নানদের যৌন নিপীড়ন করেন যাজকরা – পোপ

 

ঢাকা অফিস ॥ গির্জার যাজকরা নানদের যৌন নীপিড়ন করেন এমনকি যৌনদাসীও করে রাখেন বলে স্বীকার করেছেন ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। মঙ্গলবার মধ্যপ্রাচ্যে ঐতিহাসিক সফরে গিয়ে সাংবাদিকদের একথা বলেন পোপ। তার এমন স্বীকারোক্তি সম্ভবত এটিই প্রথম বলে জানিয়েছে বিবিসি। তিনি বলেন, “যৌন নিপীড়নের সমস্যার মূলে রয়েছে নারীদের দ্বিতীয় শ্রেণীর মানুষ হিসেবে গণ্য করা। গির্জার পক্ষ থেকে এ সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিলেও এখনো যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটছে বলে জানান পোপ। তিনি বলেন, “যাজক এবং বিশপরা নানদের নিপীড়ন করেছেন। গির্জাগুলো এ কেলেঙ্কারির বিষয়ে সজাগ এবং এসব বন্ধ করতে কাজ করছে।” গত নভেম্বরে ক্যাথেলিক গির্জার একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন নানদের জন্য প্রচলিত কঠোর অনুশাসন ‘নীরব থাকা ও গোপন রাখার প্রচলিত সংস্কৃতির’ নিন্দা জানিয়ে বলে, এই অনুশাসন নানদের যৌন নিপীড়ন নিয়ে মুখ খুলতে বাধা দেয়। দীর্ঘদিন ধরেই গির্জায় যাজকদের হাতে শিশু ও কিশোরদের যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিযোগ রয়েছে। ভ্যাটিকান কর্তৃপক্ষ যৌন নিপীড়নকারী অভিযোগে বেশ কয়েকজন যাজক ও বিশপকে বরখাস্তও করেছে বলে জানান পোপ। তিনি বলেন, “আমরা এখন এ সমস্যা সমাধানের পথে হাঁটতে শুরু করেছি। যৌন নিপীড়নের সুনির্দিষ্ট অভিযোগের জেরে পূর্বসূরি পোপ বেনেডিক্ট একটি নারী সমাবেশ বিলুপ্ত ঘোষণা করার সাহস দেখিয়েছিলেন। কারণ, সেখানেও বিশেষ করে যৌন দাসত্বের বিষয়টি ঢুকে গিয়েছিল।” দীর্ঘদিন ধরেই নানদের উপর যৌন নিপীড়ন চলছে স্বীকার করে করে পোপ আরো বলেন, “এ সমস্য অনেক দিনের। কিন্তু নির্দিষ্ট কিছু সমাবেশে নিপীড়নের ঘটনা অনেক বেশি মাত্রায় ঘটছে। যৌন নিপীড়নের সমস্যা থেকে গির্জাগুলোকে মুক্ত করতে সময় লাগবে জানিয়ে পোপ ফ্রান্সিস বলেন, “আমার মনে হয় এখনও যৌন নিপীড়নের ঘটনা ঘটছে। কারণ, এমন নয় যে আপনি কিছু নিয়ে সজাগ হলেন, আর সেই সমস্যা সঙ্গে সঙ্গে দূর হয়ে যাবে।”

আরসিসি রাস্তা ও বিদ্যমান ইটের ড্রেন উলম্ব উদ্বোধন করলেন কাউন্সিলর পিয়ার আলী জোমারত

গতকাল বৃহস্পতিবার কুষ্টিয়া পৌরসভার কালিশংকরপুর মাহাতাব উদ্দিন সড়কের পূর্ব পাশের্^ গিয়াস উদ্দিনের বাড়ী হতে মোস্তফা কামালের বাড়ী পর্যন্ত আরসিসি রাস্তা নির্মান ও বিদ্যমান ইটের ড্রেন উলম্ব সম্প্রসারণ কাজের উদ্বোধন করেন ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পিয়ার আলী জোমারত। এসময় উপস্থিত ছিলেন ৭,৮,৯ নং ওয়াডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মমতাজ জাহান, কুষ্টিয়া পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স নিউ এইজ ট্রেডার্স’র প্রতিনিধি শরিফুল ইসলাম ও বাপ্পী রায়হান সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। উদ্বোধন শেষে সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

গাংনীতে শহীদ দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিসভা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে আন্তর্জাতিক ২১শে ফেব্র“য়ারী ও মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে গাংনী উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন প্রস্তুতি সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল। সভায় বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, গাংনী থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) সাজেদুল ইসলাম, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, গাংনী উপজেলা কৃষি অফিসার কেএম শাহাবুদ্দীন আহমেদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাসার। এ সময় বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি ও বামন্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, গাংনী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার মুনতাজ আলী, গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ খোরশেদ আলী, গাংনী বাজার কমিটির সভাপতি মাহবুবুর রহমান স্বপন প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সরকারী- বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ।

দৌলতপুরে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ফেনসিডিলসহ আরিফ হোসেন (১৯) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উপজেলার ফিলিপনগর ইউপি’র বাহিরমাদী সদরঘাট বাজার থেকে ৪ বোতল ফেনসিডিলসহ তাকে আটক করে র‌্যাব। আটককৃত আরিফ বাহিরমাদী পূর্বপাড়া এলাকার আজম সরদারের ছেলে। র‌্যাব সূত্র জানায়, মাদক ক্রয় বিক্রয়ের গোপন সংবাদ পেয়ে র‌্যাব-১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের অভিযানিক দল বাহিরমাদী সদরঘাট বাজারে অভিযান চালিয়ে ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আরিফ হোসেনকে আটক করে।

