কালুখালীতে জলাতঙ্ক নির্মূলে এসিএস ট্রেনিং অনুষ্ঠিত

ফজলুল হক ॥ গতকাল মঙ্গলবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে জলাতঙ্ক রোগ নির্মূলের লক্ষ্যে উপজেলায় ব্যাপক হারে  কুকুরের টিকাদান (এমডিভি) কার্যক্রম বাস্তবায়নের নিমিত্তে উপজেলা এ.সি.এস ট্রেনিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।  সকাল ১১টায় কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হলরুমে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা, লোকাল ডগ ক্যাচার, এইচ আই, ইপিআই, এইচ আই, ঢাকা থেকে আগত এক্সপার্ট ডগ ক্যাচার ও ঢাকা থেকে আগত জিআইএস এর প্রতিনিধি ও কর্মকর্তাবৃন্দ এ ট্রেনিং এ অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য প্রদান করেন  আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ খোন্দকার আবু জালাল। এছাড়াও স্বাস্থ্য পরিদর্শক সুশিল কুমার রাহা, এমডিডিভি সুপার ভাইজার ইমতিয়াজ উদ্দিন, সুশান্ত শীল প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় বক্তাগন ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে ব্যাপক হারে কুকুরের টিকাদান (এমডিভি) কার্যক্রম ২০১৯ কালুখালী উপজেলায় আগামী  ১৩ মার্চ থেকে ১৭ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে কুকুরের টিকা প্রদান করা হবে। এ টিকাদান কর্মসূচী চলাকালীন জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় জনসাধারণ সহ সকলকে সার্বিকভাবে অংশগ্রহণ ও সহযোগীতা কামনা করেন।

চুড়িহাট্টা ট্রাজেডি

দোলাসহ আরও ৫ জনের লাশ শনাক্ত

ঢাকা অফিস ॥ চুড়িহাট্টা অগ্নিকান্ডের পর একসঙ্গে নিখোঁজ ছিলেন দুই বন্ধু রেহনুমা তারান্নুম দোলা ও ফাতেমাতুজ জোহরা বৃষ্টি। দুই সপ্তাহ পর আগুনে পোড়া লাশের মধ্যে বৃষ্টিকে শনাক্ত করা গেলেও পাওয়া যাচ্ছিল না দোলাকে। ঢাকা মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন হাসপাতলের মর্গে থাকা বাকি লাশগুলো থেকে ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে তিন সপ্তাহ পর শনাক্ত করা হয়েছে দোলাকেও। দোলাসহ আরও পাঁচজনের মরদেহ শনাক্ত করার কথা গতকাল মঙ্গলবার জানিয়েছেন সিআইডি’র অতিরিক্ত আইজিপি শেখ হিমায়েত হোসেন। অন্য চারজন হলেন হাজী ইসমাইল, ফয়সাল সারওয়ার, মোস্তফা ও মোহাম্মদ জাফর। রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে এই পাঁচজনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। তিনি জানান, মর্গে থাকা মোট ১৬টি মরদেহের পরিচয় ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্ত করা হয়েছে। এখনও তিনটি লাশ অশনাক্ত অবস্থায় আছে।

চকবাজারের চুড়িহাট্টায় গত ২০ ফেব্র“য়ারি ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের পর ৬৭টি লাশ আনা হয়েছিল ঢাকা মেডিকেলে। তার মধ্যে ৪৮টি লাশ তাদের স্বজনরা চিহ্নিত করে নিয়ে গেলেও বাকিগুলো আগুনে পুড়ে যাওয়ায় খালি চোখে তা শনাক্ত করা যাচ্ছিল না। তাই ডিএনএ পরীক্ষার জন্য সিআইডিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এই অগ্নিকান্ডে আহতদের মধ্যে চারজনের মৃত্যু ঘটায় নিহতের সংখ্যা ৭১ জনে পৌঁছেছে।

দৌলতপুরে অগ্নিকান্ডে বাড়ি পুড়ে ছাই   

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অগ্নিকান্ডে একটি বাড়ি পুড়ে ছাই হয়েছে। সোমবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার মহিষকুন্ডি কলেজ পাড়া এলাকার মাদক সেবী বিসু’র বাড়িতে অগ্নিকান্ড ঘটে বাড়ির ৩টি ঘর পুড়ে ভষ্মিভূত হয়। স্থানীয়রা জানায়, বাড়ির পার্শ্বর্তী এলাকায় বিসু ও তার পরিবারের সদস্যরা ওয়াজ মাহফিল শুনতে গেলে বাড়িতে আগুন লাগে। তবে কিভাবে আগুন লাগে তা কেউ জানাতে পারেনি। মুহুর্তের মধ্যে আগুন বাড়ির সব ঘরে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসীর চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রন হলেও ততক্ষনে বাড়ির সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে ৩টি ছাগল, আসবাবপত্র, খদ্য শস্যসহ অন্তত কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ঝিনাইদহে মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার দায়ে ২ জনের যাবজ্জীবন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার দায়ে দুইজনকে যাবজ্জীবন দিয়েছে আদালত। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা জজ প্রথম আদালতের বিচারক এম জি আযম গতকাল মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া আদালত তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। জরিমানা না দিলে তাদের আরও দুই বছর কারাগারে থাকতে হবে। সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার পুটখালী গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে আতাহার আলী ওরফে আতিক হুজুর ও ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার ভোমড়াডাঙ্গা গ্রামের আনারুলের ছেলে হাবিবুর রহমান। রায় ঘোষণার সময় উভয় আসামি আদালতে ছিলেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার আরও দুই আসামি নাসির সরকার ও ইউসুফ আলীকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত। ২০১৫ সালে জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার ভোমরাডাঙ্গা গ্রামের মোহর আলীর ছেলে মাদ্রাসা ছাত্র মিরাজ হোসেন হত্যা মামলায় আদালত এ রায় দেয়। জজ আদালতের পিপি ইসমাইল হোসেন মামলার নথির বরাতে জানান, ২০১৫ সালের ১৪ মার্চ সন্ধ্যায় মিরাজ গ্রামের একটি মাদ্রাসায় ওয়াজ মাফফিল শুনতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরদিন সকালে গ্রামের মাঠে ভুট্টাক্ষেত থেকে তার ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার চাচা জিন্দার আলী কোটচাঁদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। পিপি ইসমাইল বলেন, সাক্ষ-প্রমাণ শেষে আদালত দুইজনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। আর দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় দুইজনকে খালাস দিয়েছে।

