দৌলতপুরে অগ্নিকান্ড ঘটে মোটর সাইকেলসহ বাড়ি ভষ্মিভূত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অগ্নিকান্ড ঘটে মোটরসাইকেলসহ একটি বাড়ি ভষ্মিভূত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার পিয়ারপুর ইউনিয়নের বিলতলা গ্রামের আব্দুল হালিমের রান্না ঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। এলাকাবাসী আগুন নিয়ন্ত্রনে নেওয়ার চেষ্টা করলেও মুহুর্তের মধ্যে আগুন বাড়ির সব ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে একটি মোটর সাইকেল সহ বাড়ির ৪টি ঘর পুড়ে ভষ্মিভূত হয়। সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিস দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অগ্নিকান্ড ঘটে আব্দুল হালিমের বাড়ির ৪টি ঘর ও ঘরের আসবাবপত্র পুড়ে প্রায় ৬ লাখ টাকার সম্পদ পুড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বর্তমানে পরিবারটি খোলা আকাশের নীচে অসহায় অবস্থায় রয়েছেন।

এ্যাডোর উদ্যোগে যুব সেেম্মলন -২০১৯ উপলক্ষ্যে ইউনিয়ন ভিত্তিক কনফারেন্স

অ্যাক্শন্ ফর হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অরগানাইজেশন ‘এ্যাডো” এর সমৃদ্ধি কর্মসূচির আওতায় কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা উপজেলার জুনিয়াদহ ইউনিয়নে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় “উন্নয়নে যুব সমাজ” কার্যক্রমের সফলতা জাতীয় পর্যায়ে তুলে ধরার লক্ষ্যে ইউনিয়ন ভিত্তিক কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। উক্ত কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মো: সোহেল মারুফ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ভেড়ামারা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, ওয়াজেদ আলী, সাবেক প্রধান শিক্ষক, পরানখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইমদাদুল আলী, সহকারী শিক্ষক পরানখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সভায় সভাপতিত্ব করেন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক জে.এম.নাজিমুদ্দীন আক্কেল, সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সমৃদ্ধি কর্মসূচির সমন্বয়কারী খন্দকার কামরুজ্জামানসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও ইউনিয়নের যুব কমিটির সদস্যগণ, কনফারেন্সের উদ্বোধনী আলোচনায় সংস্থার পক্ষ থেকে সমৃদ্ধি কর্মসূচি ও প্রবীনদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচির বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করেন সংস্থার কর্মসূচি সমন্বয়কারী সুখকৃতি অধিকারী, তিনি তার বক্তব্যে সমৃদ্ধির যুব কমিটির সদস্যদের উদ্যোগে এলাকার রাস্তার পাশের্^ গাছ লাগানো, রাস্তার ছোট খাটো ভাংগা মেরামত, মজা ও ব্যবহারের অযোগ্য পুকুর পরিস্কার করার তথ্য উপস্থাপন করেন। এছাড়াও সমৃদ্ধি কর্মসূচির আওতায় এপর্যন্ত স্বাস্থ্যসেবা খাত, শিক্ষাখাত, কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট, ভিক্ষুক পুর্ণবাসন, শিক্ষাবৃত্তি প্রদান সহ প্রবীনদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচিতে গৃহীত কর্মসূচির মধ্যে মৃত ব্যক্তির সৎকারের জন্য অনুদান প্রদান, প্রবীনদের একত্রীকরন, প্রশিক্ষণ প্রদান সহ ভবিষ্যতে গৃহীত কর্মসূচির বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করেন। এর মধ্যে রয়েছে বয়স্ক ভাতা প্রদান, অসুস্থদের জন্য থেরাপীর ব্যবস্থা করা, পঙ্গুদের জন্য হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা, শীতার্তদের জন্য কম্বল ও চাদরের ব্যবস্থা করা, তাদের মানসিকভাবে সবল করার জন্য প্রবীন সামাজিক কেন্দ্র তৈরী, অস্বচ্ছল প্রবীনদের জন্য ভরন পোষন ও আবাসন এবং প্রবীন সম্মাননা প্রদান সহ আরও বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এরপর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে  জুনিয়াদহ ইউনিয়নে এ্যাডো কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির ভূয়সী প্রসংসা করেন। জনাব মো: ওয়াজেদ আলী সাবেক প্রধান শিক্ষক পরানখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, তার বক্তব্যে জুনিয়াদহ ইউনিয়নে উন্নয়নের কর্ণধার হিসেবে এ্যাডোকে চিহ্নিত করেন। অত:পর প্রধান অতিথি ভেড়ামারা উপজেলার সুযোগ্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মো: সোহেল মারুফ তাঁর শুভেচ্ছা বক্তব্যে উন্নয়নের প্রতিবন্ধকতা হিসেবে বাল্যবিবাহ, অশিক্ষা ও কুসংস্কারকে উল্লেখ করেন এবং এ্যাডো কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির প্রশংসা করেন এবং ভবিষ্যতে সকল কর্মসূচিতে তার সহযোগীতা থাকবে বলে আশ^স্ত করেন ও দিন ব্যপী কনফারেন্সের উদ্বোধন ঘোষনা করেন। উক্ত কনফারেন্সে ৯ (নয়) জন প্রতিযোগী নয়টি নির্ধারিত থিম ভিত্তিক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এদের মধ্যে থেকে বাছাইকৃত ৩ জনকে আগামী ২৭-২৮ ফেব্র“য়ারী’২০১৯ ঢাকার বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সন্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত যুব সন্মেলন-২০১৯ এ অংশ গ্রহণের জন্য প্রেরণ করা হবে । অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনায় সঞ্চালকের ভুমিকা পালন করেন সোহেল রানা, সামাজিক উন্নয়ন কর্মকর্তা, এ্যাডো সমৃদ্ধি কর্মসূচি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী

