নিম্ন মানের পণ্যে ‘ম্যানেজ’ হওয়ার সুযোগ নেই – শিল্পমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ নিম্ন মানের খাদ্যপণ্যের বিষয়ে কোনো আপস করবেন না বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেছেন, নিম্নমানের পণ্য নিয়ে ‘ম্যানেজ’ করার সময় এখন আর নেই। বিএসটিআইর মানের পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ ১৮টি প্রতিষ্ঠানের ৫২টি খাদ্যপণ্য বাজার থেকে তুলে নেওয়ার কার্যক্রম চলার মধ্যে গতকাল সোমবার বিএসটিআই মিলনায়তনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন হুমায়ুন। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন বিএসটিআই সম্প্রতি পরীক্ষার পর জানায়, বাজারে থাকা ১৮টি কোম্পানির ৫২টি খাদ্যপণ্য নিম্ন মানের বলে পরীক্ষা করে দেখেছেন তারা। এই ১৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কয়েকটি নামি প্রতিষ্ঠানও রয়েছে। বিএসটিআইর পরীক্ষা প্রতিবেদন প্রকাশের পর এক রিট আবেদনে হাই কোর্ট সেই খাদ্যপণ্যগুলো বাজার থেকে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেয়। ওই সব পণ্য উৎপাদন বন্ধ রাখার আদেশও আসে আদালত থেকে। বিশ্ব মেট্রেলজি দিবসের আলোচনায় শিল্পমন্ত্রী বিএসটিআইর প্রশংসা করে বলেন, “ধন্যবাদ জানাই, তাদের কার্যক্রমে ইতিমধ্যে জনগণের বিবেককে নাড়া দিয়েছে, সাধারণ মানুষের অনেকেই জানত না নিম্নমানের সামগ্রী নিয়ে, তারা কিন্তু এখন নড়েচড়ে বসেছে।” পণ্যের মানের ক্ষেত্রে সরকার এখন দৃঢ় জানিয়ে তিনি বলেন, “একটা সময় ছিল, যেটা ম্যানেজ করার সময়। ম্যানেজ করার সময়টা এখন চলে গেছে। ম্যানেজ করার আর কোনো সুযোগ দেওয়া যাবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন জিরো টলারেন্স।” বিএসটিআইর সক্ষমতা বাড়াতে মানসম্মত ‘টেস্টিং ইউনিট’ তৈরি করে দেওয়ার কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “সেগুলো দিয়ে আপনারা প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় এবং বিভাগে পৌঁছে যাবেন। আমরা আমাদের সাধ্যমতো উন্নতমানের গবেষণাগার করে দিয়েছি, আরও করব।” অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, “পণ্যর মান ঠিক রাখতে প্রতিটি জেলায় আমাদের অফিস স্থাপন করতে হবে। অফিসগুলোতে জনবল বৃদ্ধি করতে হবে। ব্যবসায়ীদের সৎ হতে হবে।” অনুষ্ঠানে শিল্প সচিব মো. আবদুল হালিম, বিএসটিআই মহাপরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন বক্তব্য রাখেন।

 

আরো খবর...