ইমামদের রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ কোর্স উদ্বোধনকালে হানিফ

ইসলামের জন্য সবচেয়ে ক্ষতিকর জামায়াত

ঢাকা অফিস ॥ ইসলামের জন্য জামায়াতে ইসলাম সবচেয়ে ক্ষতিকর বলে উল্লেখ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। তিনি বলেন, এই দলটি ইসলামকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। ধর্মের দোহাই দিয়ে একাত্তরে আমাদের স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছে। গনিমতের মাল বলে নারীদের ইজ্জত লুণ্ঠন করেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আগারগাঁওস্থ প্রধান কার্যালয়ে ইমামদের ৫ দিনব্যাপী রিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। হানিফ বলেন, মানুষের নৈতিক অধঃপতন সমাজের সবচেয়ে বড় সমস্যা। মানুষের নৈতিকতা, সততা ও মূল্যবোধ কমে যাচ্ছে। মানুষের নৈতিকতা, সততা ও মূল্যবোধ ফিরিয়ে আনতে পারে ইমাম ও আলেম সমাজ। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এদেশে ইসলামের প্রচার প্রসারে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছেন। তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা ও বিশ্ব ইজতেমার জন্য টঙ্গিতে জায়গা বরাদ্দ করেছেন। হজযাত্রীদের জন্য ‘হিযবুল জাহাজ’ ক্রয় করেছেন। মদ, জুয়া ও হাউজি নিষিদ্ধ করেছেন। রেসকোর্স ময়দানে ঘোড়দৌড় নিষিদ্ধ করেছেন। হানিফ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা ও নিরাপত্তা বিবেচনা করে কারাগারের পাশে আদালত স্থাপন করা হয়েছে। এজন্য বিএনপি সংবিধান লঙ্ঘনের যে অভিযোগ করেছে তার জবাবে তিনি বিএনপির কাছে জানতে চান যে, জিয়াউর রহমান যখন কারাগারের ভিতর আদালত বসিয়ে কর্নেল তাহেরকে ফাঁসি দিয়েছে তখন কি সংবিধান লঙ্ঘিত হয়নি?

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল

খালেদা জিয়াকে হত্যার চেষ্টা হচ্ছে

ঢাকা অফিস ॥ সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ‘বিনা চিকিৎসায়’ কারাগারে আটকে রেখে ‘হত্যার চেষ্টা চালাচ্ছে’ বলে অভিযোগ করেছে দলটি। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল শুক্রবার সকালে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “পরিবারের সদস্যবৃন্দ গতকাল দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে কারাগারে গিয়েছিলেন। তারা এসে যে বর্ণনা দিয়েছেন, তাতে আমরা কেবল উদ্বিগ্নই নয়, আমরা হতবাক, বিস্মিত।” খালেদার অসুস্থার কথা বার বার জানানোর পরও সরকার তার চিকিৎসার কোনো ‘ব্যবস্থা নিচ্ছে না’ অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, “রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে তাকে মিথ্যা সাজানো মামলায় শাস্তি দিয়ে কারাগারে বেআইনিভাবে আটক রেখে তাকে হত্যা করার হীন প্রচেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।” বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে তার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি চাইবেন, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানাবেন। জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদন্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া গত ৮ ফেব্র“য়ারি থেকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি। ওই মামলায় তিনি হাই কোর্ট থেকে জামিন পেলেও অন্য মামলায় গ্রেপ্তার থাকায় তার মুক্তি মিলছে না। ৭৩ বছর খালেদার অসুস্থতার কথা তুলে ধরে ঢাকার বেসরকারি একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়ে আসছেন বিএনপি নেতারা। তবে গত এপ্রিলে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে খালেদার স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করে সরকারের তরফ থেকে বলা হয়, বিএনপি চেয়ারপারসনের অসুস্থতা ‘গুরুতর কিছু নয়’। এদিকে ‘অসুস্থতার কারণে’ খালেদা জিয়াকে গত সাত মাসে একবারও আদালতে হাজির করা সম্ভব না হওয়ায় জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ করতে কারাগারের ভেতরেই আদালতের এজলাস বসিয়ে বিচারের ব্যবস্থা করেছে সরকার। নতুন ওই এজলাসে বুধবার খালেদা জিয়াকে হাজির করা হয় হুইল চেয়ারে করে। আদালতে তিনি বলেন, তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। বাঁ পা ঠিকমত রাখতে পারেন না, বাঁ হাতেও ব্যথা। বিচারকের উদ্দেশে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী সেদিন বলেন, “আপনার যতদিন ইচ্ছা সাজা দিন, আমি এ অবস্থায় বারবার আসতে পারব না।” এরপর বৃহস্পতিবার পরিবারের সদস্যরা কারাগারে গিয়ে খালেদা জিয়াকে দেখে এসেছেন জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, “তারা বলেছেন, দেশনেত্রী অত্যন্ত অসুস্থ। তার বাঁ হাত ও বাঁ পা প্রায় অবশ হয়ে গেছে। অসহ্য ব্যথা অনুভব করছেন। তিনি বলেছেন যে তার কোনো চিকিৎসা হচ্ছে না। একই কথা তিনি বলেছেন ৫ তারিখে কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরিত বেআইনি আদালত কক্ষে। তিনি বলে দিয়েছেন যে শারীরিক অবস্থার কারণে তিনি আদালতে যেতে পারবেন না। আমরা তার স্বাস্থ্য নিয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন।” দেশের প্রচলিত আইনে কোনো অসুস্থ নাগরিককে চিকিৎসা না দিয়ে বিচার কাজ চালানো যায় না মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে যা হচ্ছে তা ‘সম্পূর্ণ অমানবিক ও সংবিধান পরিপন্থি’। আমরা অনেকবার বলেছি, তাকে পরীক্ষা করে চিকিৎসকরাও বলেছেন তিনি মারাত্মকভাবে অসুস্থ। অবিলম্বে বিশেষায়িত হাসপাতালে স্থানান্তর করে তাকে চিকিৎসা দেওয়া তার জীবন রক্ষার জন্য অতি প্রয়োজন।… এখন যে অবস্থায় তিনি আছেন তাতে তার জীবন নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।” সরকারের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “আমরা দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই, অবিলম্বে দেশনেত্রীকে মুক্তি দিয়ে তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় সকল দায়-দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। বিশেষ করে সংবিধান লঙ্ঘন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে তাদের অভিযুক্ত হতে হবে।” সরকার খালেদা জিয়াকে ‘পরিত্যক্ত নির্জন কারাগারে স্যাঁত স্যাঁতে ঘরে’ আবদ্ধ করে রেখেছে মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, একজন সাধারণ বন্দির ক্ষেতেও এ ধরনের আচরণ করা হয় না। কারাগারের ভেতরে আদালত বসানোর প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “সরকার তাকে আবার শাস্তি দেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এটা স্পষ্ট যে দেশনেত্রীকে রাজনীতি থেকে এবং আসন্ন নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রেখে একতরফাভাবে নির্বাচনে নিজেদের নির্বাচিত ঘোষণা করার নীল নকশা  নিয়েই এ অপপ্রয়াস চালাচ্ছে সরকার।” সংবাদ সম্মেলনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আতাউর রহমান ঢালী, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মাসুদ অরুন, মুনির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

