চেলসিতে ফেরার বিষয়টি উড়িয়ে দিলেন ল্যাম্পার্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ সাবেক ক্লাব চেলসিতে পুনরায় ফিরে আসার সম্ভাবনার বিষয়টি অনেকটাই নাকচ করে দিয়েছেন ডার্বি কোচ ফ্র্যাংক ল্যাম্পার্ড। বেশ কিছুদিন ধরেই স্ট্যামফোর্ড ব্রীজে সাফল্য না পাওয়া নতুন কোচ মরিজিও সারির বরখাস্তের বিষয়টি আলোচনায় উঠে এসেছে। সে কারনে অনেকেই ধারণা করছেন সারির সম্ভাব্য উত্তরসূরী হিসেবে হয়তবা ক্লাবের সাবেক তারকা খেলোয়াড় ল্যাম্পার্ডকে দায়িত্ব দেয়া হতে পারে। নিজের প্রথম মৌসুমে সারি চেলসির একের পর এক ব্যর্থতায় বেশ চাপের মুখে আছেন। বিশেষ করে রোববার প্রিমিয়ার লিগে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে চেলসির ৬-০ গোলে বিধ্বস্ত হবার ঘটনা কেউই ভালভাবে নিতে পারেনি। গত ২৮ বছরের ইতিহাসে এটাই ব¬ুজদের সবচেয়ে বড় ব্যবধানে পরাজয়। সে কারনেই ১৩ বছরের বর্ণাঢ্য চেলসি ক্যারিয়ারে ক্লাবের হয়ে সর্বোচ্চ গোল করা ল্যাম্পার্ডকে নিয়ে অনেকেই আশাবাদী হয়ে উঠেছেন। ক্লাব মালিক রোমান আব্রামোভিচ যদি শেষ পর্যন্ত সারিকে সড়িয়ে দেন তবে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে ল্যাম্পার্ডের নামই সামনে উঠে আসবে। ইংল্যান্ডের সাবেক এই মিডফিল্ডারের সহায়তায় চেলসি প্রিমিয়ার লিগ ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপাও জয় করেছে। যে কারনে ক্লাবের অন্যতম সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে অকপটেই ল্যাম্পার্ডের নাম স্বীকার করা হয়। কোচ হিসেবে প্রথম মেয়াদে দ্বিতীয় সারির দল ডার্বির হয়েও ল্যাম্পার্ড যথেষ্ট প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ডার্বি দলটি এখন চ্যাম্পিয়নশীপে উন্নীত হবার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছে। কিন্তু সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে সারির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ল্যাম্পার্ড বলেছেন, ‘আমি এখন ডার্বিতে চাকুরি করছি। এখানে আমরা অনেক পরিশ্রম করছি। বুধবার ইপউইচ টাউন ও শনিবার ব্রাইটনের ম্যাচের দিকেই এখন আমার মূল লক্ষ্য।’ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে চেলসির বিধ্বস্ত হবার ঘটনায় ল্যাম্পার্ড ধৈর্য্য ধারণের অনুরোধ জানিয়েছেন। ক্যারিয়ারের শেষ দিকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য সিটিতে খেলেছিলেন ল্যাম্পার্ড। সিটির কাছে চেলসির এই ধরনের পরাজয়ে হতবাক ল্যাম্পার্ড বলেছেন, ‘১৩ বছর একটি ক্লাবে কাটানোর পর সেই ক্লাবের প্রতি অনুভূতি থাকাটাই স্বাভাবিক। এই ধরনের পরাজয়ে কারোরই কাম্য নয়। এটা মেনে নেয়া সহজ নয়। চেলসির ক্ষেত্রে এই ধরনের ঘটনা সবসময় হয়না, যে কারনে যখন হয় তখন সেটা মেনে নেয়া কঠিন। যদিও এটা ঠিক যে ঐদিন তাদের সামনে অসাধারন একটি প্রতিপক্ষ ছিল। কিছু সময়ের জন্য সিটিতে খেলার অভিজ্ঞতা আমারো হয়েছে। তাদের প্রতিও আমার আবেগ রয়েছে। পেপ গার্দিওলা ও তার খেলোয়াড়রা যা করে দেখিয়েছে তা সত্যিই বিশেষ কিছু। চেলসির জন্য দিনটা কঠিন ছিল। তবে সব বড় দলগুলোর জন্যই ফিরে আসাটা গুরুত্বপূর্ণ। তা যেভাবেই পরাজিত হোক না কেন।’ বর্তমানে প্রিমিয়ার লিগ টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে চেলসি। আর্সেনালের থেকে গোল ব্যবধানে তারা পিছিয়ে রয়েছে। বৃহস্পতিবার ইউরোপা লিগের শেষ ৩২’র প্রথম লেগের লড়াইয়ে মালমোর বিপক্ষে পরবর্তী এ্যাওয়ে ম্যাচে মাঠে নামবে চেলসি।

 

আরো খবর...