কমিটি নিয়ে ‘অপরাজনীতি’ চলতে থাকলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা – ছাত্রলীগ সম্পাদক

ঢাকা  অফিস ॥ ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে ফেসবুকে কাদা ছোড়াছুড়ির প্রেক্ষাপটে এ বিষয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেছেন, এই ‘অপরাজনীতি’ চলতে থাকলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন তারা। সম্মেলনের এক বছর পর গত সোমবার ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হয়। বিবাহিত, চাকরিজীবী, মাদকাসক্ত ও মামলার আসামিসহ নানা অভিযোগ থাকা অনেককে কমিটিতে রাখা হয়েছে বলে দাবি করছেন পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতারা। পদপ্রাপ্ত অনেক নেতার বিরুদ্ধে ফেসবুকে নানা অভিযোগ তোলা হয়েছে। ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধেও নানা অভিযোগ তুলে ফেসবুক পোস্ট দেওয়া হয়েছে। বিক্ষুব্ধদের দাবির মুখে ছাত্রলীগ নেতৃত্ব কমিটিতে স্থান পাওয়া ১৭ জনকে ‘দাগি’ হিসেবে চিহ্নিত করার পরও ফেইসবুকে এই আলোচনা থামছে না। বিক্ষুব্ধরা কমিটিতে স্থান পাওয়া ৯৭ জনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলেছেন। এরমধ্যে গত শনিবার বিক্ষুব্ধদের কর্মসূচিতে সামনের কাতারে থাকা নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধেও নানা অভিযোগ ফেসবুকে চলে এসেছে। এই পরিস্থিতিতে গতকাল রোববার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক রাব্বানী বলেন, সবার কাছে একটা জিনিস স্পষ্ট বলছি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ব্যবহার করে যে মিথ্যাচার করা হচ্ছে, সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা হচ্ছে- এটা বলার ভাষা নেই, অত্যন্ত দুঃখজনক। এই অপরাজনীতি বন্ধ হোক-এটা আমরা চাই। আমরা স্পষ্টভাবে বলছি, এরপর আমরা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়া হচ্ছে তাদের কয়েকজন ইতোমধ্যে মানহানির মামলা করেছে। ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের পর কয়েকজনের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তোলা হয়েছে, তার লিখিত দালিলিক প্রমাণ চান গোলাম রাব্বানী। তিনি বলেন, যে প্রমাণ দেবে আমরা অবশ্যই ব্যবস্থা নেব। একজনও আমাদের কাছে কোনো প্রমাণ দেয়নি। যে অভিযোগ করবে আমাদের সংগঠনের যে ফোরাম রয়েছে সেখানে প্রথমে কথা বলবে, এখানে যদি ন্যায়বিচার না পায় তাহলে তারা পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলবে। কিন্তু আমাদের কাছে কোনো লিখিত কোনো অভিযোগ আসেনি, কিসের ভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নেব? দুটি বিষয় স্পষ্ট করছি, যদি আমাদের কাছে কোনো তথ্য-উপাত্তসহ কেউ লিখিত অভিযোগ করে আমরা তাদের দালিলিক প্রমাণ দেখে ক্রস চেক করে ওই শূন্যস্থান পূরণের জন্য তাদের এখানে যোগ্যতা অনুসারে অন্তর্ভুক্ত করব। ছাত্রলীগে কোনো কাদা ছোড়াছুড়ি চান না উল্লেখ করে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা একেবারে পরিবারের মতো থাকতে চাই। ভুল-ভ্রান্তির জায়গা ছিল, আমরা বসব কথা বলব আমরা সকল ভুল-ভ্রান্তির অবসান চাই। তিনি বলেন, “যদি কোনো যোগ্য কিন্তু পদবঞ্চিত থেকে থাকে তাহলে তাদের প্রদানের জন্য নেত্রীর সঙ্গে কথা বলব। এজন্য যে অভিযোগ করবে তাকে অবশ্যই ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে লিখিত প্রমাণ দিতে হবে। এটাই নিয়ম। গত শনিবার গভীর রাতে টিএসসিতে বিক্ষুব্ধ নারী নেত্রীদের ওপর হামলার অভিযোগ নাকচ করেন গোলাম রাব্বানী। গতকাল (গত শনিবার) রাতে কোনো মারামারির ঘটনা ঘটেনি, যা হয়েছে সেটা ‘হট টক’, বলেন তিনি।

আরো খবর...