 

বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির ‘হোতার নাম’ জানাল যুক্তরাষ্ট্র

ঢাকা অফিস ॥ আড়াই বছর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরিতে উত্তর কোরিয়ার এক হ্যাকার জড়িত ছিলেন বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তার নাম পার্ক জিন হিয়ক। ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সনি কর্পোরেশন ও ২০১৭ সালে বিশ্বজুড়ে ‘ওয়ানাক্রাই র‌্যানসমওয়্যার’ সাইবার আক্রমণের দায়ে তার বিচার করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার দফতরকে উদ্ধৃত করে রয়টার্স এ তথ্য দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার দফতর বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ গ্রহণ করে বলেছে, পার্ক ২০১৬ সালে নিউইয়র্ক ফেড থেকে হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঞ্চিত অর্থ হাতিয়ে নেয়ায়ও জড়িত ছিলেন। এদিকে যুক্তরাষ্ট্র উদ্যোগ নিলেও নিজেদের এই নাগরিককে উত্তর কোরিয়া বিচারের জন্য ওয়াশিংটনের হাতে তুলে দেবে কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। দুই দেশের মধ্যে অপরাধী হস্তান্তরের কোনো চুক্তিও নেই। যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগের প্রতিক্রিয়া জানতে রয়টার্স জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার মিশনের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও কোনো উত্তর পায়নি। পার্কের বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়েছে, তিনি লাজারাস গ্র“প নামে একটি হ্যাকার দলের সদস্য হিসেবে কাজ করেন। তাদের লক্ষ্যবস্তু যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ২০১৬ ও ২০১৭ সালে পার্ক যুক্তরাষ্ট্রের লকহিড মার্টিনে সাইবার আক্রমণের চেষ্টা চালিয়েছিলেন বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ দফতর ইতিমধ্যে পার্ক এবং তিনি যে চীনা কোম্পানিতে কাজ করেন সেই চোসান এক্সপোর ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (ফেড) রাখা বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে ভুয়া সুইফট বার্তা পাঠিয়ে শ্রীলঙ্কায় পাঠানো ২ কোটি ডলার লোপাট আটকানো গেলেও ফিলিপিন্সে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার জুয়ার টেবিল ঘুরে হাতবদল হয়। তার মধ্যে দেড় কোটি ডলার ফিলিপিন্স সরকার উদ্ধার করে ফেরত দিলেও বাকি অর্থের হদিস মেলেনি। এ সাইবার আক্রমণের ঘটনা তখন বিশ্বজুড়ে তোলপাড় তুলেছিল। বাংলাদেশে সিআইডি এ ঘটনার তদন্ত করে হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে রিজার্ভ চুরির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার কথা ইতিমধ্যে জানিয়েছে। ফিলিপিন্স সরকারও এ ঘটনার তদন্তের উদ্যোগ নেয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ ফিলিপিন্সের যে ব্যাংকে পাঠানোর পর হাপিস করা হয়েছিল, সেই রিজল ব্যাংকের কর্মকর্তা মায়া সান্তোস দেগিতো এখন বিচারের মুখোমুখি। তবে দেগিতোর দাবি, এ ঘটনার হোতাদের বাদ দিয়ে তাকে দাবার ঘুঁটি বানানো হয়েছে। তিনি ইঙ্গিত করেছেন, ফিলিপিন্সে ওই চুরির অর্থ ঢোকানোর পেছনে অনেক দেশের প্রভাব এবং ক্ষমতাধর ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ব্যাংকটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের যোগসাজশ রয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে ফিলিপিন্সের সিনেট কমিটি সন্দেহ করছিল, বাংলাদেশের এ অর্থ চুরির পেছনে চীনা হ্যাকারদের হাত থাকতে পারে।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গোপন নথির ওপর বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

ঢাকা অফিস ॥ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে পাকিস্তানি আমলের গোয়েন্দা প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সঙ্কলিত ‘সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইনটেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অফ দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন তারই মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল শুক্রবার গণভবনে এক অনুষ্ঠানে ১৪ খন্ডের এই সঙ্কলনের প্রথম খন্ডের মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি। ১৯৪৮ থেকে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিদিনের কর্মকান্ড পর্যবেক্ষণ করে প্রতিবেদন তৈরি করত পাকিস্তানের ইনটেলিজেন্স ব্রাঞ্চ (আইবি)। দীর্ঘ ২৩ বছরের সেইসব গোয়েন্দা প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ১৪ খন্ডের এই সঙ্কলন প্রকাশ করছে হাক্কানী পাবলিশার্স। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নেন শেখ মুজিবুর রহমান। কালক্রমে তার হাত ধরেই বিশ্ব মানচিত্রে নতুন দেশ হিসেবে স্থান করে নেয় বাংলাদেশ। তরুণ শেখ মুজিব নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে কেমন করে বাংলার অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হলেন- সেই পথচিত্র যেমন এই বইয়ে এসেছে, সেই সঙ্গে এসেছে বাঙালির স্বাধীনতার আন্দোলনের চূড়ান্ত পরিণতির দিকে এগিয়ে চলার মানচিত্র। এসব কারণে ঐতিহাসিক দৃষ্টিকোণ থেকে এই সঙ্কলনকে বিশেষজ্ঞরা বর্ণনা করছেন ‘অমূল্য সম্পদ’ হিসেবে।  ১৪ খন্ডের সঙ্কলনে ভাষা আন্দোলন, জমিদারি প্রথা বিলুপ্তকরণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলন, আওয়ামী লীগের জন্ম, শেখ মুজিবুর রহমানের চিঠিপত্র, বিভিন্ন লিফলেট বিতরণ, বক্তব্য-বিবৃতি, গ্রেপ্তার, কারাবরণ, কারাগারে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আত্মীয়-স্বজন ও নেতাকর্মীদের সাক্ষাতের বিষয়গুলো উঠে এসেছে পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের বয়ানে। ইংরেজি ভাষায় লেখা পুরনো এসব নথি দীর্ঘদিন ধরে পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) রেকর্ড রুমেই পড়ে ছিল অযতœ আর অবহেলায়। বর্তমান পুলিশ মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী এসবি প্রধানের দায়িত্বে থাকার সময় প্রধানমন্ত্রীর উৎসাহে সেসব নথি সংরক্ষণের উদ্যোগ নেন এবং ৬০৬-৪৮ ফাইল নম্বর দিয়ে বঙ্গবন্ধুর বিষয়ে যেসব ক্লাসিফায়েড তথ্য সেখানে ছিল, সেগুলোর পাঠোদ্ধার ও সঙ্কলিত করার ব্যবস্থা করেন। ‘সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইনটেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অফ দা নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ উৎসর্গ করা হয়েছে বঙ্গবন্ধুর সহযোদ্ধাদের উদ্দেশে। ৫৮২ পৃষ্ঠার প্রথম খন্ডের দাম রাখা হয়েছে ৯০০ টাকা। একই নকশায় প্রতিটি খন্ডের প্রচ্ছদ করেছেন সমর মজুমদার। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেমোরিয়াল ট্রাস্ট আয়োজিত প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠানে মঞ্চে ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, পুলিশ মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী, বঙ্গবন্ধু জাদুঘরের কিউরেটর নজরুল ইসলাম খান, ট্রাস্টের সদস্য সচিব শেখ হাফিজুর রহমান, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান এবং হাক্কানী পাবলিশার্সের প্রকাশক গোলাম মোস্তফা। বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহেনা, স্পিকার শিরীন শারিমন চৌধুরী এবং বিরোধী দলীয় নেত্রী রওশন এরশাদও ছিলেন অনুষ্ঠানে।  এছাড়া অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাসান মাহমুদ আলী, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, সাবেক আইিজপি এ কে এম শহীদুল হক, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা ও চার নির্বাচন কমিশনার, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলির সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ঢাকায় ভারতের হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি, দেশি-বিদেশি  অতিথি, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও নানা শ্রেণিপেশার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন এই মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে।

