সিরাজুল হক মুসলিম হাইস্কুলের প্রয়াত প্রধান শিক্ষক ওয়ারেস হোসেন স্মরণে সভা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সিরাজুল হক মুসলিম মাধ্যমিক বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের আয়োজনে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাহিত্য-অনুরাগী স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক ওয়ারেস হোসেন স্মরণে সভা গত শুক্রবার বিকাল ৪টায় সময় অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো: শাহ্ আজম শান্তুনুর সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরির্ষদের সভাপতি এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী, প্রধান শিক্ষক নীলিমা আক্তার, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডীন ড. সরোয়ার মুর্শেদ রতন, চাঁদ সুলতানা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ও ওয়ারেশ হোসেনের কন্যা শিরিন আখতার।

স্মরণ সভার মূখ্য আলোচক ছিলেন বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক মিলন সরকার। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন স্কুলের শিক্ষক মওলানা মো: রফিকুল ইসলাম।

প্রাক্তন ছাত্র আতিক আল হেলাল ও কাজল তালুকদারের সম্পাদনায় প্রয়াত প্রধান শিক্ষক ওয়ারেশ হোসেনের  নামে একটি স্মারকগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। স্মরণ সভার শুরুতে স্মারক গ্রন্থটি প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ উন্মোচন করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে পৌর মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, কৃতি ব্যক্তিগন জন্মগ্রহন করেন কম। ওয়ারেশ হোসেনের মত সৎ ও নিষ্ঠবান শিক্ষকের বড়ই অভাব। তিনি ছিলেন একজন কঠোর প্রশাসক ও প্রতিষ্ঠানের কর্ণধর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মানেই ওয়ারেশ হোসেন এমনটিই ছিল তৎকালীন সময়ে। তিনি আরও বলেন, একজন আদর্শ শিক্ষক ছাড়া আদর্শ জাতি গড়ে উঠতে পারেনা। বর্তমানে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টাকার মুল্যায়ন করা হচ্ছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিনত হয়েছে। এছাড়াও তার স্মৃতি বিজড়িত অনেক কথা প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন। স্মরণ সভার সভাপতি প্রফেসর ড. মো: শাহ্ আজম শান্তুনু বলেন, মহৎ প্রাণ ব্যক্তিগন কখনো মৃত্যুবরন করেন না। শিক্ষার জগতে তিনি ছিলেন একজন আলোকবর্তিকা। তিনি সমাজকে আলোকিত করতে চেয়েছিলেন। আতিক আল হেলালের উপস্থাপনায় কাজল তালুকদার স্বাগত বক্তব্য রাখেন। বিশেষ অতিথিগন ওয়ারেশ হোসেনের ত্রিশ বছরের শিক্ষকতা জীবনের স্মৃতি বিজরিত অনেক কথা তুলে ধরেন উপস্থিত সকলের সামনে। প্রাক্তন ছাত্রদের মধ্যে তৌদিুল ইসলাম জামাল, আক্তার হোসেন ফিরোজ, কে এম শাহীন রেজা, ইব্রাহিম খলিল, খাইরুল ইসলাম, কাজী সাইফুদ্দিন বাপ্পী, জুঁই খাতুন, সুমন হাসান, আব্দুস সিদ্দিক, মামুন আল মাসুদ, চৌধুরী নাজমুল পারভেজ, নাইমুদ্দিন লিটন, ইলিয়াস হোসেন, আবু আকরাম, শামীম মুসা, রমেশ চন্দ্র দত্তসহ আরোও অনেকে তাঁর স্মৃতি চারণ করে বক্তব্য রাখেন। উল্লেখ্য গত ২০ এপ্রিল বার্ধক্যজনিত কারনে সকলের প্রানপ্রিয় এই শিক্ষক মৃত্যুবরন করেন।

 

আরো খবর...