ঝিনাইদহে ইশারা ভাষা দিবস পালিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘ইশারা ভাষা সবার অধিকার’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে বাংলা ইশারা ভাষা দিবস পালিত হয়েছে। জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের আয়োজনে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। জেলা সমাজ সেবা অফিসের উপ-পরিচালক আব্দুল লতিফ শেখের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আরিফ-উজ-জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা সমাজ সেবা অফিসের সহকারী পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, শহর সমাজ সেবা অফিসার মোহাম্মদ হোসেন খান। এসময় বক্তব্য রাখেন সৃজনী বাংলাদেশ’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওহিদুল ইসলাম, হাজী আমজাদ হোসেন অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম প্রমুখ। বক্তারা বলেন, প্রতিবন্ধীদের বিকাশে সকলকে ইশারা ভাষা জানা প্রয়োজন।

মিরপুর উপজেলা নির্বাচন

মশাল প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে জাসদের ত্যাগী নেতা কারশেদ আলমকে দেখতে চান দলীয় নেতা-কর্মী

মিরপুর অফিস ॥ আসন্ন মিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে এবার জনপ্রিয়তার শীর্ষে জাসদ নেতা কারশেদ আলমকে দেখতে চান জাসদ দলীয় নেতাকর্মী। তূণমুল জাসদের নেতা-কর্মীরা বলছেন, কারশেদ আলম ভালো লোক, মেধাবী রাজনৈতিক নেতা এ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মশাল প্রতীকে জাসদের দুর সময়ের ত্যাগী নেতা কারশেদ আলমকেই দেখতে চান তারা।

নেতাকর্মীরা বলছেন, কারশেদ আলম মিরপুরের সন্তান, সৎ জন ব্যাক্তি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল মানুষ শুধু উন্নয়ন নয় এলাকায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করার জন্য কারশেদ আলমের বিকল্প নেই। তাই মিরপুর উপজেলাবাসীর চেয়ারম্যান প্রার্থী’র তালিকায় অন্যতম এখন কারশেদ আলম। শুধু তাই নয় আস্থার মানুষও বটে। তাই এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কারশেদ আলমকেই সাধারন মানুষের কথা বলতে একটা সুযোগ দিতে চাই উপজেলাবাসী। অন্যদিকে এই উপজেলা জাসদের নেতা-কর্মীদের একমাত্র আশ্রয় স্থান এখন কারশেদ আলম। কারণ জাসদ পরিবারের ভালোমন্দ তিনিই দেখভাল করেন। স্থানীয় জাসদ নেতাকর্মীদের বিভিন্ন সময় ঘটে যাওয়া বিভিন্ন সমস্যা অর্ন্তদ্বন্দ্ব দুর করার ক্ষেত্রেও কারশেদ আলমের ভূমিকা অন্যতম। উপজেলার সকল শ্রেণী পেশার মানুষের কাছে জনপ্রিয়  নেতা এখন কারশেদ। জাসদ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীরা এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কারশেদ আলমের হাতেই মশাল নিরাপদ ভাবছেন।

আইজিপি পদক পেলেন ঝিনাইদহের ২ পুলিশ কর্মকর্তা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ কর্মক্ষেত্রে কৃতিত্বপুর্ণ অবদান রাখায় আইজিপি পদক পেলেন ঝিনাইদহের ২ পুলিশ কর্মকর্তা। তারা হলেন-ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শৈলকুপা সার্কেল) তারেক আল মেহেদী ও ঝিনাইদহ সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মহসীন হোসেন। বুধবার দুপুরে রাজারবাগ পুলিশ লাইনস মাঠে পুলিশের আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারি তাদের ব্যাজ পরিয়ে দেন। এসময় অতিরিক্ত আইজিপি (প্রশাসন) মোখলেছুর রহমানসহ পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শৈলকুপা সার্কেল) তারেক আল মেহেদী ঝিনাইদহের যোগদান করার পর থেকেই শৈলকুপা ও হরিণাকুন্ডুর উপজেলার ক্লুলেস হত্যার রহস্য উন্মোচন, ডাকাতি মামলার আসামী গ্রেফতার, মাদকদ্রব্য উদ্ধার, সন্ত্রাস দমন, নাশকতা প্রতিরোধে অবদান রেখেছেন। এদিকে সদর থানার চাঞ্চল্যকার ক্লু-লেস  সেনাসদস্য সাইফুল ইসলাম সাইফ হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন, আসামী গ্রেফতার, অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার, বিপুল পরিমানে মাদকদ্রব্য উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ী  গ্রেফতার, সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতারসহ সফল পুলিশিং কার্যক্রমে পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) মহাসিন  হোসেন পুরস্কৃত হয়েছে। জেলা পুলিশের এই দুই কর্মকর্তার আইজিপি পদক পাওযায় জেলা পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাসহ  জেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ তাদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

খোকসায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় আইন শৃংখলা বিষয়ক ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে খোকসা থানার আয়োজনে থানা চত্বরে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফফারা তাসনীন। তিনি বলেন যারা মাদক ব্যবসা করে তারা দেশ ও জাতির শক্র, তাদের যে কোন মুল্যে প্রতিহত করা হবে। তিনি মাদক, সন্ত্রাস. জঙ্গীবাদ ও বাল্য বিবাহর বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর অবস্থানের কথা তুলে ধরে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। সভায় সভাপতিত্বে করেন থানা অফিসার ইনচার্জ এবিএম মেহেদী মাসুদ। বক্তব্য রাখেন খোকসা কমিউনিটি পুলিশিং’র সভাপতি আরিফুল আলম তশর, সাধারন সম্পাদক ওয়াহেদুল ইসলাম. শিমুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ খান, জয়ন্তীহাজরা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক, আমবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বিষু, ওসমানপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান বাবলু, খোকসা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শেখ সাইদুল ইসলাম প্রবীন, সাংবাদিক হুমায়ন কবির, মিলন খান প্রমুখ। এ ছাড়াও উপজেলা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, ইউপি চেয়ারম্যান, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

