বিএনপি থেকে শিপনের পদত্যাগ

কুষ্টিয়া শহরের এন এস রোডের থানাপাড়ার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও জাতীয়তাবাদী দল থানাপাড়া ২নং ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান শিপন তার ব্যক্তিগত কারণে জাতীয়তাবাদী দল থেকে পদত্যাগ করছেন। এছাড়া তিনি জাতীয়তাবাদী দলের সকল অঙ্গসংগঠন থেকে স্বেচ্ছায় অব্যহতি প্রদান করেছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ভেড়ামারায় দরিদ্র মেধাবী স্কুল ছাত্রীকে সাইকেল প্রদান

ভেড়ামারা অফিস ॥ ইটালী প্রবাসী বঙ্গবন্ধুর আর্দশের সৈনিক ভেড়ামারার কৃতিসন্তান মোঃ শামসুল হক আঁখির আর্থিক সহযোগীতায় “মানুষ মানুষের জন্য” এই ¯ে¬াগানে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় গতকাল শনিবার বিকেলে জুনিয়াদহ ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের মৃত সাদেক আলীর মেয়ে ও জুনিয়াদহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর দরিদ্র মেধাবী স্কুল ছাত্রী মোছাঃ লিজা আক্তারকে বাড়ি থেকে স্কুল অনেক দূরে হওয়ায় যাতায়াতের সুবিধার জন্য একটি হিরো লেডিস বাইসাইকেল প্রদান করা হয়। সাইকেলটি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, ভেড়ামারা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোঃ উজির আলী, ছাত্রলীগ নেতা সনি, যুবলীগ নেতা সালুক, স্বপন, হায়দার, সোহেলসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ। সাইকেলপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী লিজা জানান, আমারা বাবা নেই, অভাবের সংসার, কষ্ট করেই আমাকে বাড়ি থেকে স্কুলে আসতে হতো। এখন সাইকেলে করে স্কুলে আসতে পারবো ভেবে অনেক আনন্দ লাগছে। মোঃ শামসুল হক আঁখিকে ধন্যবাদ জানিয়ে লিজা বলেন, এখন সময় সাশ্রয় হবে এবং পড়ালেখায়ও বেশি মনোযোগী হতে পারবো।

কালুখালীতে অগ্নিকান্ডে ৪টি দোকান পুড়ে ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে উপজেলার রতনদিয়া ইউপির মাধবপুর বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৪টি দোকান পুড়ে ছাই এবং প্রায় ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান স্থানীয় যুবলীগ নেতা খলিলুর রহমান। তিনি আরও জানান, ময়না বিবির মার্কেটের সাঈদের মুদি দোকান থেকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে আগুনের সূত্রপাত হয়। পাশে অবস্থিত ডাঃ আলম এর ঔষুধের দোকান,  মোঃ নুরু শেখের কাপড়ের দোকান, মামুন এর সাউন্ড সিস্টেমের দোকান আগুনে পুড়ে ভূষ্মিভূত হয়। খবর পেয়ে পাংশা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন থেকে ১টি ইউনিট এসে ২ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এতে সাঈদ এর মুদি দোকানে নগদ টাকা সহ ১০ লাখ  টাকা, ডাঃ আলম এর ঔষুধ  ও নগদ টাকা সহ ৪ লক্ষাধিক টাকা, নুরু শেখের কাপড়ের দোকান ৬ লাখ টাকা ও মামুন এর সাউন্ড সিস্টেমের দোকানে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। এ সংবাদে শনিবার সকালে কালুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার, রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং ক্ষতিগ্রস্থদের সরকারীভাবে সাহায্য সহযোগীতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।

মিরপুরে নিরাপদ খাদ্য দিবস পালিত

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ কার্যালয় চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহমেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইসরাত জাহান, উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা রহুল আমিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নজরুল করীম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, পৌর যুবলীগের সাবেক আহবায়ক হীরক জোয়ার্দ্দার প্রমুখ।

