনাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে ও ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার সজীব ওয়াজেদ জয়ের ভাবনায় বাংলাদেশে ইন্টারনেটেরক্ষত্রে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত আইসিটি শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। হাইটেক পার্ক, আইসিটি ইনকিউবেটর, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের মাধ্যমে সরকার আইসিটি বিষয়ক জ্ঞান আহরণ ও প্রয়োগের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। দেশে আজ প্রায় ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার কাজ করে চলেছে।

 

৮% জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে – এডিবি

ঢাকা অফিস ॥ রপ্তানি ও সরকারি বিনিয়োগে ইতিবাচক ধারা অব্যহত থাকায় চলতি অর্থবছর শেষে বাংলাদেশ মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পেতে পারে বলে মনে করছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবি। বাংলাদেশের অর্থনীতির হাল হকিকত নিয়ে প্রকাশিত এডিবির বার্ষিক প্রতিবেদন ‘এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট আউটলুক ২০১৯ এ প্রবৃদ্ধির এই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশে এডিবির আবাসিক প্রতিনিধি মনমোহন প্রকাশ গতকাল বুধবার সংস্থার ঢাকা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। বাংদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধির যে প্রাক্কলন এডিবি করেছে, তা সরকারের হিসাবের চেয়ে কিছুটা কম হলেও এডিবির আগের পূর্বাভাসের চেয়ে অনেকটা বেশি। অর্থবছরের প্রথম আট মাসের (জুলাই-ফেব্র“য়ারি) তথ্য বিশে¬ষণ করে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো যে প্রাক্কলন করেছে, তাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছর শেষে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে রেকর্ড ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ। গত অর্থবছর ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পাওয়ার পর ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে ৭ দশমিক ৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ঠিক করে সরকার। তবে গতবছর সেপ্টেম্বরে এডিবির প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রবৃদ্ধির হার এবার হতে পারে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ। সেই অবস্থান থেকে এডিবি সরে আসছে কেন জানতে চাইলে মনমোহন প্রকাশ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তাদের আগের হিসাব ছিল তিন মাসের তথ্যের ভিত্তিতে। এখন নয় মাসের তথ্যে দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি বদলে গেছে। তাছাড়া চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দ্বন্দ্বের কারণেও বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ কিছু পণ্যের রপ্তানি বেড়েছে জানিয়ে এডিবির আবাসিক প্রতিনিধি বলেন, এ বিষয়টিও প্রবৃদ্ধি বাড়াতে ভূমিকা রাখছে।

 

শৈলকুপায় শিক্ষকের অপসারণ, শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপার পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার বিদ্যালয়ের অর্থ আতœসাৎ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপর নির্যাতন ও তার শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের আয়োজনে এ কর্মসূচি পালিত হয়। গতকাল বুধবার সকালে বিদ্যালয় চত্বর থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক ঘুরে উপজেলা পরিষদে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তারা বলেন, শৈলকুপার পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা দিলারা ইয়াসমিন জোয়ার্দ্দার দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের অর্থ আতœসাৎ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপর নানা ধরনের নির্যাতন করে আসছে। তার নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনেও মামলা হয়েছে। তাই তাকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান তারা। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

