ফেন্সিডিল মামলায় মাইক্রো চালকসহ ২জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের রায়

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মিরপুর থানায় নিজ হেফাজতে ফেন্সিডিল রাখার অপরাধে দায়ের করা একটি মাদক মামলায় মাইক্রো চালকসহ ২ জনের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল রবিবার দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী এক জনাকীর্ণ আদালতে আসামীদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মিরপুর উপজেলার বালিদাপাড়া গ্রামের হাজি আব্দুল মালেক মন্ডলের ছেলে তাহাজ্জত হোসেন ওরফে সোহেল (৪০) এবং আনারুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে মাইক্রো চালক আমিরুল ইসলাম (২৮)। এছাড়া এই মামলায় চার আসামীর মধ্যে দৌলতপুর উপজেলার আব্দুস সামাদের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক এবং আজহার মোল্লার ছেলে আতিয়ার রহমানের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত। আদালত সূত্রে জানায়, ২০১৭ সালের ১০ আগষ্ট বিকেল পৌনে ৪টায় উপজেলার ধলসা গ্রামে মিরপুর থানা পুলিশের এক মাদক বিরোধী অভিযানকালে একটি মাইক্রোবাস তল্লাসী করে চালকের সীটের নীচ থেকে ২০২ বোতল আমদানি নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ আসামীদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে। জব্দকৃত ফেন্সিডিলসহ আটককৃতদের বিরুদ্ধে মিরপুর থানার এস আই কাজী আবু জুবাইর বাদি হয়ে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের দ:বি: ১৯(১), ৩(খ) ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৬, তারিখ-১০-০৮১৭ইং। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ২৩ অক্টোবর আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন পুলিশ। যা পরে ১১৬/১৮ নং সেসন মামলায় নথিভুক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী কুষ্টিয়া জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, মিরপুর থানায় দায়েরকৃত ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১), ৩(খ) ধারার এই মাদক মামলাটি রাষ্ট্রপক্ষের একাধিক স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমানিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত এই রায় ঘোষনা করেন। একই সাথে অপর দুই আসামীকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন। আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাড. দেওয়ান মাসুদ করিম মিঠু ও এ্যাড. মোহাম্মদ আলী।

আরো খবর...