ইলিশের জীবনরহস্য উন্মোচন করলো বাংলাদেশ

কৃষি প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্স জানতে পেরেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) একদল গবেষক। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ সফলতার কথা জানানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ বায়োলজি অ্যান্ড জেনেটিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলমের নেতৃত্বে গবেষক দলের অন্যান্য সদস্যরা হলেন- পোল্ট্রি বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মো. বজলুর রহমান মোল্লা, বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রফেসর ড. মো. শহিদুল ইসলাম ও ফিশারিজ বায়োলজি অ্যান্ড জেনেটিক্স বিভাগের প্রফেসর ড. মুহা. গোলাম কাদের খান। গবেষণা কাজটি গবেষকদের নিজস্ব উদ্যোগ, স্বেচ্ছাশ্রম এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে সম্পন্ন করা হয়েছে। এ গবেষণার মাধ্যমে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশের মৎস্য সেক্টর পূর্ণাঙ্গ জিনোম গবেষণার যুগে প্রবেশ করলো। প্রধান গবেষক অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলম মনে করছেন, এর মাধ্যমে বাংলাদেশের গবেষকদের সক্ষমতা প্রমাণ হয়েছে। এর আগে দেশি ও বিদেশি গবেষকদের সমন্বয়ে পাট ও মহিষের জীবন রহস্য উন্মোচন হয়েছে। এরপর ইলিশে এই সাফল্যকে মৎস্যখাতের জন্য যুগান্তরকারী বলে মনে করছেন গবেষকরা। ইলিশের জিনোম বিশ্লেষণ করে গবেষকরা ৭৬ লাখ ৮০ হাজার নিউক্লিওটাইড পেয়েছেন; যা মানুষের জিনোমের প্রায় এক চতুর্থাংশ। এ ছাড়াও ইলিশের জিনোম সিকোয়েন্স বিশ্লেষণ করে ২১ হাজার ৩২৫টি মাইক্রোস্যাটেলাইট (সিম্পল সিকোয়েন্স রিপিট সংক্ষেপে এসএসআর) ও ১২ লাখ ৩ হাজার ৪০০টি সিঙ্গেল নিউক্লিওটাইড পলিমরফিজম (এসএনপি) পাওয়া গেছে। বর্তমানে পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্স বিশ্লেষণ করে ইলিশ জিনোমে মোট জিনের সংখ্যা জানার কাজ অব্যাহত রয়েছে। ‘জিনোম’ হচ্ছে কোনো জীব প্রজাতির সকল বৈশিষ্ট্যের নিয়ন্ত্রক। অন্য কথায় জিনোম হচ্ছে কোনো জীবের পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান। জীবের অঙ্গসংস্থান, জন্ম, বৃদ্ধি, প্রজনন এবং পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়াসহ সকল জৈবিক কার্যক্রম পরিচালিত হয় এর জিনোমে সংরক্ষিত নির্দেশনা দ্বারা। পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং হচ্ছে কোনো জীবের জিনোমে সমস্ত নিউক্লিওটাইড কীভাবে বিন্যস্ত রয়েছে তা নিরূপণ করা। একটি জীবের জিনোমে সর্বমোট জিনের সংখ্যা, বৈশিষ্ট্য এবং তাদের কাজ পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্স থেকেই জানা যায়। গবেষকরা জীবন রহস্য উন্মোচন করতে মেঘনা ও বঙ্গোপসাগর থেকে জীবন্ত পূর্ণবয়স্ক ইলিশ সংগ্রহ করেন। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরিতে উচ্চ গুণগত মানের জিনোমিক ডিএনএ প্রস্তুত করেন। পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্র থেকে জিনোম সিকোয়েন্সিং সেন্টারে সংগৃহীত ইলিশের পৃথকভাবে প্রাথমিক ডেটা সংগ্রহ করা হয়। এরপর বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন সার্ভার কম্পিউটারে বিভিন্ন বায়োইনফরম্যাটিক্স প্রোগ্রাম ব্যবহার করে সংগৃহীত প্রাথমিক ডেটা থেকে ইলিশের পূর্ণাঙ্গ নতুন জিনোম বিশ্লেষণ সম্পন্ন করা হয়। ইলিশ মাছের জীবন রহস্য উন্মোচনের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে প্রধান গবেষক অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলম বলেন, ইলিশ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ। পৃথিবীর মোট ইলিশ উৎপাদনের প্রায় ৬০ শতাংশ উৎপন্ন হয় বাংলাদেশে। এ দেশের প্রায় ৪ লাখ মানুষ জীবিকার জন্য প্রত্যক্ষভাবে ইলিশ আহরণের সঙ্গে জড়িত। এই জাতীয় সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ও টেকসই আহরণ নিশ্চিত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
ইলিশ একটি ভ্রমণশীল মাছ। এরা সারা বছর সাগরে বাস করে কিন্তু প্রজননের জন্য সাগর থেকে বিভিন্ন নদীতে চলে আসে এবং ডিম ছাড়ার পর মা ইলিশ সাগরে ফিরে যায়। এ গবেষণা বাংলাদেশের জলসীমার মধ্যে ইলিশের সংখ্যা, বিভিন্ন মোহনায় প্রজননকারী ইলিশ কি ভিন্ন ভিন্ন ‘স্টক’ নাকি এরা সবগুলো একটি স্টকের অংশ, বাংলাদেশের ইলিশ পৃথিবীর অন্যান্য দেশের (ভারত, মিয়ানমার, পাকিস্তান, মধ্যপ্রাচ্য) ইলিশ থেকে জেনেটিক্যালি স্বতন্ত্র কি না ইত্যাদি বিষয়ে জানতে সহায়তা করবে। এ ছাড়া এর মাধ্যমে বাংলাদেশি ইলিশের একটি রেফারেন্স জিনোম প্রস্তুত করা যাবে। ইলিশের জিনোমিক ডেটাবেজ স্থাপন করা যাবে; যা যাবতীয় বায়োলজিক্যাল তথ্য ভাণ্ডার হিসেবে কাজ করবে। যা ইলিশের বিভিন্ন পপুলেশনের বিস্তৃতি এবং বিভিন্ন উপ-পপুলেশনের উপস্থিতি ও তাদের মধ্যে ইকোলজিক্যাল আন্তঃসংযোগের মাত্রা নির্ণয় করবে।
এদিকে ৭ সেপ্টেম্বর একটি জাতীয় ইংরেজি দৈনিকে এ বিষয়ে প্রকাশিত একটি সংবাদ সম্পর্কে জানতে চাইলে গবেষকরা বলেন, সেখানে তারা কী কাজ করেছেন বা কোনো আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির বিষয়ে উল্লেখ নেই। আমরা ২০১৫ সালে গবেষণা কার্যক্রম শুরু করি এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশনের (এনসিবিআই) তথ্যভান্ডারে ২৫ আগস্ট ২০১৭ সালে স্বীকৃতি পাই। এ ছাড়া আমরা আগেই এ তথ্যটি দুটি আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে উপস্থাপন করি।