কালুখালী দাখিল মাদরাসায় এলজিএসপি অর্থায়নে শ্রেণীকক্ষ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন

ফজলুল হক ॥ গতকাল বৃহস্পতিবার  রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউপির কালুখালী দাখিল মাদরাসায় এলজিএসপি অর্থায়নে শ্রেণীকক্ষ সম্প্রসারণে একাডেমীক ভবন নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন ইউপি চেয়ারম্যান ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির বিদ্যুৎসাহী মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা। ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন এ ভবনের সার্টারিং কাজের পরিদর্শনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদরাসা গর্ভর্নিং বডির সভাপতি খোন্দকার আনিসুল হক বাবু, সিনিয়র শিক্ষক মাওঃ মোঃ আব্দুল ওহাব, মোঃ আক্তার হোসেন, এখলাছুর রহমান, মোয়াজ্জেম হোসেন এছাড়াও আওয়ামীলীগ নেতা মিয়া মাহমুদুল হাসান শাহিন ও ইউপি সদস্য আঃ লতিফসহ অন্যান্য শিক্ষকমন্ডলী উপস্থিত ছিলেন। পরিদর্শনকালে ইউপি চেয়ারম্যান কাজের গুণগত মান  দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

আলমডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনের অপারেটাল কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গরূপে চালুর দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনের অপারেটাল কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গরূপে চালুর দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত ওই স্মারকলিপি গতকাল আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট প্রদান করা হয়েছে। স্মারকলিপি প্রদানের সময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আলমডাঙ্গা রেলস্টেশন রক্ষা সংগ্রাম কমিটির সভাপতি মতিয়ার রহমান ফারুক কাউন্সিলর, যুগ্ন আহ্বায়ক আলাল উদ্দীন কাউন্সিলর, নাজমুল হাসান মল্লিক লিমন, সাংবাদিক আতিয়ার রহমান মুকুল,  পৌর কাউন্সিলর, আলী আজগর সাচ্চু, সদর উদ্দিন ভোলা, আব্দুল গাফফার, ফারুক হোসেন, ইমদাদুল হক, সাঈদ হিরোন, শরিফুল ইসলাম রোকন। স্মারকলিপির অনুলিপি চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সাংসদ, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে প্রেরণ করা হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

দলীয় মনোনয়ন পেতে চুয়াডাঙ্গার ৪ উপজেলায় আওয়ামী লীগের ১৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

চুয়াডাঙ্গা অফিস ॥ পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে, ভাইস-চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন । গত বুধবার রাজধানীর ধানমন্ডি দলীয় কার্যালয়ে ওই তিনপদে দলীয় মনোনয়ন পেতে চুয়াডাঙ্গার আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় মনোনয়পত্র গ্রহন করেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ । মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে গরীব রুহানী মাসুম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মিলি আক্তার। আলমডাঙ্গা উপজেলায় মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, চেয়ারম্যান পদে আনিসুজ্জামান মল্লিক, ভাইস চেয়ারম্যান পদে সালমুল আহমেদ ডন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান শামীম আরা খাতুন। দামুড়হুদা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আলী মুনসুর বাবু, সিরাজুল আলম ঝন্টু ও শহিদুল ইসলাম । ভাইস চেয়ারম্যান পদে অ্যাড. রফিকুল আলম রান্টু। জীবননগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তুজা, বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল ও নজরুল মল্লিক। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুস সালাম ঈশা, এসএম মোস্তাজিুর রহমান ও শফিকুর রহমান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি ও রেনুকা আক্তার । বিগত ২০১৪ সালের ৩১ মার্চ চতুর্থ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আসাদুল হক বিশ্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আজিজুল হক হযরত ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কোহিনুর বেগম নির্বাচিত হন। একই দিনে আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হেলাল উদ্দীন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কাজী খালেদুর রহমান অরুন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শামীম আরা খাতুন নির্বাচিত হন । ২০১৪ সালের ১৫ মার্চ দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আজিজুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুল কাদের এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সালমা জাহান পারুল নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের ২৩ মার্চ অনুষ্ঠিত জীবনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল, ভাইস চেয়ারম্যান পদে হাফিজুর রহমান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আয়েশা সুলতানা লাকি নির্বাচিত হন। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা জেলার চারটি উপজেলায় তৃতীয় ধাপে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৩১ ডিসেম্বর ভোট গ্রহন হতে পারে।

মিরপুরে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী কাশেম জোয়ার্দ্দারের নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত

মিরপুর অফিস ॥ গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ও বারুইপাড়া ইউনিয়নের জনগণের সাথে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যাস্ত সময় পার করলেন মিরপুর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার। সকাল  থেকে  তিনি মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ও বারুইপাড়া ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। ছুটে চলেছেন  ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। কুশল বিনিময় করছে সকল  শ্রেণির মানুষের সঙ্গে। বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামের গন্যমান্য  ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। অনেক ভোটার বলেন উপজেলার সকল শ্রেণির জনগণ নিয়ে সুন্দর আগামী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়বেন তিনি। বিভিন্ন সূত্রে জানা ইতিমধ্যেই তিনি গনসংযোগ করে জনগণের মন জয় করেছেন এবং জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন।  তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারনার সময় মিরপুর উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সাইফুর রহমান নাজিম, সহ-সভাপতি মীর আবু সাজ্জাদ সাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক সোহাগ আহম্মেদ, প্রচার সম্পাদক মঈন মন্ডল,  সহ-সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, রহিদুল, বারুইপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগ আহবায়ক মোঃ মফিকুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক মোঃ রবিউল, মোঃ জুয়েল সহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মেহেরপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দুদকের অভিযানে দালাল আটক