আনন্দ মিছিলে গিয়ে হামলার মুখে ডাকসু ভিপি নূর

ঢাকা অফিস ॥ ডাকসুর ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পরদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিলে যোগ দিতে এসে হামলার মুখে পড়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের মোর্চা বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা নূরুল হক নূর। গতকাল মঙ্গলবার বেলা পৌনে ২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে এই হামলার জন্য ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দায়ী করেছে ছাত্রদল। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নূরুল হক নূর ডাকসু ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পরদিন মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের এই মোর্চার আনন্দ মিছিলে হামলা হয়। ডাকসু নির্বাচনেরে ভোট চলাকালে সোমবার দুপুরে রোকেয়া হলে গিয়ে নূর ছাত্রলীগের হামলার শিকার হন বলে তার অনুসারীদের অভিযোগ। সেখান থেকে তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতে হাসপাতালেই তিনি ভিপি নির্বাচিত হওয়ার খবর পান। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আনন্দ মিছিলে যোগ দিতে মঙ্গলবার দুপুরে ক্যাম্পাসে আসেন নূর। বেলা দেড়টায় টিএসসি থেকে শুরু হয়ে আনন্দ মিছিলটি কলাভবন ঘুরে আবার টিএসসিতে হামলার ঘটনা ঘটে। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নূরুল হক নূর ডাকসু ভিপি নির্বাচিত হওয়ার পরদিন মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের এই মোর্চার আনন্দ মিছিলে হামলা হয়। একই সময়ে টিএসসির সামনে আলাদাভাবে সভা করছিল ছাত্রদল, বাম জোট সমর্থিত ছাত্র সংগঠনগুলো এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জোট। নবনির্বাচিত ভিপি নূর পরে বেলা সোয়া ২টার দিকে তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন। ছাত্রদল, বামজোট সমর্থিত ছাত্র সংগঠনগুলো ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জোটও তাতে অংশ নেয়। এ সময় তারা স্লোগান দেন- “সন্ত্রাসীদের হামলা কেন? বিচার চাই, বিচার চাই।”

ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের বিজয় কেউ ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে বামপন্থী ও ডানপন্থীদের সম্মিলিত শক্তিও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিজয় ঠেকিয়ে রাখতে পারেনি। তিনি বলেন, ‘অন্য কোন প্যানেল বা স্বতন্ত্র  কোন প্রার্থীরা বিজয়ী হলেও তারা নির্বাচন বয়কট করায় প্রকৃতপক্ষে তাদের পরাজয় হয়েছে। ছাত্রলীগই বিজয় অর্জন করেছে।’ আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত দলের এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। পরে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির এক সভায় অংশগ্রহণ করেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৮ বছর পর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হল। অতীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি নির্বাচনে ছাত্রীরা হামলার শিকার হয়েছে, তা সকলেই জানে। কিন্তু, এ নির্বাচনে এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। বামপন্থী, ডানপন্থী এবং কোটা সংস্কারপন্থীসহ প্রতিটি দলই এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে। ছাত্রলীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচন পরিচালনায় কিছু ক্রটি ছিল বলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলেছে। তবে নির্বাচনে কোন ক্রটি সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরপরই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছেন বলেও তারা উল্লেখ করেছেন। ড. হাছান বলেন, ‘ভিপি প্রার্থীসহ যে কয়জন প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেছিলেন, তাদের মধ্য থেকেও নির্বাচিত হয়েছে। সর্বোপরি ডাকসু নির্বাচন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমি নির্বাচিত সকল প্রার্থীদের অভিনন্দন জানাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের অস্তিত্ব কারো চোখে পড়েনি। তারা এ নির্বাচনে নিখোঁজ ছিল। ড. হাছান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মদিবস উপলক্ষে আগামী বছরের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত সময়কে ‘মুজিব বর্ষ’ হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি। এ উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে প্রকাশনাসহ নানা কর্মসূচি নেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতির পিতার ৯৯তম জন্মদিন এবং ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে গত দশ বছরে সরকারের নানা উন্নয়ন নিয়ে উপ-কমিটি একটি বিশেষ প্রকাশনা বের করবে। আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমীনের পরিচালনায় উপ-কমিটির সদস্যরা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