আসলে তথ্যমন্ত্রী এখন যেন তথ্যযন্ত্রীতে পরিণত হয়েছেন

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, প্রকাশিত রূপের চেয়ে প্রকৃতপক্ষে দুর্নীতির মাত্রা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রিত বলে সব তথ্য প্রকাশিত হচ্ছে না। সম্প্রতি ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের ‘দুর্নীতির ধারণাসূচকে’ বাংলাদেশের ছয় ধাপ অবনমন নিয়ে তথ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের তিনি বলেন, গতকাল (গত বুধবার) তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের রিপোর্ট বিএনপির আমলে সঠিক ছিল, এখন মনগড়া। বাহ! বাহ! তাহলে বিএনপি আমলের জলবায়ুরও কী পরিবর্তন হয়েছে গেছে? বর্ষাকালে বর্ষা হয় না, শীতকালে শীত পড়ে না, বসন্তকালে কোকিল ডাকে না। বিএনপির আমলে ডাকত এখন ডাকে না? তার কথাতে আমার এটাই মনে হচ্ছে। একই প্রতিষ্ঠান বিএনপির আমলে যেটা বলেছে সেটা সঠিক, এখন সেটা বেঠিক হয়ে গেল। রিজভী বলেন, আসলে তথ্যমন্ত্রী এখন যেন তথ্যযন্ত্রীতে পরিণত হয়েছেন। তিনি তার তথ্যযন্ত্রের মাধ্যমে এমন আজগুবি তথ্য দেন, ততে শুধু দেশবাসীই নয়, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ও বিস্ময়ে হতবাক হয়ে পড়ে। তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে দুর্নীতির মাত্রা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রিত বলে সব তথ্য প্রকাশিত হচ্ছে না। কেবল টিআইই নয়, ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটি গত সোমবার বাংলাদেশ থেকে অর্থ পাচার বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। সেখানে দেখা গেছে, শুধু ২০১৮ সালে বাংলাদেশ থেকে পঞ্চাশ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়েছে। আর গত ১০ বছরে পাচার হয়েছে পাঁচ লাখ ত্রিশ হাজার কোটি টাকা। এই দুর্নীতির টাকা আওয়ামী ও সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকেরাই পাচার করেছে। সুতরাং তথ্যমন্ত্রী গণমাধ্যমকে ডেকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সত্যকে আড়াল করতে পারবেন না। বার্ণিভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টান্যাশনালের দুর্নীতির ধারণাসূচকে এবার বাংলাদেশের অবস্থান ছয় ধাপ অবনমন ঘটেছে। সূচকের ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী (ভাল থেকে খারাপ) বাংলাদেশের অবস্থান এবার ১৪৯ নম্বরে। গতবার ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৪৩ নম্বরে। আবার অধঃক্রম অনুযায়ী (খারাপ থেকে ভালো) বিবেচনা করলে বাংলাদেশ আগের ১৭তম অবস্থান থেকে নেমে গেছে ১৩তম অবস্থানে। ১০০ ভিত্তিতে এই সূচকে বাংলাদেশের স্কোর এবার ২ পয়েন্ট কমে ২৬ হয়েছে। এই স্কেলে শূন্য স্কোরকে দুর্নীতির ব্যাপকতার ধারণায় সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত এবং ১০০ স্কোরকে সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত বা সর্বোচ্চ সুশাসনের দেশ হিসাবে বিবেচনা করা হয়। গত বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ টিআইয়ের এই প্রতিবেদনকে উদ্দেশ্যমূলক বলেছেন। বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ভুয়া ভোটের সরকার আরো জোরালোভাবে রাষ্ট্রের আইন, বিচার ও নির্বাহী বিভাগকে একই কেন্দ্রের অধীনে করল। রাষ্ট্রের ক্ষমতার ভারসাম্য ক্ষয় হতে হতে এখন ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে। বিরোধী দল, মত ও বিশ্বাসের ওপর চলছে টার্গেট দমন-পীড়ন। নাগরিকদের রাজনৈতিক অংশগ্রহণ সংকুচিত হতে হতে এখন নিঃশেষিত হয়ে বিরাজনীতিকরণের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত পর্বে এসে উপনীত হয়েছে। রাষ্ট্রের মেশিনারিজ ভুয়া ভোটের সরকারের অনুকূলে এখন বিভৎস চেহারায় জনগণের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছে। ‘এক ব্যক্তি, এক দল’ নীতির বেপরোয়া আস্ফালন জনগণকে আতঙ্কিত করে রেখেছে। জনগণকে পরাধীন করে এখন আওয়ামী লীগ উপনিবেশ কায়েম করেছে। নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, সাহিদা রফিক, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ফেরত চাওয়া হয়েছে – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। গতকাল বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি একথা বলেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনার জন্য আলোচনা করা হয়েছে। এর আগে বঙ্গবন্ধুর আরেক খুনি মহিউদ্দিন আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেরত আনা হয়েছিলো। সেভাবে খুনি রাশেদ চৌধুরীকেও ফেরত দিতে বলেছি। রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেওয়ার বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত কি বলেছেন- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রদূত বলেছেন, তিনি বিষয়টি ওয়াশিংটনে জানাবেন। যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড জানান, দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক, বাণিজ্য ইত্যাদি খাতে সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। উভয় দেশ যেন উইন উইন অবস্থায় যেতে পারে আমরা সে লক্ষ্যে কাজ করবো।