প্রথম এবং বিদায়ী টেস্টে সেঞ্চুরি করে রেকর্ড বইয়ে কুক

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥  অভিষেক টেস্টের মত ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচেও সেঞ্চুরি করে রেকর্ড বইয়ে নিজের নাম লেখালেন ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক অ্যালিষ্টার কুক। বিশ্বের পঞ্চম খেলোয়াড় হিসেবে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ও শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করলেন কুক। বিশ্ব ক্রিকেট ইতিহাসে পঞ্চম হলেও ইংল্যান্ডের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে এ কৃতিত্ব গড়লেন তিনি। ওভালে ভারতের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলছেন কুক। ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসেও অপরাজিত ১০৪ রান করেছিলেন কুক। ফলে রেকর্ড বইয়ে নাম উঠে তার। ভারতের বিপক্ষে পঞ্চম ও শেষ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তৃতীয় দিন শেষে ৪৬ রানে অপরাজিত ছিলেন কুক। চতুর্থ দিন মধ্যাহ্ন-বিরতির কিছুক্ষণ আগে ১৬১ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩৩তম সেঞ্চুরির স্বাদ নেন কুক। এই ইনিংসের কল্যাণে রেকর্ড বইয়ে অস্ট্রেলিয়ার রিগি ডাফ-বিল পনসফোর্ড-গ্রেগ চ্যাপেল ও ভারতের মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের পাশে বসলেন কুক। ২০০০ সালে ভারতের আজহারউদ্দিনের অবসরের পর ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম ও বিদায়ী টেস্টে সেঞ্চুরির স্বাদ নেওয়া কোন খেলোয়াড় হলেন কুক। অভিষেক ও বিদায়ী টেস্টে সেঞ্চুরি করা খেলোয়াড় তালিকা রেগি ডাফ (অস্ট্রেলিয়া) টেস্ট অভিষেক: অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ড, মেলবোর্ন ১৯০২: ৩২ এবং ১০৪ শেষ টেস্ট: ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া, ওভাল ১৯০৫: ১৪৬ এবং ব্যাট করেননি। বিল পনসফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) টেস্ট অভিষেক: অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ড, সিডনি ১৯২৪: ১১০ এবং ২৭ শেষ টেস্ট: ইংল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া, ওভাল ১৯৩৪: ২৬৬ এবং ২২ গ্রেগ চ্যাপেল(অস্ট্রেলিয়া) অভিষেক টেস্ট: অস্ট্রেলিয়া বনাম ইংল্যান্ড, পার্থ, ১৯৭০: ১০৮ এবং ব্যাট করেননি। শেষ টেস্ট: অস্ট্রেলিয়া বনাম পাকিস্তান, সিডনি ১৯৮৪: ১৮২ এবং ব্যাট করেননি। মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন (ভারত) টেস্ট অভিষেক: ভারত বনাম ইংল্যান্ড, কোলকাতা, ১৯৪/৮৫: ১১০ এবং ব্যাট করেননি। শেষ টেস্ট: ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্যাঙ্গালুরু ২০০০: ৯ এবং ১০২ এলিস্টার কুক (ইংল্যান্ড) টেস্ট অভিষেক : ভারত বনাম ইংল্যান্ড, নাগপুর, ২০০৬: ৬০ এবং অপরাজিত ১০৪ শেষ টেস্ট : ইংল্যান্ড বনাম ভারত, ওভাল ২০১৮: ৭১ এবং অপরাজিত ১২৪ (শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত)

গাংনীতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের ২য় সেমি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে কিশোর-যুবদের শারীরিক গঠন, মেধা, সৃজনশীলতা সর্বোপরি মাদকাসক্তি, জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদ থেকে বেরিয়ে দেশ গড়ার লক্ষ্যে  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট (অনূর্ধ্ব-১৭)-এর উপজেলা পর্যায়ের আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল প্রতিযোগিতার ২য় সেমি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার  বিকেলে ঐতিহ্যবাহী গাংনী হাইস্কুল ফুটবল মাঠে অনুষ্ঠিত সেমি ফাইনাল খেলায় কাজীপুর ইউনিয়ন ফুটবল একাদশকে  ২-১ গোলে পরাজিত করে মটমুড়া ইউনিয়ন ফুটবল একাদশ ফাইনালে খেলার  যোগ্যতা অর্জন করে। গাংনী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পরিচালিত আন্তঃ ইউনিয়ন ফুটবল প্রতিযোগিতায় গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও টুর্ণামেন্ট পরিচালনা কমিটির সভাপতি বিষ্ণুপদ পাল খেলার মাঠে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে যথাসময়ে খেলার শুভ উদ্বোধন ও উপভোগ করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি  একে এম শফিকুল আলম, কাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাহাতুল্লাহ বিশ্বাস, মটমুড়া ইউনিয়ন পরিষদের তরুণ চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ, মেহেরপুর জেলা পরিষদের সদস্য শওকত আলী, কাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আব্দুর রহমান প্রমুখ। এসময় আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ ছাড়াও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও মটমুড়া ইউনিয়নের হাজার হাজার দর্শক সমর্থক ও বাসযোগে কাজীপুর ইউনিয়নের নারী সদস্যাসহ সকল জনপ্রতিনিধি ও দর্শক-সমর্থক, ক্রীড়া সংগঠক উপস্থিত ছিলেন। মটমুড়া ইউপি ২-১ গোলে কাজীপুর একাদশকে পরাজিত করে ফাইনালে খেলার সুযোগ লাভ করে। কাজীপুর ও মটমুড়া ইউনিয়নের পক্ষে খেলার প্রথমার্ধে ১ টি করে গোল করে। পরে দ্বিতীয়ার্ধে মটমুড়া প্যানাল্টি গোল করে গোলের ব্যবধান বাড়িয়ে জয়লাভ করে। খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ মনোনীত হয় মটমুড়া ইউনিয়ন একাদশের খেলোয়াড় রিপন হোসেন। গাংনীর আহসান খেলাঘরের পক্ষ থেকে ম্যান অব দ্যা ম্যাচের ক্রেষ্ট উপহার দেয়া হয়। খেলাটি প্রধান রেফারী হিসাবে পরিচালনা করেন বাফুফের রেফারী আব্বাস আলী, সহকারী  রেফারী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল হান্নান ও মিকুশিস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুল মাবুদ। খৈলায় নিয়ম বহির্ভূত ফাউল এবং রেফারীর সাথে অসদাচরণ করায় উভয় দলের ২জন খেলোয়াড়কে হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করা হয়। অফিসিয়াল রেফারীর দায়িত্ব পালন ও খেলার ফলাফল-রেকর্ড সংরক্ষণ করেন সাংবাদিক ও বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ আমিরুল ইসলাম অল্ডাম। খেলার ধারা বিবরণে ছিলেন- গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মহিবুর রহমান মিন্টু, গাংনী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পারভেজ সাজ্জাদ রাজা, বাওট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং সাবেক ফুটবলার মাহবুবুর রহমান।

কালুখালীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ ১৭ এর খেলায় মাজবাড়ী বিজয়ী

ফজলুল হক ॥ গতকাল সোমবার রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ ১৭ এর ২য় দিনের খেলায় ২-০ গোলে মাজবাড়ী ইউনিয়ন সাওরাইল ইউনিয়ন কে পরাজিত করে বিজয় অর্জন করে। উপজেলা প্রশাসন ও ক্রীড়া সংস্থার কালুখালী এর আয়োজনে বিকাল ৩টায় রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ খেলা উপভোগ করেন  উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী সাইফুল ইসলাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফায়েল আহমেদ, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলম,  মাজবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কাজী শরিফুল ইসলাম, সাওরাইল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলী, বোয়ালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হালিমা বেগম, খেলা পরিচালনাকারী  জেলা রেফারি এসোসিয়েশনের সহ-সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদত হোসেন, জার্স হিসেবে নিত্যানন্দী ও জুয়েল সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের সূধীজন উপস্থিত ছিলেন। বিজয় শেষে মাজবাড়ী ইউনিয়নের অধিনরায়ক মোঃ শরিফ শেখ ও খেলোয়াড়বৃন্দ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কাজী শরিফুল ইসলাম, টিম লিডার মোঃ ফারুক আহম্মেদ, সহকারী টিম লিডার আমজাদ হোসেন, সাইফুল ইসলাম, মোশারফ মেম্বারসহ আনন্দ উল্লাস করেন।

মিরপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করলেন তথ্যমন্ত্রী ইনু

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এবং ক্রীড়া সংস্থার বাস্তবায়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে মিরপুর পাইলট মাধ্যমিক ফুটবল মাঠে এ ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করেন জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহমেদের সভাপতিত্বে ও টুর্ণামেন্ট কমিটির সদস্য সচিব উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মহাম্মদ আলীর পরিচালনায় এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার মেয়র হাজী এনামুল হক, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান বাহাদুর শেখ, মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম, জাতীয় নারী জোটের সভাপতি আফরোজা হক রীনা, জাসদ কেন্দ্রীয় নেতা মহাম্মদ আব্দুল্লাহ, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসিন, উপজেলা জাসদের সভাপতি মহম্মদ শরীফ, সাধারন সম্পাদক আহাম্মদ আলী, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক কারশেদ আলম, সাংগাঠনিক সম্পাদক আফতাব উদ্দিন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম হোসেন ফরাজী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবু রায়হান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দার, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা বেনজীর আহমেদ, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, পোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান জন, কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী খেলায় সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদ ১-০ গোলে ব্যবধানে চিথলিয়া ইউনিয়ন পরিষদকে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেন। বিজয়ী দলের পক্ষে আকাশ আহাম্মেদ জয় সূচক গোলটি করেন। খেলাটি পরিচালনা করেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য মোহাম্মদ রফিক। তাকে সহযোগিতা করেন মিরপুর নাজমুল উলুম সিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদ্রাসার ক্রীড়া শিক্ষক রেজাউল করিম ও মিরপুর নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যানিকেতনের ক্রীড়া শিক্ষক জাহাঙ্গীর মাসুদ। টূর্ণামেন্টের অপর খেলায় টাইব্রেকারে মালিহাদ ইউনিয়ন পরিষদ ৩-১ গোলে ব্যবধানে ছাতিয়ান ইউনিয়ন পরিষদকে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেন। খেলাটি পরিচালনা করেন মিরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক শফিউল ইসলাম। তাকে সহযোগিতা করেন সুলতানপুর সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসার ক্রীড়া সাইদুল ইসলাম ও নওপাড়া নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক মাহাবুল ইসলাম। আজ বেলা আড়াইটায় টুর্ণামেন্টের প্রথম খেলায় ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের মোকাবেলা করবেন আমবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদ। অপর খেলা বিকেল সাড়ে ৪টায় মিরপুর পৌরসভার মোকাবেলা করবেন আমলা ইউনিয়নয়ন পরিষদ।

ঝিনাইদহে জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড রেজিস্ট্রেশন শুরু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ২০১৮ সালে জয় ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড এর রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। কথন সাংস্কৃতিক সংগঠন (কসাস) এর আয়োজনে সোমবার সকালে সরকারি কেসি কলেজ চত্বরে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. বি এম রেজাউল করিম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর সভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু, কলেজ উপাধ্যক্ষ প্রফেসর অশোক কুমার মৌলিক, কসাসের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান, কসাসের সভাপতি উম্মে সায়মা জয়া, সহ-সভাপতি শফিক রেহমান জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ আদিত্যসহ জয় ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড-২০১৮ এর ঝিনাইদহের ফিল্ড এক্টিভিশন টিম। কসাসের সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ আদিত্য জানান, ২০১৫ ও ২০১৭ সালের ন্যায় এবারো দেশের ইতিবাচক পরিবর্তনে অবদান রাখা তরুণ সংগঠক ও সংগঠনকে সম্মাননা স্বরূপ ‘জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ দেবে ‘ইয়াং বাংলা’। এ লক্ষ্যে সোমবার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত জেলার সদর, শৈলকুপা, হরিণাকুন্ডু ও কালীগঞ্জের সংগঠনদের আবেদন গ্রহণ করা হয়। মঙ্গলবার ঝিনাইদহের মহেশপুর-কোটচাঁদপুর, বুধবার কুষ্টিয়া সদর, ভেড়ামারা, মিরপুর ও দৌলতপুর ও বৃহস্পতিবার কুমারখালী এবং খোকসা উপজেলার তরুন সংগঠনের আবেদন গ্রহণ করা হবে।

আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে শেখ হাসিনার অধীনেই হবে – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ‘জনগণ এখন ভোটের জন্য প্রস্তুত’- এ কথা জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে শেখ হাসিনার অধীনেই হবে। নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও স্বচ্ছতার সাথে অবাধ নির্বাচন পরিচালনা করবে। মন্ত্রী গতকাল সোমবার দুপুরে রাজধানীর চানখাঁরপুলে নির্মাণাধীন ‘শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইনস্টিটিউট’ পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের এ কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এশিয়ার সর্ববৃহৎ বার্ন ইনস্টিটিউট হচ্ছে বাংলাদেশে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক আগ্রহ ও নির্দেশনায় হাসপাতালটি গড়ে তোলা হচ্ছে। খুব দ্রুততা ও দক্ষতার সাথে সর্বাধুনিক হাসপাতাল নির্মাণে সহায়তার জন্য সেনাবাহিনী ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ইনস্টিটিউট উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা যায়। এ সময় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী জাতীয় সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন, বার্ন ইউনিটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালামসহ সেনাবাহিনী ও বার্ন ইউনিটের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সভাকক্ষে সেনা বাহিনী ও ইউনিটের কর্মকর্তাদের সাথে বার্ন ইনস্টিটিউটের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।

জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ভারতজুড়ে ‘বন্ধ’

ঢাকা অফিস ॥ জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি ও রুপির দর পতনের প্রতিবাদে ভারতজুড়ে বন্ধ পালন করেছে দেশটির অন্তত ২১টি বিরোধীদল। কংগ্রেস পার্টির নেতৃত্বাধীন বিরোধীদলগুলোর এ বন্ধ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে পালিত হয়েছে বলে খবর ভারতীয় গণমাধ্যমের। এনডিটিভি জানিয়েছে, সোমবার সকালে কংগ্রেস সভাপাতি রাহুল গান্ধি ভারতের রাজধানী দিল্লিতে প্রতিবাদ মিছিলে যোগ দেন। দিল্লির ক্ষমতাসীন আম আদমি পার্টি (এএপি) বন্ধে যোগ না দিলেও প্রতিবাদ মিছিলে তাদের এক নেতাকে পাঠিয়েছে। শারদ পাওয়ার, এম কে স্ট্যালিনের মতো ভারতের শীর্ষস্থানীয় বিরোধীদলীয় নেতারা ও বাম দলগুলোর নেতারা বন্ধের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস বন্ধে যোগ না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেরালা, কর্নাটক ও পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যগুলোতে বন্ধের কড়া প্রভাব পড়বে বলে ধারণা করছে ভারতীয় গণমাধ্যম।  নিজ দলের ডাকা প্রতিবাদটিতে যোগ দিতে দিল্লির রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধির মেমোরিয়ালে উপস্থিত হন রাহুল গান্ধি। কৈলাস পর্বত ও মানস সরোবরে তীর্থযাত্রা থেকে ফিরে আসার পর এখানে প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে এলেন তিনি। কংগ্রেসের মিত্র কর্নাটক রাজ্যের ক্ষমতাসীন জনতা দল সেক্যুলার বন্ধে সমর্থন জানিয়েছে। বেঙ্গালুরুর স্কুল ও কলেজগুলো বন্ধ আছে। উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পাটনায়েক বন্ধের প্রতি সমর্থন দিতে রাজি না হলেও তার রাজ্যের স্কুলগুলো বন্ধ আছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।  কংগ্রেস জানিয়েছে, কোনো ধরনের সহিংস প্রতিবাদে সমর্থন না দিতে তাদের কর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। “আমরা মহাত্মা গান্ধির দল। কোনো সহিংসতার সঙ্গে আমাদের জড়ানো উচিত না,” বলেছেন দিল্লি কংগ্রেসের নেতা অজয় মাকেন। পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস জানিয়েছে, যে বিষয়গুলোর প্রতিবাদে বন্ধ ডাকা হয়েছে সেই ইস্যুগুলোতে তাদেরও সমর্থন আছে, কিন্তু দলীয় প্রধান ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতার নীতি অনুযায়ী রাজ্যে কোনো ধরনের ধর্মঘট পালনের বিরুদ্ধে তারা।

তামিল নাডুতে ডিএমকে দলীয় নেতা এম কে স্ট্যালিন বলেছেন, ডলারের বিপরীতে রুপির দরপতন বা জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় সরকার কোনো পদক্ষেপই নিচ্ছে না। বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্র রাজ্যে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাজ্যটিতে বিরোধীদল কংগ্রেস ও শারদ পাওয়ারের ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি বন্ধে অংশ নিচ্ছে। রোববার ভারতে পেট্রল ও ডিজেলের মূল্য রেকর্ড উচ্চতায় উঠেছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

বালিয়াকান্দি ও পাংশায় আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলিসহ ২ ডাকাত গ্রেপ্তার

