গাংনীতে জমি দখল নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় মহিলাসহ ৭ জন আহত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার সাহারবাটি গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় একইপক্ষের ৩ জন মহিলাসহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। দীর্ঘদিনের জমি সংক্রান্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, সাহারবটি গ্রামের বাঙ্গালপাড়ার আব্দুল জব্বার শাহ (৬৫), তার স্ত্রী সরলা খাতুন ( ৫৮), আব্দুল জব্বারের ছেলে সোহেল রানা (৩০), আব্দুল হামিদের স্ত্রী আছিয়া খাতুন (৫৫), আব্দুল হামিদের ছেলে উজ্জ্বল আলী (৩৫), লাল বাবু ওরফে লাল চাঁদ (৩০), লালবাবুর স্ত্রী সোনিয়া খাতুন (২৮), রফিকুলের ছেলে রাসেল আহমেদ (২২)। আহতের গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।  পরে আব্দুল জব্বার ও উজ্জল এর অবস্থা আশঙ্কজনক হলে তাদের কুষ্টিয়া ও নাটোরে রেফার্ড করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ৮ টার সময় সাহারবাটি গ্রামের বাঙ্গাল পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, সাহারবাটি গ্রামের কৃষক জব্বার শাহের বাড়ীর সামনে ৫ শতক খাস জমি রয়েছে। ওই জমি নিয়ে আব্দুল জব্বার এর ভাই আব্দুর রশীদের সাথে প্রতিবেশী মফেজউদ্দীনের ছেলেদের বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে মফেজউদ্দীনের ছেলে শুকুর আলী, রইছদ্দীন, সেন্টু, বাবলুর সাথে প্রায় একযুগ ধরে দেওয়ানী মামলা চলছে। গতকাল শনিবার সকালে শুকুর আলীর নেতৃত্বে রইছদ্দীন, বাবলু, সেন্টু, মজিবর, তইজু, শরিফুল, বাবলু লোকজন নিয়ে গাংনী-কাথুলী সড়কের পার্শ্বের ঐ ৫ শতক জমি দখল করতে যান। ওই জমির ভোগ দখলকারী আব্দুল জব্বার তার শরীকদের নিয়ে বাঁধা দেয়। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ মফেজউদ্দীনের ছেলেরা দেশীয় বাঁশের লাঠি, ফলা, বাটাম, রড, দা নিয়ে হামলা চালিয়ে প্রতিপক্ষ আব্দুল জব্বার পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে তাদের রক্তাক্ত জখম করে। আহত উজ্জ্বল জানায়, আমাদের বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার পার্শ্বের পতিত জমি। আমরা দীর্ঘদিন যাবত সরকারী খাস জমি হিসাবে ভোগ দখল করে আসছি। হঠাৎ আমাদের বাড়ীর রাস্তা বন্ধ করতে জমির ভূয়া কাগজ পত্র দেখিয়ে লাঠি সোটা হাতে দলবল নিয়ে জমি দখল করতে আসে। এ নিয়ে হামলাকারী দলের শুকুর আলী জানান, উক্ত জমি আমাদের  নিজস্ব। আমরা সরকারের কাছ থেকে বন্দোবস্ত নিয়েছি। এমনকি একযুগ ধরে মামলা করে আমরা  রায় পেয়ে জমি দখলে গিয়েছি। আমাদের জমি নিয়ে যদি জেল খাটতে হয় তবুও জমি ছেড়ে দিব না। গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার (পিপিএম) জানান, ঘটনার বিবরণ শুনেছি, অভিযোগও পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

 

আরো খবর...