এবার আমাকে হারানোর মতো কেউ নেই – নরেন্দ্র মোদি

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন জোট আবারও সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যদিও নির্বাচন সংক্রান্ত বেশ কিছু বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে বেকারত্ব সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ ও ব্যক্তিগত আয় হতে পারে মোদির পরাজয়ের কারণ। বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের দেশ ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামী ১১ এপ্রিল শুরু হয়ে শেষ হবে ১৯ মে। সাত ধাপের নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হবে ২৩ মে। শুক্রবার রিপাবলিক ভারত টেলিভিশন চ্যানেলে দেয়া সাক্ষাৎকারে মোদি নির্বাচনে তার দলের সহজ জয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্সের জোট শরিকরা বিগত লোকসভা নির্বাচনের চেয়েও এবার বেশি আসনে জয়ী হবে।’ মোদির নেতৃত্বাধীন কট্টর হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি ও তার জোট শরিকরা ২০১৪ সালের নির্বাচনে গত ত্রিশ বছরের মধ্যে রেকর্ডসংখ্যক আসনে জয়ী হয়। কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন তৎকালীন ক্ষমতাসীন সরকার ভঙ্গুর অর্থনীতি চাঙ্গা করতে ব্যর্থ হওয়ায় হেরে যায়। নরেন্দ্র মোদির শাসনামলে অবশ্য দেশটির অর্থনীতি অনেকটা চাঙ্গা হয়েছে। কিন্তু মানুষের ব্যক্তিগত আয়ের পরিমাণ অনেক হ্রাস পেয়েছে যা ভারতের বেশিরভাগ মানুষকে অসুখী করেছে। বিজেপির দলীয় নেতাকর্মীদের দুর্নীতি, কৃষিপণ্যের মূল্যের অস্বাভাবিক নিম্নগতি, বেকারত্বের হার বৃদ্ধি, প্রতিবেশী পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্কে উত্তেজনাসহ নানা কারণে জনপ্রিয়তা কমছে বলে বিভিন্ন সময় খবর বেরিয়েছে। বছরের শুরুতেও বিভিন্ন জনমত জরিপেও ভারতের এবারের নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস পাওয়া গিয়েছিল। কিন্তু কয়েক সপ্তাহ ধরে জনমত জরিপের পাল্লা মোদির দিকেই ভারী বলে জানায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করতে ঘাম ঝড়াচ্ছেন। তাছাড়া আঞ্চলিক দলগুলোর সঙ্গে  জোটবদ্ধ হওয়ার ব্যাপারেও কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। রাহুল গান্ধী তার বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে দলের সম্পাদক করে উত্তর প্রদেশের দায়িত্ব দিয়েছেন। কাশ্মীরের পুলওয়ামাকান্ডের পর প্রতিশোধ হিসেবে পাকিস্তানে ঢুকে ভারতের হামলার ঘটনা মোদিকে অনেকটা এগিয়ে রেখেছে। ধারণা করা হচ্ছে, সেই হামলায় যে জাতীয়তাবাদের ঢোল বাজিয়েছেন মোদি সেটাই তার ভাগ্য প্রসন্ন করেছে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের জয়ের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে মোদি বলেছেন, তাদেরকে ক্ষমতায় আসতে হলে আরও পাঁচ বছর অপেক্ষা করতে হবে। কংগ্রেসের এখন বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো ক্ষমতা নেই বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে ইঙ্গিত করে মোদি বলেন, ‘আগামী ২০২৪ সালে হয়তো মোদির বিপক্ষে কে? এই প্রশ্ন উঠতে পারে। কিন্তু ২০১৯ সালে জনগণ কাকে নির্বাচিত করবে সে সিদ্ধান্ত তারা নিয়ে ফেলেছে তারা আর কাউকে খুঁজছে না।’ তবে নির্বাচনে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা কতটা প্রভাব ফেলবে এ নিয়ে বড় কোনো জরিপ হয়নি এখনো। বিরোধী দল অভিযোগ তুলেছে, মোদি দেশের যোদ্ধাদের নির্বাচনে জেতার অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছেন। তাইতো তিনি সবখানে পাকিস্তানে হামলার প্রসঙ্গ টানেন।

খোকসা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খানকে কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের সংবর্ধনা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করেছেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক-সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের নেতৃত্বে সাংগঠনিক কমান্ড মুক্তিযোদ্ধাদের একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় জেলা কমান্ডার মানিক কুমার ঘোষ মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে সম্ভব্য সব ধরণের সহযোগীতা প্রদান প্রতিশ্র“তি ব্যক্ত করেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন,  যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন নাগ চৌধুরী, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার হাজী মহসিন আলী মন্ডল, সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ, জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবীন্দ্রনাথ সেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন সহ আব্দুল মালেক, আবেদ আলী, আতিয়ার রহমান, ডাঃ মতিন ও অন্যান্য বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় আধুনিক সম্প্রসারণে আরও একটি উপকেন্দ্র নির্মানে ভিত্তি স্থাপন