নকল ওষুধ কোম্পানিগুলোকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ দেশের আঞ্চলিক বাজারে এখনও অনেক নকল ওষুধ রয়েছে বলে মন্তব্য করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, এসব নকল ওষুধের কারণে ওষুধশিল্পসহ দেশের মানুষ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আমরা বিষয়টি নজরে রেখেছি। ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মাধ্যমে এসব নকল ওষুধ কোম্পানিগুলোকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসি’বি) শুরু হওয়া ‘১১তম এশিয়া ফার্মা এক্সপো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতি এবং জিপিই এক্সপো প্রাইভেট লিমিটেডের যৌথ আয়োজনে ৩ দিনব্যাপী চলবে ‘১১তম এশিয়া ফার্মা এক্সপো’। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রয়োজনীয় ওষুধের ৯৮ শতাংশ দেশে উৎপাদিত বিভিন্ন দেশীয় কোম্পানির কাছ থেকে আসছে। আমাদের চাহিদাকে এভাবে মিটিয়ে ফেলা অবশ্যই একটি গৌরবের বিষয়। বর্তমানে আমরা ইউরোপ, আমেরিকাসহ ১৫০টি দেশে ওষুধ রফতানি করছি। আমাদের এই রফতানির মাত্রা আরো বাড়াতে হবে। ওষুধ শিল্পের ক্ষেত্রে গার্মেন্টস শিল্পের চেয়ে বেশি উন্নয়ন ঘটানোর সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে আমাদের জিডিপির প্রায় ৪০ থেকে ৫০ ভাগ আসে শিল্প থেকে। তাই এই শিল্পের উন্নয়ন ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব না। এ ক্ষেত্রে আমাদের তরুণ দক্ষ জনবলকে কাজে লাগাতে হবে। সরকার এই শিল্পের উন্নয়নের ক্ষেত্রে সর্বদা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সরকার ওষুধের মান নিয়ন্ত্রণের জন্য আন্তর্জাতিক মানের ল্যাবরেটরি নির্মাণ করছে। যাতে করে এই ল্যাবের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলাফল বহির্বিশ্বে গ্রহণযোগ্য হয়। তখন আমাদের ওষুধ রফতানির পরিমাণ আরো বেড়ে যাবে। তাছাড়া এপিআই (অ্যাকটিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রেডিয়েন্টস) পার্ক হতে যাচ্ছে। যেখানে আপনারা ওষুধের কাঁচামাল উৎপাদনের ফ্যাক্টরি স্থাপন করতে পারবেন। পার্ক ছাড়াও সরকার এ ক্ষেত্রে ইন্সেন্টিভ দিচ্ছে। এই ইন্সেন্টিভসকে কাজে লাগিয়ে আপনারা দেশের ওষুধ শিল্পের উন্নয়নে অংশগ্রহণ করতে পারেন। জনগণকে কষ্ট দিলে প্রধানমন্ত্রী ছাড় দেবেন না উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশের জনগণকে স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত করলে কিংবা এ ক্ষেত্রে কষ্ট দিলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমনই নির্দেশ দিয়েছেন। রোগী যদি হাসপাতাল এগিয়ে চিকিৎসক না পায় তাহলে সে কঠোর শাস্তির আওতায় আসবে। এ ক্ষেত্রে আমরা একটি মনিটরিং সেল গঠন করেছি যা স্বাস্থ্য অধিদফতরের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। দেশের ১৬ কোটি লোক দেশেই চিকিৎসা গ্রহণ করে। এই বৃহৎ জনগোষ্ঠীকে কোনভাবেই চিকিৎসা ক্ষেত্রের মতো স্পর্শ কাতর বিষয়ে আঘাত দেওয়া যাবে না। হাতে গোনা মাত্র কয়েক লাখ লোক দেশের বাইরে চিকিৎসা নিতে যায়। বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির মহাসচিব এসএম শফিউজ্জামানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বেক্সিমকো গ্র“পের কর্ণধার ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. রুহুল হক, ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মুস্তাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন প্রমুখ। এক্সপোটি’রসূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এক্সপোটি চলবে। এই এক্সপোতে রয়েছে ওষুধ উৎপাদন, কাঁচামাল, গবেষণাভিত্তিক ল্যাবের যন্ত্রপাতি, প্যাকেজিং সংশ্লিষ্ট মেশিনারিজ ও বিভিন্ন নতুন প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কোম্পানির উপস্থাপনা। যাদের এদেশে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার দৃঢ় মনোভাব রয়েছে। এবারের এক্সপোটিতে সর্বমোট ৬৫০টি ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি রয়েছে এবং ৫০টিরও অধিক দেশ অংশগ্রহণ করেছে।

পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষায় ‘গোল্ডেন রাইস’ – কৃষিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ ভিটামিন ‘এ’ ও বিটা-ক্যারোটিন যুক্ত ‘গোল্ডেন রাইস’ আবিষ্কার করেছে আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইআরআরআই) ও বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিআরআরআই)। সোনালি বর্ণের এই ধান পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়া জৈব প্রযুক্তি প্রকৌশলের মাধ্যমে রূপান্তরিত এই ধানের অনুমোদন দিয়েছে বলেও জানান তিনি। কৃষিমন্ত্রী বলেন, এটা জিআই চাল। গরিব মানুষের পুষ্টি চাহিদা পূরণের জন্য এটা আবিষ্কার করেছে ইরি। ব্রি এতে সহায়তা করেছে। এটা ইম্প্র“ভ ভ্যারাইটি, হাইব্রিড না। তাই সাধারণ জাতের মতোই চাষি জাত সংরক্ষণ বীজ রাখতে পারবেন। এটা অন্য জাতের মতোই সহজ ও সুলভ চাষাবাদ যোগ্য। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে ইরি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, আমাদের দরিদ্র জনগোষ্ঠী ভাতের ওপর নির্ভরশীল। তারা পুষ্টিকর সব্জি বা ফল-ফলাদি কিনে খেতে পারেন না। তাদের পুষ্টি ঘাটতি পূরণের জন্যই একটি জিন ডেভেলপমেন্ট করে এটা করা হয়েছে। আশা করছি তিন মাসের মধ্যে পরিবেশ মন্ত্রণালয় অনুমোদন দেবে। জিআই জাত বলেই সতর্কমূলক পরীক্ষা করছে পরিবেশ মন্ত্রণালয়। কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট-ইরি ধানটি যাতে দ্রুত অনুমোদন পায় সে বিষয়ে অনুরোধ করেছে। তারা দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে ভূমিকা রেখেছে এবং বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট-বিরি’কে সবসময় সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, আমাদের কোস্টাল এরিয়ার স্যালাইন কন্ডিশনের জন্য নতুন এ জাতের ধান উদ্ভাবনে সহায়ক হবে বলেও আলোচনা হয়েছে।