রোজায় পণ্যের দাম যেন না বাড়ে – প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ আসন্ন রোজার মাসে নিতপণ্যের দাম না বাড়াতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বুধবার সকালে গণভবন থেকে কয়েকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে এই আহ্বান জানান। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত শিল্প স্থাপনের উপযোগী ১১টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন, নতুন ১৩টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, অর্থনৈতিক অঞ্চলে স্থাপিত ১৬টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের বাণিজ্যিক উৎপাদন উদ্বোধন এবং নতুন ২০টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের ভিত্তি স্থাপনসহ ৬৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন।প্রধানমন্ত্রী পরে মিরেরসরাইয়ের বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরী, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোন, মৌলভীবাজারের শ্রীহট্ট অর্থনৈতিক অঞ্চল, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সিটি ইকোনমিক জোন, সিরাজগঞ্জ ইকোনমিক জোন এবং মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় আব্দুল মোনেম অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় প্রশাসন, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার জনগণ, উপকারভোগী এবং বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।সিটি ইকোনমিক জোন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতবিনিময়ে শেখ হাসিনা বলেন, “আগামী রোজায় চিনি, ডাল, ছোলার সমস্যা যেন না হয়। রমজানে দাম যেন বৃদ্ধি না পায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।”সিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, পাটমন্ত্রী গাজী গোলাম দস্তগীরসহ ব্যবসায়ীরা ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন।এর আগে মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েও তিনি একই আহ্বান জানান।এ সময় মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা কামালসহ ব্যবসায়ীরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একমত পোষণ করেন। সিলেটের শ্রীহট্ট অর্থনৈতিক অঞ্চলের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা চাই প্রবাসীরা যেন এগিয়ে আসে। তারা যেন বিনিয়োগের সুযোগ পায়।”বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরীর সঙ্গে মতবিনিময়ে তিনি বলেন, “যারা জমির মালিক তারা যেন জমির দাম সঠিক সময়ে পায়। মানুষের জন্য আমরা কাজ করি। তাই মানুষের জন্য কষ্ট না হয়। যাদের জমি তাদের পরিবারের সদস্যরা যেন যোগ্যতা অনুযায়ী কাজের সুযোগ পান সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আব্দুল মোনেম অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপচারিতায় প্রধানমন্ত্রী সব অর্থনৈতিক অঞ্চলে যেন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা কাজের সুযোগ পায় সেদিকে খেয়াল রাখার অনুরোধ করেন।প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এ সময় গণভবনে উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ ভিডিও কনফারেন্সটি সঞ্চালনা করেন।

গাংনীতে ২শ বোতল ফেনসিডিলসহ যুবক আটক

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে ২শ বোতল ফেনসিডিলসহ সোহেল রানা (২৫) নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটক সোহেল রানা পাবনা সদর উপজেলার নিয়ামতুল্লাহপুর গ্রামের আব্দুল আলীমের ছেলে। গতকাল বুধবার সকাল ৯টার দিকে গাংনী থানা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সোহেল রানাকে আটক করে। গাংনী থানা সূত্র জানায় গাংনী উপজেলার কাজীপুর ব্রীজ বাজার এলাকা থেকে একটি সিএনজি করে মাদক পাঁচার হচ্ছিল। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয় পীরতলা পুলিশ ক্যাম্পের সদস্যেদের সহযোগিতায় গাংনী থানা পুলিশের একটি দল কাজীপুর ব্রীজ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে সোহেল রানাকে ২শ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করা হয়। আটক সোহেল রানা একজন মাদক ব্যবসায়ী। গতকালই তাকে মেহেরপুর আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে আজ আখেরি মোনাজাত ও তবারক বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” পবিত্র বাৎসরিক ওরশ উপলক্ষে, আজ ৪ এপ্রিল আখেরি মোনাজাত ও তবারক বিতরণ। “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী চৌধুরী আলী হোসেন এর সভাপতিত্বে “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” ৪ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে অতিথিবৃন্দরা হলেন- প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, বিশেষ অতিথি সমাজ সেবক বিশ্বনাথ সাহা বিশু, কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সমাজ সেবক পারভেজ আনোয়ার তনু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শেখ মোঃ ফজলে করিম (খোকা), কুষ্টিয়া পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিচ কোরাইশী, ১০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোস্তফা লাভলু, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাবাউদ্দিন সওদাগর প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন মাজার কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক খন্দকার শওকত আলী টন। সকলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক।