ফিলিস্তিনে ফের গণহত্যার ছক কষছে ইসরায়েল

ঢাকা অফিস ॥ ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর হেবরনে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলোর প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করে দ্বিতীয়বারের মতো আরেকটি গণহত্যার নীল নকশা আঁকছে ইসরায়েল। ফাতাহ আন্দোলনের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর। মিডল ইস্ট মনিটরের ওই প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, ফিলিস্তিনিদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এই শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ইব্রাহিমী মসজিদ দখলে নেয়ার পরিকল্পনা করছে ইসরায়েল। ফিলিস্তিনি মুক্তি আন্দোলন ফাতাহ’র সদস্য ওসামা আল-কাশেমি গতকাল এক বিবৃতির মাধ্যমে এ আশঙ্কার কথা জানান। বিবৃতির মাধ্যমে তিনি আরও বলেন, ইসরায়েল শহরটিতে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষণ সংস্থাগুলোর প্রবেশাধিকারে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তের একমাত্র ব্যাখ্যা হলো তারা পুরনো এই শহরটিকে নিজেদের দখলে নিতে চায়। তাছাড়া ইব্রাহিমী মসজিদ দখল হেবরনে তাদের সাম্রাজ্যবাদী পরিকল্পনারই অংশ। আল কাশেমি নামে ফাতাহ’র ওই সদস্য আরও বলেন, ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ পুরনো শহর হেবরনকে নতুন করে জীবন দিয়েছে। বাড়ি, দোকান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণের মাধ্যমে শহরটি প্রাণ ফিরে পেয়েছে। ইসরায়েলের এমন সিদ্ধান্তের জবাব দিতে তিনি শহরটিতে ফিলিস্তিনিদের উপিস্থিতির ওপর জোরারোপ করেন।

আলমডাঙ্গা উপজেলায় জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালন

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালন উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকাল ১০টার দিকে উপজেলা চত্বর থেকে এক র‌্যালী আলমডাঙ্গা শহর প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতি করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নান। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুণ। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের পৌর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ নুর মোহাম্মদ জকু, প্রেসক্লাব সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মোফাখ খাইরুল ইসলাম। কলেজিয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামীম রেজার উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত গুদাম রক্ষক মিয়ারাজ হুসাইন, সহকারী খাদ্য পরিদর্শক রেবেনা খাতুন, মিল চাতাল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন, সহসভাপতি জয়নাল আবেদীন, বিশিষ্ট চাউল ব্যবসায়ী আশরাফুল হক লুলু, এনামুল হক, কাশেম আলী, জয়নাল ক্যাপ, আব্দুর রাজ্জাক ও আল-ইকরা ক্যাডেট একাডেমীর শিক্ষক রাজু আহমেদ।

 

গাংনীতে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ সুস্থ্য সবল জাতি চাই’ পুষ্টি সম্মত নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নেই এ শ্লোগানের মধ্যেদিয়ে গাংনীতে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকাল ১০ টার দিকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি গাংনী উপজেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে নেতৃত্ব প্রদান করেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল। পরে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাসারের সঞ্চালনায়-সভায় বক্তব্য রাখেন গাংনী  উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান একেএম শফিকুল আলম, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- গাংনী উপজেলা সুজনের সভাপতি আব্দুর রশীদ, গাংনী বাজার কমিটির সভাপতি মাহবুবুর রহমান স্বপন, গাংনী উপজেলা মুক্তিযুদ্ধের শহীদ স্মৃতি পাঠাগারের সহ-সভাপতি ইয়াছিন রেজা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা খাদ্য অফিসের ওসি (এলএসডি) মতিয়ার রহমান বিশ্বাস, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের খাদ্য ডিলার যথাক্রমে-আব্দুল হান্নান, আব্দুল মতিন, ইলিয়াস হোসেন, কদম আলী, হুমায়ন , কবীরসহ বিভিন্ন শ্রেণী- পেশার মানুষ। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন,উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা  খলিলুর রহমান। সভায় বক্তারা বলেন,খাদ্য উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিপনণ এই তিনটি ক্ষেত্রেই গুরুত্ব দিতে হবে। নিরাপদ খাদ্য  সরবরাহে  পরিবার-সমাজ তথা রাষ্ট্রীয়ভাবে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। জনস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবারের গুরুত্ব অপরিসীম।অনিরাপদ খাদ্য অনেক সময় মারাত্মক ঝুঁকি সৃষ্টি করে। এজন্য জনগণকে সচেতন করতে হবে। কৃষকদের দক্ষ ও সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে। সার ও কীটনাশক ব্যবহার, খাদ্যদ্রব্যের প্রক্রিয়াজাতকরণ ও প্যাকেটজাতকরণ, সরবরাহ ব্যবস্থা, সংরক্ষণসহ খাদ্যশৃঙ্খলার প্রতিটি ক্ষেত্রে খাদ্যকে নিরাপদ রাখতে সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে সব সময় খাদ্য পরিবেশকদের চাপের মধ্যে রাখতে হবে।

