এরশাদ ‘চোখ মেলেছেন’

ঢাকা অফিস ॥  ছয় দিন ধরে লাইফ সাপোর্টে থাকা জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের চোখ মেলে তাকিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তার ভাই ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এরশাদকে দেখে এসে দুপুরে সাংবাদিকদের এই খবর দেন তিনি। জি এম কাদের বলেন, “অন্য দিনের চেয়ে আজকে তাকে অনেকটা সুস্থ মনে হল। মাথা নাড়াচড়া করছিলেন। আমি সামনে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ডাকলেন, তিনি চোখ মেলে তাকালেন।” মাইডোলিসপ্লাস্টিক সিনড্রোমে (রক্তের ক্যান্সার) আক্রান্ত সাবেক সামরিক শাসক এরশাদকে গত ২২ জুন গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। পরে তার ফুসফুস ও কিডনিতে সংক্রমণ ধরা পড়ে। দুপুরে বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জি এম কাদের সাংবাদিকদের বলেন, এরশাদের ফুসফুসের সমস্যা কমে এসেছে। গত শুক্রবার থেকে এরশাদের ডায়ালাইসিস চলছিল, মঙ্গলবার তা বন্ধ করে স্বাভাবিকভাবে কিডনির কার্যকারিতা পরীক্ষার করেছেন চিকিৎসকরা। তবে তাতে ‘ভালো ফলাফল পাওয়া যায়নি’ বলে জানান জিএম কাদের। তিনি বলেন, “তার (এরশাদের) প্রধান অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলো এখনও ঠিকমতো কাজ করছে না। তার কিডনির পাশাপাশি লিভার ফাংশনও ভালোভাবে কাজ করছে না। রক্তে বিলিরুবিনের মাত্রাও অনেক বেশি। হজম স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় নেই, মোটামুটি অচল। স্যালাইনে কাজ চলছে।” জি এম কাদের বলেন, নতুন করে কোনো সংক্রমন না হলে এরশাদের শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে যাবে বলে চিকিৎসকরা আশা করছেন। “তার অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক। তবে অবস্থার নতুন করে কোনো অবনতি হয়নি।” একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে অসুস্থ হয়ে পড়েন নব্বই বছর বয়সী এরশাদ। পরে সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে চিকিৎসাও করিয়ে আসেন তিনি। এরপর থেকে শারীরিক অসুস্থতার কারণে প্রকাশ্য রাজনৈতিক কর্মকা- থেকে নিজেকে বিরত রেখেছেন এরশাদ। এরমধ্যে একটি ট্রাস্ট গঠন করে তাতে সমুদয় অর্থ-সম্পত্তি দান করেছেন তিনি। এই ট্রাস্টে তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন কেবলমাত্র ছোট ছেলে এরিক এরশাদ। গত সোমবার সন্ধ্যায় খবর আসে, এরিক এরশাদকে মোবাইল ফোনে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

আরো খবর...