কুষ্টিয়ায় মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম

উত্তম শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম ৫ম পর্যায় শীর্ষক প্রকল্পের ২০১৮ শিক্ষাবর্ষের উত্তম শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের এবং ২০১৯ শিক্ষাবর্ষের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে কুষ্টিয়া আঞ্চলিক সমবায় ইনষ্টিটিউটে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে। মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম কুষ্টিয়ার সহকারী প্রকল্প পরিচালক মোঃ তোফাজ্জেল হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আঞ্চলিক সমবায় ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ জিয়াউল হক, উপ-আনুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক কবির আহমেদ মোল্যা, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি নরেন্দ্রনাথ সাহা প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে বলেন, নৈতিক শিক্ষা না থাকলে সমাজে দূর্নীতি-অন্যায়-অত্যাচার বৃদ্ধি পেতে থাকে। আর নৈতিক শিক্ষা সম্প্রসারণের মাধ্যমে তা হ্রাস করা সম্ভব। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম কুষ্টিয়ার ফিল্ড সুপারভাইজার খাইরুল ইসলাম।

আর্থিক সাহায্য ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন ইউএনও’র

ভেড়ামারায় আগুনে পুড়ে গৃহবধু’র মৃত্যু

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে এক গৃহবধু’র মৃত্যু হয়েছে। গোয়ালঘর থেকে সৃষ্ট আগুন পুড়িয়ে ছাই করে দিয়েছে ৩ রুম বিশিষ্ট বসতবাড়ি, রান্নাঘর, আসবাবপত্র এবং বাড়ির গৃহবধুকে। নিহতের নাম সালেহা বেগম (৬৩)। সে উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের আনছার আলী’র স্ত্রী। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে ভয়াবহ এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, আনছার আলীর বসতবাড়ীতে গরু পালন করেন। তার গোয়াল ঘরে রয়েছে ৩টি গরু। গরুকে মশার হাত থেকে রক্ষা করতে সে গবরের দইলি দিয়ে ধোয়া সৃষ্টি করেছিল। রাত ২টার দিকে দইলির আগুন খড়ে পড়ে গিয়ে গোয়াল ঘরে আগুন ধরে যায়। ভয়াবহ সে আগুন একে একে পুড়িয়ে ছাই করে দেয় গোয়ালঘর’র ৩টি গরু, বসতবাড়ি, রান্নাঘর এবং বাড়ির আসবাবপত্র। ঘরের মালামাল উদ্ধার করতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায় বাড়ির গৃহবধু সালেহা বেগম। প্রথমে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে এলাকাবাসি। পরে ফায়ার সার্ভিস’র দুইটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন কর্মকর্তা প্রবীর কুমার দেবনাথ জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আনি। গরুর গোয়ালে ধোয়া সৃষ্টি করার জন্য দইলি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, নিহতের পরিবারকে উপজেলা প্রশাসন হতে দশ হাজার টাকা ও তিন প্যাকেট শুকনো খাবার দেওয়া হয়েছে। লাশ বিনা ময়নাতদন্তে দাফনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে সহায়তার লক্ষ্যে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক বরাবর ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ প্রেরণ করা হয়।