সিইসির অতৃপ্ত আত্মাকে ধারণ করলেন ঢাবির ভিসি

ঢাকা অফিস ॥ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনেও মধ্যরাতে ভোট দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার অতৃপ্ত আত্মাকে ডাকসু নির্বাচনে নিজের দেহে ধারণ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান। ডাকসুর নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সরকারের ‘মিডনাইট ভোটের’ প্রেসিক্রিপশন অনুযায়ী ঢাবি ভিসি ডাকসু নির্বাচন করেছেন এমন অভিযোগ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, গতকাল ডাকসুর ইতিহাসের নজিরবিহীন ঘটনা ঘটাল। মিডনাইট ভোটের সরকারের ফতোয়া শুনে ঢাবির ভিসি ‘ভূতের বেগার’ খেটে বিশ্ববিদ্যালয় সুমহান ঐতিহ্যকে ধুলোয় লুটিয়ে দিলেন। সরকার যেহেতু বিরোধীদের এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তেও নারাজ, তাই আজ্ঞাবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ডাকসু নির্বাচন করলেন প্রহসন ও সন্ত্রাসী বার্তা বরণে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার-সিইসির অতৃপ্ত আত্মাকে নিজের দেহে ধারণ করলেন ভিসি আখতার। ডাকসু নির্বাচনে ফলে ‘অস্বাভাবিক ইঞ্জিনিয়ারিং’ হয়েছে, এমন মন্তব্য করে বিএনপির এ নেতা বলেন, ডাকসু নির্বাচনের ফল ‘অস্বাভাবিক’। এতে অনেক অসামঞ্জস্য রয়েছে। ছাত্র সংসদের যে নির্বাচনগুলো হয়, তাতে দেখা যায় ভিপি থেকে সদস্য পর্যন্ত একটা ফিক্সড প্যানেল ভোট থাকে। এই প্যানেল ভোটটা সবাই পায়। কিন্তু ১১ মার্চের ডাকসু ভোটের ফলে দেখা যাচ্ছে যে, ছাত্রলীগের যিনি ভিপি-জিএস এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনের যিনি ভিপি-জিএস এর মধ্যে প্যানেল ভোটের অনেক পার্থক্য। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কারিগরি অনুযায়ী ঢাবি ভিসি ফল ঘোষণা করতে পারেন এমন সন্দেহ করে রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কোনো কারিগরি হয়েছে বা সেই কারিগরির কোনো ব্লু প্রিন্ট ফুলার রোডে ভাইস চ্যান্সেলরের বাসভবনে হয়েছে কিনা এটি বলা যাবে দু-একদিন পর। আগে সব ফল নিয়ে আমরা বিশ্লে¬ষণ করে দেখি। তবে এখন পর্যন্ত মনে হয়েছে এটি অস্বাভাবিকই বটে। কবি আল মাহমুদের কবিতার লাইন উদ্ধৃত করে বিএনপির এ নেতা বলেন, প্রখ্যাত কবি আল মাহমুদ তার এক কবিতায় লিখেছিলেন- ‘জানতে সাধ জাগে’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কি ডাকাতদের গ্রাম?’ তিনি কেন এ কবিতা লিখেছিলেন আমি জানি না। তিনি বলেন, এই বরেণ্য কবির ওই কবিতার লাইনটি প্রমাণ করল গতকাল ছাত্রলীগ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভোট ডাকাতির প্রতিবাদ হয়েছে এমন মন্তব্য করে রিজভী বলেন, ছাত্রলীগ নামধারী বর্গি ও মগদের অভয়ারণ্যের মধ্যেও উদ্দীপ্ত প্রাণের সাহসী তরুণরা ভোট ডাকাতির বিরুদ্ধে রক্তরঞ্জিত হয়েও প্রতিবাদ করেছে অমিতবিক্রমে। আমি মনে করি, এই প্রতিবাদের অংশ নিয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, কোটা সংস্কার আন্দোলনের ছাত্ররা ও বাম ছাত্র সংগঠনগুলো প্রমাণ করেছে তারা আলোর পথের যাত্রী। সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. সাহিদা রফিক, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, শামসুজ্জামান সুরুজ, কাজী রফিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত অনিয়মের অভিযোগ তুলে ছাত্রলীগ ছাড়া সব প্যানেলের ভোট বর্জনের ডাকসু নির্বাচনে দুটি পদ ছাড়া সব পদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্রলীগ সমর্থিত প্যানেল। ভিপি পদে জয়ী হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের প¬াটফর্ম সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা নুরুল হক নুর। আর সমাজসেবা সম্পাদক পদেও জয়ী হয়েছেন কোটা আন্দোলনের আরেক নেতা। বাদবাকি ২০টি পদে জয়ী হয়েছে ছাত্রলীগ। ছাত্রী হলগুলো ছাড়াও অন্য হলে ছাত্রলীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে।

 

রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নিলে নতুন সংকট দেখা দেবে -জাতিসংঘ

ঢাকা অফিস ॥ জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক দূত ইয়াং লি হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, বসতিহীন ঘূর্ণিঝড়প্রবণ দ্বীপ ভাসানচরে ২৩ হাজার শরণার্থীকে স্থানান্তরের পরিকল্পনা আগামী মাসে বাস্তবায়ন করতে গেলে রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন সংকট তৈরি হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। দোহাভিত্তিক আলজাজিরা এমন তথ্য জানিয়েছে। সম্প্রতি তিনি ওই চরটি পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। সোমবার জেনেভায় মানবাধিকার পরিষদে তিনি বলেন, বঙ্গোপসাগরের ওই দ্বীপটি বাসযোগ্য কিনা, তা নিয়ে আমার সন্দেহ রয়েছে। শরণার্থীদের ইচ্ছার বাইরে গিয়ে ভাসানচরে তাদের স্থানান্তরের অশুভ-পরিকল্পনা নতুন সংকট তৈরি করবে বলে সতর্ক করে দেন জাতিসংঘের মিয়ানমারবিষয়ক এ বিশেষ দূত। রোহিঙ্গা অধিকারকর্মীরা বলেন, শরণার্থীরা কার্যত ভাসানচরে আটক পড়ে যাবেন। কাদামাটি ও নিম্নভূমির এই চরটিতে বর্ষাকালে প্রায় ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। ২০১৭ সালের শেষ দিক থেকে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নিধন অভিযান শুরু হলে সাড়ে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। প্রাণ নিয়ে পালিয়ে আসা এসব শরণার্থীর মুখ থেকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হত্যা, ধর্ষণ, অঙ্গহানি, বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও নিপীড়নের বিবরণ পাওয়া যায়। রোহিঙ্গা অধিকারকর্মী স্যান লিউইন বলেন, তিনি মনে করেন, রোহিঙ্গাদের সেখানে স্থানান্তরের মাত্র একটি উপায় আছে, সেটি হলো বলপ্রয়োগ। তিনি বলেন, আশ্রয় শিবিরের সবাই ভাসানচরে যাওয়ার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করবে, এটি নিশ্চিত। কেউ সেখানে স্থানান্তর হতে চাইবে না। গত জানুয়ারিতে থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশে সফর নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার প্রেক্ষাপটে ইয়াং লি সোমবার এসব মন্তব্য করেন। শান্তিতে নোবেলজয়ী অং সান সু চির সরকার তাকে মিয়ানমারে ঢোকার অনুমতি দেয়নি। এমনকি মিয়ানমারের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে তার লিখিত প্রশ্নেরও কোনো জবাব দেয়নি। সম্প্রতি প্রকাশিত প্রতিবেদনে লি বলেন, ভাসানচরে পূর্ণাঙ্গ প্রযুক্তিগত ও মানবিক মূল্যায়ন করতে জাতিসংঘকে সুযোগ দিতে হবে। তারা সেখানে যেতে ইচ্ছুক কিনা, সেই সিদ্ধান্ত নিতে সেখানকার পরিস্থিতি সরেজমিন দেখে আসার সুযোগ দিতে হবে রোহিঙ্গাদের। চরটিকে বাসযোগ্য করে গড়ে তুলতে চীন ও ব্রিটিশ প্রকৌশলীদের নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ। এতে ব্রিটিশ এইচআর ওয়ালিংফোর্ড ফার্মকে নিয়োগ দেয়ায় ব্রিটেনভিত্তিক মানবাধিকার কর্মীরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। গত ডিসেম্বরে অ্যাডভোকেসি গ্র“প বার্মা ক্যাম্পেইন ইউকে ভাসানচর প্রকল্পে এই ব্রিটিশ ফার্মকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রতিবাদ জানিয়ে এটিকে জঘন্য তালিকা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। তারা বলছে, এইচআর ওয়ালিংফোর্ড মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রকল্পগুলোতে জড়িত।

