কালুখালীর তোফাদিয়ায় ৩ দিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা সমাপ্ত

ফজলুল হক ॥ গতকাল রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে উপজেলার তোফাদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ৩ দিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা  ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তোফাদিয়া যুব সংঘ ও তোফাদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠান শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ক্রীড়া পরিচালনা কমিটির সভাপতি জেলা পরিষদ সদস্য খায়রুল ইসলাম খায়েরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অনুষ্ঠানের সার্বিক পৃষ্ঠপোষক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইঞ্জিনিয়ার মনিরুজ্জামান খান। এসময় রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা, স্থানীয় হাজী আঃ গফুর মোল্লা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মোঃ আরাফাত হোসেন, প্রধান শিক্ষক অসিত কুমার ভদ্র, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মনিরুজ্জামান চৌধুরী মবি, যুগ্ম আহবায়ক সোহেল আলী মোল্লা, সহ-সভাপতি খোরশেদ আলী মোল্লা, ক্রীড়া সম্পাদক বিল্লাল হোসেন এছাড়াও অনুষ্ঠানে ময়েন উদ্দীন ও আক্তার হোসেনের সঞ্চালনায় ৬১টি ইভেন্টে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় অতিথিবৃন্দ পুরস্কার বিতরণ করেন। সভাপতির সমাপণী বক্তব্যে খায়রুল ইসলাম খায়ের ৩ দিনব্যাপী এ প্রতিযোগীতা সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে সমাপ্ত হওয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্যদের প্রতি আন্তরিকতা পোষণ করেন। বিশেষ করে তিনি বলেন ইঞ্জিনিয়ার মনিরুজ্জামান খান এর সার্বিক সাহায্য সহযোগীতায় এত বড় অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয়েছে। তিনি আরও বলেন আগামীতে তার সহযোগীতায় আরও বৃহৎ পরিসরে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

 

অপকর্ম থেকে শিক্ষার্থীদের দূরে থাকতে হবে – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ যৌন হয়রানি, মাদক, সন্ত্রাসসহ সব অপকর্ম থেকে নিজেদের দূরে রেখে লেখাপড়ার পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীদের খেলাধুলার প্রতি মন দিতে আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। শনিবার দুপুর ২টার দিকে মানিকগঞ্জ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, ছাত্রছাত্রীরাই দেশের আগামী দিনের ভবিষ্যৎ তাই তাদের সুশিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সংস্কৃতমনা হতে হবে। এসময় দিনব্যাপী কলেজের বার্ষিকী ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, কলেজের বিভিন্ন বিভাগের ছাত্রছাত্রী, শিক্ষকসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে কলেজের একটি দশতলা ভবন ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি।

অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা আটকে যায় আদালতে – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥ উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশের কারণে অনেক অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে শনিবার এক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন। ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা: ধর্মনিরপেক্ষতার সংকট ও সম্ভবনা’ শীর্ষক আলোচনায় নাসিম বলেন, “আমি মন্ত্রী ছিলাম জানি, যখনই কোনো অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতাম, তখন হাই কোর্ট ওই সিদ্ধান্ত স্থগিত করে দিত। অনেক মানহীন বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও ভেজাল ওষুধের ফ্যাক্টরি বন্ধ করে দিয়েছিলাম। কিন্তু উচ্চতর আদালতের নির্দেশে বন্ধের আদেশ স্থগিত হয়ে যায়। এতে অনিয়মকারীরা উৎসাহিত হয়। জনস্বার্থে বিষয়টিতে আদালতকে বিশেষভাবে নজর দিতে হবে।” বিএনপি এখন বাকশাল আতঙ্কে আছে বলেও মন্তব্য করেন নাসিম। তিনি বলেন, “বাকশাল একটি দর্শন। সেই দর্শনের কথাই বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা বলেছেন। কিন্তু বাকশাল পুনঃপ্রতিষ্ঠার কথা কেউ বলেনি। শেখ হাসিনা সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও শক্তিশালী করেছেন। বাকশাল প্রতিষ্ঠার কোনো বাস্তবতা এখন আর নেই। অথচ বিএনপি বাকশাল ইস্যু নিয়ে ব্যস্ত আছে।” নাসিম আরও বলেন, “উদার গণতন্ত্র এবং সুশাসন-অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ- দুটি এক সঙ্গে চাইলে হবে না। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে হলে কিছু ক্ষেত্রে কঠোর থেকে কঠোরতর হতে হবে। দেশে আমাদের চেয়ে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি আর কেউ করে না। ধর্মীয় অপপ্রচার বিএনপি-জামায়াত কয়েক যুগ ধরে করেছে। গণতন্ত্রের কথা তাদের মুখে শোভা পায় না। এতে মানুষ হাসে।” অপপ্রচার না চালিয়ে সংসদে আসতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানান তিনি। আলোচনায় অংশ নিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, “সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে জামায়াতের চিন্তা পরিবর্তিত হয়নি। তারা আবার স্বরূপে ফিরে আসতে চাইছে। দুঃখের বিষয় তাদের সঙ্গে আপস করা হচ্ছে। জামায়াত আবার ফিরে আসতে চাইছে। শুধু তাই নয়, তাদের জায়গা দখল করেছে হেফাজত। শিক্ষাসহ সব ক্ষেত্রে তারা প্রভাব বিস্তার করছে। ধর্মনিরপেক্ষতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র গড়তে সরকারকে এদিকে নজর দিতে হবে।” জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, “ড. কামাল হোসেনসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা গণতন্ত্রের মুখোশ পরা নব্য রাজাকার।” সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী বলেন, “হেফাজতে ইসলামের কাছে সরকারের নতজানু আচরণ দুঃখজনক। পাঠ্যপুস্তকে তারা যেমন চাইছে সরকার তেমন পরিবর্তন আনছে। বিভিন্ন স্তরে হিজাব বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে, সামাজিক পরিবেশ ধ্বংস করা হচ্ছে। সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, মাদকাসক্তি সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের ভেতরে জামায়াত ঢুকে পড়েছে। ধর্মনিরপেক্ষতার সংকট রাষ্ট্র তৈরি করেছে। সংকট নিরসনে জনগণকে ভূমিকা রাখতে হবে।” বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সেক্রেটারি ফজলে হোসেন বাদশা। আলোচনায় অংশ নেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক সাবেক মন্ত্রী শেখ শহীদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এমএম আকাশ, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, ন্যাপের এনামুল হক, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের ওয়াজেদুল ইসলাম খান, বাসদের রেজাউর রশীদ খান।

শান্তিরক্ষার বিধি প্রণয়নে বাংলাদেশ জাতিসংঘে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে – শাহরিয়ার আলম