কুষ্টিয়ায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় আধুনিক সম্প্রসারণে আরও একটি উপকেন্দ্র নির্মানে ভিত্তি স্থাপন করলেন পশ্চিমাঞ্চল বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানী লি: (ওজোপাডিকো)। শনিবার সন্ধ্যায় আঞ্চলিক বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ কুষ্টিয়ার নিজস্ব কম্পাউন্ডে নির্মিতব্য ৩৩/১১ কেভি,  ৪০এম, ভি এ উপকেন্দ্রের ভিত্তি স্থাপন করেন ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কো. খুলনার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো: শফিক উদ্দিন। এসময় তিনি বলেন, উপকেন্দ্র টি ২১ জেলার ভিতর প্রথম জি আই এস টাইপ উপকেন্দ্র হবে যা সম্পূর্ণ আধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ। উপকেন্দ্রটি নির্মাণ শেষে কুষ্টিয়া জেলার বিদ্যুৎ ব্যবস্থার আরও উন্নত রূপলাভ করবে। সম্পূর্ণ সরকারী অর্থায়নে প্রকল্পটি নির্মাণ ব্যয় ১৬ কোটি ৭২লাখ ৮৮হাজার টাকা এবং কার্যচুক্তি মতে নির্মান শেষ হবে ২৪০ দিনের মধ্যে। সরকারের টেকসই উন্নয়ন ও ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ- ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, এই শ্লোগানের বাস্তবায়িত সুফল ভোগী হবেন জেলাবাসী। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন- প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী আবু হাসান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আরিফুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কর্মকর্তাগণ। কুষ্টিয়া সার্কেল এর তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বলেন, জি আই এস উপকেন্দ্র  একটি আধুনিক প্রযুক্তির উপকেন্দ্র এটি কনভেনশনআল উপকেন্দের মাত্র ১০% জমিতে নির্মান করা সম্ভব, পরিবশ বান্ধব এবং সাইড সিলেকশন কুষ্টিয়া ক্যাম্পাসে হওয়ায় লোড সেন্টার  বিবেচনায় কারিগরী লস ও কম হবে। অন্যান্য উপকেন্দ্র এর জন্য জায়গা লাগে বেশি এই প্রযুক্তি এর উপকেন্দ্র এর যায়গা অনেক কম লাগে একই সাথে উপকেন্দ্র,  উলম্ব তলায় অপেরাটর, কন্টোল রুম থাকে ফলে জায়গা অনেক কম লাগে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়নের ডিজিটাল বাংলাদেশ, শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ এর শ্লোগানের যথার্থতা এখানে বিদ্যমান রয়েছে যার ফলে কুষ্টিয়াবাসী আস্থা, গুনগতমান, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের মান বৃদ্ধির সুফল পাবে কুষ্টিয়ার গ্রাহকগণ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনীতি হতে হবে গঠনমূলক – শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন,  ‘রাজনীতি করতে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল উদ্দেশ্য- শিক্ষা, গবেষণা ও উচ্চতর জ্ঞানার্জনের পরিবেশ যাতে কোনওভাবে বিঘিœত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। রাজনীতির বাইরে কিছু নেই। কিন্তু সেই রাজনীতিটা হতে হবে গঠনমূলক।’ গতকাল রোববার চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) শিক্ষকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। গঠনমূলক রাজনীতি চর্চার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা রাজনীতি করি। এটা সমাজের বাইরের কোনও বিষয় নয়। সমাজের প্রতিটি কাজ, বলতে গেলে সবকিছুই রাজনীতির মধ্যে। তবে সেই রাজনীতিকে হতে হবে আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও বিশ্বাসের সঙ্গে সম্পৃক্ত। সেটি যাতে কখনও কোনও অপরাজনীতির কবলে না পড়ে।’ এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষা ও গবেষণাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত এবং শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীদের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সিভাসুর উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী।  এ সময় মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘যে অপরাজনীতি ও অপসংস্কৃতিকে আমরা বাংলাদেশ থেকে ইতোমধ্যে বিদায় দিয়েছি তা যেন কোনওভাবে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে আবার দানা বাঁধতে না পারে সেজন্য সুষ্ঠু সাংস্কৃতিক চর্চা এবং বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক আদর্শের চর্চার বিষয়ে সবাইকে সচেতন হতে হবে।’ শিক্ষা উপমন্ত্রী আরও বলেন, ‘শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ছাড়া একটি বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারে না। এখানে শিক্ষা ও গবেষণার সুষ্ঠু পরিবেশ যাতে বজায় থাকে সে ব্যাপারে ছাত্র-শিক্ষক সবাইকে সচেষ্ট থাকতে হবে।’

 

কাল থেকে হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে পবিত্র বাৎসরিক ওরশ

নিজ সংবাদ ॥ “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” পবিত্র বাৎসরিক ওরশ উপলক্ষে, ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ২, ৩ ও ৪ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া শহরের আড়–য়াপাড়স্থ আব্দুল আজিজ সড়কস্থ “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” প্রাঙ্গনে এ ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যহ বাদ ফজর ঃ কোরআন তেলাওয়াত এবং বাদ মাগরিব ঃ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির। ৪ এপ্রিল আখেরি মোনাজাত ও তবারক বিতরণ। সভাপতিত্ব করবেন “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী চৌধুরী আলী হোসেন।  “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” ৪ এপ্রিল রাত ৯ টার দিকে অতিথিবৃন্দরা হলেন- প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, বিশেষ অতিথি সমাজ সেবক বিশ্বনাথ সাহা বিশু, কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সমাজ সেবক পারভেজ আনোয়ার তনু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শেখ মোঃ ফজলে করিম (খোকা), কুষ্টিয়া পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিচ কোরাইশী, ১০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোস্তফা লাভলু, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাবাউদ্দিন সওদাগর প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন অত্র মাজার কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক খন্দকার শওকত আলী টন।  সকলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক।

 

বনানীর অগ্নিকান্ডে বিএনপির থলের বেড়াল বের হয়ে গেছে – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বনানী অগ্নিকান্ডের ঘটনায় বিএনপির থলের বেড়াল বের হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘বনানীতে আগুন লাগার পর বিএনপি সংবাদ সম্মেলন করে বলেছে, দেশে গণতন্ত্র না থাকায় সেখানে আগুন লেগেছে। আগুনের সঙ্গে গণতন্ত্রের কি সম্পর্ক? পুরান ঢাকায় আগুন লাগার পরও তারা এই কথা বলেছিলো।’ গতকাল রোববার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজন ‘মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায়’ তিনি এসব কথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আসলে বনানীর অগ্নিকান্ডে বিএনপির থলের বেড়াল বেরিয়ে গেছে। ১৮ তলা ভবনের অনুমোদন নিয়ে আরও ৫ তলা বাড়ানো হয়েছে। বর্ধিত ৫ তলার মালিক বিএনপির কুড়িগ্রাম জেলার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য। তাকে গতকাল (শনিবার) গ্রেফতার করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও রিজভী সাহেব কি বলবেন?’ হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি অভিযোগ করছে অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র না কিনে সরকার সমরাস্ত্র কিনছে। বিএনপির কাছে আমার প্রশ্ন তাহলে কি আমাদের সমরাস্ত্র কিনতে হবে না? আমাদের সেনাবাহিনী শান্তি রক্ষার ক্ষেত্রে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। আমাদের সেনা সদস্যরাও বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ে আসছে। আমাদের সমরাস্ত্রের জন্য জাতিসংঘও পয়সা দেয়। নিজেদের প্রয়োজনেই আমাদের সেনাবাহিনীকে শক্তিশালী করতে হবে।’ আওয়ামী লীগের এ মুখপাত্র বলেন, ‘আমি মনে করি দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হিসেবে তার বিরুদ্ধে বিএনপির সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। আপনারা সেটি না করে সব কিছুতে রাজনীতি করার চেষ্টা করছেন। আমি আপনাদের অনুরোধ জানাবো রাজনীতিকরণ না করে সবাই মিলে পীড়িতদের পাশে দাঁড়াই। আর যারা বিল্ডিং কোড না মেনে ভবন নির্মাণ করছে, তাদের বিরুদ্ধে সকল দলমত নির্বিশেষে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলি।’ আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ফায়ার স্টেশন ও ফায়ার সার্ভিসের জনবল বৃদ্ধি পেয়েছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৮ সালে বাংলাদেশ ফায়ার স্টেশন ছিলো ২০৪টি এখন ফায়ার স্টেশন ৪০২টি। জনবল ছিলো ৪ হাজার ৩৭৭ জন, বর্তমানে তা ১০ হাজার ৮৮০ জন। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ৪৯টি ক্যাটাগরিতে অগ্নিনির্বাপণ সরঞ্জাম কিনছে। ফায়ার সার্ভিসকে আরও আধুনিক করার কাজ করে যাচ্ছে।’ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- সাবেক ছাত্র নেতা ও ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মোল¬া জালাল, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

