দৌলতপুরে টমেটো চাষে সাফল্য পেয়েছেন চাষীরা

কাঁচা টমেটো পাকানো হচ্ছে বিষাক্ত কেমিকেল দিয়ে

শরীফুল ইসলাম ॥ শীতকালীন সবজি টমেটো চাষে বেশ সাফল্য পেয়েছেন কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের চাষীরা। এটি অর্থকরী ফসল হিসেবেও গণ্য করা হয়। আর এ অঞ্চলের টমেটো স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে তা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হচ্ছে। উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে প্রতি বিঘা জমিতে সমপরিমানের চেয়ে বেশী অর্থ লাভ হচ্ছে বলে টমেটো চাষীরা জানিয়েছেন। চলতি শীত মৌসুমে দৌলতপুরে ১৩৬ হেক্টর জমিতে চমোটো চাষ হয়েছে। যা গত বছরের চেয়ে বেশী। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবছর দৌলতপুরে টমেটোর ফলনও বিগত বছরের চেয়ে ভাল হয়েছে। প্রতি বিঘা জমিতে টমেটো চাষে খরচ হয়েছে ১২হাজার টাকা আর তা বিক্রয় হয়েছে বা হচ্ছে ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত। যা উৎপাদন খরচের চেয়ে বেশী। বর্তমানে খুচরা বাজারে টমেটো প্রতি কেজি বিক্রয় হচ্ছে ২০টাকা করে। তবে হঠাৎ করে স্থানীয় বাজারে টমেটোর দাম পড়ে যাওয়ায় লাভের অংশে ভাটা পড়েছে বলে কৃষকরা অভিযোগ করেছেন। উপজেলার সবজি চাষ খ্যাত আদাবাড়িয়া এলাকার রমজান আলী নামে এক টমেটো চাষী জানান, সে এবছর এক বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছে যার খরচ হয়েছে ১২হাজার টাকা। গতকাল পর্যন্ত সে ওই জমি থেকে ৩০ হাজার টাকার টমেটো বিক্রয় করেছে। অপরদিকে একই এলাকার একরামুল হক নামে অপর টমেটো চাষী অভিযোগ করেন, হঠাৎ করেই টমেটোর দাম কমে যাওয়ায় তার লাভের অংশ কমে যাচ্ছে। এদিকে বাজারের চাহিদা মিটাতে কাঁচা টমেটোতে বিষাক্ত কেমিকেল ¯েপ্র করে তা পাকিয়ে বাজারজাত করা হচ্ছে। আর এমন অভিযোগে পুলিশ টমেটোর ক্ষেতে অভিযান চালিয়ে কেমিকেল মেশানো বস্তাভর্তি টমেটো আটকসহ কৃষকদের নজরদারিতে রেখেছে। তবে কেমিকেল মেশানো বস্তা ভর্তি টমেটো আটক করা হলেও স্থানীয় দালাল চক্রের মাধ্যমে অর্থের বিনিময়ে আটক হওয়া সেসব বস্তা ভর্তি টমেটো কৃষকদের কাছে ফেরত দিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলেও এলাকাবাসী জানিয়েছে। টমেটো চাষের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য কৃষকদের প্রয়োজীয় প্রনোদনা ও পরামর্শ দেওয়ায় শীতকালীন সবজি টমেটো চাষ ভাল হয়েছে এবং কৃষকরা অর্থকরী শীতকালীন সবজি ফসল টমেটো চাষে লাভবান হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের দৌলতপুর কৃষি কর্মকর্তা এ কে এম কামরুজ্জামান। সরকারী প্রনোদনা বেশী দেওয়ার পাশাপাশি কৃষকরা ন্যায্য মূল্য পেলে এ অঞ্চলের কৃষকরা শীতকালীন সবজি টমেটো চাষে আরো আগ্রহী হয়ে উঠবে। সেক্ষেত্রে তামাক চাষ অধ্যুষিত  দৌলতপুরে তামাক চাষ হ্রাস পাবে। আর এমনটাই মনে করেন এ অঞ্চলের সচেতন মহল।

 

 

 

 

আরো খবর...