আলমডাঙ্গায় আঞ্চলিক মটর মালিক সমিতির মতবিনময় সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা আঞ্চলিক মটর মালিক সমিতির সাথে শ্রমিক ইউনিয়নের মতবিনিময় সভা গতকাল সকাল সাড়ে ১১ টায় পৌর বাস টার্মিনালে আঞ্চলিক মটর মালিক সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় মটর মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক সেকেন্দার আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন আঞ্চলিক মটর মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আওয়ামীলীগ নেতা লিয়াকত আলী লিপু মোল¬া। এ সময় তিনি বলেন বাস টার্মিনালকে সম্পুর্ন সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে হবে। পাহারাদার বাড়াতে হবে, এতে বাস ট্রাক মালিকগন নিশ্চিন্তে থাকতে পারবে। বিশেষ অতিথি ছিলেন মটর মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ মলি¬ক, বাস ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের আলমডাঙ্গার সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন, সম্পাদক আলাউদ্দিন, আব্দুল কুদ্দুস, সাহাবুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক আদর। আরো উপস্থিত ছিলেন মটর মালিক সিরাজুল ইসলাম, সেন্টু মিয়া, শাহাবুদ্দিন, জীতেন বাবু, লিটন মিয়া, পাপন মিয়া, আবুল হাসেম, জাইদুল মিয়া, পিন্টু মিয়া প্রমুখ।

 

কুষ্টিয়ার স্পেশালাইজড মেডিকেল ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীদের ভ্রান্ত অভিযোগ এবং প্রতারণা সংক্রান্ত সংবাদের বক্তব্য

সম্প্রতি গুরুকুল পরিচালিত স্পেশালাইজড মেডিকেল ইন্সটিটিউট এর ম্যাটস দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্বের শিক্ষার্থীদের দাবি সমূহের প্রেক্ষিতে ৭ মার্চ ২০১৯ তারিখে দুই একটি স্থানীয় পত্রিকায় প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রকাশ করা হয়।  সেখানে আমাদের প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক এবং কর্মকর্তা  সম্পর্কিত ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করা হয়। একটি স্থানীয় পত্রিকায় উদ্দেশ্যমূলকভাবে অভিযোগ করা হয়  স্পেশালাইজড মেডিকেল ইন্সটিটিউটের কোন শিক্ষকই  মেডিকেল সম্পর্কিত নয়।  উলে¬¬খ্য যে, আমাদের ম্যাটস বিষয় সম্পর্কিত ৪ জন এবং সাধারণ বিষয় সম্পর্কিত ৪ জন  মোট ৮ জন স্থায়ী শিক্ষক রয়েছে।  এছাড়া বিভিন্ন খন্ডকালীন শিক্ষক হিসাবে পাঠদান করছেন।  স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী আমাদের প্রতিষ্ঠান পরিচালনার অনুমোদন থাকলেও নেই কোন বিএমডিসির রেজিষ্ট্রেশন।  আমরা ইতিমধ্যে গত জানুয়ারি মাসে বিএমডিসির রেজিষ্ট্রেশনের জন্য সংশি¬¬ষ্ট দপ্তরে প্রাথমিক আবেদন সম্পন্ন করেছি।  সংশি¬ষ্ট দপ্তরে যোগযোগ করলে আমাদের জানিয়েছে তাদের নির্ধারিত সময়ে প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের মাধ্যমে অনুমোদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।  এখানে উলে¬¬খ্য বিএমডিসির  রেজিষ্ট্রেশন একটি প্রক্রিয়াধীন বিষয় এবং সময় সাপেক্ষ। উপরোক্ত সকল ভুল বোঝাবুঝির বিষয়ে অবগত করার জন্য আমরা শিক্ষার্থীদের সকল অভিভাবকের সাথে যোগাযোগ করি এবং প্রতিষ্ঠানে অভিভাবক সমাবেশে আমন্ত্রন জানাই।  কিন্তু শিক্ষার্থীরাই কুচক্রী মহলের ইন্ধনে অভিভাবকদের প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত হতে বাঁধা প্রদান করে। তারপরও অধিকাংশ অভিভাবক এসে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেন এবং তাদের ভুল বোঝাবুঝির অবসানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের সাথে একমত পোষন করে। প্রথমদিন থেকে শিক্ষকদের সাথে উদ্ধতপূর্ণ আচরণ করা সত্ত্বেও আমরা শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের ডেকেছি এবং সমাধানের চেষ্টা করেছি।  কিন্তু কেউ সমাধানের চেষ্টা না করে কুচক্রী মহলের ইন্ধনে প্রতিষ্ঠানকে কোন প্রকার সহযোগিতা করেনি। ম্যাটস ২য় ও ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের ১ মার্চ ২০১৯ তারিখে প্রাতিষ্ঠানিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কুচক্রী মহলের ইন্ধনে শিক্ষক, কর্মকর্তার সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও অশালীন ব্যবহারের কারণে গুরুকুল পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তার স্বার্থে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস, পরীক্ষা স্থগিত ঘোষনা করা হয়।  গত ১০ মার্চ ২০১৯ তারিখে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকের সাথে আলোচনা এবং ক্লাস শুরু করার অনুরোধ সাপেক্ষে নিন্মোক্ত শর্তে ক্লাস শুরু করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। ১।  যে সকল শিক্ষার্থীদের অভিভাবক প্রতিষ্ঠানের আমন্ত্রনে অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত হয়নি সেসকল শিক্ষার্থী এবং অভিভাবক প্রমুখ বরাবর ক্লাস করার অনুমোতি  চেয়ে আবেদন করতে হবে।  আবেদনপত্রে অভিভাবকের স্বাক্ষরসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি/শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা প্রথম শ্রেনীর সরকারি কর্মকর্তার সাক্ষরসহ আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। ২।  আবেদনপত্রে এই ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনার সাথে পুনরায় সম্পৃক্ত না হবার অঙ্গীকার করতে হবে। ৩।  যে সকল শিক্ষার্থীর অভিভাবক অভিভাবক সমাবেশে উপস্থিত হয়েছিল সেই সকল শিক্ষার্থী বিনা শর্তে ক্লাসে উপস্থিত হতে পারবে। গুরুকুল পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি আগামি ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ থেকে ম্যাটসের সকল বর্ষের ক্লাস, পরীক্ষা পুনরায় শুরু হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সভাপতি সোহাগ ॥ সেক্রেটারী তিমির

