ঝিনাইদহে মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার দায়ে ২ জনের যাবজ্জীবন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার দায়ে দুইজনকে যাবজ্জীবন দিয়েছে আদালত। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত জেলা জজ প্রথম আদালতের বিচারক এম জি আযম গতকাল মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন। এছাড়া আদালত তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। জরিমানা না দিলে তাদের আরও দুই বছর কারাগারে থাকতে হবে। সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার পুটখালী গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে আতাহার আলী ওরফে আতিক হুজুর ও ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার ভোমড়াডাঙ্গা গ্রামের আনারুলের ছেলে হাবিবুর রহমান। রায় ঘোষণার সময় উভয় আসামি আদালতে ছিলেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার আরও দুই আসামি নাসির সরকার ও ইউসুফ আলীকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত। ২০১৫ সালে জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার ভোমরাডাঙ্গা গ্রামের মোহর আলীর ছেলে মাদ্রাসা ছাত্র মিরাজ হোসেন হত্যা মামলায় আদালত এ রায় দেয়। জজ আদালতের পিপি ইসমাইল হোসেন মামলার নথির বরাতে জানান, ২০১৫ সালের ১৪ মার্চ সন্ধ্যায় মিরাজ গ্রামের একটি মাদ্রাসায় ওয়াজ মাফফিল শুনতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরদিন সকালে গ্রামের মাঠে ভুট্টাক্ষেত থেকে তার ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার চাচা জিন্দার আলী কোটচাঁদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। পিপি ইসমাইল বলেন, সাক্ষ-প্রমাণ শেষে আদালত দুইজনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে। আর দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় দুইজনকে খালাস দিয়েছে।

আরো খবর...