রিমোট দিয়ে নির্বাচন কন্ট্রোল হলে বিপর্যয় নেমে আসবে – ইসি মাহবুব

ঢাকা অফিস ॥ অনাস্থা থেকেই নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশার (ইসি) মাহবুব তালুকদার। গতকাল রোববার উপজেলা পরিষদের চতুর্থ ধাপের ভোটের পরপরই রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, রিমোট কনট্রোলে নির্বাচনকে কনট্রোল করা হলে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা বিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে।’ মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘স্থানীয় সরকার হিসেবে ঘোষিত উপজেলা পরিষদে স্বায়ত্তশাসন নেই। উপজেলা পরিষদকে সংসদ সদস্যদের আওতা থেকে মুক্ত করা না হলে এ নির্বাচন কোনোক্রমেই সুষ্ঠু, স্বাভাবিক ও ক্রটিমুক্ত হওয়া সম্ভব না।’ তিনি বলেন, ‘অনেকের মতে, উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন ঘুরে দাঁড়িয়েছে। প্রশ্ন জাগে, কতদূর যাওয়ার পর এই ঘুরে দাঁড়াবার বোধোদয় ঘটলো? উপজেলা নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্র বন্ধ করা এবং অনিয়মের জন্য পুলিশ ও অন্যান্য নির্বাচন সংশি¬ষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, জাতীয় নির্বাচনের সময় তা দেখা যায়নি কেন? এর জবাব খুঁজলে জাতীয় নির্বাচনের প্রকৃত স্বরূপ উদঘাটিত হবে।’ নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক না হওয়ার দায় ভোটারদের ওপর চাপানো ঠিক নয় মন্তব্য করে এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘নির্বাচন বিষয়ে অনাস্থা থেকেই নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না। যেসব কারণে আমরা ভোটারদের আস্থা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছি, সেসবের কারণ খুঁজে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া আবশ্যক। বিগত দুই বছরে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে, তা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের আত্মসমালোচনা প্রয়োজন। ওইসব নির্বাচনে যেসব ভুলভ্রান্তি হয়েছে, সেগুলোর পুনরাবৃত্তি রোধ করা দরকার।’ তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন বা ভোটদানে জনগণের যে অনীহা পরিলক্ষিত হচ্ছে, তাতে জাঁতি এক গভীর খাদের দিকে অগ্রসরমান। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্যই নির্বাচন। নির্বাচন বিমুখিতা গণতন্ত্রের প্রতি মুখ ফিরিয়ে নেওয়ার নামান্তর। আমরা গণতন্ত্রের শোকযাত্রায় সামিল হতে চাই না। রাজনৈতিক দল ও রাজনীতিবিদদের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে ভেবে দেখা প্রয়োজন।’ জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচন সর্বোতভাবে নির্বাচন কমিশনের হাতে ন্যস্ত করার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন এই কমিশনার। বলেন, ‘রিমোট কনট্রোলে নির্বাচনকে কনট্রোল করা হলে নির্বাচন ব্যবস্থাপনা বিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে। এজন্য সবার জন্য সমান সুযোগ রেখে নির্বাচনি ব্যবস্থাপনার সংস্কার ও বাস্তবায়ন করে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অবাধ নির্বাচন হলে রাজনৈতিক দল ও ভোটারদের অনীহা দূর হবে।’