খোকসায় নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলায় নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফফারা তাসনীনের নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহর  প্রদক্ষিণ করে উপজেলা চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা পরিষদের হলরুমে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফফারা তাসনীন। অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) সাদিয়া জেরিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বেতবাড়ীয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বাবুল আখতার, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্বা কমান্ডার ফজলুল হক, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা গোপেস চন্দ্র, শোমসপুর আবু তালেব ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ রায়হান সুলতান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার সবুজ কুমার সাহা, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাসেদ হাসান, ওসমানপু ইউপি চেয়ারম্যন আনিসুর রহমান বাবলু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আরিফুল আলম তশর, খোকসা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শেখ সাইদুল ইসলাম প্রবীন প্রমূখ। এ ছাড়াও উপজেলা বিভিন্ন  দপ্তরের কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, সুধী ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

আলমডাঙ্গায় ৮টি কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলার ৮টি কেন্দ্রে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে মোট ৩ হাজার ৮শ ২৪ জন পরীক্ষার্থী। গতকাল শনিবার বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষায় আলমডাঙ্গা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ৮শ ৩৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২ জন অনুপস্থিত, কলেজ কেন্দ্রে ভোকেশনাল পরীক্ষায় ৩১৮ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪ জন অনুপস্থিত, আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ১ হাজার ৪৮ জন ছাত্র/ছাত্রীর মধ্যে ৩ জন অনুপস্থিত। আলমডাঙ্গা আলিম সিদ্দিকীয়া মাদ্রসা কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষায় কোরআন মজিদ ও তাসবীদ বিষয়ে ২৫৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২ জন অনুপস্থিত। মুন্সিগঞ্জ একাডেমী ও বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ৭৩৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪ জন অনুপস্থিত। এছাড়াও হাটবোয়ালিয়া স্কুল এন্ড কলেজ ও হাটবোয়ালিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ৬২৫ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত টানা ৩ ঘন্টা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নানসহ ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সার্বক্ষণিক বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এছাড়াও প্রতিটি কেন্দ্রে ১ জন করে অফিসার সার্বক্ষণিক দায়িত্বরত ছিলেন।

মিয়ানমারের সুপ্রিম কোর্টে দুই রয়টার্স সাংবাদিকের আপিল

ঢাকা অফিস ॥ মিয়ানমারে দাপ্তরিক গোপনীয়তা আইন ভঙ্গের অভিযোগে কারাদন্ড পাওয়া দুই রয়টার্স সাংবাদিক এবার তাদের সাজার বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেছেন। শুক্রবার তাদের আইনজীবীরা এ আপিল করেন। আপিলে পুলিশ মামলাটি সাজিয়েছে-এমন প্রমাণ আছে এবং সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অপরাধের প্রমাণেরও ঘাটতি আছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। রয়টার্সও এক বিবৃতিতে বলেছে, “পিটিশনে আমরা সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানিয়েছি যাতে নিম্ন আদালতের ক্রটি শুধরে চূড়ান্তভাবে সাংবাদিক ওয়া লোন এবং কিয়াও সোয়ে ও ‘র জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা হয় এবং এ দুই সাংবাদিককে মুক্তির নির্দেশ দেওয়া হয়।” মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিপীড়নের তথ্য সংগ্রহের সময় গ্রেপ্তার রয়টার্সের দুই সাংবাদিক ওয়া লোন (৩২) এবং কিয়াও সো ও (২৮) কে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে ২০১৭ সালে গ্রেপ্তার করা হয়। গত বছর সেপ্টেম্বরে তাদের সাত বছরের কারাদন্ড  দেয় দেশটির একটি আদালত। বরাবরই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে আসা দুই সাংবাদিক মামলার বিচারের সময় আদালতকে বলেছিলেন, ২০১৭ সালের ১২ ডিসেম্বর ইয়াংগনের এক রেস্তোরাঁয় দাওয়াত দিয়ে নিয়ে দুই পুলিশ সদস্য তাদের হাতে কিছু মোড়ানো কাগজ ধরিয়ে দেন এবং তার পরপরই সেখান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