ঢাকা অফিস ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, বাংলাদেশ শান্তিরক্ষার বিধি প্রণয়নে জাতিসংঘে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। জাতিসংঘ সদরদপ্তরে শান্তিরক্ষা কার্যক্রম সংক্রান্ত মন্ত্রী পর্যায়ের সভায় তিনি এ কথা বলেন। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল শনিবার জানানো হয়, গত শুক্রবার অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রতিমন্ত্রী জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের ২৬টি প্রতিশ্র“তির কথা তুলে ধরেন। শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে দ্রুত সাড়াদান প্রস্তুতি’র ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পূর্ণ সামর্থ্যরে কথা তুলে ধরে শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে দ্রুত সাড়াদান প্রস্তুতি ব্যবস্থার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ২৬টি ক্ষেত্রে অর্থাৎ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৯টি, নৌবাহিনীর ৬টি, বিমান বাহিনীর ৩টি এবং বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর ৮টি ক্ষেত্রে জাতিসংঘকে প্রতিশ্র“তি দিয়েছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বাংলাদেশ মানুষবিহীন আকাশ নজরদারি ব্যবস্থার বিষয়েও একটি প্রতিশ্রুতির ঘোষণা দিয়েছে। পিসকিপিং ইনিশিয়েটিভ, ২০১৪ সালে নিউইয়র্কস্থ পিসকিপিং মিনিস্ট্রিয়াল, ২০১৫ সালে নিউইয়র্কে, ২০১৬ তে প্যারিসে এবং ২০১৭তে ভ্যাঙ্কুভারে অনুষ্ঠিত দ্যা লিডার সামিট অন পিসকিপিং অনুযায়ী জাতিসংঘ এই মন্ত্রী পর্যায়ের সভার আহ্বান করে। জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস এতে উদ্বোধনী ভাষণ দেন। মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের জনগণের উপর ভয়াবহ সহিংসতার উদাহরণ টেনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, অসামরিক জনগণের সুরক্ষায় বাংলাদেশ কিগালী নীতি অনুসরণ করছে। শান্তিরক্ষীদের প্রশিক্ষণেও ‘অসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা’ বিষয়টি বিস্তারিতভাবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে যৌন নিগ্রহ ও এর অপব্যবহার রোধে বাংলাদেশের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির কথা উল্লেখ করেন। জাতিসংঘের চাহিদা অনুযায়ী নারী শান্তিরক্ষী বৃদ্ধিতে বাংলাদেশের প্রতিশ্র“তির কথাও তিনি উল্লেখ করেন । প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের নারী, শান্তি ও নিরাপত্তা এজেন্ডাসমূহ এগিয়ে নিতে বাংলাদেশ সর্বদাই সহায়ক ভূমিকা পালন করে চলেছে। প্রকৃতিগতভাবে শান্তি বিনির্মাণকারী হিসেবে নারীর ভূমিকা বৃদ্ধিতে সম্প্রতি জাতীয়ভাবে একটি কর্মপরিকল্পনার বাস্তবায়ন করেছে। প্রতিমন্ত্রী শান্তিরক্ষীদের দায়িত্ব পালন এবং নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সম্পদের পর্যাপ্ততা ও অন্যান্য নিয়ামকের প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন। এছাড়া তিনি বিভিন্ন শান্তিরক্ষা মিশনে সরবরাহকৃত বাংলাদেশের আধুনিক সামরিক সরঞ্জামাদির কথাও উল্লেখ করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনুসৃত পররাষ্ট্র নীতি অনুযায়ী জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রদত্ত প্রতিশ্র“তির কথাও এ সভায় তিনি তুলে ধরেন। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের শসস্ত্র বাহিনী বিভাগ, পুলিশ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধিদল এ সভায় যোগ দেয়।

ফেসবুকে অনুমতি ছাড়া লাইভ করা যাবে না

ঢাকা অফিস ॥ নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে শ্বেতাঙ্গ জঙ্গির গুলিবর্ষণে ৫০ জন নিহত হওয়ার পুরো ঘটনাটি ফেসবুকে লাইভ হওয়ায় ব্যাপক বিরূপ প্রতিক্রিয়ার মুখে এখন এ বিষয়ে বিধিনিষেধ আরোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেসবুক। এখন থেকে কে লাইভে যেতে পারবে তা ফেসুবক ঠিক করে দেবে বলে শুক্রবার জানিয়েছেন মাধ্যমটির জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা শার্লি স্যান্ডবার্গ। এনডিটিভি গত ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে জঙ্গি হামলা ফেসবুকের কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড লংঘন করে লাইভে প্রচার করে শ্বেতাঙ্গ জঙ্গি। এর পরই ফেসবুকের বিরুদ্ধে সমালোচনায় মুখর হয় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। জঙ্গি হামলার পর হত্যাকান্ডের প্রায় ১৫ লাখ ভিডিও অপসারণ করা হয়েছে বলে স্যান্ডবার্গ জানান। আরো অন্তত ৯০০ ভিডিও চিহ্নিত করা হয়েছে যেগুলোতে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ১৭ মিনিটের কিছু অংশ সংযুক্ত রয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ফেসবুকের কৃত্রিমবুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তিগুলো এখন অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিদ্বেষমূলক গ্র“পগুলো চিহ্নিত ও অপসারণ করছে। ২৭০ কোটি ব্যবহারকারির এই বৃহত্তম মাধ্যমটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের আসন্ন নির্বাচন নিয়েও নতুন নিয়ম চালু করেছে। শুক্রবার ঘোষণা করা নিয়ম অনুযায়ী, ব্যক্তি, দল ও গ্র“পগুলোকে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন দেয়ার আগে নিশ্চিত করতে হবে যে, বিজ্ঞাপনদাতা ও লক্ষ্যবস্তুর শিকার ব্যক্তি জোটের একই দেশের নাগরিক।