চিকিৎসার নামে খালেদা জিয়াকে ‘বিষ প্রয়োগ’ করা হচ্ছে কিনা শঙ্কা রিজভীর

ঢাকা অফিস ॥ চিকিৎসার নামে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ¯ে¬া পয়জনিং (ধীরে ধীরে বিষ প্রয়োগ) করা হচ্ছে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল বুধবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শবে মিরাজ উপলক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ আশঙ্কার কথা বলেন। রিজভী বলেন, সুস্থ অবস্থায় খালেদা জিয়া কারাগারে গিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমানে তিনি মারাত্মক অসুস্থ, তাকে হুইলচেয়ার ব্যবহার করতে হচ্ছে। আমাদের ভয় হচ্ছে সরকার কারাগারের মধ্যে তাকে চিকিৎসার নামে অন্য কিছু করছে কিনা? তাকে ¯ে¬া পয়জনিং করা হচ্ছে কিনা তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে- তিনি গুরুতর অসুস্থ হলেন কীভাবে? তিনি বলেন, বেগম জিয়ার কোনো উন্নত চিকিৎসা নেই। বেগম জিয়াকে সুচিকিৎসার বন্দোবস্ত করার এতবার দাবি করা হয়েছে। একজন মানুষকে মৃত্যুর মুখোমুখি ঠেলে দিয়েও দেশের ডাক্তাররা নিজেদের পদ ধরে রাখার জন্য শেখ হাসিনার ভাষায় কথা বলছেন। কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই চিকিৎসকরা খালেদা জিয়াকে সুস্থ দাবি করছেন বলেও অভিযোগ করেন বিএনপির এ নেতা। তিনি বলেন, ডাক্তাররা তাদের পদ টিকিয়ে রাখতে খালেদা জিয়ার অবস্থা স্থিতিশীল বলে বিবৃতি দিচ্ছেন। এ সময় খালেদা জিয়া এখনও গুরুতর অসুস্থ বলেও দাবি করেন রিজভী। গত সোমবার কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়েছে। এদিন দুপুর ১২টা ৪১ মিনিটে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাকে বিএসএমএমইউতে নেয়া হয়। পরে হুইলচেয়ারে করে বিএনপি চেয়ারপারসনকে কেবিন ব¬কের পাঁচতলায় নেয়া হয়। হাসপাতালে তার জন্য ৬২১-৬২২ নম্বর কেবিন বরাদ্দ রয়েছে। গত এক বছরের বেশি সময় ধরে দুর্নীতি মামলায় পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে বিশেষ সেলে বন্দি রয়েছেন খালেদা জিয়া। এর আগেও তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা নিয়েছেন। রিজভী বলেন, একটি আধুনিক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে আইন, বিচার এবং নির্বাহী বিভাগের মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য আছে। তবে বাংলাদেশে এ ভারসাম্য ভেঙে দিয়েছেন শেখ হাসিনা। তিনি এগুলো কিছুই মানেন না। কারণ তিনি হচ্ছেন সুপ্রিমকোর্টের চিফ জাস্টিসের চাইতেও মহাচিফ জাস্টিস। তাকে যারা ক্ষমতায় রেখেছেন যারা মিডনাইট নির্বাচন করিয়ে দিয়েছেন, যারা মধ্যরাতে নির্বাচনে আবারও ক্ষমতা এনেছেন তাদের ক্ষমতা অপরিসীম।’ খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের প্রতীক উলে¬খ করে রিজভী বলেন, তার জীবন নিয়ে টানাহেঁচড়া হচ্ছে। তাকে উন্নত চিকিৎসা দিতে অনেক দাবি অনেক সংগ্রাম করা হয়েছে, কিন্তু তিনি সেটা পাবেন না। শেখ হাসিনা যা পাবেন খালেদা জিয়া সেটা পাবেন না। কারণ শেখ হাসিনা দেশটাকে জমিদারি তালুক মনে করেন। জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক হাফেজ নেছারুল হক প্রমুখ।