বিশ্বে সংকুচিত হয়ে পড়ছে বাংলাদেশীদের শ্রমবাজার

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ক্রমেই সংকুচিত হয়ে পড়ছে বাংলাদেশী শ্রমিকদের শ্রমবাজার। পাশাপাশি নতুন শ্রমবাজারের সন্ধান মিলছে না। বন্ধ হয়ে রয়েছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। মধ্যপ্রাচ্যের পুরনো শ্রমবাজারে বিগত ২০১৭ সালের তুলনায় গতবছর কর্মসংস্থান প্রায় অর্ধেক কমেছে। চলতি বছরের প্রথম দু’মাসেও ওই ধারা অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় নানা উদ্যোগের কথা বললেও নতুন কোনো শ্রমবাজার উন্মুক্ত হচ্ছে না। ইউরোপ, রাশিয়া, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও অস্ট্রেলিয়ার মতো উন্নত দেশগুলোয় কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে গত দু’বছর ধরে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার কথা বলছে মন্ত্রণালয়। কিন্তু জাপানে হাতে গোনা কর্মী পাঠানো ছাড়া বাংলাদেশিদের জন্যঅন্য কোথাও শ্রমবাজার খোলেনি। এমন পরিস্থিতিতে পর্যবেক্ষকরা শ্রম কূটনীতি জোরদার করার কথা বলছেন। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সংশি¬ষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সংশি¬ষ্ট সূত্র মতে, জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্যানুযায়ী ২০১৮ সালে বিদেশে কাজ নিয়ে দেশ ছেড়েছেন ৭ লাখ ৩৪ হাজার ১৮১ বাংলাদেশি কর্মী। ২০১৭ সালে বিদেশ গেছে ১০ লাখ আট হাজার ৫২৫ জন। আগের বছরের তুলনায় গতবছর বিদেশে কর্মসংস্থান প্রায় ২৭ শতাংশ কম হয়েছে। আর চলতি ২০১৯ সালের প্রথম দু’মাসে বিদেশ গেছে এক লাখ ৯ হাজার ৬০৭ জন।  তবে তাদের অর্ধেক ৫৪ হাজার ৮০৭ জনই গেছে সৌদি আরবে। অন্যদের গন্তব্য মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমান, কাতার ও জর্ডান। আর চলতি বছরের প্রথম দু’মাসে জাপান গেছে ২৬ বাংলাদেশী কর্মী। কিন্তু একজন বাংলাদেশিরও ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্য ও ইতালিতে কর্মসংস্থান হয়নি। বিগত ২০১৮ সালেও একই চিত্র ছিল। গতবছর বাংলাদেশি কর্মীদের প্রায় ৯০ শতাংশেরই গন্তব্য ছিল সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, আরব আমিরাত, কুয়েত, কাতার, ওমান, বাহরাইন, জর্ডান ও ইরাক। সূত্র জানায়, জ্বালানি তেলের দরপতনে মধ্যপ্রাচ্যে অর্থনৈতিক মন্দা চলছে। গতবছরের শুরু থেকেই বাংলাদেশের প্রধান শ্রমবাজার সৌদি আরবে জনশক্তি রফতানিতে ভাটা শুরু হয়। ২০১৭ সালে ৫ লাখ ৫১ হাজার বাংলাদেশি কর্মী দেশটিতে গিয়েছিলো। ২০১৮ সালে সৌদি আরব গেছে ২ লাখ ৫৭ হাজার ৩১৭ জন। সৌদি আরবে জনশক্তি রফতানি অর্ধেকের বেশি কমে গেছে। গতবছর মধ্যপ্রাচ্যের সব দেশেই ২০১৭ সালের তুলনায় জনশক্তি রফতানি কমে গেছে। আরব আমিরাত ও বাহরাইনে কর্মী পাঠানো বন্ধের পথে। তবে আগের বছরের তুলনায় কমলেও কাতার ও ওমানের শ্রমবাজার অন্যান্য দেশের তুলনায় ২০১৮ সালেও স্থিতিশীল ছিল। ২০১৭ সালে ওমান যায় ৮৯ হাজার ৭২ কর্মী। গতবছর গেছে ৭২ হাজার ৫০৪ জন। ২০১৭ সালে কাতার যায় ৮২ হাজার ১২ জন। ২০১৮ সালে গেছে ৭৬ হাজার ৫৬০ জন। তবে গতবছর একমাত্র মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রফতানি বেড়েছিল। ২০১৭ সালে মালয়েশিয়ায় গিয়েছিলো ৯৯ হাজার ৭৮৭ কর্মী। ২০১৮ সালে গেছে এক লাখ ৭৫ হাজার ৯২৭ জন। গতবছরের মার্চ থেকে নভেম্বর পর্যন্ত জিটুজি প্লাস পদ্ধতিতে ওসব কর্মী মালয়েশিয়ায় কাজ পেয়েছে। মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে সিন্ডিকেট ও দুর্নীতির কারণে উচ্চ অভিবাসন ব্যয়ে অন্তত ৫ হাজার কোটি টাকার অনিয়ম হয়েছে এমন অভিযোগে দেশটি জিটুজি প¬াস বাতিল করে। নভেম্বরের পর থেকে ওই পদ্ধতিতে কর্মী নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। মালয়েশিয়ার বাজার আবার কবে খুলবে তা অনিশ্চিত। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ২১ জন এবং ফেব্র“য়ারি মাসে মাত্র ১৪ কর্মী মালয়েশিয়া গেছে। সূত্র আরো জানায়, সরকারের তরফ থেকে নানা উদ্যোগের কথা বলা হলেও উন্নত দেশগুলোর শ্রমবাজার বন্ধই রয়েছে। ২০১৮ সালে যুক্তরাজ্য গেছে মাত্র ৮ জন বাংলাদেশী কর্মী। জাপান গেছে ১৬৩ জন। ইতালি যেতে পারেনি একজনও। যদিও সাবেক প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসির নেতৃত্বে শ্রমবাজার সম্প্রসারণে মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল ৯টি দেশ সফর করে। কিন্তু নতুন বাজার পাওয়া যায়নি। রাশিয়া ও জাপানে বড় সংখ্যায় কর্মী পাঠানোর ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। তাছাড়া ভারত মহাসাগরের ক্ষুদ্র দ্বীপরাষ্ট্র সেশেলস প্রতিনিধি দল সম্প্রতি বাংলাদেশ সফর করে। পর্যটন শিল্পনির্ভর দেশটি বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেয়ার আগ্রহের কথা জানালেও কবে নাগাদ কর্মী পাঠানো যাবে তা এখনো নিশ্চিত নয়। এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের গবেষণার তথ্যানুযায়ী ২০১৭ সালে ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর চাকরিজীবীদের মধ্যে ১ কোটি ৭০ ছিল প্রবাসী কর্মী। যার একটি বড় অংশ ভারত, চীন ও মেক্সিকোর হলেও বাংলাদেশ স্থান করে নিতে পারেনি। সরকারি হিসাবেই ২০১৮ সালে বাংলাদেশ থেকে বিদেশ যাওয়া ৩৮ দশমিক ৫৪ শতাংশ কর্মী ছিল অদক্ষ। আর সরকারি হিসাবে ৪৩ দশমিক ২৪ শতাংশ দক্ষ কর্মী বিদেশে গেছে। তবে জনশক্তি খাত সংশ্নিষ্ট অনেকে এ সংখ্যাকে শুভঙ্করের ফাঁকি বলছে। তাদেও মতে, যাদের দক্ষ বলা হচ্ছে তাদের অধিকাংশ সার্টিফিকেটধারী দক্ষ। অন্যদিকে জনশক্তি খাত-সংশ্নিষ্টদের মতে, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও দূতাবাসের উদ্যোগের ঘাটতিতেই বাংলাদেশীদের জন্য নতুন শ্রমবাজার উন্মুক্ত হচ্ছে না। কয়েক যুগের পুরনো নীতিতে এ খাত চলছে। রফতানিকারকরা যেসব দেশের চাহিদাপত্র আনতে পারে, শুধু সেখানেই বাংলাদেশ কর্মী পাঠাতে পারে। বাংলাদেশি কর্মীদের প্রায় ৯৫ শতাংশ এমন সব দেশে যায় যেগুলোতে শ্রম আইন দুর্বল ও বিদেশি শ্রমিকদের ওপর নিপীড়ন সাধারণ ঘটনা। দক্ষতার ঘাটতি থাকায় পশ্চিম ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার মতো উন্নত দেশে বাংলাদেশ কর্মী পাঠাতে পারে না। এ প্রসঙ্গে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব বদরুল আরেফীন জানান, কোন দেশে কত সংখ্যক কর্মীর চাহিদা রয়েছে, কীভাবে সেখানে বাংলাদেশি কর্মীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা যায়- মন্ত্রণালয় সেই চেষ্টা করে। এ প্রচেষ্টা মন্ত্রণালয়ের সবসময়ই রয়েছে।

এফআর টাওয়ারের তাসভীর ও ফারুক রিমান্ডে

ঢাকা অফিস ॥ বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে হতাহতের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই ভবনের দুই মালিক বিএনপি নেতা তাসভীর উল ইসলাম ও প্রকৌশলী এস এম এইচ আই ফারুককে সাত দিনের পুলিশ রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। তাসভীর ও ফারুকের জামিন আবেদন নাকচ করে ঢাকার মহানগর হাকিম সাব্বির ইয়াসির আহসান চৌধুরী রোববার এই আদেশ দেয়। গত ২৮ মার্চ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ের ২৩ তলা ওই ভবনে আগুন লেগে ২৬ জনের মৃত্যু হয়, আহত হন অর্ধশতাধিক মানুষ। ১৮ তলার অনুমোদন নিয়ে ভবনটি ২৩ তলা করা হয়েছিল এবং অগ্নি নিরাপত্তার যথাযথ ব্যবস্থা সেখানে ছিল না বলে অভিযোগ উঠেছে। ঢাকার পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া শনিবার দুপুরে বনানী থানায় একটি মামলা হওয়ার কথা জানানোর পর রাতে বারিধারার থেকে তাসভীরকে এবং সুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে ফারুককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এফআর টাওয়ার যেখানে নির্মাণ করা হয়েছে, সেই জমির মূল মালিক ছিলেন এস এম এইচ আই ফারুক। অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ভবনটি নির্মাণ করে রূপায়ন হাউজিং এস্টেট লিমিটেড। সে কারণে সংক্ষেপে ভবনের নাম হয় এফআর টাওয়ার।

আধাআধি ভাগ হলেও রূপায়ন পরে বিভিন্ন ফ্লোর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে দেয়। এর মধ্যে ২১, ২২ ও ২৩ তলার মালিকানা রয়েছে প্রযুক্তি খাতের কোম্পানি কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের হাতে। কুড়িগ্রাম জেলা বিএনপির সভাপতি তাসভীর ওই কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। বর্তমানে তিনিই ভবনের পরিচালনা কমিটির সভাপতি। রোববার দুপুরে তাদের তাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করেন গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. জালাল। অন্যদিকে দুই আসামির পক্ষে রিমান্ডের বিরোধিকা করে জামিনের আবেদন করেন আইনজীবী এহসানুল হক সমাজি, আবদুল্লাহ মনসুর রিপন ও গাজী শাহ আলমসহ কয়েকজন। শুনানি শেষে বিচারক জামিন নাকচ করে দুই আসামিকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন।

