হত্যা মামলা, বাসের মালিক ও চালকের জামিন বাতিল, গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি

কুষ্টিয়ায় শিশু আকিফার মৃত্যু

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া শহরে বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশু আকিফার মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৩০২ ধারা সংযোজন করেছেন আদালত। একই সাথে বাসের মালিক ও চালকের জামিন বাতিল করা হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গত মঙ্গলবার বিকেলে কুষ্টিয়া জেষ্ঠ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক এম এম মোর্শেদ এ আদেশ দেন। আদালতের জিআরও শাখা সূত্র জানায়, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে আকিফার বাবার দায়ের করা মামলায় ৩০২ ধারা সংযোজনের জন্য আদালতে একটি আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুমন কাদেরী। আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত মঞ্জুর করেন। একই সাথে জিআরও শাখার উপপরিদর্শক আজাহার আলী জামিনপ্রাপ্ত দুই আসামী বাসের মালিক ও চালকের জামিন বাতিলের আরেকটি আবেদন করেন। ওই আবেদনটিও মঞ্জুর করেন আদালত। এবং তাদের জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এর আগে বাসের মালিক জয়নাল আবেদীনকে গত রোববার গ্রেপ্তার করা হয়। আর বাসের চালক মহিদ মিয়া গত রোববার কুষ্টিয়া আদালতে আতœসমর্পন করেন। এরপর আইনজীবীর মাধ্যমে তারা জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের দুজনকেই জামিন দেন। জামিনের পরপরই তারা ছাড়া পেয়ে চলে যান। তবে পলাতক রয়েছেন বাসচালকের সহকারী ইউনুচ আলী।

গত রোববার বাস মালিক ও চালক জামিন পাওয়ায় হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন আকিফার বাবা ও মামলার বাদী হারুন অর রশিদ।

গত ২৮ আগষ্ট কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড়ে আট মাসের শিশু আকিফাকে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন তার মা রিনা খাতুন। এ সময় রাস্তার পাশে থেমে থাকা একটি হঠাৎ রিনাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে কোল থেকে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয় আকিফা। ৩০ আগষ্ট বৃহস্পতিবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বাসের ধাক্কা দেওয়ার দৃশ্য সেখানে থাকা সিসি ক্যামেরায় ধারণ হয়। সেই দৃশ্য পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

আরো খবর...