এ্যাডঃ মিয়া মহম্মদ রেজাউল হকের ইন্তেকাল 

নিজ সংবাদ  ॥ কুষ্টিয়া জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী, সৎ রাজনীতিক সাবেক পিপি, কুষ্টিয়া বারের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সবার প্রিয় মিয়া মোহাম্মদ রেজাউল হক পিপি ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্নাৃৃরাজিউন)।  মৃত্ব্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিল প্রায় ৭০ বছর। মৃত্ব্যকালে তিনি স্ত্রী, দুই পুত্র ও এক কন্যাসন্তানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। সোমবার ১০ জুন সকাল সাড়ে আটটার সময় সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। তিনি গত ১০মে ব্রেইন স্ট্রোক করে প্রথমে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে, পরে ল্যাব এইড হাসপাতালে ও সর্বশেষ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। গতকাল সকালে সড়ক পথে তাঁর লাশ হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন তাঁর কোর্টপাড়াস্থ বাসভবনে এসে পৌছায়। এর পর বাদ আছর কুষ্টিয়া পৌর গোরস্থানে মরহুমের নাজাজে জানাযা শেষে তার গ্রামের বাড়ী কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের খলিসাদা গ্রামের বাড়ী পারিবারিক গোরস্থানে বাদ মাগরিব দাফন সম্পন্ন  হয়।  এ্যাডঃ মিয়া মোহাম্মদ রেজাউল হক দীর্ঘ ৪০ বছর আইনপেশার সাথে জড়িত ছিলেন। শিক্ষাজীবন শেষ করে তিনি আইন পাশ করেন। এর পর তিনি প্রথমে খুলনা জজ কোর্টে আইন পেশা শুরু করেন । ১৯৭৮-৭৯ সালের দিকে কুষ্টিয়া বারে আইন পেশা শুরু করেন। আইন পেশায় অত্যন্ত দক্ষতা ও সততার পরিচয় পাওয়ায় অতি অল্পদিনের মধ্যেই বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। কুষ্টিয়া আইনজীবি সমিতির পর পর দুবার সাধারণ সম্পাদক ও একবার সভাপতি নির্বাচিত হন। এ ছাড়া তিনি কুষ্টিয়া লালন একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন। প্রবীণ এই আইনজীবির মৃত্ব্যতে আইনজীবিসহ বিভিন্ন মহলে শোকের ছায়া নেমে আসে।

আরো খবর...