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এর একটি দল অভিযান চালিয়েছে। এ সময় হাতে-নাতে ঘুষ লেনদেনকালে  আনোয়ার পারভেজ নামের এক দালালকে আটক করা। আটকের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ৩ দিনের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মেহেরপুর পাসপোর্ট অফিসের সামনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন  নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সামিউল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এর কুষ্টিয়া শাখার উপ-পরিচালক জাকারিয়া। দুদক-এর কুষ্টিয়া শাখার উপ-পরিচালক জাকারিয়া জানান, মেহেরপুর পাসপোর্ট অফিসে  বিভিন্ন দালাল চক্র ও অভ্যন্তরীন কিছু অফিস স্টাফ মিলে একটি সিন্ডিকেট তৈরী করেছে এবং পাসপোর্ট গ্রহীতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করে আসছে এমন অভিযোগ পাওয়া যায়। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এর প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী আমরা এ অভিযান চালায়।  তিনি আরও বলেন, এই অফিসে প্রবেশ করে আমরা হাতে-নাতে আনোয়ার পারভেজ নামে এক দালালকে আটক করি । সে গাংনী উপজেলার মহাসিন আলী নামে একজনের কাছে থেকে অতিরিক্ত অর্থ নিয়ে পাসপোর্ট করে দিবে বলে। এসময় আমরা তাকে আটক করি এবং ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে ৩ দিনের কারাদন্ড দেয়।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

ভাইস চেয়ারম্যান পদে যুবলীগ নেতা রাকিবুজ্জামান সেতুর দলীয় মনোনয়নপত্র জমা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে যুবলীগ নেতা রাকিবুজ্জামান সেতু দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ৭ ফেব্র“য়ারি বৃহস্পতিবার বিকেলে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে তিনি মনোনয়নপত্র জমা দেন। রাকিবুজ্জামান সেতুর দাদা মরহুম ম.আ. রহিম কুষ্টিয়া পৌরসভার স্বাধীন বাংলাদেশের সর্বপ্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসাবে কুষ্টিয়া পৌরসভার দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ আখতারুজ্জামান কুষ্টিয়া জেলা ট্রাক মালিক গ্র“প এবং পেট্রোল পাম্প মালিক সমিতির ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাঃ এর পরিচালক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক। রাকিবুজ্জামান সেতুর চাচা কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের সাবেক জি.এস মরহুম হাসান জামান লালন। তার মাতা বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সহ-সভাপতি সুফিয়া আখতার। রাকিবুজ্জামান সেতু সকলের দোয়া প্রার্থী। উল্লেখ্য যে, রাজনৈতিক অঙ্গনে রাকিবুজ্জামান সেতু আওয়ামী পরিবারের সদস্য হওয়ায় জন্মসূত্রে আওয়ামীলীগ। তিনি ছাত্র জীবনে ২০০৪ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মকান্ডে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। তিনি আওয়ামীলীগের বিভিন্ন কর্মকান্ডে ও সমাজসেবা মূলক কর্মে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত। ব্যক্তি জীবনে তিনি রোটার‌্যাক্ট ক্লাব কুষ্টিয়ার চাটার্ড প্রেসিডেন্ট, বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্সের সাবেক পরিচালক, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, কুষ্টিয়া রাইফেল ক্লাব, কুষ্টিয়া জামে মসজিদ, কুষ্টিয়া লালন একাডেমি, পরিবার পরিকল্পনা সমিতি, কুষ্টিয়া জেলা সমিতি, ঢাকাসহ বিভিন্ন সংগঠনের আজীবন সদস্য। কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এল.এল.এম পাশ করেন। ব্যবসায়িক জীবনে তিনি মেসার্স ওয়েসিস ট্রেডিং এজেন্সীর স্বত্তাধিকারী এবং মেসার্স মন্ডল ফিলিং স্টেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

দৌলতপুরে জাতীয় ভোটার দিবস পালনে প্রস্তুতি সভা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ১লা মার্চ’১৯ জাতীয় ভোটার দিবস পালনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে দৌলতপুর জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপন কমিটির এ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে প্রস্তুতি সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর নির্বাচন অফিসার মো. গোলাম আজম। বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম ও দৌলতপুর গার্লস কলেজের অধ্যক্ষ মো. রেজাউল করিম। সভার সভাপতি ও দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার আগামী ১লা মার্চ জাতীয় ভোটার দিবস যথাযোগ্য মর্যদায় পালনে সকলের উপস্থিতিসহ সহযোগিতা কামনা করেন। প্রস্তুতি সভায় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, বিভিন্ন কলেজর অধ্যক্ষবৃন্দসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় পাঠকদের মন্তব্য

প্রথম আলোর কাছে প্রত্যাশা একটু বেশি

নিজ সংবাদ ॥ প্রথম আলোর কাছে আমাদের যে প্রত্যাশা ছিল গত দুই দশকে তা ছাপিয়ে গেছে। অন্তত সাংবাদিকতা পেশায় প্রলোভিত, বশীভূত ও নিয়ন্ত্রিত না হয়ে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব তা প্রমাণ করেছে পাঠকনন্দিত এই পত্রিকা। এই পত্রিকাটি সমাজে অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন   এনেছে। সাহস জুগিয়েছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। পক্ষপাতদুষ্ট নয় পত্রিকার কথা মনে হলেই প্রথম আলোর কথা চলে আসে। তাই প্রথম আলোর কাছে প্রত্যাশা একটু বেশি। সরকার মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করার পরও তা কেন বন্ধ হচ্ছে না, সে ব্যাপারে প্রথম আলোকে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করতে হবে। শরষের ভেতরের ভূত খুঁজে বের করতে হবে প্রথম আলোকে।