আয়নার প্রাপ্ত ফলাফল

গত ২৪ মার্চ ২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সেলিনা পারভীন আয়না কলস প্রতীকে ৮,২১৯ (আট হাজার দুই শত উনিশ) ভোট পেয়েছেন। জেলা রিটানিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আজাদ জাহান স্বাক্ষরিত পত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

গাংনীতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে গাংনী পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দিবসটি পালন করা হয়। পিস প্রেসার গ্র“প (পিপিজি)-এর সহযোগিতায় র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কন্যাশিশু এডভোকেসি ফোরামের মেহেরপুর জেলা শাখার সভাপতি বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসিমা বেগম। দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর গাংনী এলাকা সমন্বয়কারী হেলাল উদ্দীনের সঞ্চালনায়-অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা সুজন (সুশাসনের জন্য নাগরিক)-এর সভাপতি ও গাংনী সরকারী ডিগ্রী কলেজের সাবেক সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রশীদ, গাংনী পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোমিনুজ্জামান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গাংনী পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে গাংনী পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

‘ডাকাতের’ গুলিতে ছাত্রলীগ নেতা নিহত

ঢাকা অফিস ॥ সিলেটের বালাগঞ্জে ডাকাতের গুলিতে এক ছাত্রলীগ নেতা নিহত হয়েছেন; এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুই জন। গতকাল রোববার ভোরে উপজেলার চম্পারকান্দি গ্রামের সুরমান আলীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে বলে বালাগঞ্জ থানার ওসি গাজী আতাউর রহমান জানান। নিহত শাহাব উদ্দিন ওই গ্রামের সুরমান আলীর ছেলে। দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন তিনি। নিহতের পরিবারের বরাতে ওসি বলেন, ভোরে সুরমান আলীর ঘরে একদল ডাকাত হানা দেয়। এ সময় পরিবারের লোকজনের চিৎকারে শাহাব ছুটে গেলে ডাকাতদের সঙ্গে তার হাতাহাতি হয়। “এক পর্যায়ে ডাকাতরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত ও গুলি করে। পরে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে শাহাবের মৃত্যু হয়।” এ ঘটনায় শাহাবের বাবা সুরমান আলী ও ভাই ওয়াহাব আলী আহত হয়েছেন; তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে ওসি জানান। তিনি বলেন, ডাকাতরা কিছু স্বর্ণালংকার ও কয়েকটি মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে গেছে বলে শাহাবের পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে জানিয়েছেন। “ঘটনাটি শুধুই ডাকাতি নাকি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড তা খতিয়ে দেখতে পুলিশ কাজ শুরু করেছে।”

দৌলতপুরে কেবল নেটওয়ার্ক এসোসিয়েশন মালিকদের মানববন্ধন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এক কেবল মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে মানববন্ধন করেছে দৌলতপুর কেবল নেটওয়ার্ক এসোসিয়েশন ডিকোয়াব। গতকাল রবিবার দুপুর ১২টায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরের সামনের দৌলতপুর-থানামোড় প্রধান সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর কেবল নেটওয়ার্ক এসোসিয়েশন ডিকোয়াব’র সভাপতি আরিফুল ইসলাম গেদুর সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের উপদেষ্টা শহিদুল ইসলাম হালসানা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, হাফিজুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিনসহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্য। মানববন্ধন চলাকালে নেতৃবৃন্দ বক্তব্যে উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের লাইসেন্স কন্ট্রোলার কতৃক লাইসেন্স বাতিল হওয়া ও নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট কর্তৃক দুইবার সিলগালা করা হয় দৌলতপুরের ভাগজোত এলাকায় মিন্নাত আলীর অবৈধ ডিস কন্ট্রোলরুম। এরপরেও প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া আদালতের নির্দেশ অমান্য করে মিন্নাত আলী অবৈধ পন্থায় ডিস কন্ট্রোলরুম চালু করে বৈধ ডিস বা কেবল ব্যবসায়ীদের ব্যবসা কার্যক্রমে বাঁধা সৃষ্টি করছে। তাই অবৈধ ডিস বা কেবল ব্যবসায়ী মিন্নাত আলীর অবৈধ ডিস বা কেবল ব্যবসা বন্ধে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণ প্রয়োজন বলে তারা দাবি করেন। তা না হলে এর বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের হুসিয়ারি দেন কেবল ব্যবসায়ীরা।

মিরপুরে নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেমকে ফুলেল শুভেচ্ছা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দারকে ইজিবাইক সমিতির পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দারের ব্যক্তিগত কার্যালয়ে ইজিবাইক সমিতির নেতৃবৃন্দরা এ ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইজিবাইক সমিতির সভাপতি আশরাফুল আলম হীরা, ইজিবাইক সমিতির সহ-সভাপতি বানারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, অথ-সম্পাদক তুফান আলী, সদস্য মনিরুল ইসলাম, আতিকুল ইসলাম, রনি, রাজিব, আব্দুল মতিন, সজিব, খাইরুল ইসলাম, রাসেল আহমেদ, খোকন খান, টুটুল, খোকন, সুমন, কুব্বাত, পান্না, জহুরুল ইসলাম, আব্দুর রশিদ, সজিব-২, আসাদুল ইসলাম, আব্দুল মজিদ প্রমুখ।

এ্যাডঃ সমীর কান্তি দাস সভাপতি ও বিপ্লব পাল সাঃ সম্পাদক

হরিবাসর সার্বজনীন পূজা মন্দিরে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া শহরের আড়–য়াপাড়াতে অবস্থিত শ্রীশ্রী হরিবাসর সার্বজনীন পূজা মন্দিরে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুরাতন কমিটির মেয়াদ তিন বছর পূর্ণ হওয়ায় সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুমার পাল তিন বছরের আয়-ব্যয় হিসাব পেশ করেন। তিন বছরে হরিবাসর মন্দিরে সর্বপ্রথম এই কমিটি সমস্ত অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার পরও ২,৩৫,০০০/- টাকা উদ্বৃত্ত হিসাবে জমা রাখতে সক্ষম হয়। পূনরায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নতুন প্যানেল আহবান করা হলে, অন্যকোন প্যানেল না থাকায় পূর্বের কমিটি সফলভাবে দায়িত্ব পালন করায় এ্যাডভোকেট সমীর কান্তি দাস সভাপতি ও বিপ্লব কুমার পাল সাধারণ সম্পাদক, সমীর বাগচি কোষাধ্যক্ষ, সহ-সভাপতি হিসেবে সুবাস মজুমদার, প্রবোধ পাল, স্বপন দত্ত, সুবোল পাল, ডাঃ বিশ্বনাথ পাল বিশু, নন্দ দুলাল প্রামানিক, মলয় কৃষ্ণ পাল, স্বপন সাহাকে সহ-সভাপতি, সহ-সম্পাদক হিসাবে স্বপন মজুমদার, মিলন দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক সজল পাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামল বিশ্বাস সহ ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি নির্বাচিত করা হয়। উল্লেখ্য, ২৯ মার্চ ২০১৯ তারিখ রাত সাড়ে ৮ টায় শ্রীশ্রী হরিবাসর সার্বজনীন পূজা মন্দির প্রাঙ্গনে এ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পরবর্তী ৩ বছরের জন্য এ্যাডভোকেট সমীর কান্তি দাস সভাপতি ও বিপ্লব কুমার পালকে সাধারণ সম্পাদকসহ কমিটির অন্যান্যদের নির্বাচিত করা হয়।