 

টিআর’র ১০০ প্রকল্পের অর্ধেকই অস্তিত্বহীন

দ্বিতীয় কিস্তির টাকা ভুয়া ভাউচারে উত্তোলনের চেষ্টা

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে প্রথম কিস্তির ৪০ লাখ টাকা উত্তোলন করেও কাজ করেনি পিআইসিরা

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের শুপুকুরিয়া গ্রামের নিজামের বাড়ি হতে লবারের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা মেরামতের জন্য টেষ্ট রিলিফের (টিআর) ৭৮ হাজার ২০২ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কাজের জন্য উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও একটি কমিটি জমা দেয়া হয়। কমিটির পিআইসি ছিলেন আকবর আলী নামের এক ব্যক্তি। জুন মাসে আকবর আলীর নামে পিআইও অফিস থেকে প্রথম কিস্তির ৩৯ হাজার টাকাও ছাড় করা হয়।

গত জুন মাসে টাকা উত্তোলন হলেও এখানো এ প্রকল্পে এক ঝুঁড়ি মাটিও পড়েনি। অথচ কাজ করে দ্বিতীয় কিস্তির অর্থ উত্তোলনের কথা থাকলেও নতুন করে বাকি অর্থ উত্তোলন করতে ভুয়া কাগজপত্র উপজেলায় জমা দেয়া হয়েছে। এমনকি এলাকার লোকজনও জানেন না তাদের এলাকায় এমন একটি প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ এসেছে।

এদিকে প্রকল্পে কাজের কাছ কিছুই না হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সরেজমিন কাজ পরিদর্শন করে এসে দ্বিতীয় পর্যায়ের বিল আটকে দিয়েছেন। কাজ সুষ্ঠুভাবে না হলে এ বাকি অর্থ কোন ভাবেই পরিশোধ করা হবে না বলে সংশ্লিষ্ট পিআইসিদের জানিয়ে দিয়েছেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর থেকে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষন টেষ্ট রিলিফ (টিআর) কর্মসুচীর আওতায় জেলার কুমারখালী উপজেলার ১০০টি প্রকল্পের অনুকুলে ৭৮ লক্ষ ২০ হাজার ২৬৮ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এ প্রকল্পে সকল কাজ জুনের ৩০ তারিখের মধ্যে শেষ করার জন্য চিঠিতে নির্দেশ দেয়া হয়।

অনুসন্ধান করে দেখা গেছে, জুন মাসে কুমারখালী পৌর এলাকার ইউনুস আলী নামের এক ব্যক্তি ঢাকায় বিশেষ তদ্ববির করে এমপির ডিও লেটার দিয়ে এসব প্রকল্পে বরাদ্দ নিয়ে আসেন। তিনি বিভিন্ন ইউনিয়নে যেসব প্রকল্পের অনুকুলে অর্থ বরাদ্দ নিয়ে এসেছেন তার বেশির ভাগ ভুয়া ও কাগজে-কলমে। অনেক প্রকল্পের কোন অস্তিত্ত্ব নেই। আর যেসব প্রকল্পের অস্তিত্ত্ব আছে সেসব প্রকল্পেও কোন কাজ হয়নি।

কুমারখালী পৌর এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা জানান,‘ ইউনুস জোয়ার্দ্দারের বাড়ি পৌর এলাকার ৪ নম্বর ওয়ার্ডে। তার বাবার নাম মৃত ইউসুফ আলী জোয়ার্দ্দার। কুষ্টিয়া-৪ আসনে যারায় এমপি নির্বাচিত হন তারা ইউনুসকে ব্যবহার করেন। ইউনুস পিআইও অফিস নিয়ন্ত্রণ করেন। বিএনপি আমলেও তার দাপট ছিল পিআইও অফিসে। এমপির সাথে ভাল খাতির থাকায় প্রতি বছর মন্ত্রণালয়ে বিশেষ তদ্ববির ও অর্থ দিয়ে বিশেষ বরাদ্দ নিয়ে আসেন। সব দপ্তরকে ম্যানেজ করে তিনি অর্থ হাতিয়ে আসছেন। এক সময় ইউনুসের কিছু না থাকলেও এখন পৌর এলাকায় বিলাসবহুল দোতলা বাড়িসহ অনেক সম্পদের মালিক বনে গেছেন।

সরেজমিন কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরে বেশির ভাগ প্রকল্পেই কাজের কোন প্রমাণ মেলেনি। ওইসব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এমনকি সাধারন মানুষ কাজের বিষয়ে কিছু বলতে পারেননি। কয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়াউল ইসলাম স্বপন বলেন,‘ আমার ইউনিয়নেও এ ধরনের ১০ থেকে ২০টি প্রকল্প এসেছিল। আমি চ্যালেঞ্জ করেছিলাম এসব প্রকল্পে কোন কাজই হয়নি। অথচ টাকা তুলে নেয়া হয়েছে। যেসব প্রকল্প দেয়া হযেছে তার বেশির ভাগই ভুয়া বলে মনে হয়েছে।

শিবরামপুর গ্রামের মান্নানের বাড়ি থেকে উসমানের বাড়ির পর্যন্ত রাস্তা মেরামতেও বরাদ্দ দেয় সমপরিমান অর্থ। এখানে গিয়েও কাজের কোন নমুনা পাওয়া যায়নি। আশেপাশের বান্দিসারাও জানান, এখানে প্রকল্প এসেছে কিনা তা তারা জানেন না। কাজতো দুরে থাক। আর এ সড়কতো ভাল। এখানে কাজ করার কিছু নেই।’

প্রকল্পের পিআইসি কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান বলেন, আমি তেমন কিছু জানি না। সব ইউনুস নিয়ন্ত্রণ করেন। তার নামে টাকা উত্তোলন হলেও ইউনুস সব নিয়ে গেছেন। কাজের ব্যাপারে তিনি বলতে পারবেন না।

একই অবস্থা কয়া ইউনিয়নের পশ্চিম কয়া গ্রামের নাজিরের বাড়ি থেকে মিজানুরের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা মেরামত ও জগন্নাথপুর ইউনিয়নের দয়রামপুর গনি মেম্বারের বাড়ি থেকে শ্মশান পর্যন্ত রাস্তা মেরামতের নামে টাকা তুলে কোন কাজ করা হয়নি। প্রকল্পের পিআইসি মাজেদ আলীও সব দায় চাপান ইউনুসের ওপর।