গত বুধবার কুষ্টিয়ায় প্রথম আলোর পাঠক সমাবেশে এভাবেই নিজেদের প্রত্যাশার কথা তুলে ধরেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার পাঠকেরা। প্রথম আলোর আয়োজনে দিশা মিলনায়তনে আয়োজিত এই পাঠক সমাবেশে শিক্ষক, গবেষক, রাজনীতিক, ব্যবসায়ী, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সরকারি- বেসরকারি চাকুরে, অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। অন্তরঙ্গ পরিবেশে তাঁরা প্রথম আলোর প্রতি ভালোবাসা ও চাহিদা, অভিযোগ-অনুযোগ তুলে ধরেন।

বিকাল সাড়ে চারটায় সমাবেশের নির্ধারিত সময় থাকলেও তার আগে থেকেই মিলনায়তন ভরে যায় পাঠকদের উপস্থিতিতে। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথম আলোর ২০ বছর পূর্তি ও আলোর পাঠশালা নিয়ে বানানো তথ্যচিত্র দেখানো হয়। অতিথি মঞ্চে এসময় মতিউর রহমানের সঙ্গে ছিলেন লেখক গবেষক প্রফেসর ড. আবুল আহসান চৌধুরী ও রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ কুষ্টিয়া শাখার সভাপতি আলম আরা জুঁই। প্রথম আলোর কুষ্টিয়া প্রতিনিধি তৌহিদী হাসানের সঞ্চালনায় পাঠকদের স্বাগত জানিয়ে সূচনা বক্তব্য রাখেন প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান।

প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান বলেন, পাঠকের ভালবাসা নিয়ে  আমরা ২০ বছর পার করেছি।  আমাদের লক্ষ্য ছিল দেশের এক নম্বর কাগজ হিসেবে প্রথম আলোকে প্রতিষ্ঠা করা। মাত্র তিনবছরেই তা সম্ভব হয়েছে। গুন ও মানে প্রতিনিয়ত ভালো করার নিরন্তর চেষ্টা চলছে। শুরু  থেকেই সেরা ছাত্র বৃত্তি, এসিড সন্ত্রাস প্রতিরোধ ও আইনী সহায়তা এবং মাদকে না বলাসহ অনেক ইতিবাচক উদ্যোগ  নেওয়া হয়েছে।  প্রথম আলোর পাঠক বেড়েই চলেছে। বর্তমানে ছাপানো কাগজ ৬৬ লাখ পাঠক পরে। এছাড়া, অনলাইনে ২০০ টিরও বেশি দেশে প্রতিদিন ১২ লাখ পাঠক পড়ে। সারা বিশ্বে যত কাগজ বের হয় প্রথম আলোর অবস্থান ৪৯২ নম্বরে।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা দিশার কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, প্রথম আলো অনিয়ম দুর্নীতি প্রশ্নে কাউকে ধরলে ছাড়ে না। কুষ্টিয়ার গড়াই নদ খনন নিয়ে প্রতিবছর বরাদ্দ টাকা কোথায় যাচ্ছে তা নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন চাই।

রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ কুষ্টিয়া শাখার সভাপতি  আলম আরা জুই বলেন, পুলিশের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বলেছেন ১০টি উৎসমুখ নিয়ে এদেশে মাদক প্রবেশ করে। সরকার বলছে, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স, তাহলে উৎসমুখ বন্ধ না করে পাড়া মহল্লায় কেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান করে সে বিষয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন লিখতে হবে। শর্ষের ভেতরের ভুত খুঁজে বের করতে হবে।

লেখক গবেষক আবুল আহসান চৌধুরী বলেন, সাহসী সাংবাদিক হিসেবে মতিউর রহমান মানুষের হৃদয় জয় করেছেন। সাহসী সাংবাদিকতার কারণেই শুধু বাংলা ভাষাভাষী নয়, বৈশ্বিক সংবাদপত্রের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে প্রথম আলো।

সংবাদকর্মী ইব্রাহিম শুভ বলেন, ‘মাদকের মতো ধর্ষণ প্রকট আকার ধারণ করেছে।   আমরা কোনো হারকিউলিসের সহযোগিতা চাই না। এ ব্যাপারে প্রথম আলোর সময়োপযোগী উদ্যোগ চাই।  বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার পরিচালক জামান আখতারুজ্জামান বলেন,‘ শনিবারের বিশেষ সংবাদ ভালো উদ্যোগ। এখানে ব্যক্তিগত উদ্যোগের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবনী নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা দরকার।

শাহানাজ ইসলাম নামের এক প্যারামেডিক্যাল চিকিৎসক বলেন, কুষ্টিয়ার রাস্তায় উন্নয়নের নামে যথেচ্ছা খোড়াখুড়ির কারণে ধুলায় ধুন্ধুমার অবস্থা। এ সমস্যা সমাধানে খবর প্রকাশ করতে হবে। কৃষিবিদ শাহিদা পারভীন বলেন, নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করতে হবে।  সহকারি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম আব্দুর রহমান বলেন, প্রথম আলোতে মফস্বলের সাহিত্যিকদের লেখা প্রকাশের সুযোগ করে দিতে হবে।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে কুষ্টিয়া সরকারি সেন্ট্রাল কলেজের অধ্যক্ষ আজমল গণি,  কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের শিক্ষক আকলিমা খাতুন, কলেজ শিক্ষক প্রসেনজিৎ মন্ডল, উন্নয়নকর্মী সৈয়দা হাবিবা,  চালকল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, ছাত্র মুছা করিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

পাঠকদের বক্তব্যের জবাবে মতিউর রহমান বলেন, বর্তমানে রাজনৈতিক ও সামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে কাজ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্র রক্ষা এবং দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে আমাদের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হবে না। নির্দলীয় স্বাধীন সাংবাদিকতা অব্যাহত রাখা হবে।

মিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন জমা দিলেন কামারুল আরেফিন