মেহেরপুরে অসুস্থ নাতি দেখতে গিয়ে গাড়ী থেকে পড়ে নানির মৃত্যু

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরে অসুস্থ নাতিকে দেখতে গিয়ে গাড়ী থেকে পড়ে রেবেকো খাতুন (৫৫) নামের একজন নিহত হয়েছেন। নিহত রেবেকো গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের সহগলপুর গ্রামের আব্দুল খালেকের স্ত্রী। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের সামনে একটি লেগুয়ান গাড়ী থেকে পড়ে রেবেকা খাতুনের মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা জানান, রেবেকার নাতি ছেলে (মেয়ের ছেলে) অসুস্থ হওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। তাকে দেখতে রেবেকো সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে একটি লেগুয়ান গাড়ীতে চড়ে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের উদ্দেশে আসে। সে হাসপাতালের কাছাকাছি পৌঁছে, লেগুয়ান গাড়ী থেকে নামতে গিয়ে আকস্মিকভাবে পড়ে গুরুতরভাবে আহত হয়। এ সময় পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালের জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত ডাক্তার সাওদ কবির জানান, রেবেকার মাথায় আঘাত ও রক্তক্ষরণের ফলে মৃত্যু হয়েছে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খাঁন (পিপিএম) জানান লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এডিবি সবচেয়ে বেশি ঋণ দিয়েছে বাংলাদেশকে: পরিকল্পনামন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ ৪৮টি সদস্য দেশের মধ্যে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) এ অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি ঋণ দিয়েছে বাংলাদেশকে। এমনকি ভারতের থেকেও বাংলাদেশকে বেশি ঋণ দিয়েছে এডিবি। এডিবি থেকে ঋণ নেওয়ার দিকে থেকে বাংলাদেশ নম্বর ওয়ান। গতকাল বৃহস্পতিবার শেরেবাংলা নগর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে এডিবি কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ ও ভারতীয় হাইকমিশনারের (ইনচার্জ) সাক্ষাৎ শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এ তথ্য জানান। মন্ত্রী আরও জানান, বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প এডিবি বাংলাদেশকে ৫ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার ঋণ দিয়েছে। অন্যদিকে ভারত এডিবি থেকে ঋণ নিয়েছে ৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ঋণ নেওয়ায় আমরা ৪৮টি দেশের মধ্যে এক নম্বর। ঋণ নেওয়ার যেমন ভালো দিক আছে, অন্য দিকে খারাপ দিকও আছে। তিনি আরও বলেন, প্রতিনিধিরা রেলের গতি বাড়াতে বলেছে। আমরাও রেলের গতি বাড়াতে চাই। রেলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ৮ ঘণ্টা সময় লাগে। এটাকে কমিয়ে ছয় ঘণ্টায় আনতে চাই। তিনি আরও বলেন, ভারতীয় এলওসি ঋণে বাস্তবায়িত প্রকল্পের গতি বৃদ্ধি করতে চাই। ভারত ও এডিবিও চায় প্রকল্পের বাস্তবায়ন গতি বাড়াতে, আমরাও চাই। প্রকল্পের বাস্তবায়ন গতি বাড়াতে সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবরক্ষক আবজালের ভাই ও শ্যালককে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

ঢাকা অফিস ॥ সিন্ডিকেট করে সীমাহীন দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ এবং অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আলোচিত হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজালের দুই ভাই ও তিন শ্যালককে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। যাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে, তাঁরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সংস্থাটির উপপরিচালক ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা শামছুল আলম তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। যাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাঁরা হলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ওই হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল হোসেনের দুই ভাই ফরিদপুর টিবি হাসপাতালের ল্যাব সহযোগী মো. বেলায়েত হোসেন ও মো. লিয়াকত হোসেন এবং আবজালের তিন শ্যালক স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাখালী অফিসের গাড়িচালক মো. রফিকুল ইসলাম, একই অফিসের উচ্চমান সহকারী মো. বুলবুল ইসলাম ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অফিস সহকারী মো. শরিফুল ইসলাম। এর আগে তাঁদের গত ২২ জানুয়ারি তলব করা হলেও তাঁরা হাজির হননি। গত বুধবার একই অভিযোগে লাইন ডিরেক্টর (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি) অধ্যাপক ডা. মো. আবদুর রশিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। গত ১০ জানুয়ারি শত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাব কর্মকর্তা আবজাল হোসেন ও ১৪ জানুয়ারি সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আনিসুর রহমান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে টেন্ডার প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত নন বলে জানান। অভিযোগের বিষয়ে দুদক সূত্র জানায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে সিন্ডিকেট করে সীমাহীন দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে বিদেশে পাচার করার এবং জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। ২০১৮ সালের প্রথম দিকে অভিযোগ অনুসন্ধানে নামে দুদক। দুদকের উপপরিচালক মো. সামছুল আলমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল অনুসন্ধান করছে।