পিআইও অফিসের একাধিক সুত্র জানিয়েছে, প্রথম দফায় অর্ধেক অর্থ লোকজনের মাধ্যমে উত্তোলন করেছেন ইউনুস। কোন কাজই করেননি তিনি। দু’একটি প্রকল্পে ৫ থেকে ২০ ভাগ কাজ হলেও অর্ধেক প্রকল্পে কোন কাজই হয়নি। এমনকি অনেক প্রকল্প শুধুমাত্র কাগজে-কলমে। তাই দ্বিতীয় দফায় তাদের বিল আটকে দেয়া হয়েছে। ওপরের নির্দেশনা আছে কাজ না করলে বিল দেয়া যাবে না।

এদিকে বিল ছাড়ের জন্য প্রতিনিয়ত চাপ দিচ্ছেন ইউনুস। প্রভাবশালীদের দিয়েও নানাভাবে চাপ দিচ্ছেন ইউএনও ও পিআইওকে।

কুমারখালী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহমুদুল ইসলাম বলেন,‘ আমাদের লোকজন কাজ পরিদর্শনে গিয়ে অনেক অনিয়ম পেয়েছে। কিছু প্রকল্পে সামান্য কাজ পাওয়া গেলেও বাকি অনেক প্রকল্পে কোন কাজ হয়নি। অথচ কাজ না করেই বিল তোলার জন্য কাগজপত্র জমা দিয়েছেন। তবে দ্বিতীয় কিস্তির কোন অর্থ দেয়া হয়নি।

এসব প্রকল্পে বিষয়ে জানতে চাইলে ইউনুস জোয়ার্দ্দার বলেন, ‘ওপরে অনেক টাকা পয়সা দিয়ে প্রকল্প পাশ করে আনতে হয়। নিচের লেবেলেও অর্থ দেয়া লাগে। সব জায়গায় অর্থ খরচ করে তেমন লাভ থাকে না। অনেক প্রকল্পে এখনো কাজ শুরু হয়নি বলে স্বীকার করেন তিনি।

 

অভিনেত্রী পায়েল চক্রবর্তীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বিনোদন বাজার ॥  হোটেলকক্ষ থেকে কলকাতার এক অভিনেত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গত বুধবার সকালে ভারতের শিলিগুড়ির এয়ারভিউ মোড়ে অবস্থিত একটি হোটেল থেকে এ অভিনেত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয় পুলিশ। মৃত অভিনেত্রীর নাম পায়েল চক্রবর্তী (৩৮)। ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যম এ খবর প্রকাশ করেছে। হোটেল কর্মী অরুণ দেব বলেন, ‘গত মঙ্গলবার রাতে এই মহিলা হোটেলে আসেন। এসে রুমে চলে যান। রাতে খাবারও খাননি তিনি। সকালে ডাকাডাকি করে সাড়া না মেলায় পুলিশে খবর দেওয়া হয়।’ প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হোটেলের ১৩ নম্বর কক্ষে ছিলেন পায়েল। পুলিশ এসে রুমটির দরজা ভেঙে পায়েলের লাশ উদ্ধার করে। আরেক হোটেল কর্মী পুলিশকে জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত ফোনে চিৎকার করে কথা বলতে শোনা যায় পায়েলকে। এতটাই জোরে কথা বলছিলেন, যে ঘরের বাইরেও সেই আওয়াজ এসে পৌঁছায়। তবে এই অভিনেত্রীর মোবাইল ফোনটি এখনো পাওয়া যায়নি। তার ফোনের ডিটেইলস খতিয়ে দেখছে এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলছে পুলিশ। গত সোমবার শিমুরালিতে শুটিং করেন পায়েল। মঙ্গলবার অন্য একটি শুটিংয়ের জন্য রাঁচী যাওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল থেকেই তার ফোন বন্ধ ছিল। মেয়ের কোনো খোঁজ না পাওয়ায় ওই দিনই পায়েলের মা দক্ষিণ ২৪ পরগনার পঞ্চসায়র থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন বলেও অন্য একটি প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

জানা যায়, ২০০৬ সালে বিয়ে করেন পায়েল। তার নয় বছরের একটি ছেলে রয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে পুরোদমে অভিনয় শুরু করার পর পরিবারকে খুব একটা সময় দিতে পারতেন না পায়েল। ছেলেকেও সময় দিতে না পারায় মানসিক অশান্তিতে ভুগতেন তিনি। এরপর একই বছর ডিভোর্সের মামলা করেন তার স্বামী। এরপর নাকি আরো মানসিক অশান্তি বেড়েছিল পায়েলের। টালিগঞ্জে একটি ফ্ল্যাটে স্বামীর সঙ্গে থাকত তার ছেলে। আর পায়েল একাই থাকতেন নিউ গড়িয়ার একটি ফ্ল্যাটে।

দেব অভিনীত দর্শকপ্রিয় সিনেমা ‘ককপিট’-এ স্বল্প সময় অভিনয় করেছেন পায়েল। টেলিভিশনের পাশাপাশি ওয়েব সিরিজেও কাজ করেছেন তিনি। ‘চোখের তারা তুই’ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করে দর্শকের নজর কাড়েন পায়েল। এছাড়াও ‘গোয়েন্দা গিন্নি’ এবং ‘জড়োয়ার ঝুমকো’ সিরিয়ালে অভিনয় করেন পায়েল। ‘কেলো’ নামের একটি সিনেমার গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে তার অভিনয় করার কথা ছিল বলেও জানা যায়।

আবারও আমেরিকায় ৫ শহরে ‘স্বপ্নজাল’

বিনোদন বাজার ॥ মনপুরা খ্যাত পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিম এর দ্বিতীয় সিনেমা স্বপ্নজাল আমেরিকার ৫টি সিটিতে প্রদর্শীত হবে । বাংলা সিনেমার বিশ্ব পরিবেশক বায়োস্কোপ ফিল্মস এই প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। সিনেমাটি দেখানো হবে নিউ ইয়র্ক, ভার্জেনিয়া, ফেøারিডা, নর্থ ক্যারোলিনা এবং ডালাসে। সিনেমায় অপু চরিত্রে ইয়াশ রোহান ও শুভ্রার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন পরীমণি।

বায়োস্কোপ ফিল্মস’র সিইও রাজ হামিদ জানান, ৯ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেল ৪টায় জ্যামাইকার সিনেপ্লেক্স। নর্থ ক্যারলিনার রোলি শহরের ওয়েদারস্পোন স্টুডেন্ট সেন্টারে সিনেমাটি দেখা যাবে ১৫ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকেল ৪টা ৩০মিনিটে। ৭ অক্টোবর রোববার দুপুর ২টায় দেখা যাবে ভার্জেনিয়ার ডি সি সিনেমা হলে। ফ্লোরিডার অর্লেন্ডো শহরের সাউট চেইস সিনেমা হলে দেখা যাবে ৩০ সেপ্টেম্বর রোববার দুপুর ২টায়। ডালাসের ভেনিশিয়ান সিনেমা হলে সিনেমাটি দেখা যাবে ৭ অক্টোবর রবিবার দুপুর ২টায় ।রাজ হামিদ বলেন, আমেরিকার সিনেমা হল গুলো যেনো আমাদেও সিনেমা নিয়মিত প্রদর্শনীর আয়োজন কওে তাই আমরা দেশেল ভালো সিনেমাগুলো এখানে মুক্তি দেওয়ার চেষ্টা করি। আপনারা যদি হয়ে গিয়ে সিনেমা দেখেন তা হলো আমাদের প্রচেষ্ঠা সার্থক হবে। বাংলা সিনেমা এবং সংস্কৃতি হবে বিশ্বময়। মুক্তির মিছিলে রয়েছে পোরামন-২ এবং মাটি ।সিনেমায় আরো অভিনয় করেছেন মিশা সওদাগর, ফজলুর রহমান বাবু, শাহানা সুমী, শহিদুল আলম সাচ্চু, শিল্পী সরকার, ইরফান সেলিম, ফারহানা মিঠু, ইরেশ যাকের এবং শাহেদ আলী প্রমুখ। গিয়াস উদ্দিন সেলিম ‘মনপুরা’ সিনেমার নয় বছর পর নির্মাণ করেছেন ‘স্বপ্নজাল’। এটি প্রযোজনা করেছে বেঙ্গল ক্রিয়েশনস । এপ্রিলের ছয় তারিখ বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিলো স্বপ্নজাল।

