পাকিস্তানিদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেনি বাংলাদেশ – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, পাকিস্তানিদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেনি বাংলাদেশ। বরং উল্টো তারাই আমাদের লোকজনকে ভিসা দিচ্ছে না। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, যেকেউ ভিসা না পেতে পারেন। ভিসা দেয়ার সময় অনেক কিছুই দেখা হয়। যেমন, কেউ সন্ত্রাস কিংবা উগ্রবাদে জড়িত কিনা। আবার ভিসা পেতে নানা কারণে দেরিও হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেতেও দীর্ঘ সময় লাগে। তবে ভিসা দেয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন। ‘পাকিস্তানিদের ভিসা দেয়া বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ’ বলে বিভিন্ন পত্রিকায় যে খবর ছাপা হয়েছে, তা ভুল আখ্যায়িত করে প্রতিবাদ পাঠানো হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন কর্মকর্তাদের ভিসা দেয়া হচ্ছে না- এমন তথ্য নিয়ে জানতে চাইলে আব্দুল মোমেন বলেন, এটি ঠিক, আমাদের কিছু অফিসারককে ভিসা দেয়া হচ্ছে না। বিশেষত, কনস্যুলার সেকশন। যারা ভিসা দেয়, তাদেরকেই ভিসা দেয়া হচ্ছে না। তাহলে কে কাজ করবে? তবে কেন দিচ্ছে না জানতে চাইলে জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওদেরকে জিজ্ঞেস করুন। আশা করি, যে কেসগুলো স্থগিত আছে, সেগুলো দ্রুত মিটে যাবে। এক্ষেত্রে কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা ওদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। পাকিস্তানের কোনো রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে নেই কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা প্রার্থী হিসেবে একজনকে পাঠিয়েছিলেন। সেটি কোনও কারণে গ্রহণ করা হয়নি। ‘তখন তারা একজন নতুন কাউকে দেবে, এটাই সাধারণ নিয়ম। কিন্তু তারপর তারা কোনও লোক পাঠায়নি। তারা লোক পাঠালে আমরা অবশ্যই বিবেচনা করে দেখবো।’ এছাড়া পাকিস্তানের সঙ্গে সব জায়গায় আমরা একসঙ্গে কাজ করছি জানিয়ে আব্দুল মোমেন বলেন, এ ঘটনায় দুই দেশের মধ্যে কোনো টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়নি।

 

আরো খবর...