কুষ্টিয়া পাবলিক স্কুলে অভিভাবক সমাবেশ

গতকাল রবিবার কুষ্টিয়া পাবলিক স্কুল এর আয়োজনে অভিভাবক সমাবেশ কাটাইখানা মোড় অনুষ্ঠিত হয়েছে। অভিভাবক সমাবেশ উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের প্রাক্তন ভাইস প্রিন্সিপাল, প্রফেসর আবু জাফর সিদ্দিকী, বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সরকারী মহিলা কলেজের সহযোগী ব্যবস্থাপক (ইংরেজি বিভাগ) অজয় মৈত্র, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের সহযোগী ব্যবস্থাপক (রাষ্ট্রবিজ্ঞান) ড. মোঃ আব্দুল কুদ্দুস খান, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজের সহযোগী ব্যবস্থাপক (বাংলা বিভাগ) মোঃ সিরাজুল ইসলাম, শিশু সংগঠক, কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্স এর সমাজ সেবক ও সাবেক সভাপতি আশরাফ উদ্দিন নজু, সনো হসপিটাল ম্যানেজার মির্জা শাহ আলম, এরিষ্ট কম্পিউটার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও স্বত্বাধিকারী এ এম এম রোকনুজ্জামান নান্টু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক এমাম হান্নান বিশ^াস। সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া পাবলিক স্কুলের চেয়ারম্যান ড. আমানুর আমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া পাবলিক স্কুল এর প্রধান শিক্ষক সাহাবুদ্দিন শেখ, অভিভাবকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সিরাজুল ইসলাম, এ্যাডভোকেট নাজনীন আক্তার, ব্যাংকার মোঃ মনিরুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসার মোঃ হামিদুল ইসলাম বিপ্লব। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কালুখালীতে শান্তিপূর্ণভাবে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা শুরু

ফজলুল হক ॥ গতকাল শনিবার রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার ৩টি কেন্দ্রে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা ২০১৯ শান্তিপূর্ণ ভাবে শুরু হয়েছে। এ বছরে উপজেলার কালুখালী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে বাংলা ১ম পত্রে ২টি ভেন্যুতে মোট ৯১৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯১৭ জন অংশগ্রহণ করে। মৃগী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬০৭ জন পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৬০৪ জন অংশগ্রহণ করে। অপরদিকে কালুখালী হোগলাডাঙ্গী এমআই কামিল মাদরাসা কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষায় প্রথম দিনে কুরআন মাজিদ বিষয়ে মোট ২৭০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৬৬ জন অংশগ্রহণ করে।  সকাল ১০ টা  থেকে শুরু হয়ে দুপুর ১টা পর্যন্ত পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কেন্দ্রের সার্বিক দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামরুন নাহার। এছাড়াও কালুখালী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে দায়িত্বে ছিলেন কেন্দ্র সচিব প্রধান শিক্ষক এমএ খালেক, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম আজাদ, সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা আঃ জব্বার, সহ কেন্দ্র সচিবে হিসেবে  মোঃ সিহাব উদ্দিন মোল্লা, মোঃ আয়ুব আলী ও শাহাজাহান আলী। হোগলাডাঙ্গী এমআই কামিল মাদরাসা কেন্দ্রে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিয়া ইসলাম লুনা, কেন্দ্র সচিব অধ্যক্ষ মাওঃ মোঃ নুরুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহকারী মৎস্য অফিসার শাহরিয়ার জামান সাবু, সহ কেন্দ্র সচিব মোঃ লুৎফর রহমান এছাড়াও মৃগী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রফিকুল ইসলাম, কেন্দ্র সচিব মোঃ শাজাহান আলী, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জয়ন্ত কুমার দাস, সহ কেন্দ্র সচিব মোঃ রেজাউল আলম ও মোখলেছুর রহমান দায়িত্ব পালন করেন। আইন শৃঙ্খলা রক্ষার পুলিশ প্রশাসন সকল কেন্দ্রে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