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফেরাতে কাজ চলছে – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বিদেশে পালিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, সারাদেশে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপনের আগে পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে এনে শাস্তি নিশ্চিত করা হবে। খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে কাজ চলছে। এরইমধ্যে কানাডার খুনিকে ফেরানোর ব্যাপারে অনেকটা অগ্রগতি হয়েছে। আমেরিকা সফরে পলাতক খুনিদের ফেরানোর বিষয়েও আলোচনা করবেন বলে জানান তিনি। শনিবার সকালে সিলেট সরকারি কিন্ডার গার্টেন স্কুল দেশ সেরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গৌরব অর্জন উপলক্ষে আয়োজিত শোভাযাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উৎসব উদযাপনে দেশজুড়ে ব্যাপক পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে সিলেট নগরে আগুন ও ভূমিকম্পের ঝুঁকি মোকাবিলায়ও বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে তার। অনুষ্ঠানের পর সিলেট পুলিশ লাইন্স উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপী ই-লার্নিং মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ই-লার্নিং মডিউল ব্যবহারের মাধ্যমে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষণ ও শিখন কার্যক্রম সহজ ও আনন্দদায়ক অংশগ্রহণমূলক হবে। ছাত্রছাত্রীরা তথ্য প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ও জ্ঞানার্জনের ক্ষেত্রে এক বিশাল দিগন্তের উন্মোচন হবে। ড. মোমেন বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের যৌথ অংশগ্রহণে ই-লার্নিং পদ্ধতি পরিচালিত হয়, যার ফলে ডিজিটাল কনটেন্ট ব্যবহারের মাধ্যমে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষাগ্রহণ কার্যক্রম আরো অংশগ্রহণমূলক হয়ে ওঠবে। তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লবে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ই-লার্নিংয়ের বিকল্প নেই মনে করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (কলেজ) ড. মোঃ মাহমুদুল হক, এসএমপি কমিশনার ও পুলিশ লাইন্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতরের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. সামসুন্নাহার, এটিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মুবিন খান। এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) আর্থিক সহায়তায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের সেসিপ কর্মসূচির আওতায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার মানোন্নয়নে ৬৪০টি বিদ্যালয়ে ই-লার্নিং সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। এসব সেন্টারের জন্য যুগোপযোগী মডিউল তৈরি করে তথ্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইটিএল-এথিক্স অ্যাডভান্স টেকনোলজি লিমিটেড। সিলেটসহ দেশের ৯টি অঞ্চলে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

এপ্রিল থেকে বিদেশি চ্যানেলে দেশীয় বিজ্ঞাপন বন্ধ – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ আগামী ১ এপ্রিল থেকে দেশে ডাউনলিংকের মাধ্যমে সম্প্রচারিত সব বিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশীয় পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। গতকাল শনিবার শিল্পকলা একাডেমিতে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার আয়োজিত ‘সংকটে বেসরকারি টেলিভিশন’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এই নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের এই সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়নের জন্য ইতোমধ্যে দুই বার পরিপত্র জারি করেছি। এটি আগামী ১ এপ্রিল থেকেই বাস্তবায়ন করতে চাই। আমি আশা করছি, এ বিষয়ে আপনারা প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন। কারণ দুই মাস আগে থেকেই আপনাদের নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে’। তিনি আরও বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ৪৪টি টিভি চ্যানেলকে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে ৩৩টি সম্প্রচারে রয়েছে, অন্যগুলো সম্প্রচারের অপেক্ষায়। টেলিভিশন চ্যানেলগুলো যেন টিকে থাকে, চ্যানেলে যারা চাকরি করে তাদের চাকরির যেন নিশ্চয়তা থাকে, সেজন্য আমাদের সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য চ্যানেলগুলোর আয় বাড়াতে হবে। টেলিভিশন চ্যানেলগুলো এখনো বিজ্ঞাপন নির্ভর। কিন্তু দেশে বিজ্ঞাপনের মার্কেট কমে যাচ্ছে, আর টেলিভিশন চ্যানেলের সংখ্যাও বেড়ে যাচ্ছে। টেলিভিশনগুলো নিজেরাও অসম প্রতিযোগিতা করে বিজ্ঞাপনের রেট কমিয়ে দিয়েছে। আবার অনলাইন, ফেসবুক, ইউটিউবেও বিজ্ঞাপন চলে যাচ্ছে’। সম্প্রচার আইন ও ডিস্ট্রিবিউটরদের ভূমিকা নিয়ে তিনি বলেন, ‘এসব সমস্যার বড় সমাধান ডিস্ট্রিবিউটারদের হাতে রয়েছে। কারণ, আইন অনুযায়ী দেশে ডাউনলিংকের মাধ্যমে সম্প্রচারিত সব বিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশীয় পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার করা দন্ডনীয় অপরাধ। তারপরও বাংলাদেশে যেসব বিদেশি চ্যানেল জনপ্রিয়, সেগুলোতে বহুজাতিক ও বেশকিছু বাংলাদেশি কোম্পানির বিজ্ঞাপন অবৈধভাবে প্রচার করা হয়। এ আইনটি পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা হলে, বছরে ৫০০ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন দেশীয় টেলিভিশনগুলো পাবে বলে আমি মনে করি। এ পরিমাণ বিজ্ঞাপন পেলে আজকে টেলিভিশনে যে সংকট রয়েছে, সেটা কেটে যাবে’। সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন, স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসির চেয়ারম্যান ইকবাল সোবহান চৌধুরী, চ্যানেল২৪ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে আজাদ, ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের সভাপতি রেজওয়ানুল হক, সদস্য সচিব শাকিল আহমেদ, সারাবাংলা ডটনেট, দৈনিক সারাবাংলা ও জিটিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রমুখ। এর আগে গত ১৩ মার্চ তথ্য মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করে। ওই নির্দেশনায় বলা হয়, বাংলাদেশে ডাউনলিংকের মাধ্যমে সম্প্রচারিত সব বিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশীয় পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। এ নির্দেশ অমান্য করলে ডিস্ট্রিবিউশন লাইসেন্স বাতিল/স্থগিত এবং ২৮ ধারা মোতাবেক দুই বছর পর্যন্ত কারাদন্ড হতে পারে।

কুষ্টিয়া কিন্ডারগার্টেন ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশনের ২০১৮ সালের বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ

গত ২৮ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার সময় এ্যাসোসিয়েশনের কার্য্যালয়ে কার্য্যনির্বাহী পরিষদের সভায় এ্যাসোসিয়েশনের সহঃ সভাপতি  নাজমুন্নাহার শিখার সভাপতিত্বে কুষ্টিয়া কিন্ডারগার্টেন ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশনের ২০১৮ সালের  অনুষ্ঠিতব্য প্রথম শ্রেণী থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত বৃত্তি  পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৩৪৭ জন। তার মধ্যে ট্যালেন্টপুলে ৫৫ জন, প্রথম গ্রেডে ৮৩ জন এবং দ্বিতীয় গ্রেডে ২৬৩ জনসহ  মোট ৪০১ জন বৃত্তি পেয়েছে। ফলাফল নিম্নরূপঃ ট্যালেন্টপুলঃ প্রথম শ্রেণীঃ ১০১৬, ১০৪১, ১০৪২, ১০৬৩, ১১৬৯, ১১৯১, ১১৯২, ১২০৫, ১২২৬,১২৬৫, ১২৬৬, ১৩০১, ১৩০২, ১৩০৩, ১৩৩০, ১৩৩৩, ১৩৩৫,  ১৩৪৮ = ১৮ জন। দ্বিতীয় শ্রেণীঃ ২০৪২, ২০৪৩, ২১৭৪, ২১৭৫, ২১৭৬, ২১৭৭, ২১৮১, ২১৮২, ২১৮৮, ২২৩০, ২২৬১ = ১১ জন। তৃতীয় শ্রেণীঃ ৩০১৫, ৩০২১, ৩০৩৮, ৩০৩৯, ৩০৪০, ৩১৫০, ৩১৫১, ৩১৫৩, ৩১৭৭, ৩১৮০ = ১০ জন। চতুর্থ শ্রেণীঃ   ৪০২৬, ৪০২৭, ৪০২৮, ৪১১৭, ৪১১৮, ৪১১৯, ৪১২০ = ৭ জন। পঞ্চম শ্রেণীঃ  ৫০৪৭, ৫০৪৮, ৫১২১, ৫১৩৫, ৫১৪২, ৫১৪৭, ৫১৬১, ৫১৮৬, ৫১৯০ = ৯ জন।

প্রথম গ্রেডঃ

প্রথম শ্রেণীঃ ১০১২, ১০৪০, ১০৬২, ১০৬৫, ১০৭৪, ১১০৩, ১১৪৯, ১১৭০, ১১৭১, ১১৭২, ১১৭৩, ১১৭৬, ১১৮৮, ১২০১, ১২২৪, ১২৩২, ১২৪০, ১২৬৪, ১২৭১, ১২৭৪, ১৩০৫, ১৩১৪, ১৩২৭, ১৩৩৪, ১৩৪৩, ১৩৭৮, ১৪০২ = ২৭ জন। দ্বিতীয় শ্রেণীঃ  ২০০১, ২০০৬, ২০০৭, ২০৩৪, ২০৩৫, ২০৩৬, ২০৪১, ২০৪৪, ২১৪৪, ২১৬৬, ২১৭৩, ২১৮০, ২১৯০, ২১৯৩, ২২৪৮, ২২৫০, ২২৫১, ২২৬৪ = ১৮ জন। তৃতীয় শ্রেণীঃ  ৩০০৩, ৩০০৬, ৩০৪৩, ৩০৬৯, ৩১০৫, ৩১০৬, ৩১১৮, ৩১৪৯, ৩১৫২, ৩১৫৪, ৩১৭৬, ৩১৭৯, ৩২০৪, ৩২২০, ৩২৪১ = ১৫ জন। চতুর্থ শ্রেণীঃ ৪০৪০, ৪০৯৩, ৪১৩৬, ৪১৪৯, ৪১৫৩, ৪১৬২, ৪১৬৭, ৪১৬৯, ৪১৭০, ৪১৭১, ৪১৭৯ = ১১  জন। পঞ্চম শ্রেণীঃ  ৫০৪৯,৫০৬৫, ৫০৬৯, ৫০৭৩, ৫০৭৫, ৫১২০, ৫১৩০, ৫১৪১, ৫১৪৬, ৫১৪৮, ৫১৬৫, ৫১৯৭ = ১২ জন।

দ্বিতীয় গ্রেডঃ

প্রথম শ্রেণীঃ  ১০০৬, ১০০৭, ১০০৮, ১০০৯, ১০১১, ১০১৩, ১০১৪, ১০১৭, ১০১৯, ১০৪৩, ১০৪৭, ১০৪৮, ১০৫১, ১০৫২, ১০৫৩, ১০৭০, ১০৭৮, ১০৮১, ১০৮৫, ১০৮৭, ১০৯৯, ১১০৫, ১১০৯, ১১১৮,১১১৯, ১১২০, ১১২৩, ১১২৫, ১১৩০, ১১৩২, ১১৩৭, ১১৪৪, ১১৪৮, ১১৫২, ১১৫৬, ১১৬০, ১১৬৩, ১১৭৪, ১১৭৫, ১১৭৭, ১১৭৯, ১১৯৩, ১১৯৪, ১১৯৮, ১২০২, ১২০৩, ১২০৪, ১২১৯, ১২২৯, ১২৩৩, ১২৩৮, ১২৪১, ১২৪৭, ১২৫৫, ১২৫৬, ১২৬৭, ১২৭০, ১২৭৩, ১২৭৬, ১২৮০, ১২৮২, ১২৮৩, ১২৮৫, ১২৯৩, ১২৯৭, ১২৯৮, ১২৯৯, ১৩০০, ১৩০৪, ১৩১৫, ১৩১৭, ১৩২১, ১৩২৫, ১৩৩১, ১৩৩৮, ১৩৩৯, ১৩৪১, ১৩৫২, ১৩৫৩, ১৩৫৭, ১৩৬১, ১৩৬২, ১৩৬৫, ১৩৭১, ১৩৮০, ১৩৮২, ১৩৮৬, ১৩৯২, ১৩৯৫, ১৩৯৯, ১৪০১, ১৪০৫,১৪০৬,  ১৪১১, ১৪১৫, ১৪১৯, ১৪২১, ১৪২৭ = ৯৮ জন।  দ্বিতীয় শ্রেণীঃ ২০০২, ২০০৪, ২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২, ২০১৫, ২০৩৭, ২০৩৮, ২০৪০, ২০৪৬, ২০৪৭, ২০৫৯, ২০৬৮, ২০৬৯, ২০৭৪, ২০৭৯, ২০৮১, ২০৮৪, ২০৯২, ২০৯৫, ২১০০, ২১০৮, ২১১২, ২১১৩, ২১২৩, ২১২৭, ২১৩১, ২১৩৩, ২১৩৫, ২১৪৬, ২১৪৯, ২১৫২, ২১৫৮, ২১৬৩, ২১৭০, ২১৭৮, ২১৭৯, ২১৮৩, ২১৮৫, ২১৮৬, ২১৯১, ২১৯৪, ২১৯৫, ২২০২, ২২০৩, ২২০৬, ২২১৩, ২২২২, ২২৩২, ২২৩৪, ২২৩৫, ২২৪১, ২২৪৫, ২২৪৯, ২২৬৬, ২২৬৮, ২২৭১ = ৫৮ জন। তৃতীয় শ্রেণীঃ ৩০০১, ৩০০৫, ৩০১১, ৩০১৬, ৩০১৭, ৩০১৯, ৩০২২, ৩০৪২, ৩০৪৪, ৩০৪৫, ৩০৫৪, ৩০৫৫, ৩০৫৮, ৩০৬৫, ৩০৭১, ৩০৭৪, ৩০৭৯, ৩০৮১, ৩০৮৬, ৩০৮৮, ৩০৯৪, ৩১০২, ৩১০৭, ৩১১৩, ৩১২৩, ৩১২৯, ৩১৩৭, ৩১৪৫, ৩১৪৮, ৩১৫৮, ৩১৬০, ৩১৬১, ৩১৭০, ৩১৭৫, ৩১৭৮, ৩১৯২, ৩১৯৪, ৩১৯৮, ৩২০৩, ৩২০৮, ৩২১৩, ৩২২৭, ৩২২৮, ৩২২৯, ৩২৩১, ৩২৩৮ = ৪৬ জন। চতুর্থ শ্রেণীঃ  ৪০০১, ৪০০৪, ৪০১৩, ৪০১৬, ৪০২১, ৪০২৯, ৪০৩১, ৪০৩৯, ৪০৪১, ৪০৪৯, ৪০৫৪, ৪০৬১, ৪০৬৭, ৪০৭৫, ৪০৮০, ৪০৮৮, ৪০৮৯, ৪০৯৪, ৪০৯৫, ৪০৯৮, ৪১০৯, ৪১১৫, ৪১২১, ৪১২২, ৪১২৪, ৪১৩২, ৪১৩৭, ৪১৪৪, ৪১৪৭, ৪১৫২, ৪১৫৮, ৪১৬৬, ৪১৭২, ৪১৭৫, ৪১৮০= ৩৫ জন। পঞ্চম শ্রেণীঃ  ৫০০৩, ৫০০৬, ৫০০৭, ৫০০৮, ৫০১১, ৫০৪২, ৫০৪৩, ৫০৪৫, ৫০৪৬, ৫০৫০, ৫০৫১, ৫০৭১, ৫০৭২, ৫০৭৯, ৫০৮৬, ৫০৯৭, ৫১০৬, ৫১১৭, ৫১৩২, ৫১৩৬, ৫১৪৩, ৫১৬৩, ৫১৭৭, ৫১৭৯, ৫১৮৫, ৫১৮৯ = ২৬ জন।  ফলাফল প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে যদি কারো কোন অভিযোগ থাকে তাহলে ৩০০/= (তিনশত) টাকা (অফেরৎ যোগ্য) ফি সহ লিখিত আবেদন পত্র নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের মাধ্যমে সাধারণ সম্পাদকের নিকট জমা দিয়ে খাতা পূণঃ মূল্যায়ন করা যেতে পারে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দায়িত্বে অবহেলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা চান এরশাদ