চোর আতঙ্কে রাতভর পাহারা চলে সদরপুরে

গরু চুরি করতে গিয়ে তিন চোর আটক

হাবিবুর রহমান ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সদরপুরে গরু চুরি করতে গিয়ে হাতে নাতে তিন চোরকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। আটককৃত চোর সদস্যরা হলো- পাবনার ঈশ^রদী উপজেলার রূপপুর এলাকার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে (৫৪), কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার তালবাড়ীয়া ইউনিয়নের আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা হাফিজুল ইসলামের ছেলে রকিবুল ইসলাম ওরফে রকিব, নাটোর জেলার মুরাদপুর এলাকার ইব্রাহীম আলীর ছেলে ইলিয়াস আলী (২৫)। এসময় বিশু নামের আরেক চোর সদস্য পালিয়ে যায়। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে মিরপুর উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের মোচাইনগর এলাকার মৃত ইসাহকের ছেলে শাহাজান আলীর বাড়ীতে গরু চুরি করার সময় এলাকাবাসী তাদের আটক করে। স্থানীয়রা জানায়, এক সপ্তাহ ব্যবধানে এই গ্রাম থেকে ৪টি গরু চুরি হয়ে যায়। সেই কারণেই স্থানীয়রা গরু চুরির আতঙ্কে রাতভর পাহারা দেয়। বৃহস্পতিবার ভোরে ৪টি চোরের একটি দল সেখানে চুরি করতে গেলে এলাকাবাসী চোরদের হাতেনাতে ধরে ফেলে। পরে চোরদের গণধোলায় দিয়ে পুলিশে সোপর্দ্দ করে। স্থানীয়দের ধারনা, একটি সঙ্গবদ্ধ চোর চক্র দীর্ঘদিন ধরেই এই এলাকায় গরু চুরির কাজ করে আসছে। আমলা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আব্দুর রহমান জানান, এলাকাবাসী চোরদের হাতেনাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ্দ করেছে। তাদের বিরুদ্ধে চুরির মামলা দায়ের পূর্বক জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গাংনীতে ইউনিয়ন পর্যায়ে মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার সাহারবাটি ইউনিয়নে মাধ্যমিক পর্যায়ের ৬টি  বিদ্যালয়ের ১০ জন করে (দলীয়ভাবে) শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিশুদ্ধ জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার সময় সাহারবাটি ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অংশগ্রহণকারী বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে রয়েছে- জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, জেটিএস মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, সাহারবাটি ইবাদতখানা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ভাটপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হিজলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়। প্রথমেই লটারীর মাধ্যমে প্রতিযোগি দলের  ক্রমপর্যায় গঠন করা হয়। বিচারকদের বিবেচনায় জাতীয় সংগীত প্রতিযোগিতায় জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় দল প্রথম স্থান ও জেটিএস মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় দ্বিতীয় স্থান এবং বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় তৃতীয় স্থান অধিকার করে। একপর্যায়ে ইউনিয়ন পর্যায়ের সেরা ১০ জনের নামের তালিকা ঘোষণা করা হয়। জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হুমায়ূন কবীর সুমন-এর সঞ্চালনায় জাতীয় সঙ্গীতানুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে। অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিদের  হারমোনিয়াম ও ঢুগী-তবলায় সহযোগিতা করেন জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং গাংনী উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর শিক্ষক এসএম সেলিম রেজা। অনুষ্ঠানে বিচারক প্যানেলে ছিলেন-বাংলাদেশ টেলিভিশন ও  বেতারের বিশেষ শ্রেণীর সংগীত শিল্পী আশরাফ মাহমুদ, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম অল্ডাম, বাংলাদেশ টেলিভিশনের শিল্পী ফারহানা কানিজ তথাপি, জুলফিকার আলী কানন, জোড়পুকুরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা নাসরিন সুলতানা ঝরা । এর আগে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসান আল নুরানী। এসময় সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্বকারী সহকারী শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।পরে বিজয়ী  দলগুলোর মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এবার মিরপুরে সরকারী কাছ কর্তনের মহোৎসব

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের পর এবারে মিরপুরে সরকারী গাছ কর্তনের এক মহোৎসবের সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের পাহাড়পুর এলাকার সরকারী চারটি মোটা মোটা মেহগুনি গাছ কর্তন করেছে স্থানীয় প্রভাবশালী। ঐ প্রভাবশালী উক্ত এলকার করিম শাহের ছেলে এবং সাবেক ইউপি সদস্য ফিরোজ আল মামুন। স্থানীয়দের অভিযোগ, সকালে সরকারী ক্যানেলের ধারের চারটি মোটা মোটা মেহগুনি গাছ কর্তন করেছে ফিরোজ আল মামুনের নেতৃত্বে কয়েকজন লেবার। কয়েকদিন পূর্বে পাশর্^বর্তী দৌলতপুর উপজেলার কালিদাসপুর এলাকায় সবুজ বনায়নক কর্মসূচির সরকারী সড়কের প্রায় অর্ধশত সরকারী গাছ কর্তনের অভিযোগ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় কোন দৃষ্টান্ত দেখা না যাওয়ায় এ ধরনের কর্মকান্ড করেছে বলে জানায় স্থানীয়রা।  উল্লেখ্যঃ গত ২০ জানুয়ারি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের কালিদাসপুর এলাকায় বনায়ন কর্মসূচির প্রায় অর্ধশতাধিক গাছ কর্তন করে স্থানীয় প্রভাবশালী খুদি, শফি, আব্দুল্লাহ। পরে প্রমান লোপাট করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হয় বিশু ও নাসির নামের দুইজন গাছ কর্তনকারী। অভিযোগ পাওয়ায় যায় দৌলতপুর উপজেলা বন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলামের সাথে যোগসাজস্য করে অবৈধভাবে এ গাছ কর্তন করেছে। পরে বিষয়টি মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেওয়া হয়। এজন্য এ ধরনের ঘটনা যেন পূর্নাবৃত্তি না ঘটে তাই প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে স্থানীয়রা।

 

শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী

গতকাল সকালে মেয়রের কার্যালয়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। ব্যাংক এশিয়া কুষ্টিয়া শাখার এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রমের আওতায় কুষ্টিয়া পৌরসভা ডিজিটাল সেন্টারকে দেওয়া শীতবস্ত্র বিতরণ করেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার সচিব কামাল উদ্দিন, শহর পরিকল্পনাবিদ রানভীর আহমেদ, পৌরসভা ডিজিটাল সেন্টার’র উদ্যোক্তা এ.এস.এম. আরিফ নাজমুল হক, ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট ব্যাংকিং এর কর্মকর্তা এআরজিএল বিল্লাল হোসেন, মিঠুন পাল, মিঠুন চক্রবর্তী, আরিফুল ইসলাম, সাদ আক্কাস, মকবুল হোসেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঝিনাইদহে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ১০জন আহত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে জমিতে সেচ দেওয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার হাটগোপালপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলো- একই গ্রামের সোনা উল্লাহর ছেলে ইয়ারুল শেখ (৩৫), নজরুল শেখ (৫০), নজরুল শেখের স্ত্রী পারভিনা আক্তার (৪৫), মৃত গফুর বিশ্বাসের ছেলে আবু তালেব (৬৫), আসলাম হোসেনের ছেলে সীমান্ত(২০), আবু তালেবের ছেলে ইউনুস আলী সহ ১০ জন। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খাঁন জানান, হাটগোপালপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম ও একই গ্রামে আবু তালেব উত্তরপাড়া গ্রামের মাঠে ধান ক্ষেতে সেচ দিতে যায়। এসময় উভয়ের ক্ষেত পাশাপাশি হওয়ায় পানি দেওয়া নিয়ে তর্ক বিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে উভয় গ্র“পের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে নারীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহতদের ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আবু তালেবের অবস্থা গুরুতর জানিয়েছেন চিকিৎসক।