ইবি প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ও প্রগতিশীল  সাংবাদিক সংগঠন প্রেসক্লাব এর কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন-২০১৯  মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস কর্ণারে অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রত্যক্ষ ভোট  পেয়ে ফেরদাউসুর রহমান সোহাগ সভাপতি ও শাহাদাত তিমির সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ভাইস-চ্যান্সেলর আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যনির্বাহী পরিষদের চুড়ান্ত ফলাফল ঘোষনা করেন। নির্বাচন পরবর্তী দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যত কিছু ভালো অর্জন এর পিছনে রয়েছে ইবি প্রেসক্লাব। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকদের উদ্দ্যেশে বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্তম্ভ হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর পাশাপাশি চতুর্থ স্তম্ভ হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকবৃন্দ। তিনি আশা প্রকাশ করেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকরা  তাদের ক্ষুরধার লিখনীর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি দেশ ও দেশের বাইরে আরও বেশি করে তুলে ধরবে। ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের চ্যালেঞ্জকে বাস্তবে রূপ দিতে বর্তমান প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নতির জন্য  নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি প্রেসক্লাবের অতীত ইতিহাসের কথা স্মরণ করতে গিয়ে বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করতে গিয়ে সে সময় ছাত্রত্ব হারিয়েছিলেন ইবি প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  মোঃ শাহজাহান আলম সাজু। তিনি আশা প্রকাশ করেন, প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কার্যনিবার্হী পরিষদের সদস্যদের গঠনমুলক লিখনীর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম দিনদিন বৃদ্ধি পাবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, সততা, দক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে নবনির্বাচিত প্রেসক্লাব কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যরা বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। তিনি বলেন স্বাধীনতা পরবর্তী প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় এটি। তোমরা তোমাদের ক্ষুরধার লিখনির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নকে আরো ত্বরান্বিত করবে। তোমাদের লেখার মাধ্যমেই আমরা সঠিক পথের সন্ধান পাবো। অপর বিশেষ অতিথির  বক্তব্যে ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, মহান স্বাধীনতার মাসে আজ প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন-২০১৯ এর মাধ্যমে কলম যোদ্ধারা নির্বাচিত হলো। আমি তাদের অভিনন্দন জানাই। তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের পথের সকল প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে বর্তমান প্রশাসনকে আরো সজাগ ও সহযোগীতা করবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ধরনের অন্যায় ও খারাপ কাজের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা থাকবে সোচ্চার। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ, অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর আব্দুল মুঈদ, সাবেক প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান, জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক স্বপন, ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন, প্রক্টর(ভারঃ) ড. আনিচুর রহমান, শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. শাহাদৎ হোসেন আজাদ, প্রধান প্রকৌশলী (ভারঃ) আলিমুজ্জামান টুটুল, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অফিসের পরিচালক (ভারঃ) এ. এইচ.এম আলী হাসান, জনসংযোগ অফিসের উপ-পরিচালক মো: আতাউল হক, ছাত্রলীগ ইবি শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম প্রমুখ। উল্লেখ্য যে,  প্রেসক্লাব কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন-২০১৯  এর প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন ইবি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি  ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারঃ) এ.কে.আজাদ লাভলু।

আলমডাঙ্গায় জান্নাতুল বাকী জামে মসজিদের উদ্যোগে তাফসিরুল কুরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা মাদ্রাসাপাড়া জান্নাতুল বাকী জামে মসজিদের উদ্যোগে তাফসিরুল কুরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বাদ মাগরিব জান্নাতুল বাকী জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে তাফসিরুল কুরআন মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন উক্ত মসজিদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ নুর মোহাম্মদ জকু মিয়া। প্রধান বক্তা হিসেবে তাফসিরুল কুরআন মাহফিল সম্পর্কে আলোচনা করেন প্রখ্যাত মুফাসসীরে কুরআন হযরত মাওলানা মোহাম্মদ শাজাহান আলী সিরাজী। বিশেষ বক্তা প্রখ্যাত মুফাসসীরে কুরআন হযরত মাওলানা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান, হযরত মোহাম্মদ মুক্তারুজ্জামান আজিজি, মাওলানা মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান। এছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন গোবিন্দপুর মাঠপাড়া জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আইনদ্দিন মিয়া, গোবিন্দপুর দক্ষিণপাড়া জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব খন্দকার ইসমাইল হোসেন, আলমডাঙ্গা বণিক সমিতির সভাপতি মোঃ মকবুল হোসেন, বন্ডবিল জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, চড়পাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও উক্ত মসজিদ কমিটির কোষাধ্যক্ষ মশিউর রহমান, আলহাজ্ব মসলেম উদ্দিন প্রমুখ।

আলমডাঙ্গায় হরিতলা মন্দির প্রাঙ্গণে ২য় বার্ষিক শ্রী শ্রী তারকব্রহ্ম মহা নামযজ্ঞানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা গোবিন্দপুর হরিতলা মন্দির প্রাঙ্গণে ২য় বার্ষিক শ্রী শ্রী তারকব্রহ্ম মহা নামযজ্ঞানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে সভাপতি করেন গোবিন্দপুর হরিতলা মন্দির কমিটির সভাপতি প্রশান্ত সিহি। প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ সামসুল আবেদীন খোকন। তিনি বলেন ধর্ম যার যার উৎসব সবার। আমরা অসম্প্রদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাস করি। আমরা যুগ যুগ ধরে আলমডাঙ্গা হিন্দু মুসলমান একসাথে কাধে কাধ মিলিয়ে বসবাস করে আসছি। একে অপরের আচার অনুষ্ঠানে বা ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগদান করে থাকি। আমরা যেকোন সাম্প্রদায়িক শক্তির কাছে মাথানত করবো না। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা পৌর মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাদির গনু, থানা অফিসার ইনচার্জ মুন্সি আসাদুজ্জামান, সাবেক পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. সবেদ আলী, চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত অধিকারী, উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোনিন্দ্রনাথ দত্ত, আলমডাঙ্গা উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ডাঃ অমল কুমার বিশ্বাস, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক যমুনা টিভির জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম ডালিম হোসেন, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালমুন আহমেদ ডন। সুনিল কুমার সাধুখার উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লিপন কুমার বিশ্বাস, পলাশ আচার্য, উপজেলা জাসদের সভাপতি গোলাম সরোয়ার, পৌর জাসদের সাধারণ সম্পাদক ডালিম হোসেন, শ্রমিকলীগ নেতা পরিমল কুমার কালু ঘোষ প্রমুখ।