টবে লাগানো গাছের পরিচর্যা

কৃষি প্রতিবেদক ॥ টবে কোনো গাছ লাগাবেন সবার আগে সেই গাছের জন্য উপযুক্ত টব  বেছে নিন। উপযুক্ত জায়গায় টব রাখুন। গাছের জন্য দরকার পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ উর্বর মাটি। মাটি অনুর্বর হলে গাছ ভালো হবে না। মাটির তিনভাগের এক ভাগ জৈব সার দিতে হবে। সঙ্গে হাড়ের গুঁড়ো, একটু চুন, সামান্য একটু ছাই দিলে পোকা ও রোগ আক্রমণ কম হবে। গাছের গোড়া যেন নিচু না হয়, যাতে পানি না জমে সেজন্য একটু চেপে মাটি সামান্য উঁচু করে দিতে পারেন। সম্পূর্ণ নতুন টব। ভালো করে ধুয়ে নিন। নতুন গাছের চারা, দেখে কিনতে হবে রোগমুক্ত কিনা। তারপরেও পাতা হালকা সাধারণ পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। শুকনো দূর্বা ঘাস টবের মাটির মাঝামাঝি দিয়ে তার ওপরে মাটি দিয়ে চারা গাছ লাগানো যায়। চারা কিনলে ছোট ধরনের কেনা উত্তম। গাছ সোজা রাখার জন্য খুঁটি বেঁধে দিন। খুঁটি হতে পারে বাঁশের কঞ্চি, গাছের ডাল বা অন্য সোজা  কোনো শক্ত কিছু। বনজ বা ফলজ গাছের জন্য এটা খুবই জরুরি। টবের গাছ ঘন ঘন পরিবর্তন করবেন না। আসুন  জেনে নিই টবে চাষ করার উপযুক্ত কিছু গাছের নাম ও তাদের পরিচর্যার পদ্ধতি।
মানিপ্ল্যান্ট ঃ পানি এবং মাটি দুই জায়গাতেই হয়। পানিতে লাগালে ৩-৪ দিন পর পানি পরিবতর্ন করা ভালো। মাটিতে লাগালে মাটি শুকনো হওয়ার আগে পানি দিন। কোনো রাসায়নিক সার সরাসরি গাছের গোড়ায় না দেয়া উত্তম। শিকড়ের ওপর দেবেন না।  গোবর সার দেয়া ভালো। যত কম পারবেন তত কম রাসায়নিক সার ব্যবহার করুন।
ক্যাকটাস ঃ কণ্টকময় ভালোবাসা। যার আছে সেই তা বুঝতে পারে। পানির চেয়ে রোদ  বেশি দরকার। প্রতিদিন কিছুটা রোদে রাখুন। শীতকালে পানি কম দিলে চলে।
টবের গাছের জন্য যে বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে হবে। প্রথমত ভালো মাটি, দ্বিতীয়ত পরিমিত পানি, তিন-পর্যাপ্ত আলো ও রোদ, চার- নিয়মিত গাছ দেখা, পাঁচ- রোগ বুঝতে পারলে গাছের ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া। অবশ্য গাছভেদে এসবের পরিমাণে ভিন্নতা হতে পারে। প্রখর রোদে চারাগাছকে বেশি সময় সরাসরি রাখবেন না। রাতে গাছে পানি দেয়া উত্তম। রাতে ১০০ গ্রাম শুকনো মরিচের গুঁড়া ১০ লিটার পানিতে ভিজিয়ে সকালে কাপড় দিয়ে ছেঁকে নিন। এবার অল্প পরিমাণ গুঁড়া সাবান মিশিয়ে একটু ফেনা করে নিয়ে রোদ থাকাকালে ¯েপ্র করতে পারেন, ভালো উপকার হতে পারে। চায়ের পাতা, ডিমের খোসা, আলুর খোসা কিংবা চাল ধোয়া পানি গাছের জন্য উপকারী। অল্প করে দিতে পারেন।
এবার একটি জৈব সার বানানোর কৌশল জেনে নিন। চা-পাতা, ডিমের খোসা,  গোবর, শুকনো পাতা এক জায়গায় কিছুদিন রেখে দিন। ভালো জৈব সার হবে। ডিমের খোসা, কলার খোসা, এবং চা/কফির ব্যবহৃত গুঁড়া একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। তারপরে মিশ্রনটি মাটির সঙ্গে মিশিয়ে রাখুন। কিছুদিন পর অল্প অল্প করে গাছের গোড়ার মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিন। কিছুদিন পর পর অবশ্যই মাটি কাঁচি দিয়ে কুপিয়ে ওলট-পালট করে  দেবেন। বেশি সার, পানি দিলে গাছ তরতর করে বেড়ে উঠবে। এমনটা ভাববেন না। সব কিছুই দেবেন, তবে পরিমিত। ধৈর্য ধারণ করতে হবে। টবে লাগানো গাছে খৈল দিলে পিঁপড়ার উপদ্রব হতে পারে। পোকা-মাকড়ের আক্রমণ থেকে বাঁচাতে ৭ দিনে একবার চুনের পানি ¯েপ্র করা যায়। অথবা এক গ্যালন পানিতে অ্যাসপিরিন ট্যাবলেট গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। তারপর ¯েপ্র করতে পারেন। অ্যাসপিরিন ট্যাবলেট ওষুধের দোকানে পাবেন। এক গ্যালন (ইউএস) হলো ৩.৭ লিটার।

জাতীয় দলে মেসির ভবিষ্যত অজানা আর্জেন্টিনা কোচের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ লিওনেল মেসি ভবিষ্যতে আর্জেন্টিনার হয়ে আর মাঠে নামবেন কিনা তা জানেন না দলটির অন্তর্বর্তীকালীন কোচ লিওনেল স্কালোনি। গুয়াতেমালা ও কলম্বিয়ার বিপক্ষে আসন্ন দুটি প্রীতি ম্যাচের দলে নেই ৩১ বছর বয়সী মেসি। এ বছর আর্জেন্টিনার অন্য ম্যাচগুলোতেও বার্সেলোনার তারকা এই ফরোয়ার্ডের খেলার সম্ভাবনা নেই বলে স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে। রাশিয়া বিশ্বকাপে মেসির অধিনায়কত্বে কোনোমতে গ্র“প পর্ব পার করার পর শেষ ষোলোতে ফ্রান্সের কাছে হেরে থামে আর্জেন্টিনার যাত্রা। সংবাদ মাধ্যমের দাবি, এরপর থেকেই জাতীয় দলে নিজের অবস্থান নিয়ে ভাবতে শুরু করেন মেসি। গুয়াতেমালার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের আগে পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলারের ভবিষ্যৎ প্রশ্নে স্কালোনি বলেন, “আমরা এরই মধ্যে এটা নিয়ে কথা বলেছি।” “আমি মনে করি, এটা পরিস্কার। আমরা তার সঙ্গে কথা বলেছি এবং পরের দল ঘোষণার সময় আমরা দেখব, সে ফিরে আসে কিনা।” “আমি মনে করি না, একটা ম্যাচের ঠিক আগের দিন তার সম্পর্কে কথা বলাটা যৌক্তিক। আমি নিশ্চিত যে ভবিষ্যতে কি ঘটে তা আমরা দেখব।