দ্যা স্কলারস্ ফাউন্ডেশনের বৃত্তি পরীক্ষা ২০১৮ এর ফলাফল  প্রকাশ

বৃহত্তর কুষ্টিয়ায় বে-সরকারিভাবে সর্বোচ্চ বৃত্তি প্রদানকারী সংস্থা “দ্যা স্কলারস্ ফাউন্ডেশন, কুষ্টিয়ার” ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। স্কলারস্ ফাউন্ডেশন ঐতিহ্যগতভাবে প্রতি বছরের ১ এপ্রিল বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে থাকে। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট লেখক, সাহিত্যিক, কলামিষ্ট অধ্যাপক আবু জাফর স্যার আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেন। ফলাফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশন এর পরিচালক মোঃ সাদিকুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক এইচ এম হাসান আলী, সুমন হাসান ও সদস্য সচিব মু. আলহাজ হোসেন প্রমুখ। এ বছর জেলার সর্বোচ্চ মেধাবীদের মধ্য থেকে ১০১ জন ছাত্র-ছাত্রীকে বৃত্তি প্রদান করা হবে । প্রথম গ্রেড, দ্বিতীয় গ্রেড ও সাধারন গ্রেড এই তিন স্তরে বৃত্তি দেওয়া হয় ।

পঞ্চম শ্রেণীতে প্রথম গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৩ জন যথাক্রমে:- ৮৫১৫১, ৮৫৫২৭, ৮৫৫৩৬, দ্বিতীয় গ্রেডে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৫ জন যথাক্রমে:- ৮৫০৪১, ৮৫৫৩৭, ৮৫৫১৯, ৮৫৫২০, ৮৫১৪৭, সাধারন গ্রেডে বৃত্তিপ্রাপ্ত ২০ জন যথাক্রমে:- ৮৫৬২৩, ৮৫৫৩৩, ৮৫৬০৭, ৮৫১৫৩, ৮৫৫৯৪, ৮৫০৬০, ৮৫০১১, ৮৫১৪৫, ৮৫৫৮৪, ৮৫৫৬৭, ৮৫১৩৭, ৮৫৫৭৪, ৮৫৫৭৫, ৮৫১৫৮, ৮৫৫৯১, ৮৫৯১০ , ৮৫৯০৪, ৮৫১১৭, ৮৫৬৪৩, ৮৫৬১৪।

ষষ্ঠ শ্রেণীতে প্রথম গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৩ জন যথাক্রমে:- ৮৬৪৭৭, ৮৬৪৮৭, ৮৬৪৯০, দ্বিতীয় গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৫ জন যথাক্রমে:- ৮৬০৩১, ৮৬০৪১, ৮৬৪০৮, ৮৬১০৭, ৮৬০৮৮, সাধারন গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ১২ জন যথাক্রমে:- ৮৬৭০১, ৮৬১১৫, ৮৬৪৮৫, ৮৬৪৩৬, ৮৬৪৫৮, ৮৬৪৪৮, ৮৬৪২৯, ৮৬০৭৫,  ৮৬০৮৩, ৮৬৪৯৫, ৮৬৪০৯, ৮৬০২৮।

সপ্তম শ্রেণীতে প্রথম গ্রেডে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৩ জন যথাক্রমে:- ৮৭৪১৭, ৮৭০৯৪, ৮৭৪২০, দ্বিতীয় গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৫ জন যথাক্রমে:- ৮৭৪২৮, ৮৭০৭৫, ৮৭১০৬, ৮৭৪৬১, ৮৭৪৪৬, সাধারন গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ১৪ জন যথাক্রমে:- ৮৭০৯২, ৮৭০০১, ৮৭৮০০, ৮৭৪৪৮, ৮৭০২৭, ৮৭০২৩, ৮৭০৪৮, ৮৭০৪৭, ৮৭০৪১, ৮৭০৭৬, ৮৭৪৩৬, ৮৭১০২, ৮৭১০৪, ৮৭৪০৯। অষ্টম শ্রেণীতে প্রথম গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৩ জন যথাক্রমে:- ৮৮৩৮২, ৮৮৩৬৭, ৮৮০৬০,দ্বিতীয় গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৫ জন যথাক্রমে:- ৮৮৩০৪, ৮৮৫০৫, ৮৮৩১৭, ৮৮০১১, ৮৮৩৭৮, সাধারন গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৯ জন যথাক্রমে:- ৮৮৩১২, ৮৮৩৫৪, ৮৮০৭৪, ৮৮০২৫, ৮৮০০৫, ৮৮৩৭৬, ৮৮০০৭, ৮৮৩৭১, ৮৮০৪৪। নবম শ্রেণীতে প্রথম  গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৩ জন যথাক্রমে:-  ৮৯০৩১, ৮৯০৫৬, ৮৯২১৭, দ্বিতীয় গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ৫ জন যথাক্রমে:- ৮৯০৫১, ৮৯০৩৯, ৮৯০৬১, ৮৯০৬০, ৮৯০০৮, সাধারন গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ০৬ জন যথাক্রমে:- ৮৯২২৮, ৮৯২৪১, ৮৯০১৭, ৮৯০২৪, ৮৯০১৪, ৮৯২১৬। বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল ও কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের ছবি সম্বলিত একটি বিশেষ ক্রোড়পত্র “সাপ্তাহিক কুষ্টিয়ার দিগন্ত” পত্রিকায় শুক্রবার সংখ্যায় প্রকাশিত হবে এবং কুষ্টিয়ার স্থানীয় দৈনিক ”আন্দোলনের বাজার” ও ”সত্য খবর”পত্রিকায় রেজাল্ট পাওয়া যাবে। এছাড়াও ফাউন্ডেশনের নির্ধারীত প্রতিনিধি এবং ংধিফবংযনধৎঃধ২৪ বিনংরঃব এ রেজাল্ট পাওয়া যাবে। ওয়েবসাইট এর ঠিকানা- িি.িংধিফবংযনধৎঃধ২৪.পড়স। এছাড়াও নিম্নোক্ত নাম্বারে যোগাযোগ সাপেক্ষে ফলাফল পাওয়া যাবে- ০১৭৮০-৭৩৩৭৬৬। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দোলত আলীকে দেখে সাধারণ মানুষের দয়া হলেও দয়া হয়নি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের

৯২ বছর বয়স হলেও কপালে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ড !