ঢাকা অফিস ॥ রাজধানীতে একের পর এক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সরকারের কর্তাব্যক্তিদের অবহেলার প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সাম্প্রতিক কয়েকটি অগ্নিকান্ডে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে গতকাল শনিবার দুপুরে এক বিবৃতিতে এই দাবি তোলেন তিনি। শনিবার সকালে রাজধানীর গুলশানে ডিএনসিসি মার্কেটের পাশে কাঁচাবাজারে আগুন লেগে দেড় শতাধিক দোকান পুড়ে যায়। এর আগে গত বৃহস্পতিবার বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে ২৬ জনের মৃত্যু হয়। গুলশানের অগ্নিকান্ডের ঘটনায় এরশাদ বলেন, “২০১৭ সালের ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে গুলশান-১ ডিএনসিসি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা সর্বস্ব হারান। কোনো সহায়তা ছাড়াই ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা আবারো ঋণ করে ব্যবসা শুরু করেছিলেন। কিন্তু শনিবার ভোর রাতের আগুনে ঐ ব্যবসায়ীরা আবারো মারাত্মক ক্ষতির শিকার হল।” ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিতে তিনি সরকারের প্রতি আবেদন জানান। পাশাপাশি রাজধানীর আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বানও জানান তিনি। গুলশান ও বনানীর ঘটনায় সরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে একাধিক তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে। এরশাদ বলেন, “তদন্তে দায়ী অথবা কর্তব্যে অবহেলার প্রমাণ পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাও নিতে হবে।”

সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতাকে

কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষ থেকে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করেছেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ড, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক-সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের নেতৃত্বে সাংগঠনিক কমান্ড মুক্তিযোদ্ধাদের একটি প্রতিনিধি দল। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আতাউর রহমান আতা সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন। এ সময় জেলা কমান্ডার মানিক কুমার ঘোষ মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য সবধরণের সহযোগীতা প্রদান প্রতিশ্র“তি ব্যক্ত করেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন,  যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন নাগ চৌধুরী, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সহকারী কমান্ডার সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার হাজী মহসিন আলী মন্ডল, সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান হাবিব দুলাল, এমদাদ হোসেন, সার্জেন্ট (অব:) সোলাইমান হোসেন, আবুল হোসেন, শহিদুর রহমান সহিদ, আব্দুল আলিম, মহিউদ্দিন বিশ্বাস, তাইবুর রহমান, খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা,বিল্লাল মাস্টার, ডাক্তার মতিয়ার রহমান, অঅ: করিম, শেখ মনির উদ্দিন, সোলাইমান হোসেন, হোসেন মেম্বার, আতাহার হোসেন, আ: মজিদ, জিললুর রহমান, মকবুল হোসেন, নিজাম উদ্দিন, মঈন উদ্দিন, সেক্টর কমান্ডারর্স ফোরামের সাইদুল ইসলাম সিরাজুল, আবু সাইদ মিন্টু, জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবীন্দ্রনাথ সেন, কর্পোরাল বাবলা, আঙ্গুরী বেগম, প্রমুখ সহ অর্ধ শতাধিক বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

দমকলের পরিচালক

ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা না থাকায় ভবন মালিকদের নিয়ন্ত্রণে সমস্যা হয়

ঢাকা অফিস ॥ ফায়ার সার্ভিসের আইন অনুযায়ী, ৬তলার বেশি উঁচু ভবন বানালেই তাদের অনুমোদন নিতে হবে। আর থাকতে হবে নিজস্ব অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা। কিন্তু রাজউকের আইনে ১০তলা পর্যন্ত ফায়ারের অনুমোদন লাগে না। এই সুযোগটি নেন ভবন মালিকরা। এ প্রসঙ্গে দমকল বাহিনীর পরিচালক (অপারেশন) মেজর এ কে এম শাকিল নেওয়াজ শনিবার ডয়চে ভেলেকে বলেন, আমাদের কোনো ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা নেই। ফলে ভবন মালিকদের আইন বহির্ভূত কর্মকান্ড বন্ধে সমস্যার সৃষ্টি হয়। আর আমরা মামলা করলে উল্টো আমাদের মামলায় নাস্তানাবুদ করা হয়। এখানে সমন্বয়ের অভাব আছে। তিনি আরো বলেন, আমরা কমপক্ষে ৫ হাজার ভবন মালিককে নোটিশ দিয়েছি। বিশেষ করে মার্কেট, শপিং মল, অফিস, হাসপাতাল যেগুলো বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। এইসব ভবনের যা অবস্থা তাতে এগুলো মৃত্যুকূপ। যারা ওই সব ভবনে আছেন তারা মৃত্যুর সঙ্গে বসবাস করছেন। আমরা বারবার বলার পরও ভবন মালিকরা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।