গোবিন্দগুনিয়া স্কুলে পরিস্কারকরণ অভিযান পালিত

আমলা অফিস ॥ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন বিদ্যালয় আমাদের অঙ্গিকার এ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে কুষ্টিয়ার মিরপুরের গোবিন্দগুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিস্কারকরণ অভিযান পালন করা হয়। শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা ছাড়াও অত্র এলাকার শিক্ষা সচেতন ব্যক্তিরা পরিস্কারকরণ কর্মসুচীতে অংশ নেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পরিস্কারকরণ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার সিরাজুল ইসলাম। এছাড়াও গোবিন্দগুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন কুমার পাল, সহকারী শিক্ষক আকলিমা খাতুন, আবুল কালাম আজাদ, শামীম খান, আসমা খাতুন, ছাবিয়া খাতুন, আনিছুর রহমান, মাহামুদা ফেরদৌস ও দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী দীপু প্রামানিক এ কর্মসুচীতে অংশ নেন।

কুষ্টিয়া জেলা মটর শ্রমিকলীগ ইউনিট সম্মেলন প্রস্তুতি আহবায়ক কমিটি গঠন

কুষ্টিয়া  জেলা মটর শ্রমিকলীগ ইউনিট সম্মেলন প্রস্তুতি আহবায়ক কমিটির  গঠন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধায় ৭টায় কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগের  নেতৃবৃন্দের  সাথে মতবিনিময় জেলা মহিলা শ্রমিকলীগের কার্যালয়   আইয়ুব আলী সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা জাতীয় শ্রমিকলীগ সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ আমজাদ আলী খান।  আরো উপস্থিত ছিলেন শ্রমিকলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক হামিদুল ইসলাম, মোঃ পলাশ মিয়া সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সভায়  সম্মতিক্রমে ১জন আহবাহক  আইযুব আরিফ, যুগ্ন আহবায়ক হাফিজুর রহমান, সিদ্দিকু রহমান, মানিক, মিঠু, সুমন, আনোয়ার, বাবু, আমিন, ৫৩ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করে আগামী ১ মাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে শ্রমিকলীগের সম্মলেন মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের দায়িত্ব  দেওয়া হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কারশেদ আলম মিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রার্থি

নিজ সংবাদ ॥ মিরপুর উপজেলা জাসদ’র যুগ্ম-সম্পাদক কারশেদ আলম উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থি। আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে তিনি মিরপুর উপজেলা থেকে প্রার্থি হবার আগ্রহ দেখিয়েছেন। এরই মধ্যে তিনি দলীয় সমর্থণও পেয়েছেন। আর এই সমর্থন পেয়ে মিরপুর উপজেলার ভোটারদের দ্বারে দ্বারে দোয়া ও সমর্থন চাইছেন। মিরপুর উপজেলা জাসদ’র জনপ্রিয় এই নেতা ইতোমধ্যে নিজেকে ক্লিন ইমেজের মানুষ হিসেবে সবার কাছে পরিচিতি লাভ করেছেন।

এবিষয়ে কারশেদ আলম জানান তৃণমুল নেতাকর্মীদের সমর্থণ আমার প্রতি রয়েছে। তাদের দাবী আমি যেন আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করি। আর সেই দাবীর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমি প্রার্থি হবার আগ্রহ দেখিয়েছি। শুধু দলের তৃণমূল নেতাকর্মীই নয় সাধারণ ভোটাররাও আমাকে সমর্থন দিচ্ছেন। আমার বিশ্বাস আসন্ন নির্বাচনে আমি মিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হতে পারব। নির্বাচিত হবার সুযোগ পেলে মিরপুর উপজেলাকে মডেল উপজেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হব।

কারশেদ আলম আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্তি হচ্ছেন জেনে খুঁশি মিরপুর উপজেলা জাসদ’র এক সিনিয়র নেতা। ওই নেতার মতে কারশেদ আলম একজন ক্লিন ইমেজ সমৃদ্ধ নেতা। দলমত নির্বিশেষে সবাই তাকে ভালো জানেন। তিনি প্রার্থি হলে নিশ্চিতভাবেই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন।

এদিকে নির্বাচন কমিশন উপজেলা নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণার পর থেকেই কারশেদ আলম মিরপুর উপজেলার সকল মানুষের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় অব্যাহত রেখেছেন।

কারশেদ আলম মিরপুর উপজেলা জাসদ’র যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ছাড়াও জেলা জাসদ’র প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক। এছাড়া তিনি কাজী আরেফ স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য। এরই বাইরেও তিনি বহু সামাজিক ও সাংস্মৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত রয়েছেন।

কুষ্টিয়া পৌরসভার তথ্য ও প্রযুক্তি কেন্দ্রে ব্যাংক এশিয়া’র এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন মেয়র আনোয়ার আলী