পাংশা প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর জেলার বালিয়াকান্দি ও পাংশা উপজেলায় পৃথকভাবে অভিযান চালিয়ে জেলা পুলিশের তালিকাভুক্ত ফিরোজ শেখ ও আলম মন্ডল নামে দুই ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সেই সাথে উদ্ধার করা হয়েছে দুটি দেশীয় তৈরি ওয়ান শুট্যার গান ও তিন রাউন্ড তাজা কার্তুজ। গ্রেপ্তারকৃত ফিরোজ শেখ বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজধরপুর গ্রামের মৃতঃ আব্দুল আজিজ শেখের ছেলে। আর আলম মন্ডল পাংশা উপজেলার পারের ডাঙ্গী এলাকার রমজান আলী মন্ডলের ছেলে। বালিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসিনা বেগম জানান, ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজধরপুর ব্রীজের উপর কয়েকজন সন্ত্রাসী গোপন বৈঠক করছে এ সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই সটকে পড়লেও ফিরোজ শেখকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ও তার দেখানো মতে রাজধরপুর-বড়ইচারা গ্রামের পুরাতন কবরস্থান সংলগ্ন পশ্চিমপার্শ্বে আঃ মান্নান শেখের মেহগনি বাগানে মাটির নিচে প¬াস্টিকের ব্যাগের মধ্যে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় একটি ওয়ান স্যুটার গান ও ১ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ফিরোজ শেখের বিরুদ্ধে ডাকাতি, মাদক ও অস্ত্র তিনটি মামলা রয়েছে।অপরদিকে, পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আহসান উল¬াহ (ওসি) জানান, গোপন সংবাদের ভিতিত্তে উপজেলার পারের ডাঙ্গী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডাকাতি, মাদকসহ চার মামলার আসামী আলম মন্ডলকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছে থাকা একটি ওয়ান শুটার গান ও দুটি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়

শৈলকুপায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

শৈলকুপা প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার  দেবতলা গ্রামে পানিতে ডুবে তাসকিন নামের দেড় বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকালে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। শিশু তাসকিন দেবতলা গ্রামের সেলিম হোসেনের ছেলে। শৈলকুপা থানার ওসি আয়ুবুর রহমান জানান, সকালে খেলতে খেলতে বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে যায় তাসকিন। পরে পরিবারের লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মিরপুরে মহিলাদের হস্তশিল্পের উপর প্রশিক্ষণ কর্মসুচীর উদ্বোধন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত মহিলাদের আত্ম-কর্মসংস্থান উন্নয়নের লক্ষ্যে হস্ত শিল্পের উপর প্রশিক্ষণ কর্মসূচী উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা কৃষি প্রশিক্ষণ হলরুমে উপজেলা পরিষদের আয়োজনে ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের কার্যালয়ের বাস্তবায়নে এবং উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্প, স্থানীয় সরকার বিভাগ ও জাপান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন এজেন্সীর (জাইকা) সহযোগিতায় ৬ দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন। তিনি বলেন, দেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। তাই এ বিশাল নারী জনগোষ্ঠিকে ব্যতিরেকে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই দেশের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করতে নারীদেরকে উন্নয়নের মূলস্রোতধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের নরীদের ভূমিকা অপরিসীম। তাই নারী-পুরুষের বৈষম্য দূরীকরণের মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবু রায়হান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের ভাইস- চেয়ারম্যান বাহাদুর শেখ, মহিলা ভাইস- চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার নাসরিন, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ¦ মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ, উপজেলা ডেভেলপমেন্ট ফ্যাসিলিটেটর উত্তম কুমার বিশ^াস প্রমুখ।

চাকুরী জাতীয়করণের দাবিতে ঝিনাইদহে শিক্ষকদের মানববন্ধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ চাকুরী জাতীয়করণের দাবিতে ঝিনাইদহে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষকরা। গতকাল সোমবার সকালে শহরের পোষ্ট অফিস মোড়ে এ কর্মসূচির আয়োজন করে জেলা বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি। এতে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে ৩য় ধাপে জাতীয়করণ থেকে বাদপড়া শিক্ষকরা অংশ নেয়। এসময় বক্তব্য রাখেন, বেসরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান, জেলা শাখার সভাপতি জে এম দাউদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক চাঁদ আলী, শিক্ষক অলোক মিত্র, নাজমা আক্তার, জাহিদ হোসেন, আছর, শাহ-আলম, বাবুল আখতার, হাবিবা খাতুন, আফরোজা বেগম, আশরাফুল আলম, রহমত আলী, সবুরা খাতুনসহ শিক্ষকবৃন্দ। বক্তারা, ৩য় ধাপে জাতীয়করণ থেকে বাদপড়া ৪ হাজার ১’শ ৫৯ টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের দাবি জানান। সেই সাথে গত ৬ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তাদের অবস্থান কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জ ও গ্রেফতারের নিন্দা জানান। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদাণ করেন তারা।

আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবে আঃ খালেক মন্ডল স্মৃতি দাবা টুর্নামেন্ট’র সমাপনী অনুষ্ঠান

