স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করে থানায় ধরা দিলেন স্বামী

ঢাকা অফিস ॥ রাজশাহীতে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করে গভীর রাতে থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেছেন স্বামী। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে রাজশাহীর পবা উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। শহরের দামকুড়া থানায় ধরা দেওয়া ব্যক্তির নাম রেন্টু আহমেদ ওরফে শরিফুল (৩৬)। তাঁর স্ত্রীর নাম লাভলী বেগম (২৮)। শরিফুলের বাড়ি উপজেলার কলার টিকর গ্রামে। গৃহবধূ লাভলী একই উপজেলার সাইরপুকুর গ্রামের বাবলু মিয়ার মেয়ে। দামকুড়া থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রথমে শরিফুল ঘুমন্ত স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন। অচেতন হওয়ার পর গলা ও পায়ের রগ কেটে স্ত্রীকে খুন করেন তিনি। এরপর গোসল করে নতুন কাপড় পরে রাত সাড়ে তিনটার দিকে বাড়ি থেকে প্রায় ছয় কিলোমিটার দূরে দামকুড়া থানায় এসে হাজির হন। স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করলে তাঁকে আটক করে পুলিশ। দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, ডিউটি অফিসারের কাছে ঘটনা শুনে প্রথমে লোকটিকে পাগল ভেবেছিলেন তিনি। কিন্তু পরে শরিফুলের কথা অনুযায়ী তাঁর বাড়িতে গিয়ে চৌকির নিচ থেকে চাকু ও রক্তমাখা কাপড় উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি আরও বলেন, আত্মসমর্পণের আগে দুই সন্তানের ব্যাপারে ভাইয়ের কাছে একটি চিঠি লিখে রেখে গেছেন শরিফুল। শরিফুলকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি মাজহারুল ইসলাম। লাভলীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি। এ ঘটনায় লাভলীর বাবা শরিফুলের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন।

আরো খবর...