কুষ্টিয়া পৌরসভার তথ্য ও প্রযুক্তি কেন্দ্রে ডিজিটাল সেন্টারে ব্যাংক এশিয়া কুষ্টিয়া শাখার এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এই ব্যাংকিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার সচিব কামাল উদ্দিন, শহর পরিকল্পনাবিদ রানভীর আহমেদ, পৌরসভা ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা এ.এস.এম. আরিফ নাজমুল হক, ব্যাংক এশিয়া এজেন্ট ব্যাংকিং এর কর্মকর্তা এআরজিএল বিল্লাল হোসেন, মিঠুন পাল, মিঠুন চক্রবর্তী, আরিফুল ইসলাম, সাদ আক্কাস, মকবুল হোসেন। উল্লেখ্য এই এজেন্ট ব্যাংকিং এ সকল প্রকার একাউন্ট খোলা, টাকা জমা, টাকা উত্তোলন, পল্লী বিদ্যুতের বিল জমা, ডিপিএস, এফডিআর, মানিট্যানেসফার সহ সকল প্রকার ব্যাংকিং সেবা পাওয়া যাবে। ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা এ.এস.এম. আরিফ নাজমুল হক এই ব্যাংকিং কার্যক্রমের ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত আছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে সিইসি

নানা প্রতিবন্ধকতার মধ্যে আপনারা নির্বাচনের উত্তরণ ঘটিয়েছেন

ঢাকা  অফিস ॥ নির্বাচনী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, অনেক পরিশ্রম করে, প্রতিকূলতার মধ্যে, সমালোচনার মধ্যে এবং নানা রকমের প্রতিবন্ধকতার মধ্যে আপনারা নির্বাচনের উত্তরণ ঘটিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আগারগাঁওয়ের ইটিআই ভবনে ঢাকা উত্তর সিটি মেয়রের শূন্য পদে স্থগিত নির্বাচন, উত্তর ও দক্ষিণ সিটির নবগঠিত ৩৬টি ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে স্থগিত নির্বাচন এবং উত্তর সিটির ৯ ও ২১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলরের শূন্য পদে নির্বাচন উপলক্ষে রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সিইসি এসব কথা বলেন। কে এম নূরুল হুদা বলেন, দেশ পরিচালনার জন্য একটা স্বাভাবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রয়েছে। সে কারণে আপনাদের ধন্যবাদ। এবার নতুন করে রাজধানী শহর ঢাকার নির্বাচনের দায়িত্ব আপনারা পালন করছেন। তার গতির ধারা অব্যাহত থাকবে, সেটাই আমি প্রত্যাশা করতে পারি। সিইসি বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে সিটি করপোরেশন নির্বাচন সঙ্গে সঙ্গে আমাদের একটা প্রস্তুতি পর্বের ধারাবাহিকতাকে বজায় রেখে চলেছে বলে আমি মনে করি। কয়েক দিন আগেই আপনারা একটা সুন্দর নির্বাচন করেছেন, একটা সার্থক নির্বাচন করেছেন, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করেছেন, একটি সরকার প্রতিষ্ঠার কাজ করেছেন, দায়িত্ব পালন করেছেন এবং সে জন্য আপনাদের প্রথমেই অভিবাদন জানাই, ধন্যবাদ জানাই। যাঁরা এখন মেয়র বা কাউন্সিলর হবেন, তাঁরা এক বছর হাতে পাবেন। তারপর আবার ২০২০ সালের এপ্রিল, মে মাসের দিকে পুরো নির্বাচন হবে। সেদিনটা যাই থাক না কেন, সেটা ভিন্ন জিনিস। কিন্তু নির্বাচনের গুরুত্ব অপরিসীম। সেই গুরুত্ব অনুসারে যেভাবে নির্বাচন করা দরকার, যেভাবে নির্বাচন করতে আমরা অভ্যস্ত এবং জাতিকে সেভাবে নির্বাচন উপহার দিয়েছেন আপনারা। শুধু এই জাতীয় সংসদ নির্বাচন নয়। বিভিন্ন পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদ, জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদে নিষ্ঠার সঙ্গে নির্বাচনগুলো করেছেন। সেভাবেই গুরুত্ব দিয়ে নির্বাচন করতে হবে। তার কারণ হলো, এর মেয়াদ যাই থাক না কেন, ঢাকা সিটিতে নির্বাচনের গুরুত্ব অপরিসীম। সিইসি আরো বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যে রকম দায়িত্ব আপনারা পালন করেছেন। প্রশংসিত হয়েছেন, নন্দিত হয়েছেন বিভিন্নভাবে। দেশি-বিদেশি অবজারভার যাঁরা ছিলেন, এখানে যাঁরা সাংবাদিক ছিলেন, তাঁরা আপনাদের ব্যাপারে কখনো কোনো রকমের বিরূপ মন্তব্য করতে পারেননি, করেননি। সুতরাং আপনাদের মধ্যে স্বচ্ছতা ছিল, নিরপেক্ষতা ছিল, ধৈর্য ছিল এবং সাহসিকতা ছিল সে কারণে। যে যাই বলুক না কেন। কে এম নূরুল হুদা আরো বলেন, আরেকটা কথা হলো অনেকে অনেক তির্যক কথা বলবেন, অনেকে অনেক উপদেশমূলক কথা বলবেন, গম্ভীর গম্ভীর কথা বলবেন। সেখান থেকে যতটুকু আহরণ করা দরকার করবেন, প্রয়োগ করা দরকার করবেন এবং সবচেয়ে বড় কথা আপনারা নিজের মেধা, নিজের যোগ্যতা, নিজের বুদ্ধিমত্তা, নিজের সাহস, নিজের নিরপেক্ষতা এবং নিজের আস্থা সেটা সব থেকে বড় কথা, সেটা দিয়ে কাজ করবেন। সুতরাং কবিতা এবং গল্প দিয়ে আপনাদের পেট ভরানো যাবে না। আপনাদের নিজস্ব সত্তা আছে, নিজস্ব যে দায়িত্ব আছে, নিজস্ব যে জ্ঞান আছে সেটাই প্রয়োগ করার দায়িত্ব পালন করবেন। মাঠে যাঁরা আছেন, তাঁরা এই নির্বাচন কমিশনের আত্মার সঙ্গে জড়িত। আমরা আত্মিকভাবে এর সঙ্গে সম্পর্কিত। সুতরাং এখানে একজনে টোকা দিল, খোঁচা দিল নতুবা ধাক্কা দিল তাতে আপনারা বিচলিত হবেন না। আপনাদের দায়িত্ব যেভাবে দায়িত্ব পালন করা দরকার, সেভাবে দায়িত্ব পালন করে যাবেন, যোগ করেন সিইসি। ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়তে ১৪ দল ঐক্যবদ্ধ থাকবে – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, অসাম্প্রদায়িক, জঙ্গী, রাজকার ও শোষণমুক্ত দেশ গড়তে কেন্দ্রীয় ১৪ দল সব সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে ছিল এবং থাকবে। তিনি বলেন, অনেকে ১৪ দল নিয়ে অনেক কিছু ভাবছেন। যে ১৪ দল থাকবে কি না? আমি বলতে চাই ১৪ দল ছিল, আছে, থাকবে। ক্ষমতার জন্য ১৪ দল গঠিত হয়নি, একটি আদর্শিক জোট হিসাবে ১৪ গঠিত হয়েছে। মোহাম্মদ নাসিম বৃহষ্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ৯৭ তম ঐতিহাসিক সলঙ্গা দিবস উপলক্ষে গণ আজাদী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। গণ আজাদী লীগের সভাপতি এস কে শিকদারের সভাপতিত্বে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু, জাতীয় পার্টি জেপির মহাসচিব শেখ সহিদুল ইসলাম, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা, ন্যাপ নেতা ইসমাইল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ১৪ দল জাতির পিতার স্বপ্নের দেশ গড়ার জন্য ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যাবে। ১৪ দলের নেতাদের চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। তাদের লক্ষ্য ঐক্যবদ্ধ থেকে রাজাকার, জঙ্গিমুক্ত বাংলাদেশ গড়া। তিনি বলেন, সরকার ও বিরোধী দল উভয়কেই হতে হবে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তির। এ লক্ষ্যেই বিরোধী দলের ভূমিকায় থাকবে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের জোট ১৪ দলের নেতারা। সরকার পরিচালনায় কোন ক্রটি-বিচ্যুতি হলে তা ধরিয়ে দিয়ে সতর্ক করা এবং পরাজিত অশুভ শক্তি কোন চক্রান্ত করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তা রুখে দেওয়া। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে বিশাল বিজয় হলেও স্বাধীনতাবিরোধীদের চক্রান্ত এখনো আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এ চক্রান্ত মোকাবেলা করেই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। দেশের অগ্রযাত্রা কেউ বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না। ষড়যন্ত্রকারীদের চক্রান্ত রুখে দিতে ১৪ দল মাঠে থাকবে। আসন্ন উপজেলা নির্বাচন প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র বলেন, উপজেলা নির্বাচন যেহেতু স্থানীয় নির্বাচন তাই এখানে ১৪ দল গত ভাবে কোন প্রার্থী দেওয়া হবে না। জোটের শরিকরা নিজ নিজ দল থেকে আলাদা ভাবে অংশগ্রহণ করবেন। হাসানুল হক ইনু বলেন, বিএনপি জামায়াত জোট সংসদীয় গণতন্ত্র প্রক্রিয়া নষ্ট করার পাঁয়তারা করছে। তাই তারা বার বার বলছে, সংসদীয় গণতন্ত্রে শক্তিশালী বিরোধী দল দরকার। কিন্তু তার মানে আমরা তো কোন খুনিদের আদর করে সংসদে ডেকে এনে বসাতে পারি না।

