কুষ্টিয়ার রেষ্টুরেন্টগুলোতে বাহারী ইফতারের আয়োজন

নিজ সংবাদ ॥ বাহারী ইফতারীর আয়োজনে কুষ্টিয়াবাসীর অন্য রকম উপভোগ। জেলার সর্বত্র বিচিত্র ইফতার সামগ্রীর সাথে মানুষেরা নিজেদের মানিয়ে নিয়েছে। বাসা- বাড়ি আর মসজিদের ইফতারের সেই সব আয়োজনের পাশাপাশি হোটেল রেস্তোরা আর পার্টি সেন্টারগুলো প্রতিদিনের ইফতারের আয়োজন জাঁকজমক হয়ে উঠেছে। সময়ের সাথে সাথে কুষ্টিয়া শহরে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে বেশ আগে  থেকেই। ভোজন বিলাসীদের জন্য গড়ে উঠেছে নানা রকমের হোটেল ও রেস্তোরা। আর এই রমজানেও এসব হোটেল ও রেস্তোরা এবং পার্টি সেন্টারগুলোতে ব্যবসা জমে উঠেছে। শহরের পুনাক ফুডপার্ক, পালকী, দিশা টাওয়ার, ডাইন ডিভাইন, খেয়া, চাইনিজ-বাংলা, নূর হোটেল এন্ড রেষ্টুরেন্ট, মৌবন, শিশির, বনফুড, চিলিস চাইনিজ সেন্টার এবং পৌরসভা মিলনায়তনে প্রতিদিনই ইফতারের আয়োজন থাকছে বিভিন্ন অফিস আদালত, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে। ভোজন বিলাসীদের জন্য  ইফতার সামগ্রীতে নতুনত্ব আইটেম নিয়ে উপস্থিত হয়েছে শহরের থানা মোড়ে অবিস্থত ‘ডাইন ডিভাইন রেষ্টুরেন্ট’ এবারই প্রথবারের মত তাদের ইফতার প্রোগ্রামের কার্যক্রম শুরু করে শহরে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এই রেস্টুরেন্টের মালিক  তরুন উদ্যোক্তা রেজাউর রহমান রাজন জানান- শুধু ব্যবসায়ী মনোভাব নয়, সামাজিক দায়বদ্ধতার দিক বিবেচনায় এনে দেশী এবং বিদেশী খাবারের পাশাপাশি এবার ইফতারের আয়োজন করা হয়েছে। সুলভ মুল্যে স্বাভাবিক আইটেমের পাশাপাশি টেংরী কাবাব, শাহী হালিম, বিফ কাবাব, রেশমী জিলাপী, বিফ চাপ, তান্দুরী চিকেন, ডিম বড়া, বিফ ও মাটন হালিম, বিরিয়ানী, কাচ্চি বিরিয়ানী, বিভিন্ন ফলের জুস রয়েছে। সম্পূর্ন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত অভিজাত এই রেষ্টুরেন্টের চিকেন ওপেন। ভোজন রসিকদের সামনেই খাবারগুলো তৈরী করা হচ্ছে। এক সাথে ২শ’ মানুষের যে কোন আয়োজন করা সম্ভব। তিনি জানান- পুরো রোজায় প্রতিদিনের ইফতারে আমাদের বুক ছিল। একই রকমের পরিবেশ লক্ষ্য করা গেছে শহরের অভিজাত দিশা, খেয়া, পালকী, মৌবন, শিশির, পুনাক ফুডপার্কে। এসব রেষ্টুরেন্টে দেশী-বিদেশী খাবারের সমারোহ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। এছাড়া কুষ্টিয়া পৌরসভার মজিবর রহমান মিলনায়তনে  জেলার বৃহৎ ইফতার পার্টিগুলোর আয়োজন ছিল চোখে পড়ার মত।

আরো খবর...