ভেড়ামারায় দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মানববন্ধন

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। “বন্ধ হলে দুর্নীতি, হবে দেশের উন্নতি” এই স্লোগানে গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি আনোয়ার-উল-আজিমের সভাপত্বিতে উক্ত মানববন্ধনে কমিটি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুর রহিম, সদস্য বিজলী প্রফেসর, ভগবান চন্দ্র সিংহ রায়, জান্নাতুল ফেরদৌসি, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আবু সালেক, ভেড়ামারা আলিম মাদ্রাসা’র অধ্যক্ষ মোঃ এসকেন্দার আলী,  ভেড়ামারা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল জব্বার, সহকারী প্রধান শিক্ষিকা নিলুফা ইয়াসমিন, ভেড়ামারা সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মতিয়ার রহমান, রহিমা আফসার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আসাদ আলী,  খোলা কাগজের প্রতিনিধি মোঃ আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, ভেড়ামারা আলিম মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলাম, নয়ন চৌধুরী, ভেড়ামারা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাওলানা আবুল কাশেমসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, প্রতিষ্ঠান প্রধান, আমন্ত্রিত সূধীজন ও বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে পবিত্র বাৎসরিক ওরশ

নিজ সংবাদ ॥ “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” পবিত্র বাৎসরিক ওরশ উপলক্ষে, ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ২, ৩ ও ৪ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া শহরের আড়–য়াপাড়স্থ আব্দুল আজিজ সড়কস্থ “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” প্রাঙ্গনে এ ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যহ বাদ ফজর ঃ কোরআন তেলাওয়াত এবং বাদ মাগরিব ঃ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির। ৪ এপ্রিল আখেরি মোনাজাত ও তবারক বিতরণ। সভাপতিত্ব করবেন “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী চৌধুরী আলী হোসেন। “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফে” অতিথিবৃন্দরা হলেন- প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, বিশেষ অতিথি সমাজ সেবক বিশ্বনাথ সাহা বিশু, কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সমাজ সেবক পারভেজ আনোয়ার তনু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শেখ মোঃ ফজলে করিম (খোকা), কুষ্টিয়া পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিচ কোরাইশী, ১০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোস্তফা লাভলু, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাবাউদ্দিন সওদাগর প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন অত্র মাজার কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক খন্দকার শওকত আলী টন।  সকলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, “হযরত বাবা নফর শাহ্ (রঃ) বুগদাদীর মাজার শরীফ” পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক।

কালুখালীতে নামমহাযজ্ঞ মহোৎসব পরিদর্শন করলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউপির মালিয়াটে শ্রী শ্রী রাধা মদন মোহন শ্রী অঙ্গনে ৪০ প্রহরব্যাপী নামমহাযজ্ঞ মহোৎসব পরিদর্শন করলেন কালুখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কালুখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কাজী সাইফুল ইসলাম। শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে আয়োজনকারী সকল হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করে সার্বিক খোঁজ খবর নেন। এসময় বিশিষ্ট সমাজসেবক ইঞ্জিনিয়ার মনিরুজ্জামান খান, উপজেলা পূজা উদযাপণ কমিটির সভাপতি তনয় চক্রবর্তী শম্ভু, সাধারন সম্পাদক নির্মল কুমার সাহা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন মোল্লা, রতনদিয়া ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম শাহ আজিজ, মন্দিরের সভাপতি যাদব কুমার দত্ত, রনজয় কুমার বসু, আওয়ামীলীগ নেতা আঃ রহমান, কালুখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি ফজলুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম  সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। নামমহাযজ্ঞ অনুষ্ঠান গত ২৬ মার্চ অরুনোদয় হতে ৩০ মার্চ শনিবার পর্যন্ত ৪০ প্রহরব্যাপী এ অনুষ্ঠান রবিবার মহাপ্রভুর ভোগ আরাধনার মধ্যদিয়ে সমাপ্ত হবে। উল্লেখ্য অনুষ্ঠানে নামসুধা পরিবেশন করেন ঝিনাইদহের গৌর বাণী সম্প্রদায়, মাদারীপুরের জয় নিতাই সম্প্রদায়, কুষ্টিয়ার মা গৌরী সম্প্রদায়, পাংশার শি মন্দির সম্প্রদায়, গোপালগঞ্জের শ্রী শ্রী আদী নিত্য ঠাকুর সম্প্রদায় ও গোপালগঞ্জের সম্প্রদায়।

গাংনীতে বোমা সদৃশ্য বস্তু উদ্ধার

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের উত্তর ভরাট গ্রাম থেকে ২টি বোমা সদৃশ্য বস্তু উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালের দিকে গাংনী থানা পুলিশের একটি দল উত্তর ভরাট গ্রামের মৃত টবলু হোসেনের স্ত্রী নাজেরা খাতুনের বাড়ির সামনে থেকে বোমা সদৃশ্য বস্তু দুটি উদ্ধার করে। স্থানীয়রা জানান, এদিন সকালের দিকে কয়েকজন পথচারী নাজেরা খাতুনের বাড়ির সামনে একটি বালির গাঁদার উপরে লাল কস্টেপ দিয়ে মোড়ানো দুটি বোমা সদৃশ্য বস্তু দেখতে পায়। এ সময় পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশ এসে পানি ভর্তি বালতিতে করে বস্তু দুটি উদ্ধার করে থানায় নিয়েছে। স্থানীয়রা ধারণা করছে,ভয়-ভীতি প্রদর্শনের জন্য দুস্কৃতিরা বোমা সদৃশ্য বস্তু রেখে  গেছে।

 