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মজলিশপুর গ্রামের মৃত ইমান আলী’র ছেলে মোঃ দোলত আলী জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার জন্ম ১৯২৭ সালের ২৭শে অক্টোবর, বর্তমানে তাঁর বয়স প্রায় ৯২ বছর। স্থানীয়রা জানিয়েছেন বাস্তবে তার বয়স আরো বেশি হবে। বারবার নানা আশ্বাসের বাণী শুনিয়েছেন দেই দিচ্ছি হচ্ছে। এই বৃদ্ধ আক্ষেপ করে বলেন, এখন আমি অসুস্থ, চলতে পারি না। যদি একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড দেয়া হয়, তাহলে যতদিন বেঁচে থাকবো, কোন মতে চলতে পারব। প্রায় ৯২ বছর বয়স হলেও হতদরিদ্র মোঃ দোলত আলী’র কপালে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ড। সরেজমিনে এই প্রতিবেদক গিয়ে দেখেন, বয়সের ভারে নুইয়ে পড়ে লাঠি ভর দিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রামে ছুটে চলেছেন মানুষের দ্বারে দ্বারে কিছুটা আর্থিক সাহায্যের জন্য। মোঃ দোলত আলীকে দেখে সাধারণ মানুষের দয়া হলেও দয়া হয়নি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের। বয়ষ্ক ভাতার কার্ড পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে, দোলত আলী উল্টো প্রশ্ন করে বলেন, কবে পাব বয়স্ক ভাতার কার্ড?

স্থানীয় ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার কাফের আলী জানান, তিনি খুব শিঘ্রই দোলত আলীকে বয়স্কভাতার কার্ড করে দিবেন। এ ব্যাপারে মিরপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যে তালিকা পাঠানো হয় তার ভিত্তিতেই আমরা কার্ড সরবরাহ করে থাকি। এর বাইরেও বয়স্ক ভাতা কার্ড পাওয়ার যোগ্য কেউ থাকে তাহলে আমি ব্যবস্থা করে দিবো। চিথলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পিস্তুল জানান, বিষয়টি তার জানা ছিল না, আমি খোজ-খবর নিচ্ছি। তবে সত্যতা পেলে অবশ্যই বয়স্কভাতার কার্ডের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

হবায়ক আব্দুল্লাহ সাঈদ ॥ সদস্য সচিব এম.ডি আসাদ

সম্মিলিত লেখক ফোরাম কুষ্টিয়ার সাহিত্য আসর

সম্মিলিত লেখক ফোরাম, কুষ্টিয়া এর আয়োজনে গত ৩০ মার্চ শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় কুষ্টিয়া ফেয়ার কার্যালয়ে সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া ফটোগ্রাফিক সোসাইটির সভাপতি ও কবি খলিলুর রহমান মজু। নতুন রুপে আতœপ্রকাশ পাওয়া সম্মিলিত লেখক ফোরাম কুষ্টিয়ার কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে উপস্থিত সকলে সম্মিলিতভাবে কাজ করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন। কুষ্টিয়া সম্মিলিত লেখক ফোরামের পুর্ণাঙ্গ কমিটি আগামী মাসিক সাহিত্য আসরে ঘোষণা করা হবে। এবিষয়ে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটির আহ্বায়ক ছড়াকার আব্দুল্লাহ সাঈদ, সদস্য সচিব কবি ও আবৃত্তিশিল্পী এম.ডি আসাদ। এছাড়া সদস্য হিসেবে আছেন সাহিত্যিক মোহাম্মদ তাজউদ্দীন, কবি মোহিত চন্দ্র গোবিন্দ, অধ্যাপক মিজান সরকার, অধ্যাপক আশফাকুর রহমান, কবি কনক চৌধুরী, কবি আজিজুর রহমান, কবি ও আবৃত্তিশিল্পী শরিফুল আলম সিদ্দিক কচি, কবি কামরুল হাসান মনি, দেওয়ান আখতার, এ্যাড: সুব্রত চক্রবর্তী, কবি শেখ আকতার, কবি শ্যামলী ইসলাম, কবি শিরিন বানু, কবি ইশরাত জাহান ইপি, কবি মহাদেব সাহা, আবৃত্তিশিল্পী আনোয়ার কবীর বকুল, কবি জসীম উল্লাহ আল হামীদ, কবি এস এস রুশদী, কবি আব্দুর রাজ্জাক, কবি আব্দুল মালেক, কবি রেবেকা নাসরীন সহ আরো অনেকে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

পুলিশের চাকরিতে অবিবাহিত থাকার শর্ত নিয়ে হাইকোর্টের রুল

ঢাকা অফিস ॥ পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রার্থীর অবিবাহিত থাকা এবং উচ্চ সামাজিক মর্যাদার অধিকারী হওয়ার শর্ত কেন অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে আইন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের আইজিসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। গতকাল রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও মো. আশরাফুল কামালের নেতৃত্বে দুই সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে গতকাল রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান। এর আগে গত ২৫ ফেব্র“য়ারি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় খিলগাঁওয়ের বাসিন্দা মো. হোসেন খানের পক্ষে অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান রিট আবেদন দায়ের করেন। রিটকারীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান বলেন, পুলিশ প্রবিধানমালার ৭৪১ এর (চ) দফার (১) নম্বর উপ-দফায় বলা হয়েছে, পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টটর হিসেবে নিয়োগ পেতে হলে প্রার্থীকে অবশ্যই উচ্চ সামাজিক মর্যাদার ও সন্মানিত বংশের হতে হবে। ৪ নম্বর উপ-দফায় বলা হয়েছে, প্রার্থীকে অবিবাহিত হতে হবে এবং তার শিক্ষানবিশকাল সমাপ্ত না হওয়া পর্যন্ত অবিবাহিত থাকতে হবে। এই শর্ত থাকার কারণে রিটকারীর শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকার পরও পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টটর পদে আবেদন করতে পারছেন না। এ ছাড়া এসব শর্ত সংবিধানের ২৯ ও ৩২ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এ কারণে রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়।। রিটে পুলিশ প্রবিধানমালার ৭৪১ এর (চ) দফার ১ ও ৪ নম্বর উপ-দফাকে কেন অসাংবিধানিক ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না-এই মর্মে রুল জারির আরজি জানানো হয়েছিল।

 

কুষ্টিয়ায় জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ পালন উপলক্ষে এ্যাডভোকেসি সভা

নিজ সংবাদ ॥ আগামী ৬ হতে ১১ এপ্রিল জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ পালন উপলক্ষে কুষ্টিয়ায় জেলা এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন অফিসের কনফারেন্স রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন অফিস এ সভার আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা বেগম। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জায়েদুর রহমান, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এবি সিদ্দিক। উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন কুষ্টিয়ার উপ পরিচালক শামসুল হক, সমাজ সেবার উপ-পরিচালক রোকসানা পারভিন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জেসমিন আরা। অনুষ্ঠানে সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ কর্মকর্তা সামসুল ইসলাম। সভায় প্রধান অতিথি বলেন, প্রত্যেকের অবস্থান থেকে কৃমি মুক্ত দেশ গড়তে কাজ করতে হবে। আমরা চাই সকলে মিলে জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ পালন করে শিশুদের কৃমিমুক্ত করি। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ কৃমি মুক্ত হবে। সভায় বক্তারা বলেন,  ৫-১৬ বছর বয়সী স্কুলগামী ছাত্রছাত্রী ছাড়াও স্কুল বহির্ভূত ঝরে পড়া, পথশিশু এবং শ্রমজীবী সকল শিশুকে এ কর্মসূচির আওতায় কৃমিনাশক মেবেনডাজল ৫০০ মি.গ্রা ট্যাবলেট খাওয়া হবে। বাচ্চাদের ভরা পেটে স্কুলে উপস্থিত হওয়ার পরেই কৃমিনাশক ট্যাবলেট খাওয়ানোর পরামর্শ দেয়া হয়। কোন বাচ্চা যদি অসুস্থ থাকে তাহলে সেই অবস্থায় এ ট্যাবলেট খাওয়ানো থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়। পরবর্তীতে শিশু সুস্থ হওয়া পর তাকে ট্যাবলেট খাওয়ানোর পরামর্শ দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয় কৃমিনাশক ট্যাবলেটে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই তবে কোন সমস্যা  দেখা দিলে কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন অফিসে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়ার উপজেলাগুলোর স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