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া শহরস্থ আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবে, মরহুম আঃ খালেক মন্ডল স্মৃতি দাবা টুর্নামেন্ট-২০১৮ এর সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের আয়োজনে এবং খালেক ব্রিকস এর সার্বিক সহযোগিতায় এ দাবা টুর্নামেন্ট’র আয়োজন করা হয়। গতকাল সোমবার রাত ৯ টায় দাবা টুর্নামেন্ট’র সমাপনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি (পি.পি) এ্যাডঃ অনুপ কুমার নন্দী, মরহুম আঃ খালেক মন্ডল’র বড় ছেলে খালেক ব্রিকস’র স্বত্তাধিকারী আব্দুল কাদের জুয়েল, কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার দাবা উপ-পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলী খান ও  সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রতন পাল। আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি এ্যাডঃ অনুপ কুমার নন্দী বলেন, আমলাপাড়া স্পোটিং ক্লাব দীর্ঘদিনের ঐতিহ্যবাপী একটি ক্লাব। এখানে দাবা খেলার নিয়মিত চর্চা হয়ে আসছে। এ ক্লাবের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট ক্লাবের সকল সদস্য একটি পরিবারের মত। ক্লাবে এসে আমরা একটি পরিবারের সদস্য হয়ে যায়। তিনি আরো বলেন আব্দুল খালেখ মন্ডল শুধু একজন ব্যবসায়ীই ছিলেন না, তিনি একজন সফল ক্রীড়া সংগঠকও ছিলেন। তিনি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী সদস্য ছিলেন। গড়াই স্পোর্টি ক্লাবের সভাপতিসহ অনেক ক্রীড়া সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন। এছাড়া তিনি খেলাধুলায় সব সময় সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। মরহুম আঃ খালেক মন্ডল’র বড় ছেলে খালেক ব্রিকস’র স্বত্তাধিকারী আব্দুল কাদের জুয়েল বলেন আন্তর্জাতিক রেটিং এ দাবা খেলায় খালেক ব্রিকস এর পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে। কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার দাবা উপ-পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলী খান বলেন ক্লাবে দাবা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হলে, যুব সমাজ পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধুলায় এগিয়ে আসবে। কুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার দাবা উপ-পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রতন পাল বরেন মানুষের বৃদ্ধি আছে, এ কারণেই মানুষ শ্রেষ্ঠ জীব। আর দাবা খেলা বুদ্ধির খেলা। আর এ কারণেই দাবা খেলা পছন্দ করি। তিনি আরো বলেন যুব সমাজকে খেলাধুলার মধ্যে রাখতে হবে। যাবে করে বিপদগামী পথে যুব সমাজ যেতে না পারে। সমাপনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম। আলোচনা সভা শেষে যুগ্ম-চ্যাম্পিয়ন নিশিত কুমার পাল ও খন্দকার বুলবুল ফেরদৌস গোলাপকে ৪ হাজার টাকা করে প্রাইজ মানি, সনদ ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয় এবং তৃতীয় স্থান অধিকারী আশরাফুজ্জামানকে ৩ হাজার টাকা করে প্রাইজ মানি, সনদ ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। দাবা প্রতিযোগিতার স্পন্সর করে খালেক ব্রিকস। এ সময় মরহুম আঃ খালেক মন্ডল’র ছোট ছেলে ছানোয়ার হোসেন, আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রবিউল হক, আজিজুল ইসলাম মানিক, আহমেদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদত মুক্তার হোসেন, শরীফ হাসান, ক্রীড়া সম্পাদক নুরুল ইসলাম খোকন, সহ-কোষাধ্যক্ষ তানজির হোসেন টিটু, শিক্ষক সনৎ কুমার পাল বাবলু, আজিজুর রহমান স্বপন, ববি, হাবিবুর রহমান হাবু, বুড়ান সরকার, দাবা উপ-কমিটির সদস্য সুপ্লব কুমার ঘোষ, আমলাপাড়া স্পোর্টিং ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক শামসুল আলম জয়নাল, প্রচার সম্পাদক সাংবাদিক সুজন কুমার কর্মকার, সহ-প্রচার সম্পাদক শামীম রেজা, তুষার পালসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

কালুখালীতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১০ টাকা কেজি মূল্যের চাউল বিক্রি উদ্বোধন

ফজলুল হক ॥ গতকাল সোমবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে উপজেলা পর্যায়ে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় হতদরিদ্রদের জন্য ১০ টাকা কেজি মূল্যে চাউল বিক্রি শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শেখ হাসিনার বাংলাদেশ-ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে গতকাল সকাল ১০টায় রতনদিয়া ইউপিতে ডিলার মোঃ আজিজুল ইসলাম এর রতনদিয়া চাউল বাজার বিক্রয় কেন্দ্রে আনুষ্ঠানিকভাবে এ খাদ্য শস্য বিতরণের শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী সাইফুল ইসলাম। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফায়েল আহমেদ,  খাদ্য পরিদর্শক মহব্বতুন্নোছা রতœা, উপখাদ্য পরিদর্শক মোঃ একরাম হোসেন খান, ট্যাগ অফিসার হিসেবে মোঃ মনসুর রহমান, সমাজসেবা অফিসার মোঃ জিল্লুর রহমান, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভিন নিলুুফা এছাড়াও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন মোল্লা, সহ-সভাপতি খোরশেদ মোল্লা, ইউনিয়ন আ’লীগ নেতা খোন্দকার আনিসুল হক বাবু, ডিলার মোঃ আজিজুল ইসলাম সহ বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য এ কর্মসূচীর আওতায় উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ১২ হাজার ৮ শত ৩৬ কার্ডধারীকে ১০ টাকা মূল্যে ৩০ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হবে।

গাংনীতে ধর্ষকের বিচারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের হিন্দা গ্রামে ধর্ষকের বিচারের দাবীতে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। গতকাল সোমবার দুপুরে পশ্চিম মালসাদহ তেঁতুলবাড়ীয়া সড়কের হিন্দা গ্রামে মানববন্ধন করে হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক তাহাজ উদ্দীনকে গ্রেফতার ও তার বিচারের দাবীতে এ মানববন্ধন করা হয়। মানববন্ধনে নেতৃত্ব প্রদান করেন হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আমানুল্লাহ, সহ-সভাপতি শাহাজান আলী, প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা, তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জেকের আলী। এ সময় মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী- পেশার মানুষ। উল্লেখ্য, (গত ৭ সেপ্টেম্বর) শুক্রবার বিকেলে হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে হিন্দা গ্রামের বাগানপাড়ার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে তাহাজ উদ্দীন নিজ বাড়িতে ফুসলিয়ে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার পরিবারকে বলে। এনিয়ে স্থানীয়রা ধর্ষক তাহাজ উদ্দীনের খুঁজতে গেলে সুযোগ বুঝে সে পালিয়ে যায়। পরের দিন সকালে পুলিশ ধর্ষিত ছাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ডাক্তারি পরীক্ষার  সম্পন্ন করে। এ ঘটনায় তাহাজ উদ্দীনের নামে গাংনী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়। মামলা নং-৯, তারিখ-০৯/০৯/১৮ ইং। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- ধর্ষিত ওই ছাত্রী, তাহাজ উদ্দীনের মেয়ের বান্ধবী। তাহাজ তার মেয়ের নাম ভাঙিয়ে ধোকা দিয়ে  ওই ছাত্রীকে তার বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। একটি সূত্র জানায়, তাহাজ এর আগেও একটি মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল। এবং ঐ ঘটনায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছিল। যা বর্তমান বিচারাধীন।

গাংনীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ডেন্টাল ক্লিনিক সিলগালা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ ডাক্তারী সনদ, ক্লিনিকের অনুমোদন ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি না থাকায় মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার করমদী গ্রামে ডেন্টাল ক্লিনিকে সীলগালা করে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। গতকাল সোমবার দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মহিদুল ইসলাম ও  মিনহাজুল ইসলাম যৌথভাবে এ ক্লিনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার ডাক্তার ফয়সাল কবির উপস্থিত ছিলেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মহিদুল ইসলাম জানান, করমদী ডেন্টাল ক্লিনিকে মালিক এমদাদুল হকের ডেন্টাল ডাক্তারী সনদ না থাকা, ক্লিনিকের অনুমোদন ও প্রয়োজনীয় প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি না থাকায় ওই ডেন্টাল ক্লিনিকটি সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, এর আগেও করমদী ডেন্টাল ক্লিনিকটি একই অভিযোগে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করে ক্লিনিক না চালানোর জন্য শতর্ক করে দিয়েছিল ভ্রাম্যমাণ আদালত। ক্লিনিক মালিক এমদাদুল হক  নির্দেশ না মেনে অবৈধভাবে ক্লিনিক চালিয়ে আসছিলেন। মেডিকেল ও এন্ড ডেন্টাল ক্লিনিক আইনে এ ক্লিনিকটি সিলগালা করে দেয়া হয়েছে। তবে সে পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হয়নি।

কুষ্টিয়া জেলা শিল্পকলা একাডেমির নির্মাণ কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন সদর সাংসদ হানিফ

৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে কুষ্টিয়া জেলা শিল্পকলা একাডেমির নির্মাণ কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। গতকাল সোমবার সকালে এর কার্যক্রম পরিদর্শন করেন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফ। এসময় কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন,  জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, নির্মাণ কাজের প্রকল্প পরিচালক মোঃ বদরুল আলম ভূঁইয়া, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির রক্ষণাবেক্ষণ প্রকৌশলী সুখদেব চন্দ্র দাস, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারন সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহীন সরকার, সহ-সভাপতি আশরাফ উদ্দিন নজু, জেলা কালচারাল অফিসার সুজন রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ, নির্মাণ কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ, নির্মাণ কাজের তদারকীর জন্য উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ এবং ব্যবসায়ীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল

খালেদাকে কারাগারে রেখে এদেশে কোনো নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না

ঢাকা অফিস ॥ খালেদা জিয়া মুক্তি না পেলে বিএনপি আগামী নির্বাচনও বর্জন করতে পারে বলে ফের ইংগিত এসেছে দলটির এক মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে। গতকাল সোমবার ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “দেশনেত্রীকে মুক্তি দিলে তাহলেই বোঝা যাবে যে এই সরকার দেশে নির্বাচন চায়।” জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজায় গত ৮ ফেব্র“য়ারি থেকে কারাগারে বন্দি রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তার মুক্তির দাবিতে ঢাকায় প্রেস ক্লাবের সামনে এবং সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরে বেলা ১১টা থেকে এক ঘণ্টার এই মানববন্ধন কর্মসূচি চলে। এই কর্মসূচিতে মানববন্ধন হওয়ার কথা থাকলেও ঢাকার কেন্দ্রীয় কর্মসূচি বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে সমাবেশের রূপ পায়। প্রেস ক্লাবের সামনে গুরুত্বপূর্ণ ওই সড়কের এক পাশ বন্ধ থাকায় সৃষ্টি হয় যানজট। প্রেসক্লাবের ফুটপাতসহ সড়কের পাশে অবস্থান নেওয়া নেতা-কর্মীরা ‘মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’, জেলের তালা ভাঙব, খালেদা জিয়াকে আনব’, খালেদা জিয়া ছাড়া নির্বাচন মানি না, মানব না’ স্লোগান ধরেন। মির্জা ফখরুল বলেন, “দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, এদেশে কোনো নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না জনগণের কাছে, যদি দেশনেত্রী কারাগারে থাকেন।” সরকারপতনের আন্দোলনে সকল রাজনৈতিক দলের বৃহত্তর ঐক্যের ডাক দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “এখন দরকার আমাদের ঐক্য, ইস্পাত কঠিন ঐক্য। দলের মধ্যে সেই ঐক্য তৈরি করে, জনগণের মধ্যে সেই ঐক্য তৈরি করে, সকল রাজনৈতিক দল ও সকলের মিলে সেই ঐক্য তৈরি করে এই যে ভয়াবহ দানবকে সরিয়ে জনগণের সরকার, জনগণের গণতন্ত্র, জনগণের রাষ্ট্র তৈরি করতে হবে।” নির্বাচন প্রশ্নে বিএনপির দাবিগুলো আবারও তুলে ধরে ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশে ফখরুল বলেন-“আমরা স্পষ্ট করে বলেছি, এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে তফসিল ঘোষণার আগেই, সংসদ ভেঙে দিতে হবে তফসিল ঘোষণার আগেই। আমরা বলেছি একটা নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে নির্বাচন পরিচালনার জন্য, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করতে হবে, নির্বাচনের সময় সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।” সরকার সারাদেশে ‘ভৌতিক মামলা’ দিয়ে বিএনপি নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার করছে এবং হুমকি-ধামকি দিয়ে ‘গোটা জাতিকে জিম্মিতে পরিণত’ করেছে বলে অভিযোগ করেন এই বিএনপি নেতা। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে ‘বাইরে রেখে’ ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মত আরেকটি নির্বাচন করাই আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের ‘উদ্দেশ্য’। “কিন্তু দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে, আগামী নির্বাচন হতে হবে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে।  সারাদেশের মানুষ যেমন এই দাবিতে একমত, সারা বিশ্বও বাংলাদেশে একটা সুষ্ঠু অংশগ্রহনমূলক নির্বাচন দেখতে চায়।” বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদের পরিচালনায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সেলিমা রহমান, বরকতউল্লাহ বুলু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, শওকত মাহমুদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, জয়নুল আবদিন ফারুক,  হাবিবুর রহমান হাবিব, আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, নাজিমউদ্দিন আলম, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরফত আলী সপু, আজিজুল বারী হেলাল, মহানগর দক্ষিণের কাজী আবুল বাশার, যুব দলের মোরতাজুল করীম বাদরু, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল,শ্রমিক দলের নুরুল ইসলাম খান নাসিম, ছাত্র দলের রাজীব আহসান, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান মানববন্ধনে বক্তব্য দেন।