রক্তে রাঙ্গানো ফেব্রয়ারি মাস শুরু

ঢাকা অফিস ॥ ‘আমার ভাই এর রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্র“য়ারি/ আমি কি ভুলিতে পারি’ -রক্তে রাঙ্গানো সেই ফেব্র“য়ারি মাস -ভাষা আন্দোলনের মাস শুরু হলো আজ শুক্রবার। আজ থেকে ধ্বনিত হবে সেই অমর সংগীতের অমিয় বাণী। বাঙ্গালী জাতি পুরা মাসজুড়ে ভালোবাসা জানাবে ভাষার জন্য যারা প্রাণ দিয়েছিলেন তাদের। ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ফেব্র“য়ারি ছিল ঔপনিবেশিক প্রভুত্ব ও শাসন-শোষণের বিরুদ্ধে বাঙালির প্রথম প্রতিরোধ এবং জাতীয় চেতনার প্রথম উন্মেষ। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্র“য়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে দুর্বার আন্দোলনে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিকের রক্তের বিনিময়ে বাঙালি জাঁতি পায় মাতৃভাষার মর্যাদা এবং আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেরণা। তারই পথ ধরে শুরু হয় বাঙালির স্বাধীকার আন্দোলন এবং একাত্তরে নয় মাস পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধের মধ্যদিয়ে অর্জিত হয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। বস্তুত ফেব্র“য়ারি মাস একদিকে শোকাবহ হলেও অন্যদিকে আছে এর গৌরবোজ্জ্বল দিক। কারণ, পৃথিবীর একমাত্র জাতি বাঙালি ভাষার জন্য এ মাসে জীবন দিয়েছিল। ভাষা আন্দোলনের মাস ফেব্র“য়ারির প্রথম প্রহর শুরু হবে ননা কর্মসূচি। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার আবার হয়ে উঠবে জমজমাট। অন্যদিকে একুশের মাসের সবচেয়ে বড় কর্মযঞ্জ মাস ব্যাপি বইমেলা শুরু হচ্ছে শুক্রবার থেকে। বাংলা একাডেমিতে বিকাল তিনটায় এই মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়াও ‘বাঙালির জয় কবিতার জয়’ স্লোগানে দু’দিনব্যাপী জাতীয় কবিতা উৎসবও শুরু হচ্ছে আজ শুক্রবার থেকে। স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে শৃঙ্খল মুক্তির ডাক দিয়ে ১৯৮৭ সালে শুরু হয় এ উৎসবের।