দেশের জনসংখ্যাকে জনশক্তি হিসেবে রূপান্তরিত করতে হবে

কুষ্টিয়ায় বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসের অনুষ্ঠানে হাসান হাবিব

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় জাকজমক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস-২০১৮ উদযাপিত হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় ও কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত দিবসটি উদযাপনের লক্ষে গতকাল সকালে কালেক্টরেট চত্বরে বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাঃ রওশন আরা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হাসান হাবিব, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোমিনুর রশিদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তরফদার সোহেল রহমান, জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক সরদার মোহাম্মদ হান্নানসহ জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিনিধি ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কেন্দ্রে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দিবসটির এবারকার প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল  “পরিকল্পিত পরিবার সুরক্ষিত মানবাধিকার”। জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপপরিচালক সরদার মোহাম্মদ হান্নানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হাসান হাবিব বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তরফদার সোহেল রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল¬াহ, বিএমএ কুষ্টিয়ার সাধারন সম্পাদক ডাঃ আমিনুল হক রতন ও এফভিটিআই কুষ্টিয়ার প্রিন্সিপাল আব্দুস সামাদ তালুকদার। বক্তব্য রাখেন দিশা এনজিওর প্রতিনিধি, ব্র্যাক কুষ্টিয়া প্রতিনিধি, এফপিএবি কুষ্টিয়ার ম্যানেজার রমা প্রসাদ প্রমুখ।  প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হাসান হাবিব বলেন, দেশকে ভাল কিছু দেয়ার মানষিকতা আমাদের পরিবার থেকেই শুরু করতে হবে। দেশের জনসংখ্যাকে জনশক্তি হিসেবে রুপান্তরিত করতে পারলে আমরা উপকৃত হবো অন্যথায় জনশক্তি আমাদের জন্য মারাত্বক বোঝা হয়ে দাঁড়াবে। তিনি বলেন, পরিবারের সকল সদস্যের সাথে ভাল ব্যবহার করতে হবে। সবাইকে সমমর্যাদা ও সম্মান দিতে হবে। পরিবারের কাউকে খাটো করে দেখার সুযোগ নেই। তিনি বলেন, আমাদের পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীরা আজো অনেক ক্ষেত্রে নির্যাতিত হচ্ছে। পরিবারে একজন নারীর ভুমিকাকে কোনভাবেই ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। তাদের শ্রম ও মেধাই পরিবারের অন্যরা এগিয়ে যাচ্ছে। সন্তাদের লালন পালনের ক্ষেত্রে মেয়েদের ভুমিকা অনেক উর্ধে যা কোন কিছুর সাথে তুলনা করা যাবে না। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাসান হাবিব বলেন- বাংলাদেশ উন্নত দেশের সাথে শামিল হওয়ার পথে তাই আর পিছনে ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই। সরকার পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে অনেক কর্মসুচী হাতে নিয়ে সফল হয়েছে। সরকারের এই সফলতা দেশের জন্য ইতিবাচক। আর এই সফলতার মূলে রয়েছেন আপনারা যারা পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে কাজ করছেন। আগামী দিনগুলো মানুষ আরো সচেতন হবে এবং পরিকল্পিত পরিবার ও সমাজ গঠনে বিশেষ ভুমিকা রাখবে বলে আশা রাখি। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তরফদার সোহেল রহমান বলেন, দেশের বৃহৎ জনসংখ্যার দেশ চীন আজ জনসংখ্যাকে জন শক্তি হিসেবে রুপান্তিত করে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডকে করেছে সমৃদ্ধশালী। তাই আমাদের দেশেও সুযোগ রয়েছে। জনসংখ্যা আমাদের জন্য অশুভ না হয়ে যেন এই জনসংখ্যাকে জনশক্তিতে রূপান্তরের মাধ্যমে দেশের আর্থসামাজিক উন্নœয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে সেদিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে। তিনি বলেন, অজ্ঞতা ও বাল্য বিবাহ আমাদের উন্নয়ন কার্যক্রমে বাঁধা সৃষ্টি করছে। আমরা ইতিমধ্যে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এবং সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করে অনেকটা সফল হয়েছি তার পরেও আমাদের নানান সমস্যা রয়েছে। তিনি বলেন, জনসংখ্যারোধে আমাদের আরো বেশি সচেতন হতে হবে। ব্যাপকভাবে প্রচার প্রচারনা অব্যাহত রাখতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় ইনশাআল¬াহ আমরা একদিন সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে পারবো বলে বিশ্বাস রাখি। সভাপতির বক্তব্যে পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক সরদার মোহাম্মদ হান্নান কুষ্টিয়া জেলার বিভিন্ন কার্যক্রমের বিষয়ে তুলে ধরে বলেন, আমাদের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সরকারের ভিশন সফল করতে আগামীতে আমরা আরো বেশি সফলতা পাবো বলে আশা রাখি। তিনি বলেন, পরিবার থেকে চাপিয়ে দেয়ার মত কিছু নেই। সংকীর্ণতা থেকে আমরা বেরিয়ে এসেছি। আমাদের দেশের মেয়েরা অনেক সচেতন হয়েছে। পরে জেলায় পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমে অভাবনীয় সাফল্য ও কৃতিত্বপুর্ণ বিশেষ অবদান রাখায় বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এমটিএইচ এফটি ডাঃ মুনমুন।

 

আরো খবর...