দৌলতপুরে পথসভা ও লিফলেট বিতরণকালে ড. মোফাজ্জেল হক

বাংলাদেশ এখন শুধু উন্নয়নের রোল মডেলই নয়, একটি মানবিক রাষ্ট্র হিসেবেও প্রশংসিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া দৌলতপুরের হোসেনাবাদ বাজারে পথসভা ও লিফলেট বিতরণ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা উপ-কমিটির সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ খুলনা বিভাগীয় শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. মোফাজ্জেল হক। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর দৌলতপুরে উপজেলার হোসেনাবাদ বাজারে এ পথসভা ও সাধারণ জনগণের মাঝে “যে কারণে দরকার শেখ হাসিনার সরকার” শিরোনামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের বার্তা লিফলেট বিতরণ করেন ড. মোফাজ্জেল হক। তিনি বলেন, বিশ্বের বুকে বাংলাদেশ এখন শুধু উন্নয়নের রোল মডেলই নয়, একটি মানবিক রাষ্ট্র হিসেবেও প্রশংসিত। কথিত তলাবিহীন ঝুড়ির বাংলাদেশ আজ ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেয়ার পাশাপাশি খাদ্য, বস্ত্র-চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়। বিশ্লেষকরা মনে করেন, এ সবকিছুই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়চেতা ও সাহসী নেতৃত্বের কারণে। মোফাজ্জেল হক আরো বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, তথ্যপ্রযুক্তি, ক্রীড়া, পরিবেশ, কৃষি, খাদ্য, টেলিযোগাযোগ, সংস্কৃতি, সামাজিক নিরাপত্তা, মানবসম্পদ উন্নয়ন এমন কোনো খাত নেই যে খাতে অগ্রগতি সাধিত হয়নি। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে গত কয়েক বছরে দেশে অবকাঠামো উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন, পুষ্টি, মাতৃত্ব এবং শিশু স্বাস্থ্য, প্রাথমিক শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন ইত্যাদি ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। পথ সভায় সভাপতিত্ব করেন বাজার কমিটির সভাপতি হাসেম উদ্দিন। এ সময় থানা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক রেজাউল করিম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ’র সহ-সভাপতি আশরাফ উদ্দিন শেখ, যুবলীগ নেতা নাসির উদ্দিন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি কাজি আলাউদ্দিন মিল্টন, থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক রুবেল জোয়ার্দ্দারসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

শেখ হাসিনাকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা- আপনি জিতুন, আমরা আবার আসব

ঢাকা অফিস ॥ শেখ হাসিনার কাছ থেকে সফরের আমন্ত্রণ পেয়ে বাংলাদেশে আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার বিজয় প্রত্যাশা করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল সোমবার দ্বিপক্ষীয় দুটি প্রকল্পের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে কলকাতা থেকে যুক্ত হয়েছিলেন মমতা। ঢাকা থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং নয়া দিল্লি থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রকল্প দুটির উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর বাংলাদেশ লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন শেখ হাসিনা। দুজনের শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর শেখ হাসিনা বলেন, “বাংলাদেশে আবার আসেন বেড়াতে, সেটাই চাই।” তখন মমতা বলেন, “নিশ্চয় আসব। আপনি জিতুন, আমরা আসব আবার।” বাংলাদেশে এই বছরের শেষ নাগাদ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনে জয়ী হলে একটানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গড়ার রেকর্ড করবে শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগ। সোমবার উদ্বোধন করা দুটি প্রকল্পের একটি ছিল ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ বাংলাদেশের আমদানি নিয়ে। পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর গ্রিড থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার আন্তঃবিদ্যুৎ সংযোগ গ্রিডের উদ্বোধন করেন দুই প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের জাতীয় গ্রিডে আরও ১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্রত্যাশা করেন। নিজ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈরিতার সম্পর্কে থাকা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বলেন, “হ্যাঁ, আমি রাজি আছি। গভর্নমেন্ট ওইদিক থেকে ক্লিয়ারেন্স দিলেই আমরা করে দেব। কাজে লাগলেই ভালো।” আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেললাইন প্রকল্পের বাংলাদেশ অংশ এবং মৌলবীবাজারের কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেল সংযোগ পুনঃপ্রকল্পের নির্মাণ কাজও উদ্বোধন হয় এই অনুষ্ঠানে। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবও এই অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর আমন্ত্রণ পেয়ে বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ দেখান বাংলাদেশ থেকে যাওয়া এই বিজেপি নেতা।  বিপ্লব বলেন, “আমি আসব আপনার কাছে।” কবে- শেখ হাসিনা জানতে চাইলে বিপ্লব বলেন, “আমি কোনো একটা কারিকুলাম বানিয়ে আসব। আপনার কাছেই আসব।” বাংলাদেশের চাঁদপুরের কচুয়ার সন্তান বিপ্লব এই বছরের শুরুতে ত্রিপুরা রাজ্য নির্বাচনে বিজেপিকে জয়ী করে মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে পাড়ি জমিয়েছিলেন তার বাবা-মা।

কুষ্টিয়ায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী ইনু

বিএনপির ঐক্যের উদ্যোগ অপরাধীদের চামড়া বাঁচানোর জন্য

নিজ সংবাদ ॥ জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপির ঐক্যের উদ্যোগ দেশের জন্য নয়, এ উদ্যোগ অপরাধীদের চামড়া বাঁচানোর জন্য। বিএনপি রাজাকার, দুর্নীতিবাজ, খুনী, যুদ্ধাপরাধী ও সাম্প্রদায়িক চক্রসহ সকল অপরাধীদের একটি জাতীয় ঐক্যের নেতৃত্ব দেয়ার চেষ্টা করছেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ। এটা দেশের রাজনীতির ঐক্য না। এটা রাজনীতির জন্য একটা অশনী সংকেত। গতকাল সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে দলীয় নেতা কর্মিদের সাথে মতবিনিময় শেষে ‘ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এ সময় ইনু বলেন, শেখ হাসিনর নেতৃত্বে ধারাবাহিকভাবে আমরা বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে দেশটাকে বের করা হচ্ছে। এবং সে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসার জন্যে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার, এ রকম একটি প্রেক্ষাপটে বিএনপি নেতারা বঙ্গবন্ধুর খুনীসহ সকল অপরাধীদের নিয়ে একটা ঐক্য করার উদ্যোগ নিয়েছে। সুতারাং বিএনপির নেতৃত্বে দেশের সকল অপরাধীরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। মন্ত্রী এরপর মিরপুর একটি ফুটবল টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন শেষে ভেড়ামারায় ভারত থেকে আসা ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।