আলমডাঙ্গায় জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং বিরোধী মতবিনিময় সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গার জামজামী ইউনিয়নের ঘোষবিলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে সিইও,এমবিএম গ্র“প ঢাকার উদ্যোগে জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক, বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং বিরোধী এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বেলা ১২ টার দিকে আলমডাঙ্গার ঘোষবিলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সিইও,এমবিএম গ্র“পের সাইফুর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কলিমুল্লাহ। তিনি বলেন আপনাদের সহযোগিতা পেলে সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূল করা সম্ভব। ইভটিজিংকারীরা যেই হোক না কেনো তাদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। বাল্য বিবাহ রোধকল্পে আপনাদের সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন। আপনারা সংবাদ দিলে পুলিশ প্রশাসন সকল প্রকার সাহায্যের জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করবে। এছাড়াও জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন যে কোন বিষয়ে আপনারা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে পুলিশ আপনাদের সহায়তা করতে বাধ্য থাকবে। বিশেষ অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ মুন্সি আসাদুজ্জামান আসাদ, জামজামী ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির আহবায়ক শহিদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা রিপন শাহ্, সাহারুজ্জামান। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাহাব উদ্দিনের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা রতন শাহ্, সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছাদ আহমেদ, ডাঃ আব্দুল আলিম, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদশা খন্দকার, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম শওকত বিস্কুট, গোলাম সরোয়ার, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান প্রমুখ।

এসএসসি

চট্টগ্রামে ৭টি কেন্দ্রে ভুল প্রশ্নপত্র

ঢাকা অফিস ॥ চট্টগ্রামে এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে ‘কেন্দ্র সচিবদের ভুলে’ কয়েকটি কেন্দ্রে ২০১৮ সালের সিলবাস অনুসারে প্রণীত প্রশ্নে ২০১৯ সালের পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা গ্রহণ হয়েছে। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন সাতটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের ভুলের তথ্য জানিয়েছেন বোর্ড কর্মকর্তারা।

সারাদেশে শনিবার একযোগে শুরু এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা প্রথম পত্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রামের সাতটি কেন্দ্রের পাশাপাশি ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের মাদারীপুরের কালকিনিতে একটি, মুন্সীগঞ্জে একটি এবং নেত্রকোনার একটি কেন্দ্রেও এই ধরনের ভুল প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়েছে। চট্টগ্রামে যে সাত কেন্দ্রে ভুল প্রশ্নপত্র দেওয়া হয়েছে, সেগুলো হল নগরীর ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মিউনিসিপ্যাল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, পতেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয় ও গরীবে নেওয়াজ উচ্চ বিদ্যালয় এবং কক্সবাজারের পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উখিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও উখিয়া পালং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র। এরমধ্যে ডা. খাস্তগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া দেড় হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৪ জন ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা দেন বলে জানিয়েছে শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তারা। অন্য ছয় কেন্দ্রে কতজন পরীক্ষার্থী এই ভুলের শিকার হয়েছেন, তা জানাতে পারেনি শিক্ষা বোর্ড। ইতোমধ্যে ওই সাত কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকারী কেন্দ্র সচিবদের ‘শোকজ’ করা হয়েছে জানিয়ে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বলেন, তদন্ত করে বিধি অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, এবার বাংলা পরীক্ষা ২০১৬, ২০১৮ এবং ২০১৯ সালের সিলেবাসের প্রশ্নপত্র অনুসারে হওয়ার কথা। এর মধ্যে সাতটি কেন্দ্রে কেন্দ্র সচিবদের ভুলে ২০১৯ সালের সিলেবাসে যাদের পরীক্ষা দেওয়ার কথা, তাদের মাঝে ২০১৮ সালের সিলেবাস অনুসারে প্রণীত প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হয়েছে।” এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “কতজন শিক্ষার্থীর ক্ষেত্রে এটা হয়েছে, তা জানা সম্ভব হয়নি। পরে বিস্তারিত জানাতে পারব। তবে এতে পরীক্ষার্থীরা যাতে কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হন, সে ব্যবস্থা অবশ্যই করা হবে।” মিউনিসিপ্যাল মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী এক ছাত্রের বাবা ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, “দেশের সবচেয়ে বড় পাবলিক পরীক্ষার ব্যবস্থাপনায় এ ধরণের গাফিলতি কোনোভাবে মেনে নেয়া যায় না। এতে যদি পরীক্ষার্থীদের ফলাফলে প্রভাব পড়ে তাহলে তার জন্য কারা দায়ী হবে?” ওই অভিভাবকের দাবি মিউনিসিপ্যাল মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৭৭ জন শিক্ষার্থী ভুল প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়েছেন। তবে সেটি নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দারের ব্যাপক গনসংযোগ

