কুষ্টিয়ায় নুসরাত হত্যা ও মুন্নীকে আত্মহত্যা প্ররোচনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে নৃশংস হত্যাকান্ড ও চাঁদনী আক্তার মুন্নীকে আত্মহত্যা প্ররোচনার তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ ও জড়িত সকল অপরাধীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানব বন্ধন করেছে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখা। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় শহরের থানামোড়স্থ বক চত্বরে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে জেলার বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ছাত্র সংগঠন, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ সংহতি জানিয়ে অংশ গ্রহন করেন। সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়া  জেলার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এই প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, একের পর এক নারী, শিশু ও শিক্ষার্থীদের ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন, উত্যেক্তকরন ও হত্যাকান্ডের মতো সহিংসতার ঘটে চলেছে। এসব ঘটনায় ভুক্তভোগীদের ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় অর্পিত দায়িত্ব পালনে সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অবহেলা ও নির্লিপ্ত ভূমিকার কারণে ব্যহত হচ্ছে; যার আরও একটি নির্মম চিত্র ফুটে উঠেছে নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকান্ডের পূর্ব ও পরবর্তী ঘটনার মধ্যদিয়ে। এসব সহিংসতায় জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের মধ্যদিয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব। এসময় নেতৃবৃন্দ কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার কাতলামারি কেবিএইচ হাইস্কুলের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী চাঁদনী আক্তার মুন্নীকে যেসব বখাটেরা দীর্ঘ দুই বছর ধরে উত্যেক্ত ও যৌন হয়রানি করে আত্মহুতি দিতে বাধ্য করেছে সেই সব বখাটেদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিতে যথাযথ তদন্ত করতে হবে পুলিশকে। এছাড়া আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে মিরপুর থানায় করা মামলা তুলে নেয়ার চাপ সৃষ্টিতে যারা মুন্নীর বাড়িতে এবং পরিবার পরিজনের উপর হামলা করেছে তাদেরও আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি দাঁড় করাতে হবে। বক্তারা এসময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানি ও নির্যাতন বন্ধে জেলার সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, গড্ডালিকায় গা না ভাসিয়ে অথবা পুলিশের মতো নির্লিপ্ত না থেকে যে কোন বিদ্যালয় বা কলেজে অধ্যায়নরত কোমলমতি কোন মেয়ে শিক্ষার্থী যৌন হয়রানি ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে এমন সংবাদ পাওয়া মাত্র তাৎক্ষনিক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে উদ্যেগী হতে হবে। প্রয়োজনে বিভাগীয় হস্তক্ষেপের মাধ্যমে দোষী ব্যক্তির শাস্তি ও ভুক্তভোগীর বিচার পাওয়া নিশ্চিত করতে হবে। বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষক নেতা সাহাবুব আলী, কমরেড রফিকুল ইসলাম, অধ্যাপক নাসির উদ্দিন, সিপিবি সভাপতি ওয়াকিল মুজাহিদ, ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা কমরেড হাফিজ সরকার, জাসদ নেতা কারশেদ আলম, সমাজকর্মী সৈয়দা হাবিবা, লেখক ও কবি বিলু কবির, কবি হাসান টুটুল, সাংস্কৃতিক সংগঠক কনক চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা রবিন্দ্রনাথ সেন, ফেয়ার পরিচালক আক্তারুজ্জামান, লেখক ও শিল্পী আলম আরা জুঁই, বীর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুরুর আলম, ছাত্রনেতা লাবনী সুলতানা, প্রথম আলো কুষ্টিয়া প্রতিনিধি তৌহিদ হাসান শিপলু, চ্যানেল-২৪ কুষ্টিয়ার স্টাফ রিপোর্টার শরীফ বিশ^াস, মানবাধিকার কর্মী ও বাংলাভিশন কুষ্টিয়া প্রতিনিধি হাসান আলী প্রমুখ।

আরো খবর...