উপজেলা নির্বাচনে ভোট উৎসবের মধ্য দিয়ে বিএনপির চক্রান্ত ব্যর্থ হয়ে যাবে – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ‘বিএনপি একের পর এক নতুন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তবে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট উৎসবের মধ্য দিয়ে তাদের সব চক্রান্ত ব্যর্থ হয়ে যাবে।’ উপজেলার ভোট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনকে কঠোর থাকার আহ্বান জানান তিনি। গতকাল শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বঙ্গমাতা পরিষদ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি ট্রাস্টের সাবেক ট্রেজারার প্রয়াত এ এম রফিকের স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘জনগণকে বিএনপি ভয় পায়। এ কারণ ভোট বর্জন করে জনগণ থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে তারা। তবে তাদের ষড়যন্ত্র থেমে নেই।’ ষড়যন্ত্রের পথ পরিহার করে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের সংসদে এসে জনগণের কথা বলার আহ্বান জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘ভোট ছাড়া দেশ চলতে পারে না। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ভোটের কোনো বিকল্প নেই। আওয়ামী লীগ কখনোই ভোট বর্জনের সংস্কতিতে বিশ্বাস করে না। শত প্রতিকূলতা ও বাধার মুখেও আওয়ামী লীগ অধিকাংশ ভোটে অংশগ্রহণ করেছিল।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি তাদের নেত্রীকে জেলে রেখে প্রেস ব্রিফিং ও চক্রান্তকারী দলে পরিণত হয়েছে।’ মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘পচাত্তরের ১৫ আগস্টের স্মৃতি সবার পীড়া দেয়। এখন অগ্নিঝরা মার্চ মাস, স্বাধীনতার মাস। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের সূচনার মাস।আওয়ামী লীগ লড়াই-সংগ্রাম করে দেশ স্বাধীন করেছিল।’ তিনি বলেন, ‘উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে গ্রামাঞ্চলে উৎসব শুরু হয়েছে। আমি নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনকে বলবো, নির্বাচন উৎসবমুখর, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে কঠোরভাবে মনিটরিং করুন। আপনারা নিরপেক্ষ থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও উৎসবমুখর দেখতে চান।’ সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন ও গণতন্ত্র এক সঙ্গে চলছে। তবে গণতন্ত্র-উন্নয়ন ধ্বংস করতে বিএনপি উঠেপড়ে লেগেছে।’ নেতিবাচক রাজনীতি পরিহার করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ইতিবাচক রাজনীতির ধারায় না আসলে বিএনপি ক্রমন্বয়ে রাজনীতি থেকে মুছে যাবে।’ সাংবাদিক এম আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগ নেতা এমএ করিম, বঙ্গবন্ধু একাডেমির মহাসচিব হুমায়ুন কবির মিজি, নজরুল ইসলাম খানসহ সংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

আরো খবর...