এফআর টাওয়ারের অগ্নিকান্ড নিয়ে গণশুনানি

ঢাকা অফিস ॥ বনানীর এফআর টাওয়ারের অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ভবনটির অষ্টম তলার স্পেক্ট্রা এসএন নামের একটি বায়িং হাউস থেকে হয়েছিল বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি। গতকাল রোববার এক গণশুনানিতে ওই ভবনের বিভিন্ন তলায় থাকা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত কমিটির প্রধান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফয়জুর রহমান এ কথা জানালেও স্পেক্ট্রা বায়িং বলছে ভিন্ন কথা। প্রতিষ্ঠানটির সহকারী ব্যবস্থাপক মো. কফিল উদ্দিনের দাবি, তাদের ফ্লোরে আগুন লাগেনি। তারা ওপর থেকে আগুনের ফুলকি পড়তে দেখেছেন। গতকাল রোববার এফআর টাওয়ারের অদূরে সাফুরা টাওয়ারে বনানী থানা পুলিশের কন্ট্রোল রুমে গণশুনানিতে এফআর টাওয়ারের বিভিন্ন তলায় কর্মরত ২৪ জন তাদের বক্তব্য দিয়েছেন বলে জানান অতিরিক্ত সচিব ফয়জুর রহমান। গত বৃহস্পতিবার বনানীর ২৩ তলা ওই ভবনে আগুন লেগে চারটি তলা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়; এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২৬। আহত হয়েছেন অর্ধ শতাধিক মানুষ। ২৩ তলা ভবনটির সপ্তম ও অষ্টম তলাতেই প্রথম আগুন দেখা যায়। পরে তা আরও কয়েক তলায় ছড়ায়। গণশুনানিতে পাওয়া তথ্যের বরাতে ফয়জুর রহমান বলেন, “তাদের ভাষ্য অনুযায়ী আমরা জানতে পেরেছি, ভবনের অষ্টম তলায় স্পেক্ট্রা এসএন নামে একটি বায়িং হাউজের অফিস থেকে আগুনের সূত্রপাত। তারা বলেছেন, শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত।” অগ্নিকান্ডের পর ভবনটির বিভিন্ন অব্যবস্থাপনার তথ্য বেরিয়ে আসছে। অনেকগুলো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় থাকলেও সেখানে অগ্নি নির্বাপনের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা ছিল না বলে অভিযোগ উঠেছে। যতটুকু ছিল, তাও কার্যকর ছিল না বলে ফায়ার সার্ভিসের ভাষ্য। আগুন লাগার পর এফআর টাওয়ারে থাকা অনেকেই সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামার চেষ্টা করেন। কেউ বা ছুটে যান উপরের দিকে। ভবনটির ১৩ তলার ডার্ড নামে একটি পোশাক কারখানার শফিকুল নামের কর্মী জানিয়েছিলেন, নিরাপত্তাকর্মীরা বাঁশি বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে তিনি সিঁড়ি প্রথমে সাততলায় যান। কিন্তু সেখানে এসে দেখেন নামার মতো আর কোনো পথ নাই। পরে তিনি উপরে উঠে যান। আর ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান ভাস্য ছিল, অগ্নিকান্ডের সময় ভবনটির এমার্জেন্সি কলাপসিবেল গেইট বন্ধ ছিল। এছাড়া বিল্ডিংয়ের সিঁড়িও ছিল সরু। অতিরিক্ত সচিব ফয়জুর রহমান বলেন, “তারা (শুনানিতে আসা কর্মীরা) অনেকে এক্সিট ডোরের কথা জানত না। এক্সিট ডোরের কোনো দিকনির্দেশনাও ছিল না। তাই তারা এটা ব্যবহার করতে পারেননি। ভবনে অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা থাকলেও নিরাপত্তা কর্মীরা তা ব্যবহার করতে পারেননি।” তবে অষ্টম তলা থেকে আগুন লাগেনি বলে দাবি করেছেন স্পেক্ট্রা এসএন বায়িং হাউসের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. কফিল উদ্দিন। তিনি বলেন, “আমাদের ফ্লোরে আগুন লাগেনি।  আমরা দেখেছি ওপর থেকে আগুনের ফুলকি পড়ছে। পরে আমরা দ্রুত সিঁড়ি দিয়ে নেমে আসি।” তিনি বলেন, ওই সময় তাদের প্রতিষ্ঠানে তিনি কর্মী ময়নুদ্দীনকে নিয়ে কাজ করছিলেন। ঢাকার হেড অফিসে কাজ করেন ১৭ জন। বাকি ১৫ জন অফিসের কাজে বাইরে ছিলেন। তাদের কারখানা সম্প্রতি নীলক্ষেত থেকে সাভারের হেমায়েতপুরে স্থানান্তরিত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক নিয়াজ আহমেদ জানিয়েছেন, তারা অষ্টম তলায় কোনো মৃতদেহ পাননি। নবম ও দশম তলার সিঁড়িতে মৃতদেহ পেয়েছেন। রোববার বেলা ১২টার মধ্যে ভবন নির্মাতা রূপায়ন গ্রুপের নকশাটি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরে দেওয়ার কথা থাকলেও তারা তা দেয়নি। এদিকে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তার এফআর টাওয়ারের দুই মালিকের একজন তাসভীর উল ইসলামের প্রতিষ্ঠান ২১ তলার কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ইবনে হোসেন মো. সালাউদ্দীন জানিয়েছেন, পুলিশ তাদের কার্যালয়ে যেতে না দেওয়ায় তারা গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র সরিয়ে আনতে পারছেন না। “আমাদের এমপ্লয়িদের বেতন পরিশোধ করব, চেক রয়ে গেছে ভেতরে। সার্ভার রয়ে গেছে, দলিল রয়ে গেছে। পুলিশের সহযোগিতায় আমরা সেসব বের করে আনতে চাই। তাহলে বিকল্প উপায়ে ঢাকার বাইরের ফেক্টরি আমরা সচল করতে পারব।” তিনি জানান, গত পরশু অল্প সময়ের জন্য কার্যালয়ে যেতে পারলেও শনিবার থেকে তারা তা পারছেন না। এসময় আরও কয়েকজন ব্যবসায়ী ক্ষোভ করেন। তাসভীরের সঙ্গে ভবনটির আরেক মালিক কৌশলী এস এম এইচ আই ফারুককেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।