 

 

গাংনীতে কিশোরের ডাক সংগঠনের উদ্যোগে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ জয় হোক মানবতার, জয় হোক ভালোবাসা ও সহমর্মিতার’ এ শ্লোগানকে বুকে ধারণ করে মেহেরপুরের গাংনীতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে গাংনী উপজেলার সাহারবাটি কলোনীপাড়া আল-মার্কাজুল ইসলাম দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে পবিত্র আল-কোরআনসহ শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়। মাদ্রাসার সভাকক্ষে আনুষ্ঠানিক ভাবে ৫০জন শিক্ষার্থীর মাঝে এসব উপকরণ বিতরণ করা হয়। বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আশ্রয় সমাজ উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতায় শিক্ষা উপকরণ বিতরণের আয়োজন করে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী  সংগঠন কিশোরের ডাক। বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাহারবাটি কলোনীপাড়া আল-মার্কাজুল ইসলাম দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মুহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন আশ্রয় সমাজ উন্নয়ন সংস্থার চেয়ারম্যান ও এনডিএম-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জাবেদুর রহমান জনি। সাংবাদিক সাহাজুল সাজু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাহারবাটি চারচারা বাজার কমিটির সভাপতি আতাউর রহমান টোকন, সমাজ সেবক শাহাজাহান বিশ্বাস, গাংনী উপজেলা জাতীয় পার্টি (জাপা)’র সাধারণ সম্পাদক-সমাজ সেবক বাবলু হোসেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন সমাজ সেবক শিহাব রহমানসহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখে কিশোরের ডাক সংগঠনের  সভাপতি আব্দুল্লাহ-আল-নোমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কিশোরের ডাক সংগঠনের সহ-সভাপতি সাকিল আহমেদ,সাধারণ সম্পাদক রিপন মাহমুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাকলাইন হোসেন, সদস্য মিন্টু হোসেন, আব্দুল মোমেন, মোস্তাক আহমেদ ও লিজন আলী প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করে মাদ্রাসার শিক্ষার্থী শাওন হোসেন।

ইবি’র শহীদ জিয়াউর রহমান হলে নতুন প্রভোস্টে’র দায়িত্ব গ্রহণ

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ জিয়াউর রহমান হলে আইন বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. মোঃ আক্রাম হোসেন মজুমদারকে আগামী দুই বছরের জন্য নতুন প্রভোস্ট হিসাবে দায়িত্ব প্রদান করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার হলের প্রভোস্ট কক্ষে নতুন প্রভোস্ট এর দায়িত্ব গ্রহণ ও হস্তান্তর অনুষ্ঠানে বিদায়ী প্রভোস্ট প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুস শাহীদ মিয়ার সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, যাকে যেই দায়িত্বই দেয়া হোক না কেন, সে যদি অর্পিত দায়িত্বকে নিজের মনে করে কাজ শুরু করে তবে সব সমস্যার সমাধান সম্ভব। তিনি বলেন, হলের উন্নয়ন একটি চলমান ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। হল ভালো থাকলে বিশ্ববিদ্যালয ভালো থাকবে। তিনি হলের আবাসিক ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভালো ছাত্র হবার থেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো ভালো মানুষ হওয়া। তিনি জঙ্গীবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড থেকে দুরে থাকার বিষয়ে ছাত্রদেরকে বর্তমান প্রশাসনের জিরো টলারেন্স নীতির কথা স্মরণ করিয়ে দেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে  প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, বিদায়ী প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুস শাহীদ মিয়ার ব্যক্তিগত জীবনের প্রতিচ্ছবি হল পরিচালনার ক্ষেত্রে পড়েছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন নবনিযুক্ত প্রভোস্ট প্রফেসর ড. মোঃ আক্রাম হোসেন মজুমদার হল পরিচালনার ক্ষেত্রে সেই ধারাবাহিকতা রাখবে। তিনি বিদায়ী  ও নতুন প্রভোস্টকে স্বাগত ও অভিনন্দন জানান। অপর বিশেষ অতিথির  বক্তব্যে ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, আমি এই অনুষ্ঠানে এসে গর্ববোধ করছি। কারন বিদায়ী ও নতুন প্রভোস্ট দুজনই আমাদের ছাত্র। তিনি আশা প্রকাশ করেন, বিদায়ী প্রভোস্টের ন্যায় বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রভোস্ট হলের আবাসিক ছাত্রদের ভালো রাখবেন। তিনি হল পরিচালনায় বর্তমান প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাধ্যমতো সকল ধরনের সাহায্য ও সহযোগীতার আশ্বাস দেন। অনুষ্ঠানে হলের আবাসিক নবনিযুক্ত হাউস টিউটর ও আবাসিক ছাত্র বক্তব্য রাখেন। দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন, সাবেক প্রক্টর প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, প্রক্টর (ভারঃ) ড. আনিচুর রহমান, প্রফেসর ড. মোঃ তোজাম্মেল হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ ইয়াকুব আলী, প্রফেসর ড. মোঃ আতিকুর রহমান  প্রমুখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদশার গণসংযোগ অব্যাহত