হাবিবুর রহমান ॥ আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন। মঙ্গলবার বিকেলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধানমন্ডির কার্যালয় থেকে এ মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করে বুধবার বিকেল ৫টায় কামারুল আরেফিন এ মনোনয়ন পত্র জমা দেন। উল্লেখ্য গত ২৮ জানুয়ারি উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিদের ভোটে প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পান মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের রায়

হত্যা মামলায় ১ জনের ফাঁসিসহ বিভিন্ন মেয়াদে ১০ জনের কারাদন্ড

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানায় পূর্ব শক্রতার জের ধরে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় খাইরুল ইসলাম নামের ১ জনকে ফাঁসি ১ লাখ টাকা জরিমানাসহ ১০ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের (জেলা ও দায়রা জজ) বিজ্ঞ বিচারক মুন্সী মোঃ মশিয়ার রহমান এক জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেন। ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামী হলো-কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কোমরকান্দি গ্রামের ওমেদ আলী প্রামানিকের ছেলে খাইরুল ইসলাম। ১ বছর দন্ডপ্রাপ্ত আসামী কুমারখালী উপজেলার কোমরকান্দি গ্রামের সামাদ প্রামানিকের ছেলে জিকু। ৩ মাসের দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলো-কুমারখালী উপজেলার কোমরকান্দি গ্রামের খাইরুল, জিকু, ফারুক হোসেন, ওমেদ আলী, আছান প্রামানিক, আবুল কাশেম, ওছেল প্রামানিক, আতিয়ার রহমান, রবিউল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর হোসেন। রায় ঘোষনার সময় আসামীরা আদালতে হাজির ছিল। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৫ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় পূর্বশক্রতার জের ধরে আসামী দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে কুমারখালী উপজেলার  কোমরকান্দি গ্রামের মৃত আসির উদ্দিনের ছেলে বাবুল হোসেনের বাড়ীতে জোরপূর্বক প্রবেশ করে বাবুল হোসেনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারীভাবে উপর্যপরি আঘাত করে রক্তাত্ব জখম করে। এসময় বাবুলের ছেলে পলাশসহ কয়েকজন ঠেকাতে গেলে তাদেরও আঘাত করে আসামীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর রক্তাত্ব জখম বাবুল হোসেন (৪৮) কে উদ্ধার করে সিএনজি যোগে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে পলাশ উদ্দিন বাদি হয়ে কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানায় ১০জনের বিরদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। থানার মামলা নং ০৪, তারিখ ০৬/১০/২০১৪ইং। যা পরে সেসন ২৮৪/১৬ নং মামলায় নথিভূক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। বিজ্ঞ আদালত রাষ্ট্রপক্ষের একাধিক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য ও শুনানী শেষে বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানীত হওয়ায় আসামীদের মধ্যে খাইরুল ইসলামকে ফাঁসি ও ১ লাখ টাকা জরিমানা, জিকুকে ১বছর ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং খাইরুল, জিকু, ফারুক হোসেন, ওমেদ আলী, আছান প্রামানিক, আবুল কাশেম, ওছেল প্রামানিক, আতিয়ার রহমান, রবিউল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর হোসেনকে ৩ মাস করে কারাদন্ড প্রদান করেন। রাষ্ট্র পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন কুষ্টিয়া জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউট (পিপি) এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী এবং আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করে এ্যাড. মিয়া মোঃ রেজাউল হক।

 

গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক স্থিতিশীলতায় আরো অবদান রাখতে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ সশস্ত্র বাহিনীকে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক হিসেবে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভবিষ্যতেও দেশ ও জাতির উন্নয়নে এবং গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক স্থিতিশীলতায় আরো অবদান রাখতে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বহির্বিশ্বের বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা সততা ও পেশাগত দক্ষতার মাধ্যমে সুনাম ও সুখ্যাতি অর্জন করেছেন। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সশস্ত্র বাহিনীর সফলতায় সারাবিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল হয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, সশস্ত্র বাহিনীর সাফল্য দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। ভবিষ্যতেও দেশ ও জাতির কল্যাণে এবং গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখতে তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে যাতে আমরা উন্নয়নের ধারা এগিয়ে নিতে পারি। তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকায় মিরপুর ক্যান্টনমেন্টে ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এন্ড স্টাফ কলেজের (ডিএসসিএসসি) শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে ‘ডিএসসিএসসি ২০১৮-২০১৯ কোর্সের’ গ্রাজুয়েশন অনুষ্ঠানে ভাষণকালে এ আহ্বান জানান। কলেজের কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল মো. এনায়েত উল্লাহ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। মন্ত্রীবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাবৃন্দ, সংসদ সদস্যগণ, ভারপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী প্রধান, নৌবাহিনী প্রধান ও বিমান বাহিনী প্রধান, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ, বিদেশী কূটনীতিকবৃন্দ এবং উর্ধ্বতন বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সশস্ত্র বাহিনী হচ্ছে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার মহান দায়িত্বের পাশাপাশি দেশপ্রেমিক সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রশংসনীয় অবদান রাখছেন। দেশের বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম, অবকাঠামো নির্মাণ, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ইত্যাদি ক্ষেত্রেও তাদের অবদান প্রশংসনীয়। শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমানে বিশ্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থায় নতুন নতুন পরিবর্তনের ফলে সামরিক বাহিনীর ভূমিকা ও দায়িত্বে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা। সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী ও স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান। এ বিদ্যাপীঠ থেকে ‘পিএসসি’ ডিগ্রী অর্জন, যেকোন সামরিক অফিসারের জন্য অত্যন্ত গৌরবের বিষয়। আজ যারা সাফল্যের সঙ্গে কোর্স সম্পন্ন করে গ্র্যাজুয়েট হল তাদের সকলকে জানাই আন্তরিক অভিবাদন।’ তিনি বলেন, ‘আমি একই সাথে আপনাদের জীবনসঙ্গিনীগণকেও অভিনন্দন জানাচ্ছি। আপনাদের এ সাফল্যের পিছনে তাদেরও অনেক অবদান রয়েছে। সবর্দা পাশে থেকে তারা অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছেন এবং অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন। আমি আপনাদের সকলের পেশাগত, সামাজিক ও পারিবারিক জীবনের সাফল্য কামনা করছি।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মহান ভাষা আন্দোলনের এ মাসে আমি শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি বীর ভাষা শহীদদের। আমি সশ্রদ্ধ চিত্তে স্মরণ করছি স্বাধীন বাংলাদেশের রূপকার, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বিশ্ব মানচিত্রে উদয় হয়েছে স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ- বাংলাদেশ।’ জাতীয় চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শ্রদ্ধা জানাই মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ এবং ২ লাখ নির্যাতিত মা-বোনের প্রতি। শ্রদ্ধা জানাই সশস্ত্র বাহিনীর বীর শহীদদের প্রতি যারা দেশের শান্তি রক্ষার্থে পার্বত্য চট্টগ্রাম এবং জাতিসংঘের বিভিন্ন শান্তি মিশনে প্রাণ দিয়েছেন।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে একটি সুশৃঙ্খল ও পেশাদার সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছিলেন। সেই ধারাবাহিকতায় সশস্ত্র বাহিনীর অফিসারদের উচ্চতর প্রশিক্ষণ প্রদানের লক্ষ্যে এ কলেজ প্রতিষ্ঠা লাভ করে।’ তিনি বলেন, ‘এ স্টাফ কলেজ এখন দেশের সীমা পেরিয়ে বর্হিবিশ্বে এক অনন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিতি। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত এ স্টাফ কলেজে সেনাবাহিনীর ৪৩টি, নৌবাহিনীর ৩৭টি এবং বিমানবাহিনীর ৩৯টি স্টাফ কোর্স সাফল্যের সঙ্গে সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে ৪২টি বন্ধুপ্রতীম দেশের ১ হাজার ১১১ জন অফিসার এখান থেকে গ্র্যাজুয়েশন করেছেন। তারা সকলেই নিজ নিজ দেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের স্টাফ কলেজের জন্য এটি উল্লেখযোগ্য সাফল্য। এ অর্জনের জন্য আমি কলেজের সাবেক ও বর্তমান কমান্ড্যান্ট, অনুষদ সদস্যবৃন্দ ও সকল অফিসারকে অভিনন্দন জানাই।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যবসায়ের মাধ্যমে তোমরা সমর বিজ্ঞানের ওপর উচ্চতর জ্ঞান লাভ করেছ। এ প্রশিক্ষণ অর্পিত দায়িত্ব দক্ষতার সাথে পালনে এবং যে কোন ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তোমাদের আরও আত্মপ্রত্যয়ী হতে শেখাবে। ভবিষ্যতে বৃহৎ নেতৃত্ব প্রদানে তোমরা নিজেদের প্রস্তুত রাখবে। সততার সাথে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাবে।’ তিনি বলেন, এ বছর মোট ১১ জন মহিলা অফিসার গ্র্যাজুয়েট হয়েছেন। প্রতিবছর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মহিলা অফিসারের কোর্সে অংশগ্রহণ অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। আশা করি, মহিলা অফিসারদের অংশগ্রহণ ভবিষ্যতে আরও বৃদ্ধি পাবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি শান্তিপ্রিয় দেশ। বৈশ্বিক শান্তির প্রতি আমাদের আস্থা ও বিশ্বাস আমাদের পররাষ্ট্র নীতিতেও প্রতিফলিত হয়। আমাদের পররাষ্ট্রনীতির মূলমন্ত্র হল ‘সমমর্যাদার ভিত্তিতে সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়।’ এরই ধারাবাহিকতায় আপনাদের দেশের সঙ্গে আমরা বজায় রেখেছি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। আপনাদের উপস্থিতি স্টাফ কলেজকে আরও বেশি অলংকৃত করেছে।’ তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘নিজ নিজ দেশে ফিরে আপনারা আমাদের শুভেচ্ছা এবং দেশের  নৈসর্গিক সৌন্দর্য ও অতিথিপরায়ণ জনগণের কথা আপনাদের দেশের জনগণের কাছে পৌঁছে দিবেন।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজের অবকাঠামোগত সুবিধা সম্প্রসারণে আমাদের সরকার ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। স্টাফ কলেজের বহুতল একাডেমিক ভবনসহ বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। যা প্রশিক্ষণ কার্যক্রমকে গতিশীল করছে। পাশাপাশি বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রমের পরিকল্পনা করা হয়েছে, যা ভবিষ্যতে কলেজের প্রশিক্ষণ কলেবরকে আরও আধুনিকায়ন করবে।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের সরকারের ১০ বছরের অভাবনীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডের সুফল মানুষ উপভোগ করছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা অর্জন করেছি। দারিদ্র্যের হার কমে এখন ২১.৮ শতাংশ। মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৭৫১ মার্কিন ডলার। গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৭২ বছরেরও উপরে। জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশে উন্নীত। বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা ২০ হাজার ৮৮৫ মেগাওয়াট। আমরা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করেছি। পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ও কর্ণফুলী টানেল নির্মাণের কাজ চলছে। মেট্রোরেলের কাজ চলছে। নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করছি।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমে সন্তুষ্ট হয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ আবারও বিপুল ভোটে আমাদের নির্বাচিত করেছে। আমরা জনগণকে দেওয়া প্রতিটি ওয়াদার পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন করব।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ২০২০ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং ২০২১ সালে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করব। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত দেশে পরিণত করব ইনশাআল্লাহ।