দৌলতপুর কলেজে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি বাদশাহ্

শিক্ষা জীবনে লেখাপড়া শিক্ষার্থীদের জন্য শ্রেষ্ঠ সম্পদ

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, শিক্ষা জীবনে লেখাপড়া শ্রেষ্ঠ সম্পদ। আর এ সম্পদ পরবর্তীতে কর্ম জীবনে বা রাজনৈতিক জীবনে চলার পাথেয় হিসেবে কাজ করবে। শিক্ষা ছাড়া কোন জাতির উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব নয়। তাই শিক্ষার্থীদের প্রথম কাজ লেখা পড়া, লেখাপড়া আর লেখাপড়া। গতকাল শনিবার দুপুরে দৌলতপুর কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ও সংসদ সদস্য সরওয়ার জাহান বাদশাহ্’র পুষ্পিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত ও প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দৌলতপুর কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এ্যাড. মো. হাসানুল আসকার-এর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, জেলা শিক্ষা অফিসার মো. জায়েদুর রহমান, দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরদার তৌহিদুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান। প্রভাষক শরীফুল ইসলামের সঞ্চালনে সংবর্ধনা, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. আজিজুল হক, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সরকার আমিরুল ইসলাম ও কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন। প্রধান অতিথি এ্যাড. সরওয়ার জাহান বাদশা তার বক্তব্যে আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই আর শোষনহীন দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার। আর এ লক্ষে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আগামী প্রজন্ম হবে উন্নত বাংলাদেশের নাগরিক। দৌলতপুর কলেজের অবকাঠানো উন্নয়ন, জাতীয়করণ ও বিভিন্ন বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন এবং নির্মলেন্দু গুনের ‘কেউ কথা রাখেনি’ কবিতা আবৃত্তি করে বক্তব্য শেষ করেন। শেষে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ পুরস্কার তুলে দেন। এরপর দৌলতপুর কলেজের পক্ষ থেকে সভাপতি এ্যাড. মো. হাসানুল আসকার ও অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান প্রধান অতিথি এ্যাড. এ কে এম সরওয়ার জাহান বাদশাহ্’র হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন। একই সাথে বিশেষ অতিথিবৃন্দের হাতেও সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়। সব শেষে দেশ বরেণ্য খ্যাতিমান শিল্পিদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

জেএমবির দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান সাকিব গ্রেফতার

ঢাকা অফিস  ॥ জেএমবির দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক ওরফে বাপ্পী ওরফে সাকিব ওরফে নাজমুস সাকিবকে (৩০) গ্রেফতার র‌্যাব। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন ১নং লঞ্চঘাট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১ এর সদস্যরা। এ সময় তার কাছে থেকে বিপুল পরিমাণ উগ্রবাদী বই, লিফলেট, প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল ও ১টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়। শনিবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীস্থ র‌্যাব-১১ এর সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্ণেল কাজী শামশের উদ্দিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন (পিপিএম), মশিউর রহমান, জসিম উদ্দিন। র‌্যাব অধিনায়ক জানায়, তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক ওরফে বাপ্পী ওরফে সাকিব ওরফে নাজমুস সাকিব ২০০৪ সালে বাগেরহাট জেলার কচুয়া থানার মাধবকাঠি আহমাদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে দাখিল, ২০০৬ সালে খুলনা সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসা থেকে আলিম, ঢাকার মদিনাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসা থেকে ২০১০ সালে ফাজিল এবং ২০১৩ সালে কামিল পাশ করেন। পাশাপাশি তিনি ২০১১ সালে আহসান উল্লাহ ইউনির্ভাসিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি থেকে বিবিএ পাশ করে। ২০১৩ সালে এমবিএতে অধ্যায়নরত থাকাকালীন সময়ে জসিম উদ্দিন রাহমানির বছিলা মসজিদে বয়ান শুনতে যেতেন। জসিম উদ্দিন রহমানির বয়ানের মাধ্যমে তার মধ্যে উগ্রবাদী চেতনা জাগ্রত হয় বলে উল্লেখ করেন র‌্যাব অধিনায়ক। এসময় একই মসজিদে জেএমবি নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। আব্দুল্লাহ আল মামুন তৎকালিন জেএমবির দক্ষিণাঞ্চলের প্রধান ছিলেন। তার মাধ্যমে ২০১৩ সালে সাকিব জেএমবিতে যোগদান করেন। ২০১৬ সালে বাগেরহাটে পুলিশের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে আব্দুল্লাহ আল মামুন নিহত হলে তার স্থলে সাকিব দায়িত্ব প্রাপ্ত হন। সাকিব দায়িত্ব পাওয়ার পর খুলনা, বাগেরহাট, বরগুনা, পিরোজপুর ও যশোরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় জেএমবির কর্মী সংখ্যা বাড়ানোর তৎপরতা অব্যহত রাখে। জিজ্ঞাসাবাদে সাকিব আরও জানান, তিনি জেএমবিকে পূর্ণগঠিত করার জন্য অস্ত্র সংগ্রহের প্রচেষ্টা অব্যহত রেখেছে এবং জামালপুর জেলার যমুনা নদীর চরে জেএমবির নতুন ১টি প্রশিক্ষণ শিবির খোলার চেষ্টা করছিলেন। তার বিরুদ্ধে বাগেরহাটে কচুয়া থানায় ১টি, ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানায় ১টি, নরসিংদী সদর থানায় ১টি, নারায়ণগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানায় র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন (পিপিএম)।

 

ভাইস-চ্যান্সেলরের অভিনন্দন

ইবি’র ছাত্রী তামান্না আক্তার ঢাকায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প মেরাথন দৌড়ে গোল্ড মেডেল জিতেছে

ঢাকায় অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প মেরাথন দৌড়ে গোল্ড মেডেল জিতেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী কৃতি অ্যাথলেটার তামান্না আক্তার। হাতিরঝিল এলাকায় সাত কিলোমিটার ব্যাপী এ মেরাথন দৌড় অনুষ্ঠিত হয়। গত শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল পদক জয়ী তামান্না আক্তারকে গোল্ড মেডেল পরিয়ে দেন। উল্লেখ্য যে, গত ১৭ মার্চ হতে “বঙ্গবন্ধুর চেতনায় গড়ি মাদকমুক্ত বাংলাদেশ”  এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের তত্বাবধানে দেশের ৬৫টি সরকারী ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশগ্রহনে প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প এর পর্দা উঠে। মাসব্যাপী চলা এ আসরে সরকারী ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শিক্ষার্থী  ক্রিকেট, ফুটবল, হ্যান্ডবল, ভলিবল, সুইমিং, সাইক্লিং, সাতার, টেবিল টেনিস, বাস্কেটবল ও অ্যাথলেটিক্সসহ বিভিন্ন  প্রতিযোগীতায় অংশ নিচ্ছে। এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প এর ইবি’র প্রধান সমন্বয়ক ও অ্যাথলেটিক ম্যানেজার প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান আশা প্রকাশ করে বলেন, সব খেলায় সর্বোচ্চ গোল্ড মেডেল পেয়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শীর্ষে অবস্থান করবে। এছাড়া শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের  খেলোয়াড়রা যেসকল ইভেন্টে অংশগ্রহন করছে সেখানে তারা কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখবে। উল্লেখ্য যে, এই প্রতিযোগীতায় সর্বোচ্চ সংখ্যক পদকপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয়কে চ্যাম্পিয়ান ট্রফি প্রদান করা হবে। বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্প মেরাথন দৌড়ে গোল্ড মেডেল জেতায় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়া কমিটির সভাপতি প্রো ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা  বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি অ্যাথলেটার তামান্না আক্তারকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মিরপুরে মহিলা এমপি, চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে আওয়ামী লীগের সংবর্ধনা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে মহিলা এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৭ জনপ্রতিনিধির সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেল ৪টায় মুক্তিযোদ্ধা চত্বরে (ঈগল চত্বর) উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে নব-নির্বাচিত সংরক্ষতি সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদের সদস্যদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর মিরপুর উপজেলা থেকে আওয়ামীলীগের দলীয় এমপি নির্বাচিত হওয়ায় সৈয়দা রাশিদা বেগমকে, প্রাথমিক শিক্ষার মান্নোয়নে দেশসেরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং দ্বিতীয়বার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় কামারুল আরেফিন, নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস- চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন, জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার ও সুফিয়া বানু জুঁইকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এছাড়াও আওয়ামী লীগের মিরপুর উপজেলার সফল সভাপতি হিসেবে অ্যাড. আব্দুল হালিমকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা, যুবলীগ, কৃষকলীগ, তাঁতীলীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাচন

চতুর্থ ধাপের ভোট আজ

ঢাকা অফিস ॥ চতুর্থ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট আজ রোববার। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। ভোটের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আর পঞ্চম ও শেষ ধাপের ভোট অনুষ্ঠিত হবে ঈদুল ফিতরের পর। চতুর্থ ধাপে কমিশন ১২৭টি উপজেলায় নির্বাচন সম্পন্ন করতে তফসিল ঘোষণা করে ইসি। কিন্তু আইনি জটিলতা, অনিয়ম ও সহিংসতার কারণে ইতোমধ্যে ছয়টি উপজেলার নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। এগুলো হলো, কুমিল্লার বড়ুরা, ময়মনসিংহের ত্রিশাল, ফেনীর ছাগলনাইয়া, পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া, নোয়াখালীর কবিরহাট ও খুলনার ডুমুরিয়া। ফলে এ ধাপে ১২১ উপজেলায় ভোট হওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে ১৫ উপজেলায় সবাই ভোট ছাড়াই নির্বাচিত। আপাতত ১০৬ উপজেলায় ভোট হতে পারে। এ দিকে, শুক্রবার সকালে প্রার্থীদের সব ধরনের প্রচারণা শেষ হয়েছে। মাঠে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তিন স্তরের নিরাপত্তায় পুলিশ-আনসার সদস্যদের পাশাপাশি র‌্যাব, বিজিবি ও গ্রামপুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। মাঠে রয়েছে নির্বাহী ও বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট। নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এধাপেও কয়েকটি উপজেলায় ইভিএমে ভোট নেয়া হবে। নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ জানিয়েছেন, নির্বাচন নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই। ভোটের সব প্রস্তুতি শেষ। কারো বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উঠলে তাত্ক্ষণিক প্রত্যাহার এবং শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সরকার মারণাস্ত্র কিনছে, বাঁচানোর সরঞ্জাম কিনছে না – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকার বনানীর অগ্নিকান্ডে বহু মানুষের প্রাণহানিতে সরকারের সমালোচনা করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, সরকার বিরোধী দল দমনে নানা অস্ত্র-সরঞ্জাম কিনলেও অগ্নিকান্ডের মতো দুর্ঘটনায় মানুষের প্রাণ বাঁচাতে ফায়ার সার্ভিসের জন্য আধুনিক সরঞ্জাম কিনছে না। গতকাল শনিবার নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বনানীর এফআর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকা-ের পর আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের আধুনিক যন্ত্রপাতির অভাবের বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, “আগুন নেভাতে ও মানুষজনকে উদ্ধারে সরকার ফায়ার সার্ভিসে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। মানুষ বাঁচানোর জন্য কোনো উন্নত মানের যন্ত্রপাতি ফায়ার সার্ভিসের নেই, ব্যবস্থাপনাও নেই।” উন্নত বিশ্বের অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর সঙ্গে তুলনা করে বিএনপি নেতা বলেন, ফায়ার সার্ভিস আধুনিকায়নে সরকারের কোনো উদ্যোগ নেই। “শাসকগোষ্ঠী ফায়ার সার্ভিসের আধুনিকায়ন করলে এত মানুষের প্রাণ যেত না। অথচ গণতান্ত্রিক সংগ্রামকে দমন করার জন্য কত যে আধুনিক মারণাস্ত্র নিয়ে আসা হয়েছে, তার ইয়ত্তা নেই।” রিজভী বলেন, “নিয়ে আসা হয়েছে সর্বাধুনিক বিপদজ্জনক টিয়ারশেল, স্মোক গ্রেনেড, সাউন্ড গ্রেনেড, রবার বুলেট, গোল-মরিচ স্প্রেসহ নানা ধরনের আধুনিক অস্ত্র। বিএনপিসহ বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য নিয়ে আসা হয়েছে ৩০ হাজার আধুনিক মরণঘাতি ১২ বোর শটগান। স্বীকারোক্তি আদায় বা নির্যাতনের জন্য আনা হয়েছে ইলেকট্রিক চেয়ার, আধুনিক ডিভাইস। বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ফোনে আড়িপাতার জন্য বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত যন্ত্রপাতি নিয়ে আনা হয়েছে। গোপনে অডিও-ভিডিও করার উন্নতমানের ডিভাইসও নিয়ে আনা হয়েছে।” সংবাদ সম্মেলনের আগেই আগুন লেগে গুলশানের ডিএনসিসি মার্কেট লাগোয়া কাঁচাবাজারের দেড়শর মতো দোকানের সবগুলো পুড়ে যায়। এই প্রসঙ্গ ধরে রিজভী বলেন, “মানুষ বাঁচাতে তাদের কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। ঢাকাসহ বাতাসে, বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বাতাসে পোড়া মানুষের গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। এরা আছে, বিরোধী দল দমনে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কিভাবে কষ্ট ও নির্যাতন দেওয়া যাবে, সেই কাজে।” সংবাদ সম্মেলন থেকে বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি দাবি করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর সঙ্গে ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাহিদা রফিক, কেন্দ্রীয় নেতা মাসুদ আহমেদ তালুকদার, আবদুস সালাম আজাদ, আবুল খালেক।