আসন্ন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এবং কুষ্টিয়া সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোঃ আবু তৈয়ব বাদশা গণসংযোগ ও মতবিনিময় অব্যাহত রেখেছেন। গতকাল দিনব্যাপী তিনি  ত্রিমোহনী, রাইনী বটতল, মোল্লাতেঘরিয়া, খাজানগর, কবুরহাট এবং পৌর ২১ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও মতবিনিময় করেন। গণসংযোগ ও মতবিনিময়কালে বাদশা বলেন, আপনাদের ভালবাসায় আমি মুগ্ধ। আশারাখি ২৪ মার্চ পালকি প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে আপনাদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দিবেন। তিনি বলেন, আমি কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী। আমি নির্বাচিত হতে পারলে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান জননেতা আতাউর রহমান আতা’র হাত ধরে আপনাদের এলাকার উন্নয়নে কাজ করবো। গণসংযোগকালে বাদশা’র সাথে ছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় টাটা-পিকআপ চ্যানেল পার্টনার শো-রুমের উদ্বোধন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় টাটা-পিকআপ চ্যানেল পার্টনার শো-রুমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ উপলক্ষে নিটল টাটা মটরস লিমিটেড ও এমবি ট্রেডার্স আয়োজিত  জমজমাট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এমবি ট্রেডার্স কুষ্টিয়ার স্বত্বাধিকারী এস.এম রেজাউল ইসলাম বাবলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও কুষ্টিয়া বাস-মিনিবাস মালিক গ্র“পের সভাপতি আসগর আলী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন  নিটল মটরস্ লিমিটেডের লাইট কমার্শিয়াল ভেহিক্যাল প্রডাক্ট প্রেসিডেন্ট বি.এম. মুরাদ হোসেন, নিটল মটরস্ এর সাউথ বেঙ্গল-২ এর এরিয়া প্রেসিডেন্ট খান মোঃ আব্দুল আলিম, কুষ্টিয়া ট্রাক মালিক গ্র“পের সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি আব্দুর রশিদ ও কুষ্টিয়া বাস-মিনিবাস কোচ মালিক সমিতির সভাপতি হাজী সদর উদ্দিন বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নিটল মটরস্ এর হেড অব ডিলার নেটওয়ার্ক মিজানুর রহমান। গ্রাহকদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন বিল্লাল হোসেন। পরে উপস্থিত গ্রাহকদের মধ্যে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যাফেল ড্রতে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আসগর আলী। কুষ্টিয়ায় টাটা-পিকআপ চ্যানেল পার্টনার শো-রুমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হওয়াতে এখন থেকে কুষ্টিয়ায় বসে পিকআপ গাড়ি কেনা খুবই সহজ হবে। গতকাল উদ্বোধনী দিনে যারা পিকআপ কেনার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করেছেন তাদের জন্য রেজিষ্ট্রেশন ফি ফ্রি করা হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়ার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সুধীজনেরা উপস্থিত ছিলেন। পরে ফিতা কেটে টাটা-পিকআপ চ্যানেল পার্টনার শো-রুমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে পিকআপের ক্রেতা রেজাউল করিম টুটুল ও নাদিম মোল্লার হাতে চাবী তুলে দেয়া হয়।

সভাপতি আবু মুসা ॥ সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান

কুষ্টিয়া জেলা সমিতি অফ ইউএসএ ইনকের সাধারণ সভা ও দ্বি-বার্ষিক কমিটি গঠন

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ গত ১০ মার্চ  রবিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় নিউইয়র্কের জেকশন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে কুষ্টিয়া জেলা সমিতি অফ ইউএসএ ইনকের সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামানের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবু মুসা, উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য মোঃ রাশেদুল  আলম, মোঃ রফিক আহম্মেদ মিলু, নাজমুল আহসান দুলাল, মতিউর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুনসুর আলম মুন্না, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জগলুল হক শাহীন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোঃ মন্জুর কাদের, অর্থ সম্পাদক মোঃ আলমগীর হোসেন, সহ সভাপতি আনোয়ারা মন্জু , মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা আম্বিয়া অন্তরা, সাংবাদিক আদিত্য শাহীন, লাইলা খালেদা, প্রচার সম্পাদক মুন্সী সাজেদুর রহমান টেন্টু, সহ-ক্রীড়া সম্পাদক নুরুজ্জামান বিশ্বাস, মোঃ সাইদুর রহমান, মোঃ জিয়াউর রহমান, মোঃ মিজানুর রহমান, আশিক ইকবাল ও প্রমুখ৷ সভায় সর্বসম্মতিতে আবু মুসাকে সভাপতি ও মোঃ আসাদুজ্জামানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০১৯-২০২০ সালের জন্য নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

২০১৯-২০২০ মেয়াদী পূর্ণাঙ্গ কার্যকরী কমিটি নেতৃবৃন্দ হলেন

সভাপতি : মোঃ আবু মুসা,  সিনিয়র সহ-সভাপতি : মোঃ রাশেদুল আলম, সহ সভাপতি : মোঃ মমিন বিশ্বাস, কাজী পারভেজ বাবু, মো ঃ সাইদুর রহমান, মোছাঃ রওশন পারভিন, মোছাঃ আনোয়ারা হক মন্জু, মোঃ কামরুজ্জামান। সাধারণ সম্পাদক : মোঃ আসাদুজ্জামান। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক :  মোঃ মুনসুর আলম মুন্না  ও মোঃ আশরাফুল আলম, সহ সাধারণ সম্পাদক : মোহাম্মদ জগলুল হক শাহীন, কোষাধাক্ষ্য : মোঃ আলমগীর হোসেন, সহ-কোষাধ্যক্ষঃ নাজমুল আহসান, সাংগঠনিক সম্পাদক : আদিত্য শাহীন, যুগ্ম সাংগঠনিক : মোঃ জিয়াউর রহমান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ঃ মুন্সী সাজেদুর রহমান টেন্টু, মহিলা সম্পাদিকা : আম্বিয়া অন্তরা, সাহিত্য সম্পাদিকা : লাইলা খালেদা, দপ্তর সম্পাদক : আশিক ইকবাল, প্রচার সম্পাদক : আশিক রহমান,  ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক : আব্দুল্লাহ জোবায়ের, সহ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক : মোঃ নুরুজ্জামান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক :  মোঃ মন্জুর কাদের,  আপ্যায়ন সম্পাদক : মামুন রশিদ সরোজ।

কার্যকরী সদস্য যথাক্রমে ঃ মোঃ গিয়াস উদ্দিন, এ কে এম খোকন, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ জহুরুল ইসলাম, মোঃ  জিল্লুর রহমান জুয়েল, আব্দুল আলিম, মোঃ মফিজুল ইসলাম (শুভ ), মোঃ বুলবুল আহম্মেদ, মোঃ সাকিম উদ্দিন, মোঃ জিয়াউর রহমান  বাবু, মোঃ হাসান আলী , মোঃ রফিকুল ইসলাম , মোঃ হুমায়ন কবির ।