ঝিনাইদহে এসএসসি পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে ১৪ শিক্ষার্থী ও ৪ শিক্ষককে বহিষ্কার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ শহরের সিদ্দিকীয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসা পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে এসএসসি দাখিল গণিত পরীক্ষা চলাকালে অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে ১৪ শিক্ষার্থী ও ৪ শিক্ষককে বাহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে তাদের বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কারকৃত শিক্ষকরা হলেন ঝিনাইদহ সিদ্দিকীয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসার রেজাউল করিম ও শামসুন্নাহার, বাড়িবাথান মাদ্রাসার লিটন মিয়া, কালুহাটি মাদ্রাসার আবু তালেব। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাফর সাদিক চৌধুরী জানান, পরীক্ষা পরিদর্শনকালে দেখা যায় সিদ্দিকীয়া আলিয়া কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রের বিভিন্ন কক্ষে অনিয়ম চলছে। শিক্ষার্থীরা সেট কোড পরিবর্তন সহ নানা অনিয়মে পরীক্ষা দিচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে জড়িত থাকার দায়ে ১৪ শিক্ষার্থী ও ৪ শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা বাকি পরীক্ষাগুলোতে অংশ নিতে পারবে না এবং শিক্ষকরাও দাখিল পরীক্ষায় দায়িত্ব পালন করতে পারবে না। এই বিষয়ে অধ্যক্ষ রুহুল কুদ্দুস জানান সেট কোড পরিবর্তন করার কারনে ৪ জন শিক্ষক ও ১৪জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করেছে কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেট।

কুষ্টিয়ায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের মতবিনিময়ে ডাঃ রওশন আরা বেগম

কাল শিশুদের এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

শিশুদের মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে ভিটামিন এ খাওয়াতে হবে

আরিফ মেহমুদ ॥ কুষ্টিয়ার জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা বেগম বলেছেন, শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে ভিটামিন এ ক্যাপসুলের গুরুত্ব অনেক। সময় মত আপনার শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ান এবং অন্যদের খাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দিন। বর্তমান সরকারের যে সকল সফলতা রয়েছে তাদের মধ্যে স্বাস্থ্য খাতের শিশু ও মাতৃ মৃত্যুর হার কমানো অন্যতম। এক্ষেত্রে শিশুদের স্বাস্থ্য সেবা শতভাগ নিশ্চিত করতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন পালন উপলক্ষে জেলার সর্বস্তরের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, পলিও মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে অনেক সুনাম অর্জন করেছে। আগের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে সাধারণ মানুষ অনেক বেশি স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে উঠেছে। দেশপ্রেম বোধ থেকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল ও টিকার মতই বাচ্চাদের ঘরে ঘরে পৌছে দিতে হবে। যাতে তাদের মধ্যে আগামীর দেশ গড়তে দেশপ্রেম বোধ অধিক কাজে লাগে।

শিশু অবস্থা থেকে সরকারের প্রদত্ত বিনামূলে যে সকল ভিটামিন ও টিকা দেয়া হয় তা দেয়ার ব্যাপারে সকলকে আন্তরিক হতে হবে। সরকারের ভিটামিন খাওয়ানো ও টিকা দান কর্মসূচী দিনে দিনে সফলতা লাভ করায় আজ শিশু ও মাতৃমৃত্যু নেই বললেই চলে।

ভাল কাজের শুরু আছে শেষ নাই। প্রত্যেকের মধ্যে দেশ ও জাতির জন্য দায়বদ্ধতা থাকতে হবে। শিশু স্বাস্থ্য নিয়ে মানুষকে আরো বেশি সচেতন করে তুলতে সাংবাদিকদের গুরুত্ব দিয়ে এই খাতটির সংবাদ প্রকাশ করতে হবে।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের আহবায়ক কমিটির সদস্য সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মজিবুল শেখ, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সদস্য সচিব সাবেক সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সাগর, নিউট্রেশন ইন্টারন্যাশনাল-এর প্রতিনিধি মোহাম্মদ আমিন প্রমুখ। ভিটামিন এ  প্লাস সম্পর্কে প্রজেক্টরের মাধ্যমে বিস্তারিত তুলে ধরেন সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ গোলাম জীন আসমাউল হুসনা।

সভাপতির বক্তব্যে সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা বেগম ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ার যোগ্য জেলার শিশুদের পরিসংখ্যান তুলে ধরেন। এতে দেখা যায় আগামী ৯ ফেব্র“য়ারী শনিবার জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনে ৬মাস থেকে ১১ মাস বয়সী শিশুদের নীল রংযের ১টি ক্যাপসুল কেটে খাওয়ানো হবে। ১২ মাস হতে ৫৯মাস বয়সী সকল শিশুকে লাল রংয়ের ১টি ক্যাপসুল কেটে খাওয়ানো হবে। শিশুকে ভরাপেটে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে। আপনার নিকটস্থ টিকাদান কেন্দ্রে যেয়ে ৯ ফেব্র“য়ারী শনিবার ১ম দফায় জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইনে আপনার শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর অনুরোধ করেন তিনি। ভিটামিন এ ক্যাপসুল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক মানসম্মত এবং নিরাপদ।  জেলার ৬ উপজেলা ও ৩ পৌরসভায় ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী মোট ২৫ হাজার ৮৩২ এবং ১২ মাস হতে ৫৯ মাস বয়সী ২ লাখ ৭ হাজার ৮৬৩ জন শিশুকে ১৫৬৬ টি কেন্দ্রে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এই কর্মসূচী বাস্তবায়নে ৩ হাজার ১৩২ জন সেচ্ছাসেবক কাজ করবে। সভায় স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সম্পাদক ও প্রতিনিধি সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।