বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ আজ

বৃষ্টির শঙ্কার মধ্যে

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দুপুরের দিকে মাঠে এল শ্রীলঙ্কা দল। ড্রেসিং রুম থেকে মাঠে নামার পথে পরিচিত বাংলাদেশি সংবাদকর্মীদের দেখে এগিয়ে এলেন চন্দিকা হাথুরুসিংহে। কুশলাদি বিনিময়ের পর শ্রীলঙ্কান কোচ ভ্রু কুঁচকে তাকালেন আকাশের দিকে, “মেঘলা আকাশ, আজ তো বৃষ্টি আছে পূর্বাভাসে, কী যে হয়!” তার একটু আগে সংবাদ সম্মেলনে বৃষ্টি নিয়ে শঙ্কার কথা বলে গেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজাও। ব্রিস্টলে এবারের বিশ্বকাপের আগের ম্যাচটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে মঙ্গলবার বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচেও বৃষ্টির শঙ্কা আছে দিনজুড়ে। দুর্ভাবনায় তাই দুই দলই। বিশ্বকাপ অভিযানে সামনে এগোনোর পথচলায় যে ম্যাচগুলিতে জয় সম্ভাব্য ধরে নিয়েছে দুই দলই, সেই তালিকায় নিশ্চিতভাবেই আছে এই ম্যাচ। বৃষ্টি হানা দিলে চোট লাগার কথা দুই দলের ড্রেসিং রুমেই। ম্যাচের আগে একটা স্বস্তি অবশ্য বাংলাদেশ দলের ছিল। টানা দুই ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন বৃষ্টিতে ব্যহত হওয়ার পর এই ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন পুরোপুরি করা গেছে। সোমবার বাংলাদেশের অনুশীলনের সময় রোদ ও কালো মেঘের খেলা চলেছে, তবে বৃষ্টি নামেনি। তবে পর দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাস জেনে উৎকণ্ঠার ছাপ বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফির কণ্ঠে। এই ম্যাচে জয়টা যে খুব করে চাইছে দল! “আশা করছি পুরো ম্যাচ হবে। ম্যাচ না হলে আমাদের জন্য সমীকরণ অনেক কঠিন হয়ে যাবে। ম্যাচ হওয়া খুবই প্রয়োজন। আগের দুই ম্যাচের একটি জিতে থাকলে হয়তো এতটা প্রয়োজন নাও হতে পারত। এখন খুবই প্রয়োজন ম্যাচ হওয়া। আমরা চাচ্ছি ম্যাচটা যেন হয়।” ম্যাচ হওয়াটা কম জরুরি নয় শ্রীলঙ্কার জন্যও। ব্রিস্টলেই পাকিস্তানের বিপক্ষে তাদের আগের ম্যাচ ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। আরেকটি ম্যাচেরও একই পরিণতি হলে সমীকরণ কম কঠিন হবে না তাদের জন্যও। কোচ হাথুরুসিংহের শঙ্কা যেমন এখানকার আবহাওয়া নিয়ে, আশার জায়গাও সেটিই। “ইংল্যান্ডে অনেক সময়ই আবাহাওয়ার পূর্বাভাস বদলে যায়। কালকেও তেমন কিছু হলে মন্দ হয় না!”

আরো খবর...