প্রধান উপদেষ্টা : মোঃ মাহাবুব জোয়ার্দার (সাবেক ডিন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় কুষ্টিয়া),  উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য : ডঃ মোহাম্মদ আসাদুল্লাহ ( সাবেক অধ্যাপক রা.বি এবং সায়িন্টিস্ট যুক্তরাষ্ট্র, মুন্সী মোর্তুজা আলী (সহযোগী অধ্যাপক ই.বি), নাজমুল আহসান দুলাল, আব্দুল খালেক, মোঃ ইমদাদুল হক, মোঃ আলতাফ হোসেন, মোঃ রফিক আহম্মেদ মিলু, মোঃ মাহবুবুল আলম চাঁদ, মোঃ আব্দুল আলিম হানিফ (অধ্যক্ষ), মোঃ খন্দকার আমিরুল ইসলাম,  মোঃ নাসিম আহম্মেদ (মুক্তিযোদ্ধা), মোঃ মাসুদুল আলম লিপু, মোঃ মাফিউল আলম , আব্দুর রহমান, মোঃ সাজিজুল  ইসলাম সুজন।

 

ইবি’তে  বাংলা বিভাগের উদ্যোগে প্রফেসর হাবিব আর রহমান শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের  বাংলা বিভাগের উদ্যোগে মঙ্গলবার বাংলা মঞ্চে প্রফেসর হাবিব আর রহমান শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়। বাংলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাঃ সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেন, আজ এই মাহেন্দ্রক্ষণে আম্রকাননে প্রফেসর হাবিব আর রহমান শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষাবান্ধব বৃত্তি  প্রদানে নতুন দিগন্তের সূচনা হলো। যা শুধুমাত্র বাংলা বিভাগের জন্যই নয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের জন্য একটি অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত। এতে করে স্ব স্ব বিভাগে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীরা পড়াশুনায় আরো উদ্যোমী ও মনোযোগী হবে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি বিভাগকে এই ধরণের অনুপ্রেরণামূলক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করবার জন্য উদাত্ত আহবান জানান। ভাইস-চ্যান্সেলর আরো বলেন, প্রফেসর হাবিব আর রহমান খুব ধনী ব্যক্তি নন তবু তিনি তাঁর জীবদ্দশায় বিভাগের শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য যে অবদান রেখে গেলেন তা অসাধারণ ও অবিস্মরণীয়। তিনি প্রফেসর হাবিব আর রহমানের দীর্ঘজীবন ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন। বিশেষ অতিথির  বক্তব্যে ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, আমি আজকে প্রফেসর হাবিব আর রহমান শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে এসে গর্ববোধ করছি। এমন একজন মানুষ আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারে আছে। প্রফেসর হাবিব আর রহমান চিন্তা, চেতনা, ভাবনায় যে সবসময় বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে ও বিভাগকে নিয়ে ভাবেন তা আজ শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতিফলিত হলো। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. মোঃ সরওয়ার মুর্শেদ। এছাড়া বক্তব্য রাখেন প্রফেসর হাবিব আর রহমান। পরে বিভাগের বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের  তিন জন কৃতি শিক্ষার্থীর হাতে বৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলা বিভাগের শিক্ষক ড. তপন কুমার রায়। অনুষ্ঠানে  বাংলা বিভাগের শিক্ষক  ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

২২মিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

আমলায় নৌকার প্রার্থী কামারুল আরেফিনের পক্ষে নির্বাচনী শো-ডাউন

হাবিবুর রহমান ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কামারুল আরেফিনের পক্ষে নির্বাচনী মোটর সাইকেল শো-ডাউন করেছে আমলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতি। দিনব্যাপি উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে এ শো-ডাউন করে সমিতির সদস্যরা। সকালে সদরপুরে এ মোটর সাইকেল শো-ডাউনের উদ্বোধন করেন মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী কামারুল আরেফিন। এসময় অনান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আমলা বাজার কমিটির সভাপতি ও আমলা ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সিদ্দিক আলী, ইউপি সদস্য হাসমত আলী, আমলার ব্যবসায়ী সমিতির নেতা আব্দুর রাজ্জাক, আনোয়ারুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল ওহাব, মিরাজ উদ্দিন, আশরাফুল ইসলাম, আরিফুজ্জামান, হাবিবুর রহমান, আরিফুল ইসলাম, তারিফুল ইসলাম, আলী ইসলাম, সুজন আহম্মেদ, রেজাউল ইসলাম, রবিউল ইসলাম, রশিদুল ইসলাম, হুমায়ন কবির জনি, সাইফুল ইসলাম, কারিবুল ইসলাম, রানা আহম্মেদ, বজলুর রহমান, হামিদুল ইসলাম, শাহীন আলী, জাহিদুল ইসলাম, সাইদুল ইসলাম, মামুন, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ। মোটর সাইকেল শো-ডাউনে আমলা বাজারের প্রতিটি ব্যবসায়ী অংশগ্রহণ করে দিনব্যাপি নৌকার প্রচারনা চালায়।

শোভনের সঙ্গে ভিপি নুরের কোলাকুলি, মেনে নিয়েছে ছাত্রলীগ

ঢাকা অফিস ॥ কোলাকুলি করে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের নির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরকে মেনে নিয়েছে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ডাকসুর ভিপি প্রার্থী মো. রেজানুল হক চৌধুরী শোভন। তাকে ভিপি হিসেবে মেনে নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে বক্তব্য দেন ছাত্রলীগ সভাপতি। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নুরকে ভিপি মেনে শুভেচ্ছা জানাতে যায় ছাত্রলীগ। এ সময় শোভন বলেন, ভোটে নুর ভিপি নির্বাচিত হয়েছে। আমরা তাকে মেনে নিয়েছি। সবাই তাকে মেনে নেবেন। সে আমার বন্ধুর ছোট ভাই। এ নিয়ে কেউ কোনো সংঘর্ষে জড়াবে না। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলনের নেতা ও নির্বাচিত ভিপি নুর বলেন, সবাই মিলে কাজ করব। আমাকে ছাত্রলীগ মেনে নিয়েছে। আমি ক্যাম্পাসে কাজ করতে শোভন ভাইয়ের সহযোগিতা চাই। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সবার প্রতি আহ্বান সুষ্ঠুভাবে ক্যাম্পাস পরিচালনায় সহায়তা করতে হবে। তাকে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে। সুন্দর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়  তৈরি করতে চাই। আমরা স্বপ্নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলব। শোভন বলেন, আমি ভিপি হতে পারি নাই। তাতে কোনো সমস্যা নেই তবে আমাদের সব চাওয়া-পাওয়া নুর পূরণ করবে।