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময়  কাটাচ্ছেন বাংলদেশ আওয়ামী যুবলীগ  মিরপুর  উপজেলা শাখা সভাপতি আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার । গতকাল শনিবার সকাল থেকে  তিনি মিরপুর উপজেলার ধুবইল ও চিথলিয়া ইউনিয়নে বিভিন্ন পাড়া মহল¬ায়, পথে প্রান্তরে, মাঠে ঘাটে  তীব্র শীতকে উপেক্ষা করে ছুটে চলছে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। কুশল বিনিয়ম করছে সকল শ্রেণির মানুষের সঙ্গে। যোগ দিচ্ছে নানা ধরনের সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে। নিজ এলাকায় গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মতবিনিময়সহ উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে উদীয়মান  এই ত্যাগী নেতা। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ও উপজেলা জুড়ে আসন্ন ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়াই করার ব্যাপক সাড়া জুগিয়েছেন এই ত্যাগী নেতা।  অনেক ভোটার বলেন  তরুণ প্রজন্মসহ  উপজেলার সকল শ্রেণির জনগণ নিয়ে সুন্দর আগামী গড়ার প্রত্যয় নিয়ে ভাইস চেয়ারমান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে জানা যায় । তার নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করার সময় তার সফর সঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধুবইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক  মিজানুর রহমান, মিরপুর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হালিম বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বহলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  সোহেল রানা,   সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান  মোর্শেদ ও সোহাগ আহম্মেদ, প্রচার সম্পাদক মঈন মন্ডল,  ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ মোস্তাক, ধুবইল ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব,  যুবলীগ নেতা আব্দুল¬াহ,  মাসুম,  সাইদুল সহ ধুবইল ও চিথলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

কুষ্টিয়া পুলিশ শপিং কমপ্লেক্সের সামনে রুচিতা ফুড এন্ড সুইটসের উদ্বোধন

সুস্থ জীবনের জন্য বিশুদ্ধ খাদ্যের নিশ্চয়তা নিয়ে কুষ্টিয়ায় রুচিতা ফুড এন্ড সুইটসের উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনের সামনে এই ফাস্টফুড সেন্টারের উদ্বোধন করা হয়। রুচিতা ফুড এন্ড সুইটসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রোটারী ক্লাব অব কুষ্টিয়ার সেক্রেটারী এম এম আলিমুল হক সনজুর পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ডেপুটি গভর্নর রোটা: অজয় সুরেকা, এসিষ্ট্যান্ট গভর্নর রোটা: ওবাইদুর রহমান, রোটারী ক্লাব অব কুষ্টিয়ার প্রেসিডেন্ট রোটাঃ ফখরুল আলম মিলন, জয়েন্ট সেক্রেটারী রোটাঃ রাসেল পারভেজ, কম্পিউটার স্পেস ইনস্টিটিউটের পরিচালক মোঃ জাহিদুল ইসলাম রনি, রোটাঃ মোসাদ্দেক আলি মনি, শাহ জামাল তানভীর ও ভালোবাসার কুষ্টিয়া সংগঠনের চেয়ারম্যান ও লেখক হাসান টুটুল । উল্লেখ্য, রুচিতা ফুড এন্ড সুইটস এ বিভিন্ন রকমের স্পেশাল মিষ্টি, ফাস্ট ফুড, চিকেন গ্রীল, নান, কাবাব, হালিম, জুস, বেকারী পণ্য,  ব্রেড, দই, রসমালাই ও কনফেকশনারী সামগ্রী পাওয়া যাবে। প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলিমুল হক সনজু জানান, কুষ্টিয়ার রূচিশীল ব্যাক্তিদের চাহিদা অনুসারে আক্ষরিক অর্থেই সম্পূর্ন বিশুদ্ধ খাবার পরিবেশনে আমরা অঙ্গিকারবদ্ধ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুরে যুবলীগ নেতা মেঘার দাফন সম্পন্ন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে যুবলীগ নেতা গোলাম কিবরিয়া মেঘার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর ২টায় উপজেলার ডাংমড়কা মাদ্রাসা মাঠ সংলগ্ন কবরস্থানে জানাযা শেষে তার দাফন সম্পন্ন হয়। জানাযা পূর্ব মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আল মামুন, আ’লীগ নেতা টিপু নেওয়াজসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও সুধীজন। শুক্রবার রাত ৭টার দিকে উপজেলার ডাংমড়কা বাজারস্থ নিজ বাসভবনে হৃদযন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে যুবলীগ নেতা মেঘা (৫৫) ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। উল্লেখ্য ২০০১ সালের নির্বাচনের পর দৌলতপুরে যে সকল আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী অমানষিক নির্যাতন, অত্যাচার, মামলা হামলা ও অপহরনের শিকার হয় তার মধ্যে গোলাম কিবরিয়া মেঘা ছিলেন অন্যতম একজন নির্যাতিত নেতা।