ঢাবি কর্তৃপক্ষকে সোমবার পর্যন্ত সময় দিলেন ভিপি নুর

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল¬াহ মুসলিম হলের ঘটনায় জড়িতদের বহিষ্কারসহ চার দফা দাবি পূরণের জন্য কর্তৃপক্ষকে সোমবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করেছেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর। গতকাল বুধবার দুপুরে সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “উপাচার্য আমাদের ডেকেছিলেন এবং তিনি বিচার করবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন। তাই আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের যে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম, সোমবার পর্যন্ত দেখব; সেজন্য কর্মসূচি স্থগিত করেছি।” নুরের অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- ছাত্রলীগের ‘কবল’ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোকে মুক্ত করা, অছাত্র ও বহিরাগতদের তাড়াতে হলগুলোতে অভিযান পরিচালনা এবং নিয়মিত ছাত্রদের হলের সিটগুলোতে থাকার ব্যবস্থা করা।  গত মাসে অনুষ্ঠিত ডাকসু ও হল সংসদের নির্বাচনের সময় এসএম হলে সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েও শেষ মুহূর্তে প্রত্যাহার করা ফরিদ হাসানকে সোমবার রাতে পিটিয়ে আহত করেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ওই ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকালে এসএম হলের প্রধ্যাক্ষকে স্মারকলিপি দিতে গিয়ে ছাত্রলীগ এবং হল সংসদের নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েন ভিপি নুর। তাদের দিকে সে সময় ডিমও ছোড়া হয়। সন্ধ্যায় এসএম হল থেকে ফিরে ভিসির বাংলোর সামনে অবস্থান নেন নুর ও তার সহকর্মীরা। ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন খাঁনসহ কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাদের পাশাপাশি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ডাকসুর ভিপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা অরণি সেমন্তি খানকেও সেখানে দেখা যায়। প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর বুধবার সকাল ৯টার দিকে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান অবস্থান নিয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের সামনে আসেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়িতে করে ভিসি লাউঞ্জে যান অবস্থানকারীরা। সেখানে প্রায় এক ঘণ্টা উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক করেন নুর ও অন্যরা। বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসে উপাচার্য আখতারুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, “গতকালকের ঘটনায় হলের প্রভোস্ট তাৎক্ষণিকভাবে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। যারা দোষী, তাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে হবে। আমি তাদের বলেছি, কোনো অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটিয়ে কেউ যাতে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে না পারে…। কেউ অন্যায় করে যাতে পার না পায়, সে বিষয়টা আমরা নিশ্চিত করবে।” উপাচার্যের কার্যালয়ে বৈঠকের পর রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দেন ভিপি নুর। এসএম হলে পিটুনির শিকার ফরিদ হাসানও এ সময় সেখানে ছিলেন। সোমবার রাতের ঘটনা তুলে ধরে তিনি বলেন, স্বতন্ত্র প্যানেল থেকে হল সংসদের জিএস প্রার্থী হওয়ায় নির্বাচনের আগে তাকে হল থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল। নির্বাচনের পরে হলে ফিরে তিনি পড়ালেখা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু সোমবার রাতে হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ‘মেরে’ আবারও তাকে হল থেকে বের করে দেয়। জড়িতদের বিচার চেয়ে তিনি হল প্রাধ্যক্ষ ও প্রক্টরের কাছে লিখিত অভিযোগও করেছেন। ভিপি নুরে সঙ্গে এসএম হলে গিয়ে ‘হেনস্তার শিকার’ হওয়া শামসুন নাহার হল সংসদের ভিপি তাসনিম আফরোজ ইমি বলেন, ‘এ ধরনের ন্যক্কারজনক ঘটনার যদি বিচার না হয়, সেজন্য চরম মূল্য দিতে হবে।”