রোনালদো আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছে – মদ্রিচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ উয়েফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতা রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। গত মাসের শেষ দিকে সাবেক ক্লাব সতীর্থ রোনালদো ও লিভারপুলের মোহামেদ সালাহকে পেছনে ফেলে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো উয়েফা বর্ষসেরা ফুটবলার হন ৩২ বছর বয়সী মদ্রিচ। বৃহস্পতিবার পর্তুগালের সঙ্গে এক প্রীতি ম্যাচের পর ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক সাংবাদিকদের জানান, অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি পুরস্কারটি তার প্রাপ্য বলেও এক বার্তায় উল্লেখ করেন ইউভেন্তুস তারকা। “আরেকটা বড় পুরস্কারের (ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়) ফাইনালে থাকতে পেরে আমি খুশি। কি ঘটে আমরা দেখব।” “ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে আমার ভালো একটা সম্পর্ক আছে। ভবিষ্যতেও আমাদের সম্পর্ক ভালো থাকবে। ব্যক্তিগত পুরস্কার গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু তা নিয়ে আমি আচ্ছন্ন নই।” “ক্রিস্তিয়ানো আমাকে একটা বার্তা পাঠিয়েছিল। আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছিল এবং বলেছিল যে, সে আমার জন্য খুশি। তার মতে এটা আমার প্রাপ্য ছিল।”

এশিয়া কাপের দলে মুমিনুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দল নির্বাচনের আলোচনায় বেশ জোর দিয়েই বিবেচনায় ছিল তার নাম। তবে সুযোগ পাননি তখন। শেষ পর্যন্ত অবশ্য মুমিনুল হককে নিয়েই এশিয়া কাপে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। স্কোয়াডে যোগ করা হয়েছে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে। মুমিনুলকে নিয়ে বাংলাদেশ দল এখন ১৬ জনের। সবশেষ গত অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ওয়ানডে দলে ছিলেন মুমিনুল। তবে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি। ২০১৫ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মেলবোর্নের ম্যাচটি হয়ে আছে তার ২৬ ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সবশেষ ম্যাচ। মুমিনুলকে নেওয়া হয়েছে মূলত বেশ কয়েক জনের চোট সমস্যা ভাবনায় রেখে। বুধবার অনুশীলনে হাতে চোট পান নাজমুল হাসান শান্ত। আঙুলে চিড় ধরা পড়েনি, তবে শঙ্কা এখনও কাটেনি। বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা অবশ্য বলেছেন, প্রথম ম্যাচের আগেই শান্ত পুরো সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে আশা। তবু বিকল্প প্রস্তুত রাখতে চেয়েছে দল। এছাড়া আঙুলে চোট পেয়েছেন তামিম ইকবালও। ফিল্ডিং অনুশীলনে ডান হাতের অনামিকায় চোট পেয়েছেন এই ওপেনার। সাকিব আল হাসানের ফিটনেস নিয়ে তো সংশয় আছেই। সব মিলিয়েই দলে আনা হয়েছে মুমিনুলকে। সম্প্রতি আয়ারল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে ১৮২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন মুমিনুল। তার ওয়ানডে দলে ফেরা নিয়ে আলোচনা তীব্র হয়েছিল সেই ইনিংসটির পর। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর শুরু এবারের এশিয়া কাপ। বাংলাদেশ দল ঢাকা ছাড়বে ৯ সেপ্টেম্বর। বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার, মুমিনুল হক।

 

আলমডাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের চতুর্থ দিনে দুটি খেলা অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনুর্ধ্ব-১৭, জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের চতুর্থ দিনে দুটি খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বেলা ২টায় আলমডাঙ্গা ফুটবল মাঠে কালিদাশপুর ইউনিয়ন, ভাংবাড়িয়া ইউনিয়নকে ট্রাইবেকারে ও নাগদাহ ইউনিয়ন, খাদিমপুর ইউনিয়নকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ কাজী খালেদুর রহমান অরুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন ওসি (তদন্ত) লুৎফুল কবীর, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল হালিম মন্ডল, কাওসার আহমেদ বাবলু, প্রেসক্লাব সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক খন্দ. হামিদুল ইসলাম আজম। ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নুর মোহাম্মদ জকুর সার্বিক পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক টুটুল খন্দকার। রেফারির দায়িত্বে ছিলেন আব্দুস সালাম, শরিফুজ্জামান, মহসীন কামাল ও মোহাম্মদ আলী সিদ্দিক।

এশিয়া কাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে অনিশ্চিত তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে শংকা এখনো কাটেনি। এবার অনিশ্চয়তা দেখা দিল তামিম ইকবালকে ঘিরে। এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে তার মাঠে নামা নিয়ে শংকা দেখা দিয়েছে। গত বুধবার মিরপুরে ফিল্ডিং অনুশীলনের সময় ডান হাতের তর্জনীতে চোট পান নাজমুল। তার আঙুলের সবশেষ অবস্থার রিপোর্ট এখনও পায়নি বিসিবি। রিপোর্ট পাওয়ার পরই জানা যাবে এশিয়া কাপে তিনি খেলতে যাচ্ছেন কি না। এর কয়েকদিন আগে সেই ফিল্ডিং অনুশীলন করতে গিয়ে আঙুলে চোট পান তামিম। প্রাথমিকভাবে সেটাকে ততটা গুরুতর ভাবা হয়নি। এখন আঙুলে চিড় ধরা পড়েছে। ব্যথা না কমায় স্ক্যান করালে তাতে চিড় দেখা গেছে। এ কারণে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তার মাঠে নামা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে এরপর খেলতে পারবেন তিনি! প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, তামিমের হাতেও একটু চোট আছে। প্রথম ম্যাচের আগেই তা সেরে যেতে পারে। আবার নাও পারে। এখনো কোনো কিছুই চূড়ান্ত নয়। এবারের এশিয়া কাপ মাঠে গড়াবে ১৫ সেপ্টেম্বর। উদ্বোধনী ম্যাচে লংকানদের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচ জিতে টুর্নামেন্ট শুরু করতে চান টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা। এজন্য যে তামিমকে খুবই দরকার হবে তার। অবশ্য এখনো হাতে রয়েছে সাতদিন। এর মাঝে ড্যাশিং ওপেনারের সুস্থতা কামনা করছে বাংলাদেশ। আঙুলে চোট আছে সাকিব আল হাসানেরও। তার চোটটি গুরুতর। এশিয়া কাপের আগেই অস্ত্রোপচার করাতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপনের অনুরোধে পরে করাতে রাজি হয়েছেন তিনি। প্রথমে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। পরে চোটজর্জর দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে মুমিনুল হককে। ১৬ সদস্যের বাংলাদেশ স্কোয়াড: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান ও আবু হায়দার রনি।