ইঞ্জিনিয়ার্স ফাউন্ডেশন দৌলতপুরের আহ্বায়ক কমিটি গঠন

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার ইঞ্জিনিয়ার্স ফাউন্ডেশন দৌলতপুরের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই উপলক্ষ্যে গতকাল বিকেলে ঢাকা কল্যাণপুর কনফিগার সাধনা’র ২য় তলায় এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। মোঃ হাাংন-অর-রশিদ (সাবেক ভিপি কেপিআই) এর সভাপতিত্বে কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার সকল পেশার ইঞ্জিনিয়ারের সর্বসম্মতিক্রমে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিতে মোঃ হাাংন-অর-রশিদকে আহ্বায়ক এবং ইঞ্জিঃ ইলিয়াস হোসেনকে সদস্য সচিব করা হয়। কমিটির অনান্যদের মধ্যে ৫ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক যথাক্রমে মোঃ আলমগীর হোসেন, মোঃ আব্দুস সাত্তার, মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ শামসুজ্জামান বাবুল, মসিউর রহমান, যুগ্ম সদস্য সচিব কাওসার আহম্মেদ লেলিন, অর্থ সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, দপ্তর সম্পাদক সরোয়ার জাহান সাগর, প্রচার সম্পাদক সাকিল আহমেদ রাজা এবং দৌলতপুর থানার ১৪ ইউনিয়নের ১৪ জনকে সদস্য করে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। নবগঠিত এই কমিটি আগামী ৩ মাসের মধ্যে বড় সেমিনার করে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করবে।

 

দৌলতপুরে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস পালন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ ‘সুস্থ্য-সবল জাতি চাই, পুষ্টিসম্মত নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নাই’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার দৌলতপুরেও জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস-২০১৯ পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকালে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের নেতৃত্বে একটি র‌্যালি উপজেলা পরিষদ চত্বরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে দিবনের প্রতিপাদ্য নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অরবিন্দ কুমার পাল, দৌলতপুর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাইদুর রহমানসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও সুধীজন।

দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ

খলিসাকুন্ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ

হাবিবুর রহমান ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে খলিসাকুন্ডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাউকে কিছু না জানিয়েই মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে প্রধান শিক্ষককে নিয়োগ দিয়েছে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলাম। এমনকি প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে কিছুই জানেন না বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরাও। জানা যায়, বিদ্যালয় থেকে গত ৩১ ডিসেম্বর চাকুরী জীবন শেষ করে অবসরে যান বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হক। ঐ দিন বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পান বিদ্যালয়েরই সহকারী প্রধান শিক্ষক সাঈদ আলী। বেশিদিন নিজের নামের আগে ভারপ্রাপ্ত রাখতে চাননি সাঈদ আলী। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলামকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে পরের দিন ২ জানুয়ারিই বিদ্যালয়ের অন্য কোন সদস্য কিংবা শিক্ষককে কিছু না জানিয়েই প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য একটি পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়। যে পত্রিকাটি কুষ্টিয়াতেই পাওয়া যায় না। এরপর ১৫ জানুয়ারি গোপনীয়ভাবেই পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য প্রবেশপত্র পান এবং ২৫ জানুয়ারি পরিকল্পিতভাবেই নেওয়া হয় লিখিত ও ভাইবা পরীক্ষা। এদিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে দেওয়ার কথা থাকলেও তা দেওয়া হয়নি। ২৭ জানুয়ারি যথারীতি প্রধান শিক্ষক হিসাবে বিদ্যালয়ে যোগদান করেন তিনি। তার নিয়োগের ব্যাপারে কোন কিছুই জানেন না বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্যসহ বিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষক প্রতিনিধি ফারুক হোসেন জানান, শিক্ষক নিয়োগের ব্যাপারে কোন আলোচনা বা মিটিংই বিদ্যালয়ে হয়নি। আমাকে একদিন বলেছিলো বিদ্যালয়ে মাদক বিরোধী কমিটি করা হচ্ছে সেখানে শিক্ষক প্রতিনিধি হিসাবে স্বাক্ষর করতে হবে। আমি সেখানে স্বাক্ষর করি। এখন দেখছি সেটা মাদক বিরোধী কমিটির জন্য না সেটা নাকি প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ব্যপারে ছিলো। আমি সই করার সময় সাদা কাগজ দেখে সই করতে চাইনি। মাদক বিরোধী কমিটির কথা বলে আমার সই নিয়েছে। আরেকজন শিক্ষক প্রতিনিধি আসলাম হোসেন জানান, আমাকে সভাপতি বললো সই করতে, আমি কিছু না দেখেই সই করে ক্লাসে গিয়েছিলাম। এছাড়া আমি কিছু জানি না। আরেকজন শিক্ষক প্রতিনিধি নাসরিন সুলতানা জানান, আমাকে সভাপতি সাদা রেজুলেশন বইতে সই করতে বলেছিলো। কিন্তু আমি সেটা জানতে চাই কেন সাদা রেজুলেশনে সই করবো।  সে জানাতে অনিচ্ছা প্রকাশ করলে আমি সেখানে সই করিনি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক জানান, নিয়োগের ব্যপারে আমি কিছুই জানিনা। সব সভাপতি জানে। সভাপতিই পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়েছিলো। আর আমি পরীক্ষার মাধ্যমে স্বচ্ছভাবেই নিয়োগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলাম জানান, নিয়োগ প্রক্রিয়াসহ সকল কাজ নিয়ম অনুযায়ীই হয়েছে। এখানে কোন দূর্নীতি আর অনিয়ম হয়নি। আর রেজুলেশন খাতা বিদ্যালয়ে নেই সেটা আমার কাছেই থাকে। কুষ্টিয়া জেলা শিক্ষা অফিসার জায়েদুর রহমান জানান, বিষয়টি আমিও শুনেছি। এখন পর্যন্ত আমার কাছে কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গাংনীতে সড়ক দূর্ঘটনায় চুয়াডাঙ্গার কলেজ ছাত্র নিহত – বন্ধু আহত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আক্তারুল হক (২৪) নামের এক কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তার বন্ধু হারুন-অর-রশীদ হারু (২৬)। নিহত আক্তারুল চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার রামনগর গ্রামের আজিজুল হক মাস্টারের ছেলে এবং আহত হারু একই গ্রামের হাজী আলী কদরের ছেলে। তারা দু’জনই চুয়াডাঙ্গা সরকারী কলেজের ছাত্র। গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আক্তারুল মারা যান। স্থানীয়রা জানান, গতকাল শনিবার সকালের দিকে কলেজ ছাত্র আক্তারুল ও হারু একটি মোটরসাইকেল যোগে আলমডাঙ্গার হাটবোয়ালিয়ার দিক থেকে  গাংনী শহরের দিকে যাচ্ছিলেন। তারা গাংনী উপজেলা শহরের র‌্যাব ক্যাম্পের নিকট পৌঁছালে, মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এ সময়  বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি আলগামন গাড়ীর সাথে মুখোমুখি ধাক্কা লাগে। ওই ধাক্কায় তারা রাস্তায় ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয়। পথচারীরা তাদের উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেয়। এ সময় তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিলে, সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। পরে দুপুরে আক্তারুল মারা যান। গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম), ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।