কুষ্টিয়া পৌরসভায় কৃমি নিয়ন্ত্রন সপ্তাহ উপলক্ষে এ্যাডভোকেসি সভা

কুষ্টিয়া পৌরসভায় কৃমি নিয়ন্ত্রন সপ্তাহ উপলক্ষে এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে ম.আ.রহিম মিলনায়তনে স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদের কৃমি নিয়ন্ত্রন সপ্তাহ উপলক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কুষ্টিয়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র-আলহাজ¦ মতিয়ার রহমান মজনু’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডাঃ জেসমিন আরা (ভারপ্রাপ্ত) ইউএইচমএন্ডএফপিও সদর উপজেলা, কুষ্টিয়া। বিশেষ অতিথি  ছিলেন সাইদা সিদ্দিকা উপজেলা শিক্ষা অফিসার প্রাইমারী, কুষ্টিয়া পৌরসভার সচিব কামাল উদ্দিন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাঃ জেসমিন আরা বলেন, প্রতিবারের ন্যায় আগামী ০৬ হতে ১১ এপ্রিল ৫ বছর হতে ১৬ বছর বয়সী পৌর এলাকার স্কুল সমূহের ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা মূল্যে কৃমিনাশক ঔষধ মেবেনডাজল-৫০০ মিঃ গ্রাঃ ভরাপেটে খাওয়ানো হইবে। তিনি আরও বলেন, এই কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে আমাকে জানালে আমি এবং পৌরসভার প্রতিনিধি আমার দল সেখানে উপস্থিত হয়ে আপনাদের সার্বিক সহযোগিতা করবো। আমি আশা করি, আপনাদের সহযোগিতায় কোন সমস্যা ছাড়াই এই কার্যক্রম শেষ করতে পারবো। সভাপতির বক্তব্যে মতিয়ার রহমান মজনু বলেন, কৃমি অধিদপ্তর কার্যক্রম’র সার্বিক সহযোগিতায় আপনারা যেভাবে প্রতিবার এই জাতীয় কৃমিনাশক ঔষধ খাওয়ানো কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করেছে তাঁর জন্য আপনাদের সকলকে ধন্যবান জানায়। এবারও আপনাদের সার্বিক সহযোগিতায় এই কার্যক্রম সফলভাবে সমাপ্ত করতে পারবো। পুর্বের ন্যায় এবারও আপনাদের পৌরসভার পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। পৌর এলাকায় সরকারী-বেসরকারী স্কুল, মাদ্রাসা ও এতিমখানায় মোট ৯৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২৭৯৭৪ জন ছাত্র-ছাত্রীকে কৃমিনাশক ঔষধ খাওয়ানো  হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর  সাবা উদ্দিন সওদাগর, বদরুল ইসলাম, খন্দকার মাজেদুল হক ধিমান, শাহনাজ সুলতানা বনি, পৌরসভার স্যানিটারী ইন্সপেক্টর আব্দুর রহিম, টিকাদানকারী সুপারভাইজার গাজীউর রহমান, পৌরসভার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকসহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করেন পৌরসভার পেশ ঈমাম আবুল কালাম আজাদ। উক্ত অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন স্বাস্থ্য সহকারী দেবাশীষ বাগচী। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির প্রস্তাব কেউ দেয়নি – জয়নুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেছেন, দীর্ঘদিন কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়া বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য প্যারোলের প্রস্তাব কেউ দেয়নি। বিএনপি চেয়ারপারসন নিজে কিংবা তার পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ এ ধরনের প্রস্তাব দেয়নি। গতকাল বুধবার দুপুরে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে সুপ্রিমকোর্ট বারের বর্তমান কমিটির বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি গণমাধ্যম থেকে জেনেছেন দাবি করে জয়নুল আবেদীন বলেন, প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি পত্রপত্রিকা থেকে আমরা জেনেছি। তিনি (খালেদা জিয়া) নিজে কিংবা তার পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ কোনো কথা বলেনি বা আবেদন করেনি। এমনকি সরকারের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে প্রস্তাব দেয়া হয়নি। খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে সরকারের সদিচ্ছা নেই অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, দীর্ঘদিন কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়া বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তিতে সরকারের সদিচ্ছা নেই। রাজনৈতিক মামলা দিয়ে তাকে দীর্ঘদিন ধরে কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে। তাকে দিন দিন মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। ‘তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় দীর্ঘদিন অন্ধকার কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তিনি ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হচ্ছে’-যোগ করেন জয়নুল। অ্যাটর্নি জেনারেলের ভূমিকার সমালোচনা করে জয়নুল আবেদীন বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল রাষ্ট্রের জন্য কাজ না করে সরকারের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে কাজ করছেন। সম্মেলনে আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে দৃষ্টি ভিন্ন দিকে নিতে প্যারোলে মুক্তির ইস্যুটি একটা কৌশল হতে পারে। এ সময় সরকারের দ্বারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। প্রসঙ্গত, দুই মামলায় ১৭ বছর দ-িত হয়ে কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়ায় সোমবার তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। এরই মধ্যে তার প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি আলোচনায় চলে আসে।

বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনায় হানিফ

আদালতই কেবল বেগম জিয়াকে মুক্তি দিতে পারে

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালতই কেবল মুক্তি দিতে পারে। তিনি বলেন, ‘আইনি প্রক্রিয়া বাদ দিয়ে বিএনপি কেন আন্দোলনের হুমকি-ধমকি দেয় তা দেশের মানুষের বোধগম্য নয়। আর বিগত সময়ে তাদের আন্দোলনের ডাকে সাড়া না দেয়ায় পেট্রলবোমা মেরে নিরীহ মানুষকে হত্যার কথাও জনগন ভূলে যায় নি।’ হানিফ আরো বলেন, আইনি প্রক্রিয়া ছাড়া বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির কোন সুযোগ নেই। আর কাগুজে বাঘের মতো বিএনপির হুমকিতে কোন লাভ হবে না। মাহবুবউল আলম হানিফ গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর আজিমপুরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ২৬ নং ওয়ার্ডের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পারভীন হক শিকদার এমপি ও আওয়ামী লীগ নেতা ওমর আলী ও মিনহাজ্ব উদ্দিন মিন্টু। বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করে আনা হবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপির রাজনীতি হলো ব্যক্তিকেন্দ্রীক। কারণ বেগম খালেদা জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমানের মুক্তি ছাড়া তাদের আর কোন কর্মসূচী নেই। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাতের দায়ে অভিযুক্ত হয়ে জেলে আছেন। আর তারেক রহমান দুর্নীতি ও একুশে আগস্টের গ্রেনেড হামলা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বিদেশে ফেরারী জীবন যাপন করছেন। হানিফ বলেন, দেশের জনগণ কখনো বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে মুক্ত করার দায় নেবে না। বিএনপির উদ্দেশ্যে হানিফ বলেন, আন্দোলনের হুমকি দিয়ে দেশ ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেবেন না। দেশের মানুষ উন্নয়ন চায়, উন্নত জীবন চায়। তাদের স্বপ্নকে ধ্বংস করবেন না। তিনি বলেন, নিজেদের কথা না ভেবে আপনারা দেশের জনগণের কথা ভাবুন। দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করবেন না। তাহলে দেশের মানুষও আপনাদের ছেড়ে কথা বলবে না। হানিফ বলেন, দেশে রাজনীতি করতে হলে বঙ্গবন্ধুকে মেনেই রাজনীতি করতে হবে। কারণ বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ এক ও অভিন্ন স্বত্তা। বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে হানিফ আরো বলেন, বিএনপি কখনো দেশকে কিছু দিতে পারে নাই। তারা ক্ষমতায় থাকার সময় লুটপাট করেছে আর বিরোধী দলে থাকার সময়ে আন্দোলনের নামে নিরীহ মানুষকে পেট্রলবোমা মেরে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। তিনি আরো বলেন, বিএনপি ধ্বংস ছাড়া কিছু জানে না। তাদের রাজনীতিই হলো ধ্বংস করা।

দৌলতপুরে মোটরসাইকেল চুরি ঘটনা সসি ক্যামেরায় চোর শনাক্ত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে দিনে দুপুরে মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটলে তা সিসি ক্যামেরায় শনাক্ত হয়েছে। উপজেলার আল্লারদর্গা বাজার মসজিদ গলি থেকে একটি মোটরসাইকেল চুরি হলে তা সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ে চোরকে শনাক্ত করা হয়। আল্লারদর্গা বাজারের লোকজন জানিয়েছেন, গতকাল বুধবার দুপুর ১টার দিকে শান্টু ও রিন্টু নামে দু’ভাই তাদের নিকট আত্মীয় আমদহ গ্রামের এনমুল হকের হিরো স্পিলিন্ডার ডিলাক্স মোটরসাইকেল নিয়ে আল্লারদর্গা বাজারে যান। মোটরসাইকেলটি মসজিদ গলির ভেতর মসজিদের পাশে রাখেন তারা। বাজারে কাজ শেষে মোটরসাইকেলের কাছে গিয়ে দেখেন মোটরসাইকেলটি সেখানে নেই। পরে পার্শ্ববর্তী দোকানের সিসি ক্যামেরায় ওই মোটরসাইকেলটি একজন চোর চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে তা দেখা যায়। চোরকে শনাক্ত করা হলেও এখনও মোটরসাইকেলটি উদ্ধার হয়নি এবং চোরকেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে চোরকে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন দৌলতপুর থানা পুলিশ।