ছেলে সন্তানের বাবা হলেন শহিদ কাপুর

বিনোদন বাজার ॥  ছেলে সন্তানের বাবা হলেন বলিউড অভিনেতা শহিদ কাপুর। হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে স্ত্রী মিরা কাপুর ছেলে সন্তানের জন্ম দেন।  হাসপাতালে মিরা কাপুরের মা বেলা রাজপুত, শহিদ কাপুরের ছোট ভাই ঈশান খাট্টারসহ অনেকে সাংবাদিকদের ক্যামেরায় ধরা পড়েন। উল্লেখ্য, শহিদ ও মিরা কাপুরের ইতোমধ্যে একটি ২ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে। নবজাতকটি তাদের দ্বিতীয় সন্তান। ২০১৫ সালে মিরা কাপুরকে বিয়ে করে নিজের দাম্পত্য জীবন শুরু করেন এ তারকা। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শহিদ জানান, আমি অনেক ভাগ্যবান যে আমি মিরাকে বিয়ে করেছি। সে একদম সাধারণ একটি মেয়ে। পরিচয়ের পর আমরা দ্রুত একে অপরকে পছন্দ করে ফেলি এবং পরিবারের সম্মতিতে দুজনে বিয়ে করে ফেলি। ঈশ্বরের কৃপায় বিয়ের তিনটি বছর আমরা খুব ভালভাবে পার করেছি। তিনি আরো বলেন- আমার মেয়ে মিশার জন্মের সময় আমি কয়েক মাস ছুটি নিয়েছিলাম। এবারও সেই পরিকল্পনাই ছিল। কিন্তু আমার নতুন ছবির জন্য সেটা আর সম্ভব হলো না। নবজাতকের আগমনে সবাই শহিদ ও মিরাকে জানাচ্ছেন শুভেচ্ছা। অভিনেত্রী আলিয়া ভাট খুশি প্রকাশ করে তার ইন্সটাগ্রাম একাউন্টে পোস্ট শেয়ার করে শহিদকে শুভেচ্ছা জানান।

শাহরুখ খান : হিরো থেকে জিরো

বিনোদন বাজার ॥ শিরোনামেই চমক উঠছে নিশ্চয়ই। ভুল হল না তো কোথাও? উত্তরে বলা যায়, মোটেই নয়। শিরোনাম ঠিকই আছে। বলিউড বাদশা শাহরুখ হিরো থেকে জিরোতেই নেমে এসেছেন। ক্যারিয়ারের শুরুটা ছিল এন্টি হিরো চরিত্রে অভিনয় দিয়ে। এরপর হিরো। দীর্ঘদিন পর্দা কাঁপিয়েছেন হিরো হয়েই। এবার সেই শাহরুখ খানই জিরো হয়ে আসছেন পর্দায়। তাও একেবারে বামুন হয়ে! বলিউড বাদশার মুক্তি প্রতীক্ষিত ছবির কথাই বলা হচ্ছে। নাম ‘জিরো’।শাহরুখের কোনো ছবিই ২০১৭ সালে বক্স অফিসে ভালো করতে পারেনি। ‘কিং’-এর পাশাপাশি যাকে ‘ডন অব বলিউড’ কিংবা ‘রোমান্স সম্রাট’ও বলা হয়ে থাকে। নিজের সেরা সময়টায় তিনি ছিলেন বলিউডের সবচেয়ে বড় নায়ক।দুঃখজনক হলেও সত্যি, তার অভিনীত সর্বশেষ ছবিগুলোর কোনোটাই দর্শক কিংবা ভক্তদের সন্তুষ্ট করতে পারেনি। ‘ফ্যান’, ‘দিলওয়ালে’ কিংবা ‘জব হ্যারি মেট সেজাল’ ছবিগুলো উল্টো দর্শকদের বিরক্তি উৎপাদন করেছে!

শাহরুখ খানের কাছ থেকে এমনটা তারা মোটেও আশা করেন না। যেখানে প্রতিদ্বন্দ্বী সালমান খান একের পর এক সুপারহিট উপহার দিয়ে যাচ্ছেন! বিষয়টি নিয়ে শাহরুখও চিন্তা করেন। রাজত্ব ধরে রাখতে হলে ব্যতিক্রম কিছু তাকে করতে হবে। এ চিন্তা থেকেই একেবারে হিরো থেকে জিরো হয়ে আসছেন। চলতি বছরের শেষের দিকে শাহরুখ খান অভিনীত ‘জিরো’ নামে একটি ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। অনেকে মনে করছেন এ ছবিতে শাহরুখ আবার পুরনো যশ নিয়ে ফিরবেন। দর্শকরা আবার নতুন করে তাদের প্রিয় নায়ককে দেখতে পাবেন। সর্বশেষ ‘জব হ্যারি মেট সেজাল’ দর্শকদের নিদারুণ সমালোচনার শেলে বিদ্ধ হয়েছেন। এখন প্রশ্ন উঠেছে শাহরুখের ব্লকবাস্টার উপহার দেয়ার ক্ষমতা নিয়ে। তবে কী শাহরুখ খান সাম্রাজ্যের যুদ্ধে হেরে যাচ্ছেন? কারণ সালমান ও আমির খান একের পর এক ব্লকবাস্টার ছবি উপহার দিয়ে চলেছেন। ‘জিরো’র ট্রেলারে দেখা গেছে শাহরুখ এক বামুনের ভূমিকায়।আনন্দ এল রাই পরিচালিত ‘জিরো’তে বামুন শাহরুখকে দেখে মনে হচ্ছে তিনি ‘হিরো’ পরিচয় থেকে বেরিয়ে আসতে চাইছেন। শাহরুখ নিজেই বহুবার স্বীকার করেছেন, তিনি হচ্ছেন এমন এক তারকা, যিনি নিজের তারকাখ্যাতির তলে চাপা পড়েছেন।তাই জিরোতে তার এ উদ্যোগ ভালো ফল আনবে বলেই অনেকে আশা করছেন। শুধু শারীরিক আকৃতি পরিবর্তনই নয়, শাহরুখ জানিয়েছেন জিরোতে তার চরিত্রটি এক ছ্যাঁচড় প্রকৃতির মানুষের। সমালোচকরা বলেছেন, এটা নিশ্চিত যে শাহরুখ তার স্টারডম ভাঙতে চাচ্ছেন। জিরোর জন্য পরিশ্রম করছেন। এখানে তিনি আবারও অভিনেতা হয়ে উঠতে চাইছেন। কিন্তু সেই পুরনো ছকে কতটা তিনি সফল হবেন, সেটা নিয়ে পর্যবেক্ষকরা সন্দিহান।সমালোচকরা মনে করেন, শাহরুখ হচ্ছেন বলিউডের টম ক্রুজ। দেখতে বেশি সুন্দর এবং অনেক বড় তারকা- এ দুইয়ের চাপে অভিনেতা শাহরুখ যেন আর জায়গা করে উঠতে পারছেন না।তবে দু’বছর আগে যেটা শাহরুখের জন্য চিন্তা করাই সম্ভব ছিল না, সে রকম কিছু এখন তিনি করতে যাচ্ছেন জিরোতে। তাই এ গ-ি ভাঙাকে সমালোচকরা প্রশংসা করছেন। বাকিটা দেখা যাবে চলতি বছরের ডিসেম্বরে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘জিরো’তে।

প্রিয়াঙ্কা গোপের ‘ভুল’ প্রকাশ

বিনোদন বাজার ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন প্রিয়াঙ্কা গোপ। আধুনিক গান গেয়েও তিনি শ্রোতাদের মন কেড়েছেন। দীর্ঘদিন পর নতুন করে গান প্রকাশ হলো এ শিল্পীর। গানটির শিরোনাম ‘ভুল’। সময়ের চাহিদায় গানটির নান্দনিক একটি ভিডিও নির্মাণ করা হয়েছে। ‘ভুল তো মানুষেরই হয়, তাই বলে ভাঙবে হৃদয়’ রোমান্টিক ও বিরহ কাতর এমন কথার গানটি সম্প্রতি প্রকাশিত হলো সেভেনটিউনসের ইউটিউব চ্যানেলে। গীতিকার কবির বকুলের কথায় গানটির সুর ও মিউজিক করেছেন শেখ জসিম। গেয়েছেন উচ্চাঙ্গসঙ্গীত ও নজরুল সঙ্গীতশিল্পীও শিল্পী প্রিয়াঙ্কা গোপ। গানটি প্রসঙ্গে প্রিয়াঙ্গা গোপ বলেন, ‘আমি মূলত উচ্চাঙ্গসঙ্গীত শিল্পী। আমি মনে করি আমার শ্রোতারা বেশ নির্বাচিত। সাধারণত আমি যে ধারার গান করি এটি তার বাইরের নয়। বকুল ভাই দারুণ সুন্দর করে লিখেছেন। সেই সঙ্গে গানটির সুর ও মিউজিকও চমৎকার হয়েছে। আশা করি গানটি দর্শকদের হৃদয় ছুঁয়ে যাবে।’

প্রিয়াংকা-নিক সম্পর্ক নিয়ে কী বললেন নিকের সাবেক প্রেমিকা?

বিনোদন বাজার ॥ গত ১৮ আগস্ট মুম্বাইয়ে নিজের বিলাসবহুল বাংলোয় মার্কিন পপস্টার নিক জোনাসের সঙ্গে বাগদান সেরেছেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়া। এখন কবে নাগাদ বিয়ের পিঁড়িতে তারা মালাবদল করবেন সে দিনক্ষণের দিকে তাকিয়ে আছে প্রিয়াংকাভক্ত ও বলিমহল। ইতিমধ্যে প্রিয়াংকা-নিক জুটি নিয়ে বলিতারকারা ভিন্ন ভিন্ন মত দিয়েছেন। এই বিয়ে নিয়ে খুশি হননি বলিউড সুপারস্টার সালমান খান সে কথাও জানেন সিনেপ্রেমীরা।তবে প্রিয়াংকা ও নিকের সম্পর্ক নিয়ে নিকের সাবেক প্রেমিকা কী বললেন জানেন?সম্প্রতি এ বিষয়ে মুখ খুললেন মার্কিন পপস্টারের সাবেক প্রেমিকা অলিভিয়া কাল্প।তিনি বলেন, আমাকে ছেড়ে নিকের এ নতুন সম্পর্কে জড়ানোয় মোটেই অবাক হইনি। রুপালিপর্দার জগতটাই এমন। কে কখন নতুন সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে তার কোনো ঠিক-ঠিকানা নেই। এই হবু দম্পতিকে অভিনন্দনও জানান তিনি। নিকের এ সাবেক প্রেমিকা আরও বলেন, প্রিয়াংকা ও নিকের বাগদানে আমি বেশ খুশি হয়েছি। আশা করছি এ বন্ধন অটুট থাকুক। এদিকে সময়টা ভালো যাচ্ছে না জোনাস পরিবারের। ছেলের বাগদানের পর পরই যে দুঃসংবাদটি তারা পান তা হল- নিকের বাবা পল জোনাসের আবাসন কোম্পানি ঋণে ডুবেছে। ২ লাখ ৬৮ হাজার ডলারের মামলায় কোম্পানিটি হেরে গিয়ে এখন দেউলিয়া হওয়ার উপক্রম। হয়তো সে কারণেই বিয়ের তারিখ ঠিক করতে পারছেন না প্রিয়াংকা ও নিকের পরিবার বলে ধারণা করছেন ভারতীয় পাপারাজ্জিরা।

জানা গেলো অভিষেক-কারিশমার বিচ্ছেদের কারণ

বিনোদন বাজার ॥ বর্তমানে বলিউড সুন্দরী ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে সংসার করছেন অমিতাভ বচ্চনপুত্র অভিষেক বচ্চন। ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগে ‘দিল তো পাগল হ্যায়’র নায়িকা কারিশমা কাপুরকে আচমকা বিয়ের প্রস্তাব এবং অনামিকায় হিরের আংটিও পরিয়েছিলেন তিনি। পরে তাদের সম্পর্ক আর বেশি দূর এগোয়নি। কবে কি কারণে তাদের বিচ্ছেদ হয়েছিল সে বিষয়ে মুখ খোলেননি তাদের কেউ জিনিউজ জানায়, বলিউডের দুই হাই প্রোফাইল বাড়ির সন্তানদের বাগদান পর্বের পর বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে করিশমা কাপুর বলেন, অভিষেক বচ্চন নাকি আচমকাই তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। শুধু তাই নয়, অভিষেক যখন তাকে বিয়ের প্রস্তাব এমনকি কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই কারিশমার হাতে পরিয়ে দেন হিরের আংটি। অভিষেকের কাছ থেকে আংটি পরে তিনি আর এ বিষয়ে না করেননি।বচ্চনদের প্রশংসা করে অভিষেককে ‘পারফেক্ট’ মনের মানুষ বলার এক বছরের মাথায় জুনিয়র বচ্চনের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় কারিশমার।কাপুরদের ঘনিষ্টসূত্র জানায়, বিয়ের পর করিশমাকে নিয়ে আলাদা থাকতে হবে অভিষেককে। এমনই নাকি দাবি করেছিলেন তিনি। যা শুনে বেঁকে বসেন অভিষেক বচ্চন। বিয়ের পর বাবা-মাকে ছেড়ে কখনওই তিনি স্ত্রী করিশমার সঙ্গে আলাদা সংসার গড়তে পারবেন না বলে জানিয়েছিলেন। এরপরই অভিষেককে বিয়ের সিদ্ধান্ত থেকে করিশমা সরে আসেন বলে শোনা যায়। এদিকে কারিশমার সঙ্গে বিচ্ছেদের কয়েক মাসের মধ্যেই ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে বিয়ে করেন অভিষেক । অন্যদিকে কারিশমা গাঁটছড়া বাঁধেন শিল্পপতি সঞ্জয় কাপুরের সঙ্গে। তবে সেই বাঁধনও বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। সামাইরা এবং কিয়ানের জন্মের পর পরই সঞ্জয় কাপুরের সঙ্গে বিচ্ছেদের মামলা ঠুকে দেন কারিশমা।