মানব বর্জ্যব্যবস্থাপনায় দেশে ও বিদেশে সুনাম অর্জন করেছে কুষ্টিয়া পৌরসভা

কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০ বছর পূর্তির আলোচনায় সুলতানা আফরোজ

অতিরিক্ত সচিব সুলতানা আফরোজ বলেছেন, এই জেলার মাটি ও মানুষের সাথে আমার গভীর সম্পর্ক রয়েছে। তাইতো প্রাণের টানে ফিরে আসি কুষ্টিয়াতে। কুষ্টিয়ার মেয়ে হিসেবে আমি গর্ভবোধ করি। কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র মহোদয় আমার নিকট আতœীয়। শৈশব থেকেই মেয়র আনোয়ার আলী ও এই পৌরসভাকে আমি দেখে আসছি। তিনি বলেন, পৌরসভার ১২৫ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে আমার বাবাকে সম্মানীত করা হয়েছিল, আমি তখন বাবা সাথে ঐ অনুষ্ঠানে এসেছিলাম। তিনি আরো বলেন, আলোকিত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে মেয়র আনোয়ার আলী শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে থাকেন। তাছাড়া পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও গোছালো শহর উপহার দিয়েছে  পৌরবাসীকে। আজ কুষ্টিয়া পৌরসভা দেশের মডেল পৌরসভা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় দেশে ও বিদেশে সুনাম অর্জন করেছে। আর এই সবকিছুর পেছনে যার কৃতিত্ব তিনি কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী। তিনি আরোও বলেন, কুষ্টিয়া পৌরসভা খুব শিঘ্রই সিটি করপোরেশন ঘোষনা হবে বলে আমি আশা করি। কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষ্যে ১৩তম দিনের আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অর্থ মন্ত্রণালয়ের, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সুলতানা আফরোজ এসব কথা বলেন। কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মুসতানজীদ। আলোচনা করেন কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক ট্রেজারার ড. আনোয়ারুল করিম এবং বিশিষ্ট কবি ও গবেষক বিলু কবির। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন  কুষ্টিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর হেলাল উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. মুসতানজীদ বলেন, কুষ্টিয়া পৌরসভা ও আনোয়ার আলী এক অবিচ্ছেদ্দ নাম। শুধু বাংলাদেশেই নয় পৃথিবী অনেক জায়গা এই কুষ্টিয়া নাম লেখা আছে। অনেক সমাজ সেবীর জন্ম এই কুষ্টিয়াতে। আমাকে সম্মানিত করার কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র ও পৌরসভার সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আলোচনা সভায় আলোচক ড. আনোয়ারুল করিম বলেন, স্বাধীনতা সূর্যদয় হয়েছিল এই কুষ্টিয়াতে। প্রায় ৬৮ বছর ধরে কুষ্টিয়া ও কুষ্টিয়া পৌরসভাকে দেখে আসছি। আনোয়ার আলী আমার অত্যান্ত স্নেহের। তিনি বলেন, মেয়র একজন সৃষ্টিশীল মানুষ। চার বার চেয়ারম্যান, মেয়র নির্বাচিত হয়েছে। একটি জেলাকে উন্নত করতে হলে রাজনৈতিক ব্যাক্তি ও সচেতন মানুষের সমন্যয় প্রয়োজন। কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র এই কাজটি করে চলেছে। তিনি আরোও বলেন, মেয়র আনোয়ার আলী আমাদেরকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে ও ক্রমপর্যায়ে তার বাস্তবায়ন করছে। সভাপতির বক্তৃতায় মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, পৌরসভার ১৩ দিন আলোচনা সভায় অনেক জ্ঞানী, গুনী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের আমন্ত্রন করেছিলাম। অংশগ্রহনকারী অতিথীদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। মেয়র আরো বলেন, অতিথীবৃন্দ প্রতিদিন গুরুত্বপূর্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন ও বিভিন্ন তথ্য প্রদান করেছেন। যা আপনাদের অনেকের জানা ও অজানা ছিল। বিশেষ করে আমাদের তরুন প্রজন্মকে মানবিক মূল্যবোধ সৃষ্টির জন্য আমাদের এই আয়োজন। কারন আগামীতে তরুন প্রজন্মকেই কুষ্টিয়া পৌরসভা সহ বাংলাদেশের পরিচালনা দায়িক্ত বহন করতে হবে। আলোচনা শেষে ভারতীয় শিল্পি ও ইন্ডিয়ান আইডলদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গানে গানে মাতিয়ে তোলেন দর্শকদের। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন শহর পরিকল্পনাবিদ রানভীর আহমেদ এবং উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাবিনা ইসলাম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...